বাণিজ্যিক সম্পর্ক বাড়াতে চায় বাংলাদেশ-কাতার

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৭:৫৪, ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:৫৮, ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০২০

রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন মেঘনায় কাতারের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সুলতান বিন সাদ আল-মুরাইখির সঙ্গে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মাদ শাহরিয়ার আলম।বাণিজ্যিক সম্পর্ক বাড়াতে চায় বাংলাদেশ ও কাতার। বাড়াতে চায় উচ্চ পর্যায়ের সফরও। এছাড়া আগামী তিন মাসের মধ্যে দ্বৈত কর পরিহার, বন্দিবিনিময়সহ কয়েকটি চুক্তি সই করতে একমত হয়েছে উভয় দেশ।
সোমবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন মেঘনায় কাতারের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সুলতান বিন সাদ আল-মুরাইখির সঙ্গে বৈঠক শেষে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মাদ শাহরিয়ার আলম এসব কথা জানান।
শাহরিয়ার আলম বলেন, ‘বাণিজ্যিক ক্ষেত্রে কাতারের যথেষ্ট তহবিল আছে বিনিয়োগ করার এবং বাংলাদেশের বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশে কাতার ফান্ড বা কাতার ডেভেলপমেন্ট অথরিটি কীভাবে লাভজনক ব্যবসায় বিনিয়োগ করতে পারে, সে ব্যাপারে কিছু মেকানিজম তৈরি করবো। সে বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে।’
তিনি বলেন, ‘তারা অর্থ দিতে পারে। বাংলাদেশের সঙ্গে মডেলটাও তাই হবে। সরকার যদি কোনও বড় প্রকল্প করে, ব্যবসায়ীরা যদি বড় প্রকল্প করেন, তবে তারা অর্থায়ন করতে পারবে। এ বিষয়গুলোও আলোচনা হয়েছে।’
অভিবাসন বিষয়ে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘কাতারে প্রায় সাড়ে তিন লাখ বাংলাদেশি কাজ করেন। তাদের কাজ কেমন চলছে এবং নতুন কী কী ক্ষেত্রে আমরা মানুষ পাঠাতে পারি এবং ফিফা বিশ্বকাপ ২০২২ সামনে রেখে তাদের নতুন কিছু প্রয়োজন আছে কিনা— সেগুলো নিয়ে আমাদের প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয় তাদের সঙ্গে আরও জোরালোভাবে কাজ করবে।’
চুক্তি সইয়ের বিষয়ে শাহরিয়ার বলেন, ‘আমরা অন্তত তিন থেকে চারটি সমঝোতা স্মারক বা চুক্তি আগামী তিন মাসের মধ্যে সই করবো বলে আশা করি।’ দ্বৈত কর পরিহার, বন্দিবিনিময় চুক্তিসহ অন্যান্য চুক্তি এর মধ্যে থাকবে বলে তিনি জানান।
শাহরিয়ার আলম বলেন, ‘সেখানে অনেক বাঙালি থাকেন এবং অন্য দেশের মতো কেউ যদি অপরাধ করে থাকে, সেখানে সাজার মেয়াদ শেষ হওয়ার পর বা সাজার মেয়াদ দেশে এসে শেষ করতে পারে, সে জন্য এই বন্দিবিনিময় (ট্রান্সফার অজ সেন্টেনসড পারসন) চুক্তি।’
আন্তর্জাতিকভাবে জাতিসংঘসহ অন্যান্য যে নির্বাচন হয়, সে বিষয়ে সহযোগিতার আলোচনা হয়েছে বলে তিনি জানান।

/এসএসজেড/এইচআই/

লাইভ

টপ
X