X
রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪
১ বৈশাখ ১৪৩১

আসন্ন বাজেটে ওয়াশ খাতের বরাদ্দে অগ্রাধিকার দেওয়ার আহ্বান

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
২৩ মে ২০২৩, ১৫:৫০আপডেট : ২৩ মে ২০২৩, ১৫:৫০

আসন্ন ২০২৩-২৪ অর্থবছরে জাতীয় বাজেটে আঞ্চলিক অসমতা হ্রাস ও বৈষম্য নিরসনে ওয়াশ (পানি, স্যানিটেশন ও হাইজিন) খাতে তহবিল বরাদ্দে অগ্রাধিকার দেওয়া জরুরি। যা টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনেরও অন্যতম পূর্বশর্ত।

মঙ্গলবার (২৩ মে) জাতীয় প্রেসক্লাবের আবদুস সালাম হলে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ওয়াটারএইড, পিপিআরসি, ইউনিসেফ, ফানসা, বাউইন, এফএসএম নেটওয়ার্ক, স্যানিটেশন অ্যান্ড ওয়াটার ফর অল, অ্যান্ড ওয়াটার পভার্টি, ওয়াশ অ্যালায়েন্স ইন্টারন্যাশনাল এবং এমএইচএম প্ল্যাটফর্মের প্রতিনিধিরা এ আহ্বান জানান।

সংবাদ সম্মেলনে ওয়াশ খাত-সংশ্লিষ্ট অংশীজনদের পক্ষ থেকে বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ এবং পিপিআরসি চেয়ারম্যান ড. হোসেন জিল্লুর রহমান বলেন, আসন্ন অর্থবছরের জন্য ওয়াশ খাতের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি) বরাদ্দের ক্ষেত্রে আঞ্চলিক বৈষম্য নিরসন এবং সংশ্লিষ্ট সম্প্রদায়ের সম্পৃক্ততাকে অগ্রাধিকার দেওয়া জরুরি। তিনি চর, হাওর ও পাহাড়ি অঞ্চলসহ জলবায়ুগত ঝুঁকির আওতাধীন সুবিধাবঞ্চিত এলাকা এবং আন্তনগর বৈষম্য এই দুটি বিষয়ে আঞ্চলিক বৈষম্য নিরসনের ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

তিনি আরও বলেন, নিরাপদভাবে ব্যবস্থাকৃত শতভাগ পানীয় জল এবং স্যানিটেশন সংক্রান্ত জাতীয় ও এসডিজি লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে একটি বহু খাতভিত্তিক (মাল্টি এজেন্সি) সমন্বয় নীতি অবলম্বনের মাধ্যমে আমাদের মাঝারি শহর (সেকেন্ডারি টাউন) এবং নগরায়ণ প্রক্রিয়ার আওতাধীন গ্রামগুলোতে (আরবানাইজড ভিলেজ) পয়োবর্জ্য (ফিকল স্লাজ) ব্যবস্থাপনার জন্য তহবিল বরাদ্দে গুরুত্ব দেওয়া উচিত, যা টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনেরও অন্যতম পূর্বশর্ত।

ওয়াটারএইডের সহযোগিতায় পিপিআরসি পরিচালিত ওয়াশ খাতে বাজেট বরাদ্দবিষয়ক প্রাপ্ত গবেষণা ফলাফল থেকে দেখা যায়, ওয়াশ খাতে এডিপি বরাদ্দ আপাত ঊর্ধ্বমুখী হলেও বস্তুত পূর্ববর্তী অর্থবছরের তুলনায় এই আনুপাতিক বৃদ্ধির হার (৫ দশমিক ৪৪ শতাংশ) সামগ্রিক বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) বৃদ্ধির হারের (৭ দশমিক ৪ শতাংশ) তুলনায় কম। পারিবারিক আয় ও ব্যয় জরিপ ২০২২ (এইচআইইএস ২০২২) অনুযায়ী শতকরা ৯২ দশমিক ৩২ ভাগ জনসংখ্যা উন্নত টয়লেট সুবিধার আওতাভুক্ত। অন্যদিকে ওপেন ডেফিকেশনের (উন্মুক্ত স্থানে মলত্যাগ) আওতায় এখনও রয়েছে শূন্য দশমিক ৬৯ ভাগ জনগোষ্ঠী।

সংবাদ সম্মেলনে ডিপিএইচই'এর ওয়াশ, ডিআরআর এবং ফিকল স্লাজ অ্যান্ড ওয়েস্ট ম্যানেজমেন্টের (এফএসডব্লিউএম) আওতাধীন প্রকল্পগুলোকে দুর্যোগ ঝুঁকি মোকাবিলায় যোগাযোগ এবং সামাজিক সম্পৃক্ততার মাধ্যমে উন্নত সহনশীলতা গঠনের জন্য ভূয়সী প্রশংসা করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে ওয়াশ বরাদ্দে আন্তনগর বৈষম্যের ফলে বিদ্যমান সমস্যার বিষয়টি তুলে ধরা হয় এবং ২০২৩-২৪ এডিপি বরাদ্দে আরও যৌক্তিক ও ন্যায়সংগত তহবিল বণ্টনের প্রস্তাব করা হয়। আলোচনায় চারটি পানি সরবরাহ ও পয়োনিষ্কাশন কর্তৃপক্ষের (ওয়াসা) জন্য এডিপি বরাদ্দ বৃদ্ধির আহ্বান জানানো হয় এবং এগুলোর মধ্যকার বৈষম্যে নিরসনে নীতিনির্ধারণী পর্যায়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণে গুরুত্বারোপের আশা ব্যক্ত করা হয়। শহর ও গ্রামাঞ্চলের ওয়াশ খাতের বরাদ্দ বৈষম্য মোকাবিলায় এসডিজি লক্ষ্যমাত্রা ৬-এর সঙ্গে সম্পৃক্ত ওয়াশ খাতের অগ্রাধিকার লক্ষ্যমাত্রা (এনপিটি) অর্জনের ওপর জোর দেওয়া হয়। ওয়াশ খাতের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট পরিবেশ, জলবায়ু পরিবর্তন এবং দুর্যোগ সম্পর্কিত উদ্যোগ গঠনে উৎসাহদানের ওপরও এ সময় গুরুত্বারোপ করা হয়।

 এ ছাড়া সংবাদ সম্মেলনে পরিবেশগত পরিচ্ছন্নতা সম্পর্কিত সফল প্রকল্পগুলো পরিবর্ধন, জলবায়ু ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় আরও নতুন নতুন প্রকল্প বাস্তবায়ন এবং জরুরি পরিস্থিতিতে ওয়াশ কার্যক্রম পরিচালনার জন্য বর্জ্য ব্যবস্থাপনা এবং দুর্যোগ ঝুঁকি সংক্রান্ত যোগাযোগ ও সামাজিক সম্পৃক্ততা বৃদ্ধির (আরসিসিই) জন্য তহবিল বরাদ্দের সুপারিশ করা হয়।

সংবাদ সম্মেলন শেষে আয়োজক ওয়াশ সেক্টর নেটওয়ার্কের পক্ষ থেকে সংশ্লিষ্ট খাতের কল্যাণে ২০২৩-২৪ অর্থবছরে এডিপি বরাদ্দের ক্ষেত্রে নিম্নলিখিত প্রস্তাবগুলো বিবেচনার জন্য উপস্থাপিত হয়:

১. দুর্গম এলাকা (চর, উপকূল, জলবায়ু ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা, হাওর এবং পাহাড়ি অঞ্চল) এবং আন্তনগর বৈষম্যের প্রতি আরও গভীর মনোযোগ প্রয়োজন।

২. পরবর্তী এডিপি বাজেটে আধা শহর, ক্রমঃবর্ধমান অঞ্চল এবং নগরায়ণপ্রক্রিয়ার আওতাধীন গ্রামগুলোতে নতুন করে সৃষ্ট ওয়াশ চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবিলায় বর্ধিত এফএসএম (ফিকাল স্লাজ ম্যানেজমেন্ট) অর্থায়ন প্রয়োজন।

৩. স্বাস্থ্যবিধি সংক্রান্ত আন্তঃখাতসমূহে প্রচারণা বৃদ্ধির পাশপাশি অর্থ বরাদ্দ বৃদ্ধিও ইতিবাচক ফলাফল আনতে পারে, তবে কেবল স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে এর বাস্তবায়ন আশানুরূপ ফল বয়ে আনবে না। এ লক্ষ্যে একটি মাল্টি-এজেন্সি নীতি গ্রহণে জোর দেওয়া উচিত, সেই সাথে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের ‘হ্যান্ড হাইজিন ফর অল রোডম্যাপ' -এরও বাস্তবায়ন প্রয়োজন।

৪. ওয়াশ খাতে উচ্চতর নীতিগত অগ্রাধিকার নিশ্চিতের লক্ষ্যে এডিপি বরাদ্দের ক্ষেত্রে পরিবেশ, জলবায়ু পরিবর্তন, এবং দুর্যোগের কেন্দ্রস্থল সমূহের উপর মনোনিবেশ করা প্রয়োজন।

৫. সংশ্লিষ্ট খাতে নতুন নতুন চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করার জন্য এডিপি বরাদ্দের ক্ষেত্রে জলবায়ু পরিবর্তন ও দুর্যোগ সহনশীলতা সম্পর্কিত বিভিন্ন প্রকল্প এবং কর্মসূচি – যার মধ্যে রয়েছে দুর্যোগ ঝুঁকি সংক্রান্ত যোগাযোগ ও সামাজিক সম্পৃক্ততা বৃদ্ধি (আরসিসিই)-সহ দুর্যোগকালীন ওয়াশ, এসএমওএসএস ও এফএসএম এসব বিষয়ে অগ্রাধিকার দেয়া প্রয়োজন ।

এ সময় বক্তরা ২০৩০ সালের মধ্যে মিলেনিয়াম ডেভেলপমেন্ট গোল অর্জন করতে জলবায়ু পরিবর্তনের বিষয়কে গুরুত্ব দিয়ে প্রকল্প গ্রহণের পরামর্শ দেন। সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে উপকূল অঞ্চলকে নিরাপদ করতে আহ্বান জানান। এ ছাড়া এসব লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সরকারের সব দফতরের মধ্যে সমন্বয় করার প্রতি গুরুত্ব আরোপ করেন অতিথিরা।

/এএজে/এনএআর/
সম্পর্কিত
কুকি চিনের সশস্ত্র তৎপরতাকে ‘বিচ্ছিন্ন ঘটনা’ বললেন কাদের
এমপির ভাইয়ের বিরুদ্ধে শিক্ষক-কর্মচারীদের ওপর হামলার অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন
‘বাইরের জীবন এত কঠিন হবে জানলে কারাগারেই থেকে যেতাম’
সর্বশেষ খবর
ইসরায়েলকে সমর্থনের প্রতিশ্রুতি বাইডেনের
ইসরায়েলকে সমর্থনের প্রতিশ্রুতি বাইডেনের
মেসি-সুয়ারেজের গোলে মায়ামির জয়
মেসি-সুয়ারেজের গোলে মায়ামির জয়
বাসচাপায় দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত
বাসচাপায় দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত
পহেলা বৈশাখে রাজধানীতে আ.লীগের শোভাযাত্রা
পহেলা বৈশাখে রাজধানীতে আ.লীগের শোভাযাত্রা
সর্বাধিক পঠিত
নৌযান আটকের পর ইরানকে ইসরায়েলের হুমকি
নৌযান আটকের পর ইরানকে ইসরায়েলের হুমকি
আজ পহেলা বৈশাখ
আজ পহেলা বৈশাখ
ইসরায়েলে ইরানি হামলার নিন্দা ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর
ইসরায়েলে ইরানি হামলার নিন্দা ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর
ভরা মৌসুমে অস্থির কেন পেঁয়াজের বাজার?
ভরা মৌসুমে অস্থির কেন পেঁয়াজের বাজার?
ইসরায়েলে ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা শুরু করেছে ইরান: ইসরায়েলি সেনাবাহিনী
ইসরায়েলে ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা শুরু করেছে ইরান: ইসরায়েলি সেনাবাহিনী