X
শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
১০ ফাল্গুন ১৪৩০

নির্বাচনি ইশতেহারে নিরাপদ সড়ক ও স্মার্ট গণপরিবহনের অঙ্গীকার দাবি

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
০৭ ডিসেম্বর ২০২৩, ১৭:০৫আপডেট : ০৭ ডিসেম্বর ২০২৩, ১৭:০৬

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও জোটের নির্বাচনি ইশতেহারে নিরাপদ সড়ক ও স্মার্ট গণপরিবহন ব্যবস্থা গড়ে তোলার অঙ্গীকার রাখার দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি।

বৃহস্পতিবার (৭ ডিসেম্বর) রাজধানীর ফটোজার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন মিলনায়তনে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী রাজনৈতিক দল ও জোটের নির্বাচনি ইশতেহারে নিরাপদ সড়ক ও স্মার্ট গণপরিবহন ব্যবস্থা গড়ে তোলার অঙ্গীকার রাখার দাবিতে এক সংবাদ সম্মেলন করে সংগঠনটি।

যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী লিখিত বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশ স্বল্প উন্নত দেশের কাতারে প্রবেশ করতে যাচ্ছে। তাই দেশের প্রবেশদ্বার রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশের গণপরিবহন ব্যবস্থা উন্নত করতে সরকার বদ্ধপরিকর। বর্তমান ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকার বিগত ২০১৮ সালের নির্বাচনি ইশতেহারে নিরাপদ সড়কের অঙ্গীকার করলেও নিরাপদ সড়ক বাস্তবায়নে অগ্রগতি তেমন দৃশ্যমান নয়। সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রীর ভাষ্যমতে, সড়কে এখনও পাখির মতো, মাছির মতো মানুষ মরছে। রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে নিরাপদ, সাশ্রয়ী, স্বাচ্ছন্দ্যে যাতায়াতের মতো স্মার্ট গণপরিবহন ব্যবস্থা নেই। অপরিচ্ছন্ন ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে নোংরা-আবর্জনায় ভরপুর পরিবহনগুলোতে প্রতিদিন যাতায়াতে বাধ্য হচ্ছে নগরবাসী।

তিনি বলেন, যানজট-জনজটে আটকা পড়ে প্রতিদিন ক্ষয় হচ্ছে কর্মক্ষম মানুষের লাখো কোটি টাকার মহামূল্যবান শ্রমঘণ্টা। অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের নৈরাজ্য, সিটিং সার্ভিসের নৈরাজ্য, গণপরিবহনগুলোকে মুড়িরটিন বানিয়ে ইচ্ছে মতো যাত্রী হয়রানি চলছে। ভয়াবহ বায়ুদূষণ ও ধুলোদূষণের শিকার হচ্ছে নগরবাসী। যাত্রী ও নাগরিক সমাজের দীর্ঘদিনের দাবির প্রেক্ষিতে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে চালু হওয়া বাস রুট রেশনালাইজেশন প্রকল্পের আওতায় ঢাকা নগর পরিবহন নামে কয়েকটি রুটে বাস সার্ভিস চালু করা হলেও তা মুখথুবড়ে পড়েছে। সদরঘাট থেকে গাবতলীর আমিনবাজার পর্যন্ত ওয়াটার বাস সার্ভিস চালু করা হলেও তা কার্যকর হয়নি। এহেন পরিস্থিতিতে নগরীর যাত্রী সাধারণ এখন লক্কড়-ঝক্কড় বাস মালিকদের ইচ্ছের কাছে জিম্মি হয়ে আছে।

মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেন, সাধারণ মানুষ ইজ্জত ও মর্যাদা নিয়ে এসব পরিবহনে যাতায়াত করতে পারছে না। সরকার বাস মালিক, শ্রমিকের স্বার্থগুলো অগ্রাধিকার দিচ্ছে। গণপরিবহনের সিদ্ধান্ত গ্রহণের সকল ফোরামে মালিক সমিতি ও শ্রমিক সংগঠনগুলোকে রাখা হলেও যাত্রী প্রতিনিধি রাখা হয় না। ফলে পরিবহন মালিক শ্রমিকেরা আজ বেপরোয়া। এহেন যাত্রী হয়রানি থেকে মুক্তি দিতে, ক্ষমতায় আসলে কি কি পদক্ষেপ নেওয়া হবে তা নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী প্রতিটি রাজনৈতিক দলের নির্বাচনি ইশতেহারে অন্তর্ভুক্ত করার দাবি জানান তিনি। বর্তমানে সারাদেশে বাস নেটওয়ার্ক ভেঙ্গে পড়েছে। ইজিবাইক, অটোভ্যান, মোটরসাইকেল এখন দেশের প্রধান বাহন হিসেবে দাঁড়িয়েছে। ব্যয়বহুল, সড়ক নিরাপত্তায় ঝুঁকিপূর্ণ, যানজট তৈরির প্রধান উৎস এসব ছোট ছোট যানবাহন স্মার্ট বাংলাদেশের সাথে বেমানান দাবি করেন তিনি।

 যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব বলেন, বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার হিসেবে প্রতিবছর দেশে সড়ক দুর্ঘটনায় ২৪৯৫৪ জনের প্রাণহানি ঘটছে। স্বাস্থ্য অধিদফতর বলছে, প্রতিবছর সড়ক দুর্ঘটনায় সাড়ে তিনলাখ মানুষ আহত হচ্ছে। ৮০ হাজার মানুষ পঙ্গু হচ্ছে। এহেন ভয়াবহ মহামারির কবল থেকে দেশ ও জাতিকে উদ্ধার করে নিরাপদ সড়ক নিশ্চিত করতে কী পদক্ষেপ নেওয়া হবে তা প্রতিটি রাজনৈতিক দলের নির্বাচনি ইশতেহারে তুলে ধরার দাবি জানান।

মোজাম্মেল হক চৌধুরী আরও বলেন, ব্যাপক যানজটের কবল থেকে রাজধানী ঢাকাকে মুক্ত করতে প্রশাসনের বিকেন্দ্রীকরণ জরুরি। তিনি উদাহরণ দিয়ে বলেন, পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে যেমন, আমেরিকার রাজধানী ওয়াশিংটন হলেও প্রধান শহর নিউ ইয়র্ক। পাকিস্তানের রাজধানী ইসলামাবাদ হলেও  প্রধান শহর করাচি। ভারতে রাজধানী দিল্লী হলেও প্রধান শহর বোম্বে। ঠিক তেমনি চট্টগ্রামে বঙ্গবন্ধু টানেল চালুর কারণে বাণিজ্যিক রাজধানী চট্টগ্রাম শহর সম্প্রসারণের অপার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। ওয়ান সিটি টু টাউন আদলে এখানে প্রশাসনের কিছু গুরুত্বপূর্ণ অফিস আদালত সম্প্রসারণ এবং দেশের প্রধান শহর হিসেবে গড়ে তোলা গেলে ঢাকার উপর চাপ কমানো সম্ভব। এসব বিষয়ে নির্বাচনি ইশতেহারে রাজনৈতিক অঙ্গীকার জরুরি।

এছাড়াও প্রত্যেক সংসদ সদস্য প্রার্থীরা তাদের নিজ নিজ এলাকায় গণপরিবহন ব্যবস্থার উন্নয়নে, ভাড়া নৈরাজ্য ও যাত্রী হয়রানি বন্ধে কি কি পদক্ষেপ নিবেন তাদের নির্বাচনি ইশতেহারে আলাদা আলাদাভাবে তুলে ধরার দাবি জানায় সংগঠনটি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক রোবায়েত ফেরদৌস, যাত্রী কল্যাণ সমিতির সহ-সভাপতি তাওহিদুল হক, যুগ্ম মহাসচিব এম মনিরুল হক, প্রচার সম্পাদক মাহমুদুল হাসান রাসেল প্রমুখ এসময় উপস্থিত ছিলেন।

/এমআরএস/এমএস/
সম্পর্কিত
পাঁচ টাকা কমলো ‘ঢাকা চাকা’ ও ‘গুলশান চাকা’র ভাড়া
কেন বারবার অকেজো হয় মেট্রো স্টেশনের টিকিট মেশিন?
মেট্রোরেল হঠাৎ বন্ধ হলে যা করতে হবে যাত্রীদের
সর্বশেষ খবর
অর্থ আত্মসাতের মামলায় স্বামীসহ যুব মহিলা লীগ নেত্রীর জামিন
অর্থ আত্মসাতের মামলায় স্বামীসহ যুব মহিলা লীগ নেত্রীর জামিন
ইজিবাইকে ৬ যাত্রী, মাহিন্দ্রের চাপায় প্রাণ গেলো দুই জনের
ইজিবাইকে ৬ যাত্রী, মাহিন্দ্রের চাপায় প্রাণ গেলো দুই জনের
লাল কার্ড ও চার গোলের রোমাঞ্চে আবাহনী-মোহামেডানের কেউ জেতেনি
লাল কার্ড ও চার গোলের রোমাঞ্চে আবাহনী-মোহামেডানের কেউ জেতেনি
‘বিএনপি রাজনৈতিক দল হয়ে ওঠেনি, হয়ে উঠবে না’
‘বিএনপি রাজনৈতিক দল হয়ে ওঠেনি, হয়ে উঠবে না’
সর্বাধিক পঠিত
বাড়িওয়ালাদের তালিকা ধরে অভিযান চালাবে এনবিআর
বাড়িওয়ালাদের তালিকা ধরে অভিযান চালাবে এনবিআর
ইউরোপে মানবপাচারে জড়িত বিমানবন্দরের কর্তারা: ডিবির হারুন
ইউরোপে মানবপাচারে জড়িত বিমানবন্দরের কর্তারা: ডিবির হারুন
চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় আরভিঅ্যান্ডএফ কোরের সদস্যদের প্রস্তুত থাকতে বলেছেন সেনাপ্রধান
চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় আরভিঅ্যান্ডএফ কোরের সদস্যদের প্রস্তুত থাকতে বলেছেন সেনাপ্রধান
পারমাণবিক বোমারু বিমানে চড়ে পশ্চিমাদের বার্তা দিলেন পুতিন
পারমাণবিক বোমারু বিমানে চড়ে পশ্চিমাদের বার্তা দিলেন পুতিন
হাসপাতাল পরিচালনায় ১০ নির্দেশনা, না মানলে লাইসেন্স বাতিল
হাসপাতাল পরিচালনায় ১০ নির্দেশনা, না মানলে লাইসেন্স বাতিল