সেই প্রজ্ঞাপন বাতিল, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দুঃখ প্রকাশ

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৯:৪৩, মার্চ ২৬, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:২১, মার্চ ২৬, ২০২০

বাতিলের আদেশসাধারণ রোগীদের চিকিৎসা সেবা না দেওয়া হলে সেনাবাহিনী বা থানার ওসিকে রিপোর্ট করার জন্য দেওয়া প্রজ্ঞাপন বাতিল করেছে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়। সাধারণ চিকিৎসকসহ চিকিৎসক নেতা, চিকিৎসক সংগঠনের প্রতিবাদের মুখে মন্ত্রণালয় প্রজ্ঞাপন বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয়।

এর আগে, গতকাল (২৫ মার্চ) স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের উপসচিব রোকেয়া খাতুন স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ‘সব পর্যায়ের হাসপাতালসমূহে সাধারণ রোগীদের প্রাথমিক চিকিৎসা, জরুরি চিকিৎসা, নতুন আসা রোগীদের ভর্তি করাসহ সব রোগীদের সেবা নিশ্চিত করতে হবে। এ বিষয়ে সবাইকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’

সেখানে আরও বলা হয়, ‘কোনও হাসপাতাল এ নির্দেশ অমান্য করলে ভুক্তভোগীকে তাৎক্ষণিক স্থানীয় সেনাবাহিনীর টহলপোস্টে দায়িত্বরত কর্মকর্তা বা নিকটবর্তী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে অবহিত করার অনুরোধ করা হলো। এ আদেশ অমান্য করলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের রেজিস্ট্রেশন বাতিল, লাইসেন্স বাতিলসহ আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’
এ নিয়ে চিকিৎসকদের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভের জন্ম নেয়। একাধিক চিকিৎসক রাতেই বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, এ আদেশ প্রত্যাহার করা না হলে তারা চাকরি ছেড়ে দেবেন। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে গতকাল রাতেই প্রজ্ঞাপনটি বাতিল হয়েছে বলে জানানো হয়।

গতকাল রাতেই (২৫ মার্চ) স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের সভাপতি অধ্যাপক ডা. ইকবাল আর্সলান সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ক্ষোভ জানিয়ে বলেন, প্রজ্ঞাপনটি আমার নজরে আসার পরই সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা হয়েছে, প্রজ্ঞাপনটি প্রত্যাহার করা হয়েছে।

শাস্তি বিষয়ক সেই প্রজ্ঞাপনপরে বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) উপসচিব রোকেয়া খাতুন স্বাক্ষরিত আরেকটি প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ‘সাধারণ রোগীদের চিকিৎসা সেবায় অস্বীকৃতি প্রদানে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ বিষয়ক আদেশটি বিজ্ঞপ্তি দিয়ে বাতিল করা হলো।’

এছাড়া স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মো. আসাদুল ইসলাম বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে সাধারণ রোগীদের চিকিৎসা বা সেবা প্রদানকারীদের অস্বীকৃতির বিষয়ে যে আদেশ জারি করা হয় তা আমার নজরে আসার সঙ্গে সঙ্গে বাতিল করেছি।। সেটি যথাযথ ছিল না বিধায় তা বাতিল করে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। এ নিয়ে কেউ কষ্ট পেয়ে থাকলে আমি দুঃখ প্রকাশ করছি। 

এদিকে, বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়শনের সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহীউদ্দীন জানান, তারা এ প্রজ্ঞাপন দেখার সঙ্গে সঙ্গেই স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেছেন তিনি। আগের প্রজ্ঞাপন বাতিলের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে তিনি বলেন, এ ধরনের বিভ্রান্তিমূলক কাজের সঙ্গে যারা জড়িত, তাদের শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

বিসিএস স্বাস্থ্য ক্যাডার অ্যাসোসিয়েশনও প্রজ্ঞাপনটি বাতিলের দাবি জানিয়েছিল।

 

 

/জেএ/টিটি/এমওএফ/

লাইভ

টপ