স্বাস্থ্যবিধি মানতে জনগণকে সচেতন করাসহ কাদেরের ৫ দফা সাংগঠনিক নির্দেশনা

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২০:০৪, জুন ০৩, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:২৩, জুন ০৩, ২০২০

ওবায়দুল কাদের (ফাইল ফটো)স্বাস্থ্যবিধি মানতে জনগণকে সচেতন করে তোলা এবং স্থানীয় পর্যায়ে চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করায় সহযোগিতাসহ দলের নেতাকর্মী ও দল সমর্থিত জনপ্রতিনিধিদের পাঁচ দফা সাংগঠনিক নির্দেশনা দিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। দলীয় সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ প্রতিপালনে দলের সাধারণ সম্পাদক এই সাংগঠনিক নির্দেশনা দেন। বুধবার (৩ জুন) দলের দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

সাংগঠনিক নির্দেশনায় ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে সারা বিশ্বের মতো বাংলাদেশ সরকার দেশের জনস্বাস্থ্য ও নাগরিকদের জীবনের নিরাপত্তা বিধানের লক্ষ্যে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণসহ সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে। টানা ৬৬ দিন সাধারণ ছুটির পর জনগণের জীবনের নিরাপত্তার পাশাপাশি জীবিকার প্রশ্নটিও জোরালোভাবে সামনে উঠে আসে। জীবনের পাশাপাশি দেশের অর্থনীতি ও মানুষের জীবিকা সুরক্ষার স্বার্থে সরকার সাধারণ ছুটি শিথিল করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে, যার ফলশ্রুতিতে সীমিত আকারে খুলে দেওয়া হচ্ছে অফিস-আদালতসহ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান এবং চালু করা হয়েছে গণপরিবহন ব্যবস্থা।’

এ অবস্থায় করোনা প্রতিরোধে আরও বেশি স্বাস্থ্য সচেতনতা বৃদ্ধিতে দলীয় নেতাকর্মী ও জনপ্রতিনিধিদের সাংগঠনিক নির্দেশনা প্রদানসহ দেশবাসীকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।

পাঁচ দফা সাংগঠনিক নির্দেশনাগুলো হলো—

১. সাধারণ ছুটি শেষে সবাই কর্মস্থলে ফিরতে শুরু করেছেন। অফিস-আদালত, দোকানপাট, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ সব জায়গায় স্বাস্থ্যবিধি (যথা— নির্দিষ্ট শারীরিক দূরত্ব) মেনে চলা এবং করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে সব ধরনের কার্যপদ্ধতি অনুসরণ করা।

২. গণপরিবহনে চলাচলের সময় স্বাস্থ্যবিধি মেনে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা।

৩. জনসম্মুখে সব সময় মাস্ক পরিধান করা এবং সরকারের স্বাস্থ্য বিভাগের জারি করা নির্দেশনা মেনে চলা।

৪. দলীয় নেতাকর্মীরা ন্যূনতম স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলবেন এবং তা প্রতিপালনের জন্য জনগণকে সচেতন করে তুলবেন। সব ক্ষেত্রে এটা যাতে বাস্তবায়িত হয়, তার জন্য জনগণকে উদ্বুদ্ধ করে সচেতনতা বৃদ্ধিতে প্রচারণামূলক কর্মকাণ্ড পরিচালনা করবেন।

৫. স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে। জনপ্রতিনিধিরা অঞ্চলভিত্তিক তদারকির মাধ্যমে করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধের পাশাপাশি স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করায় ভূমিকা রাখবেন। আপৎকালীন সময়ে প্রয়োজনীয় সেবা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে জনপ্রতিনিধিরা অসহায় ও দুস্থ মানুষের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করবেন।

সাংগঠনিক নির্দেশনায় ওবায়দুল কাদের সবার সহযোগিতা প্রত্যাশা করেন।

/ইএইচএস/এপিএইচ/এমওএফ/

লাইভ

টপ