রউফের প্রথম শিকার আফিফ

Send
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৬:২৬, জানুয়ারি ২৪, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৬:৩০, জানুয়ারি ২৪, ২০২০

EPCdtARX0AA7Eg3লাহোরে পাকিস্তানের বিপক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে ব্যাট করছে বাংলাদেশ। ১৮ ওভারে ৪ উইকেটে ১২৪ রান তাদের।

বিগ ব্যাশ লিগে হ্যাটট্রিক করে পাকিস্তান দলে ডাক পাওয়া হারিস রউফ প্রথম উইকেট পেলেন। তার শিকার আফিফ হোসেন। ১০ বলে ৯ রান করে বোল্ড হন বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান।

লিটন-নাঈমেদর বিদায়

শাদাব খানের শেষ ওভারে টানা দুটি উইকেট হারায় বাংলাদেশ। মোহাম্মদ নাঈমের ফ্লিক লংঅফে ছুটছিল। নিজেই দৌড়ে গিয়ে বল হাতে নেন এবং সরাসরি থ্রোয়ে নন স্ট্রাইকের স্টাম্প ভাঙেন শাদাব। ১৩ বলে ২ চারে ১২ রানে রান আউট হন লিটন। পরের বলে লংঅনে ইফতিখার আহমেদের ক্যাচ হন নাঈম। তাতে ৪১ বলে ৩ চার ও ২ ছয়ে ৪৩ রানে থামেন বাংলাদেশি ওপেনার।

তামিম রান আউট

তামিম ইকবাল ও মোহাম্মদ নাঈমের ব্যাটে শুরুটা ভালো হয়েছিল বাংলাদেশের। দেশের শীর্ষ টি-টোয়েন্টি ব্যাটসম্যানের আসনে বসা তামিম ১১তম ওভারের শেষ বলে রান আউট হন। দ্বিতীয় রান নিতে গিয়ে তার প্রান্তে স্টাম্প ভাঙেন মোহাম্মদ রিজওয়ান। ৩৪ বলে চারটি চার ও একটি ছয়ে বাঁহাতি ওপেনার করেন ৩৯ রান। ভাঙে ৭১ রানের উদ্বোধনী জুটি।

তামিম-নাঈমের ব্যাটে দারুণ শুরু

ইনিংসের পঞ্চম বলে দলের রানের খাতা খোলেন তামিম। প্রথম ওভারে আসে মাত্র ২টি রান। শাহীন আফ্রিদির দ্বিতীয় ওভারে দুটি বাউন্ডারিতে গতি বাড়ান নাঈম। ষষ্ঠ ওভারের দ্বিতীয় বলে এক্সট্রা কাভার দিয়ে একটি বাউন্ডারি মেরে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ টি-টোয়েন্টি রানের মালিক হন তামিম। ১৪ রান করে সাকিব আল হাসানকে (১৫৬৭ রান) টপকে গেলেন বাঁহাতি ওপেনার। পাওয়ার প্লের ৬ ওভারে ৩৫ রান করে বাংলাদেশ।

টস জিতে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ

অনেক প্রতীক্ষার পর পাকিস্তান সফরের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে নেমেছে বাংলাদেশ। লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাটিংয়ে তারা। বাংলাদেশের ভারত সিরিজে খেলা মুশফিকুর রহিম নেই। পাকিস্তান সফরে দলের সঙ্গী হননি তিনি। দলে ফিরেছেন তামিম ইকবাল। পাকিস্তানের আহসান আলী ও হারিস রউফের অভিষেক হয়েছে।

সিরিজ শুরুর আগে নিরাপত্তা নিয়ে এত বেশি কথা হয়েছে যে, দুই দলের শক্তিমত্তা নিয়ে আলোচনা কমই হয়েছে। দলীয় পরিসংখ্যানের হিসাব কষলে অবশ্য বাংলাদেশ কিছুটা পিছিয়েই থাকবে। এই মুহূর্তে পাকিস্তান বিশ্বের এক নম্বর টি-টোয়েন্টি দল। অন্যদিকে মাহমুদউল্লাহদের অবস্থান ৯ নম্বরে। তাছাড়া দুই দলের মুখোমুখিতেও এগিয়ে পাকিস্তান। এখন পর্যন্ত ১০ বারের সাক্ষাতে ২ জয়ের বিপরীতে ৮টিতেই হেরেছে বাংলাদেশ।

তবে সাম্প্রতিক পারফরম্যান্সে বাংলাদেশকে এগিয়ে রাখতেই হবে। তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, লিটন দাস, নাজমুল হোসেন শান্ত ওপেনার হিসেবে বিপিএল খেলেছেন। তাদের মধ্যে দারুণ ফর্মে আছে লিটন, সৌম্য ও নাজমুল। বিপিএলে তামিম রান পেলেও স্ট্রাইকরেট টি-টোয়েন্টি সুলভ ছিল না।

অন্যদিকে পাকিস্তানের ব্যাটিং লাইনআপে ফর্মে আছেন কেবল বাবর আজম ও শোয়েব মালিক। তাদের সঙ্গে পাকিস্তানের ব্যাটিংয়ের মূল শক্তি হয়ে উঠতে পারে লোয়ার মিডল অর্ডার। ইমাদ ওয়াসিমের মতো বেশ কিছু ব্যাটসম্যান আছেন, যারা ম্যাচের গতিপথ বদলে দিতে পারে।

বাংলাদেশ দল: মাহমুদউল্লাহ (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, মোহাম্মদ নাঈম, আফিফ হোসেন, লিটন দাস (উইকেটকিপার), সৌম্য সরকার, মোহাম্মদ মিঠুন, আমিনুল ইসলাম, শফিউল ইসলাম, মোস্তাফিজুর রহমান, আল-আমিন হোসেন।

পাকিস্তান দল: বাবর আজম (অধিনায়ক), আহসান আলী, মোহাম্মদ হাফিজ, শোয়েব মালিক, ইফতিখার আহমেদ, ইমাদ ওয়াসিম, মোহাম্মদ রিজওয়ান (উইকেটকিপার), শাদাব খান, হারিস রউফ, শাহীন আফ্রিদি, মোহাম্মদ হাসনাইন।

/এফএইচএম/

লাইভ

টপ