আফ্রিদি-গম্ভীরকে বিবাদ মিটিয়ে ফেলতে বলছেন ওয়াকার

Send
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত : ২১:০৮, জুন ০১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:১৫, জুন ০১, ২০২০

শহীদ আফ্রিদি-ওয়াকার ইউনিস-গৌতম গম্ভীরশহীদ আফ্রিদি ও গৌতম গম্ভীরের মধ্যে বিষের মতো তেতো একটা সম্পর্ক বর্তমান সেটি বিলক্ষণ জানেন ওয়াকার ইউনিস। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম সেই সম্পর্কের কারণে একেবারে উথালপাথাল হয়ে ওঠে, সেটি তো দেখতেই পান পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেট অধিনায়ক ও বর্তমান পেস বোলিং কোচ। তার ভাবনা, এমনটা আর চলতে পারে না, এতে ক্রিকেটেরই ক্ষতি হয়। তাই  চাইছেন, দীর্ঘদিনের এই বাদ-বিসম্বাদ মিটিয়ে সম্পর্কটা স্বাভাবিক করে ফেলুন পাকিস্তানের সাবেক অলরাউন্ডার ও ভারতের সাবেক ওপেনিং ব্যাটসম্যান।

সেই ২০০৭ সালে কানপুরে ভারত বনাম পাকিস্তান ওয়ানডে ম্যাচ থেকে আফ্রিদি ও গম্ভীরের মধ্যে উত্তপ্ত বাক্যবিনিময়ে শুরু এই অপ্রীতিকর সম্পর্কর। তারপর থেকে এখন পর্যন্ত দুজন বহুবার কথার যুদ্ধে জড়িয়েছেন।

এটা নতুন মাত্রা পায় আফ্রিদির আত্মজীবনী প্রকাশিত হওয়ার পর। আত্মজীবনীতে আফ্রিদি গম্ভীর সম্পর্কে অনেক অপ্রীতিকর কথা লিখেছেন। যেটি ভালোভাবে নেওয়া সম্ভব হয়নি গম্ভীরের পক্ষে। সেই ক্ষোভই উগরে দিয়েছেন টুইটারের মাধ্যমে। আফ্রিদি বনাম গম্ভীর বাকযুদ্ধের সাম্প্রতিক পর্বটা মঞ্চস্থ হয়েছে  আফ্রিদি পাকিস্তান অধিকৃতি কাশ্মীরে গিয়ে যখন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সম্পর্কে কটূক্তি করেন।

এটা আর ভালো লাগছে না ওয়াকারের। ‘গ্লো ফ্যানসে’র টক-শো ‘কিউ ২ ‘ তে ওয়াকার তাই বলেছেন, ‘ গৌতম গম্ভীর ও শহীদ আফ্রিদির মধ্যে এই বাদানুবাদ অনেকদূর গড়িয়েছে। আমি মনে করি দুজনকেই বিচক্ষণতার পরিচয় দিয়ে শান্ত হতে হবে। তাদের প্রতি আমার উপদেশ হবে, যদি সত্যিই তারা শান্ত হতে না পারে, তারা যেন পৃথিবীর যেকোনও জায়গায় বসে নিজেদের মধ্যে কথা বলে। সোশ্যাল মিডিয়াতে তোমরা দুজনই যদি এটি চালিয়ে যেতে থাকো, মানুষ মজা পাবে, হাততালি দেবে। সুতরাং আমি মনে করি তাদের দুজনকেই সুবুদ্ধির পরিচয় দিতে হবে।

ক্রিকেটে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে অনেকদিন দ্বিপক্ষীয় ক্রিকেট সিরিজ হয় না। প্রতিবেশী অথচ রাজনৈতিকভাবে বৈরী দেশ দুটি সর্বশেষ দ্বিপক্ষীয় সিরিজ খেলেছে ২০১২-১৩ মৌসুমে। তারপর থেকে তাদের ক্রিকেট সম্পর্ক সীমিত হয়ে পড়েছে আইসিসি ও মহাদেশীয় ক্রিকেট সংস্থা আয়োজিত টুর্নামেন্টে। তবে বিশ্বজোড়া ক্রিকেট ভক্তরা সবসময়ই দুই দেশের ক্রিকেট সিরিজ পুনরুজ্জীবনের পক্ষে কথা বলে এসেছে।  তারা চায় না দুই দেশের ক্রিকেট বোর্ড ক্রিকেটের সঙ্গে রাজনীতিকে মিশিয়ে বিশ্ব ক্রিকেটের অনন্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা দেখা থেকে বঞ্চিত হতে।

ওয়াসিম আকরামের সঙ্গে মিলে বিশ্ব ক্রিকেটে ভয়ঙ্কর পেস বোলিং জুটি গড়ে তোলা ওয়াকারের কথা, ‘আপনি যদি দুই দেশের মানুষের কাছে জানতে চান যে ভারত-পাকিস্তানের পরস্পরের সঙ্গে ক্রিকেট খেলা উচিত কি না, প্রত্যেকেই না হলেও শতকরা ৯৫ ভাগ মানুষ এটির পক্ষে কথা বলবে।’

‘হোক “ইমরান-কপিল সিরিজ” বা “ইনডিপেনডেন্স সিরিজ” অথবা অন্য কোনও নামে, আমি বলবো এটি হবে বিশ্বের সবচেয়ে আকর্ষণীয় প্রতিযোগিতা। আমি মনে করি, পাকিস্তান ও ভারতের নিয়মিত ক্রিকেট খেলা উচিত যাতে ক্রিকেটপ্রেমীরা বঞ্চিত না হয়’-আরও বলেছেন ওয়াকার। 

/পিকে/

লাইভ

টপ