X
সকল বিভাগ
সেকশনস
সকল বিভাগ

এমআইএস ক্যাটারিং: বাণিজ্যিক আয়োজনে ঘরোয়া আপ্যায়ন

আপডেট : ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ২২:০০

আদিকাল থেকে চলে আসছে বিভিন্ন আয়োজনে মানুষকে আপ্যায়ন করার চল। প্রথমদিকে এটি ঘরোয়াভাবে হলেও বেশ একটা সময় ধরে সেই আপ্যায়নের চল বাণিজ্যিকভাবেও শুরু হয়ে গেছে। বর্তমানে গ্রাহকদের চাহিদা হলো বাণিজ্যিকভাবে আয়োজন করলেও যাতে সেখানে থাকে ঘরোয়া পরিবেশের ছাপ।

এমআইএস ক্যাটারিং: বাণিজ্যিক আয়োজনে ঘরোয়া আপ্যায়ন

গ্রাহকদের এই চাহিদা শতভাগ পূরণ করার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে ‘এমআইএস ক্যাটারিং সার্ভিসেস।’ প্রতিষ্ঠানটির পথচলা শুরু হয় ২০১০ সাল থেকে। প্রায় এক দশক ধরে তারা তাদের গ্রাহকদের সেবা দিয়ে আসছে। 

বজলুল করিম রাজিব

এমআইএস ক্যাটারিং সার্ভিসেস এর প্রতিষ্ঠাতা বজলুল করিম রাজিব তখন কাজ করতেন ঢাকার একটি পাঁচতারকা হোটেলে। এখান থেকেই তিনি স্বপ্ন দেখেন উদ্যোক্তা হওয়ার। নিজের স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করার পথ খুঁজছিলেন, খুঁজছিলেন একটি সুযোগের। একদিন পেয়ে গেলেন সেই কাঙ্ক্ষিত সুযোগ। এক বন্ধু নিজের বিয়ের খাবার পরিবেশন করার সুযোগ করে দেন রাজিবকে। যদিও রাজিবের নিজের কোনও টিম ছিলো না। ছিলো না পর্যাপ্ত পরিমাণের অর্থের জোগান। কেবল প্রবল ইচ্ছেকে সঙ্গে নিয়েই কাজ শুরু করে প্রশংসা কুড়িয়েছিলেন স্বয়ং বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহানের।

এমআইএস ক্যাটারিং: বাণিজ্যিক আয়োজনে ঘরোয়া আপ্যায়ন

পরবর্তীতে বসুন্ধরা গ্রুপের একটি সিএসআর প্রজেক্টের জন্য প্রায় ২৩ হাজার মানুষের খাবার প্রস্তুত করার সুযোগ পায় এমআইএস। বসুন্ধরা গ্রুপের পরপর আরও কিছু কাজের মাধ্যমে ধীরে ধীরে ক্যাটারিং সার্ভিসের জগতে শক্ত অবস্থান করে নিয়েছে বজলুল করিম রাজিবের ক্যাটারিং সার্ভিসটি।

এক দশকে ব্যক্তিগত, সামাজিক থেকে শুরু করে বেসরকারি সংস্থা এবং সরকারের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পর্যায়ে সেবা দিয়ে আসছে এমআইএস ক্যাটারিং সার্ভিসেস। রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রীসহ দেশের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গকে সেবা প্রদান করার সুযোগ পেয়েছে এমআইএস টিম। বাংলাদেশে অবস্থিত বিভিন্ন দেশের দূতাবাসের অতিথিদের আপ্যায়নের অভিজ্ঞতাও রয়েছে এ প্রতিষ্ঠানের। এছাড়াও বিভিন্ন স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান যেমন বিজিএমইএ, গ্রামীণফোন, ইউনাইটেড গ্রুপ, ওয়ালটন, ব্যাংকের সাথেও সেবা প্রদানে যুক্ত আছে তারা। আর্মি অফিসার্স ক্লাব, সেনাকুঞ্জ, সেনামালঞ্চ ও গলফ গার্ডেনের মতো কনভেনশন হলগুলোর সাথে সংযুক্ত হয়েও কাজ করে যাচ্ছে এমআইএস ক্যাটারিং সার্ভিসেস।

এমআইএস ক্যাটারিং: বাণিজ্যিক আয়োজনে ঘরোয়া আপ্যায়ন

প্রায় ১২০০০ বর্গফুট আয়তন নিয়ে এমআইএস এর হেঁশেল রাজধানীর তেঁজগাওয়ে অবস্থিত। এখানে একইসাথে ১০ হাজার মানুষের জন্য খাবার প্রস্তুত হয়। এমআইএস ক্যাটারিং সার্ভিসেস বিশ্বাস করে তাদের কর্মীরাই তাদের শক্তি, বলেন হেড অব ব্র্যান্ড সামিউল ইসলাম। করোনা মহামারির সময় যখন সবকিছু থমকে ছিলো, তখনও এমআইএস তাদের কোনও কর্মী ছাঁটাই করেনি বলেও জানান তিনি। মহামারি সময়েও প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ একাত্ম হয়ে নিশ্চিত করেছে গ্রাহক সেবা। ফলস্বরূপ বাংলাদেশ সরকারের সর্ববৃহৎ কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে (দিয়াবাড়ি কোয়ারেন্টাইন ক্যাম্প) খাবার সরবরাহের দায়িত্বও পেয়েছে তারা- জানান বিক্রয় ও বিপণন কর্মকর্তা শাহনাজ জয়া।

যেকোনো অনুষ্ঠানে প্রতিষ্ঠানের স্বত্বাধিকারী বজলুল করিম রাজীব নিজে সম্পৃক্ত থাকেন, খাবারের মান নিশ্চিত করেন এবং মাঝেমাঝে নিজেই পরিবেশনায় অংশগ্রহণ করেন। কর্মীরা মনে করেন, এই নিষ্ঠা ও ভালোবাসাই এমআইএস ক্যাটারিং সার্ভিসেস এর প্রধান চালিকাশক্তি।

/এনএ/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে হাজী সেলিমের আপিল
হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে হাজী সেলিমের আপিল
পদ্মার বিশ কেজির পাঙাস ২৬ হাজারে বিক্রি
পদ্মার বিশ কেজির পাঙাস ২৬ হাজারে বিক্রি
১৬ দেশে ১৬১ জনের মাংকিপক্স শনাক্ত
১৬ দেশে ১৬১ জনের মাংকিপক্স শনাক্ত
‘বিশ্বরেকর্ড’ জুটি নিয়ে দ্বিতীয় দিন শুরু বাংলাদেশের
‘বিশ্বরেকর্ড’ জুটি নিয়ে দ্বিতীয় দিন শুরু বাংলাদেশের
এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত