X
সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৫ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

‘দৌড়ের ওপর আছে জঙ্গিরা’

জঙ্গি উত্থানের সূতিকাগার উত্তরাঞ্চল!

আপডেট : ১৮ জুন ২০১৬, ১৯:১৬

জঙ্গি দেশের উত্তরাঞ্চলকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কর্মকর্তারা জঙ্গি উত্থানের সূতিকাগার বলে আখ্যায়িত করেছেন। তারা বলছেন,  ২০০৫ সালের আগস্টে যে দেশজুড়ে সিরিজ বোমা হামলার নেতৃত্ব দেওয়া হয়েছিল, তা উত্তরাঞ্চলের জেলা রাজশাহীর বাগমারা থেকে। জেএমবি’র (জামা’তুল মুজাহিদিন বাংলাদেশ) দ্বিতীয় শীর্ষ নেতা সিদ্দিকুল ইসলাম ওরফে বাংলা ভাইয়ের বাড়ি বগুড়ায় হলেও আস্তানা ছিলো বাগমারায়। একইসঙ্গে জামায়াত-শিবির অধ্যুষিত এলাকা হিসেবেও চিহ্নিত উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন জেলা। এসব কারণেই উত্তরাঞ্চলে জঙ্গি তৎপরতা ছড়িয়ে পড়েছে বলে মনে করেন গোয়েন্দারা। কিন্তু উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন জেলায় জেএমবি আবার সংগঠিত হচ্ছে এমন খবর মানতে নারাজ পুলিশ কর্মকর্তারা। তাদের মতে, উত্তরাঞ্চলে জঙ্গি উত্থান হলেও এখন আর তাদের সেই সক্ষমতা নেই। পুলিশি তৎপরতায় দৌড়ের ওপর আছে জঙ্গিরা।
পুলিশ কর্মকর্তাদের দাবি, গত এক সপ্তাহে দেশজুড়ে চলা পুলিশের বিশেষ অভিযানে জঙ্গিরা এখন আর একস্থানে অবস্থান করতে পারছে না। ঘন ঘন স্থান পাল্টাতে হচ্ছে তাদের। জেএমবি, জেএমজেবি, হুজি, হিযবুত তাহরীর, আল্লার দল ও আনসারুল্লাহসহ বিভিন্ন নিষিদ্ধ সংগঠনের ১৯৪ জঙ্গি সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে। যাদের মধ্যে পুরস্কার ঘোষিত জঙ্গি সদস্যও রয়েছে। জঙ্গিদের সংগঠিত হওয়ার আর সুযোগ নেই দাবি করে পুলিশ কর্মকর্তারা বলেন, সংখ্যায় কম মনে হলেও তাদের ছিন্নভিন্ন করে দেওয়া হয়েছে। সাম্প্রতিক টার্গেট কিলিংগুলো বিচ্ছিন্ন ও ষড়যন্ত্রের অংশ বলেই মনে করেন তারা।

পুলিশ সদর দফতর থেকে জানানো হয়, সাত দিনের জঙ্গিবিরোধী বিশেষ অভিযানে গ্রেফতার করা হয় ১৯৪ জঙ্গিকে। এরমধ্যে ১৫১জনই জেএমবি’র সদস্য। জেএমবি’র বেশিরভাগ সদস্যই ধরা পড়েছে উত্তরাঞ্চল থেকে। এছাড়া হিজবুত তাহরীরের ২১জন, জেএমজেবি’র ৭জন, আনসারুল্লাহ’র ৬জন, আনসার আল ইসলামের ৩জন, আল্লার দলের ৪জন, হরকাতুল জিহাদের (হুজি) ১ জন এবং আফগানফেরত জঙ্গি ১জন।

পুলিশ সদর দফতর সূত্র জানায়, উত্তরাঞ্চলেই জেএমবি সবচেয়ে বেশি সক্রিয়। যে কারণে উত্তরাঞ্চলের জেলাগুলোতেই বেশি নজরদারির জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এছাড়া রাজধানীর বাইরে টার্গেট কিলিং ও জঙ্গি হামলার বেশিরভাগ ঘটনাই ঘটেছে উত্তরাঞ্চলের ১১ জেলায়। সর্বশেষ গত ১০ জুন পাবনার হেমায়েতপুরে একটি আশ্রমের সেবায়েত নিত্যরঞ্জন পাণ্ডেকে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। এরআগে গত ৫ জুন নাটোরের বনপাড়ায় হত্যা করা হয় খ্রিস্টান দোকানি সুনীল গোমেজকে। গত বছরের ৩ অক্টোবর রংপুরে জাপানি নাগরিক হোসি কোনিওকে গুলি করে হত্যা করা হয়। ২৬ নভেম্বর বগুড়ার শিবগঞ্জে শিয়া সম্প্রদায়ের একটি মসজিদে দুর্বৃত্তদের গুলিতে মুয়াজ্জিনসহ দুজন মারা যান। ২৫ ডিসেম্বর বাগমারায় আহমদিয়া মুসলিম সম্প্রদায়ের মসজিদে আত্মঘাতী বোমা হামলা চালায় জেএমবি। সেখানে তারেক আজিজ নামের এক আত্মঘাতী জেএমবি সদস্য নিহত হন। গত ২৩ এপ্রিল কুপিয়ে হত্যা করা হয় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক রেজাউল করিম সিদ্দিকীকে।

বগুড়া জেলাকে কেন্দ্র করে উত্তরাঞ্চলের ১৬ জেলাসহ দেশের ২০টি জেলায় জেএমবি আবার সংগঠিত হওয়ার চেষ্টা করছে বলে সম্প্রতি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়সহ পুলিশ সদর দফতরে একটি প্রতিবেদন দিয়ে সতর্ক থাকার পরামর্শ দেন গোয়েন্দারা। উত্তরাঞ্চলের জেলাগুলোতে তিন শতাধিক জেএমবি সদস্য ছদ্মবেশে ঘুরে বেড়াচ্ছে বলেও পুলিশকে তথ্য দেন বগুড়ায় গ্রেফতার হওয়া মোমিন নামের এক জঙ্গি। জয়পুরহাট, নওগাঁ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, পাবনা, বগুড়া, রাজশাহী, নাটোর, সিরাজগঞ্জ, গাইবান্ধা, ঠাকুরগাঁও, কুড়িগ্রাম, নীলফামারী, দিনাজপুর, লালমনিরহাট, রংপুর, পঞ্চগড়, সাতক্ষীরা, মাগুরা, কুষ্টিয়া ও চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকাকে ঘাঁটি হিসেবে ব্যবহার করছে জঙ্গিরা।

গত এপ্রিলে বগুড়ার শাজাহানপুরের কামার মধ্যপাড়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে মোমিন নামের এক জেএমবি সদস্যকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তার কাছ থেকে একে ২২ রাইফেল, একটি জাপানি পিস্তল, চারটি ম্যাগাজিন ও ৫২ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়। গত মাসের শুরুতে বগুড়া থেকে গ্রেফতার করা হয় জেএমবি’র নারী সদস্য মাসুমা আক্তারকে। তিনি জেএমবি’র চট্টগ্রাম অঞ্চলের সামরিক শাখার প্রধান রাইসুল ইসলাম খান ওরফে নোমান ওরফে ফারদিনের স্ত্রী। গত ৩ এপ্রিল শেরপুরের একটি বাড়িতে গ্রেনেড বানাতে গিয়ে বিস্ফোরনে সহযোগী তরিকুল ইসলাম জুয়েলসহ নিহত হন ফারদিন। ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া উপজেলার জোড়াবাড়িয়া গ্রামে বাড়ি হলেও বিয়ে করেন বগুড়ায়।

মোমিন ও ফারদিনের স্ত্রী মাসুমাই পুলিশকে জেএমবি’র সংগঠিত হওয়ার বিষয়ে তথ্য দিয়েছেন বলে জানান বগুড়ার পুলিশ সুপার মো. আসাদুজ্জামান। যত তৎপরই হোক, পুলিশের তৎপরতার কাছে জঙ্গিরা অসহায় বলেও মনে করেন তিনি।

পুলিশ সুপার মো. আসাদুজ্জামান আরও জানান, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিজ্ঞান বিভাগে শিক্ষারত অবস্থায় ২০১২ সালে জেএমবি’র কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়েন। সংগঠনের সূত্র ধরে বগুড়ার শাহজাহানপুর থানার কামারপাড়া গ্রামের আবদুল বাকি প্রামানিকের ছেলে জেএমবি সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান ওরফে বোমা সাকিলের সঙ্গে। এরপর বোমা সাকিলের ছোট বোন মাসুমা আক্তারকে বিয়ে করেন ফারদিন। এছাড়া, সাকিলের আরেক ভাই মুজাহিদও জেএমবি’র সক্রিয় সদস্য। জেএমবির দ্বিতীয় শীর্ষ নেতা বাংলা ভাইয়ের সহযোগী ফাঁসির দণ্ডাদেশ পাওয়া জঙ্গি মামুনের  ভগ্নিপতি।

রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি খুরশিদ আলম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, উত্তরাঞ্চল থেকে জঙ্গি উত্থানের শুরু হলেও এখন আর এ অঞ্চলে তাদের সংগঠিত হওয়ার সুযোগ নেই। পুলিশের তৎপরতার কারণে তারা দৌড়ের ওপর আছে। উত্তরাঞ্চলে জঙ্গিরা সংগঠিত হচ্ছে ও হামলা হতে পারে, গোয়েন্দাদের এমন পূর্বাভাসের ব্যাপারে তিনি বলেন, এসব পূর্বাভাসের কোনও ভিত্তি নেই।

জঙ্গি ও সন্ত্রাসী দমনে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) বিশেষায়িত বিভাগ কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনালের প্রধান ও ডিএমপি’র অতিরিক্ত কমিশনার মনিরুল ইসলাম বলেন, জেএমবি কিংবা আনসারুল্লাহসহ জঙ্গি সংগঠনগুলোর আগের মতো সেই সক্ষমতা এখন নেই। পুলিশ ও গোয়েন্দাদের তৎপরতার কারণে তারা ভিন্ন কৌশল নিয়েছে। তারা তিন থেকে পাঁচ জনের ছোট ছোট স্লিপার সেল বানিয়ে পরিকল্পিতভাবে হত্যার ঘটনা ঘটানোর পরিকল্পনা নিয়েছে। পুরস্কার ঘোষিত জঙ্গি শিহাব গ্রেফতারের ফলে অন্য জঙ্গিদের ধরাও সহজ হবে বলে মনে করেন তিনি।

আরও পড়তে পারেন: জঙ্গিবাদ ও আত্মঘাতী হামলা হারাম

/এমএনএইচ/

সম্পর্কিত

১৬৫০ উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা নিয়োগে হাইকোর্টের রায় বহাল

১৬৫০ উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা নিয়োগে হাইকোর্টের রায় বহাল

ফাঁসানো হয়েছে, দাবি ড্রাইভার মালেকের

ফাঁসানো হয়েছে, দাবি ড্রাইভার মালেকের

স্বাস্থ্য অধিদফতরের ড্রাইভার মালেকের ১৫ বছরের সাজা

স্বাস্থ্য অধিদফতরের ড্রাইভার মালেকের ১৫ বছরের সাজা

১৬৫০ উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা নিয়োগে হাইকোর্টের রায় বহাল

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:৩৬

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরে ১ হাজার ৬৫০ জন উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা নিয়োগ নিয়ে হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে করা আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন আপিল বিভাগ। এর ফলে ১ হাজার ৬৫০ জনের নিয়োগ বহাল রইলো বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা। 

রিটকারীদের আবেদন খারিজ করে সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে শুনানিতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন ও অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল শেখ মোহাম্মদ মোরশেদ। অন্যদিকে আবেদনের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার রোকন উদ্দিন মাহমুদ। 

এর আগে গত ১৬ সেপ্টেম্বর জে বি এম হাসান ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ বিষয়ে অন্তত ২০টি রিটে জারি করা রুল খারিজ করে দেন। পরে হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে আবেদন করেন রিটকারীরা। 

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের ২৩ জানুয়ারি ১ হাজার ৬৫০ জন উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তার নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে সব ধরনের পরীক্ষা শেষে ২০২০ সালের ১৭ জানুয়ারি ফলাফল প্রকাশ করা হয়। কিন্তু এতে কোটা পদ্ধতি সঠিকভাবে অনুসরণ না করে প্রাথমিক ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে উল্লেখ করে কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের মহাপরিচালক বরাবরে আবেদন করেন মৌখিক পরীক্ষায় অংশ নেওয়া ৩৪ প্রার্থী। এতে ফল না পেয়ে মো. রাশেদুল ইসলামসহ চাকরিপ্রার্থী ৩৪ জন হাইকোর্টে বেশ কয়েকটি রিট দায়ের করেন।

/বিআই/ইউএস/

সম্পর্কিত

ফাঁসানো হয়েছে, দাবি ড্রাইভার মালেকের

ফাঁসানো হয়েছে, দাবি ড্রাইভার মালেকের

স্বাস্থ্য অধিদফতরের ড্রাইভার মালেকের ১৫ বছরের সাজা

স্বাস্থ্য অধিদফতরের ড্রাইভার মালেকের ১৫ বছরের সাজা

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

কনস্টেবল নিয়োগে জালিয়াতির নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি টিআইবি’র

কনস্টেবল নিয়োগে জালিয়াতির নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি টিআইবি’র

পাসপোর্ট সংশোধনের সুযোগ চেয়ে মানববন্ধন

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:২৪

জাতীয় পরিচয়পত্র ও শিক্ষা সনদের সঙ্গে মিল রেখে পাসপোর্ট সংশোধনের সুযোগ করে দেওয়ার দাবিতে মানববন্ধন ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছেন দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আগত ভুক্তভোগীরা। সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এই মানববন্ধন করা হয়।

মানববন্ধনে ভুক্তভোগীরা জানান, গত কয়েক বছর যাবৎ পাসপোর্টের সংশোধন করার প্রচেষ্টা চালিয়েও ব্যর্থ হওয়ায় তাদের জরুরি কাজ ও স্বাভাবিক জীবনযাপন জটিল হয়ে পড়েছে। ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়াসহ সরকারি দফতরগুলোতেও নিজের পরিচিতি নিয়েও বিড়ম্বনার শিকার হতে হচ্ছে। অনেকে দেশের বাইরে উচ্চশিক্ষার জন্য চাইলেও যেতে পারছেন না বলেও অভিযোগ করেন তারা।

কুষ্টিয়া থেকে আসা আবুল হোসেন নামে এক ভুক্তভোগী জানান, দালালের মাধ্যমে তিনি পাসপোর্ট করান। পরে তাকে নামজনিত ঝামেলায় পড়তে হয়েছে। দুই বছর ধরে তিনি এই সমস্যা সমাধানে দ্বারে-দ্বারে ঘুরেও কোনও সুরাহা করতে পারেননি। বর্তমানে তার ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার পর্যায়ে।

মানববন্ধন থেকে দাবি জানানো হয়, জাতীয় পরিচয়পত্র ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের তথ্যের সাথে মিল রেখে পাসপোর্ট সংশোধনের সুযোগ প্রদান করা হোক।

মানববন্ধন ও অবস্থান কর্মসূচিতে প্রায় ৭০ জন ভুক্তভোগী উপস্থিত উপস্থিত ছিলেন।

/জেডএ/ইউএস/

সম্পর্কিত

পাসপোর্ট অধিদফতরের দুই কর্মকর্তাকে দুদকে জিজ্ঞাসাবাদ

পাসপোর্ট অধিদফতরের দুই কর্মকর্তাকে দুদকে জিজ্ঞাসাবাদ

বিআরটিএ ও পাসপোর্ট অফিসে র‍্যাবের অভিযান: ৫১ দালাল আটক

বিআরটিএ ও পাসপোর্ট অফিসে র‍্যাবের অভিযান: ৫১ দালাল আটক

পাসপোর্ট অধিদফতরের অক্ষমতা: প্রবাসীদের ভোগান্তির শেষ হবে কবে?

পাসপোর্ট অধিদফতরের অক্ষমতা: প্রবাসীদের ভোগান্তির শেষ হবে কবে?

বিদেশে একে একে বন্ধ হচ্ছে পাসপোর্ট সেবা!

বিদেশে একে একে বন্ধ হচ্ছে পাসপোর্ট সেবা!

ফাঁসানো হয়েছে, দাবি ড্রাইভার মালেকের

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৫০

স্বাস্থ্য অধিদফতরের সাবেক গাড়িচালক আব্দুল মালেককে অস্ত্র আইনের মামলার ‍দুটি ধারায় ১৫ বছর করে ৩০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। দুই ধারার সাজা একসঙ্গে অর্থাৎ ১৫ বছরের কারাভোগ করবেন তিনি। তবে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় ‘ন্যায় বিচার পাননি’ বলে জানিয়েছেন তিনি।

আজ সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) ঢাকার তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ রবিউল আলমের আদালত এ রায় ঘোষণা করেন। রায় শেষে তাকে আবারও কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত।

আদালত থেকে বের হওয়ার সময় আব্দুল মালেক সাংবাদিকদের উদ্দেশ করে বলেছেন, ‘আমাকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হয়েছে। র‌্যাব আমার বাসা থেকে কোনও কিছুই পায়নি। আমি ন্যায়বিচার পাইনি, আমি মিথ্যা মামলায় জেল খাটবো। কোনও অস্ত্র পায়নি আমার বাসা থেকে।

আদেশের দিন আদালত প্রাঙ্গণে উপস্থিত ছিলেন মালেকের স্বজনরা। রায় ঘোষণার পর কান্নায় ভেঙে পড়েন তারা। আর মামলার রায়ে ‘অসন্তোষ’ প্রকাশ করে উচ্চ আদালতে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন তার আইনজীবীরা।

/এমএইচজে/ইউএস/

সম্পর্কিত

স্বাস্থ্য অধিদফতরের ড্রাইভার মালেকের ১৫ বছরের সাজা

স্বাস্থ্য অধিদফতরের ড্রাইভার মালেকের ১৫ বছরের সাজা

বিমানবন্দরে ল্যাবের বিষয়ে ইউএই'র সম্মতি আসতে পারে আজ: বেবিচক

বিমানবন্দরে ল্যাবের বিষয়ে ইউএই'র সম্মতি আসতে পারে আজ: বেবিচক

১৬০ ইউপি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু

১৬০ ইউপি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:২০

কুমিল্লা-৭ আসনের উপ-নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) সাবেক উপাচার্য ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত।

আজ সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) সকালে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও কুমিল্লার আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মো. দুলাল তালুকদার একক প্রার্থী হওয়ায় ডা. প্রাণ গোপালকে বিজয়ী ঘোষণা করে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করেছেন।

রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. দুলাল তালুকদার বলেন, ১৯ সেপ্টেম্বর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ছিল। জাতীয় পার্টি ও ন্যাপের প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেন। ফলে প্রার্থী হিসেবে আওয়ামী লীগের প্রাণ গোপাল দত্তই ছিলেন। এই অবস্থায় একক প্রার্থী হিসেবে তাঁর নাম চূড়ান্ত করা হয়। যেহেতু একজন প্রার্থী, তাই আর প্রতীক দেওয়ার কোনও বিধান নেই। এই অবস্থায় প্রাণ গোপাল দত্তকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী ঘোষণা করে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে। এরপর গেজেট প্রকাশ করার জন্য নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ে পাঠানো হবে।

গত ৩০ জুলাই কুমিল্লা-৭ (চান্দিনা) আসনে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য মো. আলী আশরাফের মৃত্যুতে আসনটি শূন্য হয়। নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী আগামী ৭ অক্টোবর ওই আসনে ভোট গ্রহণের কথা ছিল।

/ইএইচএস/ইউএস/

সম্পর্কিত

সিলেট-৩ আসনের উপ-নির্বাচনে ভোটগ্রহণ চলছে

সিলেট-৩ আসনের উপ-নির্বাচনে ভোটগ্রহণ চলছে

সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণ স্থগিত চেয়ে রিট

সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণ স্থগিত চেয়ে রিট

স্বাস্থ্য অধিদফতরের ড্রাইভার মালেকের ১৫ বছরের সাজা

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:১৭

স্বাস্থ্য অধিদফতরের সাবেক গাড়িচালক আব্দুল মালেক ওরফে মালেক ড্রাইভারের বিরুদ্ধে দায়ের করা অস্ত্র আইনের মামলার দুই ধারায় ১৫ বছর করে ৩০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। তবে তিনি একই সঙ্গে এই সাজা ভোগ করবেন বলে রায়ে জানিয়ে দিয়েছেন আদালত, ফলে মোট ১৫ বছরের কারাভোগ করতে হবে তাকে।

আজ সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) ঢাকার তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ রবিউল আলমের আদালত এ রায় ঘোষণা করেন। রায় শেষে আব্দুল মালেককে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত।

রায় ঘোষণার সময় আদালত প্রাঙ্গণে উপস্থিত ছিলেন মালেকের স্বজনরা। তারা সাজা শোনার পর কান্নায় ভেঙে পড়েন তারা। এদিকে মামলার রায়ে ‘অসন্তোষ’ প্রকাশ করে উচ্চ আদালতে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন তার আইনজীবীরা।

আদালত থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময় আব্দুল মালেক সাংবাদিকদের উদ্দেশ করে বলেছেন, ‘আমাকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হয়েছে। র‌্যাব আমার বাসা থেকে কোনও কিছুই পায়নি। আমি ন্যায়বিচার পাইনি, আমি মিথ্যা মামলায় জেল খাটবো। কোনও অস্ত্র পায়নি আমার বাসা থেকে।’

এর আগে গত ১৩ সেপ্টেম্বর ঢাকার তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ রবিউল আলমের আদালত রাষ্ট্রপক্ষ ও আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে রায় ঘোষণার জন্য আজকের দিন ধার্য করেন।

গত বছরের ২০ সেপ্টেম্বর রাজধানীর তুরাগ থানাধীন কামারপাড়াস্থ ৪২ নম্বর বামনেরটেক হাজী কমপ্লেক্সের তৃতীয় তলার বাসা থেকে আব্দুল মালেককে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তার কাছ থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, একটি ম্যাগজিন, পাঁচ রাউন্ড গুলি, দেড় লাখ বাংলাদেশি জাল নোট, একটি ল্যাপটপ ও মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় র‌্যাব-১ এর পুলিশ পরিদর্শক আলমগীর হোসেন বাদী হয়ে মামলা দুটি দায়ের করেন।

চলতি বছর ১১ জানুয়ারি মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক মেহেদী হাসান চৌধুরী ড্রাইভার মালেককে একমাত্র আসামি করে অস্ত্র মামলায় চার্জশিট আদালতে দাখিল করেন।

পরে গেল ১১ মার্চ ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশের আদালত আসামি মালেকের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে মামলাটির বিচারের জন্য আদেশ দেন। 

করোনার প্রাদুর্ভাব কিছুটা কমে গেলে ৫ সেপ্টেম্বর ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশের আদালত এই মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ পর্যায় শেষ করেন। মামলাটির ১৩ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করেছেন আদালত।

এরপর ৬ সেপ্টেম্বর মামলাটি ঢাকার তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ রবিউল আলম এর আদালতে পরবর্তী বিচার কাজের জন্য বদলির আদেশ দেন মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশের আদালত।

র‌্যাবের ভাষ্য, তিনি পেশায় স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিবহন পুলের একজন ড্রাইভার এবং তৃতীয় শ্রেণির কর্মচারী। তার শিক্ষাগত যোগ্যতা ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত। তিনি ১৯৮২ সালে সর্বপ্রথম সাভার স্বাস্থ্য প্রকল্পে ড্রাইভার হিসেবে যোগদান করেন। পরবর্তীতে ১৯৮৬ সালে স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিবহন পুলে ড্রাইভার হিসেবে চাকরি শুরু করেন।

/এমএইচজে/ইউএস/

সম্পর্কিত

ফাঁসানো হয়েছে, দাবি ড্রাইভার মালেকের

ফাঁসানো হয়েছে, দাবি ড্রাইভার মালেকের

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

কনস্টেবল নিয়োগে জালিয়াতির নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি টিআইবি’র

কনস্টেবল নিয়োগে জালিয়াতির নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি টিআইবি’র

সিটি ইউনিভার্সিটিকে সাড়ে ৬২ লাখ টাকা জরিমানা

সিটি ইউনিভার্সিটিকে সাড়ে ৬২ লাখ টাকা জরিমানা

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

১৬৫০ উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা নিয়োগে হাইকোর্টের রায় বহাল

১৬৫০ উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা নিয়োগে হাইকোর্টের রায় বহাল

ফাঁসানো হয়েছে, দাবি ড্রাইভার মালেকের

ফাঁসানো হয়েছে, দাবি ড্রাইভার মালেকের

স্বাস্থ্য অধিদফতরের ড্রাইভার মালেকের ১৫ বছরের সাজা

স্বাস্থ্য অধিদফতরের ড্রাইভার মালেকের ১৫ বছরের সাজা

বিমানবন্দরে ল্যাবের বিষয়ে ইউএই'র সম্মতি আসতে পারে আজ: বেবিচক

বিমানবন্দরে ল্যাবের বিষয়ে ইউএই'র সম্মতি আসতে পারে আজ: বেবিচক

১৬০ ইউপি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু

১৬০ ইউপি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

কনস্টেবল নিয়োগে জালিয়াতির নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি টিআইবি’র

কনস্টেবল নিয়োগে জালিয়াতির নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি টিআইবি’র

সিটি ইউনিভার্সিটিকে সাড়ে ৬২ লাখ টাকা জরিমানা

সিটি ইউনিভার্সিটিকে সাড়ে ৬২ লাখ টাকা জরিমানা

সর্বশেষ

১৬৫০ উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা নিয়োগে হাইকোর্টের রায় বহাল

১৬৫০ উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা নিয়োগে হাইকোর্টের রায় বহাল

কক্সবাজারে নির্বাচনি সহিংসতায় নিহত ২

কক্সবাজারে নির্বাচনি সহিংসতায় নিহত ২

বন অধিদফতরে এসএসসি ও এইচএসসি পাসে চাকরির সুযোগ

বন অধিদফতরে এসএসসি ও এইচএসসি পাসে চাকরির সুযোগ

হাঁটুপানি মাড়িয়ে ভোট কেন্দ্রে ভোটাররা (ফটোস্টোরি)

হাঁটুপানি মাড়িয়ে ভোট কেন্দ্রে ভোটাররা (ফটোস্টোরি)

পাসপোর্ট সংশোধনের সুযোগ চেয়ে মানববন্ধন

পাসপোর্ট সংশোধনের সুযোগ চেয়ে মানববন্ধন

© 2021 Bangla Tribune