X
বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১০ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

নওগাঁর ঐতিহ্যবাহী প্যারা সন্দেশ যাচ্ছে বিদেশে

আপডেট : ২০ জুন ২০১৭, ১৮:৪৮

নওগাঁর প্যারা সন্দেশের সুখ্যাতি এখন দেশের গণ্ডি পেরিয়ে মধ্যপ্রাচ্যসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পৌঁছেছে। শুরুতে পূজা মণ্ডপের দেব-দেবীর উপাসনার উদ্দেশে এই সন্দেশ তৈরি করা হতো। সময়ের স্রোতে এখন তা অতিথি আপ্যায়ন, আত্মীয়স্বজনদের বাড়িতে পাঠানো বা নিয়ে যাওয়া মর্যাদার প্রতীক হয়ে দাঁড়িয়েছে। নওগাঁর এই ঐতিহ্যবাহী সন্দেশ এখন দেশের বাইরেও সুনাম অর্জন করছে।

বিশেষ কিছু বৈশিষ্ট্যের কারণে মিষ্টান্ন জগতের অনেক বড় একটি জায়গা দখল করে আছে এই প্যারা সন্দেশ। দেশের বিভিন্ন স্থানে এই সন্দেশ তৈরি হলেও প্রথম তৈরি শুরু হয় নওগাঁ শহরে।

নওগাঁ শহরের বিভিন্ন মিষ্টি কারিগররা জানান, নওগাঁ শহরের কালীতলা পূজা মণ্ডপের প্রধান গেট সংলগ্ন এলাকায় ছোট ছোট কয়েকটি মিষ্টান্নের দোকান রয়েছে। এগুলোকে বলা হয় ভোগের দাকান। দেবীর আরাধনায় মিষ্টান্নর প্রয়োজনেই প্রায় শত বছর আগে এই দোকানিরাই প্রথম তৈরি করেন বিখ্যাত প্যারা সন্দেশ। কিন্তু পরবর্তীতে এই সন্দেশ শুধু দেবীর আরাধনার মধ্যেই সীমাবন্ধ থাকেনি। সুস্বাদু আর পুষ্টিগুনের কারণে এই সন্দেশ এখন বিখ্যাত।

স্থানীয়রা জানান, নওগাঁ শহরের কালিতলার মহেন্দ্রী দাস নামে এক ব্যক্তি প্রথমে প্যারা সন্দেশ তৈরি শুরু করেন। তখন কালীতলা এলাকায় জনবসতি ছিল না বললেই চলে। মহেন্দ্রীর পর তার ছেলে ধীরেন্দ্রনাথ দাস দোকানের দায়িত্ব পান। সেই সময় বিমল মহন্ত নামে মিষ্টি তৈরির এক কারিগরের কাছ থেকেই প্যারা সন্দেসের সুখ্যাতি ছড়িয়ে পড়ে।

ধীরেন্দ্রনাথ দাস প্রায় ৩০ বছর ব্যাবসার পর দোকানটি সুরেস চন্দ্র মহন্তের কাছে বিক্রি করে দিয়ে অন্যত্র চলে যান।

এরপর সুরেস চন্দ্র মহন্ত দোকানে নতুন মিষ্টির কারিগর নারায়ণ চন্দ্র প্রামানিককে আনেন। সেই থেকে তিনি প্যারা সন্দেশ তৈরি করে আসছেন। এরপর আবারও ওই দোকানের মালিকানা পরিবর্তন হয়। বর্তমানে দোকানের মালিক বৈদ্য রতন দাস। তবে মিষ্টির কারিগর রয়েছেন সেই নারায়ণ চন্দ্র দাসই।

নওগাঁ মিষ্টান্ন ভাণ্ডারের মালিক নাজমুল হক বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘প্যারা সন্দেশ তৈরির প্রথম ধাপে তরল দুধের সঙ্গে চিনি মিশিয়ে জ্বাল করে তৈরি করা হয় ক্ষীর। ক্ষীর যখন হাতায় জড়িয়ে আসে তখন তা দুই হাতের তালু দিয়ে রোল করে সামান্য চাপ দিলেই তৈরি হয়ে যায় হালকা খয়েরি রংয়ের প্যারা সন্দেশ।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রতিটি প্যারা সন্দেশ প্রায় আধা ইঞ্চি চওড়া ও দুই ইঞ্চি লম্বা হয়। ৭৫ থেকে ৮০ পিছে এক কেজি হয়। এক কেজি সন্দেশ তৈরি করতে দরকার হয় ৭ লিটার তরল দুধ। দুধ আর চিনি ছাড়া অন্য কোনও উপকরণ না থাকায় এই সন্দেশ রাখা যায় ১০ থেকে ১৫ দিন। আর কৃত্রিম উপায়ে ভালো রাখা যায় এক মাসেরও বেশি সময়। তাই বাইরের দেশে নিয়ে যেতে সমস্যা হয় না। নষ্ট হওয়ারও সম্ভাবনা নেই।

সন্দেশ কিনতে আসা ক্রেতা আবজাল হোসেন জানান, তার মেয়ে কুয়েতে থাকে। এই ঈদে তার মেয়ের জন্য নওগাঁর ঐতিহ্যবাহী প্যারা সন্দেশ কিনে পাঠাচ্ছেন । তার নাতিরা তাকে ফোন করে প্যারা সন্দেশ পাঠানোর কথা বলেছেন।

অপর ক্রেতা রোজিয়া জানান, ঈদে বিভিন্ন স্থান থেকে আত্মীয় স্বজনরা ঈদ করতে আসেন বাড়িতে। তাদের প্রথম পছন্দ নওগাঁর প্যারা সন্দেশ। আর এই সন্দেশ এমনিতেই ১০ থেতে ১৫ দিন রাখা যায় তাই বেশি করে কিনে রাখলে সমস্যা হয় না।

তিনি আরও জানান, অনেক জায়গার মিষ্টি খেয়েছি কিন্তু নওগাঁর প্যারা সন্দেশের সঙ্গে কারও তুলনা হয় না।

নওগাঁ শহরের কালীতলা এলাকার প্যারা সন্দেশ দোকানের পরিচালক সৈকত দাস বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘বংশ পরম্পরায় এখানকার মিষ্টি কারিগররা নওগাঁর বিখ্যাত প্যারা সন্দেশ নিরবচ্ছিন্নভাবে তৈরি ও সরবরাহ করে যাচ্ছেন । দেশের মধ্যে পূজা, ঈদসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানেই শুধু নয় আত্মীয়স্বজনের বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয় এই সন্দেশ।’

তিনি আরও বলেন, ‘ভারত, কুয়েত, সৌদি আরব, তুরস্ক,মালয়েশিয়াসহ বেশ কয়েকটি দেশের ক্রেতারা প্যারা সন্দেশ নিয়ে যাচ্ছেন। এই সন্দেশ খেয়ে শুধু রসনা তৃপ্তরাই সন্তুষ্ট নন, ঐতিহ্যবাহী এই মিষ্টান্ন বিক্রি করে লাভবান হচ্ছেন বিক্রেতারও। তারা প্রতি কেজি সন্দেশের দাম নিচ্ছেন ৩০০ থেকে ৩২০ টাকা। আর স্বাদ ও মানের দিক থেকে এই প্যারা সন্দেশ অতুলনীয়।’

/এআর/

সম্পর্কিত

ভেলা বিলে অবমুক্ত করা হলো ৮৫ পাখি

ভেলা বিলে অবমুক্ত করা হলো ৮৫ পাখি

সিরাজগঞ্জে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ের পথে ৬ চেয়ারম্যান

সিরাজগঞ্জে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ের পথে ৬ চেয়ারম্যান

চুল কাটার শাস্তির আইন নেই রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে, সময় নিলো কর্তৃপক্ষ

চুল কাটার শাস্তির আইন নেই রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে, সময় নিলো কর্তৃপক্ষ

মহাসড়কের পাশে প্রতিবন্ধী যুবকের লাশ

মহাসড়কের পাশে প্রতিবন্ধী যুবকের লাশ

রাঙামাটিতে নির্বাচনী সহিংসতায় প্রাণ গেলো ইউপি সদস্যের

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ০৩:৪১

রাঙামাটির কাপ্তাইয়ে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ১ জন নিহত এবং ৩ জন আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিশ ৪ জনকে আটক করেছে।

মঙ্গলবার রাতে উপজেলার নতুন বাজার এলাকায় সংঘর্ষে নিহত সজিবুর রহমান ৫ নং ওয়ার্ডের বর্তমান ইউপি সদস্য এবং আওয়ামী লীগ স্বেচ্ছাসেবক লীগের জেলা কমিটির সদস্য।

কাপ্তাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসক ওমর ফারুক ঘটনার সত্যতা নিশ্চত করে জানিয়েছেন,  রাতে আহত আবস্থায় ৪ জনকে হাসপাতালে আনা হলে কাপ্তাই ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড মেম্বার সজিবুর রহমান মারা যান। বাকী ৩ জন চিকিৎসাধীন।

তিনি আরও বলেন, হাসপাতালের বাইরে অনেক মানুষ ভীড় করছে। এ অবস্থায় জেলা প্রশাসককে পুরো বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, নিহত সজিব আওয়ামী লীগের মনোনীত বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফের সমর্থক। লতিফ এবারও দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন। তার বিপক্ষে চেয়ারম্যান পদ প্রার্থী হয়েছেন আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন পাটোয়ারি বাদল।

মঙ্গলবার রাতে নতুন বাজার এলাকায় দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হলে তা সংঘর্ষে রূপ নেয়। একপর্যায়ে ভারী কিছু দিয়ে মাথায় আঘাত করলে গুরুতর আহত হন সজিবুর রহমান ওরফে সজিব মেম্বার। স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পর সেখানেই চিকিৎকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ এই ঘটনার জন্য প্রশাসনকে দায়ী করে বলেন, নির্বাচনী প্রক্রিয়া শুরুর পর থেকেই এমন ঘটনার আভাস দেওয়া হয়েছিল প্রশাসনকে। কিন্তু কোনও ব্যবস্থা না নেওয়ার কারণে সহিংসতা ঘটেছে।

এই ঘটনাকে পূর্ব পরিকিল্পিত উল্লেখ করে জড়িতদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবি জানান তিনি।

এদিকে পুলিশের কাপ্তাই সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রওশন আরা রব জানিয়েছেন, ‘বাজারে চায়ের দোকানে বসাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের হাতাহাতি থেকে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে সজিবুর রহমান নামে একজনের মৃত্যু হয়েছে। এর সঙ্গে জড়িত ৪ জনকে আটক করেছে পুলিশ। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে।’

উল্লেখ্য, গত ১৭ অক্টোবর এই উপজেলার সদর ইউনিয়নের প্রতিবেশী চিৎমরম ইউনিয়নের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী নেথোয়াই মারমাকে নিজ বাসায় গুলি করে হত্যা করে একদল সশস্ত্র দুর্বৃত্ত। ওই ঘটনার পর ইউনিয়নের নির্বাচন পিছিয়ে ২৮ নভেম্বর নির্ধারণ করে নির্বাচন কমিশন। কাপ্তাইয়ের বাকি তিন ইউনিয়নের নির্বাচন আগামী ১১ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

/এলকে/

সম্পর্কিত

কুমিল্লায় মন্দিরে হামলা মামলায় ১৬ জনকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ

কুমিল্লায় মন্দিরে হামলা মামলায় ১৬ জনকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ

৫ ইউনিয়নের কোনও পদেই প্রতিদ্বন্দ্বী নেই

৫ ইউনিয়নের কোনও পদেই প্রতিদ্বন্দ্বী নেই

সেতুর অপেক্ষায় তিন যুগ লক্ষাধিক মানুষ

সেতুর অপেক্ষায় তিন যুগ লক্ষাধিক মানুষ

সাতক্ষীরায় ১০ সাংবাদিক পেলেন মিডিয়া ফেলোশিপ

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ০২:৩৯

সাতক্ষীরায় অ্যাকশন ফর ইমপ্যাক্ট প্রকল্পের আওতায় ১০ সাংবাদিককে 'মিডিয়া ফেলোশিপ- ২০২১ দেওয়া হয়েছে। এ উপলক্ষে দৈনিক পত্রদূত ও এনজিও সংস্থা হেডের আয়োজনে অ্যাডভোকেসি সভা ও সনদ বিতরণ করা হয়।

মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) দুপুরে জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে দৈনিক পত্রদূতের উপদেষ্টা মন্ডলীর সভাপতি সাবেক অধ্যক্ষ মো. আনিসুর রহিমের সভাপতিত্বে সভা ও সনদ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির।

প্রধান অতিথি বলেন, আমাদের সমাজে নারী ও শিশু শ্রমিকরা কর্মক্ষেত্রে ন্যায্য মজুরি পায় না। সে জন্য মালিকপক্ষকে শ্রমিকদের নিয়োগপত্র ও কর্মশোভন পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে বলেও মনে করেন তিনি।

দৈনিক পত্রদূতের উপদেষ্টা সম্পাদক আবুল কালাম আজাদের সঞ্চালনায় সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সিনিয়র সাংবাদিক সুভাষ চৌধুরী, শরিফুল্লাহ কায়সার সুমন, দৈনিক পত্রদূতের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক লায়লা পারভীন সেঁজুতি, হেড সংস্থার নির্বাহী পরিচালক লুইস রানা গাইন ও পত্রদূতের বার্তা সম্পাদক এস এম শহিদুল ইসলাম।

উপযুক্ত কাজের পরিবেশ, নারী ও শিশু শ্রমিকদের মজুরি বৈষম্যসহ নানা বিষয় উঠে আসে রিপোর্টিংয়ের মাধ্যমে। এর আগে সাতক্ষীরায় কর্মরত বিভিন্ন ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকরা দুই দিন প্রশিক্ষণ নিয়ে মাসব্যাপী রিপোর্টিংয়ে অংশ নেন।  

ফেলোশিপ পাওয়া ১০ সাংবাদিক হলেন দৈনিক যুগান্তর ও এনটিভির জেলা প্রতিনিধি সুভাস চৌধুরী, জনকণ্ঠের মিজানুর রহমান, সময়ের খবরের রুহুল কুদ্দুস, পত্রদূতের বার্তা সম্পাদক এস এম শহিদুল ইসলাম, মোহনা টিভির মো. আব্দুল জলিল, খোলা কাগজের ইব্রাহিম খলিল, চ্যানেল নাইনের কৃষ্ণ মোহন ব্যানার্জী, বাংলা ট্রিবিউনের আসাদুজ্জামান সরদার, পত্রদূতের নাজমুল শাহাদাৎ জাকির ও ইব্রাহিম খলিল।

তাদের ফেলোশিপের জন্য মনোনীত করে আর্থিক সহায়তা দেওয়া হয়। এর মধ্যে থেকে তিনজনকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়। এতে প্রথম হন বাংলা ট্রিবিউনের জেলা প্রতিনিধি আসাদুজ্জামান সরদার, দ্বিতীয় হন দৈনিক বাংলার এসএম শহীদুল ইসলাম এবং তৃতীয়  মোহনা টিভির মো. আব্দুল জলিল।

/এএম/এলকে/

সম্পর্কিত

মাংস খাওয়া নিয়ে সংঘর্ষে নববধূকে তালাক, পরদিন ফের বিয়ে

মাংস খাওয়া নিয়ে সংঘর্ষে নববধূকে তালাক, পরদিন ফের বিয়ে

পুকুরে বাবা-মা-মেয়ের লাশ: পুলিশ হেফাজতে ৪ জন

পুকুরে বাবা-মা-মেয়ের লাশ: পুলিশ হেফাজতে ৪ জন

দুবলার চরে যাচ্ছেন জেলেরা 

দুবলার চরে যাচ্ছেন জেলেরা 

বাড়ির পাশে ফল ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা

বাড়ির পাশে ফল ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা

বুয়েটে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ০২:০৯

চলতি সেশনে বুয়েটে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী ময়মনসিংহ মহানগরীর বাঘমারা এলাকার চিত্ত করের কন্যা রিয়া কর (১৮) এর মরদেহ উদ্ধার হয়েছে। মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার সময় বাসা থেকে মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরিবারের দাবি, বুয়েটে ভর্তি পরীক্ষায় প্রাথমিক বাছাইয়ে উত্তীর্ণ হতে না পেরে রাগ ও ক্ষোভে রিয়া ঘরের ফ্যানের সাথে ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে।

রিয়া করের মরদেহ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করে কোতোয়ালী মডেল থানার পুলিশ ইন্সপেক্টর ফারুক হোসেন জানান, মহানগরীর বাঘামারা এলাকার ব্যবসায়ী চিত্ত করের কন্যা রিয়া কর এবার বুয়েটে ভর্তির জন্য প্রাথমিক বাছাই পরীক্ষায় অংশ নেয়। মঙ্গলবার বিকেল ৪টার সময় ফলাফল বের হলে তাতে রিয়া কৃতকার্য হতে পারেনি। ফলাফল দেখে কাউকে কিছু না বলে নিজ কক্ষে চলে যায়। সন্ধ্যার দিকে দরজা বন্ধ দেখে পরিবারের লোকজন ডাকাডাকি করেও কোনও সাড়া পায় না। একপর্যায়ে ঘরের দরজা ভেঙ্গে দেখতে পায় ফ্যানের সাথে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ঝুলে আছে রিয়া।

পরিবারের লোকজন ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ বিষয়ে থানায় অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করা হয়েছে। ময়না তদন্তের জন্য মরদেহ হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

রিয়ার স্বজন ঐশী জানান, রিয়া কর ক্যান্টমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ থেকে এসএসসি ও এইচএসসিতে গোল্ডেন এ প্লাস পেয়ে বুয়েটে ভর্তির জন্য কোচিংয়ে লেখাপড়া করে আসছিল। ভর্তির জন্য প্রাথমিক বাছাই পরীক্ষায় অংশ নেয়। তিনি আরও জানান, পরিবারের বাসায় অনেক লোক একসাথে থাকার কারণে পাশেই একটি রুম ভাড়া করে একা থেকে লেখাপড়া চালিয়ে যাচ্ছিল রিয়া। তার মৃত্যুতে তার বাবা চিত্ত কর ও মা ভেঙ্গে পড়েছেন।

রিয়ার পিতা চিত্ত করের গ্রামের বাড়ি নেত্রকোনার মদন থানায়। বাঘমারায় তিনি দীর্ঘ দিন ধরে বসবাস করে আসছেন।

/এলকে/

সম্পর্কিত

একটি সেতুর জন্য পাঁচ গ্রামের মানুষের দুর্ভোগ

একটি সেতুর জন্য পাঁচ গ্রামের মানুষের দুর্ভোগ

যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা সেজে কোটিপতি, নিয়েছেন সরকারি ফ্ল্যাট

যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা সেজে কোটিপতি, নিয়েছেন সরকারি ফ্ল্যাট

কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে একজন গ্রেফতার

কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে একজন গ্রেফতার

চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণা, আটক ৩

চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণা, আটক ৩

কুমিল্লায় মন্দিরে হামলা মামলায় ১৬ জনকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ০০:১৩

কুমিল্লা শহরের কাপড়িয়াপট্টি চাঁন্দমনি রক্ষাকালী মন্দিরে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলায় গ্রেফতার ১৭ আসামির ১৬ জনকে কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগারের সামনে দুই দিন করে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার কুমিল্লার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ১ নম্বর আমলি আদালতের বিচারক নুসরাত জাহান উর্মি এ আদেশ দেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ১৭ আসামির একজন শিশু হওয়ায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ (জেলা ও দায়রা জজ) আদালত জামিন দেন। বাকি ১৬ আসামিকে দুই দিন করে জিজ্ঞাসাবাদের আদেশ দেওয়া হয়। কোতোয়ালি মডেল থানার উপ-পরিদর্শক ও মামলার বাদী আলিম খান এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

গত ১৩ অক্টোবর নগরীর নানুয়াদিঘির পাড় পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন রাখার ঘটনায় নগরের কয়েকটি পূজামণ্ডপে হামলা, ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে। এর জেরে চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ, নোয়াখালীর চৌমুহনী, রংপুরের পীরগঞ্জসহ কয়েক স্থানে সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। পরে সিসিটিভির ফুটেজের মাধ্যমে পূজামণ্ডপে কোরআন রাখায় প্রধান অভিযুক্ত ইকবালকে শনাক্ত করে পুলিশ।

গত ২১ অক্টোবর ইকবালকে কক্সবাজার থেকে গ্রেফতার করা হয়। ২২ অক্টোবর তাকে কুমিল্লায় এনে ২৩ অক্টোবর আদালতে হাজির করা হলে ইকবাল, মাজারের দুই খাদেম ও ৯৯৯-এ কল করা ইকরামের সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন বিচারক।

/এএম/এলকে/

সম্পর্কিত

রাঙামাটিতে নির্বাচনী সহিংসতায় প্রাণ গেলো ইউপি সদস্যের

রাঙামাটিতে নির্বাচনী সহিংসতায় প্রাণ গেলো ইউপি সদস্যের

৫ ইউনিয়নের কোনও পদেই প্রতিদ্বন্দ্বী নেই

৫ ইউনিয়নের কোনও পদেই প্রতিদ্বন্দ্বী নেই

সেতুর অপেক্ষায় তিন যুগ লক্ষাধিক মানুষ

সেতুর অপেক্ষায় তিন যুগ লক্ষাধিক মানুষ

৫ ইউনিয়নের কোনও পদেই প্রতিদ্বন্দ্বী নেই

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ২২:৪৫

দ্বিতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনে কুমিল্লার তিন উপজেলার ২২ ইউনিয়নে আগামী ১১ নভেম্বর ভোটগ্রহণ হবে। এর মধ্যে সাতটিতেই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হতে যাচ্ছেন নৌকার প্রার্থীরা।

এমনকি জেলার লাকসাম উপজেলার পাঁচ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান, সাধারণ সদস্য ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্যের সবকয়টি পদেও একক প্রার্থীর কারণে সবাই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হচ্ছেন। এ প্রার্থীদের সবাই সরকার দলীয়। স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলামের নির্বাচনি আসন হলো লাকসাম (কুমিল্লা-৯)। ইউনিয়নগুলো হলো- গোবিন্দপুর, উত্তরদা, লাকসাম পূর্ব, কান্দিরপাড় ও আজগরা।

জেলা নির্বাচন অফিস জানিয়েছে, ২২ ইউনিয়নের মধ্যে লাকসাম ছাড়া মেঘনা ও তিতাস উপজেলার ১৫ ইউপিতে চেয়ারম্যান এবং ১৭টি সাধারণ সদস্য ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

জেলার তিতাস উপজেলার ৯টি ইউনিয়নের মধ্যে চেয়ারম্যান পদে কড়িকান্দি ইউনিয়নে সাইফুল আলম বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ের পথে। তিনি উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক। তবে এই উপজেলার বাকি আট ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী, স্বতন্ত্র ও জাতীয় পার্টির একাধিক প্রার্থী রয়েছেন।

অপরদিকে, মেঘনা উপজেলায় আট ইউনিয়নের মধ্যে চন্দনপুর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আসাদুল্লাহ মাস্টার বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ের পথে। তিনি ওই ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ সভাপতি। বাকি সাত ইউনিয়নে দলীয় প্রার্থীর বিপরীতে সাত জন বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছেন। পাশাপাশি এই উপজেলার তিন ইউনিয়নে বিএনপির প্রার্থীরা নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন।

এসব তথ্য নিশ্চিত করে কুমিল্লা জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা মঞ্জুরুল আলম জানান, তিন উপজেলার ২২ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৯৪ বৈধ প্রার্থীর মধ্যে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন ১৪ জন। সাধারণ ওয়ার্ডে সদস্য পদে বৈধ প্রার্থীর সংখ্যা ৪৭৪। আর সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে বৈধ প্রার্থী ১৪৫ জন। এর মধ্যে সাধারণ সদস্য পদে ৬১ এবং সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ১৯ প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী হচ্ছেন।

/এফআর/

সম্পর্কিত

রাঙামাটিতে নির্বাচনী সহিংসতায় প্রাণ গেলো ইউপি সদস্যের

রাঙামাটিতে নির্বাচনী সহিংসতায় প্রাণ গেলো ইউপি সদস্যের

কুমিল্লায় মন্দিরে হামলা মামলায় ১৬ জনকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ

কুমিল্লায় মন্দিরে হামলা মামলায় ১৬ জনকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ

সেতুর অপেক্ষায় তিন যুগ লক্ষাধিক মানুষ

সেতুর অপেক্ষায় তিন যুগ লক্ষাধিক মানুষ

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ভেলা বিলে অবমুক্ত করা হলো ৮৫ পাখি

ভেলা বিলে অবমুক্ত করা হলো ৮৫ পাখি

সিরাজগঞ্জে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ের পথে ৬ চেয়ারম্যান

সিরাজগঞ্জে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ের পথে ৬ চেয়ারম্যান

চুল কাটার শাস্তির আইন নেই রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে, সময় নিলো কর্তৃপক্ষ

চুল কাটার শাস্তির আইন নেই রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে, সময় নিলো কর্তৃপক্ষ

মহাসড়কের পাশে প্রতিবন্ধী যুবকের লাশ

মহাসড়কের পাশে প্রতিবন্ধী যুবকের লাশ

আ.লীগ প্রার্থীর বিরুদ্ধে আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ হারুনের

আ.লীগ প্রার্থীর বিরুদ্ধে আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ হারুনের

হেফাজতের আমির মুহিবুল্লাহ বাবুনগরী হাসপাতালে

হেফাজতের আমির মুহিবুল্লাহ বাবুনগরী হাসপাতালে

নিষেধাজ্ঞা ওঠার সঙ্গে সঙ্গে বাজারে হাজার মণ ইলিশ

নিষেধাজ্ঞা ওঠার সঙ্গে সঙ্গে বাজারে হাজার মণ ইলিশ

লন্ডন থেকে দুর্গাপূজায় হামলার পরিকল্পনা হয়েছে: তথ্যমন্ত্রী

লন্ডন থেকে দুর্গাপূজায় হামলার পরিকল্পনা হয়েছে: তথ্যমন্ত্রী

দুবলার চরে যাচ্ছেন জেলেরা 

দুবলার চরে যাচ্ছেন জেলেরা 

দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো চালকদের 

দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাণ গেলো চালকদের 

সর্বশেষ

রাঙামাটিতে নির্বাচনী সহিংসতায় প্রাণ গেলো ইউপি সদস্যের

রাঙামাটিতে নির্বাচনী সহিংসতায় প্রাণ গেলো ইউপি সদস্যের

সাতক্ষীরায় ১০ সাংবাদিক পেলেন মিডিয়া ফেলোশিপ

সাতক্ষীরায় ১০ সাংবাদিক পেলেন মিডিয়া ফেলোশিপ

বুয়েটে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার

বুয়েটে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার

বিশ্বকাপ শেষ সাইফউদ্দিনের, মূল দলে রুবেল

বিশ্বকাপ শেষ সাইফউদ্দিনের, মূল দলে রুবেল

আর কত সুযোগ পাবেন লিটন?

আর কত সুযোগ পাবেন লিটন?

© 2021 Bangla Tribune