X
রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

প্লট বরাদ্দ পেলেও অবকাঠামো নির্মাণ শুরু করেননি ওষুধ শিল্প মালিকরা

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০১৭, ১৯:০৮

ওষুধ শিল্প পার্ক যেমন হতে পারে অবশেষে মুন্সীগঞ্জের বাউশিয়ায় ওষুধ শিল্প মালিকদের দেওয়া তালিকা অনুযায়ী প্লট বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। তবে সেসব প্লটে এখনও অবকাঠামো নির্মাণ কাজ শুরু করেননি বরাদ্দ পাওয়া মালিকরা। শিল্পনগরীর জন্য কেন্দ্রীয় বর্জ্য শোধনাগার (সিইপিটি) নির্মাণের কাজও শুরু হয়নি। ওষুধ শিল্প মালিকরা বলছেন, অবকাঠামো নির্মাণের জন্য ব্যাংক ঋণের প্রয়োজন। আর ব্যাংক ঋণ পেতে হলে প্রয়োজন বরাদ্দ পাওয়া জমির দলিল। তাই জমির দলিল হাতে না আসা পর্যন্ত ওষুধ শিল্পনগরী পুরোপুরি কার্যকর করার বিষয়ে অনিশ্চয়তা থেকেই যাচ্ছে। যদিও ওষুধ শিল্প মালিক সমিতি বলছে, আগামী দুই বছরের মধ্যেই পুরোপুরি কার্যকর হবে বাউশিয়ার ওষুধ শিল্পনগরী।

২০০৮ সালে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় ওষুধ শিল্পের জন্য মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক সংলগ্ন বাউশিয়ার ও লক্ষ্মীপুর মৌজায় দুইশ’ একর জায়গাজুড়ে একটি অ্যাক্টিভ ফার্মাসিউটিক্যাল ইনগ্রেডিয়েন্ট (এপিআই) গড়ে তোলার প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়। দেশীয় ওষুধ কোম্পানিগুলোর নিজেদের ব্যবসায়িক কর্মকাণ্ডের প্রসার ঘটানো, প্রতিযোগিতামূলক বাজার ধরতে পণ্যে বৈচিত্র্য সৃষ্টি ও পণ্যের মান উন্নয়নে গবেষণা করাই এই পার্কের প্রধান উদ্দেশ্য।

এছাড়াও ওষুধ উৎপাদনে যেসব কাঁচামাল প্রয়োজন ও যেসব কাঁচামাল বিদেশ থেকে আমদানি করা হয়, আগামী ১০ বছরের মধ্যে দেশেই সেগুলো উৎপাদন করা ও কাঁচামাল আমদানি উল্লেখযোগ্য পরিমাণে কমানো বা বন্ধ করাও এই প্রকল্পের অন্যতম উদ্দেশ্য। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে পারলে বছরে সাশ্রয় হবে প্রায় এক হাজার কোটি টাকা।

জানা গেছে, ওষুধ শিল্প মালিক সমিতির পক্ষ থেকে মোট ২৭টি কোম্পানির তালিকা শিল্প মন্ত্রণালয়ে জমা দেওয়া হয়েছিল। সেই তালিকা অনুযায়ী প্রতিটি কোম্পানির জন্য সর্বোচ্চ ১০ একর ও সর্বনিম্ন ৫ একর জমি বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন ওষুধ শিল্প মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক এস এম শফিউজ্জামান। তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমাদের দেওয়া তালিকা অনুযায়ী শিল্প মন্ত্রণালয় থেকে জমি বরাদ্দ পেয়েছি। কিছুদিনের মধ্যেই সেখানে কোম্পানির অবকাঠামো নির্মাণের কাজ শুরু হবে।’ এখনও বরাদ্দ না হওয়া প্লটগুলো প্রয়োজন হলে পরবর্তী সময়ে নতুন কোনও কোম্পানির নামে বরাদ্দ দেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

শফিউজ্জামান জানান, এই শিল্পনগরীতে প্রতি একর জমির মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে এক কোটি টাকা, যা স্থানীয় দরের চেয়ে অনেক বেশি। তবে মালিকরা সবাই আন্তরিক বলেই এরই মধ্যে তারা তাদের নামে বরাদ্দ দেওয়া প্লটের দামের একাংশ পরিশোধ করেছেন।

অন্য এক প্রশ্নের জবাবে ওষুধ শিল্প মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘সরকারি অর্থে নয়, শিল্প মালিকদের নিজেদের টাকায় শিল্প নগরীতে নির্মিত হবে কেন্দ্রীয় বর্জ্য শোধনাগার। আমরা প্রস্তুত। তবে অবকাঠামো নির্মাণে অবশ্যই ব্যাংক ঋণের প্রয়োজন হবে। এর জন্য প্রয়োজন হবে বরাদ্দ পাওয়া জমির দলিল। সবকিছু ঠিক থাকলে, আগামী দুই বছরের মধ্যে, অর্থাৎ ২০২০ সালের মধ্যেই নতুন শিল্প নগরীতে কাজ শুরু করতে পারবে দেশের ওষুধ কারখানাগুলো।’

বিসিক সূত্রে জানা গেছে, ৪২টি প্লটের শিল্পনগরী বা পার্কে ওষুধ শিল্পের বিভিন্ন কাঁচামাল উৎপাদনের জন্য শিল্প স্থাপন করা হবে। এখানে প্রায় ২৫ হাজার মানুষের সরাসরি কর্মসংস্থান হবে। প্রকল্পটি বাস্তবায়নের কাজ ২০১০ সালের ডিসেম্বরে শেষ করার কথা থাকলেও বিভিন্ন জটিলতা ও প্রতিকূলতার কারণে মেয়াদ একাধিকবার বাড়ানো হয়েছে। এই পার্কে প্রতি শতাংশ জমির মূল্য ধরা হয়েছে ৩ লাখ ৯ হাজার টাকা। ৪২টি প্লটের মধ্যে ১০ বিঘা আয়তনের প্লট ৩৮টি, ৮ বিঘা আয়তনের প্লট চারটি। এখন পর্যন্ত মোট ২৭টি প্লট বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

ওষুধ শিল্প নগরী সম্পর্কে জানতে চাইলে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘মালিকদের প্লট বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। সরকারের পক্ষ থেকে বাকি সব কাজও শেষ। সেখানকার কাজ এখন মালিকদের।’ প্লট বরাদ্দ দেওয়ার পরপরই ওষুধের কাঁচামাল উৎপাদনের কারখানা স্থাপন শুরু হবে বলে জানান তিনি। এতে ওষুধ শিল্পের কাঁচামাল খাতে আমদানি খরচ ৭০ শতাংশ কমে আসবে বলেও আশাবাদী তিনি।

এ প্রসঙ্গে এস এম শফিউজ্জামান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমরা নিজেদের মধ্যে কিছু কাজ শেষ করেছি। শিল্পনগরীতে কেন্দ্রীয় বর্জ্য শোধনাগার হবে আমাদের ব্যবসায়ীদের টাকায়। সেটি ম্যানেজ করাও একটি বড় কাজ। সেটি করতে কিছুটা সময় লাগছে। কেন্দ্রীয় বর্জ্য শোধনাগার নির্মিত না হলে তো শিল্প প্রতিষ্ঠান চালানো যাবে না। এছাড়াও ওষুধ শিল্পের জন্য পেনিসিলিন ও নন-পেনিসিলিন পণ্য উৎপাদন ভিন্নভাবে করতে হয়। তাই এর কাঁচামালও হয় ভিন্ন।’

এপিআই শিল্প পার্ক প্রকল্প পরিচালক মো. আবদুল বাছেত বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘মালিকদের প্লট বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। সেখানে অবকাঠামো নির্মাণের কাজ এখন তাদের। সরকারের পক্ষ থেকে সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে। আশা করছি, নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই প্রকল্পের কাজ শেষ হবে।’

শিল্প মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, দেশে উৎপাদিত ওষুধ বর্তমানে বিশ্বের ১৩৩টি দেশে রফতানি হচ্ছে। স্বল্পোন্নত দেশ হিসেবে বাংলাদেশ প্যাটেন্টেড ওষুধ উৎপাদনের জন্য বিশ্ববাণিজ্য সংস্থা থেকে ২০৩৩ সাল পর্যন্ত ছাড় পেয়েছে। এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে শিগগিরই এপিআই শিল্প পার্ক বাস্তবায়ন করা গেলে এই খাতে আমদানি ব্যয় সাশ্রয়ের পাশাপাশি রফতানি আয় বাড়বে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

 

/এসআই/টিআর/টিএন/

সম্পর্কিত

বাণিজ্য, নিরাপত্তা ও জলবায়ু ইস্যু গুরুত্ব পাবে

বাণিজ্য, নিরাপত্তা ও জলবায়ু ইস্যু গুরুত্ব পাবে

ত্রিপুরায় কবর দেওয়া মুক্তিযোদ্ধাদের দেহাবশেষ ফিরিয়ে আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ত্রিপুরায় কবর দেওয়া মুক্তিযোদ্ধাদের দেহাবশেষ ফিরিয়ে আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় জড়িতদের শিগগিরই বিচারের আওতায় আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় জড়িতদের শিগগিরই বিচারের আওতায় আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

৩০ অক্টোবরের মধ্যেই আমদানির চাল বাজারে ছাড়ার নির্দেশ

৩০ অক্টোবরের মধ্যেই আমদানির চাল বাজারে ছাড়ার নির্দেশ

প্যারিসে হাসিনা-ম্যাখোঁর বৈঠক

বাণিজ্য, নিরাপত্তা ও জলবায়ু ইস্যু গুরুত্ব পাবে

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ০২:২৫

ইউরোপীয় ইউনিয়নের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সদস্যরাষ্ট্র ফ্রান্স সফরের সময় ওই দেশের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখোঁর সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক হবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার। আগামী নভেম্বর মাসের ৯ তারিখ লন্ডন থেকে প্যারিস যাবেন প্রধানমন্ত্রী।

এ বিষয়ে পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন বলেন, ‘ফ্রান্স আমাদের অন্যতম বৃহৎ বাণিজ্যিক অংশীদার, উন্নয়ন সহযোগী। বিভিন্ন ধরনের সহযোগিতা রয়েছে ওই দেশটির সঙ্গে। ফ্রান্সের সঙ্গে যে বহুমুখী সহযোগিতা রয়েছে সে তুলনায় রাজনৈতিক যোগাযোগ কিছুটা কম।’

ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে যুক্তরাজ্য বের হয়ে যাওয়ার পরে ফ্রান্সের গুরুত্ব আরও বেড়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘বহুপাক্ষিক বিভিন্ন অনুষ্ঠানে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে দেখা হলেও ঢাকা ও প্যারিসের মধ্যে শীর্ষ পর্যায়ের বৈঠক সাম্প্রতিক সময়ে আর হয়নি।’

তিনি বলেন, ‘ফ্রান্সের সঙ্গে সব ধরনের সম্পৃক্ততা বাড়াতে চাই এবং সাম্প্রতিক সময়ে ফ্রান্সেরও আগ্রহ দেখা যাচ্ছে।’

বাংলাদেশের আগ্রহ

জলবায়ু পরিবর্তন, সন্ত্রাসবাদ দমন, উগ্রবাদ মোকাবিলা, সাইবার সিকিউরিটিসহ বিভিন্ন ইস্যুতে বাংলাদেশ অন্যান্য দেশগুলোর সঙ্গে কাজ করছে।

পররাষ্ট্র সচিব বলেন, একইভাবে আমরা ফ্রান্সের সঙ্গে কাজ করতে চাই, কারণ প্রযুক্তিগত দিক থেকে তারা অনেক এগিয়ে রয়েছে।’

বাণিজ্যিক যোগাযোগ আরও বৃদ্ধির সুযোগ রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, দুদেশের বেসরকারি খাত এক্ষেত্রে বড় আকারে কাজ করতে পারে।

বিভিন্ন বৈশ্বিক বিষয়ে দুই পক্ষ এখন আলোচনা করার অবস্থায় রয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, অনেক বিষয়ে ঢাকা ও প্যারিস একসঙ্গে কাজ করেছে এবং করছে।

জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ে বাংলাদেশ ও ফ্রান্স উভয়ের আগ্রহ রয়েছে। ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরামের চেয়ারম্যান বাংলাদেশের কাছ থেকে ফ্রান্স এ বিষয়ে জানতে চাইবে বলে তিনি জানান।

জাতিসংঘে শান্তিরক্ষী বাহিনীর আন্ডার সেক্রেটারি বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ফরাসি হয়ে থাকে এবং তাদের সঙ্গে এ বিষয়ে আলোচনার অনেক সুযোগ রয়েছে বলে তিনি জানান।

ফ্রান্সের আগ্রহ

বাংলাদেশে যে অর্থনৈতিক সুযোগ তৈরি হচ্ছে সেটি নিতে ফ্রান্স আগ্রহী বলে পররাষ্ট্র সচিব জানান।

তিনি বলেন, ন্যাটোর গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ফ্রান্স। দেশটি সমরাস্ত্র তৈরিতে অভিজ্ঞ। বাংলাদেশের যে ডিফেন্স সক্ষমতা এবং ফোর্সেস গোল ২০৩০ ‑ সেখানে প্যারিসের আগ্রহ আছে।

উল্লেখ্য, গত বছর মার্চে কোভিড পরিস্থিতি খারাপ হওয়ার ঠিক আগে ফ্রান্সের সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের মন্ত্রী ফ্লোরেন্স পারলি ঢাকা সফর করেন এবং সমরাস্ত্র বিক্রয়ের বিষয়ে তাদের আগ্রহের কথা রাজনৈতিক নেতৃত্বকে জানান।

আফ্রিকায় আগ্রহ

আফ্রিকার অনেক দেশ আগে ফ্রান্সের উপনিবেশ ছিল এবং ওইসব ফ্রেঞ্চ ভাষাভাষীর দেশে প্যারিসের প্রভাব রয়েছে।

এ বিষয়ে পররাষ্ট্র সচিব বলেন, ‘বাংলাদেশের আরেকটি আগ্রহের জায়গা হচ্ছে আফ্রিকা। কারণ সেখানকার অনেক দেশই আগে ফরাসি উপনিবেশ ছিল।’

বাংলাদেশ আফ্রিকাতে ফুটপ্রিন্ট রাখতে চায় ‑ জানিয়ে তিনি বলেন, আমাদের যে দূতাবাসগুলো রয়েছে সেগুলোর বেশিরভাগই ইংরেজি ভাষাভাষীর দেশে। ফ্রেঞ্চ ভাষাভাষীর দেশগুলোতে আমাদের যোগাযোগ কিছুটা কম।

এছাড়া, জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী বাহিনীতে আমাদের বেশিরভাগই ওই সমস্ত দেশে নিয়োজিত রয়েছে যেগুলোতে ফ্রেঞ্চ ভাষায় কথা বলা হয়।

তিনি বলেন, ওই সমস্ত দেশে সফল হতে গেলে তাদেরকে বুঝতে হবে এবং ফ্রান্স এক্ষেত্রে আমাদের সহযোগিতা করতে পারে।

/এসএসজেড/এমএস/

সম্পর্কিত

ত্রিপুরায় কবর দেওয়া মুক্তিযোদ্ধাদের দেহাবশেষ ফিরিয়ে আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ত্রিপুরায় কবর দেওয়া মুক্তিযোদ্ধাদের দেহাবশেষ ফিরিয়ে আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় জড়িতদের শিগগিরই বিচারের আওতায় আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় জড়িতদের শিগগিরই বিচারের আওতায় আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

৩০ অক্টোবরের মধ্যেই আমদানির চাল বাজারে ছাড়ার নির্দেশ

৩০ অক্টোবরের মধ্যেই আমদানির চাল বাজারে ছাড়ার নির্দেশ

২৪ ঘণ্টায় ৬ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২৯৩

২৪ ঘণ্টায় ৬ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২৯৩

ত্রিপুরায় কবর দেওয়া মুক্তিযোদ্ধাদের দেহাবশেষ ফিরিয়ে আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ২১:৩০

১৯৭১ সালে নিহত যেসব মুক্তিযোদ্ধাকে পশ্চিমবঙ্গ ত্রিপুরায় দাফন করা হয়েছে, তাদের কবর ও দেহাবশেষ শনাক্ত করে দেশে ফিরিয়ে আনা হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। শনিবার (১৬ অক্টোবর) রাজধানীর সেগুনবাগিচায় শিল্পকলা একাডেমির নাট্যশালায় ডকু-ড্রামা ‘দুটি যুদ্ধের একটি গল্প’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এই তথ্য জানান। 

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘কবর শনাক্ত ও পরবর্তী কার্যক্রমের বিষয়ে ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে। তবে করোনাকালে এ সংক্রান্ত কাজ পিছিয়েছে। করোনা সংক্রমণ আরেকটু কমে গেলে আমি নিজে গিয়ে পশ্চিমবঙ্গ ও ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে কথা বলবো।’

এরপর মুক্তিযোদ্ধাদের শনাক্ত এবং দেশে ফিরিয়ে আনার কার্যক্রম শুরু করা সম্ভব হবে বলে আশা করছেন আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

/আরটি/জেএইচ/

সম্পর্কিত

কুমিল্লার ঘটনায় জড়িতদের শিগগিরই বিচারের আওতায় আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় জড়িতদের শিগগিরই বিচারের আওতায় আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় কয়েকজনকে চিহ্নিত করা হয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় কয়েকজনকে চিহ্নিত করা হয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

বিনামূল্যে চিকিৎসা পাচ্ছেন মুক্তিযোদ্ধারা: মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী

বিনামূল্যে চিকিৎসা পাচ্ছেন মুক্তিযোদ্ধারা: মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী

পাশের দেশে কী হয়েছে, সেটা দেখার বিষয় নয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

পাশের দেশে কী হয়েছে, সেটা দেখার বিষয় নয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় জড়িতদের শিগগিরই বিচারের আওতায় আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ২১:০৩

কুমিল্লার ঘটনা কী কারণে ঘটেছে, সে প্রশ্ন খোদ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের। তিনি বলেছেন,  এ ঘটনার পেছনের কারণ খোঁজা হচ্ছে। যারা এ ঘটনায় জড়িত শিগগিরিই তাদের চিহ্নিত করে বিচারের মুখোমুখি করা হবে।

শনিবার (১৬ অক্টোবর) রাজধানীর সেগুনবাগিচার শিল্পকলা একাডেমির নাট্যশালায় আয়োজিত   ডকু ড্রামা ‘দুটি যুদ্ধের একটি গল্প’-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন। 

এ ঘটনার কারণে যারা ক্ষুব্ধ হয়েছে তাদেরকে ধৈর্য ধরার পরামর্শ দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। সবাইকে চিহ্নিত করে সবার সামনে হাজির করা হবে বলেও জানান তিনি। তিনি বলেন, পবিত্র কোরআন আমরা মুসলমানরা হৃদয়ে ধারণ করি। কোরআনের অবমাননা যেভাবে দেখানো হয়েছে আমি বিশ্বাস করি সেরকম ঘটেনি।

এ ঘটনার পর যারা অহেতুক ভাঙচুরে জড়িয়ে পড়ছে তাদের এ ধরনের কর্মকাণ্ড থেকে বিরত থাকার আহ্বানও জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

/আরটি/এমআর/

সম্পর্কিত

ত্রিপুরায় কবর দেওয়া মুক্তিযোদ্ধাদের দেহাবশেষ ফিরিয়ে আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ত্রিপুরায় কবর দেওয়া মুক্তিযোদ্ধাদের দেহাবশেষ ফিরিয়ে আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় কয়েকজনকে চিহ্নিত করা হয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় কয়েকজনকে চিহ্নিত করা হয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

পাশের দেশে কী হয়েছে, সেটা দেখার বিষয় নয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

পাশের দেশে কী হয়েছে, সেটা দেখার বিষয় নয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কারাগারে বন্দি বেশিরভাগই মাদক মামলার আসামি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কারাগারে বন্দি বেশিরভাগই মাদক মামলার আসামি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

৩০ অক্টোবরের মধ্যেই আমদানির চাল বাজারে ছাড়ার নির্দেশ

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ২০:০১

সরকার আগামী ৩০ অক্টোবরের মধ্যেই আমদানির চাল বাজারে আনার চূড়ান্ত নির্দেশনা দিয়েছে। আমদানির চাল বাজারে আনার সময় আর না বাড়ানোরও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। খাদ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে এসব তথ্য।

খাদ্য মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, এ সিদ্ধান্ত জানিয়ে খাদ্য মন্ত্রণালয় থেকে খাদ্য অধিদফতরের মহাপরিচালকের কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছে। শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) সরকারি সাপ্তাহিক ছুটির দিনে চিঠিটি পাঠানো হয়েছে।

চিঠিতে বলা হয়েছে- বেসরকারিভাবে চাল আমদানির জন্য বরাদ্দপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে যেসব আমদানিকারক এলসি খুলেছেন কিন্তু এখনও চাল বাজারজাত করতে পারেননি তাদের এলসিকৃত চাল বাজারজাত করার লক্ষ্যে আগামী ৩০ তারিখ পর্যন্ত সময়সীমা বাড়ানো হলো। এই সময়সীমা আর বাড়ানো হবে না। 

উল্লেখ্য, চালের বাজারের লাগাম টানতে শুল্ক কমিয়ে চাল আমদানির সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। চাল আমদানিতে শুল্ককর কমানোর অনুরোধ জানিয়ে গত ৬ জুলাই এনবিআরকে চিঠি দেয় খাদ্য মন্ত্রণালয়। এরপর গত ১২ আগস্ট চাল আমদানির শুল্ক কমিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। চালের আমদানি শুল্ক ৬২ দশমিক ৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২৫ শতাংশ করে এনবিআর। এ সুবিধা ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত বহাল থাকবে।

গত ১৭ থেকে ৩০ আগস্ট পর্যন্ত মোট ৪১৫ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে ১৬ লাখ ৯৩ হাজার টন সেদ্ধ ও আতপ চাল আমদানির অনুমতি দেয় খাদ্য মন্ত্রণালয়। গত ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ২ লাখ টন চাল আমদানি করা হয়েছে। 

/এসআই/এমআর/

সম্পর্কিত

‘বিলাসিতা’য় বছরে নষ্ট হয় ৬ লাখ টন চাল

‘বিলাসিতা’য় বছরে নষ্ট হয় ৬ লাখ টন চাল

১৭ লাখ টন চাল আমদানির অনুমতি

১৭ লাখ টন চাল আমদানির অনুমতি

খাদ্য ঘাটতি ঠেকাতে প্রয়োজনে চাল আমদানির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

খাদ্য ঘাটতি ঠেকাতে প্রয়োজনে চাল আমদানির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

বেসরকারি পর্যায়ে ১০ লাখ টন চাল আমদানির সিদ্ধান্ত

বেসরকারি পর্যায়ে ১০ লাখ টন চাল আমদানির সিদ্ধান্ত

২৪ ঘণ্টায় ৬ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২৯৩

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৪৬

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ছয়জন। তাদের নিয়ে দেশে সরকারি হিসেবে করোনাতে আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন ২৭ হাজার ৭৫২ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাতে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ২৯৩ জন। তাদের নিয়ে দেশে করোনাতে সরকারি হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ১৫ লাখ ৬৫ হাজার ১৭৪ জন। 

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৪৪২জন, তাদের নিয়ে দেশে করোনাতে আক্রান্ত হয়ে মোট সুস্থ হলেন ১৫ লাখ ২৭ হাজার ৩৩৩ জন। 

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাতে রোগী শনাক্তের হার এক দশমিক ৮৮ শতাংশ আর এখন পর্যন্ত রোগী শনাক্তের হার ১৫ দশমিক ৫৩ শতাংশ। 

শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯৭ দশমিক ৫৮ শতাংশ আর শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যহার এক দশমিক ৭৭ শতাংশ।

স্বাস্থ্য অধিদফতর জানাচ্ছে, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ১৫ হাজার ২৫১টি আর নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১৫ হাজার ৫৮০টি।  দেশে এখন পর্যন্ত করোনার মোট নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১ কোটি ৭৬ হাজার ৮২৫টি। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায়  পরীক্ষা হয়েছে ৭৩ লাখ ৮০ হাজার ৬৯৬ টি আর বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা হয়েছে ২৬ লাখ ৯৬ হাজার ১২৯টি।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ছয়জনের মধ্যে পুরুষ চারজন আর নারী দুইজন। দেশে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে পুরুষ মারা গেছেন ১৭ হাজার ৭৭৯ জন আর নারী নয় হাজার ৯৭৩ জন। 

গত ২৪ ঘণ্টায় মৃতদের মধ্যে ৭১ থেকে ৮০ বছর বয়সী দুজন,  ৬১ থেকে ৭০ বছর বয়সী  দুজন আর ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে আছেন দুজন।  মারা যাওয়া ছয়জনের মধ্যে তিনজন ঢাকা বিভাগের আর চট্টগ্রাম, খুলনা ও সিলেট বিভাগের আছেন একজন করে। তারা সবাই সরকারি হাসপাতালে মারা গেছেন।

 

/জেএ/এমআর/

সম্পর্কিত

পাঁচ মাস পর সর্বনিম্ন শনাক্ত

পাঁচ মাস পর সর্বনিম্ন শনাক্ত

পিছিয়ে যাচ্ছে সরকারিভাবে করোনা টিকা উৎপাদন

পিছিয়ে যাচ্ছে সরকারিভাবে করোনা টিকা উৎপাদন

করোনায় বেড়েছে মৃত্যু

করোনায় বেড়েছে মৃত্যু

আবারও মৃত্যু বেড়েছে, শনাক্ত কমেছে

আবারও মৃত্যু বেড়েছে, শনাক্ত কমেছে

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

বাণিজ্য, নিরাপত্তা ও জলবায়ু ইস্যু গুরুত্ব পাবে

প্যারিসে হাসিনা-ম্যাখোঁর বৈঠকবাণিজ্য, নিরাপত্তা ও জলবায়ু ইস্যু গুরুত্ব পাবে

ত্রিপুরায় কবর দেওয়া মুক্তিযোদ্ধাদের দেহাবশেষ ফিরিয়ে আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ত্রিপুরায় কবর দেওয়া মুক্তিযোদ্ধাদের দেহাবশেষ ফিরিয়ে আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় জড়িতদের শিগগিরই বিচারের আওতায় আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় জড়িতদের শিগগিরই বিচারের আওতায় আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

৩০ অক্টোবরের মধ্যেই আমদানির চাল বাজারে ছাড়ার নির্দেশ

৩০ অক্টোবরের মধ্যেই আমদানির চাল বাজারে ছাড়ার নির্দেশ

২৪ ঘণ্টায় ৬ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২৯৩

২৪ ঘণ্টায় ৬ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২৯৩

দেশ বিক্রি করে তো আমি ক্ষমতায় আসবো না: প্রধানমন্ত্রী

দেশ বিক্রি করে তো আমি ক্ষমতায় আসবো না: প্রধানমন্ত্রী

বঙ্গবন্ধুর নির্দেশে সিরিয়ায় চিকিৎসক দল পাঠানোর সিদ্ধান্ত

১৯৭৩ সালের এই দিনবঙ্গবন্ধুর নির্দেশে সিরিয়ায় চিকিৎসক দল পাঠানোর সিদ্ধান্ত

বিশ্ব খাদ্য দিবস আজ

বিশ্ব খাদ্য দিবস আজ

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় জনপ্রতিনিধিদের সতর্ক থাকার আহ্বান

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় জনপ্রতিনিধিদের সতর্ক থাকার আহ্বান

খাদ্যশস্যের উৎপাদন বেড়ে সাড়ে ৪ কোটি মেট্রিক টন: প্রধানমন্ত্রী

খাদ্যশস্যের উৎপাদন বেড়ে সাড়ে ৪ কোটি মেট্রিক টন: প্রধানমন্ত্রী

সর্বশেষ

ফেনীতে ত্রিমুখী সংঘর্ষ, আহত ৩০

ফেনীতে ত্রিমুখী সংঘর্ষ, আহত ৩০

ফরিদা মজিদের কথা

ফরিদা মজিদের কথা

রাজধানীর নিকুঞ্জ থেকে চিকিৎসকের লাশ উদ্ধার

রাজধানীর নিকুঞ্জ থেকে চিকিৎসকের লাশ উদ্ধার

দিনে মনোনয়নপত্র জমা, রাতে গুলিতে আ.লীগ প্রার্থীর মৃত্যু

দিনে মনোনয়নপত্র জমা, রাতে গুলিতে আ.লীগ প্রার্থীর মৃত্যু

বাণিজ্য, নিরাপত্তা ও জলবায়ু ইস্যু গুরুত্ব পাবে

প্যারিসে হাসিনা-ম্যাখোঁর বৈঠকবাণিজ্য, নিরাপত্তা ও জলবায়ু ইস্যু গুরুত্ব পাবে

© 2021 Bangla Tribune