X
মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১০ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও গ্রাহকের ভোগান্তি কমাবে ‘ই-কেওয়াইসি’ প্রযুক্তি

আপডেট : ২৪ জানুয়ারি ২০২০, ১০:১৬

গাদা গাদা ফরম পূরণ করে ব্যাংক হিসাব খোলার দিন শেষ হতে চলেছে। ই-কেওয়াইসি (ইলেকট্রনিক নো ইয়োর কাস্টমার) প্রযুক্তির মাধ্যমে ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠানের কোনও গ্রাহকের পেছনে ব্যয় করা সময় ও খরচ দুটোই কমবে। ভোগান্তি কমবে গ্রাহকেরও। ওয়েবসাইট বা অ্যাপের মাধ্যমে একজন গ্রাহকের কেওয়াইসি পূরণ করতে এখন ব্যয় হবে মাত্র কয়েক মিনিট— যা আগে লাগতো কয়েকদিন।
দেশের সব ধরনের আর্থিক প্রতিষ্ঠানে ই-কেওয়াইসি চালুর জন্য সার্কুলার জারি করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বাংলাদেশ ফিনান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (বিএফআইইউ)। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইনের উদ্দেশ্য পূরণের লক্ষ্যে প্রথমে বাংলাদেশ ব্যাংক এবং পরবর্তী সময়ে বিএফআইইউ ২০১৮ সালে গ্রাহকের তথ্য নিয়ে হিসাব খোলার নির্দেশনা জারি করে। মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইনের নির্দেশনাগুলো প্রতিপালনের জন্য হিসাব খোলার ফরমের সঙ্গে নতুন নতুন অংশ সংযোজন করা হয়। ই-কেওয়াইসিও তেমন একটি সংযোজন। ভারত, থাইল্যান্ড, মালয়েশিসহ কয়েকটি দেশে ই-কেওয়াইসি প্রযুক্তির ব্যবহার হচ্ছে বলে জানা যায়।
জানতে চাইলে বাংলাদেশ ব্যাংকের যুগ্ম পরিচালক ও ই-কেওয়াইসি প্রকল্পের কর্মকর্তা মাসুদ রানা বলেন, ‘সরকারের পক্ষ থেকে নির্দেশনা রয়েছে এ বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে দেশের সব ব্যাংকে এটা ব্যবহার করতে হবে। সেই হিসেবে ২০২১ সালের মধ্যে দেশের সব ব্যাংকের কেওয়াইসি হবে অটোমেটেড বা ই-কেওয়াইসি। বিএফআইইউ গত অক্টোবরে  সফলভাবে ই-কেওয়াইসি পাইলট করেছে।’

এই প্রযুক্তি ব্যবহারে দেখা গেছে, ব্যাংক হিসাব খুলতে যেখানে ম্যানুয়ালি (কাগজে-কলমে) ফরম পূরণ করতে সময় লাগতো কয়েকদিন, সেখানে ই-কেওয়াইসিতে কয়েক মিনিটের মধ্যে ব্যাংক হিসাব খোলার কাজ সম্পন্ন হয়। দেশের ১০ ব্যাংক/আর্থিক প্রতিষ্ঠান গিগা ই-কেওয়াইসি পাইলট করে সন্তোষজনক ফল পেয়েছে। দেশের ৩৩ জেলার ৫০টি এলাকায় ব্যাংকগুলোর শাখায় ই-কেওয়াইসি পাইলট করা হয়েছে। গত অক্টোবর মাস থেকে পাইলটিংয়ের কাজ শুরু হয়।

‘গিগা ই-কেওয়াইসি’ প্রযুক্তির মাধ্যমে ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠানের একজন গ্রাহকের পেছনে ব্যয় করা সময় ও আর্থিক খরচ দুই-ই কমবে। একই সঙ্গে ভোগান্তি কমবে গ্রাহকেরও।

গিগাটেক লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সামিরা জুবেরী হিমিকা বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘‘আমাদের সলিউশনের নাম ‘গিগা ই-কেওয়াইসি’ যা সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তিতে ব্যবহার করে তৈরি। ফলে এটাকে আমরা বলছি ‘মেড ইন বাংলাদেশ’ পণ্য। গত অক্টোবর মাসে ১০টি ব্যাংকে পাইলট এর মাধ্যমে সম্পূর্ণ প্রক্রিয়া যাচাই করেছে বাংলাদেশ ব্যাংকের ফিনান্সিয়াল ইনটেলিজেন্স ইউনিট (বিএফইউ)। ফলাফল সন্তোষজনক। ১০টি পাইলট আর্থিক প্রতিষ্ঠান  হলো— ডাচ বাংলা ব্যাংক, সিটি ব্যাংক, আইএফআইসি ব্যাংক, ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড, ব্র্যাক ব্যাংক, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক, ওয়ান ব্যাংক, ট্রাস্ট ব্যাংক ও আইডিএলসি।’
হিমিকা জানান, এ প্রযুক্তির সুবিধা হচ্ছে এটা দেশীয় প্রযুক্তি, শতভাগ স্বয়ংক্রিয়, ই-কেওয়াইসির নীতিমালার মাধ্যমে পরীক্ষিত, ১০টি ব্যাংকে ব্যবহারের যোগ্যতা প্রমাণিত, সম্পূর্ণ ডাটা সুরক্ষার ব্যবস্থা রয়েছে, মাল্টি ফাংশনাল সিস্টেম, ফিঙ্গার টেস্ট ও ফেসিয়াল সিস্টেম এবং মানি-লন্ডারিং ঠেকানোর জন্য এটি একটি কার্যকর পদ্ধতি। ম্যানুয়ালি যেখানে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খুলতে প্রায় ঘণ্টাখানেক সময় লাগে, সেখানে এই প্রযুক্তি ব্যবহার করে কয়েক মিনিটেই ভেরিকেশনসহ গ্রাহকের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খোলা সম্ভব।
জানা যায়, ‘গিগা ই-কেওয়াইসি'-তে গিগাটেকের নিজের তৈরি ফেসিয়াল রিকগনিশন সিস্টেম, জাতীয় পরিচয়পত্র যাচাই পদ্ধতিসহ আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স ও মেশিন লার্নিং প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে। এরমধ্যেই মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইনের নির্দেশনাগুলো  প্রতিপালনে সব ধরনের প্রযুক্তি অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। সব ধরনের আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে দেওয়ার জন্য ২৪ ঘণ্টা কাস্টমার কেয়ার সাপোর্ট থাকছে। এজন্য ডেভেলপার টিম কাজ করবে সব সময়। এটাতে এমন সুবিধা রাখা হচ্ছে যেন নতুন নতুন নিরাপদ প্রযুক্তি যুক্ত করা যায়। এরমধ্যেই অনেকগুলো আর্থিক প্রতিষ্ঠান ‘গিগা ই-কেওয়াইসি’ ব্যবহারের প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে হিমিকা জানান।  

তিনি বলেন, ‘শুধু ব্যাংক নয়, লিজিং কোম্পানি, বীমা প্রতিষ্ঠান, এনজিও, সিকিউরিটি এক্সচেঞ্জসহ সব আর্থিক প্রতিষ্ঠান এটা ব্যবহার করতে পারবে। এ প্রযুক্তির সুবিধা হচ্ছে এটা দেশীয় প্রযুক্তি।’ গিগাটেক বেক্সিমকো গ্রুপের একটি প্রযুক্তি সেবা ও উদ্ভাবনী প্রতিষ্ঠান বলেও জানান তিনি।

 

/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

মোবাইল গেমিংয়ের বাজারে প্রবেশ করছে বাংলাদেশ

মোবাইল গেমিংয়ের বাজারে প্রবেশ করছে বাংলাদেশ

তবু আয় বাড়ছে ফেসবুকের

তবু আয় বাড়ছে ফেসবুকের

নভেম্বরে তথ্যপ্রযুক্তির বিশ্ব আসর বসছে ঢাকায়

নভেম্বরে তথ্যপ্রযুক্তির বিশ্ব আসর বসছে ঢাকায়

আসছে অন-ডিমান্ড টিউটরিং প্ল্যাটফর্ম ‘পড়াই’

আসছে অন-ডিমান্ড টিউটরিং প্ল্যাটফর্ম ‘পড়াই’

মোবাইল গেমিংয়ের বাজারে প্রবেশ করছে বাংলাদেশ

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ২০:১৬

গেম ডেভেলপমেন্টে বিশ্বের অন্যান্য দেশের পাশাপাশি এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। প্রায় ৮ হাজার কোটি ডলারের বৈশ্বিক মোবাইল গেমিং শিল্পে পদচারণা শুরু করেছে বাংলাদেশের গেমিং ডেভেলপেমন্ট প্রতিষ্ঠানগুলো। এছাড়া দুই-তিনজন মিলে গেম ডেভেলপমেন্ট করছেন কেউ কেউ। কেউবা কোনও বিদেশি বড় গেমিং ডেভেলপমেন্ট প্রতিষ্ঠানের হয়ে কাজ করছে।

বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড সার্ভিসেস (বেসিস) সূত্র বলছে, দেশে বর্তমানে শতাধিক প্রতিষ্ঠান ভিডিও গেমস নির্মাণ ও ব্যবসা সংশ্নিষ্ট কাজে যুক্ত রয়েছে। গেমিং বাজার ধরতে দেশে গড়ে ওঠা গেম ডেভেলপমেন্ট প্রতিষ্ঠানের তালিকায় উল্লেখযোগ্য- সুইডেনভিত্তিক মোবাইল গেমস নির্মাণ প্রতিষ্ঠান স্টিলফ্রন্টের অধিগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠান উল্কা গেমস লিমিটেড, রাইজ আপ ল্যাবস, আলফা পটেটো, ফ্রি পিক্সেল গেমস, থান্ডার গেমস এবং প্লেয়েন্স।

চলতি বছর ৭৫০ কোটি টাকায় ভারতের মুনফ্রগ ল্যাবস ও এর মালিকানাধীন ঢাকাভিত্তিক বাংলাদেশি গেমিং প্রতিষ্ঠান উল্কা গেমস লিমিটেড অধিগ্রহণ করে সুইডিশ গেম নির্মাতা স্টিলফ্রন্ট গ্রুপ। জনপ্রিয় গেমস লুডু ক্লাব, স্ম্যাশ ক্রিকেট, তিন পাত্তি গোল্ড, ক্যারাম গোল্ড, ষোলগুটি ও আড্ডা নির্মাণ করেছে এই প্রতিষ্ঠানটি।

বেসিস সূত্রে জানা যায়, গেমসের বিশাল বাজার ধরতে ভিডিও গেমস নির্মাণ প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি ডেভেলপার তৈরিতে ২৮১ দশমিক ৮০ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘মোবাইল গেমস অ্যান্ড অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপমেন্ট’ শীর্ষক প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগ। এর মধ্য দিয়ে সরকারি-বেসরকারি পর্যায়ে গেমস ও অ্যাপস তৈরির পাশাপাশি দেশের ১০ হাজার তরুণ-তরুণীকে গেমস ডেভেলপার হিসেবে তৈরিতে বিনামূল্যে প্রশিক্ষণ দিচ্ছে আইসিটি বিভাগ। গেম ডেভেলপমেন্টের পাশাপাশি দেশের তরুণ প্রজন্মের কাছেও ভিডিও গেমস দারুণ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। অথচ সম্ভাবনাময় এই খাতকে এগিয়ে নিতে এখনও কোনও নীতিমালা গড়ে উঠেনি।

সংশ্নিষ্টরা বলছেন, ভিডিও গেমস শিল্প থেকে কোটি কোটি ডলার আয়ের স্বপ্ন বাস্তবায়নের ‘ভিডিও গেমস গাইডলাইন’ নীতিমালা তৈরির বিকল্প নেই। যুগোপযোগী নীতিমালা থাকলে ডেভেলপারদের যেমন কোন ধরনের গেমস তারা বানাতে পারবেন সেই বিষয়ে স্পষ্ট ধারণা থাকবে, তেমনি তরুণ প্রজন্মকেও সুরক্ষিত রাখা যাবে।

এ প্রসঙ্গে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ‘ভিডিও গেমিংয়ে আমাদের দারুণ সম্ভাবনা রয়েছে। ইতোমধ্যে বিনামূল্যে আমরা প্রায় ১০ হাজার গেমস ও অ্যাপস ডেভেলপার তৈরি করেছি। তাদের অনেকেই আন্তর্জাতিক বাজার থেকে আয় করছেন। মোবাইল গেম অ্যান্ড অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপমেন্ট প্রকল্পটি পরবর্তী ধাপে নেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে আমাদের। এ খাতের বিকাশ ঘটানোর পাশাপাশি তরুণ প্রজন্মের সুরক্ষায় ভিডিও গেমিং নীতিমালা তৈরির উদ্যোগ নেবো আমরা।’

বেসিস সভাপতি আলমাস কবীরের মন্তব্য, ‘বৈশ্বিক চাহিদার প্রেক্ষাপটে দেশে নতুন নতুন প্রতিষ্ঠান ও গেমস ডেভেলপার তৈরি হচ্ছে। এ খাতে আমাদের দারুণ সম্ভাবনা রয়েছে। ফলে তরুণদের সুরক্ষায় রেখে কীভাবে এই খাতে আমরা এগিয়ে যেতে পারি তা বের করতে হবে। এক্ষেত্রে গেমস গাইডলাইনই হতে পারে রক্ষাকবচ।’

উল্কা গেমসের প্রধান নির্বাহী জামিলুর রশিদের একই মন্তব্য, ‘গেমিং শিল্পকে এগিয়ে নিতে একটি সরকারি নীতি থাকা জরুরি। নীতিমালা হলে গেমার ও ডেভেলপার উভয়ের জন্যই লাভ। ডেভেলপার জানবে কোন ধরনের গেম ডেভেলপ করা যাবে। একইভাবে কোন গেম কে কতক্ষণ খেলতে পারবে কিংবা গেম খেলে সর্বোচ্চ কত অর্থ খরচ করা যাবে তা নিয়েও স্পষ্ট ধারণা থাকবে।’

/এইচএএইচ/জেএইচ/

সম্পর্কিত

তবু আয় বাড়ছে ফেসবুকের

তবু আয় বাড়ছে ফেসবুকের

নভেম্বরে তথ্যপ্রযুক্তির বিশ্ব আসর বসছে ঢাকায়

নভেম্বরে তথ্যপ্রযুক্তির বিশ্ব আসর বসছে ঢাকায়

আসছে অন-ডিমান্ড টিউটরিং প্ল্যাটফর্ম ‘পড়াই’

আসছে অন-ডিমান্ড টিউটরিং প্ল্যাটফর্ম ‘পড়াই’

সাড়ে ৮ কোটি টাকা বিনিয়োগ পেলো বন্ডস্টাইন

সাড়ে ৮ কোটি টাকা বিনিয়োগ পেলো বন্ডস্টাইন

তবু আয় বাড়ছে ফেসবুকের

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৫২

বিতর্কিত বেশ কিছু ঘটনা সত্ত্বেও গত তিন মাসে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের আয় কমেনি। সম্প্রতি একটি পোস্টে প্রতিষ্ঠানটি জানায়, গত তিন মাসে তাদের উপার্জন প্রত্যাশাকে ছাড়িয়ে গেছে।

ফেসবুকের দাবি, গত ৯০ দিনে তারা আয় করেছে ৯০০ কোটি ডলার। গত বছর এই সময়ে তাদের উপার্জন ছিল ৭৮০ কোটি ডলার।

বিবিসি জানায়, সোমবার কয়েক ঘণ্টার ট্রেডিংয়ে ফেসবুকের শেয়ার দর বৃদ্ধি পেয়েছে ১ দশমিক ৩ শতাংশ।

সম্প্রতি আইওএস ১৪ অপারেটিং সিস্টেমে নতুন প্রাইভেসি আপডেট করার জন্য ক্ষতির মুখে পড়ে ফেসবুক। সেই আপডেটের কারণে নির্দিষ্ট কিছু ব্যবহারকারীর জন্য টার্গেট অ্যাড সীমিত হয়ে পড়েছিল।

বিভিন্ন উপাত্ত অনুযায়ী দেখা যায়, যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে কটূক্তি ও অশ্লীলতা বন্ধে নিয়মিত মডারেশনে ব্যর্থ হয়েছে ফেসবুক।

কয়েক দিন আগে ফেসবুকের প্রায় ১৮ কোটি ব্যবহারকারীর ডাটা বেআইনিভাবে সংগ্রহ ও পাচারের অভিযোগে ইউক্রেনের নাগরিক আলেক্সান্ডার সোলেনচেঙ্কোর বিরুদ্ধে মামলা করেছে সংস্থাটি।

সোমবার ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে একটি কনফারেন্সে বলেন, ‘আমরা একটি সমন্বিত আক্রমণের শিকার হয়েছি। যেখানে আমাদের কিছু ডকুমেন্ট চুরি করে ফেসবুকের বিরুদ্ধে একটি মিথ্যা চিত্র দাঁড় করানোর অপচেষ্টা হয়েছে।’

/এইচএএইচ/জেএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

মোবাইল গেমিংয়ের বাজারে প্রবেশ করছে বাংলাদেশ

মোবাইল গেমিংয়ের বাজারে প্রবেশ করছে বাংলাদেশ

নভেম্বরে তথ্যপ্রযুক্তির বিশ্ব আসর বসছে ঢাকায়

নভেম্বরে তথ্যপ্রযুক্তির বিশ্ব আসর বসছে ঢাকায়

আসছে অন-ডিমান্ড টিউটরিং প্ল্যাটফর্ম ‘পড়াই’

আসছে অন-ডিমান্ড টিউটরিং প্ল্যাটফর্ম ‘পড়াই’

সাড়ে ৮ কোটি টাকা বিনিয়োগ পেলো বন্ডস্টাইন

সাড়ে ৮ কোটি টাকা বিনিয়োগ পেলো বন্ডস্টাইন

নভেম্বরে তথ্যপ্রযুক্তির বিশ্ব আসর বসছে ঢাকায়

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৯:২০

আগামী মাসে তথ্যপ্রযুক্তির বিশ্ব আসর বসছে ঢাকায়। ১১ থেকে ১৪ নভেম্বর রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাতের বিশ্ব সম্মেলন ‘ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস অন ইনফরমেশন টেকনোলজি’র ২৫তম আসর।।বিশ্বের যেকোনও প্রান্ত থেকে অনলাইনেও এ সম্মেলনে যুক্ত হওয়া যাবে।

‘ডাব্লিউসিআইটি ২০২১’ সম্মেলনের সমান্তরালে একই সময়ে অনুষ্ঠিত হবে এশিয়া এবং ওশেনিয়া অঞ্চলের আন্তর্জাতিক সম্মেলন অ্যাসোসিও ‘ডিজিটাল সামিট ২০২১’।  দু’ভাবে অনুষ্ঠিত হবে এই সম্মেলন। দ্য ওয়ার্ল্ড ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সার্ভিসেস অ্যালায়েন্স’র (উইটসা) উদ্যোগে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি) ও বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি (বিসিএস) যৌথভাবে এ সম্মেলন আয়োজন করতে যাচ্ছে। আয়োজনের সহযোগী হিসেবে রয়েছে বেসিস, বাক্কো, ই-ক্যাব ও আইএসপিএ-বি।

সম্মেলনের এবারের প্রতিপাদ্য ‘আইসিটি দ্য গ্রেট ইকুলাইজার’। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগের প্রতিমন্ত্রী মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে ‘মিট দ্য প্রেস’ অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে এসব তথ্য জানান। তিনি আরও জানান, ৪ দিনব্যাপী এ সম্মেলনে থাকছে মোট ২৩টি সেমিনার, মিনিস্ট্রিয়াল কনফারেন্স, বিটুবি সেশন।

অনুষ্ঠানে বলা হয়, অনলাইনে নিবন্ধিত হয়ে এই সেমিনারগুলোতে অংশ নেওয়া যাবে। ১১ নভেম্বর মিনিস্ট্রিয়াল কনফারেন্সে কি-নোট স্পিকার হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি-বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় ভার্চুয়ালি যুক্ত হবেন।

প্রতিদিন সেমিনারের পাশাপাশি থাকছে বিশেষ আয়োজন। এ বিশেষ আয়োজনে প্রথম দিন থাকবে ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ নাইট’। এতে দেশে গত ১২ বছরে তথ্যপ্রযুক্তি খাতের অগ্রগতি সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরা হবে। ১২ নভেম্বর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন অনুষ্ঠানে স্বাধীন সর্বোভৌম রাষ্ট্র ও তথ্যপ্রযুক্তিতে দেশকে এগিয়ে নেওয়ার লক্ষ্যে বঙ্গবন্ধুর গৃহীত উদ্যোগুলো উপস্থাপন করা হবে। এ দিন ‘অ্যাসোসিও অ্যাওয়ার্ড নাইট’ অনুষ্ঠানে এশিয়া-ওশেনিয়া অঞ্চলে তথ্যপ্রযুক্তিতে বিশেষ অবদানের জন্য বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে সম্মাননা প্রদান করা হবে।

১৩ নভেম্বর সন্ধ্যায় স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের অগ্রগতি, অর্জন-গৌরবের বিষয়গুলো তুলে ধরা হবে। এদিন ‘উইটসা আইসিটি এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড নাইট’ অনুষ্ঠানে সারা বিশ্বে তথ্যপ্রযুক্তিতে বিশেষ অবদানের জন্য বিভিন্ন ব্যক্তি এবং সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানকে সম্মাননা প্রদান করা হবে।

পলক বলেন, ‘‘প্রযুক্তির অলিম্পিক খ্যাত ‘ডাব্লিউসিআইটি ২০২১’ আমরা আয়োজন করতে যাচ্ছি। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কৃষি, বাণিজ্য, প্রশাসনিক কার্যক্রম এবং বিচারিক কাজে বৈষম্য দূর করা, বাংলাদেশকে শ্রমনির্ভর অর্থনীতির দেশ থেকে একটি প্রযুক্তি ও মেধানির্ভর ডিজিটাল অর্থনীতিতে রূপান্তর করতে আইসিটিকে শক্তিশালী হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছি।’

উল্লেখ্য, সম্মেলনটির বিভিন্ন অংশ উপভোগ করার জন্য অ্যাপ উন্মুক্ত করা হয়েছে। গুগল প্লে-স্টোর ও অ্যাপল স্টোর থেকে ডাব্লিউসিআইটি ২০২১ নামের অ্যাপটি ডাউনলোড করা যাবে। তবে ব্যবহারের আগে রেজিস্ট্রেশন করে নিতে হবে। এছাড়া www.wcit2021.com.bd ওয়েবসাইট ভিজিট করে ভার্চুয়ালি সম্মেলন ও প্রদর্শনী ঘুরে আসা যাবে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও বক্তব্য রাখেন— আইসিটি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের নির্বাহী পরিচালক ড. মো. আব্দুল মান্নান, বিসিএসের সভাপতি মো. শাহিদ-উল-মুনীর। এছাড়া ওয়ার্ল্ড ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সার্ভিসেস অ্যালায়েন্স’র মহাসচিব মি. জেমস এইচ পয়সান্ট অনলাইনে অনুষ্ঠানে যুক্ত হয়ে বক্তব্য রাখেন।

/এইচএএইচ/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

মোবাইল গেমিংয়ের বাজারে প্রবেশ করছে বাংলাদেশ

মোবাইল গেমিংয়ের বাজারে প্রবেশ করছে বাংলাদেশ

তবু আয় বাড়ছে ফেসবুকের

তবু আয় বাড়ছে ফেসবুকের

আসছে অন-ডিমান্ড টিউটরিং প্ল্যাটফর্ম ‘পড়াই’

আসছে অন-ডিমান্ড টিউটরিং প্ল্যাটফর্ম ‘পড়াই’

সাড়ে ৮ কোটি টাকা বিনিয়োগ পেলো বন্ডস্টাইন

সাড়ে ৮ কোটি টাকা বিনিয়োগ পেলো বন্ডস্টাইন

গ্যাজেট অ্যান্ড গিয়ারের নতুন আউটলেট

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৮:২৮

গ্যাজেটস প্রেমীদের ভরসাস্থল গ্যাজেট অ্যান্ড গিয়ার সম্প্রতি রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার রূপায়ন শপিং স্কয়ারে একটি নতুন আউটলেট চালু করেছে। এই আউটলেট ক্রেতাদের পছন্দের সব ব্র্যান্ডের পণ্যসামগ্রী নিয়ে প্রস্তুত।

এখানে পাওয়া যাবে অ্যাপল, স্যামসাং, ওয়ান প্লাস থেকে শুরু করে ভিভো, অপো, শাওমি, হুয়াওয়ে, লেনোভো, মটোরোলা, অ্যামেজফিট, সনি, ফসিল-সহ জনপ্রিয় সব ব্র্যান্ডের ফোন, স্মার্টওয়াচ ও গ্যাজেটস। পাশাপাশি থাকছে এডিফার, জাবরা, স্কালক্যান্ডি, এসকে রস, বিটস, বোস ব্র্যান্ডের সাউন্ড সিস্টেম, হেডফোন, ওয়্যারলেস ও স্পিকার। এছাড়া স্পাইজেন, বেলকিন, স্পেক, স্যানডিস্ক ব্র্যান্ডের একসেসরিজ তো আছেই।
গ্যাজেট অ্যান্ড গিয়ার দেশের অন্যতম জনপ্রিয় মাল্টি-ব্র্যান্ডেড হাইব্রিড চেইন শপ। ঢাকা শহরে ২২টি আউটলেট নিয়ে সেবাদান করছে। ৫০টির বেশি আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ডের গ্যাজেট আর একসেসরিজ পাওয়া যাবে এখানে।

প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক নুরে আলম শিমু বলেন, বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় ভালো একটা গ্রাহক চাহিদা রয়েছে আমাদের। আশেপাশের সব গ্যাজেট অ্যান্ড গিয়ার আউটলেট বুধবার বন্ধ থাকায় এলাকাবাসীর জন্য বেশ কঠিন হতো বুধবারে সেবা পেতে। তাই ক্রেতাদের সুবিধার কথা চিন্তা করে এই আউটলেটটি সপ্তাহের ৭ দিনই খোলা থাকবে।

প্রসঙ্গত,গ্যাজেট অ্যান্ড গিয়ার বাংলাদেশের একমাত্র প্রিমিয়াম মোবাইল রিটেইল চেইনশপ ও অ্যাপলের অথরাইজড রিসেলার ও ডিস্ট্রিবিউটর। গ্রাহকদের সুবিধার কথা চিন্তা করে ২০১৮ সাল থেকে অনলাইনেও পণ্য বিক্রি করছে প্রতিষ্ঠানটি। বিস্তারিত জানা যাবে www.gadgetandgear.com থেকে।

-বিজ্ঞপ্তি

/এইচএএইচ/

সম্পর্কিত

মোবাইল গেমিংয়ের বাজারে প্রবেশ করছে বাংলাদেশ

মোবাইল গেমিংয়ের বাজারে প্রবেশ করছে বাংলাদেশ

তবু আয় বাড়ছে ফেসবুকের

তবু আয় বাড়ছে ফেসবুকের

নভেম্বরে তথ্যপ্রযুক্তির বিশ্ব আসর বসছে ঢাকায়

নভেম্বরে তথ্যপ্রযুক্তির বিশ্ব আসর বসছে ঢাকায়

আসছে অন-ডিমান্ড টিউটরিং প্ল্যাটফর্ম ‘পড়াই’

আসছে অন-ডিমান্ড টিউটরিং প্ল্যাটফর্ম ‘পড়াই’

নতুন স্টার্টআপ

আসছে অন-ডিমান্ড টিউটরিং প্ল্যাটফর্ম ‘পড়াই’

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১১:০০

যারা এতদিন না পারতো রাইডার হতে, না পারতো ফুড ডেলিভারি করতে, তারাই এখন হাতে পেলো ‘পড়াই’য়ের চাবিকাঠি। যাতে যুক্ত হলে দেশের যেকোনও প্রান্ত থেকে যখন খুশি টিউশন করানো যাবে। দরকার হবে শুধু কম্পিউটার আর ইন্টারনেট।

পড়াই ডট নেট হলো অন-ডিমান্ড প্রাইভেট টিউটরিং প্ল্যাটফর্ম। ১ নভেম্বর থেকে স্টার্টআপটি সবার জন্য খুলে দেওয়া হবে। ১৫ অক্টোবর থেকে এই ওয়েব প্ল্যাটফর্মে শিক্ষকদের নিবন্ধন শুরু হয়েছিল, যা এখনও চলছে।  

পড়াই কর্তৃপক্ষ বলছে, যেকোনও জায়গা থেকে যে যখন ফ্রি থাকবে, ক্লাস নিতে পারবেন। দেশের ৮৫ শতাংশ শিক্ষার্থী থাকেন ঢাকার বাইরে। তারা ভালো শিক্ষক পান না। তারাও এখন চাওয়া মাত্র পেয়ে যাবেন বুয়েট, ঢাবি বা অন্য কোনও নামকরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের টিউটর।

পড়াই-এর প্রধান প্রযুক্তি কর্মকর্তা (সিটিও) মোহাম্মদ আলী বলেন, পড়াই দেশের প্রথম অন-ডিমান্ড টিউটরিং প্ল্যাটফর্ম। যে শিক্ষার্থীদের এখনই কোনও বিষয় নিয়ে সমস্যা, বা এখনই টিউটর লাগবে তারা তাৎক্ষণিক পড়াই-এর সেবা পাবে। শুধু পড়াশোনা নয়, যারা বিষণ্নতায় ভুগছে, গভীর রাতে যাদের হঠাৎ পরামর্শের প্রয়োজন, তারাও পড়াইতে নক করলে পাবেন কাউন্সেলিং। এমনকি যারা ভিসার ফরম পূরণ করতে গিয়ে মাঝপথে সমস্যায় পড়বেন, তারাও পড়াই থেকে সেবা পাবেন। বিভিন্ন ভিসা সার্ভিস প্রতিষ্ঠানে কর্মরতরা অনেকেই পড়াই’তে যুক্ত হয়েছেন।

মোহাম্মদ আলী আরও জানালেন, এখানে মাল্টি ক্যাটাগরিতে ২৪ ঘণ্টাই সেবা পাওয়ার সুযোগ রয়েছে। ধরা যাক পরীক্ষার আগের রাতে একজন স্কুলশিক্ষার্থী একটি গাণিতিক সমস্যায় পড়েছে। এখন সে শিক্ষক পাবে কোথায়? আধ ঘণ্টার জন্য তাকে কে পড়াবে? পড়াইতে এ সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করা হয়েছে উবার বা ফুডপান্ডার মডেলে। সমস্যা ও সময় উল্লেখ করে পড়াইতে পোস্ট দিলে ওই সময় যারা ফ্রি থাকবেন বা পড়াতে পারবেন তারা বিডে অংশ নেবেন। শিক্ষার্থী তার পছন্দমতো শিক্ষক বেছে নিতে পারবে। এমনকি প্রথম তিন মিনিট পরীক্ষামূলক ক্লাসও করতে পারবে। ভালো না লাগলে শিক্ষক বদলের সুযোগও আছে।

আপাতত প্ল্যাটফর্মটি পড়াই ডট নেট ওয়েবসাইট ভিত্তিক। এ সাইটে শিক্ষাদানের ফিচারে রয়েছে ভার্চুয়াল সাদা বোর্ড। রয়েছে টেক্সট এডিটর, অডিও এবং ভিডিও চ্যাটিংয়ের ব্যবস্থা। স্ক্রিন শেয়ার অপশনসহ আরও কিছু টুলসও আছে। পড়াই ডট নেটে শিক্ষার বিষয়বস্তু শুধু স্কুল-কলেজের পাঠ্যক্রমে সীমাবদ্ধ নয়। প্রোগ্রামিং ও ইংরেজির বিভিন্ন কোর্স যেমন- টোফেল, আইইএলটিএস, জিআরই’ও আছে। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা এবং প্রাতিষ্ঠানিক পরীক্ষার প্রন্তুতির জন্যও রয়েছে টিউশনির ব্যবস্থা। এ ছাড়া মানসিক স্বাস্থ্য, যোগব্যায়াম, রান্নার প্রশিক্ষণ, ভিসা ফরম পূরণসহ আরও কিছু সেবা নেওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে এখানে। সব মিলিয়ে তিন শতাধিক বিষয়বস্তু পাওয়া যাবে সাইটটিতে।

পড়াই-এ আরও আছে জুমের মতো নিজস্ব প্ল্যাটফর্ম। এরইমধ্যে সাইটটি ২৫ জন ক্যাম্পাস অ্যাম্বাসেডর নিয়োগ দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে। পড়াইতে নিবন্ধন করতে হবে www.porai.net সাইটে গিয়ে। নিবন্ধন ও পড়াই কর্তৃপক্ষের অনুমোদনের পর (কাগজপত্র যাচাই-বাছাই) শিক্ষক ও অন্যরা এখানে কাজ করার সুযোগ পাবেন।

দেশের স্টার্টআপ সম্পর্কে জানতে চাইলে সফটওয়্যার ও সেবাপণ্য নির্মাতাদের সংগঠন বেসিসের সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীর বলেন, ‘বাংলাদেশে স্টার্টআপ কালচার শুরু হয়েছে। এরইমধ্যে একটি ইকোসিস্টেম তৈরি হয়েছে। এখন ফান্ডিং দরকার। স্থানীয় বিনিয়োগকারী দরকার। তিনি জানান, স্টার্টআপে স্থানীয় বিনিয়োগকারী আনতে হলে এ সম্পর্কিত নীতিমালা পরিবর্তন করতে হবে।’

/এফএ/

সম্পর্কিত

মোবাইল গেমিংয়ের বাজারে প্রবেশ করছে বাংলাদেশ

মোবাইল গেমিংয়ের বাজারে প্রবেশ করছে বাংলাদেশ

তবু আয় বাড়ছে ফেসবুকের

তবু আয় বাড়ছে ফেসবুকের

নভেম্বরে তথ্যপ্রযুক্তির বিশ্ব আসর বসছে ঢাকায়

নভেম্বরে তথ্যপ্রযুক্তির বিশ্ব আসর বসছে ঢাকায়

সাড়ে ৮ কোটি টাকা বিনিয়োগ পেলো বন্ডস্টাইন

সাড়ে ৮ কোটি টাকা বিনিয়োগ পেলো বন্ডস্টাইন

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল গেমিংয়ের বাজারে প্রবেশ করছে বাংলাদেশ

মোবাইল গেমিংয়ের বাজারে প্রবেশ করছে বাংলাদেশ

তবু আয় বাড়ছে ফেসবুকের

তবু আয় বাড়ছে ফেসবুকের

নভেম্বরে তথ্যপ্রযুক্তির বিশ্ব আসর বসছে ঢাকায়

নভেম্বরে তথ্যপ্রযুক্তির বিশ্ব আসর বসছে ঢাকায়

আসছে অন-ডিমান্ড টিউটরিং প্ল্যাটফর্ম ‘পড়াই’

নতুন স্টার্টআপআসছে অন-ডিমান্ড টিউটরিং প্ল্যাটফর্ম ‘পড়াই’

সাড়ে ৮ কোটি টাকা বিনিয়োগ পেলো বন্ডস্টাইন

সাড়ে ৮ কোটি টাকা বিনিয়োগ পেলো বন্ডস্টাইন

ফেসবুক মেসেঞ্জারে নতুন ইফেক্টস

ফেসবুক মেসেঞ্জারে নতুন ইফেক্টস

‘ইন্টারনেটে ভুয়া তথ্য ছড়ানো ঠেকাতে তৃণমূল পর্যায়ে সচেতনতা জরুরি’

‘ইন্টারনেটে ভুয়া তথ্য ছড়ানো ঠেকাতে তৃণমূল পর্যায়ে সচেতনতা জরুরি’

‘অস্থিরতা সৃষ্টির কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন বড় চ্যালেঞ্জ’

‘অস্থিরতা সৃষ্টির কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন বড় চ্যালেঞ্জ’

‘ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং’

সাক্ষাৎকার‘ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং’

শিগগিরই ডাকসেবা কাঙ্ক্ষিত মানে উন্নীত হবে: মোস্তাফা জব্বার  

শিগগিরই ডাকসেবা কাঙ্ক্ষিত মানে উন্নীত হবে: মোস্তাফা জব্বার  

সর্বশেষ

একটি সেতুর জন্য পাঁচ গ্রামের মানুষের দুর্ভোগ

একটি সেতুর জন্য পাঁচ গ্রামের মানুষের দুর্ভোগ

ক্ষতিপূরণ না পেয়ে মেয়র আতিকের বিরুদ্ধে রিট

ক্ষতিপূরণ না পেয়ে মেয়র আতিকের বিরুদ্ধে রিট

সৌদি খেজুর ও ভিয়েতনামের নারিকেল চাষে মিলবে ব্যাংক ঋণ

সৌদি খেজুর ও ভিয়েতনামের নারিকেল চাষে মিলবে ব্যাংক ঋণ

মাংস খাওয়া নিয়ে সংঘর্ষে নববধূকে তালাক, পরদিন ফের বিয়ে

মাংস খাওয়া নিয়ে সংঘর্ষে নববধূকে তালাক, পরদিন ফের বিয়ে

মীরসরাইয়ে বিদ্রোহী প্রার্থীর অফিসে ভাঙচুরের অভিযোগ

মীরসরাইয়ে বিদ্রোহী প্রার্থীর অফিসে ভাঙচুরের অভিযোগ

© 2021 Bangla Tribune