X
বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১১ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

পরিবার গ্রহণ না করলেও হার মানেননি সৌদিফেরত ৭ নারী

আপডেট : ০৮ মার্চ ২০২০, ২২:১০

‘ধ্রুবতারা ক্যাটারিং সার্ভিস’ এর উদ্যোক্তারা

অনেক আশা বুকে বেঁধে স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দিতে গৃহকর্মীর কাজ নিয়ে সৌদি আরব যান ডালিয়া। কিন্তু নিয়োগকর্তার নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে পালানোর সিদ্ধান্ত নেন। একপর্যায়ে তিনতলা বাড়ির ওপর থেকে লাফিয়ে নিচে পড়েন। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হয় তার মেরুদণ্ড। দেশে ফেরার পর স্বামীর বাড়িতে জায়গা হয়নি। বিচ্ছিন্ন হন পরিবার থেকেও। তবু হার মানেননি ডালিয়া। তিনিসহ তার মতো আরও ছয় সৌদিফেরত নির্যাতিত নারী মিলে ব্র্যাকের সহযোগিতায় শুরু করেছেন ‘ধ্রুবতারা ক্যাটারিং সার্ভিস’। বুকে কষ্ট থাকলেও মুখে হাসি নিয়ে এই সাত নারী চালাচ্ছেন এই ক্যাটারিং সার্ভিস। 

রাজধানীর উত্তরার দক্ষিণখান এলাকায় একটি বাসার নিচতলায় চলছে ‘ধ্রুবতারা ক্যাটারিং সার্ভিস’। সেখানে রুম আছে তিনটি। এর একটিতে রান্নার সরঞ্জাম রাখা হয়, আরেকটিতে হয় রান্না। তৃতীয় রুমে থাকেন এই সাত নারী।

ডালিয়া জানান, সকাল ৭টা থেকে রান্নার তোড়জোড় শুরু হয়ে যায়। ১১টার মধ্যে রান্না শেষ করে যে যার মতো বক্সে ভরে চলে যান গন্তব্যে। রাজধানীর প্রবাসীকল্যাণ ভবন, বনানী, খিলক্ষেত, উত্তরা, বিমানবন্দরসহ আশপাশের বিভিন্ন অফিস-মার্কেটে আসা লোকজনের কাছে বিক্রি করেন। খাবারের দাম ১০০-১২০ টাকার মধ্যে। সপ্তাহে এক একদিন একেক আইটেম থাকে। কোনোদিন ভাতের সঙ্গে মাছ, কোনোদিন মাংস। পাশাপাশি আছে ছোট মাছ, ভর্তা, ভাজি, আবার কোনোদিন খিচুড়ি। খাবার বিক্রির পর বাটি নিয়ে বিকেল গড়িয়ে ফেরেন। এরপর একে অন্যের সহায়তায় ব্যস্ত থাকেন তারা। প্রতিদিন খাবার বিক্রি হবে কিনা, এই অনিশ্চয়তা আছে। তবুও প্রবাসে গিয়ে ভাগ্য বদল করতে না পারা এই নারীরা নতুন করে ভাগ্য বদলের আশায় অনিশ্চয়তা মাথায় নিয়েই কঠোর পরিশ্রম করছেন।

ডালিয়ারা জানান, কোনোরকমে তারা খেয়ে-পরে বেঁচে থাকলেও পরিচ্ছন্নতায় কোনও ছাড় দেন না। খাবার তৈরির পুরো প্রক্রিয়া সারেন তারা অ্যাপ্রন, টুপি ও গ্লাভস পরে। পরিচ্ছন্নতার ব্যাপারে প্রশিক্ষণ নিয়েছেন তারা ব্র্যাকে।

ধ্রুবতারা চালু হয়েছে গত বছরের অক্টোবরে। গত জানুয়ারিতে বেশ লাভ এসেছে বলে জানান ডালিয়া। লাভের ২ শতাংশ তারা ব্যাংকে জমা রাখেন। এই টাকা অসহায় নারীদের কাজে লাগানো হবে বলে জানান তারা। বাকি টাকা নিজেদের মধ্যে সমান ভাগ করেন নেন।

ধ্রুবতারা নিয়ে কথা বলার সময় পরিবারের কথায় আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন ডালিয়া। চোখ মুছে বলেন, ‘২০১৯ সালের ২৭ আগস্ট দেশে ফেরত আসি। স্ট্রেচারে ভর দিয়ে হাঁটি। আমি ঝুঁকে কাজ করতে পারি না, তাই ম্যানেজারের কাজটা সামলাই। বাকিরা আমার সঙ্গে সঙ্গে থাকে। এক গ্লাস পানি লাগলেও আগায় দেয়।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের এখান ছাড়া আর থাকার জায়গা নাই। আমার স্বামী আমাকে বিদেশ পাঠাইলো, ফেরত আসার পর সেই আমাকে মেনে নেয় নাই। কিছু জায়গা থেকে অনুদান পাইছিলাম, সেগুলা সে নিজেই আত্মসাৎ করছে।’

বাকি ছয় নারীকেও তাদের পরিবার গ্রহণ করেনি। তবে তারা জানান, তারা তাদের এই নতুন জীবন বেশ উপভোগ করছেন। আয় যা হয় তাতে চলে যাচ্ছে সবার।

সৌদিফেরত এই সাত নারীর কিছু করার আগ্রহের কথা জেনে তাদের পাশে দাঁড়ায় ব্র্যাক। এককালীন ৩ লাখ ৯০ হাজার টাকার সামগ্রী কিনে দেয় সংস্থাটি। নির্যাতনের শিকার এই নারীদের দেশে ফেরত আনতে আবেদন তৈরি ও মন্ত্রণালয়ে পৌঁছানোর কাজে সহায়তা করেছিল ব্র্যাক। দেশে ফিরে বিমানবন্দরে নেমেই তাদের সঙ্গে কথা হয় ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের কর্মীদের সঙ্গে। বিমানবন্দরে দেওয়া হয় জরুরি সহায়তাসহ বিভিন্ন তথ্য। এরপর ব্র্যাক তাদের আবার বাঁচার স্বপ্ন দেখায়।

ব্র্যাকের অভিবাসন কর্মসূচির প্রধান শরিফুল হাসান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘ধারাবাহিক কাউন্সিলিংয়ের পর এই নারীরা বলেন, তারা কিছু একটা করতে চান। আমরা তাদের সঙ্গে কথা বলি। তারা জানান, তারা রান্না-বান্নার কাজ ভালো পারেন। এরপর প্রত্যেকের জন্য ৬৫ হাজার টাকা বরাদ্দ করি। শুরু করেন তারা নতুন লড়াই।’  ডালিয়া জানান, তাদের কথা জানতে পেরে এবারের আন্তর্জাতিক নারী দিবসে এসকোয়্যার গ্রুপ সম্মাননা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। রবিবার (৮ মার্চ) বেলা ৩টায় এসকোয়্যার নিট কোম্পানিজ লিমিটেডে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এই সম্মাননা দেওয়া হবে।

ডালিয়া বলেন, ফেসবুকে ধ্রুবতারা ক্যাটারিং সার্ভিস নামে একটি পেজ আছে। এছাড়া খাবারের অর্ডার নিতে একটি হটলাইন নম্বর (০১৭৪১৫১৩৩৩০) চালু করেছেন তারা। এই নম্বরে ফোন দিলেই খাবার পৌঁছে যাবে গন্তব্যে। এছাড়া বিভিন্ন অনুষ্ঠানের জন্য খাবার সরবরাহ করে ধ্রুবতারা ক্যাটারিং সার্ভিস। 

/এইচআই/এমএমজে/

সম্পর্কিত

ফেরি দুর্ঘটনা তদন্তে ৭ সদস্যের কমিটি

ফেরি দুর্ঘটনা তদন্তে ৭ সদস্যের কমিটি

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই সেমিস্টারে শিক্ষার্থী নিতে কেন মরিয়া ইউজিসি?

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই সেমিস্টারে শিক্ষার্থী নিতে কেন মরিয়া ইউজিসি?

‘২০২২ সালের পর রাজধানীতে উন্মুক্ত স্থানে বর্জ্য থাকবে না’

‘২০২২ সালের পর রাজধানীতে উন্মুক্ত স্থানে বর্জ্য থাকবে না’

‘টেকসই উন্নয়নের জন্য চাই ঐক্যবদ্ধ সামাজিক শক্তি’

‘টেকসই উন্নয়নের জন্য চাই ঐক্যবদ্ধ সামাজিক শক্তি’

চকবাজারে যুবকের লাশ উদ্ধার

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ২০:২৬

রাজধানীর চকবাজারে একটি বাসা থেকে মো. ওয়াজিব (২৪) নামের এক যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। পরিবারের দাবি, মায়ের সঙ্গে অভিমান করে এই যুবক আত্মহত্যা করেছে। বুধবার (২৭ অক্টোবর) বিকাল চারটায় চকবাজার থানার কাজি রিয়াজ উদ্দিন রোডের একটি ছয়তলা বাড়ির তিনতলা থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। ওয়াজিব পরিবারের সঙ্গে ওই বাসায় ভাড়া থাকতো।

মৃতের বড় ভাই সোহাগ জানান, ওয়াজিব এলিফ্যান্ট রোডে একটি জুতার দোকানে সেলসম্যান ছিল। দুই মাস আগে সে চাকরি ছেড়ে দেয়। তিন মাস তার বিয়ে হয়। আমি তাকে আবারও এলিফ্যান্ট রোডের জুতার দোকানে কাজ ঠিক করে দেই। আজ সকাল থেকে তার কাজে যাওয়ার কথা থাকলেও সে যায়নি। এ বিষয়ে মা তাকে বকা দেয়। পরে সে নিজের রুমে ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস দেয়।

উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ঢামেক পুলিশ ক্যাম্পের এএসআই আব্দুল্লাহ খান জানান,মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। ওয়াজিব ময়মনসিংহ জেলার কোতোয়ালি থানার মাসকান্দা গ্রামের আবদুল মান্নানের ছেলে। তিন ভাইয়ের মধ্যে সে ছিল সবার ছোট।

/এআরআর/এআইবি/এমআর/

সম্পর্কিত

ঢামেকে কারাবন্দি হাজতির মৃত্যু

ঢামেকে কারাবন্দি হাজতির মৃত্যু

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা: সাংবাদিক ইমন কারাগারে

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা: সাংবাদিক ইমন কারাগারে

মাদকের নতুন রুটের বিষয়ে ভারতকে জানালো বাংলাদেশ

মাদকের নতুন রুটের বিষয়ে ভারতকে জানালো বাংলাদেশ

যাত্রাবাড়ীতে পিকআপ ভ্যানের ধাক্কায় প্রাণ গেলো নারী পথচারীর

যাত্রাবাড়ীতে পিকআপ ভ্যানের ধাক্কায় প্রাণ গেলো নারী পথচারীর

২০২২ সালের ফেব্রুয়ারিতে এসএসসি হবে না: শিক্ষামন্ত্রী

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ২০:১৭

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি জানিয়েছেন, ২০২২ সালের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা ফেব্রুয়ারিতে হবে না। বুধবার (২৭ অক্টোবর) দুপুরে সচিবালয়ে ২০২১ সালের এসএসসি, দাখিল, এসএসসি (ভোকেশনাল) ও দাখিল (ভোকেশনাল) পরীক্ষা নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই তথ্য জানান।

ডা. দীপু মনি বলেন, ‘এবারের এসএসসি পরীক্ষা শেষ হবে ২৩ নভেম্বর। সেক্ষেত্রে আগামী ১ ফেব্রুয়ারি পরের এসএসসি পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব হবে না। কারণ শিক্ষার্থীদের ক্লাসের বিষয় রয়েছে। কবে ও কীভাবে ২০২২ সালের এসএসসি পরীক্ষা নেওয়া হবে তা পরে জানাতে পারবো।’

প্রতি বছরের ফেব্রুয়ারির শুরুতে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা নেওয়া হয়। করোনার কারণে এ বছর তা পিছিয়ে যায়। আগামী ১৪ নভেম্বর থেকে এই পরীক্ষা শুরুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে মন্ত্রণালয়। মহামারি পরিস্থিতির কারণে এবার সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে কেবল নৈর্বাচনিক তিনটি বিষয়ে পরীক্ষা হবে।

শিক্ষামন্ত্রী জানান, আবশ্যিক বিষয়গুলোর পরীক্ষা না নিয়ে সাবজেক্ট ম্যাপিংয়ের মাধ্যমে মূল্যায়ন করা হবে। মূল্যায়ন নম্বরের সঙ্গে নৈর্বাচনিক তিনটি বিষয়ের পরীক্ষার নম্বর যোগ করে ফল দেওয়া হবে। পরীক্ষা শেষের দুই মাসের মধ্যে ফল পাবে শিক্ষার্থীরা।

/এসএমএ/জেএইচ/

সম্পর্কিত

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই সেমিস্টারে শিক্ষার্থী নিতে কেন মরিয়া ইউজিসি?

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই সেমিস্টারে শিক্ষার্থী নিতে কেন মরিয়া ইউজিসি?

প্রশ্নফাঁসের গুজব সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা: শিক্ষামন্ত্রী

প্রশ্নফাঁসের গুজব সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা: শিক্ষামন্ত্রী

করোনা আক্রান্ত হলে হাসপাতালে পরীক্ষার ব্যবস্থা: শিক্ষামন্ত্রী 

করোনা আক্রান্ত হলে হাসপাতালে পরীক্ষার ব্যবস্থা: শিক্ষামন্ত্রী 

ঢামেকে কারাবন্দি হাজতির মৃত্যু

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ২০:০১

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে কবির হোসেন (৪৬) নামে এক হাজতির (নং-৩৯৪১১/২১) মৃত্যু হয়েছে।

বুধবার (২৭ অক্টোবর) সকালে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার, কেরানীগঞ্জে কবির হোসেন অসুস্থ বোধ করলে কারা কর্তৃপক্ষের নির্দেশে কারারক্ষী শিহাব ও হাবিবুর তাকে অচেতন অবস্থায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসে। সেখানে আসলে পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে কর্তব্যরত চিকিৎসক ৮টা ২৫ মিনিটে তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ঢামেক পুলিশ ক্যাম্পের এএসআই আব্দুল্লাহ খান জানান, মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে।

মৃত কবির হোসেন ঢাকার খিলগাঁও টেকপাড়া ত্রিমোহনী এলাকার মৃত তোতা মিয়ার ছেলে।

খিলগাঁও থানার একটি মাদক মামলায় বন্দি ছিলেন তিনি।

/এআইবি/এআরআর/

সম্পর্কিত

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা: সাংবাদিক ইমন কারাগারে

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা: সাংবাদিক ইমন কারাগারে

মাদকের নতুন রুটের বিষয়ে ভারতকে জানালো বাংলাদেশ

মাদকের নতুন রুটের বিষয়ে ভারতকে জানালো বাংলাদেশ

যাত্রাবাড়ীতে পিকআপ ভ্যানের ধাক্কায় প্রাণ গেলো নারী পথচারীর

যাত্রাবাড়ীতে পিকআপ ভ্যানের ধাক্কায় প্রাণ গেলো নারী পথচারীর

ইউনিফর্ম পরা দেখলেই ডিবি বা র‌্যাব মনে করবেন না: হারুন

ইউনিফর্ম পরা দেখলেই ডিবি বা র‌্যাব মনে করবেন না: হারুন

ফেরি দুর্ঘটনা তদন্তে ৭ সদস্যের কমিটি

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৪৭

রো রো ফেরি শাহ আমানত দুর্ঘটনার কারণ তদন্তে সাত সদস্যের কমিটি গঠন করেছে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়। কমিটিকে আগামী সাত কার্যদিবসের মধ্যে নৌপরিবহন সচিবের কাছে রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে। বুধবার (২৭ অক্টোবর) রাতে মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য অফিসার জাহাঙ্গীর আলম খান এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (উন্নয়ন) সুলতান আব্দুল হামিদকে কমিটির আহ্বায়ক এবং বিআইডব্লিউটিসির পরিচালক (কারিগরি) মো. রাশেদুল ইসলামকে সদস‍্য সচিব করা হয়েছে। কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন— বিআইডব্লিউটিএ'র পরিচালক (আইসিটি)  রকিবুল ইসলাম তালুকদার, নৌপরিবহন অধিদফতরের নটিক‍্যাল সার্ভয়ার  অ্যান্ড এক্সামিনার ক্যাপ্টেন সাঈদ আহমেদ, মানিকগঞ্জ জেলার স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক, বুয়েটের নেভাল আর্কিটেকচার অ্যান্ড মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্টের সহযোগী অধ‍্যাপক ড. জুবায়ের ইবনে আউয়াল এবং নৌপুলিশের ফরিদপুর অঞ্চলের পুলিশ সুপার মো. জসিম উদ্দিন।

নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় বুধবার এ সংক্রান্ত আদেশ জারি করেছে।

 

/এসএস/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই সেমিস্টারে শিক্ষার্থী নিতে কেন মরিয়া ইউজিসি?

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই সেমিস্টারে শিক্ষার্থী নিতে কেন মরিয়া ইউজিসি?

‘২০২২ সালের পর রাজধানীতে উন্মুক্ত স্থানে বর্জ্য থাকবে না’

‘২০২২ সালের পর রাজধানীতে উন্মুক্ত স্থানে বর্জ্য থাকবে না’

‘টেকসই উন্নয়নের জন্য চাই ঐক্যবদ্ধ সামাজিক শক্তি’

‘টেকসই উন্নয়নের জন্য চাই ঐক্যবদ্ধ সামাজিক শক্তি’

করোনা আক্রান্ত হলে হাসপাতালে পরীক্ষার ব্যবস্থা: শিক্ষামন্ত্রী 

করোনা আক্রান্ত হলে হাসপাতালে পরীক্ষার ব্যবস্থা: শিক্ষামন্ত্রী 

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই সেমিস্টারে শিক্ষার্থী নিতে কেন মরিয়া ইউজিসি?

আপডেট : ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১৯:১৯

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই সেমিস্টারে শিক্ষার্থী ভর্তির জন্য বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) নির্দেশনা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন উপাচার্যরা। একই প্রশ্ন ট্রাস্টিদের সংগঠন বাংলাদেশ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সমিতির। চলমান সফল তিন সেমিস্টার পদ্ধতি কমিয়ে এনে কেন দুই সেমিস্টার করতে হবে তা বোধগম্য নয় কারও। তারা বলছেন, ‘হঠাৎ চাপিয়ে দেওয়া এই নির্দেশনা বিশ্ববিদ্যালয় ও শিক্ষার্থীদের ওপর আর্থিক চাপ তৈরি করবে। তাহলে কার স্বার্থে মরিয়া হয়ে দুই সেমিস্টার পদ্ধতি চালুর উদ্যোগ নিয়েছে ইউজিসি?’

গত ৯ আগস্ট দেশের সব বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রারদের চিঠি দিয়ে বলা হয়েছে, ‘২০২১ সালের পর বছরে দুই সেমিস্টার ছাড়া শিক্ষার্থী ভর্তি হলে কমিশনের কাছে তা গ্রহণযোগ্য হবে না।’ শিক্ষার্থীদের জন্য ইউনিক পরিচিতি নম্বর তৈরির চিঠিতে এই নির্দেশনা জুড়ে দিয়েছে ইউজিসি। এতে ২০২২ সালের জুলাই থেকে দুই সেমিস্টার রাখার কথা বলা হয়।

ইউজিসি’র সদস্য অধ্যাপক বিশ্বজিত চন্দ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আগের চিঠিতে বলা হয়েছিল ২০২১ সালের পর থেকে দুই সেমিস্টারে শিক্ষার্থী ভর্তি নিতে হবে। দ্বিতীয় চিঠিতে সেই সময় বাড়িয়ে ২০২২ সালের জুলাই থেকে করা হয়েছে। দ্বিতীয় চিঠি অনুসরণ করতে হবে।’

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি ও উপাচার্যদের মন্তব্য, ‘বিশ্বের বেশিরভাগ দেশে তিন সেমিস্টার চালু আছে। কোথাও চার সেমিস্টারও রয়েছে। অথচ হঠাৎ বলা হচ্ছে, দুই সেমিস্টার ছাড়া শিক্ষার্থী ভর্তি গ্রহণযোগ্য হবে না। শিক্ষাক্রমের বিষয়ে কোনও আলোচনা ছাড়াই এমন সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দেওয়া হচ্ছে। এটি অনাকঙ্ক্ষিত ও দুঃখজনক।’

বিশ্বের অন্যান্য দেশে তিন সেমিস্টার থাকার বিষয়টি জানিয়ে মন্তব্য চাইলে ইউজিসি’র সদস্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আলমগীরের দাবি, ‘বিশ্বের বিভিন্ন দেশে তিন সেমিস্টার আছে ঠিকই, কিন্তু শিক্ষার্থী ভর্তি করানো হয় দুই সেমিস্টারে।’

শিক্ষার্থীদের ইউনিক পরিচিতি নম্বর প্রসঙ্গে ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. চৌধুরী মোফিজুর রহমান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের একটি নিবন্ধন নম্বর থাকেই। তাহলে কেন হঠাৎ এত বড় একটি পরিচিতি নম্বর তৈরি হচ্ছে? পৃথিবীর অন্য কোথাও কিন্তু এত বড় নম্বর নেই।’

সংশ্লিষ্টদের মতে, দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাডেমিক বিষয় অনুমোদন দেয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাডেমিক কাউন্সিল। অ্যাকাডেমিক বিষয়ে দুই সেমিস্টারে শিক্ষার্থী ভর্তির শর্তারোপ আইনে নেই, এ কারণে শিক্ষার্থী ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর নতুনভাবে চাপ সৃষ্টি হবে। একইসঙ্গে শিক্ষাক্রমে বিশৃঙ্খলা দেখা দিতে পারে।

ইউজিসি’র নতুন শর্ত জুড়ে দেওয়ার বিষয়ে বাংলা ট্রিবিউনের কাছে নিজের অভিমত ব্যক্ত করেছেন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সমিতির সভাপতি শেখ কবির হোসেন। তার মন্তব্য, ‘যারা নতুন বিষয় চালু করতে চায় তাদের এই শর্ত দেওয়া হচ্ছে, যা আইনের মধ্যে পড়ে না। দুই সেমিস্টার হলে শিক্ষার্থীদের একসঙ্গে বেশি টাকা দিতে হবে। এতে শিক্ষার্থীদের ওপর আর্থিক চাপ পড়বে।’

একই মন্তব্য করেছেন কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ-এর ট্রাস্টি বোর্ডের জ্যেষ্ঠ অ্যাডভাইজার অধ্যাপক ড. এইচ এম জহিরুল হক। তিনি বলেন, ‘দুই সেমিস্টার চালালে শিক্ষার্থীদের ওপর আর্থিক চাপ সৃষ্টি হওয়ার শঙ্কা রয়েছে। তাছাড়া তিন সেমিস্টার সফলভাবেই চলে আসছে। সফলভাবে চলা একটি নীতি বাদ দিয়ে নতুন প্রক্রিয়া শুরু না করাই শ্রেয়।’

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সমিতির সভাপতির দাবি, ‘বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা তো সেভাবে ছুটি নেন না। সরকারি বা পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা মাসের পর মাস ছুটিতে থাকেন। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকলেও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সবসময় খোলা থাকে।’

ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. চৌধুরী মোফিজুর রহমানের মতে, ‘আমাদের দেশে যেসব বিশ্ববিদ্যালয় ভালো করছে সেগুলোর অধিকাংশই ট্রাই-সেমিস্টার পদ্ধতিতে চলে আসছে। দুই সেমিস্টার পদ্ধতি চালু হলে একজন শিক্ষার্থীকে ছয়-সাতটি কোর্স নিতে হবে। ফলে তাদের বেশি কোর্সের চাপ নিয়ে পড়াশোনার বিষয়টি ভাবা প্রয়োজন। এসব সামাল দিতে সেকশন বেশি রাখতে হবে, ক্লাসরুম বেশি দরকার, শিক্ষকও বেশি লাগবে। আমার মতে এর কোনও মানে নেই।’

অ্যাকাডেমিক বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলের ক্ষমতা থাকলেও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্ষেত্রে নির্দেশনা দেয় ইউজিসি। সংশ্লিষ্টদের মতে, ‘এটি ইউজিসির ক্ষমতা দেখানো ছাড়া আর কিছুই নয়।’

এ প্রসঙ্গে বাংলা ট্রিবিউনের সঙ্গে কথা বলেছেন এশিয়ান ইউনিভার্সিটির সরকার ও রাজনীতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. এম. আনিছুর রহমান। তার অভিমত, ‘করোনাকালে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো বিপর্যয়ের মধ্যে রয়েছে। এর মধ্যে কোনও আলোচনা ছাড়াই দুই সেমিস্টারে শিক্ষার্থী ভর্তির নির্দেশনায় বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠ্যসূচিতে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হবে। নতুন করে পাঠ্যক্রমে পরিবর্তন আনতে হলে চাপে পড়বে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। শিক্ষার্থীদেরও দুই দফায় পুরো বছরের টাকা পরিশোধ করতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয়গুলো এমনিতেই ছাত্র-ছাত্রী পাচ্ছে না, সেখানে হঠাৎ এমন সিদ্ধান্ত বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনায় আরও প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করবে।’

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষার্থীর মন্তব্য, ‘দুই সেমিস্টার করা হলে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ দুইবারেই একবছরের টাকা নিয়ে নেবে। সেক্ষেত্রে আমাদের ওপর আর্থিক চাপ বাড়বে। যদি তিন বা চার ভাগে টাকা নেয় তাহলে আমাদের জন্য সুবিধাজনক। কিন্তু করোনা পরিস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো সেই সুযোগ রাখতে পারবে বলে আমার মনে হয় না।’

দুই সেমিস্টারের কারণে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠ্যসূচিতে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির শঙ্কার বিষয়টি তুলে ধরলে ইউজিসি’র সদস্য অধ্যাপক বিশ্বজিৎ চন্দ উল্লেখ করেন, দুই সেমিস্টারের পাঠ্যসূচির জন্য প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। তার পরামর্শ, ‘বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো প্রয়োজনে সেকশন করতে পারে, আসন বাড়াতে পারে। শিক্ষক ও প্রয়োজনীয় অবকাঠামো বিবেচনায় তা করা যেতে পারে। কিন্তু তিন সেমিস্টারে ভর্তি করানো যাবে না।’

ইউজিসি’র আরেক সদস্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আলমগীর নতুন নির্দেশনা নিয়ে বাংলা ট্রিবিউনের সঙ্গে কথা বলেছেন । তার ভাষ্য, ‘একটি শিক্ষাবর্ষে তিন সেমিস্টার থাকতেই পারে। তবে মূল সেমিস্টার হবে দুটি। মূল দুই সেমিস্টারে শিক্ষার্থী ভর্তি করাতে হবে। যদি কোনও কারণে কোনও শিক্ষার্থী খারাপ করে তাহলে একটি সংক্ষিপ্ত সেমিস্টার থাকতে পারে। ফেল করা শিক্ষার্থীরা সংক্ষিপ্ত ওই সেমিস্টারের মাধ্যমে কাভার করবে। তৃতীয় সেমিস্টারে সংক্ষিপ্ত কোর্স চালানো যেতে পারে, তবে সাধারণ ভর্তি নয়। তিনটি সেমিস্টার হলে একটি সেমিস্টার শেষ না হতেই আরেকটি সেমিস্টার শুরু হয়ে যায়। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়গুলো তিন সেমিস্টারেই শিক্ষার্থী ভর্তি করায়। সে কারণে ছাত্রদের সময় কম থাকে। পাঠদান করা যায় না।’

দুই সেমিস্টারের ফলে বরং শিক্ষার্থীদের লাভ দেখছেন অধ্যাপক আলমগীর, ‘দুই সেমিস্টার করে চার বছরে শিক্ষার্থীরা শেষ করবে। বছরে দুইবার সেমিস্টারের ফি দিতে হবে তাদের। কিন্তু তিন সেমিস্টার থাকলে বছরে তিনবার সেমিস্টার ফি দিতে হবে। বাকি ক্রেডিটের টাকা তো একই থাকে। একজন শিক্ষার্থী কি শুধু ক্লাস করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়? একটি সেমিস্টার শেষের পর শিক্ষার্থীর জন্য একটি বিরতি দরকার। বিদেশে তো তিন মাস বন্ধই থাকে বিশ্ববিদ্যালয়। যারা ফেল করে ওই সময় তারা তৃতীয় সেমিস্টারে কাভার করে নেয়। পাস করা শিক্ষার্থীদের তার দরকার হয় না।’

 

 

 

 

    

/এসএমএ/এসএএস/জেএইচ/

সম্পর্কিত

২০২২ সালের ফেব্রুয়ারিতে এসএসসি হবে না: শিক্ষামন্ত্রী

২০২২ সালের ফেব্রুয়ারিতে এসএসসি হবে না: শিক্ষামন্ত্রী

ফেরি দুর্ঘটনা তদন্তে ৭ সদস্যের কমিটি

ফেরি দুর্ঘটনা তদন্তে ৭ সদস্যের কমিটি

‘২০২২ সালের পর রাজধানীতে উন্মুক্ত স্থানে বর্জ্য থাকবে না’

‘২০২২ সালের পর রাজধানীতে উন্মুক্ত স্থানে বর্জ্য থাকবে না’

‘টেকসই উন্নয়নের জন্য চাই ঐক্যবদ্ধ সামাজিক শক্তি’

‘টেকসই উন্নয়নের জন্য চাই ঐক্যবদ্ধ সামাজিক শক্তি’

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ফেরি দুর্ঘটনা তদন্তে ৭ সদস্যের কমিটি

ফেরি দুর্ঘটনা তদন্তে ৭ সদস্যের কমিটি

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই সেমিস্টারে শিক্ষার্থী নিতে কেন মরিয়া ইউজিসি?

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই সেমিস্টারে শিক্ষার্থী নিতে কেন মরিয়া ইউজিসি?

‘২০২২ সালের পর রাজধানীতে উন্মুক্ত স্থানে বর্জ্য থাকবে না’

‘২০২২ সালের পর রাজধানীতে উন্মুক্ত স্থানে বর্জ্য থাকবে না’

‘টেকসই উন্নয়নের জন্য চাই ঐক্যবদ্ধ সামাজিক শক্তি’

‘টেকসই উন্নয়নের জন্য চাই ঐক্যবদ্ধ সামাজিক শক্তি’

করোনা আক্রান্ত হলে হাসপাতালে পরীক্ষার ব্যবস্থা: শিক্ষামন্ত্রী 

করোনা আক্রান্ত হলে হাসপাতালে পরীক্ষার ব্যবস্থা: শিক্ষামন্ত্রী 

রেইনট্রিতে শিক্ষার্থী ধর্ষণ মামলার রায় ১১ নভেম্বর

রেইনট্রিতে শিক্ষার্থী ধর্ষণ মামলার রায় ১১ নভেম্বর

‘অপসংস্কৃতির বিরুদ্ধে সামাজিকভাবে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে’

‘অপসংস্কৃতির বিরুদ্ধে সামাজিকভাবে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে’

বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগ্য শিক্ষক নিয়োগের আহ্বান ইউজিসি’র

বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগ্য শিক্ষক নিয়োগের আহ্বান ইউজিসি’র

হাজারো মানুষের উপস্থিতিতে বাসেত মজুমদারের  জানাজা সম্পন্ন

হাজারো মানুষের উপস্থিতিতে বাসেত মজুমদারের  জানাজা সম্পন্ন

এসএসসি পরীক্ষা দেবে ২২ লাখ ২৭ হাজার

এসএসসি পরীক্ষা দেবে ২২ লাখ ২৭ হাজার

সর্বশেষ

চকবাজারে যুবকের লাশ উদ্ধার

চকবাজারে যুবকের লাশ উদ্ধার

বেতনভাতার দাবিতে পোশাকশ্রমিকদের মহাসড়ক অবরোধ

বেতনভাতার দাবিতে পোশাকশ্রমিকদের মহাসড়ক অবরোধ

কুমিল্লায় মণ্ডপ ভাঙচুরের ঘটনায় আরও এক মামলা 

কুমিল্লায় মণ্ডপ ভাঙচুরের ঘটনায় আরও এক মামলা 

দেশকে অস্থিতিশীল করতে মন্দিরে হামলা: চরমোনাই পীর

দেশকে অস্থিতিশীল করতে মন্দিরে হামলা: চরমোনাই পীর

২০২২ সালের ফেব্রুয়ারিতে এসএসসি হবে না: শিক্ষামন্ত্রী

২০২২ সালের ফেব্রুয়ারিতে এসএসসি হবে না: শিক্ষামন্ত্রী

© 2021 Bangla Tribune