X
সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

সেকশনস

বিজয়ের মাসে কওমি পত্রিকায় উপেক্ষিত মুক্তিযোদ্ধারা

আপডেট : ১৯ ডিসেম্বর ২০১৫, ০৯:২৮
image

দেশের কওমি মাদ্রাসাভিত্তিক পত্রিকাগুলোয় তুরস্কের ‘রজব তাইয়্যেব এরদোগান নায়ক থেকে মহানায়কে’ পরিণত হলেও বিজয়ের মাসে উপেক্ষিত থাকলেন মুক্তিযোদ্ধারা। এসব পত্রিকার পাতায়-পাতায় গণমাধ্যম ও প্রচলিত সংস্কৃতির বিরূপ সমালোচনা করা হলেও দেশের বিজয় দিবস নিয়ে নেই একটি শব্দও। পত্রিকাগুলোর প্রচ্ছদজুড়ে আরববিশ্বের বিভিন্ন স্থান ও শুকনো পাতার ছবি স্থান পেলেও স্বদেশের লাল-সবুজের কোনও রঙ লাগেনি সেখানে। দেশের কওমি মাদ্রাসাগুলোসহ ধর্মভিত্তিক প্রতিষ্ঠান থেকে প্রকাশিত ৬টি পত্রিকা পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, এসব পত্রিকায় দেশের স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব, মুক্তিযুদ্ধ, শহীদ বুদ্ধিজীবীসহ বিজয়ের মাসের কোনও চিহ্ন নেই। অথচ বিষটিকে নিছকই সংখ্যাগত বলে দাবি করছেন সংশ্লিষ্টদের কেউ-কেউ। তাদের মতে, সংখ্যা করে বিজয় দিবসের মাহাত্ম্য বোঝানোর কিছু নেই।
বরাবরের মতো এবারও ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে দেশের প্রতিটি জাতীয় দৈনিক, সাপ্তাহিক, মাসিক পত্রিকায় বিশেষ ক্রোড় প্রকাশ করেছে। অথচ, স্বাধীন রাষ্ট্রের সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা ভোগ করলেও কওমিভিত্তিক পত্রিকাগুলো স্বাধীনতার নায়কদের সম্মান জানায়নি। এছাড়া, কওমিপন্থী দলগুলোও ‘প্রেসরিলিজসর্বস্ব’ সভা করলেও তাদের দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব-মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ে কোনও কর্মসূচি রাখেনি।  
রাজধানীর বায়তুল মোকাররম মসজিদের পশ্চিম-উত্তর পাশে কয়েকটি ধর্মভিত্তিক পত্রিকার দোকান দেখা গেছে মাওলানা মুহিউদ্দীন খান সম্পাদিত ‘মাসিক মদীনা’। পত্রিকাটির ডিসেম্বর সংখ্যায় ৮টি প্রবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে। এর মধ্যে একটি রচনা তুরস্কের রাষ্ট্রপতি রজব তাইয়্যেব এরদোগানকে নিয়ে লিখেছেন সৈয়দ মাসুদ মোস্তফা। তার রচনায় এরদোগানকে ‘নায়ক থেকে মহানায়ক’ হওয়ার গল্প তিনি বলেছেন। বলা হয়েছে, আগামী দিনে মুসলিম বিশ্বের অবিসংবাদিত নেতা হিসেবে এরদোগান স্বমহিমায় আবির্ভূত হবেন।

এই রচনার আগের পৃষ্ঠাটি ভারতের কংগ্রেসনেতা মাওলানা আবুল কালাম আজাদকে নিয়ে। ভারতেরই আরেক প্রসিদ্ধ লেখক মাওলানা আবুল হাসান আলী নদভীর দেওয়া একটি ভাষণ থেকে অনূদিত।  অনুবাদ করেছেন ড. আফম খালিদ হোসেন। অথচ দেশের মহান মুক্তিযুদ্ধ, মুক্তিযোদ্ধা, বঙ্গবন্ধু কিংবা বিজয় দিবস নিয়ে একটি বর্ণও কোথাও প্রকাশিত হয়নি। এ বিষয়ে যোগাযোগ করলে মাওলানা মুহিউদ্দীন খানের সেলফোন বন্ধ পাওয়া গেছে।

রাজধানীর বৃহৎ কওমি মাদ্রাসা জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া মুহাম্মদপুর থেকে প্রকাশ হয় মাসিক রাহমানী পয়গাম। চলতি মাসে প্রকাশিত হয়েছে পত্রিকাটির ২৩৭তম সংখ্যা। এ সংখ্যার মূল প্রতিপাদ্য রাহমানিয়া মাদ্রাসার দীর্ঘদিনের শিক্ষক প্রয়াত মাওলানা নোমান আহমদ ও প্রয়াত মুফতি আবদুর রহমান। এই দুজনকে নিয়ে স্মরণসংখ্যা করেছে রাহমানী পয়গাম। বিজয়ের মাস নিয়ে কোনও প্রবন্ধ বা আলোচনা এই সংখ্যায় রাখেননি পত্রিকাটির দায়িত্বশীলেরা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে তরুণ সাংবাদিক ও রাহমানী পয়গামের বিভাগীয় সম্পাদক মাওলানা এহসানুল হক বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, আমরা বরাবরই স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব নিয়ে লেখা প্রকাশ করি। এবারের সংখ্যাটি করতে হয়েছে অনেকটা ঝড়ের বেগে। রাহমানিয়া মাদ্রাসার ২২ বছরের শিক্ষক, লেখক মাওলানা নোমান আহমাদ ও প্রবীণ আলেম মুফতি আবদুর রহমান সাহেবকে স্মরণ করে। আর কোনও লেখাই আমরা এ সংখ্যায় রাখিনি। যদিও বিগত দিনে বিজয় মাসে, ভাষার মাসে রাহমানি পয়গাম সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলোকেই প্রাধান্য দিয়েছে।

কওমি ঘরানাসহ সাধারণ মানুষদের মধ্যে জনপ্রিয় ধর্মীয় পত্রিকা মাসিক মদীনার যখন এই অবস্থা, তখন মুফতি তাজুল ফাত্তাহ সম্পাদিত ‘মহিলা কণ্ঠ’-এর অবস্থা আরও বেগতিক। পত্রিকাটির প্রচ্ছদে ‘রাতের বিছানায় স্বামী না জিন’ ফোকাস হলেও বিজয়ের মাস নিয়ে কোনও শব্দ নেই।

পুরুষের মুখে দাড়ি রাখার ৬ উপকারিতা চারঙা পৃষ্ঠায় যত্নের সঙ্গে মেকাপ হলেও বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ, স্বাধীনতা সংগ্রাম, এর পেছনে অবদানসহ সবকিছুকেই অবহেলা করা হয়েছে এই মহিলা কণ্ঠে। অক্টোবর মাসে আশুরা নিয়ে তিন পৃষ্ঠার রচনা থাকলেও শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস বা বুদ্ধিজীবীদের নিয়ে একটি শব্দও নেই মাসে অন্তত ১০-১৫ হাজার বিক্রিত এই পত্রিকাটি।

জানতে চাইলে পত্রিকাটির সিনিয়র সহকারী সম্পাদক মাওলানা সালাহউদ্দিন জাহাঙ্গীর বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, আমাদের কিছু টেকনিক্যাল প্রবেলেমের কারণে নভেম্বর সংখ্যা প্রকাশ করতে পারিনি। এ কারণে ডিসেম্বর সংখ্যাটিতে নভেম্বরের মেটার প্রকাশিত হয়েছে। তবে, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ, স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব নিয়ে আমাদের অবস্থান পরিষ্কার। দেশপ্রেম ঈমানের অঙ্গ। এ নিয়ে কোনও সমস্যা কিংবা চিন্তার দৈন্য আমাদের নেই। এটা নিছকই সংখ্যাগত একটি বিষয়। সংখ্যা করে বিজয় দিবসের মাহাত্ম্য বোঝানোর কিছু নেই। আমরা বাংলা ভাষা, ইতিহাস, মুক্তিযুদ্ধ—এসব বিষয়ে পরিষ্কার বলেই বাংলায় লিখি, বাংলায় স্বপ্ন দেখি। দেশকে উন্নত করতে আমাদের প্রচেষ্টাও অব্যাহত আছে।

মহিলা কণ্ঠের বিষয়কে ছাড়িয়েছে হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় কার্যালয়, চট্টগ্রামের হাটহাজারীর দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম মাদ্রাসার মুখপত্র মাসিক ‘মুঈনুল ইসলাম’। ২৫ বছরের এই পত্রিকাটির ডিসেম্বর সংখ্যার দুটি প্রধান বিষয় আহলে হাদিস-আহলে সুন্নাত ও প্রচলিত অর্থে ঈদে মিলাদুন্নবীর বিরোধিতা করা।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে নিয়ে ‘মোদীর গরু রাজনীতি ও ধর্মনিরপেক্ষতার প্রকৃত স্বরূপ’ শীর্ষক লেখা থাকলেও বিজয়ের মাসে বিজয় দিবস, দেশের স্বাধীনতা, মুক্তিযুদ্ধ, বঙ্গবন্ধু নিয়ে কোনও রচনা নেই। হেফাজতের আমির আল্লামা আহমদ শফী প্রচলিত ঈদে মিলাদুন্নবী সম্পর্কে কতিপয় বিভ্রান্তির নিরসন শীর্ষক রচনা লিখলেও জাতির বুদ্ধিবৃত্তিক ইতিহাস নির্মাণের নায়কদের নিয়ে কারও কোনও প্রবন্ধ-নিবন্ধ নেই এতে।

পত্রিকাটির ছড়ার বিষয় ওরশ, মাজার, মিলাদ, শিরিন, রেযবি মতাদর্শ বিরোধিতা। উইমিন্টলওয়েল ডটকম থেকে পিটার ভ্যান বারেন রচিত লেখার অনুবাদ প্রকাশিত হলেও দেশের মুক্তিযুদ্ধ, বিজয়ের মাস নিয়ে কোনও প্রবন্ধ প্রকাশের দায় অনুভব করেননি মুঈনুল ইসলামের কুশীলবরা।

শুক্রবার দুপুরে এ নিয়ে জানতে চেয়ে যোগাযোগ করা হলে পত্রিকাটির নির্বাহী সম্পাদক মাওলানা মুনির আহমদের সেল ফোনটি বন্ধ পাওয়া গেছে।

গবেষণামূলক উচ্চতর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মারকাযুদ দাওয়াহ আল ইসলামিয়া ঢাকার মুখপত্র মাসিক ‘আল কাউসার’। বহুল প্রচারিত  মাসিক পত্রিকাটির ডিসেম্বর সংখ্যার প্রচ্ছদ একটি শুকনো পাতা। এই পত্রিকাটি নিয়মিত ইসলামধর্মীয় মাসআলা-মাসায়েল সম্পর্কে প্রকাশিত হওয়ায় সাধারণত রাজনৈতিক কোনও বিষয় এই পত্রিকাটিতে ছাপা হয় না। এ পত্রিকাটিতে মুক্তিযুদ্ধ, স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব সম্পর্কিত কোনও রচনা প্রকাশিত হয়নি।

ধর্মভিত্তিক রাজনৈতিক পরিচয় উদ্ধৃত না করে একটি কওমিপন্থী রাজনৈতিক দলের একজন শীর্ষনেতা বলেন, ‘দেশপ্রেম, দেশের জন্য শহীদানদের বিষয়ে, তাদের প্রতি ইসলামি দৃষ্টিকোণ থেকে শ্রদ্ধার্পণের বিষয়ে বহু বিষয় আলোচনা করা যেত। এগুলো এসব পত্রিকায় এড়িয়ে যাওয়া হয়েছে। ইচ্ছা থাকলে মাসআলা-মাসায়েল সংক্ষিপ্ত করেই বিজয়ের মাসটিকে পত্রিকার বিষয় করা যেত।’

১২ রবিউল আউয়াল প্রধান বিষয় হিসেবে স্থান পেলেও বিজয়ের মাস নিয়ে মাত্র একটি রচনা ছাপতে পেরেছে সোলাকিয়া ঈদগাহের খতিব মাওলানা ফরিদ উদ্দীন মাসঊদ সম্পাদিত মাসিক ‘পাথেয়’।

পত্রিকাটির যুগ্ম-সম্পাদক মাসঊদুল কাদির বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, মূলত সীরাতের মাস হওয়ায় আমাদের এবারের সংখ্যাটি বিজয় দিবস বা এ সংক্রান্ত রচনা খুব বেশি যুক্ত করতে পারিনি। এই সংখ্যায় তানভীর আমির নামে এক তরুণ লেখক বিজয়ের মাস নিয়ে একটি লেখা লিখেছেন।

এ ব্যাপারে সরাসরি জবাব না দিয়ে কৌশলে ইসলামী ঐক্যজোটের মহাসচিব মুফতি ফয়জুল্লাহ বলেন, ‘আমরা মুসলমান। স্বাধীনতা আমরা এনেছি। বিজয়ের এই দিনে আমাদের সংকল্প, আমাদের স্বাধীনতা আমরা রক্ষা করব। বহু ত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতা বিপন্ন করার জন্য অশুভশক্তি নানা ষড়যন্ত্রের জাল বিস্তার করে চলেছে। চক্রান্তকারীদের চক্রান্ত ব্যর্থ করে দিতে ইসলামি মিডিয়া জগতের ব্যাপক  ভূমিকা আমরা প্রত্যাশা করি।’

দেশের বিশেষ দিবস নিয়ে ইসলামি পত্রিকার অবজ্ঞা রয়েছে কিনা—জানতে চাইলে জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া সাতমসজিদ মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল ও বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের মহাসচিব মাওলানা মাহফুযুল হক বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, অবজ্ঞা বলা যাবে না। ইসলাম দিবস পালনে উৎসাহিত করে না। এজন্য হয়ত আয়োজন করে না। ইসলামি সাপ্তাহিক বা মাসিক পত্রিকা একেবারেই দেশের জাতীয় দিবস নিয়ে আয়োজন থাকে না এমন নয়। কখনও কখনও স্বাধীনতা দিবস, ভাষা দিবস নিয়ে সংখ্যা প্রকাশিত হয়। তবে এটা ঠিক, দেশের গুরুত্বপূর্ণ দিবস নিয়ে লেখা, আয়োজন থাকা উচিত। এতে মানুষের জানার সুযোগ বাড়বে।

/এমএনএইচ/

সম্পর্কিত

ঘূর্ণিঝড়ের মাঝেই যেভাবে উদ্ধার হলেন ১৩ জেলে

ঘূর্ণিঝড়ের মাঝেই যেভাবে উদ্ধার হলেন ১৩ জেলে

বঙ্গোপসাগরে ভাসতে থাকার পাঁচ দিন পর ১৩ জেলে উদ্ধার

বঙ্গোপসাগরে ভাসতে থাকার পাঁচ দিন পর ১৩ জেলে উদ্ধার

ভুটান ও ভারতের ঐতিহাসিক স্বীকৃতি স্মরণে ডাকটিকিট অবমুক্ত

ভুটান ও ভারতের ঐতিহাসিক স্বীকৃতি স্মরণে ডাকটিকিট অবমুক্ত

মোনাশ কলেজের স্টাডি সেন্টার কেন অবৈধ নয়: হাইকোর্ট

মোনাশ কলেজের স্টাডি সেন্টার কেন অবৈধ নয়: হাইকোর্ট

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

ঘূর্ণিঝড়ের মাঝেই যেভাবে উদ্ধার হলেন ১৩ জেলে

ঘূর্ণিঝড়ের মাঝেই যেভাবে উদ্ধার হলেন ১৩ জেলে

বঙ্গোপসাগরে ভাসতে থাকার পাঁচ দিন পর ১৩ জেলে উদ্ধার

বঙ্গোপসাগরে ভাসতে থাকার পাঁচ দিন পর ১৩ জেলে উদ্ধার

ভুটান ও ভারতের ঐতিহাসিক স্বীকৃতি স্মরণে ডাকটিকিট অবমুক্ত

ভুটান ও ভারতের ঐতিহাসিক স্বীকৃতি স্মরণে ডাকটিকিট অবমুক্ত

মোনাশ কলেজের স্টাডি সেন্টার কেন অবৈধ নয়: হাইকোর্ট

মোনাশ কলেজের স্টাডি সেন্টার কেন অবৈধ নয়: হাইকোর্ট

বৈরী আবহাওয়ার মধ্যেও আন্দোলনে শিক্ষার্থীরা

বৈরী আবহাওয়ার মধ্যেও আন্দোলনে শিক্ষার্থীরা

অর্থপাচারকারীদের বিষয়ে প্রতিবেদন চেয়েছেন হাইকোর্ট

অর্থপাচারকারীদের বিষয়ে প্রতিবেদন চেয়েছেন হাইকোর্ট

কোনও দুর্নীতিকেই হালকাভাবে দেখার সুযোগ নেই: হাইকোর্ট

কোনও দুর্নীতিকেই হালকাভাবে দেখার সুযোগ নেই: হাইকোর্ট

দুপুরেই রাজধানীতে নেমে এলো  ‘সন্ধ্যা’ (ফটোস্টোরি)

দুপুরেই রাজধানীতে নেমে এলো ‘সন্ধ্যা’ (ফটোস্টোরি)

জেমসের মামলায় বাংলালিংকের চার জনের জামিন

জেমসের মামলায় বাংলালিংকের চার জনের জামিন

বৃষ্টিতে নাকাল রাজধানীবাসী (ফটোস্টোরি)

বৃষ্টিতে নাকাল রাজধানীবাসী (ফটোস্টোরি)

সর্বশেষ

নারী উদ্যোক্তাদের নেটওয়ার্ক ‘হার ই-ট্রেড’ আয়োজন করেছে প্রদর্শনীর

নারী উদ্যোক্তাদের নেটওয়ার্ক ‘হার ই-ট্রেড’ আয়োজন করেছে প্রদর্শনীর

নাগাল্যান্ড ইস্যুতে উত্তপ্ত ভারতের পার্লামেন্ট, দুঃখ প্রকাশ করলেন অমিত শাহ

নাগাল্যান্ড ইস্যুতে উত্তপ্ত ভারতের পার্লামেন্ট, দুঃখ প্রকাশ করলেন অমিত শাহ

করোনায় আক্রান্ত নারী দলের দুই ক্রিকেটার

করোনায় আক্রান্ত নারী দলের দুই ক্রিকেটার

সেন্টমার্টিনে আটকে পড়া পর্যটকদের হোটেল ভাড়ায় ছাড়

সেন্টমার্টিনে আটকে পড়া পর্যটকদের হোটেল ভাড়ায় ছাড়

ঘূর্ণিঝড়ের মাঝেই যেভাবে উদ্ধার হলেন ১৩ জেলে

ঘূর্ণিঝড়ের মাঝেই যেভাবে উদ্ধার হলেন ১৩ জেলে

© 2021 Bangla Tribune