X
বৃহস্পতিবার, ০৫ আগস্ট ২০২১, ২১ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

আগের চামড়া পড়ে আছে ট্যানারিতে, এবারের দাম নিয়ে হতাশা

আপডেট : ০২ আগস্ট ২০২০, ১০:০৪

চামড়া কেনায় আগ্রহ নেই ব্যবসায়ীদের ট্যানারিতে প্রচুর চামড়া মজুত পড়ে আছে। বিক্রি না হওয়ায় বকেয়া পাচ্ছেন না মাঠ পর্যায়ের ব্যবসায়ীরা। ফলে করোনার প্রভাবে অর্থ সংকটে থাকা ব্যবসায়ীরা নতুন করে আর চামড়া কিনতে আগ্রহী হচ্ছেন না। আর এ কারণে তারা চামড়ার দাম দিচ্ছেন না। গত বছরের চেয়েও এবার চামড়ার দাম কম। গত বছর যে চামড়া ৩০০ টাকা দর ছিল। এবার সেই চামড়ার দাম ১০০ টাকা। এ অবস্থায় চামড়ার প্রত্যাশিত দাম না পেয়ে হতাশ হয়ে পড়ছেন মাদ্রাসার লোকজনসহ চামড়া বিক্রেতারা।

ফুলতলার সুপার ট্যানারির এমডি ফিরোজ ভূইয়া বলেন, ‘আমরা চেষ্ট করছি সরকারের ঘোষণা অনুযায়ী খুলনা বিভাগের কোনও চামড়া যাতে নষ্ট না হয়। চামড়ার যথাযথ দাম পরিশোধ করতে আমরা বদ্ধপরিকর। এখানে চামড়া দিয়ে কেউ ক্ষতিগ্রস্ত হয়নি। আর আমাদের এ উদ্যোগের ফলে জাতীয় সম্পদ চামড়া নষ্ট হওয়া বা পাচার হওয়া থেকে রক্ষা পাচ্ছে। খুলনা বিভাগের ১০ জেলার ১৫০টি মাদ্রাসার কথা হয়েছে। চামড়া নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় ট্যানারিতে নিয়ে আসার জন্য ২০টি গাড়ি প্রস্তুত রয়েছে। এখানে কোনও ফরিয়া বা ব্যবসায়ী চামড়া আনলে তাকে ফেরানো হবে না। এখানে চামড়া আসার হার প্রতি বছরই বাড়ছে।’ চামড়া কেনায় আগ্রহ নেই ব্যবসায়ীদের

তিনি জানান, ২০১৬ সালে তার ট্যানারিতে ১০ হাজার পিস চামড়া আসে। ২০১৭ সালে এখানে ৩০ হাজার পিস চামড়া পাওয়া যায়। ২০১৮ সালে প্রায় ৫০ হাজার পিস চামড়া আসে। ২০১৯ সালে আড়াই লাখ চামড়া আসে। এ বছর ৫ লাখ চামড়া সংগ্রহ করার প্রস্তুতি রয়েছে। এ ট্যানারিতে বর্তমানে চার লাখ পিস চামড়া মজুদ আছে। তিনি বলেন, তার ট্যানারিটি দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে বৃহৎ।  এখানে মাদ্রাসা থেকে চামড়া আসার পর তা প্রক্রিজাত করা হয়।

রূপসার কাজদিয়া মহিলা মাদ্রাসার শিক্ষক মো. আসাদুল্লাহ জানান, তিন-চার বছর আগে চামড়া তিন হাজার থেকে ৩২০০ টাকা দরে বিক্রি করেছেন। গত বছর ৫০০-৮০০ টাকা দরে বিক্রি হয়। এবারতো আরও খারাপ অবস্থা। তিনি বলেন, ‘গত বছর ১৭টি চামড়া হয়েছিল। এবার ১৪টি পেয়েছি।’ খুলনায় চামড়ার দাম কম

শেখপাড়ার ইয়াসিন লেদারের মো. আবু জাফর বলেন, ‘এবার চামড়ার দাম গত বছরের চেয়েও কম। এবার ১৮-২০ বর্গফুটের চামড়া ১০০ টাকা ও ৩০-৩২ বর্গ ফুটের চামড়ার দাম ৫০০ টাকা আছে। গত বছর এই চামড়া ৩০০ টাকা থেকে ৮০০ টাকা দাম ছিল। ট্যানারি মালিকরা গত চার-পাঁচ বছরের টাকাই এখনও পরিশোধ করেনি। এ কারণে ব্যবসায়ীরা  সংকটের মধ্যে রয়েছেন। খুলনায় ৩০-৩২ জন ব্যাপারি রয়েছেন। সবারই  টাকা বকেয়া আছে। আমার নিজেরই ১৫ লাখ টাকা বকেয়া রয়েছে।’ খুলনায় চামড়ার দাম কম

আমান লেদার কমপ্লেক্সের আমানুল্লাহ আমান বলেন, ‘ট্যানারিতে গত বছরের চামড়া মজুদ রয়েছে। তাই ট্যানারিতে চামড়া নেওয়ার আগ্রহ কম। আর ব্যবসায়ীদের টাকাও আটকে আছে ট্যানারি মালিকদের হাতে। ফলে ব্যবসায়ীরাও চামড়া কেনার মতো অবস্থায় নেই। এর সঙ্গে আছে করোনার প্রভাব। সব মিলিয়ে এবার চামড়ার বাজার গত বছরের চেয়েও খারাপ।’ ট্যানারিতে ২০ লাখ টাকা পাওনা আছে বলেও তিনি জানান। চামড়া কেনায় আগ্রহ নেই ব্যবসায়ীদের

কাসেমুল উলুম মাদ্রাসা ও মসজিদে বাইতুল মুয়াজ্জম এর পেশ ইমাম ও চামড়া কমিটির প্রধান মো. নজরুল ইসলাম বলেন, ‘১৫০ পিস চামড়া পাওয়া গেছে। আরও ১০-১৫ পিস পাওয়ার সম্ভাবনা আছে। গত বছর ২০৪ পিস চামড়া পেয়েছিলাম। এবার করোনার প্রভাবে মানুষের আর্থিক সংকটের কারণে কোরবানি কম হওয়ায় চামড়া কম এসেছে।’

কেডিএ মসজিদের খাদেম হাফেজ মো. রেজোয়ান বলেন, দুটি চামড়া নিয়ে এসেছিলেন। প্রত্যাশা ছিল ৮০০ টাকায় বিক্রি করতে পারবেন। কিন্তু দুটি চামড়া ৩০০ টাকা দাম পাওয়া গেল। তিনি বলেন, ‘গত বছরের চেয়েও এবার চামরার দাম হতাশাজনক। এভাবে চললে এ দেশের চামড়া শিল্প ধ্বংস হয়ে যাবে।’

 

/এফএস/

সম্পর্কিত

খুলনায় প্রস্তুত ৩০৭ বুথ, টিকা পাবে ৬১৪০০ জন

খুলনায় প্রস্তুত ৩০৭ বুথ, টিকা পাবে ৬১৪০০ জন

খুলনায় একদিনে আরও ৩৪ জনের মৃত্যু

খুলনায় একদিনে আরও ৩৪ জনের মৃত্যু

করোনাভাইরাস: যশোরে ৭ নারীর মৃত্যু

করোনাভাইরাস: যশোরে ৭ নারীর মৃত্যু

খুলনায় আরও ৩৫ জনের মৃত্যু

খুলনায় আরও ৩৫ জনের মৃত্যু

প্যানেল মেয়রের কারখানায় কাঠমিস্ত্রির লাশ

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৭:৩৬

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ পৌরসভার প্যানেল মেয়র জাহেদ চৌধুরীর মালিকানাধীন কাঠের মালামাল তৈরির কারখানা থেকে বিজয় গোপ (২২) নামে এক কাঠমিস্ত্রির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। 

বৃহস্পতিবার (০৫ আগস্ট) দুপুরে নবীগঞ্জ পৌর এলাকার হাসপাতাল সড়কের ওই কারখানা থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করা হয়। বিজয় গোপ সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার ভবানীপুর গ্রামের মৃত দবুদ গোপের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, বুধবার কারখানায় কাজ করতে আসেন বিজয় গোপ। রাতে কারখানায় অবস্থান করেন। সকালে কারখানার আড়ার সঙ্গে তার ঝুলন্ত লাশ দেখেন সহকর্মীরা। খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হবিগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায় পুলিশ।

নবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-তদন্ত) বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে আত্মহত্যা। তবে ময়নাতদন্তের পর বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যাবে।’

/এএম/

সম্পর্কিত

দেশের হয়ে খেলা নাসুম নিজ জেলায় আজীবন নিষিদ্ধ

দেশের হয়ে খেলা নাসুম নিজ জেলায় আজীবন নিষিদ্ধ

সার কারখানার ৩৮ কোটি ৭১ লাখ টাকা আত্মসাৎ, দুদকের মামলা

সার কারখানার ৩৮ কোটি ৭১ লাখ টাকা আত্মসাৎ, দুদকের মামলা

সিলেটে করোনায় একদিনে রেকর্ড মৃত্যু

সিলেটে করোনায় একদিনে রেকর্ড মৃত্যু

স্বামীর ৪ ঘণ্টা পর শ্বাসকষ্টে স্ত্রীরও মৃত্যু

স্বামীর ৪ ঘণ্টা পর শ্বাসকষ্টে স্ত্রীরও মৃত্যু

টিকা ছাড়া শরীরে খালি সিরিঞ্জ পুশ, ২ নার্সকে প্রত্যাহার

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৭:২০

এক মেডিক্যাল কলেজ শিক্ষার্থীর শরীরে করোনাভাইরাসের টিকা ছাড়া খালি সিরিঞ্জ পুশের অভিযোগে পাবনা জেনারেল হাসপাতালের টিকাকেন্দ্রের দুই স্টাফ নার্সকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

বুধবার (৪ আগস্ট) দুপুরের এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) বেলা ১২টায় তাদের প্রত্যাহার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. কে এম আবু জাফর। তিনি জানান, প্রত্যাহার হওয়া ওই দুই নার্স হলেন- মেরিনা এবং মিতা। তবে তারা খালি সিরিঞ্জ শরীরে পুশের কোনও ঘটনা ঘটেনি বলে দাবি করেছেন বলে জানিয়েছেন।

ভুক্তভোগীর পিতা অ্যাডভোকেট আব্দুল হান্নান বলেন, ‘আমার মেয়ে ঢাকার একটি বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজের পঞ্চম বর্ষের ছাত্রী। বুধবার হাসপাতালে কোভিড-১৯ টিকা নিতে যায়। এ সময় কর্তব্যরত নার্সরা তার বাহুতে একটি খালি সিরিঞ্জ পুশ করে। বিষয়টি লক্ষ্য করে প্রতিবাদ জানালে তাড়াহুড়ো করে সিরিঞ্জ বের করায় রক্তপাত হয়। পরে ভ্যাকসিনসহ আরেকটি সিরিঞ্জ অন্য হাতে পুশ করেছেন।’

তিনি বলেন, ‘আমার মেয়ে একজন মেডিক্যাল শিক্ষার্থী বলেই বিষয়টি তাৎক্ষণিক বুঝতে পেরেছে। এটি একটি গুরুতর অপরাধ ও কর্তব্যে অবহেলা। টিকা প্রদান ও গ্রহণে প্রত্যেকেরই আরও সচেতন হওয়া উচিত। দায়িত্বরত নার্সরা কেন এমন করলেন, তা আমি বুঝতেই পারছি না।’

এদিকে, টিকা প্রদানে কর্তব্যরত নার্সদের কোনও অবহেলা ছিল কি না- তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন পাবনা জেনারেল হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. কে এম আবু জাফর। এ ঘটনায় তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটিও করা হয়েছে।

পরিচালক বলেন, ‘যদিও আমরা এ বিষয়ে কোনও আনুষ্ঠানিক অভিযোগ পাইনি। এরপরেও পাবনা সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মোস্তাফিজুর রহমানকে প্রধান করে তিন সদস্যের কমিটিকে তদন্ত করতে বলা হয়েছে। তারা প্রতিবেদন দিলে এ বিষয়ে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পাশাপাশি টিকাকেন্দ্রে সার্বিক নজরদারিও বাড়ানো হয়েছে।’

এ বিষয়ে পাবনা জেলা সিভিল সার্জন ডা. মনিসর চৌধুরী বলেন, ‘জেলায় টিকাদানে যারা কাজ করছেন, তারা সবাই স্টাফ নার্স ও অভিজ্ঞ। পাশাপাশি স্বাস্থ্যকর্মীরাও প্রশিক্ষিত। এ ধরনের ভুল হওয়ার কথা নয়। এরপরও, আমরা বিষয়টি তদন্ত করে দেখছি।’ টিকাদান কার্যক্রম নিয়ে বিভ্রান্ত না হয়ে সহযোগিতার অনুরোধও করেন তিনি।

/এফআর/

সম্পর্কিত

বগুড়ায় আরও ১১ মৃত্যু

বগুড়ায় আরও ১১ মৃত্যু

খুলনায় প্রস্তুত ৩০৭ বুথ, টিকা পাবে ৬১৪০০ জন

খুলনায় প্রস্তুত ৩০৭ বুথ, টিকা পাবে ৬১৪০০ জন

রাজশাহী মেডিক্যালে আরও ১৭ মৃত্যু

রাজশাহী মেডিক্যালে আরও ১৭ মৃত্যু

ওয়ার্ড পর্যায়ে টিকাদান কার্যক্রম সীমিত করলো চসিক

ওয়ার্ড পর্যায়ে টিকাদান কার্যক্রম সীমিত করলো চসিক

১০ সহকর্মীকে ছাঁটাই করায় বিক্ষোভ তাদের

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৬:৫৪

১০ জন সহকর্মীকে চাকরি থেকে ছাঁটাইয়ের প্রতিবাদে বিক্ষোভ করেছেন গাজীপুরের একটি পোশাক কারখানার শ্রমিকরা। বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) ‘ক্রসলাইন নীট ফেব্রিক লিমিটেড’ নামের ওই পোশাক কারখানার শ্রমিকরা বিক্ষোভ করেন। এ সময় ভাদাম-টঙ্গী আঞ্চলিক সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। 

শ্রমিকদের বিক্ষোভ থামাতে ও সড়ক থেকে সরে যেতে পুলিশ অনুরোধ জানায়। এক পর্যায়ে শ্রমিক-পুলিশ বাগবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়ে। এ সময় শ্রমিকরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করলে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে টিয়ারশেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করেছে।

আহত দুই পুলিশ সদস্য

প্রত্যক্ষদর্শী ও শ্রমিকরা জানান, গত কয়েকদিন ধরে বিনা কারণে টঙ্গীর ভাদাম এলাকার ‘ক্রসলাইন নীট ফেব্রিক লিমিটেড’ কারখানার ১০ শ্রমিককে ছাঁটাই করে কর্তৃপক্ষ। তাদের কাজে ফিরিয়ে আনার দাবিতে সহকর্মী শ্রমিকরা গত তিন দিন ধরে কারখানা অভ্যন্তরে বিক্ষোভ করে আসছিলেন। বৃহস্পতিবার ওই দাবির প্রেক্ষিতে উৎপাদন বন্ধ রেখে শ্রমিকরা কারখানার সামনে বিক্ষোভ করেন। এতে ভাদাম-টঙ্গী সড়কে যানচলাচল বন্ধ হয়ে পড়ে।

গাজীপুর শিল্প পুলিশের পুলিশ সুপার (এসপি) সিদ্দিকুর রহমান জানান, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে শিল্প, মেট্রোপলিটন পুলিশ ও আনসার সদস্যরা কমপক্ষে ৬০ রাউন্ড টিয়ারশেল এবং রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। শ্রমিকদের ইটপাটকেলে পুলিশের ছয় এবং আনসার বাহিনীর তিন সদস্য আহত হন। তাদের টঙ্গী আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। তবে শ্রমিক আহতের কোনও ঘটনা নেই বলে দাবি করেন তিনি। ঘটনার পর কর্তৃপক্ষ অনির্দিষ্টকালের জন্য কারখানা ছুটি ঘোষণা করেন।

শ্রমিকরা দাবি করেন, পুলিশের টিয়ারশেল ও রাবার বুলেটের আঘাতে কমপক্ষে ৫০ জন শ্রমিক আহত হয়েছেন। তাদেরকে বিভিন্ন ওষুধের দোকানে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে কারখানার প্রশাসনিক কর্মকর্তার মোবাইলফোনে কল করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

/এফআর/

সম্পর্কিত

কারখানায় নামাজ আদায় ও টুপি পরতে মানা, শ্রমিকদের ‘বিক্ষোভ’

কারখানায় নামাজ আদায় ও টুপি পরতে মানা, শ্রমিকদের ‘বিক্ষোভ’

সিঙ্গারের গোডাউনের আগুন নিয়ন্ত্রণে, পুড়ে ছাই টিভি-ফ্রিজ

সিঙ্গারের গোডাউনের আগুন নিয়ন্ত্রণে, পুড়ে ছাই টিভি-ফ্রিজ

বিদায়ের মুহূর্তে সহকর্মীদের ভালোবাসায় সিক্ত পুলিশ সদস্য

বিদায়ের মুহূর্তে সহকর্মীদের ভালোবাসায় সিক্ত পুলিশ সদস্য

বগুড়ায় আরও ১১ মৃত্যু

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৬:৪৭

বগুড়ায় গত ২৪ ঘণ্টায় ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে করোনায় ছয় ও উপসর্গে পাঁচ জন মারা গেছেন। বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) বগুড়ার ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মোস্তাফিজুর রহমান তুহিন এ তথ্য জানান।

করোনায় মৃতদের মধ্যে বগুড়ার চার জন। তারা হলেন- সদরের রূপ কুমার সাহা (৫২), শেরপুরের রেহেনা খাতুন (৪৫), শাজাহানপুরে মঞ্জুফা বেগম (৪৫) ও সারিয়াকান্দির তুলি বেগম (৫৫)। বাকিরা অন্য জেলার।

জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্র জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় বগুড়ার বিভিন্ন এলাকার ৫৯৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। তাদের মধ্যে করোনা শনাক্ত হয়েছে ১০৫ জনের। বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে ২৮২টি নমুনা পরীক্ষায় ৪০ জন, জিন এক্সপার্ট মেশিনে সাত জনের নমুনা পরীক্ষায় ছয় জন ও অ্যান্টিজেন পরীক্ষায় ২৭৪টি নমুনায় ৪৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এছাড়া টিএমএসএস মেডিক্যাল কলেজ ও রফাতুল্লাহ কমিউনিটি হাসপাতালে ৩৫টি নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৬ জনের।

সূত্র আরও জানায়, ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তদের মধ্যে সদরে ৫৯, শাজাহানপুরে নয়, শিবগঞ্জ ও শেরপুরে সাত জন করে, সোনাতলায় ছয়, নন্দীগ্রামে পাঁচ, সারিয়াকান্দিতে চার, আদমদীঘি ও দুপচাঁচিয়ায় তিন জন করে এবং ধুনট ও গাবতলীতে একজন করে রয়েছেন। শনাক্তের হার ১৭ দশমিক ৫৫ শতাংশ।

বগুড়ায় এ পর্যন্ত ১৯ হাজার ৩৯৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ১৭ হাজার ৪৯৯ জন। মারা গেছেন ৫৯১ জন। বর্তমানে হাসপাতাল ও বাড়িতে এক হাজার ৩০৯ জন চিকিৎসাধীন আছেন।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

টিকা ছাড়া শরীরে খালি সিরিঞ্জ পুশ, ২ নার্সকে প্রত্যাহার

টিকা ছাড়া শরীরে খালি সিরিঞ্জ পুশ, ২ নার্সকে প্রত্যাহার

খুলনায় প্রস্তুত ৩০৭ বুথ, টিকা পাবে ৬১৪০০ জন

খুলনায় প্রস্তুত ৩০৭ বুথ, টিকা পাবে ৬১৪০০ জন

রাজশাহী মেডিক্যালে আরও ১৭ মৃত্যু

রাজশাহী মেডিক্যালে আরও ১৭ মৃত্যু

রাঙামাটিতে পর্যটন শিল্পে চার মাসে ক্ষতি ২২ কোটি টাকা

রাঙামাটিতে পর্যটন শিল্পে চার মাসে ক্ষতি ২২ কোটি টাকা

কারখানায় নামাজ আদায় ও টুপি পরতে মানা, শ্রমিকদের ‘বিক্ষোভ’

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৬:৫৯

গাজীপুরের টঙ্গীর দরাইল এলাকার এস অ্যান্ড পি বাংলা লিমিটেড নামক পোশাক কারখানায় নামাজ আদায় ও পাঞ্জাবি-টুপি পরিধান থেকে বিরত থাকার নোটিশ দেওয়ায় ‘বিক্ষোভ’ করেছেন শ্রমিকরা। বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) সকালে কাজ বন্ধ রেখে বিক্ষোভ করেন তারা।

গাজীপুর শিল্প পুলিশের জ্যৈষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার এস আলম জানান, গত ৩ আগস্ট কর্তৃপক্ষ কারখানার অভ্যন্তরে নামাজ আদায় ও টুপি-পাঞ্জাবি পরিধান থেকে বিরত থাকার জন্য নোটিশ জারি করে। এতে শ্রমিকরা ক্ষিপ্ত হয়ে বৃহস্পতিবার সকালে ওই আদেশ প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে বিক্ষোভ করেন। ওই দাবির প্রেক্ষিতে কর্তৃপক্ষ সেটা প্রত্যাহার করে আরেকটি নোটিশ জারি করে। নতুন নোটিশ জারির পর শ্রমিকরা কাজে যোগ দেন।

গত ৩ আগস্ট কর্তৃপক্ষের জারি করা নোটিশে উল্লেখ করা হয়, কারখানার অভ্যন্তরে নামাজ পড়া যাবে না এবং পাঞ্জাবি ও টুপি পরা যাবে না। এই আদেশ মেনে কারখানা অভ্যন্তরে কাজ করার বিশেষভাবে নির্দেশ দেওয়া হলো।

শ্রমিকদের দাবির মুখে আগের নোটিশটি প্রত্যাহার করে নতুন নোটিশ জারি করে কর্তৃপক্ষ। এতে উল্লেখ করে, কারখানা অভ্যন্তরে নামাজ আদায় এবং পাঞ্জাবি ও টুপি পরা থেকে বিরত থাকার বিষয়ে যে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, তা অনিচ্ছাকৃত ভুল সিদ্ধান্ত ছিল। এর জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করছি। কারখানায় পূর্বের ন্যায় ধর্মীয় বিধিবিধান পালন করা যাবে। কারখানার পাঁচতলায় অজু ও নামাজের জন্য স্থান রয়েছে।

এস অ্যান্ড পি বাংলা লিমিটেডের মহাব্যবস্থাপক মাহবুব আলম দাবি করেন, ‘কারখানায় কোনও বিক্ষোভ হয়নি। দ্বিতীয় নোটিশে বিষয়টি প্রত্যাহার করা হয়েছে। তবে বিষয়টি জানতে বৃহস্পতিবার গণমাধ্যম ও পুলিশ সদস্যরা এসেছিলেন। শান্তিপূর্ণ সমাধান হয়েছে। কারখানার মোট সাড়ে ৬০০ শ্রমিক পুরোদমে উৎপাদনে নিয়োজিত রয়েছেন।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

১০ সহকর্মীকে ছাঁটাই করায় বিক্ষোভ তাদের

১০ সহকর্মীকে ছাঁটাই করায় বিক্ষোভ তাদের

সিঙ্গারের গোডাউনের আগুন নিয়ন্ত্রণে, পুড়ে ছাই টিভি-ফ্রিজ

সিঙ্গারের গোডাউনের আগুন নিয়ন্ত্রণে, পুড়ে ছাই টিভি-ফ্রিজ

বিদায়ের মুহূর্তে সহকর্মীদের ভালোবাসায় সিক্ত পুলিশ সদস্য

বিদায়ের মুহূর্তে সহকর্মীদের ভালোবাসায় সিক্ত পুলিশ সদস্য

সর্বশেষ

ঢাবি উপাচার্যকে মার্কিন দূতাবাসের অভিনন্দন

ঢাবি উপাচার্যকে মার্কিন দূতাবাসের অভিনন্দন

সব রেকর্ড ভেঙে করোনায় একদিনে ২৬৪ জনের মৃত্যু

সব রেকর্ড ভেঙে করোনায় একদিনে ২৬৪ জনের মৃত্যু

ভারতকে সামরিক ঘাঁটি নির্মাণ করতে দেওয়া হয়নি: মরিশাস

ভারতকে সামরিক ঘাঁটি নির্মাণ করতে দেওয়া হয়নি: মরিশাস

আকবরের কাছে এই পুরস্কার গর্বের, অনুপ্রেরণার

শেখ কামাল ক্রীড়া পুরস্কারআকবরের কাছে এই পুরস্কার গর্বের, অনুপ্রেরণার

প্যানেল মেয়রের কারখানায় কাঠমিস্ত্রির লাশ

প্যানেল মেয়রের কারখানায় কাঠমিস্ত্রির লাশ

মডেল পিয়াসার দুই সহযোগী মিশু ও জিসান রিমান্ডে

মডেল পিয়াসার দুই সহযোগী মিশু ও জিসান রিমান্ডে

নিশিতার কণ্ঠে বঙ্গবন্ধুকে হারানোর শোক

নিশিতার কণ্ঠে বঙ্গবন্ধুকে হারানোর শোক

রাজউক ও অন্যান্য সংস্থাকে মশকনিধন অভিযানের নির্দেশ স্থানীয় সরকারমন্ত্রীর

রাজউক ও অন্যান্য সংস্থাকে মশকনিধন অভিযানের নির্দেশ স্থানীয় সরকারমন্ত্রীর

বিশ্বের সবচেয়ে মোটা গাছ

বিশ্বের সবচেয়ে মোটা গাছ

টিকা ছাড়া শরীরে খালি সিরিঞ্জ পুশ, ২ নার্সকে প্রত্যাহার

টিকা ছাড়া শরীরে খালি সিরিঞ্জ পুশ, ২ নার্সকে প্রত্যাহার

বসুন্ধরা কিংস-মোহনবাগান লড়াই ২৪ আগস্ট

বসুন্ধরা কিংস-মোহনবাগান লড়াই ২৪ আগস্ট

মিয়ানমারে গণহত্যা চলছে, জাতিসংঘকে সতর্ক করলেন রাষ্ট্রদূত

মিয়ানমারে গণহত্যা চলছে, জাতিসংঘকে সতর্ক করলেন রাষ্ট্রদূত

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

খুলনায় প্রস্তুত ৩০৭ বুথ, টিকা পাবে ৬১৪০০ জন

খুলনায় প্রস্তুত ৩০৭ বুথ, টিকা পাবে ৬১৪০০ জন

খুলনায় একদিনে আরও ৩৪ জনের মৃত্যু

খুলনায় একদিনে আরও ৩৪ জনের মৃত্যু

করোনাভাইরাস: যশোরে ৭ নারীর মৃত্যু

করোনাভাইরাস: যশোরে ৭ নারীর মৃত্যু

খুলনায় আরও ৩৫ জনের মৃত্যু

খুলনায় আরও ৩৫ জনের মৃত্যু

যশোর জেনারেল হাসপাতালে আরও ৭ জনের মৃত্যু

যশোর জেনারেল হাসপাতালে আরও ৭ জনের মৃত্যু

খুলনার ৩ হাসপাতালে আরও ৯ জনের মৃত্যু

খুলনার ৩ হাসপাতালে আরও ৯ জনের মৃত্যু

বৃদ্ধ বাবা-মাকে আশ্রয়হীন করায় ৩ ছেলেকে পুলিশে দিলেন ইউএনও

বৃদ্ধ বাবা-মাকে আশ্রয়হীন করায় ৩ ছেলেকে পুলিশে দিলেন ইউএনও

যশোরে করোনা ও উপসর্গে আরও ৮ মৃত্যু

যশোরে করোনা ও উপসর্গে আরও ৮ মৃত্যু

খুলনায় শনাক্ত কমলেও বেড়েছে মৃত্যু

খুলনায় শনাক্ত কমলেও বেড়েছে মৃত্যু

মাদক বিক্রিতে বাধা দেওয়ায় ২ যুবককে কুপিয়ে জখম

মাদক বিক্রিতে বাধা দেওয়ায় ২ যুবককে কুপিয়ে জখম

© 2021 Bangla Tribune