X
বৃহস্পতিবার, ০৫ আগস্ট ২০২১, ২১ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

আবারও অ্যামাজনে ছড়াচ্ছে দাবানল

আপডেট : ০২ আগস্ট ২০২০, ১৫:০৯
image

জুলাই মাসে অ্যামাজন অঞ্চলে দাবানলের সংখ্যা অনেক বেড়েছে। ব্রাজিলের এক সরকারি পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, আগের বছরের জুলাইয়ের তুলনায় এ বছরের জুলাইয়ে দাবানল বেড়েছে ২৮ শতাংশ। এতে গত বছরের আগস্ট ও সেপ্টেম্বরে অ্যামাজনে দাবানলের ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটছে কিনা তা নিয়ে উদ্বেগ তৈরি হয়েছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

অ্যামাজনের দাবানল

পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলে থাকা অক্সিজেনের ২০ শতাংশেরই উৎপত্তি অ্যামাজনে। গবেষকদের মতে এই বন প্রতিবছর ২০০ কোটি মেট্রিক টন কার্বন ডাই অক্সাইড শোষণ করে। সে কারণে একে ডাকা হয়ে থাকে ‘পৃথিবীর ফুসফুস’ নামে। বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধির হারকে ধীর করতে অ্যামাজনের ভূমিকাকে বিশেষ গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হয়। বিশ্বের দীর্ঘতম এ জঙ্গলটির আয়তন যুক্তরাষ্ট্রের আয়তনের প্রায় অর্ধেক।

গত বছরের আগস্ট ও সেপ্টেম্বরে নজিরবিহীন দাবানলে পুড়েছে অ্যামাজন। তখন ব্রাজিলের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট ফর স্পেস রিসার্স (আইএনপিই) বলেছিল, দাবানলে প্রতি মিনিটে অ্যামাজনের প্রায় ১০,০০০ বর্গমিটার এলাকা পুড়ে যাচ্ছে, যা একটি ফুটবল মাঠের প্রায় দ্বিগুণ আয়তনের সমান (একটি ফুটবল মাঠের আয়তন প্রায় ৫ হাজার ৩৫১ বর্গমিটার)।  পরিবেশবাদীদের অভিযোগ প্রেসিডেন্ট জইর বলসোনারোর সরকারের বাণিজ্যপন্থী নীতির কারণেই আগুন দিয়ে বন ধ্বংসের ঘটনা বেড়ে যায়। গত ১১ বছরের মধ্যে ওই বছর বন ধ্বংসের হার ছিলো সর্বোচ্চ।

সম্প্রতি স্যাটেলাইট চিত্র বিশ্লেষণ করে ব্রাজিলের ন্যাশনাল স্পেস এজেন্সি জানিয়েছে, আবারও ভয়াবহ দাবানল ছড়িয়ে পড়ছে অ্যামাজনে। এ বছরের জুলাইয়ে ৬ হাজার ৮০৩টি দাবানলের ঘটনা দেখা গেছে।

ব্রাজিলের অ্যামাজন এনভায়রনমেন্টাল রিসার্স ইন্সটিটিউট-এর বিজ্ঞানবিষয়ক পরিচালক অ্যানে আলেনচার ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, ‘এটি ভয়াবহ লক্ষণ। আমরা আশঙ্কা করছি, আগস্ট মাসে পরিস্থিতি খারাপ হবে। আর সেপ্টেম্বর মাসের পরিস্থিতি হবে তার চেয়েও ভয়াবহ।’

পরিবেশবাদী সংগঠন ও গবেষকদের অভিযোগ, ব্রাজিলের চিরহরিত অরণ্যে দাবানলের কারণ পশু পালক ও কাঠুরেরা। জমি ব্যবহারের জন্য বনাঞ্চল পরিষ্কার করতে এসব দাবানল তৈরি করছে। আর এতে সমর্থন দিচ্ছেন দেশটির বাণিজ্যপন্থী প্রেসিডেন্ট জইর বলসোনারো। ক্ষমতা গ্রহণের পরই তিনি প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, অ্যামাজনে কৃষি ও খনি তৎপরতা বাড়ানো এবং তা বাণিজ্যের জন্য উন্মুক্ত করার। জলবায়ু পরিবর্তন ও অরণ্য বিনাশ নিয়ে আন্তর্জাতিক উদ্বেগ অগ্রাহ্য করে তিনি প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের অঙ্গীকার করেন। আইএনপিই’র তথ্য অনুসারে, বলসোনারোর ক্ষমতা গ্রহণের পর অরণ্য বিনাশের ঘটনা বেড়েছে।

 

 

/এফইউ/

সম্পর্কিত

বিশ্বের সবচেয়ে মোটা গাছ

বিশ্বের সবচেয়ে মোটা গাছ

যৌন হয়রানি: কৌমোর পদত্যাগ চাইলেন বাইডেন

যৌন হয়রানি: কৌমোর পদত্যাগ চাইলেন বাইডেন

পেন্টাগনের কাছে হামলায় পুলিশ কর্মকর্তা নিহত

পেন্টাগনের কাছে হামলায় পুলিশ কর্মকর্তা নিহত

নিউ ইয়র্ক গভর্নরের বিরুদ্ধে একাধিক নারীকে যৌন হয়রানির প্রমাণ

নিউ ইয়র্ক গভর্নরের বিরুদ্ধে একাধিক নারীকে যৌন হয়রানির প্রমাণ

আফগান ইস্যুতে আলোচনায় যুক্তরাষ্ট্র, চীন, পাকিস্তানকে আমন্ত্রণ রাশিয়ার, বাদ ভারত

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৭:৫৭

আফগানিস্তানের চলমান পরিস্থিতি নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ একটি আলোচনায় অংশগ্রহণের জন্য ভারতকে আমন্ত্রণ জানায়নি রাশিয়া। মস্কোর পক্ষ থেকে এই আলোচনায় অংশ নিতে চীন, যুক্তরাষ্ট্র ও পাকিস্তানকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিষয়টি সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের বরাতে এখবর জানিয়েছে ভারতীয় বার্তা সংস্থা প্রেস ট্রাস্ট ইন্ডিয়া (পিটিআই)।

খবরে বলা হয়েছে, আফগানিস্তানের তালেবানের সামরিক অগ্রযাত্রা অব্যাহত থাকার প্রেক্ষিতে যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশগুলোতে বড় ধরনের স্বার্থ থাকা দেশগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ বাড়িয়েছে রাশিয়া। মূলত সহিংসতার অবসান ও আফগান শান্তি প্রক্রিয়ায় গতি আনতে রাশিয়া এই পদক্ষেপ নিচ্ছে।

সূত্রের বরাতে খবরে বলা হয়েছে, ১১ আগস্ট রাশিয়ার উদ্যোগে আমন্ত্রিতরা কাতারে বৈঠকে বসবে। এর আগে ১৮ মার্চ ও ৩০ এপ্রিল একই ধরনের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

এর পাশাপাশি রাশিয়া নিজেদের মতো করে আফগানিস্তানের জাতীয় পুনর্মিলীন পক্রিয়ার জন্য কাজ করে যাচ্ছে। গত মাসে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ বলেছিলেন, আফগান পরিস্থিতি নিয়ে ভারতসহ অন্যান্য দেশের সঙ্গে কাজ অব্যাহত রাখবে মস্কো।

রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এই মন্তব্যের পর ধারণা করা হয়েছিল আসন্ন বৈঠকগুলোতে ভারতকে আমন্ত্রণ জানানো হতে পারে।

ল্যাভরভ আরও বলেছিলেন, ট্রইকা আদলের বর্ধিত বৈঠকগুলোতে আমরা যুক্তরাষ্ট্রসহ অন্যান্য দেশের সঙ্গে কাজ অব্যাহত রাখব। আফগানিস্তান পরিস্থিতিতে প্রভাব রাখতে পারে এমন দেশের সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাব।  

আফগান সংঘাতে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বিভিন্ন ইস্যুতে রাশিয়ার পার্থক্য রয়েছে। তবে উভয় দেশই এখন আন্তঃআফগান শান্তি আলোচনা জোর দিচ্ছে।

আসন্ন বর্ধিত ট্রইকা বৈঠক নিয়ে ভারতের পক্ষ থেকে এখনও কোনও মন্তব্য করা হয়নি।

ভারতে নিযুক্ত আফগান রাষ্ট্রদূত ফরিদ মামুন্দজায় শুক্রবার (৬ আগস্ট) জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে আফগানিস্তান পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার উদ্যোগকে ইতিবাচক অগ্রগতি হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

শুক্রবারের অধিবেশনটি ভারতের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন জাতিসংঘে ভারতীয় দূত টিএস টিরুমুর্তি।

/এএ/

সম্পর্কিত

ভারতকে সামরিক ঘাঁটি নির্মাণ করতে দেওয়া হয়নি: মরিশাস

ভারতকে সামরিক ঘাঁটি নির্মাণ করতে দেওয়া হয়নি: মরিশাস

দক্ষিণ চীন সমুদ্রে যুদ্ধ জাহাজ পাঠাচ্ছে ভারত

দক্ষিণ চীন সমুদ্রে যুদ্ধ জাহাজ পাঠাচ্ছে ভারত

ত্রিপুরায় কংগ্রেস-বাম-বিজেপি ভাঙার চেষ্টায় তৃণমূল!‍

ত্রিপুরায় কংগ্রেস-বাম-বিজেপি ভাঙার চেষ্টায় তৃণমূল!‍

ভারতকে সামরিক ঘাঁটি নির্মাণ করতে দেওয়া হয়নি: মরিশাস

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৭:৩৭
image

ভারতকে সামরিক ঘাঁটি নির্মাণ করতে দেওয়ার খবর অস্বীকার করেছে মরিশাস। দেশটির এক সরকারি কর্মকর্তা জানিয়েছেন, দুই দেশের মধ্যে এই ধরনের কোনও চুক্তির অস্তিত্ব নেই। এছাড়া দিল্লিকে এই ধরনের ঘাঁটি নির্মাণ করতে দেওয়ার কোনও পরিকল্পনাও নেই বলেও জানিয়েছেন তিনি। ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

গত সপ্তাহে কাতারভিত্তিক সম্প্রচারমাধ্যম আল জাজিরা টিভির এক খবরে দাবি করা হয় মরিশাসের দুর্গম আগালেগা দ্বীপে সামরিক ঘাঁটি নির্মাণ করছে ভারত। মরিশাসের মূল ভূখন্ড থেকে প্রায় এক হাজার কিলোমিটার উত্তরে অবস্থিত এই দ্বীপ। সেখানে প্রায় তিনশ’ মানুষের বসবাস রয়েছে।

বুধবার মরিশাসের প্রধানমন্ত্রী প্রভিন্দ জুগনাউথের যোগাযোগ উপদেষ্টা কেন আরিয়ান বলেন, ‘আগালেগায় সামরিক ঘাঁটি স্থাপন নিয়ে মরিশাস এবং ভারতের মধ্যে কোনও চুক্তি নেই।’ তবে তিনি স্বীকার করেন ২০১৫ সালে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মরিশাস সফরের সময় সম্মত হওয়া দুইটি প্রকল্পের কাজ চলছে। এর একটি হলো তিন কিলোমিটার দীর্ঘ একটি বিমানের রানওয়ে আর একটি জেটি। তবে সেগুলো সামরিক কাজে ব্যবহার হবে না বলে জানান তিনি।

আল জাজিরার প্রতিবেদনে ১৯৬৫ সালে যুক্তরাজ্যের নেওয়া একটি সিদ্ধান্তের পুনরাবৃত্তি হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়। ওই সময়ে  চাগোস দ্বীপকে মরিশাস থেকে বিচ্ছিন্ন করে নেয় যুক্তরাজ্য আর যুক্তরাষ্ট্রকে নিয়ে সেখানকার ডিয়েগো গার্সিয়াতে একটি যৌথ সামরিক ঘাঁটি স্থাপন করে।

কয়েক দশকের পুরনো ওই পদক্ষেপ নিয়ে ক্ষোভ রয়েছে চাগোস দ্বীপের বাসিন্দাদের। তাদের অভিযোগ যুক্তরাজ্য অবৈধ দখলদারিত্ব চালাচ্ছে আর নিজেদের মাতৃভূমি থেকে তাদের বিতাড়িত করছে। তবে যুক্তরাজ্যের দাবি দ্বীপটি লন্ডনের মালিকানাধীন। আর যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে একটি লিজ চুক্তি নবায়নের মাধ্যমে ২০৩৬ সাল পর্যন্ত এটি ব্যবহার করতে পারবে তারা।

স্নায়ু যুদ্ধের সময় কৌশলগভাবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে ডিয়েগো গার্সিয়া। পরে এটি সামরিক ঘাঁটি হিসেবে আফগান যুদ্ধের সময়ও গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠে।

/জেজে/

সম্পর্কিত

দক্ষিণ চীন সমুদ্রে যুদ্ধ জাহাজ পাঠাচ্ছে ভারত

দক্ষিণ চীন সমুদ্রে যুদ্ধ জাহাজ পাঠাচ্ছে ভারত

ত্রিপুরায় কংগ্রেস-বাম-বিজেপি ভাঙার চেষ্টায় তৃণমূল!‍

ত্রিপুরায় কংগ্রেস-বাম-বিজেপি ভাঙার চেষ্টায় তৃণমূল!‍

বিশ্বের সর্বোচ্চ সড়ক বানালো ভারত

বিশ্বের সর্বোচ্চ সড়ক বানালো ভারত

আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে যোগ দিচ্ছে সুদান

আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে যোগ দিচ্ছে সুদান

বিশ্বের সবচেয়ে মোটা গাছ

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৭:৪৬

গাছ কাটা ঠেকাতে অনেকসময় বৃক্ষকে ঘিরে দেওয়া হয় মানববেষ্টনী। মানে একজন আরেকজনের হাত ধরে প্রতীকী একটা বেড়া বানানো হয়। মেক্সিকোর সান্তা মারিয়া দেল তুলে শহরে গেলে পাওয়া যাবে একখানা দশাসই গাছ। গাছটার অফিসিয়াল নাম ‘এল আরবল দেল তুলে’ ওরফে ‘তুলের গাছ’। আর ওটাকে যদি কখনও মানববেষ্টনী দিতে হয়, তবে হাতে হাত রেখে ঘিরে দাঁড়াতে হবে অন্তত ৩০ জন মানুষকে!

বিশ্বের সবচেয়ে মোটা গাছ হিসেবে স্বীকৃত এই গাছের পরিধি এখন ৪২ মিটার। ‘এখন’ বলা হচ্ছে, কারণ দিনকে দিন গাছটা মোটা হচ্ছেই। বিজ্ঞানীরা প্রথমে ভেবেছিলেন দুটো বা তিনটে গাছ বুঝি একসঙ্গে মিশে এমনটা হয়েছে। কিন্তু ডিএনএ পরীক্ষায় দেখা গেলো এখানে একটাই গাছ। মন্টেজুমা সাইপ্রাস প্রজাতির এ গাছের বয়স কমসে কম দুই হাজার বছর।

তুলের গাছ-এর জন্য এলাকাটা হয়ে গেছে বিখ্যাত। এই একটি গাছের সুবাদেই পুরো এলাকা এখন বিশ্বখ্যাত পর্যটন স্পট। আর তাতেই বেশ আয়-রোজগার করছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

/এফএ/

সম্পর্কিত

যৌন হয়রানি: কৌমোর পদত্যাগ চাইলেন বাইডেন

যৌন হয়রানি: কৌমোর পদত্যাগ চাইলেন বাইডেন

পেন্টাগনের কাছে হামলায় পুলিশ কর্মকর্তা নিহত

পেন্টাগনের কাছে হামলায় পুলিশ কর্মকর্তা নিহত

নিউ ইয়র্ক গভর্নরের বিরুদ্ধে একাধিক নারীকে যৌন হয়রানির প্রমাণ

নিউ ইয়র্ক গভর্নরের বিরুদ্ধে একাধিক নারীকে যৌন হয়রানির প্রমাণ

যুক্তরাষ্ট্রে করোনা পরিস্থিতির আরও অবনতির আশঙ্কা ফাউচির

যুক্তরাষ্ট্রে করোনা পরিস্থিতির আরও অবনতির আশঙ্কা ফাউচির

মিয়ানমারে গণহত্যা চলছে, জাতিসংঘকে সতর্ক করলেন রাষ্ট্রদূত

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৭:২৪

জান্তা সরকার মিয়ানমারে গণহত্যা চালাচ্ছে উল্লেখ করে জাতিসংঘকে সতর্ক করেছেন সংস্থাটিতে নিয়োজিত রাষ্ট্রদূত কিওয়া মোয়ে তুন। এক চিঠিতে তিনি বলেন, অবৈধ সরকার দেশটিতে গণহত্যা মেতে ওঠেছে। জান্তা তাকে রাষ্ট্রদূতের পদ থেকে বহিষ্কার করলেও দায়িত্ব থেকে সরে যেতে অস্বীকৃতি জানান তিনি।

অবৈধ উপায়ে ক্ষমতা গ্রহণের পর ৬ মাস পার করলো মিয়ানমারের জান্তা সরকার। ক্ষমতায় আসার পর থেকেই আন্তর্জাতিক চাপের মুখে পড়লেও ক্ষমতা ছাড়তে নারাজ। এই সরকারের বিরুদ্ধে এবার নিজেই গুরুতর অভিযোগ এনেছেন জাতিসংঘে নিযুক্ত মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত।

সংস্থাটির মহাসচিব আন্থোনিও গুতেরেসকে এক চিঠিতে জানান, গত জুলাইয়ে মিয়ানমারের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের সাগাইং রাজ্যের কানি শহরে ৪০ জনের লাশ পাওয়া গেছে। আর এই হত্যাকাণ্ডের পেছনে জান্তা সরকারের হাত রয়েছে বলে নালিশ করেছেন তিনি। বুধবার ফরাসি নিউজ এজেন্সি এএফপির প্রতিবেদনে এ তথ্য এসেছে।

সামরিক বাহিনী ও সাধারণ মানুষের সংঘর্ষ

যদিও মিয়ানমারের জেনারেলরা এমন অভিযোগ পুরোপুরি অস্বীকার করেছে। তবে এএফপি বলছে, সাগাইং অঞ্চলে জান্তা সরকার মোবাইল নেটওয়ার্ক সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়ায় তারা স্বাধীনভাবে প্রতিবেদনগুলোর সত্যতা যাচাই করতে পারছে না।

গুতেরেসকে লেখা চিঠিতে মোয়ে তুন অভিযোগ করেন, সেখানকার একটি গ্রামে সৈন্যদের অমানবিক নির্যাতনে গত ৯ থেকে ১০ জুলাইয়ে তাদের মৃত্যু হয়। এরপরই ওই এলাকা থেকে ১০ হাজার নাগরিক পালিয়ে যেতে বাধ্য হন।

চিঠিতে তিনিও আরও জানান, গত ২৬ জুলাই কানিতে স্থানীয় যোদ্ধা ও নিরাপত্তা বাহিনীর মধ্যে তুমুল লড়াইয়ের পর আরও ১৩ জনের মরদেহ পাওয়া যায়। আর ২৮ জুলাই কানির কটি গ্রামে শিশুসহ ১১ জনকে হত্যা করে সেনারা। শুধু তাই নয়, গ্রামটিতে আগুন ধরিয়ে দিলে ভয়াবহ পরিস্থিতি দেখা দেয়।

এমন পরিস্থিতি বর্ণনা দিয়ে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর ওপর অস্ত্র নিষেধাজ্ঞার আহ্বান জানান এই রাষ্ট্রদূত। নৃশংস পরিস্থিতি মিয়ানমারে চলতে দেওয়া যায় না বলেও উদ্বেগ জানান তিনি। এই সংকটে দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার দেশটিতে মানবিক সহায়তার জন্য বিশ্ববাসীর প্রতি আহ্বান জানান।

গত ১ ফেব্রয়ারি মিয়ানমারের সু চি সরকারকে অবৈধভাবে ক্ষমতাচ্যুত করে ক্ষমতা দখলে নেয় জান্তা সরকার। এই সরকারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ অব্যাহত রেখেছে দেশটির নাগরিকরা। সাধারণ মানুষের সঙ্গে নিরাপত্তা বাহিনীর সংঘর্ষে এখন পর্যন্ত হাজারো মানুষ নিহত হয়েছেন।

/এলকে/

সম্পর্কিত

মিয়ানমারের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পেলেন সেনাপ্রধান মিন অং হ্লাইং

মিয়ানমারের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পেলেন সেনাপ্রধান মিন অং হ্লাইং

মানবতাবিরোধী অপরাধ করছে মিয়ানমার জান্তা

মানবতাবিরোধী অপরাধ করছে মিয়ানমার জান্তা

করোনার 'সুপার স্প্রেডার' রাষ্ট্র হওয়ার পথে মিয়ানমার

করোনার 'সুপার স্প্রেডার' রাষ্ট্র হওয়ার পথে মিয়ানমার

ইরানে হামলা চালাতে প্রস্তুত ইসরায়েল: গান্তজ

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৭:০৯

ইসরায়েলের প্রতিরক্ষামন্ত্রী বেনি গান্তজ বলেছেন, ইরানে হামলা চালাতে তার দেশ প্রস্তুত রয়েছে। উপসাগরে একটি বেসামরিক বাণিজ্যিক জাহাজে ড্রোন হামলার ঘটনায় সৃষ্ট উত্তেজনার প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার তিনি এই মন্তব্য করেছেন। ইসরায়েলি সংবাদমাধ্যম জেরুজালেম পোস্ট এখবর জানিয়েছে।

ইরানে হামলা চালাতে ইসরায়েল প্রস্তুত কিনা এমন এক প্রশ্নের জবাবে গান্তজ বলেন, ‘হ্যা’।

তিনি বলেছেণ, ইসরায়েল, মধ্যপ্রাচ্য ও সারাবিশ্বের জন্য হুমকি ইরান।

ইরানের পরামণবিক কর্মসূচি ইসরায়েলের সবচেয়ে বড় উদ্বেগের কারণ। তেহরান সব সময় পারমাণবিক অস্ত্র উৎপাদনের কথা অস্বীকার করে আসছে। তবু ইসরায়েলের ধারণা, ইরান পারমাণবিক অস্ত্র তৈরির সক্ষমতা অর্জনের পথে রয়েছে এবং পারমাণবিক ওয়্যারহেড বহনে সক্ষম ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র তৈরি করছে।

ড্রোন হামলার কথা তুলে ধরে গান্তজ বলেন, ইরান আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক সমস্যা। শুক্রবার এই হুমকির উদাহরণ দেখেছে বিশ্ব। এমনটি যে কারও ক্ষেত্রে ঘটতে পারে।

বৃহস্পতিবার ইরানের প্রেসিডেন্ট হিসেবে কট্টরপন্থী ইব্রাহিম রাইসি দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন। গান্তজ মনে করেন, এতে করে ইরান আঞ্চলিক ও নিরাপত্তা নীতির আরও বেশি আগ্রাসী হয়ে উঠতে পারে। তার কথায়, আমি বিশ্বকে বলছি, মনযোগ দিন। হুমকি আসছে।

ইসরায়েলি প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, ইসরায়েলের ইরান বহুমাত্রিক হুমকি। তারা লেবানন ও গাজা এবং সিরিয়া ও ইরাকে উপস্থিতি বাড়াচ্ছে। ইয়েমেনে সমর্থন অব্যাহত রেখেছে।

এদিকে, বৃহস্পতিবার লেবাননের দক্ষিণাঞ্চলে হামলা শুরু করেছে ইসরায়েলের যুদ্ধবিমান। দেশটির দাবি, বৃহস্পতিবার প্রতিবেশী দেশটি থেকে টানা দ্বিতীয় দিনের মতো রকেট হামলার প্রতিক্রিয়ায় এই অভিযান শুরু করা হয়েছে। যেসব স্থান থেকে রকেট হামলা হয়েছে এবং সন্ত্রাসীদের অবকাঠামো রয়েছে, সেসব স্থানে বিমান হামলা চালানো হচ্ছে।

/এএ/

সম্পর্কিত

লেবাননে বিমান হামলা শুরু করেছে ইসরায়েল

লেবাননে বিমান হামলা শুরু করেছে ইসরায়েল

পাল্টাপাল্টি হামলায় ইসরায়েল-লেবানন সীমান্তে উত্তেজনা

পাল্টাপাল্টি হামলায় ইসরায়েল-লেবানন সীমান্তে উত্তেজনা

চীনা টিকা গ্রহণকারীদের শর্ত সাপেক্ষে প্রবেশ করতে দেবে সৌদি আরব

চীনা টিকা গ্রহণকারীদের শর্ত সাপেক্ষে প্রবেশ করতে দেবে সৌদি আরব

সর্বশেষ

অক্সিজেনের অভাবে অক্সিজেন ব্যবসায়ীর মৃত্যু

অক্সিজেনের অভাবে অক্সিজেন ব্যবসায়ীর মৃত্যু

আফগান ইস্যুতে আলোচনায় যুক্তরাষ্ট্র, চীন, পাকিস্তানকে আমন্ত্রণ রাশিয়ার, বাদ ভারত

আফগান ইস্যুতে আলোচনায় যুক্তরাষ্ট্র, চীন, পাকিস্তানকে আমন্ত্রণ রাশিয়ার, বাদ ভারত

ঢাবি উপাচার্যকে মার্কিন দূতাবাসের অভিনন্দন

ঢাবি উপাচার্যকে মার্কিন দূতাবাসের অভিনন্দন

সব রেকর্ড ভেঙে করোনায় একদিনে ২৬৪ জনের মৃত্যু

সব রেকর্ড ভেঙে করোনায় একদিনে ২৬৪ জনের মৃত্যু

ভারতকে সামরিক ঘাঁটি নির্মাণ করতে দেওয়া হয়নি: মরিশাস

ভারতকে সামরিক ঘাঁটি নির্মাণ করতে দেওয়া হয়নি: মরিশাস

আকবরের কাছে এই পুরস্কার গর্বের, অনুপ্রেরণার

শেখ কামাল ক্রীড়া পুরস্কারআকবরের কাছে এই পুরস্কার গর্বের, অনুপ্রেরণার

প্যানেল মেয়রের কারখানায় কাঠমিস্ত্রির লাশ

প্যানেল মেয়রের কারখানায় কাঠমিস্ত্রির লাশ

মডেল পিয়াসার দুই সহযোগী মিশু ও জিসান রিমান্ডে

মডেল পিয়াসার দুই সহযোগী মিশু ও জিসান রিমান্ডে

নিশিতার কণ্ঠে বঙ্গবন্ধুকে হারানোর শোক

নিশিতার কণ্ঠে বঙ্গবন্ধুকে হারানোর শোক

রাজউক ও অন্যান্য সংস্থাকে মশকনিধন অভিযানের নির্দেশ স্থানীয় সরকারমন্ত্রীর

রাজউক ও অন্যান্য সংস্থাকে মশকনিধন অভিযানের নির্দেশ স্থানীয় সরকারমন্ত্রীর

বিশ্বের সবচেয়ে মোটা গাছ

বিশ্বের সবচেয়ে মোটা গাছ

টিকা ছাড়া শরীরে খালি সিরিঞ্জ পুশ, ২ নার্সকে প্রত্যাহার

টিকা ছাড়া শরীরে খালি সিরিঞ্জ পুশ, ২ নার্সকে প্রত্যাহার

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

বিশ্বের সবচেয়ে মোটা গাছ

বিশ্বের সবচেয়ে মোটা গাছ

যৌন হয়রানি: কৌমোর পদত্যাগ চাইলেন বাইডেন

যৌন হয়রানি: কৌমোর পদত্যাগ চাইলেন বাইডেন

পেন্টাগনের কাছে হামলায় পুলিশ কর্মকর্তা নিহত

পেন্টাগনের কাছে হামলায় পুলিশ কর্মকর্তা নিহত

নিউ ইয়র্ক গভর্নরের বিরুদ্ধে একাধিক নারীকে যৌন হয়রানির প্রমাণ

নিউ ইয়র্ক গভর্নরের বিরুদ্ধে একাধিক নারীকে যৌন হয়রানির প্রমাণ

যুক্তরাষ্ট্রে করোনা পরিস্থিতির আরও অবনতির আশঙ্কা ফাউচির

যুক্তরাষ্ট্রে করোনা পরিস্থিতির আরও অবনতির আশঙ্কা ফাউচির

কিউবার ওপর আরও নিষেধাজ্ঞা যুক্তরাষ্ট্রের

কিউবার ওপর আরও নিষেধাজ্ঞা যুক্তরাষ্ট্রের

কিউবায় আটক বিক্ষোভকারীদের মুক্তি দাবি ইউরোপীয় ইউনিয়নের

কিউবায় আটক বিক্ষোভকারীদের মুক্তি দাবি ইউরোপীয় ইউনিয়নের

অ্যাসাঞ্জের নাগরিকত্ব বাতিল করলো ইকুয়েডর

অ্যাসাঞ্জের নাগরিকত্ব বাতিল করলো ইকুয়েডর

ক্যাপিটলে হামলার লোমহর্ষক বর্ণনা দিলেন ৪ পুলিশ সদস্য

ক্যাপিটলে হামলার লোমহর্ষক বর্ণনা দিলেন ৪ পুলিশ সদস্য

টিকা নিলেও সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা, মাস্ক পরার পরামর্শ সিডিসি’র

টিকা নিলেও সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা, মাস্ক পরার পরামর্শ সিডিসি’র

© 2021 Bangla Tribune