X
বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ১৩ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

উদ্ধার হয়নি আগুনমুখা নদীতে নিখোঁজ ৫ যাত্রী

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২০, ২৩:২৯

পটুয়াখালীর আগুনমুখা নদীতে স্পিডবোট ডুবে নিখোঁজ পাঁচ যাত্রীর সন্ধান মেলেনি। তাদের উদ্ধারের জন্য বৃহস্পতিবার (২২ অক্টোবর) মধ্যরাতে অভিযান বন্ধ করলেও শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) সকাল থেকে অভিযান চালায় কোস্টগার্ড ও পুলিশ।

নিখোঁজ যাত্রীরা হলেন, রাঙ্গাবালী থানার কর্মরত পুলিশ কনস্টেবল মো. মহিবুল্লাহ (৪৫), কৃষি ব্যাংক রাঙ্গাবালীর বাহেরচর শাখার পরিদর্শক মো. মোস্তাফিজুর রহমান (৩৫), আশা এনজিও রাঙ্গাবালীর খালগোড়া সাখার ঋণ অফিসার হুমায়ুন কবির হোসেন (২৮), পটুয়াখালী উপজেলার আউলিয়াপুর ইউনিয়নের রহিম হাওলাদারের ছেলে হাসান (৩৫) ও বাউফল উপজেলার কনকদিয়া ইউনিয়ানের জয়ঘোড়া গ্রামের মো. শাহ আলমের ছেলে ইমরান (৩৪)।

বৃহস্পতিবার বিকালে রাঙ্গাবালী উপজেলার কোরালিয়া লঞ্চঘাট প্রান্ত থেকে যাত্রী নিয়ে আহম্মেদ এন্টারপ্রাইজের মালিকানাধীন একটি স্পিডবোট গালাচিপা উপজেলার পানপট্টি প্রান্তের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে। আগুনমুখার মাঝ নদীতে ঢেউয়ের তোড়ে তলা ফেটে ১৮ জন লোক নিয়ে স্পিডবোটটি ডুবে যায়। এতে ১৩ যাত্রী জীবিত উদ্ধার হলেও পাঁচ জন নিখোঁজ রয়েছেন।

উদ্ধার হওয়া যাত্রীরা জানায়, নদী উত্তাল দেখে আমরা চালককে বারবার স্পিডবোটটি ঘুরিয়ে ঘাটে নিয়ে আসতে বলেছি। তবে সে আমাদের কথার গুরুত্ব দেয়নি।

চালিতাবুনিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মু. জাহিদুর রহমান বলেন, যখন স্পিডবোট ডুবেছে তখন নদীতে ভাটা ছিল। বর্তমানে স্রোতের গতি অনেক বেশি তাই স্রোতে নিখোঁজ ব্যক্তিদের সাগরে নামিয়ে নিয়ে গেছে।

রাঙ্গাবালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলী আহম্মেদ বলেন, উদ্ধার অভিযান চলছে। তবে বৈরী আবহাওয়ার কারণে উদ্ধারকাজ কিছুটা ব্যাহত হচ্ছে।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

লকডাউনে বিয়ের আয়োজন, বর-কনের বাবার জরিমানা

লকডাউনে বিয়ের আয়োজন, বর-কনের বাবার জরিমানা

বরগুনায় টানা বর্ষণে ডুবে গেছে ফসল ও মাছের ঘের

বরগুনায় টানা বর্ষণে ডুবে গেছে ফসল ও মাছের ঘের

ধর্ষণের অভিযোগে ছাত্রলীগের সাবেক নেতার বিরুদ্ধে কলেজছাত্রীর মামলা

ধর্ষণের অভিযোগে ছাত্রলীগের সাবেক নেতার বিরুদ্ধে কলেজছাত্রীর মামলা

পাহাড়ি ঢলে সড়ক বিলীন

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ২০:২৭

কক্সবাজারের নতুন উপজেলা ঈদগাঁওয়ের সঙ্গে রামু উপজেলার ঈদগড়ের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। ভারী বৃষ্টিতে পাহাড়ি ঢলের তোড়ে সড়ক ধসে যাওয়ায় দুই উপজেলার যোগাযোগব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

বুধবার (২৮ জুলাই) বেলা ১১টার দিকে ঈদগাঁও-ঈদগড়-বাইশারী সড়কের ঈদগড় ইউনিয়নের পানের ছড়া পয়েন্টে প্রায় দেড়শ ফুট সড়ক নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যায়।

রামু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) প্রণয় চাকমা বলেন, দুই দিন ধরে ভারী বৃষ্টিতে রামুর বেশির ভাগ এলাকায় বন্যা দেখা দিয়েছে। ফলে পাহাড়ি ঢলে ঈদগাঁও উপজেলা ও ঈদগাঁও বাজারের সঙ্গে সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, ঈদগড়-ঈদগাঁও সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ায় বিকল্প পথে বাইশারী-গর্জনিয়া-নাইক্ষ্যংছড়ি-রামু হয়ে কলা পরিবহন করতে হবে। ফলে কয়েক গুণ বেশি পরিবহন খরচ পড়বে।

কয়েক বছর ধরে ঈদগাঁও নদীর মূল স্রোতধারা সড়কের পাশ দিয়ে প্রবাহিত হলেও ভাঙন প্রতিরোধ অথবা নদীশাসনের উদ্যোগ নেয়নি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। ফলে সড়কটি নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে বলে মনে করেন স্থানীয় সচেতন মহল।

এদিকে উখিয়া ও পার্শ্ববর্তী পার্বত্য উপজেলা নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুমে বন্যার পানিতে ডুবে আট জনের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার (২৮ জুলাই) উখিয়া ও ঘুমধুমের বিভিন্ন স্থানে তাদের মৃত্যু হয়।

/এএম/

সম্পর্কিত

চট্টগ্রামে করোনা থেকে সুস্থ নারী ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত

চট্টগ্রামে করোনা থেকে সুস্থ নারী ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত

চট্টগ্রামে পাহাড় ধসের শঙ্কা, আশ্রয়কেন্দ্রে ৩ শতাধিক মানুষ

চট্টগ্রামে পাহাড় ধসের শঙ্কা, আশ্রয়কেন্দ্রে ৩ শতাধিক মানুষ

লক্ষ্মীপুরে এর আগে একদিনে এত মানুষ আক্রান্ত হয়নি

লক্ষ্মীপুরে এর আগে একদিনে এত মানুষ আক্রান্ত হয়নি

উখিয়া-ঘুমধুমে বন্যার পানিতে ডুবে ৫ জনের মৃত্যু

উখিয়া-ঘুমধুমে বন্যার পানিতে ডুবে ৫ জনের মৃত্যু

চট্টগ্রামে করোনা থেকে সুস্থ নারী ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ২০:২৬

চট্টগ্রামে করোনাভাইরাস থেকে সুস্থ হওয়া এক নারী মিউকরমাইকোসিসে (ব্ল্যাক ফাঙ্গাস) আক্রান্ত হয়েছেন। সিটিস্ক্যান রিপোর্টের পর আজ বায়োপসি রিপোর্টে ওই নারী ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হন।

বুধবার (২৮ জুলাই) চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. সুযত পাল এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, বর্তমানে ওই নারী চমেক হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘উপসর্গ দেখে আমরা সন্দেহ করেছিলাম, ওই নারী মিউকরমাইকোসিস রোগে আক্রান্ত। আজ তার বায়োপসি রিপোর্টে এটি নিশ্চিত হয়েছি।’

আক্রান্ত ওই নারীর নাম ফেরদৌসি বেগম (৬০)। তার গ্রামের বাড়ির চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলায়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ফেরদৌসি বেগমের ছেলের বউ তাহমিনা আক্তার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আম্মুর গত ২৪ জুন করোনা শনাক্ত হয়। এরপর নগরের বেসরকারি সিএসসিআর হাসপাতালে ওনাকে ভর্তি করা হলে সেখানে চিকিৎসা নিয়ে নেগেটিভ হন। এরপর বাসায় নিয়ে এলে ওনার মুখে ফোলা দেখা দেয়। আমরা ওনাকে দাঁতের ডাক্তার দেখাই। উনি উপসর্গ দেখে ব্ল্যাক ফাঙ্গাস হয়েছে বলে সন্দেহ করেন। বিষয়টি নিশ্চিত হতে তিনি সিটিস্ক্যান করানোর পরামর্শ দেন।’

তিনি বলেন, ‘আমরা সিটিস্ক্যান করার পর প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত হই, উনি ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত। এরপর ওনাকে পুনরায় সিএসসিআর হাসপাতালে ভর্তি করি। সেখানে জানানো হয়, এ রোগের চিকিৎসা ঢাকা ছাড়া সম্ভব নয়। এরপর আমরা ঢাকায় নেওয়ার উদ্দেশে কুমিল্লা পর্যন্ত গেলে জানতে পারি, চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে এই রোগের চিকিৎসা হয়। ওইদিন রাতে কুমিল্লা থেকে ফিরে ওনাকে সেখানে ভর্তি করি। বর্তমানে হাসপাতালটিতে চিকিৎসাধীন আছেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘এখন অ্যান্টিবায়োটিক দিয়ে আম্মুর চিকিৎসা চলছে। চিকিৎসকরা লিপোসোমাল অ্যামফোটেরিসিন-বি ওষুধ প্রয়োগের পরামর্শ দিয়েছেন। কিন্তু বাজারে ওষুধটির সংকট থাকায় এখনও প্রয়োগ করা যায়নি। বিকন ফার্মাসিউটিক্যালস এই ওষুধ উৎপাদন করে। আমরা কোম্পানির সঙ্গে যোগাযোগের পর তারাও জানিয়েছে, এই ওষুধের সংকট দেখা দিয়েছে। তাদের কাছে মজুত নেই। আমরা চট্টগ্রামের পাশাপাশি ঢাকায় খোঁজ নিয়েছি, কোথাও ওষুধটি পাচ্ছি না। সরকারের কাছে আমাদের আবেদন, সরকার যেন ওষুধটি সরবরাহ নিশ্চিত করে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসায় সহায়তা করে।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

চট্টগ্রামে পাহাড় ধসের শঙ্কা, আশ্রয়কেন্দ্রে ৩ শতাধিক মানুষ

চট্টগ্রামে পাহাড় ধসের শঙ্কা, আশ্রয়কেন্দ্রে ৩ শতাধিক মানুষ

লক্ষ্মীপুরে এর আগে একদিনে এত মানুষ আক্রান্ত হয়নি

লক্ষ্মীপুরে এর আগে একদিনে এত মানুষ আক্রান্ত হয়নি

উখিয়া-ঘুমধুমে বন্যার পানিতে ডুবে ৫ জনের মৃত্যু

উখিয়া-ঘুমধুমে বন্যার পানিতে ডুবে ৫ জনের মৃত্যু

শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের সমাধির ওপর হাসপাতাল নির্মাণ না করার আহ্বান

শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের সমাধির ওপর হাসপাতাল নির্মাণ না করার আহ্বান

চট্টগ্রামে পাহাড় ধসের শঙ্কা, আশ্রয়কেন্দ্রে ৩ শতাধিক মানুষ

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ২০:০১

চট্টগ্রামে টানা বৃষ্টিতে পাহাড় ধসের আশঙ্কায় ৯২ পরিবারের প্রায় ৩১০ জনকে আশ্রয়কেন্দ্রে এনেছে জেলা প্রশাসন। গত তিন দিন ধরে প্রবল বৃষ্টি হওয়ায় বাটালিহিল, মতিঝরনা, আকবরশাহ, হিল-১, হিল-২, লিংক রোড পাহাড়ি এলাকা থেকে তাদের সরিয়ে আনা হয়।

বুধবার (২৮ জুলাই) জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ওমর ফারুক এ তথ্য জানিয়ে বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, চট্টগ্রামের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসকের (রাজস্ব) নেতৃত্বে নগরীর ছয় এসিল্যান্ড, জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা ও বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের স্বেচ্ছাসেবক পাহাড়ের ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে বসবাসকারীদের সরিয়ে আনতে কাজ করছে। ইতোমধ্যে ৯২ পরিবারের প্রায় ৩১০ জনকে আশ্রয়কেন্দ্রে আনা হয়েছে। আল হেরা মাদ্রাসা, রউফাবাদ রশিদিয়া মাদ্রাসা, ফিরোজ শাহ প্রাথমিক বিদ্যালয়, লালখান বাজার প্রাথমিক বিদ্যালয় আশ্রয়কেন্দ্রে তারা অবস্থান করছেন।পাশাপাশি ২০ ঝুঁকিপূর্ণ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান বলেন, আশ্র‍য়কেন্দ্রে আনা পরিবারগুলোকে খাদ্য সহায়তার পাশাপাশি প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। দুপুরে খিচুড়ি ও ডিম দেওয়া হয়েছে।রাতের খাবারের ব্যবস্থাও করা হয়েছে। মাইকিং চলমান রয়েছে। পর্যাপ্ত খাদ্য মজুত আছে। চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা ও স্বেচ্ছাসেবক কর্তৃক ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় বসবাসরতদের আশ্রয়কেন্দ্রে সরিয়ে আনার কাজ এখনও অব্যাহত আছে।

/এএম/

সম্পর্কিত

পাহাড়ি ঢলে সড়ক বিলীন

পাহাড়ি ঢলে সড়ক বিলীন

চট্টগ্রামে করোনা থেকে সুস্থ নারী ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত

চট্টগ্রামে করোনা থেকে সুস্থ নারী ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত

লক্ষ্মীপুরে এর আগে একদিনে এত মানুষ আক্রান্ত হয়নি

লক্ষ্মীপুরে এর আগে একদিনে এত মানুষ আক্রান্ত হয়নি

উখিয়া-ঘুমধুমে বন্যার পানিতে ডুবে ৫ জনের মৃত্যু

উখিয়া-ঘুমধুমে বন্যার পানিতে ডুবে ৫ জনের মৃত্যু

রাজশাহীতে বিক্রি হয়নি ৭৩ হাজার কোরবানির পশু

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ১৯:৫০

করোনা পরিস্থিতিতে সরকারি বিধিনিষেধের মধ্যে ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে ভারতীয় পশু আমদানি করা হবে না– এমন খবরে আশায় বুক বেঁধেছিলেন রাজশাহীর খামারিরা। তবে অনেক খামারির কাছে এমন আশা শেষে হতাশায় পরিণত হয়েছে। রাজশাহীতে কোরবানির জন্য প্রস্তুত ৭৩ হাজারের বেশি পশু অবিক্রিত থেকে গেছে। এ নিয়ে নানা সমস্যায় পড়েছেন খামারিরা। জানা গেছে, রাজশাহী জেলায় এবার কোরবানির জন্য বিক্রি হয়েছে প্রায় ৩ লাখ ৮ হাজার ৯৮৯টি এবং অবিক্রিত থেকে গেছে ৭৩ হাজার ১২৯টি।

জেলা প্রাণিসম্পদ অধিদফতরের তথ্য বলছে, রাজশাহী নগরীসহ ৯টি উপজেলায় কোরবানির জন্য মোট ৩ লাখ ৮২ হাজার ১১৮টি পশু প্রস্তুত করা হয়েছিল। এর মধ্যে গাভী ৯ হাজার ১৬০টি, ষাঁড় ৫৩ হাজার ৬৯৪টি, মহিষ ৩১৫টি, ছাগল ২ লাখ ২৬ হাজার ১২৭টি এবং ভেড়া ১৯ হাজার ৬৬৩টি বিক্রি হয়েছে। আর  ৪০ হাজার ৮৪০টি গরু ও মহিষ এবং ৩২ হাজার ২৮৯টি ছাগল ও ভেড়া অবিক্রিত রয়ে গেছে।

রাজশাহীতে এবার অন্যান্যবারের চেয়ে কম বিক্রি হয়েছে মহিষ। প্রস্ততকৃত ২ হাজার ৯৫৬টি মহিষের মধ্যে মাত্র ৩১৫টি মহিষ বিক্রি হয়েছে।

রাজশাহীর পবা উপজেলার খামারি সাদিকুল ইসলাম জানান, তার খামারে এবার পাঁচটি বড় গরু ছিল। ভারত থেকে গরু আসবে না, তাই কোরবানিকে সামনে রেখে এবার তার তেমন চিন্তা ছিল না। আবার লকডাউন থাকলেও পশু পরিবহন এর আওতামুক্ত ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তার তিনটি গরু অবিক্রিত থেকে গেছে।

জেলার দুর্গাপুর উপজেলার আহান অ্যাগ্রো ফার্মের স্বত্বাধিকারী রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘এবার কোরবানিকে সামনে রেখে এক বছরের অধিক সময় ধরে ৩০টি গরু পালন করেছিলাম। স্থানীয় বাজারে বিক্রি করতে না পেরে ঈদের কয়েকদিন আগে ৩০টি গরু ঢাকায় পাঠিয়ে ছিলাম। কিন্তু ঢাকায় ১৯টি গরু বিক্রি হয়েছে। ১১টি গরু এখন খামারে। অবিক্রিত এই ১১টি গরুর দাম গড়ে প্রায় ৩ লাখের ওপরে। এখন এই গরুগুলোকে কীভাবে বিক্রি করবো, নাকি আবারও এক বছর পালন করবো এ নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছি।’

জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ইসমাইল হক জানান, করোনা পরিস্থিতিতে মানুষের আয় কমেছে। আবার বাইরের বড় ব্যবসায়ীরা প্রতিবছর রাজশাহী থেকে যে পশু নিয়ে যান তাতেও ভাটা পড়েছিল। এ কারণেই মূলত এই পশুগুলো অবিক্রিত রয়ে গেছে।

তিনি আরও জানান, এবার রাজশাহীর বড় গরু, মহিষ কম বিক্রি হয়েছে। ছাগলের চাহিদা ছিল সবচেয়ে বেশি। করোনাকালে খামারিরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। তবে ক্ষতি পুষিয়ে নিতে সরকার খামারিদের প্রণোদনা দিচ্ছে। যেটা সামনের দিনেও অব্যাহত থাকবে।

 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

কার্ভাডভ্যান চাপায় প্রাণ গেলো ব্যাংক কর্মকর্তার

কার্ভাডভ্যান চাপায় প্রাণ গেলো ব্যাংক কর্মকর্তার

জামায়াত-শিবিরের ২০ নেতাকর্মী গ্রেফতার

জামায়াত-শিবিরের ২০ নেতাকর্মী গ্রেফতার

সিরাজগঞ্জে খালাস হচ্ছে আরও ২০০ টন তরল অক্সিজেন

সিরাজগঞ্জে খালাস হচ্ছে আরও ২০০ টন তরল অক্সিজেন

রাজশাহী মেডিক্যালে একদিনে ১৮ মৃত্যু

রাজশাহী মেডিক্যালে একদিনে ১৮ মৃত্যু

লকডাউনে বিয়ের আয়োজন, বর-কনের বাবার জরিমানা

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ১৯:৪১

লকডাউনে বিধিনিষেধ অমান্য করে বিয়ের আয়োজন করায় পিরোজপুরের কাউখালী উপজেলায় বর-কনের বাবাকে জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

বুধবার (২৮ জুলাই) দুপুরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার আমরাজুড়ি ইউনিয়নের আশোয়া আমরাজুড়ি গ্রামে অভিযান চালিয়ে এ জরিমানা করা হয়। কাউখালীর সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জান্নাত আরা তিথি ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। এ সময় কাউখালী থানা পুলিশ ভ্রাম্যমাণ আদালতকে সহযোগিতা করে।

আমরাজুড়ি ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য (মেম্বার) আল-আমিন বলেন, আমরাজুড়ি গ্রামের এক মেয়ের সঙ্গে নেছারাবাদ উপজেলার এক যুবকের বিয়ে ঠিক হয়। বুধবার দুপুরে কনের বাবার বাড়িতে অনুষ্ঠান চলছিল। খবর পেয়ে বিয়েবাড়িতে হাজির হন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জান্নাত আরা তিথি বলেন, বিয়ের অনুষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। লকডাউনে বিধিনিষেধ না মেনে বিয়ের অনুষ্ঠানের আয়োজন করায় কনের বাবাকে এক হাজার এবং বরের বাবাকে দুই হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

/এএম/

সম্পর্কিত

বরগুনায় টানা বর্ষণে ডুবে গেছে ফসল ও মাছের ঘের

বরগুনায় টানা বর্ষণে ডুবে গেছে ফসল ও মাছের ঘের

যমজ দুই ভাইয়ের সঙ্গে যমজ বোনের বিয়ে

যমজ দুই ভাইয়ের সঙ্গে যমজ বোনের বিয়ে

ধর্ষণের অভিযোগে ছাত্রলীগের সাবেক নেতার বিরুদ্ধে কলেজছাত্রীর মামলা

ধর্ষণের অভিযোগে ছাত্রলীগের সাবেক নেতার বিরুদ্ধে কলেজছাত্রীর মামলা

করোনায় প্রাণ গেলো অন্তঃসত্ত্বা বিচারকের

করোনায় প্রাণ গেলো অন্তঃসত্ত্বা বিচারকের

সর্বশেষ

অ্যাসাঞ্জের নাগরিকত্ব বাতিল করলো ইকুয়েডর

অ্যাসাঞ্জের নাগরিকত্ব বাতিল করলো ইকুয়েডর

পাহাড়ি ঢলে সড়ক বিলীন

পাহাড়ি ঢলে সড়ক বিলীন

চট্টগ্রামে করোনা থেকে সুস্থ নারী ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত

চট্টগ্রামে করোনা থেকে সুস্থ নারী ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত

ঢাকায় সরকারি আইসিইউ বেড ফাঁকা মাত্র ৯টি

ঢাকায় সরকারি আইসিইউ বেড ফাঁকা মাত্র ৯টি

একদিনে ঢাকা বিভাগে শনাক্ত ৮২৭১ জন

একদিনে ঢাকা বিভাগে শনাক্ত ৮২৭১ জন

ছাগল ধর্ষণ নিয়ে পাকিস্তানে তোলপাড়

ছাগল ধর্ষণ নিয়ে পাকিস্তানে তোলপাড়

নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের এডিপির ৪৪টি প্রকল্পের অগ্রগতি ৯৫ ভাগ

নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের এডিপির ৪৪টি প্রকল্পের অগ্রগতি ৯৫ ভাগ

চট্টগ্রামে পাহাড় ধসের শঙ্কা, আশ্রয়কেন্দ্রে ৩ শতাধিক মানুষ

চট্টগ্রামে পাহাড় ধসের শঙ্কা, আশ্রয়কেন্দ্রে ৩ শতাধিক মানুষ

জ্বালানি ১০৪ আর বিদ্যুৎ ৯৭ ভাগ এডিপি বাস্তবায়ন করেছে

জ্বালানি ১০৪ আর বিদ্যুৎ ৯৭ ভাগ এডিপি বাস্তবায়ন করেছে

রাজশাহীতে বিক্রি হয়নি ৭৩ হাজার কোরবানির পশু

রাজশাহীতে বিক্রি হয়নি ৭৩ হাজার কোরবানির পশু

করোনা কবলিত মালয়েশিয়ায় বিধিনিষেধ শিথিলে ক্ষোভ

করোনা কবলিত মালয়েশিয়ায় বিধিনিষেধ শিথিলে ক্ষোভ

লকডাউনে বিয়ের আয়োজন, বর-কনের বাবার জরিমানা

লকডাউনে বিয়ের আয়োজন, বর-কনের বাবার জরিমানা

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

লকডাউনে বিয়ের আয়োজন, বর-কনের বাবার জরিমানা

লকডাউনে বিয়ের আয়োজন, বর-কনের বাবার জরিমানা

বরগুনায় টানা বর্ষণে ডুবে গেছে ফসল ও মাছের ঘের

বরগুনায় টানা বর্ষণে ডুবে গেছে ফসল ও মাছের ঘের

ধর্ষণের অভিযোগে ছাত্রলীগের সাবেক নেতার বিরুদ্ধে কলেজছাত্রীর মামলা

ধর্ষণের অভিযোগে ছাত্রলীগের সাবেক নেতার বিরুদ্ধে কলেজছাত্রীর মামলা

করোনায় প্রাণ গেলো অন্তঃসত্ত্বা বিচারকের

করোনায় প্রাণ গেলো অন্তঃসত্ত্বা বিচারকের

শের-ই বাংলা মেডিক্যালে আরও ১০ জনের মৃত্যু

শের-ই বাংলা মেডিক্যালে আরও ১০ জনের মৃত্যু

চুরি করতে ঘুরে ‍ঢুকে ২ জনকে ছুরিকাঘাত, যুবক আটক

চুরি করতে ঘুরে ‍ঢুকে ২ জনকে ছুরিকাঘাত, যুবক আটক

শের-ই বাংলা মেডিক্যালে আরও ১৬ মৃত্যু

শের-ই বাংলা মেডিক্যালে আরও ১৬ মৃত্যু

সবাইকে মাস্ক পরতে বাধ্য করতে হবে: তোফায়েল আহমেদ

সবাইকে মাস্ক পরতে বাধ্য করতে হবে: তোফায়েল আহমেদ

‘জিন ছাড়াতে’ গলা টিপে ধরায় কৃষকের মৃত্যু!

‘জিন ছাড়াতে’ গলা টিপে ধরায় কৃষকের মৃত্যু!

© 2021 Bangla Tribune