X
শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ২৫ বৈশাখ ১৪২৮

সেকশনস

ভাসানচরে কেমন আছেন রোহিঙ্গারা

আপডেট : ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০০:৪৬

২০১৭ সালের আগস্টে পরিবার নিয়ে বাংলাদেশে পালিয়ে আসেন সৈয়দ আলম। মিয়ানমারে সেনাবাহিনীর অত্যাচারের মুখে ঘর ছাড়তে বাধ্য হন তারা। বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নেন কক্সবাজারের বালুখালি ক্যাম্পে। সেখান থেকে ৪ ডিসেম্বর রোহিঙ্গাদের প্রথম ব্যাচে ভাই ও পরিবারসহ ভাসানচরে চলে আসেন তিনি। কিন্তু এখানে তিনি বসে থাকেননি। দুই সপ্তাহ আগে খুলেছেন একটি হোটেল যেখানে ছোলা, সিঙ্গাড়া, চা, পরোটাসহ অন্যান্য খাবার বিক্রি করছেন। প্রতিদিন বিক্রি কতো জানতে চাইলে বলেন, ১৮শ’ থেকে দুই হাজার টাকা। বিক্রিবাট্টা থেকে একটি ভালো লাভ থাকে প্রতিদিন।

মকতুল হোসেনও প্রায় একই সময়ে পালিয়ে আসেন মিয়ানমার থেকে। ছেলে-মেয়ে, নাতি-নাতনি মিলিয়ে ১৭ জনের সংসার। প্রথম ধাপে তিনি এবং তার স্ত্রী ভাসানচরে এসেছেন। বাকিরা আসার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। আশা করা হচ্ছে, সামনের সপ্তাহে রোহিঙ্গাদের যে দলটি ভাসানচরে আসবে, সেখানে তারা থাকবেন।

সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছেন আশ্রয়ন প্রকল্প-৩ (ভাসানচর প্রকল্প) এর পরিচালক আব্দুল্লাহ আল মামুন চৌধুরী কুতুপালং ক্যাম্প থেকে ভাষানচরে এসেছেন আবুল আওয়াল। ভাসানচরে ভালো কী আছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এখানে ঝামেলা নাই।

ভাসানচরে বর্তমানে প্রায় সাত হাজার রোহিঙ্গার অধিকাংশের শারীরিক ভাষা দেখে মনে হয় তারা ভালো আছেন। এ বিষয়ে আশ্রয়ন প্রকল্প-৩ (ভাসানচর প্রকল্প) এর পরিচালক আব্দুল্লাহ আল মামুন চৌধুরী বলেন, প্রথম ব্যাচে ১৬৪২ জন এসেছে গত ৪ ডিসেম্বর। বর্তমানে এখানে সাত হাজারের মতো রোহিঙ্গা আছে। আগামী সপ্তাহে আরও কয়েক হাজার রোহিঙ্গা আসবে বলে আশা করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘যারা আসছে তাদের মধ্যে শিশুদের সংখ্যা বেশি। বিশেষ করে চার থেকে ১৪ বছরের মধ্যে। এখানে যে স্থাপনা এবং অনানুষ্ঠানিক শিক্ষার ব্যবস্থা আছে এ ধরনের সুবিধার কথা শুনে অনেকে আসছে। আমি সম্প্রতি ট্রিপল আরসির (শরণার্থী, ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন বিষয়ক কমিশনার) সঙ্গে বৈঠক করেছি। তিনি জানিয়েছেন অনেকে আসতে চাইছে। আমার ধারণা, আমাদের যে স্থাপনা ও সুবিধাগুলো আছে সেগুলোর জন্য তারা অনেক ভালো আছে।’

ভাসানচরের ৯ নম্বর ক্লাস্টার যেখানে রোহিঙ্গারা বসবাস করছেন প্রথমদিকে ২২টি এনজিও ভাসানচরে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করেছিল জানিয়ে তিনি বলেন, ‘এখন এটি ৪০ এর বেশি। তারা ক্রমান্বয়ে রোহিঙ্গার জীবিকার ব্যবস্থার জন্য বিভিন্ন প্রকল্প জমা দিয়েছে।’

কয়েকটি এনজিও ও বাংলাদেশ রুরাল ডেভেলপমেন্ট বোর্ড (বিআরডিবি) এর উদ্যোগে এখন পাইলট ভিত্তিতে রোহিঙ্গারা মুরগি পালন, সবজি চাষসহ অন্যান্য কর্মকাণ্ড শুরু করেছে। পর্যায়ক্রমে তারা বড় স্কেলে যাচ্ছে। এছাড়া বিআরডিবি এখানে একটি প্রকল্প উদ্বোধন করেছে যার অধীনে রোহিঙ্গাদের বিভিন্ন বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে বলে তিনি জানান।

রোহিঙ্গা শিশুদের জন্য তিন থেকে চারটি লার্নিং সেন্টারে মিয়ানমার ও ইংরেজি ভাষা অনানুষ্ঠানিক শিক্ষা শুরু হয়েছে এবং এনজিওরা এগুলো চালাচ্ছে বলে তিনি জানান।

ক্রিকেট খেলছে রোহিঙ্গা শিশু-কিশোররা রোহিঙ্গারা কাজ করতে চায় জানিয়ে আব্দুল্লাহ আল মামুন চৌধুরী বলেন, ‘প্রকল্পের যে স্থাপনার কাজ চলছে সেখানে প্রতিদিন ১৫০ থেকে ২০০ রোহিঙ্গা রোস্টার ভিত্তিতে কাজ করে। তাদের মজুরি দেওয়া হচ্ছে এবং তাদের কাজে কন্ট্রাকটররা খুশি।’

কক্সবাজারে ছয় হাজার ৫০০ একর জায়গায় ১১ লাখ রোহিঙ্গার বসবাস। কিন্তু ভাসানচরে এক হাজার ৭০০ একর জায়গায় এক লাখ রোহিঙ্গার বাসস্থানের ব্যবস্থা করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা ১৯ ফুট উঁচু বাধ দিচ্ছি। বাঁধের মধ্যে যে জায়গা আছে সেখানে নতুন স্থাপনা তৈরি করা হলে আরও দুই লাখ রোহিঙ্গা আনা সম্ভব।

নিরাপত্তা ব্যবস্থা সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, কক্সবাজারে যেভাবে নিরাপত্তা দেওয়া হচ্ছে সেভাবেই এখানে দেওয়া হচ্ছে। এরা যদি বিভিন্ন পেশাভিত্তিক কর্মকাণ্ডে জড়িত হয় তাহলে অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়বে না।

 

/এফএস/

সম্পর্কিত

খাকদোনের দূষণে স্বাস্থ্যঝুঁকিতে স্থানীয়রা

খাকদোনের দূষণে স্বাস্থ্যঝুঁকিতে স্থানীয়রা

কেন এত বজ্রপাত? সাবধানে থাকতে যা করতে হবে

কেন এত বজ্রপাত? সাবধানে থাকতে যা করতে হবে

পাতার রসে সারবে করোনা!

পাতার রসে সারবে করোনা!

'আহসান উল্লাহ মাস্টার হত্যার রায় দ্রুত কার্যকরের উদ্যোগ নেওয়া হবে'

'আহসান উল্লাহ মাস্টার হত্যার রায় দ্রুত কার্যকরের উদ্যোগ নেওয়া হবে'

ডিএনসিসির অভিযানে অনিয়মের খেসারত দিলেন ব্যবসায়ীরা

ডিএনসিসির অভিযানে অনিয়মের খেসারত দিলেন ব্যবসায়ীরা

যে পদ্ধতিতে দেশের ৩ কোম্পানি টিকা উৎপাদনের সক্ষমতা যাচাইয়ের তালিকায়

যে পদ্ধতিতে দেশের ৩ কোম্পানি টিকা উৎপাদনের সক্ষমতা যাচাইয়ের তালিকায়

প্রধান বিচারপতিকে চিঠি দেবে নাগরিক সমাজ

প্রধান বিচারপতিকে চিঠি দেবে নাগরিক সমাজ

দিনাজপুরে স্বস্তির বৃষ্টি

দিনাজপুরে স্বস্তির বৃষ্টি

সরকারের অনুমতির পরই বিদেশে যাওয়ার সিদ্ধান্ত: খালেদা জিয়ার চিকিৎসক

সরকারের অনুমতির পরই বিদেশে যাওয়ার সিদ্ধান্ত: খালেদা জিয়ার চিকিৎসক

দেশেই হবে ভ্যাকসিন, এগিয়ে ইনসেপটা ও পপুলার

দেশেই হবে ভ্যাকসিন, এগিয়ে ইনসেপটা ও পপুলার

পদ্মা সেতুর প্রকল্প মেয়াদ বাড়ানোর খবর সত্য নয়: কাদের

পদ্মা সেতুর প্রকল্প মেয়াদ বাড়ানোর খবর সত্য নয়: কাদের

ভ্যাকসিন পেতে রাশিয়া ও চীনের সঙ্গে চুক্তি হচ্ছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ভ্যাকসিন পেতে রাশিয়া ও চীনের সঙ্গে চুক্তি হচ্ছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

সর্বশেষ

ব্যক্তি নয়, রাষ্ট্রায়ত্ত শিল্প ও সমবায় সংস্থাকে লাইসেন্স দেওয়ার সিদ্ধান্ত

ব্যক্তি নয়, রাষ্ট্রায়ত্ত শিল্প ও সমবায় সংস্থাকে লাইসেন্স দেওয়ার সিদ্ধান্ত

নারায়ণগ‌ঞ্জের মে‌রিনা লন্ড‌নের অ্যাসেম্বলি মেম্বার নির্বাচিত

নারায়ণগ‌ঞ্জের মে‌রিনা লন্ড‌নের অ্যাসেম্বলি মেম্বার নির্বাচিত

সকাল থেকে যাত্রীবাহী ফেরি বন্ধ

সকাল থেকে যাত্রীবাহী ফেরি বন্ধ

সুহিতা সুলতানা

সুহিতা সুলতানা

আপনার শুভেচ্ছা বার্তায় আমি আপ্লুত: প্রধানমন্ত্রীকে মমতা

আপনার শুভেচ্ছা বার্তায় আমি আপ্লুত: প্রধানমন্ত্রীকে মমতা

আজ বিশ্ব পরিযায়ী পাখি দিবস

আজ বিশ্ব পরিযায়ী পাখি দিবস

হাতিয়ায় ইউপি সদস্য প্রার্থীকে হত্যার ঘটনায় আটক ৭

হাতিয়ায় ইউপি সদস্য প্রার্থীকে হত্যার ঘটনায় আটক ৭

খাকদোনের দূষণে স্বাস্থ্যঝুঁকিতে স্থানীয়রা

খাকদোনের দূষণে স্বাস্থ্যঝুঁকিতে স্থানীয়রা

থ্যালাসেমিয়া রোগনিয়ন্ত্রণে প্রতিরোধের কোনও বিকল্প নেই: প্রধানমন্ত্রী

থ্যালাসেমিয়া রোগনিয়ন্ত্রণে প্রতিরোধের কোনও বিকল্প নেই: প্রধানমন্ত্রী

মালদ্বীপ যাওয়ার আগে উজ্জীবিত বসুন্ধরা

মালদ্বীপ যাওয়ার আগে উজ্জীবিত বসুন্ধরা

বাড়ি দখলে মালিকের বিরুদ্ধে শকুনের 'যুদ্ধ ঘোষণা'

বাড়ি দখলে মালিকের বিরুদ্ধে শকুনের 'যুদ্ধ ঘোষণা'

যানজট ঠেলে শপিং মলে ক্রেতাদের ভিড়,  উপেক্ষিত বিধিনিষেধ

যানজট ঠেলে শপিং মলে ক্রেতাদের ভিড়, উপেক্ষিত বিধিনিষেধ

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

'আহসান উল্লাহ মাস্টার হত্যার রায় দ্রুত কার্যকরের উদ্যোগ নেওয়া হবে'

'আহসান উল্লাহ মাস্টার হত্যার রায় দ্রুত কার্যকরের উদ্যোগ নেওয়া হবে'

যে পদ্ধতিতে দেশের ৩ কোম্পানি টিকা উৎপাদনের সক্ষমতা যাচাইয়ের তালিকায়

যে পদ্ধতিতে দেশের ৩ কোম্পানি টিকা উৎপাদনের সক্ষমতা যাচাইয়ের তালিকায়

দেশেই হবে ভ্যাকসিন, এগিয়ে ইনসেপটা ও পপুলার

দেশেই হবে ভ্যাকসিন, এগিয়ে ইনসেপটা ও পপুলার

পদ্মা সেতুর প্রকল্প মেয়াদ বাড়ানোর খবর সত্য নয়: কাদের

পদ্মা সেতুর প্রকল্প মেয়াদ বাড়ানোর খবর সত্য নয়: কাদের

১৮ মে রোহিঙ্গাদের ‘জয়েন্ট রেসপন্স প্ল্যান’ ঘোষণা

১৮ মে রোহিঙ্গাদের ‘জয়েন্ট রেসপন্স প্ল্যান’ ঘোষণা

জীবন-জীবিকার মাঝে সমন্বয়ের কারণে করোনা কিছুটা নিয়ন্ত্রণে: কাদের

জীবন-জীবিকার মাঝে সমন্বয়ের কারণে করোনা কিছুটা নিয়ন্ত্রণে: কাদের

পাঁচ সপ্তাহের মধ্যে সর্বনিম্ন মৃত্যু ৩৭ জন

পাঁচ সপ্তাহের মধ্যে সর্বনিম্ন মৃত্যু ৩৭ জন

যত টিকা তত পরিকল্পনা

যত টিকা তত পরিকল্পনা

মাস্ক ব্যবহারে সরকারের ৮ নির্দেশনা

মাস্ক ব্যবহারে সরকারের ৮ নির্দেশনা

জনগণের পাশে থাকাই এখন আ.লীগের রাজনীতি: তথ্যমন্ত্রী

জনগণের পাশে থাকাই এখন আ.লীগের রাজনীতি: তথ্যমন্ত্রী

© 2021 Bangla Tribune