X
বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১, ৮ বৈশাখ ১৪২৮

সেকশনস

ভারতীয় জাতের ধান গাছে ‘অদ্ভুত’ রোগ

আপডেট : ০৫ মার্চ ২০২১, ১৩:৪৪

দিনাজপুরের হিলিতে চলতি বোরো মৌসুমে বাড়তি দামের আশায় ভারতীয় চিকন জাতের ধান আবাদ করে বিপাকে পড়েছেন চাষিরা। ধানের গাছের পাতা লাল বর্ণের হয়ে ও গোড়া পচে মরে যাচ্ছে। কোনও প্রকার ওষুধে কাজ হচ্ছে না। এতে করে ধানের ফলন ও উৎপাদন খরচ তোলা নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন চাষিরা। এদিকে স্থানীয় কৃষি অফিসের পক্ষ থেকে এ সংকট উত্তোরণে কীটনাশক ব্যবহারের পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। পাশাপাশি এই জাতের ধানের আবাদ থেকে ফিরে আসার আহ্বান জানাচ্ছেন কর্মকর্তারা। ধান গাছে ‘অদ্ভুত’ রোগ

হিলির চেংগ্রাম গ্রামের কৃষক মোজাম্মেল হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, গত আমন মৌসুমে জিরা ধানের দাম বেশ ভালো ছিল। সেই কথা মাথায় নিয়ে বাড়তি লাভের আশায় ও বাড়িতে খাওয়ার জন্য এবারে তিন বিঘা জমিতে চিকনজাতের জিরা ধান লাগিয়েছি। কিন্তু সেই ধান লাগিয়ে তো দুশ্চিন্তা আরও বাড়ছে। ধানের গাছে কী রোগ দেখা দিয়েছে! ধানগাছের পাতাগুলো লাল বর্ণের হয়ে শুকিয়ে মরে যাচ্ছে। আবার যে গাছ লাগিয়েছি সেটি যে বাড়বে সেটিও হচ্ছে না। কোনও শিকড় ছাড়ছে না। ঠিক যেমন লাগিয়েছি তেমনই থাকছে। শিকড় না ছাড়লে গাছ বাড়বে কীভাবে। একটি আক্রান্ত হওয়ার পর আরেকটি আক্রান্ত হচ্ছে। এভাবে পুরো মাঠের ধান মরে যাচ্ছে। কী করবো ভেবে পাচ্ছি না। ধান গাছে ‘অদ্ভুত’ রোগ

একই গ্রামের কৃষক সিরাজুল ইসলাম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, এবারে দুই বিঘা জমিতে ভারতীয় জাতের জিরা ধান লাগিয়েছি। কিন্তু কয়েকদিন হয়ে গেলো ধান যেমন একটা করে লাগিয়েছি এখনও ঠিক ওই একটা করেই গাছ আছে। একটুও বাড়েনি। গাছের পাতা লাল হয়ে যাচ্ছে। গাছের গোছ যে কোন প্রকার বাড়বে সেটি হচ্ছে না। স্থানীয় দোকানদারদের পরামর্শ মোতাবেক জমিতে ভিটামিন-ওষুধ সব দিচ্ছি। কিন্তু তাতেও কোনও কাজ হচ্ছে না। ধান গাছে ‘অদ্ভুত’ রোগ

কৃষক সাইদুল হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, স্থানীয় বাজার থেকে জিরা ধানের বীজ কিনে নিয়ে এসে বিছন ফেলে সেই বিছন জমিতে লাগিয়েছিলাম। জমিতে যে একটা করে গাছ লাগিয়েছি তা থেকে কোনও উন্নতি নেই। আর এখন গাছের পাতা লাল হয়ে উঠছে। আর যতদিন যাচ্ছে ততো গাছগুলি মাটির মধ্যে বসে যাচ্ছে। দোকানদারকে বললে যে যা বলছে সেই মোতাবেক জমিতে সার বা ভিটামিন সবকিছু দিচ্ছি। আরও যদি দিতে হয় তাও দেবো। কিন্তু কোনও কিছু দিয়েই কোনও প্রকার কাজ হচ্ছে না।

তিনি বলেন, এখন বাধ্য হয়ে জমির যেসব ধান গাছ লাল হয়ে যাচ্ছে, শ্রমিক লাগিয়ে সেগুলো উঠিয়ে ফেলছি। এখন তো আমরা দুশিন্তায় পড়ে গেছি ধানের যদি গাছই না হয়, তাহলে ফলন হবে কোথা থেকে। আর আমরা যে খরচ করেছি সেই খরচই বা উঠবে কীভাবে। লাভ তো দূরের কথা। তবে শুধু এই জিরাধানেই এই সমস্যা হচ্ছে। অন্য ধানে কোনও প্রকার সমস্যা হয়নি। সেগুলো বেশ ভালো আছে। ধান গাছে ‘অদ্ভুত’ রোগ

হিলির সাতকুড়ি বাজারের এক বীজ বিক্রেতা বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, প্রতি বছরের মতো এবারও আমরা কৃষকদের মাঝে বীজ সরবরাহ করেছি। তবে এবারে বীজের কী যেন সমস্যা হয়েছে। যার কারণে ধানে সমস্যা দেখা দিয়েছে। এটা আবহাওয়ার কারণেও হতে পারে। বিষয়টি কৃষি অফিসকে জানিয়েছি। তারা মাঠ পরিদর্শন করে ধানের চারাগুলো দেখে আবহাওয়ার কারণে এটি হয়ে থাকতে পারে বলে জানিয়েছে। তবে তারা যে পরামর্শ দিচ্ছে সে মোতাবেক আমরা কৃষকদের ওষুধ দিচ্ছি। এতে করে ভালো ফল পাওয়া যাবে বলে আশা করছি। ধান গাছে ‘অদ্ভুত’ রোগ

হাকিমপুর উপজেলা কৃষি অফিসার ড. মমতাজ সুলতানা বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, এই উপজেলায় বেশ কিছু অঞ্চলের কৃষকরা বিক্ষিপ্তভাবে ভারত থেকে আনা একটি ধানের জাত ব্যবহার করছেন। তারা স্থানীয়ভাবে বিভিন্ন নামে বিশেষ করে জিরা ধান নামেই এটি ব্যবহার করছেন। এই ধান রোপণের পর তারা যথেষ্ট পরিমাণ আগাছানাশক ব্যবহার করেছেন। এর ফলে ধান গাছের পাতা লালচে বর্ণের হয়ে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে এই ধান গাছটির নমুনা সংগ্রহ করে ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটে পাঠিয়েছিলাম। তাদের পরামর্শ মোতাবেক আমরা কৃষকদের পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছি। বর্তমানে এসব জমিতে বিঘা প্রতি পাঁচ কেজি করে ইউরিয়া সার, পাঁচ কেজি পটাশ ছিটানোর কথা বলছি। একইসঙ্গে জমিতে যদি পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি থাকে তাহলে পানি সরিয়ে দিয়ে জমির মাটি নেড়ে দেওয়ার জন্য বলা হচ্ছে। এতে করে এটি কেটে যাবে আশা করছি। তবে যেহেতু এই জাতটি সরকারিভাবে আমাদের দেশে অনুমোদিত নয়, এ কারণে এই জাতটি ব্যবহার না করতে কৃষকদের বলছি।

 

 

/এফএস/

সম্পর্কিত

লোকসানের শঙ্কায় পেঁয়াজ ব্যবসায়ীরা

লোকসানের শঙ্কায় পেঁয়াজ ব্যবসায়ীরা

লকডাউনে ক্ষতির মুখে পান চাষিরা

লকডাউনে ক্ষতির মুখে পান চাষিরা

কমেছে পেঁয়াজের দাম

কমেছে পেঁয়াজের দাম

লকডাউন উপেক্ষা করেই অষ্টমী স্নানে পুণ্যার্থীর ঢল

লকডাউন উপেক্ষা করেই অষ্টমী স্নানে পুণ্যার্থীর ঢল

সাড়ে ৫ ঘণ্টায় আয় ৩০ টাকা, চালের কেজি ৪৫!

সাড়ে ৫ ঘণ্টায় আয় ৩০ টাকা, চালের কেজি ৪৫!

প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘরে দু’মাসেই  ফাটল!

প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘরে দু’মাসেই ফাটল!

পঞ্চগড়-ঢাকা সবজি ট্রেন সার্ভিস চালু

পঞ্চগড়-ঢাকা সবজি ট্রেন সার্ভিস চালু

বাংলা ট্রিবিউনকে সেই চিকিৎসকের বাবা, ‘ঘটনাটি অনাকাঙ্ক্ষিত’

বাংলা ট্রিবিউনকে সেই চিকিৎসকের বাবা, ‘ঘটনাটি অনাকাঙ্ক্ষিত’

কোয়ারেন্টিন সেন্টার থেকে পালিয়েছেন বিদেশফেরত ৪ করোনা রোগী

কোয়ারেন্টিন সেন্টার থেকে পালিয়েছেন বিদেশফেরত ৪ করোনা রোগী

সর্বশেষ

মেডিক্যালে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী কোটায় সাধারণ শিক্ষার্থী ভর্তি বন্ধের দাবি

মেডিক্যালে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী কোটায় সাধারণ শিক্ষার্থী ভর্তি বন্ধের দাবি

হ্যাকারদের কবলে মেসেঞ্জার ব্যবহারকারীরা, সতর্ক থাকুন আপনিও

হ্যাকারদের কবলে মেসেঞ্জার ব্যবহারকারীরা, সতর্ক থাকুন আপনিও

বিড়ম্বনা যখন তেলতেলে নাক

বিড়ম্বনা যখন তেলতেলে নাক

অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্যদ্রব্য তৈরি, চার প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্যদ্রব্য তৈরি, চার প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

নিউমার্কেটে গৃহকর্মী হত্যা, সেই শিক্ষিকা কারাগারে

নিউমার্কেটে গৃহকর্মী হত্যা, সেই শিক্ষিকা কারাগারে

স্যাটেলাইটের মাধ্যমে বেতার যোগাযোগ পুলিশের

স্যাটেলাইটের মাধ্যমে বেতার যোগাযোগ পুলিশের

সঙ্গীর মৃত্যুতে আত্মহত্যা করেছিল স্ত্রী তিমি!

সঙ্গীর মৃত্যুতে আত্মহত্যা করেছিল স্ত্রী তিমি!

হাসপাতাল থেকে বৃদ্ধাকে রেখে আসা হলো ভুল বাড়িতে অন্যের বিছানায়

হাসপাতাল থেকে বৃদ্ধাকে রেখে আসা হলো ভুল বাড়িতে অন্যের বিছানায়

২ লাখ মিটার অবৈধ জালে অগ্নিসংযোগ

২ লাখ মিটার অবৈধ জালে অগ্নিসংযোগ

করোনায় খালেদা জিয়ার সময় কাটছে যেভাবে

করোনায় খালেদা জিয়ার সময় কাটছে যেভাবে

মৌমাছির কামড়ে প্রাণ গেলো কৃষকের

মৌমাছির কামড়ে প্রাণ গেলো কৃষকের

হাত ছেড়ে দিলো মিলান-ইন্টার-আতলেতিকোও

হাত ছেড়ে দিলো মিলান-ইন্টার-আতলেতিকোও

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

লোকসানের শঙ্কায় পেঁয়াজ ব্যবসায়ীরা

লোকসানের শঙ্কায় পেঁয়াজ ব্যবসায়ীরা

লকডাউনে ক্ষতির মুখে পান চাষিরা

লকডাউনে ক্ষতির মুখে পান চাষিরা

কমেছে পেঁয়াজের দাম

কমেছে পেঁয়াজের দাম

লকডাউন উপেক্ষা করেই অষ্টমী স্নানে পুণ্যার্থীর ঢল

লকডাউন উপেক্ষা করেই অষ্টমী স্নানে পুণ্যার্থীর ঢল

সাড়ে ৫ ঘণ্টায় আয় ৩০ টাকা, চালের কেজি ৪৫!

সাড়ে ৫ ঘণ্টায় আয় ৩০ টাকা, চালের কেজি ৪৫!

প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘরে দু’মাসেই  ফাটল!

প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘরে দু’মাসেই ফাটল!

পঞ্চগড়-ঢাকা সবজি ট্রেন সার্ভিস চালু

পঞ্চগড়-ঢাকা সবজি ট্রেন সার্ভিস চালু

Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.
© 2021 Bangla Tribune