X
শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল ২০২১, ১০ বৈশাখ ১৪২৮

সেকশনস

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন

‘আইন বাতিলের প্রশ্নই ওঠে না, তবে নজর রাখছে সরকার’

আপডেট : ০৬ মার্চ ২০২১, ২১:১৫

সারাদেশে বিভিন্ন মহল থেকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলসহ সংশোধনের দাবি উঠলেও এখন পর্যন্ত সরকারের আনুষ্ঠানিক কোনও বক্তব্য পাওয়া যায়নি। এ আইন বাতিলের দাবিতে রাজপথে বিক্ষোভ ও ঘেরাও কর্মসূচি পালন করেছে অনেক সংগঠন। এরপরও সরকার নীরব।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে কয়েকজন মন্ত্রী জানিয়েছেন, আইন বাতিলের প্রশ্নই ওঠে না। তবে এর যথাযথ প্রয়োগে ব্যত্যয় ঘটছে কিনা সরকার সেদিকে নজর রাখছে। সংশোধন করা হবে কি না তা জানতে আরও সময় লাগবে।

২০১৮ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি আইসিটি আইনের ৫৭ ধারাসহ বিতর্কিত সব ধারা এবং প্রস্তাবিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ৩২ ধারাসহ বিতর্কিত ধারা বাদ দিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছিলেন ‘সম্পাদক পরিষদ’ নেতারা। তখন তাদের দাবি ছিল, তাড়াহুড়া না করে অংশীজনদের সঙ্গে আলোচনা করে প্রস্তাবিত আইনটি চূড়ান্ত করা হোক।

উল্লেখ্য, আইনটি প্রণয়নের পর থেকেই এর বিরোধিতা করে আসছিল দেশের সুশীল সমাজের প্রতিনিধিসহ গণমাধ্যমের সম্পাদকরা। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেতারকৃত মুশতাক আহমেদ জেলখানায় মারা যাওয়ার পর থেকে এ দাবি আবার জোরদার হচ্ছে। মুশতাকের মৃত্যুর রহস্য উদঘাটনে কমিটিও করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন পুরোপুরি বাতিলের সিদ্ধান্ত জানাতে সরকারকে আগামী রবিবার (৭ মার্চ) পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়েছে প্রগতিশীল ছাত্রজোট। শুক্রবার (৫ মার্চ) রাজধানীর শাহবাগ জাতীয় জাদুঘরের সামনে ‘রাষ্ট্রীয় হেফাজতে মুশতাক হত্যার বিচার, ছাত্র-শ্রমিক, রাজবন্দিদের নিঃশর্ত মুক্তি ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের’ দাবিতে আয়োজিত সমাবেশে এই আলটিমেটাম দেওয়া হয়।

আইনটি বাতিলের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টিও (সিপিবি)। সিপিবির সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম জানিয়েছেন, ‘লেখক-কার্টুনিস্ট, সাংবাদিক ও ছাত্রদের এ আইনে গ্রেফতার করে জেলে রেখে নির্যাতন করা হচ্ছে। সরকার সুপরিকল্পিতভাবে বিচার ব্যবস্থাকে প্রভাবিত করছে। রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে রাতের অন্ধকারে উঠিয়ে নেওয়া হচ্ছে।’

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সংশোধনসহ এ আইনের ‘অপব্যবহার’ বন্ধের দাবি জানিয়েছে ইসলামি যুব আন্দোলন। রাজধানীতে মানববন্ধন ও সমাবেশও করেছে সংগঠনটি। সংগঠনটির সেক্রেটারি জেনারেল আতিকুর রহমান জানিয়েছেন, এই আইন বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গায় সাংবাদিক ও সমাজের সচেতন নাগরিকদের কণ্ঠরোধ করে দিচ্ছে। এভাবে জনগণের অধিকার ক্ষুন্ন করা যাবে না।

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সরকারের সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আইনটি যথাযথ প্রয়োগের ক্ষেত্রে কোনও ব্যত্যয় ঘটছে কিনা সরকার সেদিকে কড়া নজর রাখছে। প্রযুক্তির এই যুগে জনস্বার্থেই এ আইন করা হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে শুক্রবার নিজের নির্বাচনি এলাকা ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কথা বলেছেন আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে কোনও সংশোধন বা পরিবর্তন আনা হবে কিনা তা 'কিছুদিনের মধ্যে' দেখা যাবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

এর আগে ১ মার্চ বিবিসি বাংলাকে আইনমন্ত্রী জানিয়েছিলেন, এই আইনে কোনও অভিযোগ এলে তদন্তের আগে কাউকে গ্রেফতার করা যাবে না, বা তার বিরুদ্ধে মামলা নেওয়া যাবে না- এমন একটি ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। তিনি বলেছিলেন, 'আমরা বলেছি, সরাসরি মামলা নেওয়া হবে না। অভিযোগ এলে পুলিশ প্রথমে তদন্ত করে দেখবে।’

এ প্রসঙ্গে তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ জানিয়েছেন, ‘কোনও আইনে যদি কেউ গ্রেফতার হয় এবং তিনি যদি কারাগারে স্বাভাবিকভাবে মারা যান, তবে সেই আইন বাতিল করতে হলে সব আইনই বাতিল করার কথা আসে।’

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলে নাগরিক সমাজের দাবির প্রসঙ্গে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘তাঁরা কয়েকজন এটা বলেছেন। যে কয়েকজন সবসময় প্রেসক্লাবের সামনে দাঁড়িয়ে সরকারের বিরুদ্ধে বক্তৃতা করেন। বাংলাদেশে সুশীল সমাজের আরও লাখ লাখ নাগরিক আছেন।’

২০১৮ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি আইসিটি আইনের ৫৭ ধারাসহ বিতর্কিত সব ধারা এবং প্রস্তাবিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ৩২ ধারাসহ বিতর্কিত ধারা বাদ দিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছিল ‘সম্পাদক পরিষদ’। তাদের দেওয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ৩২ ধারায় ডিজিটাল গুপ্তচরবৃত্তি প্রসঙ্গে অপরাধের ধরন ও শাস্তির যে বিধান রাখা হয়েছে, তা গণতন্ত্রের মৌলিক চেতনা এবং বাকস্বাধীনতায় আঘাত করবে।

উল্লেখ্য, প্রস্তাবিত আইনে সরকারি সংস্থার গোপনীয় তথ্য কেউ কম্পিউটার, ডিজিটাল যন্ত্র ও ইলেকট্রনিক মাধ্যমে ধারণ করলে তা কম্পিউটার বা ডিজিটাল গুপ্তচরবৃত্তি বলে সাব্যস্ত হবে। এর জন্য সর্বোচ্চ ১৪ বছরের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ২৫ লাখ টাকা অর্থদণ্ড কিংবা উভয় দণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে। একাধিকবার কেউ এ অপরাধ করলে তার শাস্তি যাবজ্জীবন কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ এক কোটি টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ড।

পরিষদ বলছে, আইসিটি আইনের ৫৭ ধারায় মানহানি, ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত, রাষ্ট্রের ভাবমূর্তি ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করাসহ আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটানোর মতো বিষয়গুলো সুনির্দিষ্ট ব্যাখ্যা ছাড়াই সন্নিবেশিত ছিল। এগুলোর ক্রমাগত অপপ্রয়োগ হতে থাকায় সাংবাদিক ও নাগরিক সমাজের পক্ষ থেকে আইনটি বাতিলের জোরালো দাবি ওঠে।

সম্পাদক পরিষদ বলছে, আইনমন্ত্রী আশ্বাস দিয়েছিলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন কার্যকর হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আইসিটি আইনের ৫৪, ৫৫, ৫৬, ৫৭ ও ৬৬ ধারা বিলুপ্তি হবে। কিন্তু ৫৭ ধারার বিষয়বস্তুগুলো প্রস্তাবিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ২৫, ২৮, ২৯ ও ৩১ ধারায় সুকৌশলে রেখে দেওয়া হয়েছে। পরিষদ মনে করে, প্রস্তাবিত এ আইন আরও কঠোর। এটি শুধু মুক্ত সাংবাদিকতা ও মতপ্রকাশের স্বাধীনতার পরিসরকেই সংকুচিত করবে।

 

 

/এফএ/

সম্পর্কিত

ওবায়দুল কাদেরের গ্রামের বাড়িতে গুলি বর্ষণের অভিযোগ

ওবায়দুল কাদেরের গ্রামের বাড়িতে গুলি বর্ষণের অভিযোগ

আরমানিটোলায় কেমিক্যাল গোডাউনে আগুন: নিহত ১, আহত ১৮

আরমানিটোলায় কেমিক্যাল গোডাউনে আগুন: নিহত ১, আহত ১৮

সাংবাদিক পরিচয়ে গাড়ি থামিয়ে চাঁদা দাবি, গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ

সাংবাদিক পরিচয়ে গাড়ি থামিয়ে চাঁদা দাবি, গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ

ফেসবুকে আপত্তিকর পোস্ট, যুবদল নেতা আটক

ফেসবুকে আপত্তিকর পোস্ট, যুবদল নেতা আটক

প্রেমের ফাঁদে ফেলে ছিনতাই, গ্রেফতার ৩

প্রেমের ফাঁদে ফেলে ছিনতাই, গ্রেফতার ৩

পুলিশের পিস্তল ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনায় ৩ নারী আটক

পুলিশের পিস্তল ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনায় ৩ নারী আটক

বিদেশ থেকে গুজব ছড়াচ্ছেন বিএনপির মাওলানা শামীম!

বিদেশ থেকে গুজব ছড়াচ্ছেন বিএনপির মাওলানা শামীম!

খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ৭৬ বস্তা চাল উদ্ধার

খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ৭৬ বস্তা চাল উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তাণ্ডব: হেফাজতের আরও ৮ কর্মী-সমর্থক গ্রেফতার

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তাণ্ডব: হেফাজতের আরও ৮ কর্মী-সমর্থক গ্রেফতার

হেফাজত নেতা মাওলানা জুবায়ের ১০ দিনের রিমান্ডে

হেফাজত নেতা মাওলানা জুবায়ের ১০ দিনের রিমান্ডে

ফের রিমান্ডে রফিকুল ইসলাম মাদানী

ফের রিমান্ডে রফিকুল ইসলাম মাদানী

মাইক্রোবাসে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের স্টিকার লাগিয়ে যাত্রী পরিবহন!

মাইক্রোবাসে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের স্টিকার লাগিয়ে যাত্রী পরিবহন!

সর্বশেষ

ওবায়দুল কাদেরের গ্রামের বাড়িতে গুলি বর্ষণের অভিযোগ

ওবায়দুল কাদেরের গ্রামের বাড়িতে গুলি বর্ষণের অভিযোগ

আশা দেখাচ্ছে সৌর সেচ পাম্প

আশা দেখাচ্ছে সৌর সেচ পাম্প

শরীয়তপুরের গর্ব বুড়িরহাট জামে মসজিদ

শরীয়তপুরের গর্ব বুড়িরহাট জামে মসজিদ

মহারাষ্ট্রের করোনা হাসপাতালে আগুন, ১৩ আইসিইউ রোগীর মৃত্যু

মহারাষ্ট্রের করোনা হাসপাতালে আগুন, ১৩ আইসিইউ রোগীর মৃত্যু

আরমানিটোলায় কেমিক্যাল গোডাউনে আগুন: নিহত ১, আহত ১৮

আরমানিটোলায় কেমিক্যাল গোডাউনে আগুন: নিহত ১, আহত ১৮

পাকিস্তানের বর্বরোচিত হুমকির বিরুদ্ধে কঠোর ঢাকা

পাকিস্তানের বর্বরোচিত হুমকির বিরুদ্ধে কঠোর ঢাকা

সাংবাদিক পরিচয়ে গাড়ি থামিয়ে চাঁদা দাবি, গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ

সাংবাদিক পরিচয়ে গাড়ি থামিয়ে চাঁদা দাবি, গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ

এসিআই হাইব্রিড ধানে হেক্টর প্রতি লক্ষ্য ১৫ টন

এসিআই হাইব্রিড ধানে হেক্টর প্রতি লক্ষ্য ১৫ টন

যেভাবে কমবে তামাকের ব্যবহার

যেভাবে কমবে তামাকের ব্যবহার

বরগুনায় এক যুগে সর্বোচ্চ ডায়রিয়ার রোগী, মৃত্যু ৮

বরগুনায় এক যুগে সর্বোচ্চ ডায়রিয়ার রোগী, মৃত্যু ৮

খালে ভাসছিল লাশ

খালে ভাসছিল লাশ

হাসপাতালে ঠাঁই নেই, তাঁবু খাটিয়ে চলে ডায়রিয়া রোগীদের চিকিৎসা

হাসপাতালে ঠাঁই নেই, তাঁবু খাটিয়ে চলে ডায়রিয়া রোগীদের চিকিৎসা

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

কৃষকদের ধান কাটতে দলের নেতাকর্মীদের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

কৃষকদের ধান কাটতে দলের নেতাকর্মীদের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

বাংলাদেশের মহিসোপানের দাবিতে ভারতের বিরোধিতা

বাংলাদেশের মহিসোপানের দাবিতে ভারতের বিরোধিতা

ভারতীয় ভিসা কার্যক্রম স্থগিত

ভারতীয় ভিসা কার্যক্রম স্থগিত

আল্লামা শফী হত্যার দৃষ্টান্তমূলক বিচার হোক: তথ্যমন্ত্রী

আল্লামা শফী হত্যার দৃষ্টান্তমূলক বিচার হোক: তথ্যমন্ত্রী

মধ্যরাত থেকে বন্ধ হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট

মধ্যরাত থেকে বন্ধ হচ্ছে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট

নির্মাণকাজ লকডাউনের আওতামুক্ত

নির্মাণকাজ লকডাউনের আওতামুক্ত

মুভমেন্ট পাসের আইনগত ভিত্তি নেই, এটা সহযোগিতা: আইজিপি

মুভমেন্ট পাসের আইনগত ভিত্তি নেই, এটা সহযোগিতা: আইজিপি

শ্রমিকদের নিরাপত্তার দায়িত্ব কর্তৃপক্ষের: শ্রম প্রতিমন্ত্রী

শ্রমিকদের নিরাপত্তার দায়িত্ব কর্তৃপক্ষের: শ্রম প্রতিমন্ত্রী

স্বাস্থ্যের নিয়োগে দুর্নীতি: দুদককে পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান টিআইবি’র

স্বাস্থ্যের নিয়োগে দুর্নীতি: দুদককে পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান টিআইবি’র

মসজিদে ২০ জনের বেশি মুসল্লি নয়

মসজিদে ২০ জনের বেশি মুসল্লি নয়

Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.
© 2021 Bangla Tribune