X
বৃহস্পতিবার, ০৫ আগস্ট ২০২১, ২১ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

তথ্যপ্রযুক্তি আইনে নুরের বিরুদ্ধে মামলার প্রতিবেদন ৬ জুন

আপডেট : ২০ এপ্রিল ২০২১, ২০:১১

ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরের বিরুদ্ধে তথ্যপ্রযুক্তি আইনে দায়ের করা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের তারিখ আগামী ৬ জুন ধার্য করেছেন আদালত।

মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সাদবীর ইয়াছির আহসান চৌধুরী মামলার এজাহার গ্রহণ করেন। এরপর মামলাটি তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিল করার জন্য আদালত আগামী ৬ জুন দিন ধার্য করেন।

এর আগে সোমবার (১৯ এপ্রিল) ইলিয়াস হোসেন নামে এক ব্যক্তি রাজধানীর পল্টন থানায় মামলাটি দায়ের করেন।

গত ১৪ এপ্রিল রাত ৮টার দিকে নুরের ফেসবুক লাইভে দেওয়া বক্তব্যের অংশবিশেষ এজাহারে উল্লেখ করেছেন বাদী। এজাহারে অভিযোগ করে বলা হয়, ভিপি নুর তার ফেসবুক আইডি থেকে লাইভে এসে ধর্মীয় উসকানিমূলক বক্তব্যসহ আওয়ামী লীগের কর্মী-সমর্থকদের ধর্মীয় মূল্যবোধে আঘাত করে আপত্তিকর ও আক্রমণাত্মক বক্তব্য প্রদান করেন। এর আগে গত রবিবার (১৮ এপ্রিল)  নুরের বিরুদ্ধে শাহবাগ থানায় একই অভিযোগে ও একই আইনে আরেকটি মামলা করা হয়।

 

/এমএইচজে/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

ঋণগ্রহীতার গুদামেই জামানত, খেলাপি প্রতিষ্ঠানকে আবার ঋণ!

ঋণগ্রহীতার গুদামেই জামানত, খেলাপি প্রতিষ্ঠানকে আবার ঋণ!

করোনা আতঙ্কের মধ্যেই ডেঙ্গুর আশঙ্কাজনক রূপ

করোনা আতঙ্কের মধ্যেই ডেঙ্গুর আশঙ্কাজনক রূপ

টানা ডিউটিতে ‘ক্লান্ত’ পুলিশ

টানা ডিউটিতে ‘ক্লান্ত’ পুলিশ

কাকরাইলে গ্যারেজের আগুন নিয়ন্ত্রণে

কাকরাইলে গ্যারেজের আগুন নিয়ন্ত্রণে

‘কিশোর গ্যাং’ কালচার বন্ধে শিক্ষার্থীদের সাংস্কৃতিক চর্চায় যুক্ত করার উদ্যোগ

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৭:১৪

কিশোর গ্যাং কালচারে শিক্ষার্থীরা যাতে জড়িয়ে না পড়ে সে লক্ষ্যে সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড ও খেলাধুলায় শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করার উদ্যোগ নিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। করোনাকালে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় অনলাইনে সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা আয়োজনের ব্যবস্থা নিতেও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

জানতে চাইলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদ্রাসা বিভাগের সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘কিশোর অপরাধ একটি সামাজিক ব্যাধি। এই ব্যাধি নির্মূলে প্রয়োজন সামাজিক আন্দোলন। অভিভাবক, শিক্ষক, সুশীল সমাজ ও মিডিয়ার সমন্বয়ে সচেতনতা বাড়াতে হবে। সচেতনতা বাড়াতে অনলাইনে অভিভাবক সম্মেলন আয়োজন করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। অনলাইনে শিক্ষার্থীদের সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ নিশ্চিত করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। করোনা পরিস্থিতির অনুকূলে এলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার পর খেলাধুলাসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুপারিশ বাস্তবায়ন করতে মন্ত্রণালয় থেকে ইতোমধ্যেই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’

গত কয়েক বছর ধরে রাজধানীসহ সারাদেশে কিশোর অপরাধ বেড়ে যাওয়ায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ এবং কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগকে গত ৩০ জুন কিশোর অপরাধ নির্মূলের ব্যবস্থা নিতে বেশ কিছু সুপারিশ করে। আইনি ব্যবস্থার পাশাপাশি শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সচেতনতা বাড়ানোর প্রয়োজনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিভিন্ন শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে সুপারিশ বাস্তবায়নের অনুরোধ জানায়। শিক্ষকদের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের সচেতন করার কথাও বলা হয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুপারিশে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সুপারিশের ভিত্তিতে গত ২৭ জুলাই বৈঠক করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগ। ওই বৈঠকে সুপারিশ নিয়ে আলোচনা করে বেশ কিছু সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

ওই বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগ কারিগরি শিক্ষা অধিদফতর ও মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদফতরকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশনা দেয়। গত রবিবার (১ আগস্ট) কারিগরি শিক্ষা অধিদফতর দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের নির্দেশ দেয়।

সিদ্ধান্তে বলা হয়, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চালু হলে অ্যাসেম্বলিতে মাদকের কুফল নিয়ে আলোচনা করতে হবে। অভিভাবকদের মধ্যে মাদকের কুফল সম্পর্কে অনলাইনে শিক্ষার্থীদের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে।  করোনাকালে এ বিষয়ে বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে সচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে। সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের নিয়ে পর্যায়ক্রমে শিক্ষার্থীদের মাদকের কুফল নিয়ে অনলাইনে সভার আয়োজন করতে হবে। সভায় অধিদফতরের কর্মকর্তাদের যোগদান করবে।

জিপিএ-৫ পাওয়ার প্রতিযোগিতায় শিক্ষার্থীদের ব্যস্ত না রেখে খেলাধুলা, নাটক, সংগীত, বিতর্ক প্রতিযোগিতা, বিভিন্ন অলিম্পিয়াড, স্কাউটিং, গার্লস গাইডের মতো সুস্থ বিনোদনমূলক এক্সট্রা কারিকুলাম অ্যাক্টিভিটিস –এ শিক্ষার্থীদের সম্পৃক্ত করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে।  করোনাকালে অনলাইনে বিভিন্ন ধরনের সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার আয়োজন করতে হবে।

করোনাকালে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের সময় পাঠ্যবইয়ের সিলেবাসের বাইরে শিক্ষার্থীদের অনলাইনভিত্তিক বিভিন্ন শিক্ষামূলক অনুষ্ঠানের আয়োজন করতে হবে। তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক অনলাইন প্রশিক্ষণের আয়োজন করতে হবে। প্রশিক্ষণের লব্ধ জ্ঞান প্রয়োগের জন্য প্রযুক্তির ব্যবহার সম্পর্কিত প্রতিযোগিতা আয়োজন করতে হবে। অনলাইন ক্লাস সংখ্যা বাড়াতে হবে। মনিটরিং জোরদার করতে সংশ্লিষ্ট সংস্থা কার্যকর পদক্ষেপ নেবে।

 

/এমআর/

সম্পর্কিত

ক্ষমতা নয় জাতি গঠনে নিবেদিত ছিলেন শেখ কামাল: মেয়র তাপস

ক্ষমতা নয় জাতি গঠনে নিবেদিত ছিলেন শেখ কামাল: মেয়র তাপস

রাজধানীতে প্রতারক চক্রের চার সদস্য গ্রেফতার

রাজধানীতে প্রতারক চক্রের চার সদস্য গ্রেফতার

মতিঝিল আইডিয়ালের আতিককে গ্রেফতারের দাবি

মতিঝিল আইডিয়ালের আতিককে গ্রেফতারের দাবি

নির্মাণশৈলীতে ভিন্নতা আনতে 'ভাস্কর্যে বিকৃতি'

নির্মাণশৈলীতে ভিন্নতা আনতে 'ভাস্কর্যে বিকৃতি'

ক্ষমতা নয় জাতি গঠনে নিবেদিত ছিলেন শেখ কামাল: মেয়র তাপস

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৭:১৪

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস বলেছেন, শহীদ শেখ কামালের পদ-পদবী-ক্ষমতার প্রতি আকর্ষণ ছিল না। তিনি আধুনিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সংগঠক হিসেবে নিজেকে জাতি গঠনে নিবেদিত করেছিলেন।

বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) সকালে শহীদ শেখ কামালের ৭২তম জন্মবার্ষিকীতে বনানী কবরস্থানে তাঁর কবরে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে গণমাধ্যম কর্মীদের সাথে মতবিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন।

মেয়র বলেন, "শহীদ শেখ কামাল জাতির পিতার সুযোগ্য সন্তান হওয়া সত্ত্বেও নিজেকে জাতি গঠনে নিবেদিত করেছিলেন। কোনও পদ-পদবী-ক্ষমতার প্রতি তাঁর আকর্ষণ ছিল না। একজন সাংস্কৃতিক কর্মী, একজন আধুনিক ক্রীড়া সংগঠক হিসেবে জাতি গঠনে তিনি নিজেকে নিবেদিত করেছিলেন।" 

মেয়র ব্যারিস্টার শেখ তাপস বলেন, "শহীদ শেখ কামাল যে স্বপ্ন দেখেছিলেন, ক্রীড়াঙ্গন হবে বহির্বিশ্বে বাংলাদেশকে পরিচিত করার অন্যতম উপাদান। আজ বাংলাদেশ ক্রিকেটে অস্ট্রেলিয়াকে হারায়। তাই আজ শহীদ শেখ কামালকে বিশেষ করে মনে পড়ছে।"

তাপস বলেন, "একজন নাগরিক হিসেবে শেখ কামালের দেশপ্রেম, দেশের প্রতি ভালোবাসা এবং দেশ গঠনে নিঃস্বার্থভাবে নিজেকে নিয়োজিত করার আকাঙ্ক্ষা, নিজেকে উৎসর্গ করার যে অনুপ্রেরণা তাঁর মধ্যে বিরাজমান ছিল, তা শুধু আজকের প্রজন্মই নয়, প্রজন্ম থেকে প্রজন্ম অনুপ্রেরণা গ্রহণ করবে।"

এর আগে  মেয়র শহীদ শেখ কামালের কবরে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ এবং তাঁর আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মোনাজাত করেন।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কাজী মোরশেদ হোসেন কামালসহ ডিএসসিসি'র ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

/এসএস/এমএস/

সম্পর্কিত

ডিএসসিসি’র নির্বাহী প্রকৌশলী তানভীর আহমদ বরখাস্ত

ডিএসসিসি’র নির্বাহী প্রকৌশলী তানভীর আহমদ বরখাস্ত

২৩ ভবন মালিককে সোয়া ২ লাখ টাকা জরিমানা

২৩ ভবন মালিককে সোয়া ২ লাখ টাকা জরিমানা

ফুলবাড়িয়ায় পরিবহন শ্রমিকদের মাঝে ত্রাণ বিতরণে বিশৃঙ্খলা

ফুলবাড়িয়ায় পরিবহন শ্রমিকদের মাঝে ত্রাণ বিতরণে বিশৃঙ্খলা

ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে সবাইকে দায়িত্বশীল হওয়ার আহ্বান ডিএসসিসি মেয়রের

ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে সবাইকে দায়িত্বশীল হওয়ার আহ্বান ডিএসসিসি মেয়রের

রাজধানীতে প্রতারক চক্রের চার সদস্য গ্রেফতার

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৬:৫৭

আইসিটি সচিব ও সচিবের পিএস পরিচয়ে রাজধানীর বিভিন্ন জায়গায় প্রতারণার অভিযোগে চার জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বুধবার (৪ আগস্ট) রাজধানীর বিভিন্ন থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলো‑ মোহাম্মদ ইদ্রিস খান (৫৮), মো. শাহাব উদ্দিন হাওলাদার (৪৩), মো. শহিদুল ইসলাম (৫৬), জাহিদ শিকদার (৩০)।

বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) পুলিশের ডিবি কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানান ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের ওয়ারী গোয়েন্দা বিভাগের উপ-কমিশনার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন।

তিনি বলেন, প্রতারক চক্রটি সংসদ ভবন সংলগ্ন এলাকায় বিভিন্ন ভবনের মালিকের কাছে নিজেদের কখনো আইসিটি সচিব, কখনো আইসিটি সচিবের পিএস, আবার কখনো জমির মালিক পরিচয় দিয়ে আকৃষ্ট করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়। দীর্ঘদিন ধরে ঢাকা ছাড়াও সাভার ও গাজীপুরে বিভিন্ন ভবন মালিকদের বিল্ডিংয়ের ছাদে মোবাইলের টাওয়ার নির্মাণ, জমি ক্রয়-বিক্রয়ের কথা বলে ভুয়া বায়নানামা তৈরির মাধ্যমে আর্থিক প্রলোভনের ফাঁদে ফেলতো। প্রতারণা করে এখন পর্যন্ত শতাধিক লোকের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে চক্রটি।

গ্রেফতারকৃত প্রতারক চক্রের চার সদস্যের বিরুদ্ধে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে বলেও জানায় পুলিশের গোয়েন্দা কর্মকর্তারা।

/আরটি/এমএস/

সম্পর্কিত

চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণা: অভিযুক্ত মালেককে আটক করল র‍্যাব

চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণা: অভিযুক্ত মালেককে আটক করল র‍্যাব

মানিকগঞ্জের ডিসি রিফাত ডিএমপির মতিঝিল গোয়েন্দা বিভাগের দায়িত্বে

মানিকগঞ্জের ডিসি রিফাত ডিএমপির মতিঝিল গোয়েন্দা বিভাগের দায়িত্বে

স্লিপার সেলের মাধ্যমে চলছিলো জঙ্গি কার্যক্রম: সিটিটিসি

স্লিপার সেলের মাধ্যমে চলছিলো জঙ্গি কার্যক্রম: সিটিটিসি

ডিএমপিতে তিন পুলিশ পরিদর্শক বদলি

ডিএমপিতে তিন পুলিশ পরিদর্শক বদলি

মতিঝিল আইডিয়ালের আতিককে গ্রেফতারের দাবি

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৬:৩৮

রাজধানীর ঐতিহ্যবাহী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের কর্মচারী আতিকুর রহমান খানকে গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছে আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ অভিভাবক ফোরাম। তার বিরুদ্ধে দুর্নীতির মাধ্যমে বিপুল পরিমাণ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ অভিভাবক ফোরামের চেয়ারম্যান ফাহিমউদ্দিন আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক মো. রোস্তম আলী যৌথ বিবৃতিতে এ দাবি জানান।  

বিবৃতিতে বলা হয়, অবৈধভাবে পদ সৃষ্টি করে ২০০৪ সালে আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের উপ-সহকারী প্রকৌশলী পদে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। বিবৃতিতে দুর্নীতিগ্রস্ত আতিকুর রহমান খানের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করে দ্রুত গ্রেফতার করার জন্য দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছে জোর দাবি জানানো হয়। আতিক যাতে দেশ ছেড়ে পালাতে না পারেন সেজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্যও দাবি জানান ফোরামের চেয়ারম্যান ও সাধারণ সম্পাদক।

বিবৃতিতে ফোরামের চেয়ারম্যান ফাহিমউদ্দিন আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক মো. রোস্তম আলী বলেন, ‘দুর্নীতিগ্রস্ত তৃতীয় শ্রেণির কর্মচারী আতিকুর রহমান খান ২০০৪ সাল থেকে এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির অবৈধ ভর্তি ও নিয়োগ বাণিজ্যের সিন্ডিকেটের সঙ্গে জড়িত হয়ে শত শত কোটি টাকার সম্পদ গড়ে তুলেছেন। তার নামে সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন ব্যাংকে ৯৭টি হিসাব রয়েছে এবং ২০০৭ সাল থেকে ২০২১ সাল পর্যন্ত এসব হিসাবে ১১০ কোটি টাকার লেনদেন রয়েছে। আতিক স্কুলটির সব ধরনের অনিয়ম, অবৈধ কর্মকাণ্ড ও দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত।’

বিবৃতিতে দুর্নীতিগ্রস্ত কর্মচারী আতিকের পৃষ্ঠপোষক ও ওই স্কুলের দুর্নীতির সিন্ডিকেটের সদস্যদেরও আইনের আওতায় আনার দাবি জানান ফেরামের চেয়ারম্যান ও সাধারণ সম্পাদক। পাশাপাশি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটির গভর্নিং বডির সভাপতি ও অধ্যক্ষসহ সব সদস্যের সম্পদের হিসাব চাওয়ার জন্য দুদকের চেয়ারম্যানের কাছে দাবি জানান তারা।

প্রসঙ্গত, সামান্য বেতনের কর্মচারী হলেও আতিকুর রহমানের বিরুদ্ধে ব্যাংকে শতকোটি টাকা লেনদেনের বিষয়ে বাংলা ট্রিবিউনে ‘বেতন ৩০ হাজার, ব্যাংকে লেনদেন শত কোটি টাকা!’ শিরোনামে  সংবাদ প্রচারিত হয়। এই বিষয়টি শিক্ষা মন্ত্রণালয় তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে। 

 

/এসএমএ/এমএএ/

সম্পর্কিত

বিশ্ববিদ্যালয়ে বিশেষায়িত ল্যাব স্থাপন করা হবে: ইউজিসি

বিশ্ববিদ্যালয়ে বিশেষায়িত ল্যাব স্থাপন করা হবে: ইউজিসি

এসএসসির ইংরেজি ভার্সনের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ

এসএসসির ইংরেজি ভার্সনের অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ

জনজীবন স্বাভাবিক, সড়কে বেড়েছে মানুষের চাপ

জনজীবন স্বাভাবিক, সড়কে বেড়েছে মানুষের চাপ

ডিএসসিসি’র নির্বাহী প্রকৌশলী তানভীর আহমদ বরখাস্ত

ডিএসসিসি’র নির্বাহী প্রকৌশলী তানভীর আহমদ বরখাস্ত

নির্মাণশৈলীতে ভিন্নতা আনতে 'ভাস্কর্যে বিকৃতি'

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৬:৫৩

সোমবার (৩ আগস্ট) চাঁপাইনবাবগঞ্জের আম্রকাননে ঘেরা সার্কিট হাউস সংলগ্ন বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সড়কের পূর্ব দিকে বীরশ্রেষ্ঠ মহিউদ্দিনের একটি ভাস্কর্য ও স্মৃতি ফলক উন্মোচন করা হয়। কিন্তু উদ্বোধনের পর ভাস্কর্য দেখে এলাকাবাসী ও সহযোদ্ধারা বিস্ময় প্রকাশ করে বলেন, ‘এ কোন মহিউদ্দিন? আমরা যাকে চিনতাম তার সঙ্গে এ ভাস্কর্যের কোনও মিল নেই।’

যোগাযোগ করা হলে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা বিভাগের সাবেক সভাপতি ভাস্কর আমিরুল মোমিনিন জানান, তাকে দাড়িওয়ালা সাদাকালো একটি ছবি দেওয়া হয়েছিল। দাড়ি থাকায় সাদা ভাস্কর্য তৈরির ফলে বয়স্ক দেখাচ্ছে। উদ্বোধনের আগে এটা তাকে দেখানোর কথা থাকলেও নাকি দেখানো হয়নি।

চাঁপাইনবাবগঞ্জের পৌরমেয়র বলছেন, ‘ভাস্করকে দেখানোর তো কারণ নেই। উনি নিজে জিনিসটি তৈরি করে জেলা প্রশাসনে পাঠিয়েছেন। তাকে আবার কেন দেখানো হবে?’

বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীরের সঙ্গে যুদ্ধ করেছিলন মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট আবদুস সামাদ। তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘ভাস্কর্যটা বিকৃত। ওর চেহারার সঙ্গে কোনও মিল নেই। যুদ্ধের সময় দাড়ি ছিল। কিন্তু সেটা এমন ছিল না। জেলাপ্রশাসকের কার্যালয়ে থাকা ফটোগ্যালারিতেও সেই ছবি দেওয়া আছে। সেটার সঙ্গেও মিল নেই। এটা তাড়াহুড়ো করে বানানো।’

আমিরুল মোমিনীন বলেন, ‘জেলা প্রশাসন থেকে দাড়িওয়ালা একটি ছবি দেওয়া হয়। ডিসি বলেছিলেন দাড়িওয়ালা ছবিটা আগে তেমন কেউ দেখেনি। এটা দিয়েই করতে চাই।’

ভাস্কর্যটা বানাতে কতদিন লাগলো জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘তিন-চার মাস লেগেছে। এ কাজগুলো সাধারণত আমরা সিনিয়র শিক্ষকরা করি না। আমাদের সেরা ছাত্ররা করে আমাদের তত্ত্বাবধানে।’

তিনি আরও জানান, ‘বানানোর পরে কারেকশন থাকলে করা হবে বলার পরও হুট করে শুনি উদ্বোধন হয়ে গেছে। আর পুরোটা সাদা হওয়াতে একটু ঝামেলা হয়েছে। দাড়ি সাদা হলে বয়সও বেড়ে যায়। সাধারণ মানুষকে এসব বোঝানো কঠিন। দেখছি কী করা যায়। প্রয়োজন হলে নতুন করে গড়া হবে।’

ভাস্কর আমিরুলের কথার জবাবে চাঁপাইনবাবগঞ্জের পৌরমেয়র নজরুল ইসলাম বলেন, ‘তিনি তৈরি করে পাঠিয়েছেন। এখন দায়িত্ব এড়িয়ে গেলে হবে? এমন যদি হতো, অন্য কেউ তৈরি করেছেন, আর তিনি বিশেষজ্ঞ হিসেবে মত দেবেন, তখন তাকে দেখানোর বিষয় ছিল। আমিও বলেছি, ভাস্কর্য দেখে বয়স্ক মনে হয়।’

বিষয়টি নজরে এসেছে উল্লেখ করে জেলা প্রশাসক মো. মঞ্জুরুল হাফিজ বলেন, ‘আগের প্রশাসক (যিনি কাজটি শুরু করেছিলেন) যে ছবিটা দিয়েছিলেন সেটা শহীদ হওয়ার আগের। তার সহকর্মীর কোনও এক বইতে ছবিটা আছে। উনি সেরকমই বানাতে বলেছিলেন। যাতে মৃত্যুর আগের চেহারা তুলে আনা যায়। কিন্তু যখন দেখলাম, মনে হলো বয়স্ক ছাপ এসে গেছে। উনিতো তরুণ ছিলেন। ঠিক ফুটে ওঠেনি। ২২-২৩ বছরের যুবকের চেহারা এমন হয় না।’

 

/এফএ/

সম্পর্কিত

এক ভবনে কত হাসপাতাল?

এক ভবনে কত হাসপাতাল?

মডেলের বাড়িতে গোপন সিসিটিভি ক্যামেরা!

মডেলের বাড়িতে গোপন সিসিটিভি ক্যামেরা!

করের আওতার বাইরে ৮০ হাজার কোম্পানি: টিআইবি

করের আওতার বাইরে ৮০ হাজার কোম্পানি: টিআইবি

‘রাতের রানী পিয়াসা ও মৌয়ের কাজ ছিল ব্ল্যাকমেইল করা’

‘রাতের রানী পিয়াসা ও মৌয়ের কাজ ছিল ব্ল্যাকমেইল করা’

সর্বশেষ

টিকা ছাড়া শরীরে খালি সিরিঞ্জ পুশ, ২ নার্সকে প্রত্যাহার

টিকা ছাড়া শরীরে খালি সিরিঞ্জ পুশ, ২ নার্সকে প্রত্যাহার

বসুন্ধরা কিংস-মোহনবাগান লড়াই ২৪ আগস্ট

বসুন্ধরা কিংস-মোহনবাগান লড়াই ২৪ আগস্ট

মিয়ানমারে গণহত্যা চলছে, জাতিসংঘকে সতর্ক করলেন রাষ্ট্রদূত

মিয়ানমারে গণহত্যা চলছে, জাতিসংঘকে সতর্ক করলেন রাষ্ট্রদূত

‘কিশোর গ্যাং’ কালচার বন্ধে শিক্ষার্থীদের সাংস্কৃতিক চর্চায় যুক্ত করার উদ্যোগ

‘কিশোর গ্যাং’ কালচার বন্ধে শিক্ষার্থীদের সাংস্কৃতিক চর্চায় যুক্ত করার উদ্যোগ

ক্ষমতা নয় জাতি গঠনে নিবেদিত ছিলেন শেখ কামাল: মেয়র তাপস

ক্ষমতা নয় জাতি গঠনে নিবেদিত ছিলেন শেখ কামাল: মেয়র তাপস

ইরানে হামলা চালাতে প্রস্তুত ইসরায়েল: গান্তজ

ইরানে হামলা চালাতে প্রস্তুত ইসরায়েল: গান্তজ

রাজধানীতে প্রতারক চক্রের চার সদস্য গ্রেফতার

রাজধানীতে প্রতারক চক্রের চার সদস্য গ্রেফতার

১০ সহকর্মীকে ছাঁটাই করায় বিক্ষোভ তাদের

১০ সহকর্মীকে ছাঁটাই করায় বিক্ষোভ তাদের

লেবাননে বিমান হামলা শুরু করেছে ইসরায়েল

লেবাননে বিমান হামলা শুরু করেছে ইসরায়েল

বগুড়ায় আরও ১১ মৃত্যু

বগুড়ায় আরও ১১ মৃত্যু

মতিঝিল আইডিয়ালের আতিককে গ্রেফতারের দাবি

মতিঝিল আইডিয়ালের আতিককে গ্রেফতারের দাবি

নির্মাণশৈলীতে ভিন্নতা আনতে 'ভাস্কর্যে বিকৃতি'

নির্মাণশৈলীতে ভিন্নতা আনতে 'ভাস্কর্যে বিকৃতি'

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ঋণগ্রহীতার গুদামেই জামানত, খেলাপি প্রতিষ্ঠানকে আবার ঋণ!

জনতা ব্যাংকের ঋণ কেলেঙ্কারি পর্ব-৩ঋণগ্রহীতার গুদামেই জামানত, খেলাপি প্রতিষ্ঠানকে আবার ঋণ!

করোনা আতঙ্কের মধ্যেই ডেঙ্গুর আশঙ্কাজনক রূপ

করোনা আতঙ্কের মধ্যেই ডেঙ্গুর আশঙ্কাজনক রূপ

টানা ডিউটিতে ‘ক্লান্ত’ পুলিশ

টানা ডিউটিতে ‘ক্লান্ত’ পুলিশ

কাকরাইলে গ্যারেজের আগুন নিয়ন্ত্রণে

কাকরাইলে গ্যারেজের আগুন নিয়ন্ত্রণে

কাকরাইলে গাড়ির গ্যারেজে আগুন

কাকরাইলে গাড়ির গ্যারেজে আগুন

২৩ ভবন মালিককে সোয়া ২ লাখ টাকা জরিমানা

২৩ ভবন মালিককে সোয়া ২ লাখ টাকা জরিমানা

মাকে তাড়িয়ে দেওয়া সন্তানদের সতর্ক করলো পুলিশ

মাকে তাড়িয়ে দেওয়া সন্তানদের সতর্ক করলো পুলিশ

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বঙ্গবন্ধুর শাহাদত বার্ষিকী পালনের নির্দেশ

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বঙ্গবন্ধুর শাহাদত বার্ষিকী পালনের নির্দেশ

ব্যাংক এশিয়ার দুই কর্মকর্তাসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

ব্যাংক এশিয়ার দুই কর্মকর্তাসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

পরীমণির বিরুদ্ধে যত অভিযোগ

পরীমণির বিরুদ্ধে যত অভিযোগ

© 2021 Bangla Tribune