X
রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ৩১ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

বিমানের সৌদি ফ্লাইট ২৯ মে থেকে শুরু

আপডেট : ২৩ মে ২০২১, ২৩:১৯

২৯ মে থেকে সৌদি  ফ্লাইট শুরু করবে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। কোয়ারেন্টিন প‍্যাকেজ সুবিধা নিশ্চিতকরণ সাপেক্ষে ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করতে যাচ্ছে বিমান।

রবিবার (২৩ মে) রাতে এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানায় সংস্থাটি।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘সৌদিগামী যাত্রীদের হোটেল বুকিংসহ কোয়ারেন্টিন প‍্যাকেজ ও বিমানের আসন সংরক্ষণের জন‍্য বিমান সেলস কাউন্টারে যোগাযোগ করতে হবে। ভিসার মেয়াদের ওপরে অগ্রাধিকারভিত্তিতে যাত্রীদের আসন সংরক্ষণ করা হবে।’

তবে কোয়ারেন্টিন প‍্যাকেজের খরচ নিয়ে কোনও তথ্য জানায়নি বিমান।

প্রসঙ্গত, হোটেলে কোয়ারেন্টিনসহ সৌদি সরকারের  বিভিন্ন শর্তারোপের কারণে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স  সৌদি আরবগামী সব ফ্লাইট  গত ২০ মে থেকে  স্থগিত রেখেছে।

 

/সিএ/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

সড়ক দুর্ঘটনায় পুলিশ সদস্য নিহতের হার বেড়েছে

সড়ক দুর্ঘটনায় পুলিশ সদস্য নিহতের হার বেড়েছে

ফের ৪ বিভাগে মৃত্যু নেই

ফের ৪ বিভাগে মৃত্যু নেই

জানুয়ারি থেকে দুই সেমিস্টারে ভর্তি নিতে ইউজিসির নতুন কৌশল

জানুয়ারি থেকে দুই সেমিস্টারে ভর্তি নিতে ইউজিসির নতুন কৌশল

আইস ধরা পড়লে দাম নেয় না মিয়ানমারের সরবরাহকারীরা

আইস ধরা পড়লে দাম নেয় না মিয়ানমারের সরবরাহকারীরা

রাজধানীর নিকুঞ্জ থেকে চিকিৎসকের লাশ উদ্ধার

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ০৪:২৪

রাজধানীর খিলক্ষেত নিকুঞ্জ এলাকার একটি বাসা থেকে এক চিকিৎসকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

ওই ব্যক্তির নাম জয়দেব চন্দ্র দাস। শনিবার (১৬ অক্টোবর) রাত ৮টার দিকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

খিলক্ষেত থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুন্সি সাব্বির আহমেদ বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, নিকুঞ্জ-২ এর ১৫ নম্বর সড়কের একটি ফ্ল্যাট বাড়ির কক্ষ থেকে দুর্গন্ধ আসছিল। পরে অনুসন্ধানে ঘটনাস্থলে পৌঁছে ওই কক্ষের দরজা ভেঙে খাট থেকে ওই চিকিৎসকের লাশ উদ্ধার করা হয়।

ওসি সাব্বির বলেন, নিহত চিকিৎসক সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ থেকে পাস করেছেন। লাশটি যেখান থেকে উদ্ধার করা হয়েছে সেখানে চিকিৎসকরা মেস করে থাকতেন।

/এমএস/

সম্পর্কিত

‘হিন্দু-মুসলিম দাঙ্গা লাগানোর ষড়যন্ত্র করছে সাম্প্রদায়িক অপশক্তি’ 

‘হিন্দু-মুসলিম দাঙ্গা লাগানোর ষড়যন্ত্র করছে সাম্প্রদায়িক অপশক্তি’ 

‘ঢাকামুখী অভিবাসন বন্ধ না হলে কোনও পরিকল্পনাই কার্যকর হবে না’ 

‘ঢাকামুখী অভিবাসন বন্ধ না হলে কোনও পরিকল্পনাই কার্যকর হবে না’ 

‘ভবনে রেইন ওয়াটার হার্ভেস্টিং থাকলে ১০ শতাংশ হোল্ডিং কর রেয়াত’

‘ভবনে রেইন ওয়াটার হার্ভেস্টিং থাকলে ১০ শতাংশ হোল্ডিং কর রেয়াত’

হানিফ ফ্লাইওভারে বাস উল্টে দুই কাবাডি খেলোয়াড় আহত

হানিফ ফ্লাইওভারে বাস উল্টে দুই কাবাডি খেলোয়াড় আহত

দিনে মনোনয়নপত্র জমা, রাতে গুলিতে আ.লীগ প্রার্থীর মৃত্যু

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ০৪:০০

রাঙ্গামাটির কাপ্তাই উপজেলার চিৎমরম ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী নেথোয়াই মারমাকে (৫৬) গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। শনিবার (১৬ অক্টোবর) রাত পৌনে ১২টার দিকে ওই প্রার্থীর নিজ বাড়িতে হত্যার এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ব্যক্তি ওই ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলেন। আগামী ১১ নভেম্বর অনুষ্ঠেয় ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ছিলেন তিনি।

কাপ্তাইয়ের চন্দ্রঘোনা থানার ওসি ইকবাল বাহার চৌধুরী ঘটনাটি নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, আমরা জেনেছি আওয়ামী লীগের নৌকার প্রার্থী নেথোয়াই মারমাকে গুলি করে হত্যা করেছে একদল দুর্বৃত্ত, পুলিশ সেখানে যাচ্ছে। সেখানে থেকে ফিরে এলে বিস্তারিত জানাতে পারব।

রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অংসুচাইন চৌধুরী জানিয়েছেন, নেথোয়াই মারমা এতদিন উপজেলা রেস্ট হাউজে ছিলেন। আজই (শনিবার) ইউপি নির্বাচনের মনোনয়নপত্র জমা দিয়ে চিৎমরমে আগাপাড়া এলাকায় গিয়েছিলেন নেতাকর্মী ও স্বজনদের সঙ্গে দেখা করতে। রাতে তার নিজ বাড়িতে একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে তাকে গুলি করে হত্যা করে। আমরা এই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

কাপ্তাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও চিৎমরম ইউনিয়নের সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান থোয়াই চিং মারমা জানান, ঘটনা শুনে তার বাড়িতে ফোন দিয়ে খোঁজ নেই। তখন তার ছেলে ফোন ধরে কান্নাকাটি করে জানালো ‑ একদল সন্ত্রাসী তার বাবাকে বাসায় ঢুকে গুলি করে হত্যা করে পালিয়ে গেছে।

রাঙামাটি জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী মুছা মাতব্বর এই হত্যাকাণ্ডের জন্য জনসংহতি সমিতিকে দায়ী করে বলেছেন, পাহাড়ে নির্বাচন আসলেই হত্যাকাণ্ডে মেতে ওঠে এই সন্ত্রাসী সংগঠনটি। তিনি আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে পার্বত্য জেলার সকল ইউনিয়নের প্রার্থীদের নিরাপদে ও সতর্ক থাকার অনুরোধ জানিয়েছেন। প্রার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকেও অনুরোধ জানান তিনি।

এ বিষয়ে কথা বলার জন্য বারবার চেষ্টা করেও সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির দায়িত্বশীল কাউকে পাওয়া যায়নি। নিহত নেথোয়াই মারমা

/এমএস/

সম্পর্কিত

রাজধানীতে ঠেলাগাড়ির ধাক্কায় শিশুর মৃত্যু

রাজধানীতে ঠেলাগাড়ির ধাক্কায় শিশুর মৃত্যু

তেজগাঁওয়ে বিস্ফোরণের ঘটনায় আরও একজনের মৃত্যু

তেজগাঁওয়ে বিস্ফোরণের ঘটনায় আরও একজনের মৃত্যু

আঙ্গুলের অপারেশন করাতে গিয়ে জুডো খেলোয়াড়ের মৃত্যু

আঙ্গুলের অপারেশন করাতে গিয়ে জুডো খেলোয়াড়ের মৃত্যু

ভাষা সৈনিক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা ইসমাইল হোসেন আর নেই

ভাষা সৈনিক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা ইসমাইল হোসেন আর নেই

২০ বিশ্ববিদ্যালয়ের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা আজ

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ০০:২০

দেশে প্রথমবারের মতো গুচ্ছ পদ্ধতিতে ২০টি সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা শুরু হচ্ছে আজ। দুপুর ১২টা থেকে সারা দেশে একযোগে ২৬ কেন্দ্রে পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছেন এক লাখ ৩১ হাজার ৯০১ পরীক্ষার্থী।  

ভর্তি পরীক্ষা কমিটি সূত্রে জানা যায়, এবার বিজ্ঞান, মানবিক ও বাণিজ্য বিভাগসহ তিন ইউনিটে রয়েছে ২২ হাজার ১৩ আসন। আসনের বিপরীতে আবেদন করেছেন দুই লাখ ৩২ হাজার ৪৫৫ পরীক্ষার্থী। হিসাবে প্রতি আসনের বিপরীতে প্রতিযোগিতা করবেন ১১ জন। এর মধ্যে ‘এ’ ইউনিটে প্রায় ১২ হাজার সিটের বিপরীতে ২৬টি আসনে এক লাখ ৩১ হাজার ৯০১ জন পরীক্ষায় বসছেন।

এ ছাড়া আগামী ২৪ অক্টোবর ‘বি’ ইউনিটে প্রায় সাড়ে ছয় হাজার আসনের বিপরীতে ৬৭ হাজার ১১৭ এবং ‘সি’ ইউনিটে প্রায় সাড়ে তিন হাজার আসনের বিপরীতে ৩৩ হাজার ৪৩৬ শিক্ষার্থী আবেদন করেছেন।

পরীক্ষার বিষয়সমূহ

জিএসটির গুচ্ছ পদ্ধতিতে উচ্চ মাধ্যমিকের পাঠ্যসূচির ভিত্তিতে ১০০ নম্বরের এমসিকিউ পরীক্ষা নেওয়া হবে। যেখানে বিজ্ঞান বিভাগের ক্ষেত্রে বাংলায় ১০, ইংরেজিতে ১০, রসায়ন ২০, পদার্থবিজ্ঞান ২০, বাকি ৪০ নম্বর থাকবে আইসিটিতে। মানবিক বিভাগের ক্ষেত্রে বাংলায় ৪০, ইংরেজিতে ৩৫ ও আইসিটিতে ২৫ নম্বর এবং বাণিজ্য বিভাগের ক্ষেত্রে হিসাববিজ্ঞানে ২৫, ব্যবসায় সংগঠন ও ব্যবস্থাপনায় ২৫, বাংলায় ১৩, ইংরেজিতে ১২ ও আইসিটিতে ২৫ নম্বর থাকবে। পরীক্ষায় প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য কাটা যাবে শূন্য দশমিক ২৫ নম্বর।

গুচ্ছভুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়গুলো হলো

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ডিজিটাল ইউনিভার্সিটি, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়, রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়।

‘এ’ ইউনিটের আসন বিন্যাস

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৪৭১০, সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩১৬৩,  জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে ১০৯১৫, শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৫০০০, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩০০০, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ১১৫৩৯,  ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ১২০০, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে ৭১০৮, খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৭৪৯৩, চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৬০০০, রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৬০৪৫, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও অ্যানিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০০০, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে ৭০৮৫, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৭০২৫, মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৮৫১৩, নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩৪৬২, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে ২৫০৫, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ৭৬৮৮, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৬০০০, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৪০০০, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩৬০০, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৯৮০, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৬৯১২, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩৪৫৮, রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৮০০ এবং বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৭০০ পরীক্ষার্থী অংশ নেবেন।

এ ছাড়া ‘বি’ এবং ‘সি’ ইউনিটে ২২ কেন্দ্রে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এবার গুচ্ছ পদ্ধতিতে বিভাগ পরিবর্তনের জন্য আলাদা পরীক্ষা নেওয়া হবে না। বিশ্ববিদ্যালয়গুলো নিজ নিজ সার্কুলার ও নিয়ম অনুসারে বিভাগ পরিবর্তন করে ভর্তির সুযোগ দেবে।

পরীক্ষার সার্বিক প্রস্তুতি নিয়ে আয়োজকদের মন্তব্য

গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক ও শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, আমরা শতভাগ প্রস্তুত পরীক্ষা নেওয়ার জন্য। আগেই যথাযথ নিরাপত্তার সঙ্গে সব পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রশ্নপত্র, উত্তরপত্র ও উপস্থিতি তালিকা পাঠিয়ে দিয়েছি। এতে পরীক্ষা সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও পুলিশ সহায়তা করছে।  সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে প্রশ্নপত্রের ট্রাংকে জিপিএস ট্র্যাকিং সিস্টেম লাগানো হয়েছে, যাতে প্রশ্নপত্র নিরাপদ থাকে।

শিগগিরই ফল প্রকাশ করা হবে উল্লেখ করে শাবি উপাচার্য বলেন, পরীক্ষা পরবর্তী ২-৩ দিনের মধ্যে ফল প্রকাশের চিন্তাভাবনা রয়েছে। র‌্যাংকের ভিত্তিতে ফল প্রকাশ না করে ১০০ নম্বরের মধ্যে পরীক্ষার্থীর প্রাপ্ত নম্বর (স্কোর) প্রকাশ করা হবে। পরবর্তীতে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর পৃথক সার্কুলার ও শর্তের ভিত্তিতে প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে পছন্দের বিশ্ববিদ্যালয়ে পছন্দের বিষয়ে ভর্তির আবেদন করতে পারবে শিক্ষার্থীরা।

বিভাগ পরিবর্তন নিয়ে শাবি উপাচার্য বলেন, বিভাগ পরিবর্তনে কোনও পরীক্ষা হচ্ছে না। তবে এক্ষেত্রে ২০টি গুচ্ছভুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়গুলো পরবর্তীতে নীতিমালা প্রণয়ন করবে। শর্ত মেনে শিক্ষার্থীরা বিভাগ পরিবর্তন করে পছন্দের বিষয়ে পড়তে পারবে।

/এএম/এমএস/

সম্পর্কিত

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান শুরু ২১ অক্টোবর

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান শুরু ২১ অক্টোবর

জানুয়ারি থেকে দুই সেমিস্টারে ভর্তি নিতে ইউজিসির নতুন কৌশল

জানুয়ারি থেকে দুই সেমিস্টারে ভর্তি নিতে ইউজিসির নতুন কৌশল

অবশেষে ভিকারুননিসার সাবেক ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের শোকজ প্রত্যাহার

অবশেষে ভিকারুননিসার সাবেক ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের শোকজ প্রত্যাহার

১২ থেকে ১৭ বছরের শিক্ষার্থীদের তালিকা চেয়েছে সরকার

১২ থেকে ১৭ বছরের শিক্ষার্থীদের তালিকা চেয়েছে সরকার

সাবেক কর্মচারীর বিরুদ্ধে দোকান মালিককে কোপানোর অভিযোগ

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ২৩:০৫

পুরান ঢাকায় সাবেক কর্মচারীর বিরুদ্ধে দোকান মালিককে কোপানোর অভিযোগ উঠেছে। দোকান মালিক শেখ সানির (৩৪) দাবি, তার দোকানের সাবেক কর্মচারী নাহিদ (৩২) রামদা দিয়ে তাকে কুপিয়ে পালিয়েছে। শনিবার (১৬ অক্টোবর) রাত ৮টার দিকে সানিকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। 

সানি জানিয়েছেন, কাপ্তান বাজারে শাহানা ইন্টারন্যাশনাল নামে একটি ইলেক্ট্রিকের দোকান আছে তাদের। এখানেই কাজ করতো নাহিদ। দেড় মাস আগে তাকে চাকরিচ্যুত করা হয়। পরে সে অন্য দোকানে কাজ শুরু করলে সেখান থেকেও তার চাকরি চলে যায়।

ব্যবসায়ী সানি বলেন, ‘নাহিদের ধারণা, আমার কারণেই তার চাকরি চলে গেছে। এ কারণে সে মোবাইল ফোনে আমাকে প্রায়ই হুমকি দিতো। মার্কেটের অনেকেই এ বিষয়ে জানে। শনিবার সকালে তাকে মার্কেটে দেখে সেখানকার লোকজন আটক করে। পরে পুলিশ আসে। সেখানে বিষয়টির মীমাংসা হওয়ার পর নাহিদ চলে যায়। আমি দোকান বন্ধ করে বাসায় যাওয়ার উদ্দেশে কাপ্তান বাজার এক নম্বর গেটের সামনে মোটরসাইকেলে বসি। এ সময় নাহিদ দৌড়ে এসে রামদা দিয়ে আমাকে কুপিয়ে পালিয়ে যায়।’ 

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. বাচ্চু মিয়া। তিনি জানান, সানির বুকের বাঁ-পাশে জখম রয়েছে। তিনি এখন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ওয়ারী থানাকে বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে।

/এআইবি/আরটি/জেএইচ/

সম্পর্কিত

যাত্রাবাড়ীতে ৩ কেজি গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

যাত্রাবাড়ীতে ৩ কেজি গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

আইস ধরা পড়লে দাম নেয় না মিয়ানমারের সরবরাহকারীরা

আইস ধরা পড়লে দাম নেয় না মিয়ানমারের সরবরাহকারীরা

যাত্রাবাড়ীতে ৫ কেজি আইসসহ দু’জন গ্রেফতার

যাত্রাবাড়ীতে ৫ কেজি আইসসহ দু’জন গ্রেফতার

মিরপুরে ১১৬ লিটার চোলাই মদসহ একজন গ্রেফতার

মিরপুরে ১১৬ লিটার চোলাই মদসহ একজন গ্রেফতার

সড়ক দুর্ঘটনায় পুলিশ সদস্য নিহতের হার বেড়েছে

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ২২:৩৪

সড়ক দুর্ঘটনায় চলতি বছরের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত নয় মাসে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ৬১ জন সদস্য নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে পুলিশ সদস্য নিহত হয়েছেন ৪৬ জন, অর্থাৎ ৭৫ দশমিক ৪০ শতাংশ। ২০২০ সালের জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সড়ক দুর্ঘটনায় ২২ জন পুলিশ নিহত হন। সেই হিসাবে চলতি বছরের ৯ মাসে নিহতের হার বৃদ্ধি পেয়েছে ৫২ দশমিক ১৭ শতাংশ। রোড সেফটি ফাউন্ডেশনের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানা গেছে।

সড়ক দুর্ঘটনার পরিসংখ্যান বলছে, গত নয় মাসে পুলিশ বাহিনীর সদস্য ৪৬ জন, সেনাবাহিনীর সদস্য ৪ জন, নৌ-বাহিনীর সদস্য ১ জন, র‌্যাব সদস্য ৩ জন, বিজিবি সদস্য ২ জন, এনএসআই সদস্য ১ জন, এপিবিএন সদস্য ১ জন এবং আনসার ব্যাটালিয়নের ৪ জন সদস্য নিহত হয়েছেন।

রোড সেফটি ফাউন্ডেশন ৭টি জাতীয় দৈনিক, ৫টি অনলাইন নিউজ পোর্টাল এবং ইলেক্ট্রনিক গণমাধ্যমের তথ্যের ভিত্তিতে প্রতিবেদনটি তৈরি করেছে।

দুর্ঘটনায় নিহত হওয়ার ধরন

পুলিশের মোটরসাইকেলে ট্রাকের ধাক্কা/চাপায় ২৮ জন (৬০ দশমিক ৮৬ শতাংশ), পুলিশের মোটরসাইকেলে বাসের ধাক্কা/চাপায় ৮ জন (১৭ দশমিক ৩৯ শতাংশ), পুলিশের মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ৪ জন (৮ দশমিক ৬৯ শতাংশ) এবং পথচারী হিসেবে হাঁটার সময় ও সড়কে দায়িত্ব পালনকালে যানবাহনের ধাক্কায় ৬ জন (১৩ দশমিক ০৪) নিহত হয়েছেন।

পর্যবেক্ষণে দেখা যায়, মহাসড়কে ২৫ জন (৫৪ দশমিক ৩৪), আঞ্চলিক সড়কে ৯ জন (১৯ দশমিক ৫৬ শতাংশ), রাজধানীসহ অন্যান্য শহরের সড়কে ১১ জন (২৩ দশমিক ৯১) এবং সদরঘাট নৌ-টার্মিনালে দায়িত্ব পালনকালে পানিতে পড়ে ১ জন (২ দশমিক ১৭) নিহত হয়েছেন।

দুর্ঘটনার সময় বিশ্লেষণে দেখা যায়, সকালে ৮ দশমিক ৬৯ শতাংশ, দুপুরে ১৩ দশমিক ০৪ শতাংশ, বিকালে ১৫ দশমিক ২১ শতাংশ এবং রাতে ৬৩ দশমিক ০৪ শতাংশ নিহত হয়েছে।

দুর্ঘটনার কারণ উল্লেখ করতে গিয়ে রোড সেফটি ফাউন্ডেশন দেশে সড়ক পরিবহন আইন কার্যকর না থাকাকে দায়ী করছে। এর পাশাপাশি পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের সঠিকভাবে ট্রাফিক আইন মেনে না চলা, মোটরসাইকেল চালানোর সময় পুলিশ বাহিনীর অনেক সদস্যের হেলমেট ব্যবহার না করা এবং বিশ্রামহীনভাবে ড্রাইভিংয়ের কারণে ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান চালকদের মানসিক অসুস্থতা, বেখেয়ালী ও বেপরোয়া মনোভাব উল্লেখযোগ্য।

/ইউআই/জেএইচ/

সম্পর্কিত

ফের ৪ বিভাগে মৃত্যু নেই

ফের ৪ বিভাগে মৃত্যু নেই

জানুয়ারি থেকে দুই সেমিস্টারে ভর্তি নিতে ইউজিসির নতুন কৌশল

জানুয়ারি থেকে দুই সেমিস্টারে ভর্তি নিতে ইউজিসির নতুন কৌশল

আইস ধরা পড়লে দাম নেয় না মিয়ানমারের সরবরাহকারীরা

আইস ধরা পড়লে দাম নেয় না মিয়ানমারের সরবরাহকারীরা

ভ্যাপসা গরমে অতিষ্ঠ জনজীবন

ভ্যাপসা গরমে অতিষ্ঠ জনজীবন

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সড়ক দুর্ঘটনায় পুলিশ সদস্য নিহতের হার বেড়েছে

সড়ক দুর্ঘটনায় পুলিশ সদস্য নিহতের হার বেড়েছে

ফের ৪ বিভাগে মৃত্যু নেই

ফের ৪ বিভাগে মৃত্যু নেই

জানুয়ারি থেকে দুই সেমিস্টারে ভর্তি নিতে ইউজিসির নতুন কৌশল

জানুয়ারি থেকে দুই সেমিস্টারে ভর্তি নিতে ইউজিসির নতুন কৌশল

আইস ধরা পড়লে দাম নেয় না মিয়ানমারের সরবরাহকারীরা

আইস ধরা পড়লে দাম নেয় না মিয়ানমারের সরবরাহকারীরা

ভ্যাপসা গরমে অতিষ্ঠ জনজীবন

ভ্যাপসা গরমে অতিষ্ঠ জনজীবন

অ্যানেস্থেসিওলজিস্ট সংকটে চালু হয় না আইসিইউ

অ্যানেস্থেসিওলজিস্ট সংকটে চালু হয় না আইসিইউ

যাত্রাবাড়ীতে ৫ কেজি আইসসহ দু’জন গ্রেফতার

যাত্রাবাড়ীতে ৫ কেজি আইসসহ দু’জন গ্রেফতার

আরও নাশকতার আশঙ্কায় সতর্ক আইনশৃঙ্খলা বাহিনী

আরও নাশকতার আশঙ্কায় সতর্ক আইনশৃঙ্খলা বাহিনী

এটা কেমন সেবা?

এটা কেমন সেবা?

তুরস্কের গেদিক বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলাদেশ স্টাডিজ ও রিসার্চ সেন্টার

তুরস্কের গেদিক বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলাদেশ স্টাডিজ ও রিসার্চ সেন্টার

সর্বশেষ

ফরিদা মজিদের কথা

ফরিদা মজিদের কথা

রাজধানীর নিকুঞ্জ থেকে চিকিৎসকের লাশ উদ্ধার

রাজধানীর নিকুঞ্জ থেকে চিকিৎসকের লাশ উদ্ধার

দিনে মনোনয়নপত্র জমা, রাতে গুলিতে আ.লীগ প্রার্থীর মৃত্যু

দিনে মনোনয়নপত্র জমা, রাতে গুলিতে আ.লীগ প্রার্থীর মৃত্যু

বাণিজ্য, নিরাপত্তা ও জলবায়ু ইস্যু গুরুত্ব পাবে

প্যারিসে হাসিনা-ম্যাখোঁর বৈঠকবাণিজ্য, নিরাপত্তা ও জলবায়ু ইস্যু গুরুত্ব পাবে

ঢাবিতে আজ থেকে শুরু সশরীরে ক্লাস

ঢাবিতে আজ থেকে শুরু সশরীরে ক্লাস

© 2021 Bangla Tribune