X
বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৮ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

বগুড়ায় ছাগলকাণ্ড: সেই ইউএনওকে বদলি

আপডেট : ০৯ জুন ২০২১, ১৮:১৩

অবশেষে বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সীমা শারমিনকে বদলি করা হয়েছে। উপজেলা পরিষদের বাগানের ফুলগাছ খাওয়ার অপরাধে তিনি একটি ছাগলকে পাঁচদিন আটকে রেখে ভ্রাম্যমাণ আদালতে ছাগলের মালিককে দুই হাজার টাকা জরিমানা করেছিলেন।

স্থানীয় সরকার প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের (এনআইএলজি) উপপরিচালক পদে তাকে বদলি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। মঙ্গলবার (০৮ জুন) তার বদলি সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপনে স্বাক্ষর করেন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মোহাম্মদ আবুল কালাম আজাদ।

বুধবার (০৯ জুন) বিকালে বগুড়ার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) উজ্জ্বল কুমার ঘোষ তার বদলির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

উপজেলা চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম খান রাজু বলেন, ইউএনওর বদলির কথা শুনেছি। এ বিষয়ে আমি কোনও মন্তব্য করতে চাই না।

এ বিষয়ে জানতে ইউএনও সীমা শারমিনকে একাধিকবার ফোন দিলেও ধরেননি। এজন্য তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

স্থানীয় সূত্র জানায়, ইউএনও সীমা শারমিন উপজেলা পরিষদ চত্বরের পার্কে ফুলের বাগান করেন। উপজেলা পরিষদের পাশে বসবাসকারী জিল্লুর রহমানের স্ত্রী সাহেরা খাতুন সংসারের অভাব দূর করতে হাঁস-মুরগি, ছাগল লালন-পালন করেন। তার একটি ছাগল গত ১৭ মে ওই বাগানে ঢুকে ফুলগাছের পাতা খায়।

ইউএনও সীমা শারমিনের নির্দেশে নিরাপত্তাপ্রহরীরা ছাগলটিকে আটক করেন। সাহেরা বেগম খোঁজ পেয়ে পরিষদে গেলে ছাগল ফেরত না দিয়ে তাড়িয়ে দেওয়া হয়। এরপর তিনি ইউএনওর কাছে পাঁচদিন ধরনা দিয়েও ছাগল পাননি। তাকে বলা হয়, ছাগল ফুলগাছ খাওয়ার অপরাধে ভ্রাম্যমাণ আদালতে দুই হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। টাকা জামা দিয়ে ছাগল নিতে হবে।

সাহেরা খাতুন জরিমানার টাকা পরিশোধ করতে ব্যর্থ হওয়ায় ইউএনও গত ২২ মে পাঁচ হাজার টাকায় ছাগল বিক্রি করে দেন। ইউএনওর বাংলোর কর্মচারীরা সাহেরা বেগমকে বিষয়টি জানিয়ে, জরিমানার দুই হাজার টাকা বাদ দিয়ে অবশিষ্ট তিন হাজার টাকা নিয়ে যেতে বলেন।

এরপর থেকে সাহেরা খাতুন বিভিন্ন স্থানে ধরনা দিয়েও ছাগল ফেরত পাননি। এ নিয়ে ২৬ মে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হয়। বিষয়টি নিয়ে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনার সৃষ্টি হলে ইউএনও পরদিন নিজে জরিমানার টাকা পরিশোধ করে মালিকের কাছে ছাগলটি ফিরিয়ে দেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ইউএনও সীমা শারমিন সেদিন বলেছিলেন, আমি ছাগল বিক্রি করিনি।ছাগল ফুলবাগান নষ্ট করায় মালিককে তিন দফা সতর্ক করা হয়েছিলো। কিন্তু তিনি কর্ণপাত না করায় ছাগল আটক করে একজনের জিম্মায় রাখা হয়েছিলো। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতে মালিককে দুই হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) উজ্জ্বল কুমার ঘোষ বলেন, ইউএনওকে বদলির খবর পেয়েছি। তবে কেন তাকে বদলি করা হয়েছে, তা আমার জানা নেই।

এ বিষয়ে বগুড়ার জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. জিয়াউল হক সাংবাদিকদের জানান, এটি তার নিয়মিত বদলি। অন্য কারণে তাকে বদলি করা হয়নি।

/এএম/

সম্পর্কিত

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির ৩ শীর্ষ নেতার আত্মসমর্পণ

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির ৩ শীর্ষ নেতার আত্মসমর্পণ

হাটে টোল বেশি নেওয়ায় লাখ টাকা জরিমানা

হাটে টোল বেশি নেওয়ায় লাখ টাকা জরিমানা

ধানক্ষেতে মিললো নারী ইউপি সদস্যের লাশ

ধানক্ষেতে মিললো নারী ইউপি সদস্যের লাশ

গাজীপুর মেয়রের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ, অগ্নিসংযোগ

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:৩২

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলমের অপসারণ ও উপযুক্ত বিচারের দাবিতে সড়ক অবরোধ, বিক্ষোভ ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে।

বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) বিকাল ৪টার দিকে টঙ্গীর চেরাগ আলী, স্টেশন রোড, হোসেন মার্কেট, বোর্ডবাজার এলাকায় তারা অবরোধ করেন। বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে প্রায় দুই শতাধিক বিক্ষোভকারীর একটি দল স্লোগান দিতে দিতে টঙ্গী রেলগেট এলাকায় এসে অগ্নিসংযোগ করে। তবে পুলিশের ধাওয়ায় সন্ধ্যা ছয়টার দিকে সড়ক থেকে সরে যান। বিক্ষোভকারীরা কোন পক্ষের তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলমের অপসারণসহ উপযুক্ত বিচারের দাবিতে টঙ্গী স্টেশন রোড ও আশপাশের এলাকায় বিক্ষোভ করেন তারা। একপর্যায়ে টঙ্গী আহসান উল্লাহ মাস্টার উড়াল সেতুর নিচের রেলগেটে বর্জ্য এনে আগুন ধরিয়ে। ঘটনার কিছুক্ষণ পর পুলিশ এসে বিক্ষোভকারীদের রেলগেট এলাকা থেকে সরিয়ে দিলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

টঙ্গী রেল স্টেশনের মাস্টার রাকিবুর রহমান জানান, এতে ঢাকা-চট্টগ্রাম, ঢাকা-ময়মনসিংহ, ঢাকা-রাজশাহী রেলপথের ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এসব রেলপথের কমপক্ষে আটটি ট্রেনের যাত্রা বিলম্ব ঘটে। পরে পুলিশ এসে বিক্ষোভকারীদের ধাওয়া করলে কমপক্ষে দেড় ঘণ্টা পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। তবে কোনও ক্ষয়ক্ষতি বা হতাহতের তথ্য পাওয়া যায়নি।

জানা গেছে, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে জাহাঙ্গীর আলমের করা বিতর্কিত মন্তব্যের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। এতে গত কয়েকদিন ধরে মেয়র জাহাঙ্গীর আলমকে নিয়ে আলোচনা চলছে।

মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, একটি মহল তার উন্নয়ন কার্যক্রমে ঈর্ষান্বিত হয়ে ফেসবুকে ভিডিও সুপার এডিট করে তাকে রাজনৈতিকভাবে হেয় করার চেষ্টা করছে। তিনি ওই ভিডিওটির বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেবেন বলেও জানান।

/এফআর/

সম্পর্কিত

প্রবাসীর স্ত্রীকে ৭ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

প্রবাসীর স্ত্রীকে ৭ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

শাপলা বিক্রির টাকায় চলে সংসার 

শাপলা বিক্রির টাকায় চলে সংসার 

সাউন্ডবক্স বাজিয়ে কেরোসিন ঢেলে স্ত্রীকে পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টা!

সাউন্ডবক্স বাজিয়ে কেরোসিন ঢেলে স্ত্রীকে পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টা!

ভারতে গেলো আরও ২০৯ টন ইলিশ

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:০২

দুর্গাপূজা উপলক্ষে দুই হাজার ৮০ মেট্রিক টন ইলিশ ভারতে রফতানির অনুমতি দিয়েছে সরকার। সে লক্ষ্যে বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) ৭৮ মেট্রিক টন ইলিশ দেশটিতে পাঠানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) রাত ১১টা পর্যন্ত সময়ে ২০৯ মেট্রিক টন ইলিশভর্তি ট্রাক বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে ভারতে প্রবেশের জন্য গেট পাস হয়েছে।

বেনাপোল স্থলবন্দর মৎস্য কোয়ারেন্টিন পরিদর্শক আসওয়াদুল ইসলাম বলেন, ‘দুর্গাপূজা উপলক্ষে এবার ভারতে দুই হাজার ৮০ মেট্রিক টন ইলিশ রফতানির অনুমোদন দিয়েছে সরকার। এসব ইলিশ রফতানির অনুমতি পেয়েছে বাংলাদেশের ৫২টি রফতানিকারক প্রতিষ্ঠান। প্রতিটি প্রতিষ্ঠানকে ৪০ মেট্রিক টন রফতানির অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় আজ দ্বিতীয় চালানে ১৭ ট্রাকে ২০৯ মেট্রিক টন ইলিশ ভারতে যাচ্ছে। গতকাল ৭৮ টন ৮৪০ কেজি ইলিশ দেশটিতে যায়। পর্যায়ক্রমে বাকি মাছ আগামী ১০ অক্টোবরের মধ্যে ভারতে পৌঁছাবে।’

বেনাপোলের সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট বিশ্বাস ট্রেডার্সের স্বত্বাধিকারী নূরুল আমিন বিশ্বাস বলেন, ‘প্রতি কেজি ইলিশের রফতানি মূল্য ধরা হয়েছে ৮৫০ টাকা। ভারত ও বাংলাদেশ দুই দেশের কাস্টমস থেকে শুল্কমুক্ত সুবিধায় ইলিশের এ চালান ছাড় করানো হচ্ছে। ইলিশের রফতানিকারক প্রতিষ্ঠান হলো ৫২টি।’

উল্লেখ্য, দেশে ঘাটতি থাকায় ২০১২ সাল থেকে ভারতে ইলিশ রফতানি বন্ধ করে সরকার। তবে গত বছর দুর্গাপূজা উপলক্ষে ভারতে ইলিশ রফতানির অনুমতি দিয়েছিল সরকার।

/এফআর/

সম্পর্কিত

পরাজিত ইউপি সদস্য প্রার্থীর দুই পা ভেঙে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা

পরাজিত ইউপি সদস্য প্রার্থীর দুই পা ভেঙে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা

এক্স-রে মেশিন পলিথিনে মোড়ানো, রোগীরা ছুটছেন এদিক-সেদিক

এক্স-রে মেশিন পলিথিনে মোড়ানো, রোগীরা ছুটছেন এদিক-সেদিক

যৌতুক মামলায় কারাগারে সিআইডির এসআই

যৌতুক মামলায় কারাগারে সিআইডির এসআই

সাঁতরে মসজিদে যাওয়া সেই ইমাম পেলেন নৌকা ও নগদ টাকা   

সাঁতরে মসজিদে যাওয়া সেই ইমাম পেলেন নৌকা ও নগদ টাকা   

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির ৩ শীর্ষ নেতার আত্মসমর্পণ

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:৫৭

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় রাজশাহী মহানগর বিএনপির তিন শীর্ষ নেতা রাজশাহী মহানগর দায়রা জজ আদালতে আত্মসমর্পণ করতে গেলে মূল নথি না থাকায় নতুন করে দিন ধার্য করেন বিচারক। বিচারক ইলিয়াস হোসাইন কোর্ট থেকে নথি তলব করে পুনরায় আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর আত্মসমর্পণের আদেশ দেন।

মামলার আসামিপক্ষের আইনজীবী আলী আশরাফ মাসুম জানান, বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার অন্যতম উপদেষ্টা, সাবেক রাসিক মেয়র ও সংসদ সদস্য মিজানুর রহমান মিনু, বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক, রাজশাহী মহানগর বিএনপির সভাপতি, সাবেক রাসিক মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল এবং বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির ত্রাণ ও পুনর্বাসন বিষয়ক সহ-সম্পাদক, রাজশাহী মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন আদালতে আত্মসর্মপণ করেন।

উল্লেখ্য, গত ২ মার্চ রাজশাহীতে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশে প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে বক্তব্য দেওয়ায় বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির রাজশাহী বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক উপমন্ত্রী রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলুসহ তাদের বিরুদ্ধে রাজশাহী জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও জেলা প্রশাসকের কাছে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলার আবেদন করে রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ। জেলা প্রশাসক সেটি অনুমোদনের জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠান।

গত ১৬ মার্চ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে মামলাটি অনুমোদন হয়ে আসে। ৩১ মার্চ রাষ্ট্রদ্রোহিতার মামলায় তাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত। রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মুসাব্বিরুল ইসলাম বাদী হয়ে এই মামলা করেন। মামলায় গত ২৬ আগস্ট উচ্চ আদালত থেকে চার সপ্তাহের আগাম জামিন পান তারা।

/এমএএ/

সম্পর্কিত

প্রবাসীর স্ত্রীকে ৭ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

প্রবাসীর স্ত্রীকে ৭ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত শহীদুল্লাহ গ্রেফতার

মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত শহীদুল্লাহ গ্রেফতার

হাটে টোল বেশি নেওয়ায় লাখ টাকা জরিমানা

হাটে টোল বেশি নেওয়ায় লাখ টাকা জরিমানা

সাবেক প্রধান শিক্ষককে হত্যার আসামি গ্রেফতার

সাবেক প্রধান শিক্ষককে হত্যার আসামি গ্রেফতার

প্রবাসীর স্ত্রীকে ৭ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:৫৬

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা থেকে এক প্রবাসীর স্ত্রীকে (২৯) অপহরণের পর কেরানীগঞ্জে সাত দিন আটকে রেখে ধর্ষণের মামলায় আকাশ (২৫) নামের এক যুবকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) দুপুরে ফতুল্লা থানার শাহজাহান রি-রোলিং মিল এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

ফতুল্লা মডেল থানার ওসি রাকিবুজ্জামান জানান, গ্রেফতার আকাশ শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া থানার চরমোহন লাউরানির সোবহান হাওলাদারের ছেলে। সে ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের চুনকুটিয়ার সোহাগের বাড়ির ভাড়াটিয়া।

বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে ভুক্তভোগী বাদী হয়ে অপহরণের পর আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগে আকাশ ও ধর্ষণে সহায়তার অভিযোগে আকাশের বোনকে (২০) আসামি করে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলার বরাত দিয়ে ওসি রকিবুজ্জামান বলেন, ‘ধর্ষণের শিকার ভুক্তভোগীর স্বামী প্রবাসী। তিনি চার সন্তানকে নিয়ে ফতুল্লার লালপুর এলাকায় ভাড়া থাকেন। আকাশ ভুক্তভোগীর স্বামীর আত্মীয় হওয়ায় মোবাইল ফোনে প্রায়ই তাদের কথা হতো। আত্মীয় হওয়ায় বাদীর বাসায় আকাশের যাতায়াত ছিল।’

জানা গেছে, গত ১৩ সেপ্টেম্বর সকালে আকাশ এবং তার বোন বাদীর লালপুরের বাসায় আসে। একপর্যায়ে তারা নিজেদের বাড়িতে একটি অনুষ্ঠানের কথা বলে প্রবাসীর স্ত্রীকে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় কেরানীগঞ্জে নিয়ে যায়। সেখানে গিয়ে বাসায় পরিবারের কোনও সদস্যকে দেখতে না পেয়ে ভুক্তভোগী চলে আসতে চাইলে আকাশ জানায়, তার ‘মা চলে আসবে’। পরে বিকালে গৃহবধূ চলে আসতে চাইলে তাকে জোরপূর্বক রাতযাপনে বাধ্য করা হয়। একপর্যায়ে রাত সাড়ে ১১টার দিকে আকাশ গৃহবধূকে ধর্ষণ করে। এরপর ২০ সেপ্টেম্বর (সোমবার) রাত ২টা পর্যন্ত আকাশ তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করে। ২১ তারিখ গভীর রাতে গৃহবধূ আকাশের বাড়ি থেকে পালিয়ে নিজ বাসা লালপুরে চলে আসেন। বুধবার দুপুরে ভুক্তভোগী ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।

ওসি আরও বলেন, ‘ভুক্তভোগীকে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল (ভিক্টোরিয়া) হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে পরীক্ষা করা হয়েছে। রিপোর্ট হাতে পেতে কিছুটা সময় লাগে।’

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ফতুল্লা মডেল থানার ওসি (তদন্ত) হুমায়ন কবির জানান, আজ দুপুরে ফতুল্লা থানার শিয়াচর লালখাঁ এলাকা থেকে আকাশকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মামলায় অভিযুক্ত অন্য আসামিকে গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

/এফআর/এমওএফ/

সম্পর্কিত

গাজীপুর মেয়রের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ, অগ্নিসংযোগ

গাজীপুর মেয়রের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ, অগ্নিসংযোগ

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির ৩ শীর্ষ নেতার আত্মসমর্পণ

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির ৩ শীর্ষ নেতার আত্মসমর্পণ

মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত শহীদুল্লাহ গ্রেফতার

মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত শহীদুল্লাহ গ্রেফতার

সিলেটে এটিএম বুথের টাকা লুটের ঘটনায় ৪ জন রিমান্ডে

সিলেটে এটিএম বুথের টাকা লুটের ঘটনায় ৪ জন রিমান্ডে

পরাজিত ইউপি সদস্য প্রার্থীর দুই পা ভেঙে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:০৩

বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জে ইউপি নির্বাচনের জের ধরে পরাজিত মেম্বার প্রার্থী জুলফিকার আলী শেখকে (৫৫) কোপানোর পর দুই পা ভেঙে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এ সময় তার ছোট ভাই বেলায়েত হোসেন শেখকেও (৪৮) কুপিয়ে জখম করা হয়। বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১টার দিকে উপজেলার বলইবুনিয়া ইউনিয়নের কিছমত জামুয়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

গুরুতর আহত অবস্থায় প্রথমে ওই দুজনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় জুলফিকার আলীকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

বেলায়েতের স্ত্রী জানান, ২০ সেপ্টেম্বর ইউপি নিবার্চনে ৮নং ওয়ার্ডে তার ভাসুর জুলফিকার আলী মোরগ প্রতীক নিয়ে অংশ নিয়ে পরাজিত হন। বৃহস্পতিবার ওই ওয়ার্ডের বিজয়ী প্রার্থী ফুটবল প্রতীকের রুস্তম আলী খাঁ এবং তার সমর্থক ফারুক খাঁ, রশিদ খাঁসহ ৮-১০ জনের একটি দল তাদের বাড়িতে আসে। তারা নির্বাচনের জের ধরে তার স্বামী ও ভাসুরকে পিটিয়ে এবং কুপিয়ে গুরুতর জখম করে ফেলে রেখে যায়। পরবর্তী সময় স্থানীয় লোকজন তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন।

এ বিষয়ে থানার ওসি মো. ইকবাল বাহার চৌধুরী জানান, কিছমত জামুয়া গ্রামে তাৎক্ষণিক পুলিশের একটি টিম পাঠানো হয়েছে। অভিযোগ দায়ের হলে মামলা নেওয়া হবে।

/এমএএ/

সম্পর্কিত

ভারতে গেলো আরও ২০৯ টন ইলিশ

ভারতে গেলো আরও ২০৯ টন ইলিশ

এক্স-রে মেশিন পলিথিনে মোড়ানো, রোগীরা ছুটছেন এদিক-সেদিক

এক্স-রে মেশিন পলিথিনে মোড়ানো, রোগীরা ছুটছেন এদিক-সেদিক

যৌতুক মামলায় কারাগারে সিআইডির এসআই

যৌতুক মামলায় কারাগারে সিআইডির এসআই

সাঁতরে মসজিদে যাওয়া সেই ইমাম পেলেন নৌকা ও নগদ টাকা   

সাঁতরে মসজিদে যাওয়া সেই ইমাম পেলেন নৌকা ও নগদ টাকা   

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির ৩ শীর্ষ নেতার আত্মসমর্পণ

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির ৩ শীর্ষ নেতার আত্মসমর্পণ

হাটে টোল বেশি নেওয়ায় লাখ টাকা জরিমানা

হাটে টোল বেশি নেওয়ায় লাখ টাকা জরিমানা

ধানক্ষেতে মিললো নারী ইউপি সদস্যের লাশ

ধানক্ষেতে মিললো নারী ইউপি সদস্যের লাশ

সাবেক প্রধান শিক্ষককে হত্যার আসামি গ্রেফতার

সাবেক প্রধান শিক্ষককে হত্যার আসামি গ্রেফতার

বাসচাপায় ২ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

বাসচাপায় ২ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

কৃষকের ঘর ভেঙে ডোবায় ফেলে দিলেন মেম্বার

কৃষকের ঘর ভেঙে ডোবায় ফেলে দিলেন মেম্বার

‘শ্রীলঙ্কাকে ঋণ দেওয়া অর্থনৈতিক সামর্থ্যের প্রমাণ’

‘শ্রীলঙ্কাকে ঋণ দেওয়া অর্থনৈতিক সামর্থ্যের প্রমাণ’

একদিনে চুয়াডাঙ্গার ৫ থানার ওসি রদবদল

একদিনে চুয়াডাঙ্গার ৫ থানার ওসি রদবদল

বাউল শিল্পীর মাথা ন্যাড়া করে গ্রাম ছাড়ার হুমকি, গ্রেফতার ৩

বাউল শিল্পীর মাথা ন্যাড়া করে গ্রাম ছাড়ার হুমকি, গ্রেফতার ৩

সর্বশেষ

সরকারি কর্মচারীদের প্রতিবন্ধী সন্তানের জন্য হচ্ছে দিবাযত্ন কেন্দ্র

সরকারি কর্মচারীদের প্রতিবন্ধী সন্তানের জন্য হচ্ছে দিবাযত্ন কেন্দ্র

শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে যুবলীগের বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি

শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে যুবলীগের বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি

রোহিঙ্গা প্রত্যাবর্তনে পাশে থাকবে জার্মানি: তাজুল ইসলাম

রোহিঙ্গা প্রত্যাবর্তনে পাশে থাকবে জার্মানি: তাজুল ইসলাম

গাজীপুর মেয়রের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ, অগ্নিসংযোগ

গাজীপুর মেয়রের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ, অগ্নিসংযোগ

জয়ের ৭৩, আকবরের ৫১ 

জয়ের ৭৩, আকবরের ৫১ 

© 2021 Bangla Tribune