X
শনিবার, ৩১ জুলাই ২০২১, ১৬ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

রাজপথে নেমে সেই মুসলিম পরিবারের পাশে থাকার বার্তা হাজারো কানাডিয়ানের

আপডেট : ১২ জুন ২০২১, ১৭:০৩

কানাডায় এক মুসলিম পরিবারের চার সদস্যকে গাড়িচাপা দিয়ে হত্যার ঘটনায় পরিবারটির প্রতি সহমর্মিতা জানিয়ে পদযাত্রায় অংশ নিয়েছে হাজার হাজার মানুষ। গত ৬ জুন দেশটির অন্টারিও প্রদেশের লন্ডন শহরে ওই ট্রাক হামলার ঘটনা ঘটে। পুলিশ জানিয়েছে, ইসলামবিদ্বেষ থেকেই পূর্বপরিকল্পিতভাবে পরিবারটির সদস্যদের ওপর এ হামলা চালানো হয়েছে। এর প্রতিবাদে শুক্রবার ওই পরিবারটির পাশে থাকার বার্তা দিয়ে অন্টারিও প্রদেশের লন্ডন শহরের রাজপথে নেমে আসে কানাডিয়ানরা। সেখানেই গত রবিবার ওই ট্রাক হামলার ঘটনা ঘটিয়েছিল এক তরুণ।

শুক্রবার লন্ডন শহরে আয়োজিত এই পদযাত্রা প্রায় সাত কিলোমিটার এলাকা পর্যন্ত ছাড়িয়ে যায়। এতে অংশ নেওয়া হাজার হাজার মানুষ বিদ্বেষমূলক অপরাধের বিরুদ্ধে আওয়াজ তোলেন। অনেকের হাতে থাকা প্ল্যাকার্ডে লেখা ছিল, এখানে বিদ্বেষের কোনও ঠাঁই নেই, ঘৃণার বদলে ভালোবাসা ইত্যাদি।

এদিন দেশটির অন্যান্য শহরেও ওই পরিবারটির প্রতি সহমর্মিতা জানিয়ে পদযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়েছে। তবে সবচেয়ে বড় আয়োজনটি ছিল ঘটনাস্থল লন্ডন শহরে। সেখানকার কর্মসূচিতে অংশ নেওয়া ব্যক্তিদের একজন ১৯ বছরের কলেজ শিক্ষার্থী আব্দুল্লাহ আল জারাদ। বিশাল এই পদযাত্রা সম্পর্কে তিনি বলেন, বিপুল সংখ্যক মানুষের এখানে উপস্থিত হয়েছে। তবে এটিই সবচেয়ে ভালো দিক নয়। বরং এখানে লন্ডনের প্রতিটি সম্প্রদায়ের মানুষ সমবেত হয়েছে। তাদের সবার উদ্দেশ্য এক।

এর আগে কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো-সহ দেশটির রাজনীতিকরা লন্ডন শহরের ওই ট্রাক হামলার নিন্দা জানান। জাস্টিন ট্রুডো এই হামলাকে বিদ্বেষ থেকে পরিচালিত সন্ত্রাসী হামলা হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। তিনি বলেন, কেউ যদি মনে করে থাকেন আমাদের দেশে বর্ণবাদ ও বিদ্বেষ নেই, তাহলে আমি বলতে চাই: এমন সহিংসতার ব্যাখ্যা কীভাবে দেবো আমরা? কীভাবে পরিবারটির চোখের দিকে তাকিয়ে বলতে পারি যে ইসলামবিদ্বেষ বাস্তব কিছু না?

কানাডার প্রধানমন্ত্রী বলেন, এটি ছিল একটি সন্ত্রাসী হামলা, বিদ্বেষের বশবর্তী হয়ে আমাদের জনগোষ্ঠীর বুকে এই হামলা চালানো হয়েছে। দীর্ঘদিন পর অনেক পরিবার সন্ধ্যায় মুক্ত বাতাসে হাঁটা উপভোগ করতে বেরিয়েছে উল্লেখ করে ট্রুডো বলেন, কিন্তু অন্যান্য রাতের মতো এই পরিবার আর কখনও বাড়ি ফিরবে না। তাদের জীবন কেড়ে নেওয়া হয়েছে নৃশংস, কাপুরুষোচিত ও নির্লজ্জ সহিংসতার মাধ্যমে। এটি কোনও দুর্ঘটনা ছিল না। রবিবার যা ঘটেছে তাতে ক্ষুব্ধ কানাডার নাগরিকরা। অনেক কানাডীয় মুসলিম আতঙ্কিত।

/এমপি/

সম্পর্কিত

কিউবায় আটক বিক্ষোভকারীদের মুক্তি দাবি ইউরোপীয় ইউনিয়নের

কিউবায় আটক বিক্ষোভকারীদের মুক্তি দাবি ইউরোপীয় ইউনিয়নের

অ্যাসাঞ্জের নাগরিকত্ব বাতিল করলো ইকুয়েডর

অ্যাসাঞ্জের নাগরিকত্ব বাতিল করলো ইকুয়েডর

ক্যাপিটলে হামলার লোমহর্ষক বর্ণনা দিলেন ৪ পুলিশ সদস্য

ক্যাপিটলে হামলার লোমহর্ষক বর্ণনা দিলেন ৪ পুলিশ সদস্য

টিকা নিলেও সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা, মাস্ক পরার পরামর্শ সিডিসি’র

টিকা নিলেও সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা, মাস্ক পরার পরামর্শ সিডিসি’র

৭৮ বছর বয়সে টিকটকে ভাইরাল

আপডেট : ৩১ জুলাই ২০২১, ০৭:৪০

বর্তমানে তরুণ-তরুণীদের কাছে বেশ জনপ্রিয় ভিডিও শেয়ারিং অ্যাপ টিকটক। নানা ধরনের ভিডিও তৈরি করে টিকটকে শেয়ার করে ভাইরাল হন অনেকেই। কিন্তু এবার ভাইরাল হলেন নেপালের ৭৮ বছর বয়সী কৃষ্ণা কুমারী তিওয়ারি।

টিকটকে নাচের ভিডিওর কারণেই জনপ্রিয় হয়েছেন তিওয়ারি। অনেকদিন ধরে নিজের মধ্যে চেপে রাখা ইচ্ছা প্রকাশ করতে পেরে এখন দারুণ খুশি এই বৃদ্ধা।

সম্প্রতি তার নাচের ভিডিও ১ কোটি ৮০ লাখেরও বেশি মানুষ দেখেছে এবং এতে কমেন্ট পড়েছে প্রায় ৬৫ হাজার। তিনি বলেন, ‘নিজের ইচ্ছাকে সব সময় নিয়ন্ত্রণে রেখেছি। কারণ আমি কখনও সমাজের ক্রোধের মুখে পড়তে চাইনি। এখন আমার সাথে কী হচ্ছে জানি না। তবে আমি সব সময় নাচতে চাই, এতে আমাকে কেউ বাধা দেয় না। আমার সন্তানও আনন্দ পায়’।

প্রতিবেশী ১৯ বছর বয়সী সুনিতা বানিয়া কৃষ্ণা কুমারীর নাচের ভিডিওগুলো রেকর্ড করেন এবং টিকটক অ্যাকাউন্টে আপলোড করে দেন। প্রতিবেশী কারো বাড়িতে বিয়ে অথবা অন্য কোন অনুষ্ঠান থাকলে নাচার জন্য নিয়ে যাওয়া হয় কৃষ্ণা কুমারীকে।

/এলকে/

সম্পর্কিত

১৬০ ফুট উঁচু থেকে পড়ে টিকটকার তরুণীর মৃত্যু

১৬০ ফুট উঁচু থেকে পড়ে টিকটকার তরুণীর মৃত্যু

পঞ্চমবারের মতো নেপালের প্রধানমন্ত্রী দেউবা

পঞ্চমবারের মতো নেপালের প্রধানমন্ত্রী দেউবা

দেউবাকে প্রধানমন্ত্রী করতে নেপালের সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ

দেউবাকে প্রধানমন্ত্রী করতে নেপালের সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ

ভারতকে বাদ দিয়ে দক্ষিণ এশিয়ায় বিকল্প আঞ্চলিক ব্লক তৈরির পথে চীন

ভারতকে বাদ দিয়ে দক্ষিণ এশিয়ায় বিকল্প আঞ্চলিক ব্লক তৈরির পথে চীন

বিরল তুষারপাতে ঢেকে গেলো ব্রাজিল

আপডেট : ৩১ জুলাই ২০২১, ০৭:০২

বিরল তুষারপাত উপভোগ করার সাক্ষী হলো ব্রাজিল। তাপামাত্রা হিমাঙ্কের নিচে নেমে যাওয়ায় তুষারে ঢেকে যায় বহু জায়গা। অসময়ে তুষারপাতে বিভিন্ন অঞ্চলে শ্বৈত্যপ্রবাহ বয়ে যায়।

১৯৬৪ সালের দিকে এমন দৃশ্য দেখতে পায় লাতিন আমেরিকার এই দেশটি। তখন সান্তা ক্যাটরিনা রাজ্যে ৪ দশমিক ৩ ফুট পর্যন্ত তুষার রেকর্ড করা হয়। এবারের আকস্মিক তুষারে অনেককেই পথে নেমে উপভোগ করতে দেখা গেছে। কিন্তু প্রবল ঠাণ্ডায় তা ভোগান্তিতে গড়াতে সময় লাগেনি।

রাস্তায় ঘাট বরফে ঢেকে ব্যাহত হয় যান চলাচল। বুধবার পর্যন্ত দেশটির ৪৩টি শহর প্রবল তুষারপাতে থমকে যায় স্বাভাবিক জীবনযাত্রা। আবহাওয়া পূর্ভবাস বলছে, তাপমাত্রা কমতে থাকায় আরও তুষাপাত হতে পারে। এই পরিস্থিতিতে দেশটির কৃষিখাত ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। কনকনে ঠাণ্ডার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে বাতাস।

১৯৫৭ সাল-এর দিকে এমন তুষারপাত হয় দেশটিতে

দেশটির আবহাওয়া দপ্তর বলছে, আগস্টের শুরু পর্যন্ত এ তুষারপাত চলবে। গ্রোসো দুল সুল, সাও পাওলো, মিনাস গেরেইস ও গোয়াস রাজ্যে তাপমাত্রা আরও কমবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তুষার হওয়া অঞ্চলগুলোর বাসিন্দাদের নিরাপদে চলাচলে পরামর্শ দিয়েছে সরকার।

/এলকে/

সম্পর্কিত

ব্রাজিলে করোনায় এক হাজার গর্ভবতী নারীর মৃত্যু

ব্রাজিলে করোনায় এক হাজার গর্ভবতী নারীর মৃত্যু

দেশে দেশে লকডাউন বিরোধী বিক্ষোভ

দেশে দেশে লকডাউন বিরোধী বিক্ষোভ

টানা হেঁচকি ওঠায় হাসপাতালে ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট

টানা হেঁচকি ওঠায় হাসপাতালে ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট

বাংলাদেশে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা ম্যাচের উন্মাদনা নিয়ে ফ্রান্সের পত্রিকায় নিউজ

বাংলাদেশে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা ম্যাচের উন্মাদনা নিয়ে ফ্রান্সের পত্রিকায় নিউজ

গাদ্দাফির ছেলে জীবিত, প্রেসিডেন্ট হওয়ার ইঙ্গিত!

আপডেট : ৩১ জুলাই ২০২১, ০৫:৩৭

লিবিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী মুয়াম্মার আল-গাদ্দাফির সন্তান সাইফ আল-ইসলাম জীবিত আছেন। সম্প্রতি তিনি মার্কিন সংবাদমাধ্যম নিউ ইয়র্ক টাইমসকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে লিবিয়া এবং নিজের নানা বিষয়ে কথা বলেন। আগামীতে লিবিয়ার নেতৃত্ব দিতে চান বলেও নিজের পরিকল্পনার কথা তুলে ধরেন সাইফ।

দীর্ঘদিন পর আলোচনায় লিবিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী গাদ্দাফির সন্তান সাইফকে নিয়ে। অনেকেই ভেবেছিলেন তিনি আর বেঁচে নেই। কিন্তু সব শঙ্কা উড়িয়ে সম্প্রতি রাজধানী ত্রিপোলির দক্ষিণ-পশ্চিমে নাফুশ পার্বত্যাঞ্চলের জিনতান মালভূমি এলাকায় প্রভাবশালী সংবামাধ্যম নিউ ইয়র্ক টাইমসের কাছ নিজের পরিকল্পনার কথা জানান। গাদ্দাফির ছেলে বেঁচে থাকা এবং তার রাজনীতিতে ফেরার ইচ্ছে নিয়ে শুক্রবারের প্রতিবেদনের পর তোলপাড় নানা মহলে।

সাংবাদিক সাইফকে জিজ্ঞেস করেন, তিনি বন্দী কি না। জবাবে সাইফ বলেন, তিনি এখন মুক্ত এবং রাজনৈতিক ক্ষমতা ফিরে পেতে কাজ করছেন। এক দশক আগে যারা তাঁকে গ্রেপ্তার করেছিল, পরে তারা হতাশ হয়ে পড়ে। একসময় সেই বিপ্লবীরা উপলব্ধি করে, সাইফ তাদের শক্তিশালী মিত্র হতে পারে। সাইফ বলেন, ‘আপনি কল্পনা করতে পারেন? যারা আমাকে বন্দী হিসেবে পাহারা দিয়ে রাখার কথা ছিল, তাঁরা এখন আমার ভালো বন্ধু’।

বাবা গাদ্দাফি হত্যার পর তাকেই লিবিয়ার পরবর্তী উত্তরসূরি ভেবেছিলেন অনেকে। কিন্তু তা হয়ে উঠেনি। গাদ্দাফির সাত সন্তানের মধ্যে হত্যাকাণ্ডের শিকার হন তিনজন। ২০১১ সালে বিদ্রোহীদের হাতে প্রদানমন্ত্রী গাদ্দাফি খুন হওয়ার একদিন পর সাইফও ধরে পড়েন। 

সংবাদমাধ্যমটিকে সাইফ জানিয়েছেন লিবিয়ার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে লড়তে চান। বলেন, ‘আমি দশ বছর ধরে লিবিয়ার জনগণ থেকে দূরে রয়েছি। ধীরে ধীরে ফিরে আসতে হবে। জনগণের মন জয় করতে হবে’।

২০১১ সালে লিবিয়ার একটি মরুভূমি থেকে আটক হন সাইফ। বাবার মৃত্যুর পর ২০১৫ সালে তার বিরুদ্ধে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়। ২০১৭ সালে বিদ্রোহীদের কবল থেকে মুক্তি পাওয়ার পর সাইফকে আর জনসমক্ষে দেখা যায়নি। আন্তর্জাতিক অপরাধী আদালতেও (আইসিসি) যুদ্ধাপরাধের দায়ে অভিযুক্ত সাইফ। তার রাজনীতিতে ফেরার বাঁধা হয়ে দাঁড়াতে পারে আইসিসি।

/এলকে/

সম্পর্কিত

হাইতির নিহত প্রেসিডেন্টের শেষকৃত্যেও গুলির শব্দ

হাইতির নিহত প্রেসিডেন্টের শেষকৃত্যেও গুলির শব্দ

বৌদ্ধ অধ্যুষিত তিব্বতে চীনের প্রেসিডেন্ট!

বৌদ্ধ অধ্যুষিত তিব্বতে চীনের প্রেসিডেন্ট!

ঈদের নামাজ চলাকালীন মালির প্রেসিডেন্টকে হত্যা চেষ্টা

ঈদের নামাজ চলাকালীন মালির প্রেসিডেন্টকে হত্যা চেষ্টা

পশ্চিমাদের চোখ রাঙানি উপেক্ষা, ফের সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট আসাদ

পশ্চিমাদের চোখ রাঙানি উপেক্ষা, ফের সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট আসাদ

ওমান উপকূলে জাহাজে হামলায় ইরান দায়ী: ইসরায়েল

আপডেট : ৩১ জুলাই ২০২১, ০৪:৩০

ওমান উপকূলে ইসরায়েলি ব্যবসায়ীর পরিচালিত জাহাজে হামলার ঘটনায় দুই নাবিক প্রাণ হারিয়েছেন। একজন ব্রিটিশ অন্যজন রোমানিয়ার নাগরিক। ভয়াবহ হামলার সঙ্গে ইরানের সম্পৃকক্তা রয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন ইসরায়েলি পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইয়ার লাপিদ।

বৃহস্পতিবার হামলার শিকার হয় ইসরায়েলি ব্যবসায়ীর পরিচালিত জাহাজটি। ওই ব্যবসায়ীর কোম্পানির তরফে বলা হয়েছে, এটি সন্দেহভাজন ডাকাতির ঘটনা।

জোডিয়াক ম্যানেজমেন্টের টুইটার পোস্টে বলা হয়েছে, ‘ঘটনার সময় জাহাজটি ভারত মহাসাগরের উত্তরে ছিল, এটি দার এস সালাম থেকে ফুজাইরাহ বন্দরের দিকে অগ্রসর হচ্ছিল।’

হামলার বিষয়ে কোম্পানির পক্ষ থেকে ডাকাতির ঘটনা বলা হলেও ইসরায়েলের সরকার সন্দেহ করছে ইরানকে। দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইয়ার লাপিদ এক বিবৃতিতে বলছেন, তেলবাহী জাহাজটিতে হামলার কারণে দুই নাবিক প্রাণ হারিয়েছেন। এ ঘটনায় ইরানের সন্ত্রাসবাদকে দায়ী করছেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, ‘ইরান শুধু ইসরায়েলের জন্যই সমস্যা নয়, তাদের কর্মকাণ্ডে বিশ্বকে অবশ্যই চুপ থাকা উচিত নয়’।  অবশ্য তেল আবিবের এমন অভিযোগে এখনও প্রতিক্রিয়া জানায়নি তেহরান।

জাহাজে হামলার ঘটনায় নিন্দা জানিয়ে মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর বলছে তারা ঘটনাটি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছে। যুক্তরাজ্যের সামুদ্রিক বাণিজ্য পরিচালনাকারী সংস্থাটি জানিয়েছে, এই ঘটনায় তদন্ত শুরু করেছে তারা। 

/এলকে/

সম্পর্কিত

অনির্দিষ্টকাল ইরানের সঙ্গে আলোচনা চলতে পারে না: মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

অনির্দিষ্টকাল ইরানের সঙ্গে আলোচনা চলতে পারে না: মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ইসরায়েলি এজেন্ট আটকের দাবি ইরানের, অস্ত্র উদ্ধার

ইসরায়েলি এজেন্ট আটকের দাবি ইরানের, অস্ত্র উদ্ধার

ইরানের নির্মিত ড্রোন দিয়ে জর্ডানে হামলা

ইরানের নির্মিত ড্রোন দিয়ে জর্ডানে হামলা

অঘোষিত ইরান সফরে কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী

অঘোষিত ইরান সফরে কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ইতালি প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা বাড়লো

আপডেট : ৩১ জুলাই ২০২১, ০২:৫৮

করোনার সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় ভারত, শ্রীলঙ্কা ও বাংলাদেশ থেকে ইতালিতে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়িয়েছে দেশটির সরকার। আগামী ৩০ আগস্ট পর্যন্ত এই তিন দেশের নাগরিকদের জন্য নিষেধাজ্ঞা বাড়ানোর তথ্য নিশ্চিত করেছে রোম বাংলাদেশের দূতাবাস।

ভারতে করোনার সংক্রমণ সম্প্রতি কিছুটা কমে আসলেও সামনে পরিস্থিতি খারাপ হওয়ার আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। করোনার ডেল্টার প্রকোপের পাশাপাশি ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে বহু মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন। দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার আরেক দেশ শ্রীলঙ্কাতেও বাড়ছে সংক্রমণ।

একই পরিস্থিতি বাংলাদেশেও। সংক্রমণের বিস্তার রোধে কঠোর বিধিনিষেধ বহাল থাকলেও মৃত্যু ও আক্রান্তের হার কমছে না। বরং পরিস্থিতি আগের চেয়ে অবনতির দিকে। এমন অবস্থায় এই তিন দেশের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা বাড়িয়েছে ইতালি সরকার। আগামী ৩০ আগস্ট পর্যন্ত দেশটিতে প্রবেশ করতে পারবে না। শুক্রবার ইতালির রোমে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসের এক জরুরি বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানানো হয়েছে।

দূতাবাস জানিয়েছে, ২৯ জুলাই ইতালির স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সই করা নতুন আদেশ অনুযায়ী দেশটিতে করোনা সংক্রমণ রোধে বাংলাদেশ, ভারত ও শ্রীলঙ্কার নাগরিকদের প্রবেশ নিষেধাজ্ঞা আগামী ৩০ আগস্ট পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

তবে, বাংলাদেশি প্রবাসীদের ক্ষেত্রে এ নিষেধাজ্ঞা শিথিলের বিষয়ে দূতাবাস ইতালি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে। এছাড়া বাংলাদেশে আটকে থাকা প্রবাসীদের ইতালিতে ফিরিয়ে আনতে কূটনৈতিক পর্যায়ে আলোচনা অব্যাহত রয়েছে বলে জানা গেছে।

আগামী ৩০ আগস্ট পর্যন্ত নিষেধাজ্ঞা বাড়ালো ইতালি

/এলকে/

সম্পর্কিত

সিএএ বাস্তবায়নে বিলম্বে হতাশ উদ্বাস্তু-মতুয়ারা

সিএএ বাস্তবায়নে বিলম্বে হতাশ উদ্বাস্তু-মতুয়ারা

চিকেনপক্সের মতোই সংক্রামক ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট: সিডিসি

চিকেনপক্সের মতোই সংক্রামক ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট: সিডিসি

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ১৯ কোটি ৭২ লাখ ছাড়িয়েছে

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ১৯ কোটি ৭২ লাখ ছাড়িয়েছে

সংঘর্ষে নিহত নন, তালেবানের হাতে ‘খুন’ হয়েছেন দানিশ সিদ্দিকি

সংঘর্ষে নিহত নন, তালেবানের হাতে ‘খুন’ হয়েছেন দানিশ সিদ্দিকি

সর্বশেষ

৭৮ বছর বয়সে টিকটকে ভাইরাল

৭৮ বছর বয়সে টিকটকে ভাইরাল

বিরল তুষারপাতে ঢেকে গেলো ব্রাজিল

বিরল তুষারপাতে ঢেকে গেলো ব্রাজিল

গাদ্দাফির ছেলে জীবিত, প্রেসিডেন্ট হওয়ার ইঙ্গিত!

গাদ্দাফির ছেলে জীবিত, প্রেসিডেন্ট হওয়ার ইঙ্গিত!

ওমান উপকূলে জাহাজে হামলায় ইরান দায়ী: ইসরায়েল

ওমান উপকূলে জাহাজে হামলায় ইরান দায়ী: ইসরায়েল

সিনহা হত্যা: সাক্ষ্যগ্রহণে থেমে আছে বিচারকাজ

সিনহা হত্যা: সাক্ষ্যগ্রহণে থেমে আছে বিচারকাজ

ইতালি প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা বাড়লো

ইতালি প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা বাড়লো

রুশ সমর্থিত আসাদ বাহিনীর ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় সিরিয়ায় নিহত ১৮

রুশ সমর্থিত আসাদ বাহিনীর ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় সিরিয়ায় নিহত ১৮

৫ আগস্টের আগে কারখানায় যোগ দেওয়া বাধ্যতামূলক নয়: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

৫ আগস্টের আগে কারখানায় যোগ দেওয়া বাধ্যতামূলক নয়: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

ঈদে বিক্রি না হওয়া ‘কালো মানিক’কে নিয়ে বিপাকে খামারি

ঈদে বিক্রি না হওয়া ‘কালো মানিক’কে নিয়ে বিপাকে খামারি

অটোরিকশা থেকে চাঁদা আদায় নিয়ে সংঘর্ষে আহত ১৩

অটোরিকশা থেকে চাঁদা আদায় নিয়ে সংঘর্ষে আহত ১৩

ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রীর বিয়ের আয়োজন করায় বাবার জরিমানা

ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রীর বিয়ের আয়োজন করায় বাবার জরিমানা

ভয়াবহ দাবানলে পুড়ছে তুরস্ক

ভয়াবহ দাবানলে পুড়ছে তুরস্ক

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

কিউবায় আটক বিক্ষোভকারীদের মুক্তি দাবি ইউরোপীয় ইউনিয়নের

কিউবায় আটক বিক্ষোভকারীদের মুক্তি দাবি ইউরোপীয় ইউনিয়নের

অ্যাসাঞ্জের নাগরিকত্ব বাতিল করলো ইকুয়েডর

অ্যাসাঞ্জের নাগরিকত্ব বাতিল করলো ইকুয়েডর

ক্যাপিটলে হামলার লোমহর্ষক বর্ণনা দিলেন ৪ পুলিশ সদস্য

ক্যাপিটলে হামলার লোমহর্ষক বর্ণনা দিলেন ৪ পুলিশ সদস্য

টিকা নিলেও সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা, মাস্ক পরার পরামর্শ সিডিসি’র

টিকা নিলেও সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা, মাস্ক পরার পরামর্শ সিডিসি’র

হাইতির প্রেসিডেন্ট খুনের ঘটনায় নিরাপত্তা প্রধান গ্রেফতার

হাইতির প্রেসিডেন্ট খুনের ঘটনায় নিরাপত্তা প্রধান গ্রেফতার

সত্যি হতে চলেছে ‘মানব সমাজের পতন’ নিয়ে এমআইটি’র ১৯৭২ সালের পূর্বাভাস!

সত্যি হতে চলেছে ‘মানব সমাজের পতন’ নিয়ে এমআইটি’র ১৯৭২ সালের পূর্বাভাস!

টিকা নিয়ে উপহাস করা মার্কিনির করোনায় মৃত্যু

টিকা নিয়ে উপহাস করা মার্কিনির করোনায় মৃত্যু

বৃহস্পতির ‘চাঁদে’ রকেট পাঠাবে নাসা

বৃহস্পতির ‘চাঁদে’ রকেট পাঠাবে নাসা

হাইতির নিহত প্রেসিডেন্টের শেষকৃত্যেও গুলির শব্দ

হাইতির নিহত প্রেসিডেন্টের শেষকৃত্যেও গুলির শব্দ

পেদ্রো কাস্তিলিও: গ্রামীণ স্কুলশিক্ষক থেকে পেরুর প্রেসিডেন্ট

পেদ্রো কাস্তিলিও: গ্রামীণ স্কুলশিক্ষক থেকে পেরুর প্রেসিডেন্ট

© 2021 Bangla Tribune