X
রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১, ১০ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

কমছে না মৃত্যু, রাজশাহী মেডিক্যালে মারা গেলেন আরও ১২ জন

আপডেট : ১৮ জুন ২০২১, ১২:১৯

রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে করোনা ইউনিটে ২৪ ঘণ্টায় আরও ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৭ জুন) সকাল ৮টা থেকে শুক্রবার (১৮ জুন) সকাল ৮টা পর্যন্ত সময়ের মধ্যে তাদের মৃত্যু হয়।

রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, মৃত ১২ জনের মধ্যে ছয় জন করোনা পজিটিভ ছিলেন। আর পাঁচ জন করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা যান। অন্য একজনের নমুনা পরীক্ষায় রিপোর্ট নেগেটিভ হলেও করোনা ইউনিটে তিনিও শ্বাসকষ্টে মারা গেছেন।

করোনা পজিটিভ ছয় জনের মধ্যে রাজশাহীর তিন জন এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জ, নাটোর ও নওগাঁর একজন করে রোগী ছিলেন। উপসর্গে মারা যাওয়া পাঁচ জনের মধ্যে নাটোরের একজন এবং রাজশাহী ও নওগাঁর দুইজন করে রোগী ছিলেন। করোনা নেগেটিভ অবস্থায় মারা যাওয়া অন্য একজনের বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জ।

এদিকে হাসপাতালের করোনা ইউনিটের ৩০৯টি বেডের বিপরীতে শুক্রবার সকাল পর্যন্ত মোট ৩৪৯ জন রোগী ভর্তি ছিলেন। গত ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি হয়েছেন ৪১ জন।

রাজশাহী মেডিক্যালে করোনায় মারা যাওয়াদের বেশিরভাগই ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্ত বলে মনে করছেন রামেক হাসপাতালের পরিচালক বিগ্রেডিয়ার শামীম ইয়াজদানী। তিনি বলেন, মৃতদের বেশিরভাগেরই চিকিৎসাকালে অবস্থা খারাপ থাকছে। তাদের শারীরিক সমস্যা গতবছরের করোনার লক্ষণের চেয়ে আলাদা।

হাসপাতালে গ্রামের রোগী বাড়ছে উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, বর্তমানে রামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন করোনা রোগীর ৪০ শতাংশই গ্রামাঞ্চলের। কারণ হিসেবে আমরা দেখছি- গ্রামের মানুষের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি কম মানা, অবাধে সব জায়গায় চলাচল, মাস্ক না পরাসহ অন্য কারণে সংক্রমণ ও অসুস্থ হয়ে ভর্তির সংখ্যা বেড়েছে।

এদিকে মৃত্যু ও সংক্রমণ না কমায় রাজশাহী সিটিতে লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে।

/টিটি/

সম্পর্কিত

ঢাকার পথে ভারত থেকে আসা অক্সিজেন

ঢাকার পথে ভারত থেকে আসা অক্সিজেন

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফাঁকা

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফাঁকা

ঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীর চাপ

ঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীর চাপ

টেস্ট করাতে হাসপাতালে রোগীর চাপ 

টেস্ট করাতে হাসপাতালে রোগীর চাপ 

‘রোহিঙ্গা’ সম্বোধনে পিটিয়ে হত্যা, প্রতিবাদে বিক্ষোভ

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ১৯:২৮

দিনাজপুরের হিলিতে ‘রোহিঙ্গা’ বলে সম্বোধন করায় ইলিয়াস হোসেন (৩৪) নামের এক মাইক্রোবাসচালককে পিটিয়ে হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেছেন এলাকাবাসী। একই সঙ্গে ইলিয়াসের হত্যাকারী সাফিন ও লাবুসহ অন্যদের গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন তারা। অন্যথায় বড় ধরনের কর্মসূচি দেওয়ার হুঁশিয়ারি দেন।

রবিবার (২৫ জুলাই) সকালে বাংলাহিলি মাইক্রোবাসচালক সমিতি ও স্থানীয় এলাকাবাসীর আয়োজনে হিলি স্থলবন্দরের চারমাথা মোড় থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে একই স্থানে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন পালন করেন তারা। মানববন্ধনে বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড হাতে মাইক্রোবাসচালক ও এলাকাবাসী অংশ নেন। এ সময় সমিতির নেতারাও উপস্থিত ছিলেন।

মানববন্ধনে ইলিয়াসের ছেলে সজিব বলেন, আমার বাবার হত্যাকারীদের ফাঁসি চাই। তারা আমার বাবাকে নির্মমভাবে হত্যা করলো। এখন আমাদের কে দেখবে। বাবার স্বপ্ন ছিল, আমাকে পুলিশ অফিসার বানাবে, স্বপ্ন ভেঙে গেলো। আমার এক ছোট বোন আছে। কে নেবে আমাদের দায়িত্ব?

ইলিয়াসের ভাই রুহুল হোসেন ও আব্দুর নূর জানান, বিনা দোষে তারা ইলিয়াসকে নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যা করেছে। তাকে কথা বলার সুযোগ দেয়নি। ঈদের সময় যেখানে আনন্দ করার কথা; সেখানে কবরে শায়িত রয়েছে। তার ছোট দুই ছেলে ও মেয়ে আছে। এখন তাদের কে দেখবে। আমরা চাই, লাবু ও শাফিনকে দ্রুত গ্রেফতার করা হোক।

তাদের আন্দোলনে একাত্মতা জানিয়ে হাকিমপুর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান শাহিনুর রেজা শাহীন বলেন, ইলিয়াসের হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। হত্যাকাণ্ডে যারা তাদের সহযোগিতা করেছে তাদেরও আইনের আওতায় আনার দাবি জানাই।

হাকিমপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফেরদৌস ওয়াহিদ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে ইলিয়াসের লাশ বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। ওই ঘটনায় পাঁচ জনকে আসামি মামলা করেছে নিহতের পরিবার। আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে। তবে ঘটনার পর থেকে আসামিরা পলাতক। আমরা তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চালাচ্ছি।

প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার হিলির বৈগাম এলাকার বাসিন্দা আকতারুজ্জামানকে ‘রোহিঙ্গা’ বলে সম্বোধন করায় তিনি ও তার স্বজনরা ইলিয়াসকে মারধর করে স্থলবন্দরের চারমাথা মোড়ে ফেলে রেখে যান। শনিবার সকালে বিরামপুর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। ইলিয়াস হিলির পাইকপাড়া গ্রামের মৃত মহসিন আলীর ছেলে। হিলি এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে মাইক্রোবাস চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করতেন।

/এএম/

সম্পর্কিত

৬ দিন পর হিলি দিয়ে আমদানি-রফতানি শুরু

৬ দিন পর হিলি দিয়ে আমদানি-রফতানি শুরু

পাথর শ্রমিকদের জালে ২৮ কেজির বাঘাইড়

পাথর শ্রমিকদের জালে ২৮ কেজির বাঘাইড়

পাইকার না আসায় চামড়া নিয়ে বিপাকে হিলির ব্যবসায়ীরা

পাইকার না আসায় চামড়া নিয়ে বিপাকে হিলির ব্যবসায়ীরা

পুকুরে ভাসছিল দুই শিশুর মরদেহ

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ১৮:৫০

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার সুহিলপুর গ্রামের পুকুর থেকে তাবাসসুম আক্তার (৪) ও উমর মিয়া (৬) নামে দুই শিশুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। রবিবার (২৫ জুলাই) দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমরানুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

উমর সুহিলপুর গ্রামের মানিক মিয়ার ছেলে এবং তাবাসসুম একই গ্রামের মহসিন মিয়ার মেয়ে।

সুহিলপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আজাদ হাজারী আঙ্গুর জানান, দুপুরে ওমর ও তাবাসসুম বাড়ির উঠানে খেলছিল। হঠাৎ করে তারা সেখান থেকে হারিয়ে যায়। দীর্ঘক্ষণ খোঁজাখুঁজি করে বাড়ির অদূরে একটি পুকুরে তাদের মরদেহ ভাসতে দেখে স্থানীয়রা লাশ উদ্ধার করেন।

 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

চট্টগ্রামে করোনায় মৃত অধিকাংশের বয়স ষাটোর্ধ্ব

চট্টগ্রামে করোনায় মৃত অধিকাংশের বয়স ষাটোর্ধ্ব

টেস্ট করাতে হাসপাতালে রোগীর চাপ 

টেস্ট করাতে হাসপাতালে রোগীর চাপ 

লকডাউনেও নৌ পথে ডিজে পার্টি

লকডাউনেও নৌ পথে ডিজে পার্টি

নুডলস কিনতে গিয়ে নিখোঁজের ৫ দিন পর মিললো শিশুর লাশ

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ১৮:৩৯

হবিগঞ্জের মাধবপুরে ঈদের দিন নুডলস কিনতে গিয়ে নিখোঁজ হয় তাহমিনা আক্তার লিজা (১০)। এর পাঁচ দিন পর রবিবার (২৫ জুলাই) দুপুরে ভারতীয় সীমান্ত এলাকা সংলগ্ন একটি জঙ্গল থেকে তার অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

স্থানীয়রা জানায়, উপজেলার ধর্মঘর ইউনিয়নের আইলাবই গ্রামের সাগর আলীর মেয়ে লিজা। ঈদের দিন সকালে দোকানে নুডলস কিনতে বের হয়। পরে আর বাড়ি ফেরেনি। এ ঘটনায় লিজার মা সেলিনা আক্তার গত বৃহস্পতিবার মাধবপুর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন। 

রবিবার দুপুরে স্থানীয় এক নারী জঙ্গলে লাকড়ি কুড়াতে গেলে অর্ধগলিত লাশ পড়ে থাকতে দেখে চিৎকার শুরু করলে এলাকাবাসী পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। খবর পেয়ে হবিগঞ্জের সহকারী পুলিশ সুপার (মাধবপুর সার্কেল) মহসিন আল মুরাদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। 

সাগর আলীকে তালাক দিয়ে আইলাবই গ্রামের রুস্তম আলীর ছেলে মনসুর আলীকে বিয়ে করেন সেলিনা আক্তার। পরে মনসুর আলী সেলিনাকে তালাক দেন। এরপর সৌদি আরব যান সেলিনা। দেশে ফিরে মামার বাড়িতে মেয়েকে নিয়ে বসবাস শুরু করেন। 

সেলিনা আক্তার বলেন, মনসুর আলী তার কাছ থেকে অনেক টাকা-পয়সা নিয়ে আত্মসাৎ করেছেন। লিজাকে তিনিই হত্যা করতে পারেন বলে তার ধারণা। 

মাধবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রাজ্জাক জানান, শিশুটির মৃত্যুর ঘটনা তদন্ত করা হচ্ছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে। 

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

খেলায় লাল কার্ড দেখানো নিয়ে সংঘর্ষে আহত অর্ধশতাধিক

খেলায় লাল কার্ড দেখানো নিয়ে সংঘর্ষে আহত অর্ধশতাধিক

মাইকে ঘোষণা দিয়ে ২ গ্রামবাসীর সংঘর্ষ

মাইকে ঘোষণা দিয়ে ২ গ্রামবাসীর সংঘর্ষ

নিখোঁজের দুই দিন পর পর্যটকের লাশ উদ্ধার

নিখোঁজের দুই দিন পর পর্যটকের লাশ উদ্ধার

বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, গ্রেফতার ৩

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ১৯:০০

গাজীপুরের টঙ্গীতে খাওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে নিজ ভাইয়ের বন্ধুদের বিরুদ্ধে বুদ্ধি প্রতিবন্ধী এক কিশোরীকে (১৫) সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় পুলিশ অভিযুক্ত তিন জনকে গ্রেফতার করেছে। রবিবার সকাল সাড়ে ৯টায় টঙ্গীর আউচপাড়া থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (জিএমপির) টঙ্গী পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গ্রেফতারকৃতরা হলো– নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার বাঁশগাড়ী গ্রামের হানিফ মিয়ার ছেলে রফিকুল ইসলাম ওরফে রফিক (১৯), চাঁদপুরের হাজিগঞ্জ উপজেলার বইসিক গ্রামের আবু বক্কর সিদ্দিকের ছেলে নাঈম শেখ (১৯) ও শেরপুরের নকলা উপজেলার ধনাকুশা (নদীর পাড় টংগের বাসা) গ্রামের আব্দুল গনির ছেলে মনিরুল ইসলাম (১৮)। অভিযুক্তরা  গাজীপুরের টঙ্গী পশ্চিম থানার কাঁঠালদিয়া কলাবাগান এলাকায় থাকে। 

ওসি জানান, ঝালকাঠির কাঁঠালিয়া উপজেলার লেবুনিয়া গ্রামের এক ব্যক্তি বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরী মেয়েসহ পরিবার নিয়ে টঙ্গীর মধ্য আউচপাড়ার সফিউদ্দিন রোড সংলগ্ন মাহবুবের বাসায় ভাড়া থাকেন। আসামিরা শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় ওই বাসার গেটে যায়। এ সময় কিশোরীকে তার ভাইয়ের বন্ধু রফিক টঙ্গী কলেজ গেটের একটি হোটেলে খাওয়ানোর কথা বলে একটি রিকশায় ওঠায়। পরে বড় দেওড়া এলাকার নান্দুর মণ্ডল রোডের জনৈক মোশারফের বাড়ির ভাড়াটিয়া কাউসারের বাসায় নিয়ে যায় তাকে। সেখানে রফিক ও তার দুই সহযোগী মনিরুল ও নাঈম কিশোরীর মুখ চেপে ধরে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। ধর্ষণের পর তারা একটি রিকশায় উঠিয়ে মেয়েটিকে বাসায় পাঠিয়ে দেয়। সে বাসায় এসে ঘটনা জানালে তার বাবা বাদী হয়ে টঙ্গী পশ্চিম থানায় ওই তিন জনকে অভিযুক্ত করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা (নং ২৪) দায়ের করেন। 

 

/এমএএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

১৫ লাখেও ‘শাকিব খান’ ‘ডিপজল’কে বিক্রি করেননি জিসান

১৫ লাখেও ‘শাকিব খান’ ‘ডিপজল’কে বিক্রি করেননি জিসান

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফাঁকা

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফাঁকা

ঢাকার পথে ভারত থেকে আসা অক্সিজেন

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ১৮:০০

ভারত থেকে আসা ২০০ মেট্রিক টন তরল মেডিক্যাল অক্সিজেন (এলএমও) সিরাজগঞ্জ বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম রেলওয়ে স্টেশনে পৌঁছানোর পর থেকেই খালাসের কাজ চলছে। এরমধ্যে একটি ট্যাংকলরি ২০ টন তরল অক্সিজেন নিয়ে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে গেছে।

রবিবার (২৫ জুলাই) বিকাল পৌনে ৪টার দিকে বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম রেলওয়ে স্টেশন থেকে ট্যাংকলরিটি নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে অবস্থিত সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্ল্যান্টের উদ্দেশে ছেড়ে যায়। বাকিগুলো পর্যায়ক্রমে অক্সিজেন নিয়ে যাবে বলে জানিয়েছেন লিন্ডের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক ও প্রশাসন বিভাগের ব্যবস্থাপক সুফিয়া আক্তার ওহাব। 

এর আগে ভারতের ঝাড়খণ্ড প্রদেশের জামশেদপুর টাটানগর থেকে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে আমদানি করা ২০০ মেট্রিক টন তরল অক্সিজেন শনিবার (২৪ জুলাই) রাত ১০টার দিকে বেনাপোল বন্দরে প্রবেশ করে। বেনাপোল বন্দরে আমদানি সংক্রান্ত আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করে ১০টি কনটেইনারবাহী অক্সিজেন এক্সপ্রেস রওনা দেয়। আজ সকাল ৭টায় ঈশ্বরদী স্টেশন হয়ে বেলা পৌনে ১১টার দিকে বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম রেলওয়ে স্টেশনে পৌঁছায়।

বাকিগুলো পর্যায়ক্রমে অক্সিজেন নিয়ে যাবে

এ সময় সিরাজগঞ্জের জেলা প্রশাসক ড. ফারুক আহাম্মদ, সিরাজগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. রামপদ রায়, লিন্ডের সুফিয়া আক্তার ওহাব, গ্যাস বিভাগের বিক্রয় ও বিপণন শাখার মহাব্যবস্থাপক নুরুর রহমান, বঙ্গবন্ধু পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মোসাদ্দেক হোসেন, স্টেশন মাস্টার মো. ইসমাইল হোসেনসহ সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসন, রেলওয়ে ও রেলওয়ে পুলিশ, পুলিশ, স্বাস্থ্য বিভাগ ছাড়াও অন্যান্য বিভাগের কর্মকর্তা কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। 

সুফিয়া আক্তার ওহাব বলেন, আমরা ভালোভাবে ২০০ টন অক্সিজেন নিয়ে এসে এই অবধি পৌঁছেছি। সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসনসহ সবাই আন্তরিক সহযোগিতা করেছেন। এছাড়া লিন্ডে চেষ্টা করছে করোনাকালীন অক্সিজেনের যে চাহিদা বেড়েছে তার যতটুকু সম্ভব জোগান দিতে। 

নুরুর রহমান জানান, যেহেতু প্রতিটি ট্যাংকলরিতে ২০ টন করে মোট ২০০ টন তরল অক্সিজেন লোড হয়ে ঢাকায় যাবে, সেক্ষেত্রে অক্সিজেনবাহী প্রতিটি ট্যাংকলরি লোড হতে দুই ঘণ্টার মতো সময় লাগার কথা। তবে চাপ কম থাকায় প্রায় চার ঘণ্টার মতো সময় লাগছে। যেহেতু দুইটার বেশি একসঙ্গে লোড করা যাচ্ছে না, সেক্ষেত্রে সম্পূর্ণ অক্সিজেন আনলোড করতে পর্যায়ক্রমে পাঁচবারে অন্তত ২০ ঘণ্টা সময় লাগবে।

রাজিব দেবনাথ বলেন, স্টেশনের সামনের দিকে জায়গা কম থাকায় আমরা একসঙ্গে দুইটার বেশি ট্যাংকলরিতে লোড করতে পারছি না। তাই ১০টি ট্যাংকলরিতে লোড করতে অনেক সময় লাগবে। যদি অক্সিজেনবাহী ট্রেনের বাল্ব বক্স (অক্সিজেন আনলোড মেশিন) স্টেশনের সামনে না হয়ে উল্টো দিকে থাকতো, তাহলে একসঙ্গে সবগুলোই লোড করা সম্ভব হতো। 

সিরাজগঞ্জের সিভিল সার্জন রামপদ রায় বলেন, এটা আমাদের করোনাকালীন চিকিৎসা সেবায় অক্সিজেনের যে সংকট তা অনেকাংশেই লাঘব করবে। এবার আসা শুরু হলো, এখন পর্যায়ক্রমে ভারত থেকে অক্সিজেন আসতেই থাকবে। এছাড়া এখান থেকে ঢাকায় নেওয়ার পরে সারাদেশের চাহিদা অনুযায়ী স্বাস্থ্য বিভাগ বণ্টন করবে বলেও জানান এই কর্মকর্তা। 

জেলা প্রশাসক ড. ফারুক আহাম্মদ বলেন, করোনার এই ক্রান্তিলগ্নে ২০০ টন অক্সিজেন দেশে আসাটা আমাদের অনেক বড় অর্জন। যেহেতু এবারই ট্রেনযোগে এনে সিরাজগঞ্জে প্রথম ভারত থেকে আসা অক্সিজেন খালাস হলো, তাই এখান থেকে আবার লোড ট্যাংকারে করে ঢাকায় যাবে। পরবর্তীতে আমরা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে দেখবো এটা সরাসরি ঢাকায় নেওয়া যায় কিনা। তাহলে আরও সময় বাঁচবে।

/এসএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

চট্টগ্রামে করোনায় মৃত অধিকাংশের বয়স ষাটোর্ধ্ব

চট্টগ্রামে করোনায় মৃত অধিকাংশের বয়স ষাটোর্ধ্ব

লকডাউনেও নৌ পথে ডিজে পার্টি

লকডাউনেও নৌ পথে ডিজে পার্টি

বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম স্টেশনে ভারত থেকে আসা অক্সিজেন

বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম স্টেশনে ভারত থেকে আসা অক্সিজেন

সর্বশেষ

‘রোহিঙ্গা’ সম্বোধনে পিটিয়ে হত্যা, প্রতিবাদে বিক্ষোভ

‘রোহিঙ্গা’ সম্বোধনে পিটিয়ে হত্যা, প্রতিবাদে বিক্ষোভ

স্ত্রী-মেয়েকে শ্বাসরোধে হত্যা: বাবার বিরুদ্ধে আরেক মেয়ের জবানবন্দি

স্ত্রী-মেয়েকে শ্বাসরোধে হত্যা: বাবার বিরুদ্ধে আরেক মেয়ের জবানবন্দি

সচিবালয়ে সুনসান নীরবতা

সচিবালয়ে সুনসান নীরবতা

প্রত্যাশা পূরণ করতে পারলেন না সাকিব

প্রত্যাশা পূরণ করতে পারলেন না সাকিব

ডেঙ্গুবিরোধী অভিযানে দেড় লাখ টাকা জরিমানা

ডেঙ্গুবিরোধী অভিযানে দেড় লাখ টাকা জরিমানা

নাঈম ফিরলেও রানের চাকা সচল রেখেছেন সৌম্য-সাকিব

নাঈম ফিরলেও রানের চাকা সচল রেখেছেন সৌম্য-সাকিব

পুকুরে ভাসছিল দুই শিশুর মরদেহ

পুকুরে ভাসছিল দুই শিশুর মরদেহ

সরকারি ৭ হাসপাতালে আইসিইউ ফাঁকা নেই

সরকারি ৭ হাসপাতালে আইসিইউ ফাঁকা নেই

কারিগরিতে পদোন্নতি

কারিগরিতে পদোন্নতি

লকডাউনের বিরোধিতাকারীদের ‘স্বার্থপর’ বললেন অস্ট্রেলীয় প্রধানমন্ত্রী

লকডাউনের বিরোধিতাকারীদের ‘স্বার্থপর’ বললেন অস্ট্রেলীয় প্রধানমন্ত্রী

বিনা চার্জে বিকাশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ফি

বিনা চার্জে বিকাশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ফি

নুডলস কিনতে গিয়ে নিখোঁজের ৫ দিন পর মিললো শিশুর লাশ

নুডলস কিনতে গিয়ে নিখোঁজের ৫ দিন পর মিললো শিশুর লাশ

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ঢাকার পথে ভারত থেকে আসা অক্সিজেন

ঢাকার পথে ভারত থেকে আসা অক্সিজেন

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফাঁকা

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফাঁকা

ঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীর চাপ

ঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীর চাপ

টেস্ট করাতে হাসপাতালে রোগীর চাপ 

টেস্ট করাতে হাসপাতালে রোগীর চাপ 

খুলনা বিভাগে বেড়েছে শনাক্ত ও মৃত্যু

খুলনা বিভাগে বেড়েছে শনাক্ত ও মৃত্যু

বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম স্টেশনে ভারত থেকে আসা অক্সিজেন

বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম স্টেশনে ভারত থেকে আসা অক্সিজেন

রংপুরে প্রথম ত্বীন চাষ, সাত মাসে লাখ টাকা আয়

রংপুরে প্রথম ত্বীন চাষ, সাত মাসে লাখ টাকা আয়

ময়মনসিংহ মেডিক্যালের করোনা ইউনিটে বাড়লো ২৪ শয্যা

ময়মনসিংহ মেডিক্যালের করোনা ইউনিটে বাড়লো ২৪ শয্যা

© 2021 Bangla Tribune