X
শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

‘তাইনর বাপে দিচে টিনের ঘর, তাইনে দিচে পাকা ঘর'

আপডেট : ১৮ জুন ২০২১, ২৩:১০

‘তাইনর বাপে (বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান) দিচে টিনের ঘর, তাইনে (প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা) দিচে পাকা ঘর। তাইনর বাপ মানসেরে কইতো, ছনের ঘরে থাকবা ক্যান? টিনের ঘরে থাকবা তোমরা। আর তাইনে কয় আমার মানুষ থাকবো পাকা ঘরে।’

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সদরের জাঙ্গাল গ্রামের ৯০ বছর বয়সী জিল্লর মিয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় দুই শতক জায়গাসহ একটি পাকা ঘর পাওয়ার অনুভূতি প্রকাশ করেন ঠিক এভাবেই। বৃদ্ধ জিল্লর মিয়ার মতো আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর পাচ্ছেন আরও ২০ গৃহহীন পরিবার। রবিবার আনুষ্ঠানিকভাবে ঘরের চাবি বুঝে পাবেন তারা।

দ্বিতীয় পর্যায়ে রবিবার (২০ জুন) সারাদেশের ৫৩ হাজার ৩৪০টি হতদরিদ্র ও গৃহহীন পরিবার পাচ্ছে উপহারের এই পাকা ঘর। এ পর্যায়ে জাঙ্গাল গ্রামের এই ২০ পরিবারেরও হচ্ছে মাথা গোঁজার ঠিকানা। এরইমধ্যে নির্মাণকাজও শেষ হয়েছে ঘরগুলোর। যারা ঘর পাচ্ছেন, আশ্রয়ণ প্রকল্পে গিয়ে বেশিরভাগকে দেখা গেলো নতুন ঘরে কিংবা আশপাশেই। আনুষ্ঠানিক হস্তান্তর না হলেও এরইমধ্যে নিজের স্বপ্নের ঠাঁইটুকু ঘুরে-ফিরে দেখছেন। মনে মনে হয়তো নানান স্বপ্নের বুননে সাজিয়ে তুলছেন ঘরের প্রতিটি কোণা। তাদের সঙ্গে আলাপকালে মিললো ঠিকানা পাওয়ার উচ্ছ্বাস আর প্রাপ্তির ভালো লাগা।

স্থানীয় বাজারে একসময় ডিম বিক্রি করতেন জিল্লর মিয়া। বয়সের ভারে ন্যুব্জ জিল্লর এখন কায়িক শ্রম দিতে পারেন না। আশ্রয়ণ প্রকল্পে ঘর পাওয়ার অনুভূতি জানতে চাইলে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে তিনি বলেন, আজকে আমার এই আনন্দ আল্লাহ ছাড়া তোমাদের কাউকে বোঝাতে পারবো না।

নিজেদের নতুন ঘরে উঠে চোখে-মুখে আনন্দের ঝিলিক দুই বোনের

নিজেকে কাঙাল দাবি করে তিনি বলেন, স্ত্রী, তিন ছেলে ও দুই মেয়ে নিয়ে তার সংসার। সংসারের টানাপোড়েনে পাকা ঘর তৈরির স্বপ্ন দেখেননি কখনোই। আর ভাড়া বাসাতেও থাকার সামর্থ্য হয়ে ওঠেনি। কখনও ছনের ঘর, কখনও পাটের হোগলা দিয়ে ঘর বানিয়ে ফুটপাতেই কেটেছে জীবনের বেশিরভাগ সময়। তার কথায়, জীবনের শেষ পর্যায়ে এসে শেখ হাসিনার বদৌলতে পাকা ঘরে থাকতে পারছেন। প্রধানমন্ত্রীর এই উপকারের কথা কখনও ভুলবেন না তিনি। ভবিষ্যৎ প্রজন্মকেও প্রধানমন্ত্রী ও তার পরিবারের জন্য দোয়া করার নসিয়ত তার।

শেষ বয়সে এসে নিরাপদ, আরামদায়ক আবাস পাওয়ার আনন্দের ঝিলিক দেখা গেল জিল্লরের স্ত্রী মোছা. আলমচার চোখে-মুখে।

পাশের আরেক ঘরে দেখা মিললো তিন কিশোরীর। এরইমধ্যে নতুন ঘরে বিছানাও পেতেছে তারা। বিছানার ওপরেই বসে তারা গল্প করছিল। তাদের মধ্যে সবার বড় জনের নাম অর্ণা রানী। সে স্থানীয় রামকানাই হাইস্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্রী। তার ছোট বোন অন্বেষা একই স্কুলের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী। নতুন ঘর দেখতে এসেছে অন্বেষার বান্ধবীও। এর আগে ভাড়া বাসায় থাকার অভিজ্ঞতা রয়েছে তাদের। তবে সেখানে বিদ্যুতের কোনও ব্যবস্থা ছিল না। এবার নিজেদের ঝকঝকে নতুন বাসায় বিদ্যুতের ব্যবস্থাও আছে। এই আনন্দে আত্মহারা তারা। অর্ণা বললো, আমাদের এখন নিজেদের পাকা ঘর আছে, বিদ্যুৎও আছে। ভাবতেই অন্য রকম লাগছে। আমরা এখন থেকে বিদ্যুতের আলোয় পড়াশোনা করতে পারবো, টেলিভিশন দেখতে পারবো। খুবই আনন্দ লাগছে।

তাদের মা বিথিকা রানী বলেন, ভাড়া বাসায় অনেক কষ্টে দিন কেটেছে। একটি নিজের ঘর পেয়ে অনেক ভালো লাগছে। সব সুযোগ-সুবিধা আছে এই ঘরে। মেয়েদের নিয়ে নিজেদের পাকা ঘরে নিরাপদে থাকবো। খুবই ভালো লাগছে।

জাঙ্গাল গ্রামে স্থায়ী ঠিকানা পেয়েছেন শফিকুল ইসলাম নামে এক রিকশাচালকও। তিনি জানালেন, স্ত্রী ঝর্ণাকে নিয়ে একসময়ে যেনতেন উপায়ে কেটেছে জীবন। কখনও ফুটপাতে, কখনও বস্তির ভাড়া ঘরে। নিজের ঘর বলতে ছিল না কিছুই। পাকা ঘর পেয়ে বেঁচে থাকার সাহস বেড়েছে। নিজের একটা ঠিকানা হয়েছে। এতে জীবনে নিরাপত্তা, সম্মানবোধ অনেকগুণ বাড়িয়ে দিয়েছে।

শফিক বলেন, আমরা এখন আত্মবিশ্বাসী। ঘর পেয়েছি, জায়গা পেয়েছি, পেয়েছি বিদ্যুৎও। শফিকের স্ত্রী ঝর্ণা বলেন, শেখ হাসিনার জন্য প্রাণভরে দোয়া করি।

প্রসঙ্গত, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে চলতি বছর জানুয়ারিতে প্রথম পর্যায়ে আশ্রয়ণ প্রকল্প-২-এর আওতায় সারাদেশে প্রায় ৭০ হাজার হতদরিদ্র ও গৃহহীন পরিবারকে পাকা ঘর উপহার দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রথম ধাপে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এক হাজার ৯১টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার পায় এ উপহার। দ্বিতীয় ধাপে মোট ৬৮১ ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার পাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর উপহার পাকা ঘর। ‘আশ্রয়ণের অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার’ এই স্লোগান নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় যাদের জমি নেই, ঘর নেই তাদের পুনর্বাসনের জন্য সরকারি খাস জমিতে এসব ঘর নির্মাণ করা হচ্ছে। দুই শতাংশ জমির ওপর দুই কক্ষবিশিষ্ট প্রতিটি আধা পাকা ঘর নির্মাণে ব্যয় হচ্ছে এক লাখ ৯০ হাজার টাকা। সব ঘর একই নকশায় হচ্ছে।

/ইউএস/এমওএফ/

সম্পর্কিত

আগুন নিয়ে খেলবেন না: ভুট্টোকে বঙ্গবন্ধু

আগুন নিয়ে খেলবেন না: ভুট্টোকে বঙ্গবন্ধু

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় মৃত্যু ৭৬, শনাক্ত ৬৯৯৬

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় মৃত্যু ৭৬, শনাক্ত ৬৯৯৬

সিনোফার্মের আরও ৩০ লাখ ডোজ টিকা আসছে রাতে

সিনোফার্মের আরও ৩০ লাখ ডোজ টিকা আসছে রাতে

পিপিপি কনসেপ্ট আমরা এখনও ভালোভাবে নিতে পারিনি: অর্থমন্ত্রী

পিপিপি কনসেপ্ট আমরা এখনও ভালোভাবে নিতে পারিনি: অর্থমন্ত্রী

আগুন নিয়ে খেলবেন না: ভুট্টোকে বঙ্গবন্ধু

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ০৮:০০

(বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত তথ্যের ভিত্তিতে বঙ্গবন্ধুর সরকারি কর্মকাণ্ড ও তার শাসনামল নিয়ে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ করছে বাংলা ট্রিবিউন। আজ পড়ুন ১৯৭৩ সালের ৩০ জুলাইয়ের ঘটনা।)

প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বলেন, প্রেসিডেন্ট ভুট্টোর একগুঁয়েমি মনোভাব- সম্পর্ক স্বাভাবিকীকরণের পথে বাধা সৃষ্টি করছে এবং উপমহাদেশে উত্তেজনা জিইয়ে রাখছে। যুগোস্লাভিয়ায় পাঁচদিন ব্যাপী সরকারি সফর শেষে সন্ধ্যায় বঙ্গবন্ধু এক সাংবাদিক সম্মেলনে ভাষণ দিচ্ছিলেন।

বঙ্গবন্ধু ভুট্টোকে আগুন নিয়ে না খেলে যুক্তি মেনে বাস্তবতা স্বীকার করে নিতে বলেন। উপমহাদেশে সম্পর্ক স্বাভাবিকীকরণের শান্তি প্রতিষ্ঠায় তাঁর দেশের অব্যাহত প্রচেষ্টা চালিয়ে যাওয়ার কথা আবার ঘোষণা করেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী। বঙ্গবন্ধু বলেন, ‘বাংলাদেশে উত্তেজনা হ্রাস এবং উপনিবেশবাদ ও সাম্রাজ্যবাদের শেষ চিহ্নটুকু মুছে ফেলার জন্য কাজ করে যাবো’। বাংলাদেশ বিশ্বের সব দেশের মুক্তি এ শান্তি সংগ্রামে সমর্থন জানাবে বলে তিনি জানান।

১৯৭১ সালে যুদ্ধের ফলে উদ্ভূত মানবিক সমস্যার সমাধানে বাংলাদেশের প্রস্তাবে পাকিস্তান অনুকূল সাড়া না দেওয়ায় বঙ্গবন্ধু দুঃখপ্রকাশ করেন। তিনি বলেন, এদেশ বন্ধুত্ব নীতির ওপর প্রতিষ্ঠিত। জোট নিরপেক্ষ ও অপর দেশের অভ্যন্তরীণ ব্যাপারে হস্তক্ষেপ না করার নীতিতে দৃঢ় আস্থাশীল বাংলাদেশ এবং যুগোস্লাভিয়া বিশ্ব শান্তি স্থাপনে একযোগে কাজ করে যাবে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মার্শাল টিটোর সঙ্গে আলোচনা অত্যন্ত ফলপ্রসূ বলে উল্লেখ করেন। টিটোর বলিষ্ঠ নেতৃত্বের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা প্রকাশ করে তিনি বলেন, এ সফরের কথা তার মনের মণিকোঠায় জ্বলজ্বল করবে।

১৯৭৩ সালের ৩০ জুলাইয়ের পত্রিকার একাংশ বঙ্গবন্ধু অটোয়া যাচ্ছেন

শান্তির সন্ধানে এশিয়ার মহান নেতা প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বেলগ্রেড থেকে এদিন অটোয়ায় যাত্রা করার কথা। ২ আগস্ট থেকে অনুষ্ঠিতব্য কমনওয়েলথ প্রধানমন্ত্রী সম্মেলনে যোগ দেওয়ার উদ্দেশ্যে তিনি সেখানে যাবেন। সম্মেলনের প্রথম পর্যায়ে জোট নিরপেক্ষ দেশগুলোর নেতা ও যুগোস্লাভিয়ার মধ্যে বিশেষ করে দক্ষিণ এশিয়ায় শান্তি প্রতিষ্ঠার পথ নিয়ে কথা বলবেন তিনি। উভয়দলের কাছ থেকে জানা গেছে, শান্তি ও পারস্পরিক স্বার্থের ব্যাপারে উভয়নেতার মতের সম্পূর্ণ মিল রয়েছে।

ভারত-পাকিস্তান বৈঠক মুলতবি

ভারত ও পাকিস্তান বর্তমান আলোচনা মুলতবি রেখে দিল্লিতে নতুন করে আলোচনা অনুষ্ঠানে সম্মত হয়েছে। বর্তমান আলোচনা থেকে উদ্ভূত প্রতিকার বিষয়ে আরও বিবেচনার জন্য আলোচনা সম্ভবত দুই সপ্তাহের জন্য মুলতবি রাখা হয়।

১৯৭৩ সালের ৩০ জুলাইয়ের পত্রিকার একাংশ এদিকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর বিশেষ দূত পিএন হাকসার পাকিস্তানের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে দেখা করেন। ভারতীয় ও পাকিস্তানের প্রতিনিধিদলের মধ্যে যে মতপার্থক্য দেখা দিয়েছে, তা দূর করার উদ্দেশ্যে প্রেসিডেন্টের সঙ্গে দেখা করেন তিনি। গত সাতদিনের আলোচনায় বর্তমানে অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বলে মনে করছিল কূটনীতিক মহল।

বৈঠকের বিস্তারিত কিছু জানা যায়নি। তবে এই বৈঠকে ভারত-পাকিস্তান আলোচনার চূড়ান্ত ফলাফল সম্পর্কে সতর্ক আশাবাদ দেখা দেয়। রাওয়ালপিন্ডি থেকে ইউএনআই-এর খবরে প্রকাশ, দুটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে পাকিস্তানের একগুঁয়েমির কারণে ভারত-পাকিস্তান আলোচনায় অচলাবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। বিষয়টি হচ্ছে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার ও বাংলাদেশে অবস্থানরত পাকিস্তানি নাগরিকদের ফেরত নিয়ে আসা।

আরেকদফা আলোচনা শেষে ভারতীয় প্রতিনিধিদল পাকিস্তান পক্ষকে আভাস দেন যে, বর্তমানে যে লাইনে আলোচনা চলছে তাতে কোনও সুফল পাওয়া যাবে না।

২৪ জুলাই আলোচনা শুরুর পর প্রায় ১৫ ঘণ্টা ব্যাপী আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এটা এখন স্পষ্টতই প্রতীয়মান যে, পাকিস্তান তার অনমনীয় মনোভাব না বদলালে কোনও আশান্বিত লক্ষ্যে পৌঁছানো সম্ভব নয়। এদিন  দু’ঘণ্টা আলোচনার পর ভারতীয় প্রতিনিধিদলের নেতা হাকসার সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা আমাদের অবস্থা আরও সঠিকভাবে উপলব্ধি করতে পারছি।’

 

 

/এফএ/

সম্পর্কিত

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় মৃত্যু ৭৬, শনাক্ত ৬৯৯৬

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় মৃত্যু ৭৬, শনাক্ত ৬৯৯৬

সিনোফার্মের আরও ৩০ লাখ ডোজ টিকা আসছে রাতে

সিনোফার্মের আরও ৩০ লাখ ডোজ টিকা আসছে রাতে

পিপিপি কনসেপ্ট আমরা এখনও ভালোভাবে নিতে পারিনি: অর্থমন্ত্রী

পিপিপি কনসেপ্ট আমরা এখনও ভালোভাবে নিতে পারিনি: অর্থমন্ত্রী

সরকারি ৮ হাসপাতালের আইসিইউতে বেড ফাঁকা নেই

সরকারি ৮ হাসপাতালের আইসিইউতে বেড ফাঁকা নেই

সিনোফার্মের ১০ লাখ ডোজ দেশে পৌঁছেছে

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ২৩:৫১

চীনের সঙ্গে কেনা চুক্তির আওতায় দেশে আরও ১০ লাখ ডোজ সিনোফার্মের টিকা বিমানবন্দরে পৌঁছেছে বলে বাংলা ট্রিবিউনকে জানিয়েছেন ভ্যাকসিন ডেপ্লয়মেন্ট কমিটির সদস্য সচিব ডা. শামসুল হক।

টিকা গ্রহণ করতে তিনি বিমানবন্দরে আছেন জানিয়ে বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ১০ টার কিছু সময় পরে টিকাবহনকারী বিমান বিমানবন্দরে পৌঁছেছে।

এর আগে আজ সন্ধ্যায় চীনের সিনোফার্মের আরও ৩০ লাখ ডোজ টিকা দেশে আসছে বলে জানিয়েছিলেন তিনি।

তারপর স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মাইদুল ইসলাম জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার রাত ১০টা, দিবাগত রাত ১টা ও ৩টায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে টিকা এসে পৌঁছাবে।

টিকা হাতে পাওয়ার পর সেগুলো সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচির কোল্ড স্টোরেজে রাখা হবে বলে জানান ডা. শামসুল হক।

এদিকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের উপ-মহাব্যবস্থাপক তাহেরা খন্দকার জানান, মোট ৩০ লাখ ডোজ কোভিড টিকা দেশে আনতে ২৯ জুলাই  বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স এর অত্যাধুনিক তিনটি ড্রিমলাইনার (একটি বোয়িং ৭৮৭-৯ ও দুইটি বোয়িং ৭৮৭-৮) ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে চীনের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। অত্যন্ত সতর্কতার সঙ্গে প্রয়োজনীয় তাপমাত্রায় বিশেষ ব্যবস্থার মাধ্যমে এসব টিকা দেশে আনার ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। আন্তর্জাতিক এভিয়েশন নীতিমালা ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সুরক্ষানীতি যথাযথভাবে অনুসরণ করে করোনা মহামারীকালীন সময়ে সাশ্রয়ী খরচে টিকা, ভেন্টিলেটর ও অন্যান্য সুরক্ষাসামগ্রী পরিবহন করছে বিমান।  

উল্লেখ্য, সিনোফার্মের দেড় কোটি ডোজ টিকা কিনতে চীনের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে সরকার। তিন মাসের মধ্যে এগুলো দেশে আসবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। এর আগে চুক্তির আওতায় গত ৩ জুলাই দিনে এবং ওইদিন রাতে দুই দফায় ২০ লাখ ডোজ সিনোফার্মের টিকা চীন থেকে দেশে পৌঁছায়। এরপর গত ১৭ জুলাই ১০ লাখ এবং ১৮ জুলাই আরও ১০ লাখ, মোট ২০ লাখ ডোজ টিকা দেশে আসে।

তারও আগে গত ১২ মে পাঁচ লাখ এবং ১৩ জুন ছয় লাখ ডোজ সিনোফার্মের টিকা উপহার হিসেবে বাংলাদেশকে দেয় চীন সরকার।

সেই হিসেবে উপহার এবং কেনা চুক্তির আওতায় মোট ৫১ লাখ ডোজ সিনোফার্মের টিকা দেশে এসেছে। বৃহস্পতিবার রাতে ৩০ লাখ ডোজ হাতে এলে মোট ৮১ লাখ সিনোফার্মের টিকা পাবে বাংলাদেশ।

 

/জেএ/সিএ/এফএএন/

সম্পর্কিত

সিনোফার্মের টিকা ২০ লাখ দেওয়া শেষ 

সিনোফার্মের টিকা ২০ লাখ দেওয়া শেষ 

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় মৃত্যু ৭৬, শনাক্ত ৬৯৯৬

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় মৃত্যু ৭৬, শনাক্ত ৬৯৯৬

সিনোফার্মের আরও ৩০ লাখ ডোজ টিকা আসছে রাতে

সিনোফার্মের আরও ৩০ লাখ ডোজ টিকা আসছে রাতে

২৪ ঘণ্টায় আরও ২৩৯ মৃত্যু

২৪ ঘণ্টায় আরও ২৩৯ মৃত্যু

সিনোফার্মের টিকা ২০ লাখ দেওয়া শেষ 

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ২২:৩৫

দেশে করোনাভাইরাসের টিকাদান কর্মসূচি শুরুর পর এখন পর্যন্ত ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে ১ কোটি ২৮ লাখ ৫০ হাজার ৮৩৪ ডোজ। এর মধ্যে এক ডোজ নিয়েছেন ৮৫ লাখ ২১ হাজার ৩৫০ জন এবং টিকার দুই ডোজ নিয়েছেন ৪৩ লাখ ২৯ হাজার ৪৮৪ জন। এগুলো দেওয়া হয়েছে অক্সফোর্ডের অ্যাস্ট্রাজেনেকার ফর্মুলায় ভারতের সেরাম ইন্সটিটিউটের তৈরি কোভিশিল্ড, চীনের তৈরি সিনোফার্ম, ফাইজার এবং মডার্নার ভ্যাকসিন। বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে পাঠানো টিকাদান বিষয়ক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি থেকে এসব তথ্য জানান যায়। এদিন মোট টিকা দেওয়া হয়েছে ২ লাখ ৫৮ হাজার ৮৫ ডোজ।       

স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়,আজ কোভিশিল্ডের কোনও ডোজ দেওয়া হয়নি। এখন পর্যন্ত কোভিশিল্ড ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ নিয়েছেন ৫৮ লাখ ২০ হাজার ৩৩ জন। আর  দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ৪২ লাখ ৯৮ হাজার ৮৬ জন। স্বাস্থ্য অধিদফতরের পাঠানো তথ্য থেকে আরও জানা যায়, প্রথম ডোজ নেওয়া ৫৮ লাখ ২০ হাজার ৩৩ জনের মধ্যে সাড়ে ১৪ লাখের মতো মানুষের দ্বিতীয় ডোজ নেওয়া নিয়ে তৈরি হয়েছে সংকট। এদের সবাইকেই অক্সফোর্ড অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকারই দ্বিতীয় ডোজ দিতে হবে। কেননা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এখনও দুই কোম্পানির দুই ডোজের টিকা গ্রহণের কোনও সিদ্ধান্ত দেয়নি।

পাশাপাশি আজ ফাইজারের প্রথম ডোজ আজ দেওয়া হয়নি তবে দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ৪০২ জন। আর এখন পর্যন্ত দেওয়া হয়েছে ৫০ হাজার ৯২৫ জনকে।

এছাড়া ২০ লাখ ৬৬ হাজার ৬৫১ ডোজ সিনোফার্মের ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে এখন পর্যন্ত। এর মধ্যে  প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে ২০ লাখ ৩৫ হাজার ৯৪৩ জনকে আর দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হয়েছে ৩০ হাজার ৭০৮ জনকে।

মডার্নার টিকা এখন পর্যন্ত দেওয়া হয়েছে ৬ লাখ ১৫ হাজার ১৩৯ ডোজ, আর আজকে দেওয়া হয়েছে ৬৯ হাজার ৬৮৬ ডোজ।

আর এখন পর্যন্ত নিবন্ধন করেছে ১ কোটি ৪০ লাখ ৯০ হাজার ৩৭৩ জন।

 

/এসও/এফএএন/  

সম্পর্কিত

সিনোফার্মের ১০ লাখ ডোজ দেশে পৌঁছেছে

সিনোফার্মের ১০ লাখ ডোজ দেশে পৌঁছেছে

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় মৃত্যু ৭৬, শনাক্ত ৬৯৯৬

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় মৃত্যু ৭৬, শনাক্ত ৬৯৯৬

সিনোফার্মের আরও ৩০ লাখ ডোজ টিকা আসছে রাতে

সিনোফার্মের আরও ৩০ লাখ ডোজ টিকা আসছে রাতে

২৪ ঘণ্টায় আরও ২৩৯ মৃত্যু

২৪ ঘণ্টায় আরও ২৩৯ মৃত্যু

অবৈধ মজুতদারদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু হবে: খাদ্যমন্ত্রী

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ২১:০৭

বেসরকারিভাবে চাল আমদানির বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন আছে বলে জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার। তিনি জানিয়েছেন, চালের অবৈধ মজুতদারদের বিরুদ্ধে দ্রুতই অভিযান শুরু হবে। 

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) ঢাকায় সরকারি বাসভবন থেকে ‘চালের মূল্য স্থিতিশীল রাখতে করণীয়’ শীর্ষক মতবিনিময় সভায় ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে এসব কথা বলেন খাদ্যমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব মোছাম্মৎ নাজমানারা খানুম, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব তপন কান্তি ঘোষ, ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের মহাপরিচালক বাবলু কুমার সাহা, কৃষি বিপণন অধিদফতরের মহাপরিচালক মোহাম্মদ ইউসুফ, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের মহাপরিচালক মো. আসাদুল্লাহ এবং খাদ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক শেখ মুজিবুর রহমান উপস্থিত ছিলেন। 

খাদ্য মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, এবার পুরো বোরো মৌসুমেই চালের দাম বেশি। কিন্তু চাল উৎপাদনে ঘাটতি নেই, বাজারে পর্যাপ্ত চাল আছে বলে কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে দাবি করা হচ্ছে। কিন্তু চালের দাম কিছুতেই বাগে আসছে না।

মন্ত্রী বলেন, ‘সরকার ভোক্তাদের স্বার্থ রক্ষায় চালের মূল্য স্থিতিশীল রাখতে ইতোমধ্যে পদক্ষেপ নিয়েছে। বাজার মনিটরিং করা হচ্ছে, এটি আরও জোরদার করা হবে। পাশাপাশি অবৈধ মজুতদারদের বিরুদ্ধে দ্রুতই অভিযান শুরু হবে।’

তিনি বলেন, ‘সরকারিভাবে চাল আমদানি হচ্ছে এবং বেসরকারিভাবে চাল আমদানির বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।’ মিল মালিক ও ব্যবসায়ীদের ভোক্তাদের প্রতি মানবিক হওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘অতি মুনাফাখোর ও অবৈধ মজুতদারদের সঙ্গে কোনও আপস করা হবে না।’
সভায় মিল মালিকদের প্রতিনিধি কুষ্টিয়ার আব্দুর রশিদ বলেন, ‘এ বছর ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। কৃষক নায্যমূল্যও পেয়েছে। ধান চালের ব্যবসার সঙ্গে সম্পৃক্ত নন এমন কিছু ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান ধানের অবৈধ মজুত করেছে অধিক মুনাফার আশায়। মনিটরিংয়ের মাধ্যমে এ সকল ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নিতে হবে।’

ব্যবসায়ী প্রতিনিধি এসিআই লিমিটেডের অনুপ কুমার সাহা বলেন, বাংলাদেশে ধানের দাম বেশি হওয়ার কারণে চালের দাম বেশি হচ্ছে। কৃষকের উৎপাদন খরচ কম হলে চালের দামও কমে যাবে। কৃষি পণ্যের উৎপাদন খরচের সঠিক পরিসংখ্যান থাকলে বাজার মনিটরিং সহজ হবে বলেও জানান তিনি। 

/এসআই/এমআর/

সম্পর্কিত

আগুন নিয়ে খেলবেন না: ভুট্টোকে বঙ্গবন্ধু

আগুন নিয়ে খেলবেন না: ভুট্টোকে বঙ্গবন্ধু

সিনোফার্মের ১০ লাখ ডোজ দেশে পৌঁছেছে

সিনোফার্মের ১০ লাখ ডোজ দেশে পৌঁছেছে

সিনোফার্মের টিকা ২০ লাখ দেওয়া শেষ 

সিনোফার্মের টিকা ২০ লাখ দেওয়া শেষ 

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় মৃত্যু ৭৬, শনাক্ত ৬৯৯৬

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় মৃত্যু ৭৬, শনাক্ত ৬৯৯৬

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় মৃত্যু ৭৬, শনাক্ত ৬৯৯৬

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ২১:৪৩

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ২৩৯ জন। এদের নিয়ে সরকারি হিসাবে মোট মারা গেলেন ২০ হাজার ২৫৫ জন। একই সময়ে শনাক্ত হয়েছেন ১৫ হাজার ২৭১ জন। এ নিয়ে দেশে সরকারি হিসাবে মোট শনাক্ত হলেন ১২ লাখ ২৬ হাজার ২৫৩ জন।

স্বাস্থ্য অধিদফতর জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি রোগীর মৃত্যু এবং সবচেয়ে বেশি শনাক্ত হয়েছে ঢাকা বিভাগে। মারা যাওয়া ২৩৯ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগের আছেন ৭৬ জন, চট্টগ্রাম বিভাগের ৫৭ জন, রাজশাহী বিভাগের ১৩ জন, খুলনা বিভাগের ৪৫ জন, বরিশাল ও সিলেট বিভাগের ১৪ জন করে, রংপুর বিভাগের ১১ জন এবং ময়মনসিংহ বিভাগের ৯ জন।

আর শনাক্ত হওয়া ১৫ হাজার ২৭১ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগের ছয় হাজার ৯৯৬ জন, ময়মনসিংহ বিভাগের ৬৮৯ জন, চট্টগ্রাম বিভাগের তিন হাজার ৭৬৮ জন, রাজশাহী বিভাগের ৭৩৫ জন, রংপুর বিভাগের ৭৪৮ জন, খুলনা বিভাগের এক হাজার ১৯ জন, বরিশাল বিভাগের ৬৫৬ জন এবং সিলেট বিভাগের ৬৬০ জন।

এর আগে ২৫ জুলাই স্বাস্থ্য অধিদফতরের বুলেটিনে অধিদফতরের মুখপাত্র অধ্যাপক নাজমুল ইসলাম জানিয়েছিলেন, সংক্রমণ ও মৃত্যুতে এগিয়ে ঢাকা।

জেলাভিত্তিক শনাক্তের হিসাবে ঢাকা জেলা শীর্ষে অবস্থান করছে। আর ঢাকায় ইতোমধ্যে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা চার লাখ ছাড়িয়ে গেছে জানিয়ে তিনি সেদিন বলেছিলেন, তারপরে আছে যথাক্রমে চট্টগ্রাম, কুমিল্লা, সিলেট, বগুড়া, নারায়ণগঞ্জ, খুলনা, ফরিদপুর। সবচেয়ে কম রোগী রাজশাহীতে।

‘জেলাভিত্তিক বিশ্লেষণ ছাড়াও বিভাগভিত্তিক মৃত্যুর হারেও ঢাকা বিভাগ প্রথম। এরপর রয়েছে খুলনা বিভাগ’, বলেন অধ্যাপক নাজমুল ইসলাম।

 

/জেএ/আইএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

আগুন নিয়ে খেলবেন না: ভুট্টোকে বঙ্গবন্ধু

আগুন নিয়ে খেলবেন না: ভুট্টোকে বঙ্গবন্ধু

সিনোফার্মের ১০ লাখ ডোজ দেশে পৌঁছেছে

সিনোফার্মের ১০ লাখ ডোজ দেশে পৌঁছেছে

সিনোফার্মের টিকা ২০ লাখ দেওয়া শেষ 

সিনোফার্মের টিকা ২০ লাখ দেওয়া শেষ 

সিনোফার্মের আরও ৩০ লাখ ডোজ টিকা আসছে রাতে

সিনোফার্মের আরও ৩০ লাখ ডোজ টিকা আসছে রাতে

সর্বশেষ

বন্ধুর জন্য ভিন্ন কিছু

১ আগস্ট বন্ধু দিবসবন্ধুর জন্য ভিন্ন কিছু

আগুন নিয়ে খেলবেন না: ভুট্টোকে বঙ্গবন্ধু

আগুন নিয়ে খেলবেন না: ভুট্টোকে বঙ্গবন্ধু

কাতারে খেজুর উৎসবের পর্দা নামছে আজ

কাতারে খেজুর উৎসবের পর্দা নামছে আজ

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ১৯ কোটি ৭২ লাখ ছাড়িয়েছে

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ১৯ কোটি ৭২ লাখ ছাড়িয়েছে

কিউবায় আটক বিক্ষোভকারীদের মুক্তি দাবি ইউরোপীয় ইউনিয়নের

কিউবায় আটক বিক্ষোভকারীদের মুক্তি দাবি ইউরোপীয় ইউনিয়নের

তিউনিসিয়াকে গণতান্ত্রিক পথে ফেরার আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

তিউনিসিয়াকে গণতান্ত্রিক পথে ফেরার আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

অগ্নিকাণ্ডের ১৫ দিনেও চালু হয়নি আইসিইউ

অগ্নিকাণ্ডের ১৫ দিনেও চালু হয়নি আইসিইউ

মেঘনায় ট্রলারডুবিতে একজনের মৃত্যু, জীবিত উদ্ধার ১১

মেঘনায় ট্রলারডুবিতে একজনের মৃত্যু, জীবিত উদ্ধার ১১

সংঘর্ষে নিহত নন, তালেবানের হাতে ‘খুন’ হয়েছেন দানিশ সিদ্দিকি

সংঘর্ষে নিহত নন, তালেবানের হাতে ‘খুন’ হয়েছেন দানিশ সিদ্দিকি

হেলেনা জাহাঙ্গীর আটক

হেলেনা জাহাঙ্গীর আটক

রামেবির প্রতিষ্ঠাকালীন উপাচার্য মাসুম হাবিব আর নেই

রামেবির প্রতিষ্ঠাকালীন উপাচার্য মাসুম হাবিব আর নেই

গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো ৫০০ ঘরের বস্তিটি

গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো ৫০০ ঘরের বস্তিটি

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

আগুন নিয়ে খেলবেন না: ভুট্টোকে বঙ্গবন্ধু

আগুন নিয়ে খেলবেন না: ভুট্টোকে বঙ্গবন্ধু

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় মৃত্যু ৭৬, শনাক্ত ৬৯৯৬

২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় মৃত্যু ৭৬, শনাক্ত ৬৯৯৬

সিনোফার্মের আরও ৩০ লাখ ডোজ টিকা আসছে রাতে

সিনোফার্মের আরও ৩০ লাখ ডোজ টিকা আসছে রাতে

পিপিপি কনসেপ্ট আমরা এখনও ভালোভাবে নিতে পারিনি: অর্থমন্ত্রী

পিপিপি কনসেপ্ট আমরা এখনও ভালোভাবে নিতে পারিনি: অর্থমন্ত্রী

সরকারি ৮ হাসপাতালের আইসিইউতে বেড ফাঁকা নেই

সরকারি ৮ হাসপাতালের আইসিইউতে বেড ফাঁকা নেই

২৪ ঘণ্টায় আরও ২৩৯ মৃত্যু

২৪ ঘণ্টায় আরও ২৩৯ মৃত্যু

১৮ বছর বয়সীদের টিকার নিবন্ধন ৮ আগস্ট থেকে

১৮ বছর বয়সীদের টিকার নিবন্ধন ৮ আগস্ট থেকে

কৃষি মন্ত্রণালয়ের এডিপি বাস্তবায়ন ৯৮ শতাংশ

কৃষি মন্ত্রণালয়ের এডিপি বাস্তবায়ন ৯৮ শতাংশ

টিটোর সর্বাত্মক সমর্থন ঘোষণা

টিটোর সর্বাত্মক সমর্থন ঘোষণা

মডার্না ও সিনোফার্মের প্রায় ২ লাখ টিকা দেওয়া হয়েছে আজ

মডার্না ও সিনোফার্মের প্রায় ২ লাখ টিকা দেওয়া হয়েছে আজ

© 2021 Bangla Tribune