X
বৃহস্পতিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

‘মানবিক’ কারণে ফেরিতে পার হচ্ছে মানুষ-হালকা যানবাহন

আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ১৭:১৭

করোনাভাইরাস রোধে দেশব্যাপী আরোপিত লকডাউনেও পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথে চলাচলরত ফেরিতে মানুষ ও যানবাহন পার হচ্ছে। পুলিশের পক্ষ থেকে বলছে, ‘মানবিক’ কারণে মানুষসহ হালকা যানবাহনগুলো ফেরিতে পারের সুযোগ দেওয়া হয়েছে।

শুক্রবার (২৩ জুলাই) সকাল থেকেই পাটুরিয়া ঘটে মানুষের সমাগম দেখা যায়। সকালেই রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া থেকে রো রো ফেরি ‘ভাষা শহীদ বরকত’ পাটুরিয়া ফেরি ঘাটের তিন নম্বর পন্টুনে এসে পৌঁছে। ফেরি থেকে শতাধিক মোটরসাইকেল ও যাত্রী নামতে দেখা যায়। এছাড়া ছোট-বড় সব ধরনের গাড়ি দেখা গেছে ফেরিটিতে। দিনব্যাপী এমন চিত্রই দেখা গেছে।
 
বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) আরিচা এরিয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত উপমহাব্যবস্থাপক মো. জিল্লুর রহমান বলেন, ‘সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী জরুরি সেবায় নিয়োজিত গাড়ি পার করার জন্য ফেরি প্রস্তুত রাখা হয়েছে। তবে কিছু যাত্রী ও অন্যান্য গাড়ি ফেরিতে উঠে যাচ্ছে।’

এ বিষয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (শিবালয় সার্কেল) তানিয়া সুলতানা বলেন, ‘পণ্যবাহী গাড়ি ও জরুরি সেবায় নিয়জিত প্রতিষ্ঠানের গাড়ি চলছে। গত রাতে কিছু গাড়ি দৌলতদিয়া ঘাটে আটকা পড়েছিল। মানবিক কারণে সেগুলোকে ফেরি পারের সুযোগ দেওয়া হয়েছে।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

সুদিনের মৌমাছিদের কমিটিতে স্থান নেই: কৃষিমন্ত্রী

সুদিনের মৌমাছিদের কমিটিতে স্থান নেই: কৃষিমন্ত্রী

গাজীপুরে একদিনে ৩ জনের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

গাজীপুরে একদিনে ৩ জনের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

মেয়রের বাড়ির দেয়ালসহ ৪০টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

মেয়রের বাড়ির দেয়ালসহ ৪০টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

শাপলা বেচে জীবন চলে ৩০০ পরিবারের

শাপলা বেচে জীবন চলে ৩০০ পরিবারের

বিকেএসপিতেই শেষ হতে পারতো আফিফের ক্যারিয়ার 

আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:২২

পঞ্চ পাণ্ডবের পর বাংলাদেশ ক্রিকেটকে যারা প্রতিনিধিত্ব করবেন তাদের মধ্যে অন্যতম তরুণ ক্রিকেটার আফিফ হোসেন ধ্রুব। একাধারে ব্যাটিং-বোলিংয়ে প্রতিপক্ষকে নাস্তানাবুদ করা আফিফ বর্তমান সময়ের সেরা একজন অলরাউন্ডার। তবে খুলনা মহানগরীর ছোট বয়রার করিমনগরে জন্ম নেওয়া আফিফের ক্রিকেট ক্যারিয়ার হয়তো শুরুতেই শেষ হয়ে যেতো। ২০১২ সালে বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে (বিকেএসপি) অধ্যয়নরত অবস্থায় নিয়ম ভাঙার জন্য তাকে বহিষ্কার করা হয়েছিল। পরে জরিমানা দিয়ে ফের বিকেএসপিতে ভর্তি করা হয় ক্রিকেট পাগল আফিফকে। এরপর আর ফিরে আসা হয়নি, এগিয়ে যাওয়ার পথে যুক্ত হয়েছে সাফল্যের নতুন নতুন পালক।  

আফিফের বাবার নাম মো. জাহাঙ্গীর হোসেন, মা হেলেনা বেগম। ধ্রুব তাদের একমাত্র ছেলে। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দলে জায়গা পাওয়া ক্রিকেটার আফিফ হোসেন ধ্রুবর জন্ম খুলনায় হলেও ক্রিকেট ক্যারিয়ার গড়ে ওঠে বিকেএসপিতে। 

বিভিন্ন বয়সভিত্তিক দলে খেলেছেন বিকেএসপির হয়ে। যদিও বয়সভিত্তিক অনূর্ধ্ব-১৪ দলে খেলেছিলেন খুলনার হয়ে। পরবর্তীতে খুলনা বিভাগের হয়ে জাতীয় দলেও খেলেছেন এই ক্রিকেটার। ইতোমধ্যে দেশের হয়ে ২৭টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলে ব্যাট হাতে করেছেন ৩২৪ রান, আর ঝুলিতে রয়েছে ছয় উইকেট।

আফিফের বাবা মো. জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, তৃতীয় শ্রেণিতে থাকা অবস্থায় সে ক্রিকেটের জন্য পাগলামি শুরু করে। এ সময় তাকে মোহামেডান ক্লাবের সেলিম স্যারের কাছে নিয়ে ভর্তি করি। এরপর ২০১০ সালে বিকেএসপিতে ক্রিকেটের অডিশন দিয়ে শীর্ষ স্থান নিয়ে ভর্তি হয় আফিফ। সেখান থেকে ২০১৬ সালে এইচএসসি পাশ করে বের হয়। পরে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় এআইইউবিতে বিবিএতে ভর্তি হয় আফিফ। পাশাপাশি চলে তার খেলাধুলা। 

২০১৮ সালে জাতীয় দলে তার অভিষেক হয়। এরপর ধারাবাহিক সাফল্যের অংশ হিসেবে বিশ্ব আসরে খেলার সুযোগ পেয়েছে সে। ক্রিকেটার হওয়ার তার স্বপ্ন পূরণ হ লো। এখন তার সামনে এগিয়ে যাওয়ার পালা। আমি বাবা হিসেবে তার সাফল্য কামনা করি।

তবে আফিফের ক্রিকেট ক্যারিয়ার হয়তো বিকেএসপিতেই শেষ হয়ে যেতো। শৃঙ্খলা ভঙ্গের অপরাধে তাকে বহিষ্কার করা হয়েছিল।

এ বিষয়ে আফিফের বাবা জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, ২০১২ সালের মাঝামাঝি সময়ে আফিফ বিকেএসপি থেকে বহিষ্কার হয়। কারণ ছিল নিষেধ থাকার পরও আফিফ সেখানে মোবাইল ব্যবহার করে এবং ধরা পড়ে। সে ঘটনার পর আমি, ওর নানা, বড় খালা বিকেএসপিতে গিয়ে অধ্যক্ষের সঙ্গে কথা বলি। আমরা যাওয়ার পর জানা যায়, বিকেএসপির মধ্যে আগে বহিষ্কার হওয়া এক ছেলে ব্যট দিয়ে আফিফকে প্রহার করে। সব মিলিয়ে আফিফ গো ধরে আর বিকেএসপিতে পড়বে না। শিক্ষকরা সে ঘটনা জানার পর ওই বহিষ্কৃত ছেলেকে বিকেএসপির মাঠ থেকে বের করে দেয়। আর আলোচনার পর ৩০ হাজার টাকা জরিমানা দিয়ে আফিফকে পুনরায় বিকেএসপিতে ভর্তি করানো হয়। এরপর আফিফকে নিয়ে আমরা বান্দরবান ঘুরতে যাই এবং সেখানে এক সপ্তাহ থেকে তাকে স্বাভাবিক করি। এটা ছিল সবচেয়ে কষ্টকর ঘটনা।

ছেলের সাফল্যের টুকরো স্মৃতির কথা বলতে গিয়ে তিনি আরও বলেন, খুলনার জোড়াগেটে একটি স্পোর্টসে লটারিতে প্রথম পুরস্কার ছিল টিভি। আফিফ সে সময় পাঁচটি টিকিট কেটেছিল। আর আমি ছিলাম লটারি তোলার দায়িত্বে। আফিফ আমার হাতে দায়িত্ব দেখে বলেছিল ‘দেখো বাবা প্রথম পুরস্কারটা তোমার হাত ধরে আমিই পাবো। লটারির শেষে দেখা গেলো প্রথম পুরস্কারের টিকিটটা ছিল আফিফের হাতেই।

/টিটি/

সম্পর্কিত

১৫ বছর আগে মেহেদীকে বলা হাথুরুর কথাই সত্যি হলো

১৫ বছর আগে মেহেদীকে বলা হাথুরুর কথাই সত্যি হলো

চাকরি দেওয়ার কথা বলে ডেকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, গ্রেফতার ১

চাকরি দেওয়ার কথা বলে ডেকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, গ্রেফতার ১

মায়ের ওষুধ নিয়ে ফেরা হলো না

আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:১৯

বগুড়ার সোনাতলায় অসুস্থ মায়ের জন্য ওষুধ কিনতে গিয়ে ট্রাকের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী কলেজছাত্র আবদুর রশিদ (২৫) নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার দুপুর ২টার দিকে উপজেলার কলেজ স্টেশন বটতলা কালিমন্দির সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, নিহত আবদুর রশিদ বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার সিহিপুর গ্রামের ছবিবর রহমানের ছেলে। তিনি বগুড়া সরকারি আজিজুল হক কলেজ থেকে ডিগ্রি পাস করেন। আজ দুপুরে অসুস্থ মায়ের জন্য ওষুধ
কিনতে মোটরসাইকেল নিয়ে বাড়ি থেকে বের হন। পার্শ্ববর্তী গাবতলীর ওষুধের দোকানে যাওয়ার পথে সোনাতলা কলেজ স্টেশন বটতলায় পৌঁছালে পেছন থেকে একটি ট্রাক তাকে ধাক্কা দেয়। এতে রশিদ রাস্তায় ছিটকে পড়লে মাথায় গুরুতর আঘাত পান। পথচারীরা উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়ার পথেই তিনি মারা যান।

সোনাতলা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) বকুল মিয়া জানান, নিহত কলেজছাত্রের লাশ উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘাতক ট্রাক ও চালককে শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে। সোনাতলা থানায় একটি অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা হয়েছে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

ঘুষ চাওয়ায় স্যানিটারি পরিদর্শককে পিটুনি, তদন্তে কমিটি

ঘুষ চাওয়ায় স্যানিটারি পরিদর্শককে পিটুনি, তদন্তে কমিটি

প্রাইভেট কার খালে পড়ে ইউপি চেয়ারম্যানসহ নিহত ২

প্রাইভেট কার খালে পড়ে ইউপি চেয়ারম্যানসহ নিহত ২

রামেকের করোনা ইউনিটে ১৬ দিনে ১০৩ জনের মৃত্যু

রামেকের করোনা ইউনিটে ১৬ দিনে ১০৩ জনের মৃত্যু

রূপপুর প্রকল্পে কর্মরত রুশ নাগরিকের লাশ উদ্ধার

রূপপুর প্রকল্পে কর্মরত রুশ নাগরিকের লাশ উদ্ধার

সুদিনের মৌমাছিদের কমিটিতে স্থান নেই: কৃষিমন্ত্রী

আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:৩৮

অসৎ, সুযোগসন্ধানী ও সুদিনের মৌমাছির মতো যারা দলে ভিড়েছে, তাদেরকে কোনোমতেই কমিটিতে স্থান দেয়া হবে না বলে জানিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. আব্দুর রাজ্জাক। তিনি বলেছেন, ‘কমিটিতে তৃণমূলের পরীক্ষিত, নিবেদিত ও দুঃসময়ে যারা পাশে ছিলেনে সেসব কর্মীদেরকে জায়গা দিতে হবে।’

বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘দীর্ঘ দেড় বছর ধরে চলা করোনার প্রকোপের কারণে আওয়ামী লীগের অনেক জেলা, উপজেলা, পৌর, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড সম্মেলন করা সম্ভব হয়নি। অনেক কমিটিই মেয়াদোত্তীর্ণ। এই মুহূর্তে করোনার সংক্রমণ অনেকটা কমে এসেছে। এখন স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাজ শুরু করতে হবে। দলকে সুসংগঠিত করতে অতিদ্রুত সম্মেলন করা হবে। একইসঙ্গে ছাত্রলীগ, যুবলীগ, কৃষকলীগসহ দলের সহযোগী সংগঠনকেও আরও সুসংগঠিত করতে হবে।’

স্থানীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ‘সামনে ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন। এ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থীরা যাতে বিজয়ী হতে পারে, সে লক্ষ্যে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। সবাইকে দলের শৃঙ্খলা মেনে চলতে হবে। যারা আওয়ামী লীগ করেও নৌকার প্রার্থীদের হারানোর চেষ্টায় বিদ্রোহী প্রার্থী হবেন, তাদের বিরুদ্ধে কঠোর সাংগঠনিক ও শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

মধুপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি খন্দকার শফিউদ্দিনের সভাপতিত্বে সভায় সাধারণ সম্পাদক ও  উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ছরোয়ার আলম খান আবু, পৌর মেয়র সিদ্দিক হোসেন খান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। এ সময় উপজেলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

/এফআর/

সম্পর্কিত

গাজীপুরে একদিনে ৩ জনের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

গাজীপুরে একদিনে ৩ জনের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

ময়মনসিংহে বিএনপির ১১ আইনজীবীর বিরুদ্ধে মামলা 

ময়মনসিংহে বিএনপির ১১ আইনজীবীর বিরুদ্ধে মামলা 

কক্সবাজারে ১৩ আ.লীগ নেতাকে বহিষ্কার

কক্সবাজারে ১৩ আ.লীগ নেতাকে বহিষ্কার

মেয়রের বাড়ির দেয়ালসহ ৪০টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

মেয়রের বাড়ির দেয়ালসহ ৪০টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

‘বঙ্গবন্ধুর ছবি আদর্শ ও অনুপ্রেরণার উৎস’

আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:২৩

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবির দিকে অঙ্গুলি নির্দেশ করে তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান বলেছেন, ‘এটা কোনও ব্যক্তির নয়, এটা বাংলাদেশের ছবি, আদর্শের ছবি, অনুপ্রেরণার ছবি। ব্যক্তিকে অতিক্রম করে সেই ছবি হয়ে উঠেছে আমাদের সকল প্রেরণার উৎস।’

বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) সকালে জামালপুরের সরিষাবাড়ী কামারাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ আয়োজিত এক স্মরণসভায় প্রধান অতিথির ব্ক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। মুজিব আদর্শ বাস্তবায়নে নিরন্তরভাবে কাজ করে যাওয়া প্রয়াত আবুল কালাম মন্ডল স্মরণে এ সভার আয়োজন করা হয়।

মুরাদ হাসান বলেন, ছবির পেছনের মহানায়ক, আমরা মুক্তিযুদ্ধের পরের প্রজন্ম, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি আমাদের পথ দেখায়, জনসেবায় আত্মনিয়োগ করতে উৎসাহ যোগায়। এই ছবিতে নিহিত আছে আদর্শ। এই আদর্শের পথ বেয়ে আজকের বাংলাদেশ ও আগামীর সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশ। 

তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুকে যারা দেখেছেন তারা সৌভাগ্যবান, যারা দেখেননি সেই ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য প্রতি ঘরে ঘরে তার ছবি রাখা উচিত। ইতিহাসের হাত ধরেই আমরা উন্নয়নের মহাসড়কে, আমাদের যেতে হবে সমৃদ্ধির সর্বোচ্চ শিখরে। বঙ্গবন্ধু শুধু বাংলাদেশ নয়, বিশ্বে মুক্তিকামী মানুষের জন্য এক অনন্য ইতিহাস। একটি ছবি যখন অনুপ্রাণিত করে, সেই ছবি আমাদের দৃষ্টিতে থাকা উচিত। কোনও রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে নয়, নিজেকে আদর্শবান ও নৈতিকতায় বলীয়ান করে অন্যায়ের প্রতিবাদী হতে সাহসও যোগাবে।

কামরাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আখতার হোসাইনের সভাপতিত্বে এবং নূরুল ইসলামের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সরিষাবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছানোয়ার হোসেন বাদশা, সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদ, উপজেলা চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন পাঠান ও মেয়র মনির উদ্দিন প্রমুখ।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

‘সাহস থাকলে দেশে আসুন, আপনার সঙ্গে খেলতে চাই’

‘সাহস থাকলে দেশে আসুন, আপনার সঙ্গে খেলতে চাই’

ময়মনসিংহে বিএনপির ১১ আইনজীবীর বিরুদ্ধে মামলা 

ময়মনসিংহে বিএনপির ১১ আইনজীবীর বিরুদ্ধে মামলা 

১৫ বছর আগে মেহেদীকে বলা হাথুরুর কথাই সত্যি হলো

আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:৩৬

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে লাল সবুজের জার্সি গায়ে টাইগারদের সঙ্গে ড্রেসিংরুম শেয়ার করার সুযোগ পেয়েছেন খুলনার তরুণ ক্রিকেটার শেখ মেহেদী হাসান। খেলোয়াড় জীবনের শুরুতে খুলনার শেখ আবু নাসের ক্রিকেট স্টেডিয়ামকে বাড়ির উঠোন বানিয়েছিলেন তিনি। পরিবারের সদস্যদের মতে বাড়ির চেয়ে মাঠেই কাটতো মেহেদীর দিনের বেশিটা সময়। সেখানে থেকে আর ফিরতে হয়নি তাকে। এবার বিশ্বের বিভিন্ন মাঠ যেন মেহেদীর বাড়ির উঠোন হয়ে উঠে এমনটাই প্রত্যাশা তার পরিবারের সদস্যদের। 

মহানগরীর বয়রার বৈকালী এলাকার ফকির বাড়িতে মেহেদীদের চার পুরুষের বসবাস। বাবার নাম শেখ আব্দুল মান্নান, মা মমতাজ বেগম। মেহেদীরা চার বোন ও দুই ভাই। সবাই বিবাহিত। শেখ মেহেদী হাসানের পথচলা শুরু ক্লাসিক ক্রিকেট ক্লিনিকে। কোচ মনোয়ার আলী মনুর তত্ত্বাবধানে জায়গা পেয়েছিলেন খুলনার বিভিন্ন বয়সভিত্তিক দলে। সেখান থেকেই উঠে আসেন তিনি। 

সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে নজর কেড়েছেন মেহেদী হাসান। অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে একাধিক ম্যাচে একই সঙ্গে ব্যাট ও বল হাতে ভালো করেছেন তিনি। অনেকটাই সব্যসাচী পারফরম্যান্সে দর্শকদের মুগ্ধ করেছেন মেহেদী। 

২০১৮ সালে টি-টোয়েন্টিতে অভিষেক হয় মেহেদী হাসানের। টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে এখন পর্যন্ত ১৮ ম্যাচ খেলে ১২০ রান করেছেন তিনি। পাশাপাশি ১৫টি উইকেটও আছে তার ঝুলিতে। 

মেহেদীর বাবা মা বর্তমানে বার্ধক্যজনিত কারণে অসুস্থ। তবে ছেলের সাফল্যে তিনি ভীষণরকমের খুশি।

মেহেদীর বড় ভাই শেখ মিজানুর রহমান বলেন, ছোটবেলা থেকেই মেহেদী ক্রিকেট পাগল। পাশেই বিভাগীয় স্টেডিয়াম। সেখানেই তার আড্ডা থাকতো। ২০০৬ সালে সংযুক্ত আরব আমিরাতের সঙ্গে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২৩ এর খেলা চলাকালে মেহেদী আরব আমিরাত দলের নেট প্র্যাকটিসে বল করার সুযোগ পায়। সে সময় ওই দলের কোচ ছিলেন চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। মেহেদী হাথুরুর নজরে পড়েন। তখন হাতে থাকা প্র্যাকটিস ব্যাট মেহেদীকে উপহার দিয়ে হাথুরু বলেছিলেন ‘তুমি একদিন জাতীয় দলে ভালোভাবে জায়গা করে নেবে, প্র্যাকটিস চালিয়ে যাও’।

বৈকালীতে শেখ মেহেদী হাসানের প্রতিবেশী ওবায়দুল ফকির বলেন, মেহেদী উদীয়মান ক্রিকেটার। খেলাধুলায় আগ্রহ ছিল ভালো। এর ফল হিসেবেই আজ সে সাফল্য পেয়েছে। তার এ সাফল্যে প্রতিবেশী ও অন্যরাও সবাই খুশি। 

এদিকে সম্প্রতি মেহেদী বোলিং ক্যারিয়ারের র‍্যাংকিংয়ে সবচেয়ে বড় লাফ দিয়েছে। ৯১তম স্থান থেকে এক লাফে তিনি উঠে এসেছেন ২৪তম স্থানে। কিপটে বোলিং করার পুরস্কার তার এই বিশাল উন্নতি। মেহেদীর রেটিং ৫৩৬। আগের রেটিং ছিল ৩৭৮।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

চাকরি দেওয়ার কথা বলে ডেকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, গ্রেফতার ১

চাকরি দেওয়ার কথা বলে ডেকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, গ্রেফতার ১

প্রাইভেট কার খালে পড়ে ইউপি চেয়ারম্যানসহ নিহত ২

প্রাইভেট কার খালে পড়ে ইউপি চেয়ারম্যানসহ নিহত ২

পড়ে আছে অর্ধকোটি টাকার যন্ত্র, ডেঙ্গু চিকিৎসা ব্যাহত

পড়ে আছে অর্ধকোটি টাকার যন্ত্র, ডেঙ্গু চিকিৎসা ব্যাহত

বঙ্গবন্ধু ছিলেন খাঁটি পরিবেশ ও প্রকৃতিপ্রেমিক: পরিবেশমন্ত্রী 

বঙ্গবন্ধু ছিলেন খাঁটি পরিবেশ ও প্রকৃতিপ্রেমিক: পরিবেশমন্ত্রী 

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সুদিনের মৌমাছিদের কমিটিতে স্থান নেই: কৃষিমন্ত্রী

সুদিনের মৌমাছিদের কমিটিতে স্থান নেই: কৃষিমন্ত্রী

গাজীপুরে একদিনে ৩ জনের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

গাজীপুরে একদিনে ৩ জনের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

মেয়রের বাড়ির দেয়ালসহ ৪০টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

মেয়রের বাড়ির দেয়ালসহ ৪০টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

শাপলা বেচে জীবন চলে ৩০০ পরিবারের

শাপলা বেচে জীবন চলে ৩০০ পরিবারের

শতবর্ষী গাছ কাটার ঘটনায় তদন্ত কমিটি

শতবর্ষী গাছ কাটার ঘটনায় তদন্ত কমিটি

ধর্ষণের পর পুলিশ সদস্যের স্ত্রীকে হত্যা করে তারা

ধর্ষণের পর পুলিশ সদস্যের স্ত্রীকে হত্যা করে তারা

‘ঝরে পড়াদের শিক্ষাঙ্গনে ফেরাতে কাজ চলছে’ 

‘ঝরে পড়াদের শিক্ষাঙ্গনে ফেরাতে কাজ চলছে’ 

৩ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পাঠদান খোলা আকাশের নিচে

৩ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পাঠদান খোলা আকাশের নিচে

‘আমিই সভাপতি, কার অনুমতি নেবো’ 

‘আমিই সভাপতি, কার অনুমতি নেবো’ 

সর্বশেষ

ই-কমার্সে প্রতারিতদের পাওনা বুঝিয়ে দিক সরকার, দাবি সংসদে

ই-কমার্সে প্রতারিতদের পাওনা বুঝিয়ে দিক সরকার, দাবি সংসদে

আরও পেছালো বাংলাদেশ, ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা আগের জায়গাতেই

ফিফা র‌্যাঙ্কিংআরও পেছালো বাংলাদেশ, ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা আগের জায়গাতেই

বিকেএসপিতেই শেষ হতে পারতো আফিফের ক্যারিয়ার 

বিকেএসপিতেই শেষ হতে পারতো আফিফের ক্যারিয়ার 

প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সারপ্রাইজ ভিজিট শুরু আগামী সপ্তাহে

প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সারপ্রাইজ ভিজিট শুরু আগামী সপ্তাহে

মায়ের ওষুধ নিয়ে ফেরা হলো না

মায়ের ওষুধ নিয়ে ফেরা হলো না

© 2021 Bangla Tribune