X
শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

‘নির্বাচনকে প্রভাবিত করতে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের ব্যবহার করা হচ্ছে’  

আপডেট : ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:০৫

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে কক্সবাজারের টেকনাফে ‘রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের’ ব্যবহার করার অভিযোগ উঠেছে। কিছু অসাধু চক্র নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ ও প্রভাবিত করতে সন্ত্রাসীদের ব্যবহার করে অপতৎপরতা চালাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন প্রার্থীরা। অনেক প্রার্থীও এমন ঘটনার সঙ্গে জড়িত বলে অভিযোগ উঠেছে। 

২০ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠেয় টেকনাফের চার ইউপির নির্বাচন উপলক্ষে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় অধিকাংশ চেয়ারম্যান প্রার্থী এমন অভিযোগ করেন। রবিবার (১২ সেপ্টেম্বর) টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. পারভেজ চৌধুরীর সভাতিত্বে এ মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদ।

সভায় হ্নীলা ইউপির চেয়ারম্যান প্রার্থী রাসেদ মাহামুদ আলী অভিযোগ করেন, ‘আমার নির্বাচনি এলাকা রোহিঙ্গা অধ্যুষিত হওয়ায় প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ক্যাম্পের অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীদের ভাড়া করে নিয়ে আসছে। কিছু দিন আগে আমার এক সমর্থককে গুলি করে হত্যা করেছিল তারা। এটা উদ্বেগের বিষয়, এটি জরুরি ভিত্তিতে দেখতে হবে। এমনও খবর আছে যে, পাহারার নামে এসব স্বশস্ত্র বাহিনী ভোটকেন্দ্রে যেতে ভোটারদের বাধা দেবে। ফলে সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে তৎপর হতে হবে।’

স্বচ্ছ ব্যালটবক্স ও জনগণের ভোটাধিকার নিশ্চিত করতে পারলে নির্বাচন সুষ্ঠু হবে উল্লেখ করে সাবরাংয়ের চেয়ারম্যান প্রার্থী নুর হোসেন বলেন, আমার নির্বাচনি এলাকায় প্রতিপক্ষের প্রার্থীর স্বজনরা লাইসেন্সধারী অস্ত্র ব্যবহার করে সমর্থকদের ভয়ভীতি দেখাচ্ছে। তাই নির্বাচন সময়ে এসব অস্ত্র সরকারের জিম্মায় নিয়ে আসতে হবে। না হলে অপীতিকর ঘটনা ঘটবে। পাশাপাশি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের লক্ষ্যে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে কঠোর নজরদারির ব্যবস্থা করতে হবে। 

একই ইউনিয়নের নৌকার প্রার্থী সোনা আলী জানান, ‘আমার জনপ্রিয়তা দেখে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নৌকা প্রতীক দিয়েছেন। কিন্তু দলীয় নেতাকর্মীরা আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে। এমনকি তারা প্রভাব খাটিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থীর সুবিধামতো ভোটকেন্দ্রে প্রিসাইডিং অফিসার নিয়োগ দিয়েছেন। বিষয়টি গুরুত্বসহকারে দেখতে হবে।’

এএসপি মো. রফিকুল ইসলাম জানান, ‘সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচন উপহার দিতে সর্বোচ্চ আইন প্রযোগ করা হবে। নির্বাচনি নীতিমালা লঙ্ঘন করলে কোনও পরিচয়ে কেউ ছাড় পাবে না।’  

ডিসি মো. মামুনুর রশীদ বলেন, ‘সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন আয়োচনে আমরা সবাই কাজ করছি। বাইরে থেকে কোনও লোক এখানে আসার সুযোগ নেই। নির্বাচনে কেউ অবৈধ অস্ত্র প্রদর্শন করলে, কোনও আদেশের অপেক্ষা না করে দ্রুত আইন প্রয়োগ করা হবে। তাছাড়া প্রার্থীকে আচরণবিধি মেনে নির্বাচনি প্রচারণা চালাতে হবে। নইলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) মো. রফিকুল ইসলাম, জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা এসএম শাহাদাৎ হোসেন, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আবু সুফিয়ান, স্বাগত বক্তব্য রাখেন, টেকনাফ উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা এবং সদর, হোয়াইক্যং ও হ্নীলা ইউনিয়নে রির্টানিং কর্মকর্তা মো. বেদারুল ইসলাম, মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. হাফিজুর রহমান। এসময় উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (উখিয়া-টেকনাফ সার্কেল) শাকিল আহমদ ও সহকারী কমিশনার ভূমি এরফানুল হক চৌধুরী ও সেন্টমার্টিন ইউনিয়নের দায়িত্বে থাকা রির্টানিং কর্মকর্তা ও রামু নির্বাচন অফিসার মাহফুজুল ইসলাম প্রমুখ।

এদিকে আগামী ২০ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠেয় টেকনাফ উপজেলার চার ইউনিয়নের নির্বাচনে ২৫ চেয়ারম্যান প্রার্থী, সদস্য পদে ৩৩৭ ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ৬৮ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। উপজেলার হোয়াইক্যং, হ্নীলা, টেকনাফ সদর ও সাবরাং ইউনিয়নে মোট ভোটার এক লাখ ১৭ হাজার ৭৫৬ জন। এরমধ্যে নারী ৫৯ হাজার ২৬৫ ও ৫৮ হাজার ৪৫১ জন পুরুষ ভোটার রয়েছে। তবে বৈরি আবহাওয়ার কারণে সেন্টমার্টিন ইউনিয়নের নির্বাচন স্থগিত রয়েছে।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

প্যারাসেইলিং থেকে পড়ে পর্যটক আহত

প্যারাসেইলিং থেকে পড়ে পর্যটক আহত

সাগরে ডুবলো মিয়ানমার থেকে আসা কফি-আচারবাহী জাহাজ

সাগরে ডুবলো মিয়ানমার থেকে আসা কফি-আচারবাহী জাহাজ

রাতারাতি বড়লোক হতে ইয়াবা ব্যবসায় হাসপাতালের পিয়ন

রাতারাতি বড়লোক হতে ইয়াবা ব্যবসায় হাসপাতালের পিয়ন

আদালতের ক্যান্টিনে সংঘর্ষ, কারাগারে বাদী-বিবাদী পক্ষের ৬ জন 

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৩১

পঞ্চগড়ে আদালতের ক্যান্টিনে এক মামলার বাদী ও বিবাদী পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) পঞ্চগড় চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের ক্যান্টিনে এ ঘটনা ঘটে। এসময় স্থানীয়দের সহযোগিতায় কোর্ট পুলিশ, পঞ্চগড় থানা পুলিশ উভয়পক্ষের ছয় জনকে আটক করে কোর্ট হাজতে রাখে। এ ঘটনায় পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক মজিবর রহমান বাদী হয়ে তেঁতুলিয়া উপজেলার বাংলাবান্ধা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কুদরত-ই খুদা মিলন ও তেঁতুলিয়া উপজেলার দেবনগর ইউনিয়নের বালুবাড়ি এলাকার আব্দুল হামিদসহ সাত জনের নামে ও অজ্ঞাতনামা আরও ৪-৫ জনকে আসামি করে পঞ্চগড় সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

আদালতের কোর্ট বারান্দা ও ক্যান্টিনে বেআইনিভাবে প্রবেশ করে সংঘর্ষে জড়ানো, সরকারি কাজে বাধা দান ও সরকারি কর্মচারীকে বল প্রয়োগের হুমকিসহ আদালতের বিচারিক পরিবেশে নষ্ট করে ক্ষমতার দাপট প্রদর্শন করার অভিযোগ এনে পুলিশ মামলাটি দায়ের করে।
 
পরে আটক তেঁতুলিয়া উপজেলার দেবনগর ইউনিয়নের বালুবাড়ি এলাকার আব্দুল হামিদ (৪০), একই উপজেলার বাইনগঞ্জ এলাকার নুর ইসলাম (৩৮), পাগলীডাঙ্গী এলাকার সেলিম রানা (২৫), জায়গীর জোত এলাকার আজিজার রহমান (৪৭), ঝাড়ুয়া পাড়া এলাকার ফারুক হোসেন (২৫) এবং একই এলাকার সাইদুল ইসলামকে (৩৮) মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে জেলহাজতে পাঠানো হয়। 

তবে মামলার মূল আসামি তেঁতুলিয়া উপজেলার বাংলাবান্ধা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কুদরত-ই খুদা মিলন পলাতক রয়েছেন। 

বাংলাবান্ধা ইউপি চেয়ারম্যান কুদরত-ই খুদা মিলনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে আদালতে আত্মসমর্পণ করতে গিয়েছিলাম। কিন্তু কোনও মারামারির সঙ্গে যুক্ত হইনি। তাছাড়া ক্যান্টিনে যখন মারামারি হয় তখন আমি আদালত চত্ত্বরে ছিলাম না। আমাকে কেন এই মামলার আসামি করা হয়েছে আমি জানি না। 

পঞ্চগড় সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল লতিফ মিঞা জানান, পঞ্চগড় চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে দায়িত্বে থাকা পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক মজিবর রহমান বাদী হয়ে সাত জনের নামে ও অজ্ঞাতনামা ৪-৫জনকে আসামি করে মামলা দিয়েছেন। মামলায় ছয় জন আসামিকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। বিষয়টি তদন্তাধীন রয়েছে। ইউপি চেয়ারম্যানকে গ্রেফতারে পুলিশি অভিযান পরিচালনা করা হবে বলে জানান তিনি। 

/টিটি/

সম্পর্কিত

ভুয়া বিলে টাকা উত্তোলন, টিটিসির সেই অধ্যক্ষ বরখাস্ত

ভুয়া বিলে টাকা উত্তোলন, টিটিসির সেই অধ্যক্ষ বরখাস্ত

এবার আগেভাগেই দেখা দিয়েছে কাঞ্চনজঙ্ঘা

এবার আগেভাগেই দেখা দিয়েছে কাঞ্চনজঙ্ঘা

কয়লা খনির পাঁচ কর্মকর্তা বরখাস্ত, ১০ জনের নামে মামলা

কয়লা খনির পাঁচ কর্মকর্তা বরখাস্ত, ১০ জনের নামে মামলা

তিন মাস পর ফের মৃত্যুহীন চট্টগ্রাম 

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:০৭

তিন মাস পর আবারও চট্টগ্রামে করোনায় কোনও মৃত্যু নেই। শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে করোনায় আক্রান্ত হয়ে কেউ মারা যাননি। এর আগে, গত ১৫ জুন করোনায় মৃত্যুহীন ছিল চট্টগ্রাম। এরপর টানা বাড়তে থাকে মৃতের সংখ্যা। 

একই সময়ে নতুন শনাক্তও কমেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছেন আরও ৪১ জন। এ নিয়ে চট্টগ্রামে এখন পর্যন্ত এক লাখ এক হাজার ১৭২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে ৭৩ হাজার ৩২৮ জন চট্টগ্রাম নগরীর। বাকি ২৭ হাজার ৮৪৪ জন বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা।

সিভিল সার্জন কার্যালয়ের প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা যায়। প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামের ১২টি ল্যাবে এক হাজার ৫১৩টি নমুনা পরীক্ষায় ৪১ জনের করোনা শনাক্ত হয়। এর মধ্যে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ৬৬টি, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস (বিআইটিআইডি) ল্যাবে ৪৫১টি, চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ১৮২টি, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় (সিভাসু) ল্যাবে ১৫০টি এবং আরটিআরএল ল্যাবে চারটি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে চবি ল্যাবে চার জন, বিআইটিআইডি, চমেক ও সিভাসু ল্যাবে ৯ জন করে করোনা শনাক্ত হয়।

অন্যদিকে বেসরকারি ইম্পেরিয়াল হাসপাতালে ৫২ টি নমুনা পরীক্ষায় দুই জন, শেভরন ডায়াগনোস্টিক সেন্টারে ৪৭২টি নমুনা পরীক্ষায় দুই, মা ও শিশু হাসপাতালে ২৩ নমুনা পরীক্ষায় এক, মেডিক্যাল সেন্টার হাসপাতালে ১৮টি নমুনা পরীক্ষায় এক এবং ইপিক হেলথ কেয়ার ৮৬টি নমুনা পরীক্ষায় ‍চার জনের করোনা শনাক্ত হয়। এছাড়া কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চট্টগ্রামের ৯টি নমুনা পরীক্ষায় কারও শরীরে করোনার অস্তিত্ব মেলেনি।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

বাসায় পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ  

বাসায় পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ  

কাপড়ের ঘোষণায় এলো ৭ কোটি টাকার সিগারেট 

কাপড়ের ঘোষণায় এলো ৭ কোটি টাকার সিগারেট 

প্যারাসেইলিং থেকে পড়ে পর্যটক আহত

প্যারাসেইলিং থেকে পড়ে পর্যটক আহত

১০ টাকা বেশি চাওয়ায় রিকশাচালককে কুপিয়ে হত্যা

১০ টাকা বেশি চাওয়ায় রিকশাচালককে কুপিয়ে হত্যা

বাসায় পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ  

আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:৪২

বাসায় পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে এক কিশোরীকে সংঘগবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় তিন জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাতে চট্টগ্রাম নগরী ও সীতাকুণ্ডে অভিযান চালিয়ে ডবলমুরিং থানা পুলিশ তাদের করে। বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) বিকালে আদালতে তোলা হলে ১৬৪ ধারায় দেওয়া জবানবন্দিতে ধর্ষণের বিষয়টি স্বীকার করেন তারা।

ডবলমুরিং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কাশেম ভূইয়াঁ বৃহস্পতিবার রাতে এসব তথ্য জানান। 

বাংলা ট্রিবিউনকে তিনি বলেন, গ্রেফতার তিন জন হলেন লরির হেলপার মো. মেহেদী হাসান মুন্না (১৯), নৈশপ্রহরী মো. সাকিব (২১) ও মো. হাসান তারেক রনি (৪০)। 

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, ভিকটিম কিশোরী গত ৫ সেপ্টেম্বর তার ফুফাতো ভাইয়ের স্ত্রীর সঙ্গে ডাক্তার দেখানোর জন্য আগ্রাবাদ যায়। আগ্রাবাদ যাওয়ার পর মানুষের জটলায় ওই কিশোরী ভাবিকে হারিয়ে ফেলে। এরপর আগ্রাবাদ সিঅ্যান্ডএফ টাওয়ারের সামনে কান্না করতে থাকলে আসামি মুন্না তাকে বাসায় পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে সিএনজিতে উঠিয়ে নেয়। পরে বাসায় পৌঁছে না দিয়ে নগরীর সাগরিকা, অলঙ্কারসহ বিভিন্ন জায়গায় সন্ধ্যা পর্যন্ত তাকে ঘোরাতে থাকে। এরপর রাত ১০টার দিকে বাসে করে কিশোরীকে সীতাকুণ্ড থানাধীন কালুশাহ মাজার এলাকায় নিয়ে যায় মুন্না। সেখানে আসামি শাকিবের ভাড়া বাসায় নিয়ে যায়। সেখানে নিয়ে ওই কিশোরীকে তিন জন মিলে রাতভর ধর্ষণ করে।

ওসি আরও বলেন, ঘটনার পর মেয়েটি ভয়ে পরিবারের সদস্যদের কিছু জানায়নি। বুধবার সন্ধ্যায় মুন্না কিশোরীর বাসার আশপাশে এসে ঘোরাঘুরি করতে থাকে। এসময় মেয়েটি তাকে দেখে ভয়ে চিৎকার দিয়ে ওঠে। ঘটনা সবাইকে খুলে বললে স্থানীয়রা মুন্নাকে ধাওয়া দিয়ে আটক করে। পরে ৯৯৯-এ ফোন দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মুন্নাকে গ্রেফতার করে। এরপর তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে রাতে অভিযান চালিয়ে সীতাকুণ্ড বেড়িবাঁধ এলাকা থেকে সাকিব ও হাসানকে গ্রেফতার করা হয়। ধর্ষণের শিকার কিশোরীর বড় বোন থানায় মামলা দায়ের করেন বলে জানান তিনি। 

/টিটি/

সম্পর্কিত

তিন মাস পর ফের মৃত্যুহীন চট্টগ্রাম 

তিন মাস পর ফের মৃত্যুহীন চট্টগ্রাম 

কাপড়ের ঘোষণায় এলো ৭ কোটি টাকার সিগারেট 

কাপড়ের ঘোষণায় এলো ৭ কোটি টাকার সিগারেট 

প্যারাসেইলিং থেকে পড়ে পর্যটক আহত

প্যারাসেইলিং থেকে পড়ে পর্যটক আহত

১০ টাকা বেশি চাওয়ায় রিকশাচালককে কুপিয়ে হত্যা

১০ টাকা বেশি চাওয়ায় রিকশাচালককে কুপিয়ে হত্যা

গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো বাজারটি

আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:৪৫

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদীর তীর দখল করে গড়ে ওঠা বেলদী বাজারের দুইটি তিনতলা, সাতটি দোতলা ও ছয়টি একতলা ভবনসহ অর্ধশতাধিক অবৈধ স্থাপনা গুঁড়িয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)। বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত একটি ভেকু দিয়ে এই উচ্ছেদ অভিযান পরিচালিত হয়।

বিআইডব্লিউটিএ’র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শোভন রাংসার নেতৃত্বে উচ্ছেদ অভিযানটি পরিচালিত হয়। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন বিআইডব্লিউটিএ ঘোড়াশাল নদী বন্দরের ভারপ্রাপ্ত উপ-পরিচালক নূর হোসেন স্বপন।

নূর হোসেন স্বপন জানান, উচ্ছেদ অভিযানের দ্বিতীয় দিনে আজ দুইটি তিনতলা, সাতটি পাকা দোতলা, ছয়টি একতলা ভবন, ইটভাটার স্থাপনা, একটি ব্যাটারি কারখানার দেয়ালসহ অর্ধশতাধিক অবৈধ স্থাপনা গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। ইতোপূর্বে অবৈধ দখলদারদের নোটিশ দিলেও তারা কর্ণপাত করেনি। যে কারণে গত দুই দিনে প্রায় ১০০ অবৈধ স্থাপনা গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

শিক্ষার্থীদের টিকার বিষয়ে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন নির্দেশনা

শিক্ষার্থীদের টিকার বিষয়ে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন নির্দেশনা

জাতীয় উদ্যানে তরুণীর হাতের রগ কাটা লাশ

জাতীয় উদ্যানে তরুণীর হাতের রগ কাটা লাশ

সুদিনের মৌমাছিদের কমিটিতে স্থান নেই: কৃষিমন্ত্রী

সুদিনের মৌমাছিদের কমিটিতে স্থান নেই: কৃষিমন্ত্রী

গাজীপুরে একদিনে ৩ জনের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

গাজীপুরে একদিনে ৩ জনের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

নওগাঁ পৌর মেয়র সনিসহ বিএনপির ৩ নেতা কারাগারে

আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২৩:২৯

নওগাঁয় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়ানোর একটি মামলায় পৌর মেয়র ও জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি নজমুল হক সনিসহ তিন নেতাকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নওগাঁর চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত আসামিদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, মামলায় হাইকোর্ট থেকে তিন মাস মেয়াদের জামিন নিয়েছিলেন আসামিরা। সেই মেয়াদ শেষ হওয়ার পর নিম্ন আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করেন তারা। আদালতের বিচারক আশরাফুল ইসলাম সেই আবেদন নামঞ্জুর করে তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। 

অপর দুই আসামি হলেন জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম ধলু ও নওগাঁ পৌর বিএনপির সদস্য সচিব মিজানুর রহমান। 

মামলার সূত্রে জানা গেছে, আসামিদের বিরুদ্ধে সরকারি কাজে বাধা, পুলিশের ওপর হামলা ও সরকারি সম্পত্তিসহ ও জনসাধারণের জানমালের নিরাপত্তা বিঘ্নিত করায় সন্ত্রাসবিরোধী আইনে গত ৩০ মার্চ নওগাঁ সদর থানায় মামলা হয়। পৃথক দুই মামলায় ৫৭ জনের নাম উল্লেখ ও আরও অজ্ঞাত আসামি করা হয়। আসামিপক্ষের আইনজীবীরা জানান, মামলার অন্যসব আসামি জামিনে আছেন। নজমুল হক সনি, জাহিদুল ইসলাম ধলু ও মিজানুর রহমানের জামিনের জন্য উচ্চ আদালতে আবেদন করার প্রস্তুতি চলছে।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের ৩০ মার্চ দুপুরে নওগাঁ শহরের কেডির মোড়ে বিএনপি নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। হেফাজত কর্মী নিহতের ঘটনায় কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে ওইদিন তাদের দলীয় কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ করছিল বিএনপি নেতাকর্মীরা। এ সময় পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে সংঘর্ষ বাধে। ওই ঘটনায় থানায় পৃথক দুটি মামলা হয়।

/টিটি/

সম্পর্কিত

মায়ের ওষুধ নিয়ে ফেরা হলো না

মায়ের ওষুধ নিয়ে ফেরা হলো না

ঘুষ চাওয়ায় স্যানিটারি পরিদর্শককে পিটুনি, তদন্তে কমিটি

ঘুষ চাওয়ায় স্যানিটারি পরিদর্শককে পিটুনি, তদন্তে কমিটি

রামেকের করোনা ইউনিটে ১৬ দিনে ১০৩ জনের মৃত্যু

রামেকের করোনা ইউনিটে ১৬ দিনে ১০৩ জনের মৃত্যু

রূপপুর প্রকল্পে কর্মরত রুশ নাগরিকের লাশ উদ্ধার

রূপপুর প্রকল্পে কর্মরত রুশ নাগরিকের লাশ উদ্ধার

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

প্যারাসেইলিং থেকে পড়ে পর্যটক আহত

প্যারাসেইলিং থেকে পড়ে পর্যটক আহত

সাগরে ডুবলো মিয়ানমার থেকে আসা কফি-আচারবাহী জাহাজ

সাগরে ডুবলো মিয়ানমার থেকে আসা কফি-আচারবাহী জাহাজ

রাতারাতি বড়লোক হতে ইয়াবা ব্যবসায় হাসপাতালের পিয়ন

রাতারাতি বড়লোক হতে ইয়াবা ব্যবসায় হাসপাতালের পিয়ন

পুলিশের ভুলে বিনা অপরাধে ২ বছর কারাভোগ, পাচ্ছেন মুক্তি

পুলিশের ভুলে বিনা অপরাধে ২ বছর কারাভোগ, পাচ্ছেন মুক্তি

টেকনাফ স্থলবন্দরে আটকে আছে ৩০টি ট্রাক

টেকনাফ স্থলবন্দরে আটকে আছে ৩০টি ট্রাক

ধ্বংসের পথে কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি

ধ্বংসের পথে কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি

কক্সবাজারে ১৩ আ.লীগ নেতাকে বহিষ্কার

কক্সবাজারে ১৩ আ.লীগ নেতাকে বহিষ্কার

সর্বশেষ

আদালতের ক্যান্টিনে সংঘর্ষ, কারাগারে বাদী-বিবাদী পক্ষের ৬ জন 

আদালতের ক্যান্টিনে সংঘর্ষ, কারাগারে বাদী-বিবাদী পক্ষের ৬ জন 

তিন মাস পর ফের মৃত্যুহীন চট্টগ্রাম 

তিন মাস পর ফের মৃত্যুহীন চট্টগ্রাম 

১৩০ কোটি ডলারের সফটওয়্যার রফতানি করেছে বাংলাদেশ

১৩০ কোটি ডলারের সফটওয়্যার রফতানি করেছে বাংলাদেশ

এদিন আটক বাঙালিদের ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়া শুরু হয়

এদিন আটক বাঙালিদের ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়া শুরু হয়

জ্বরে কোনও শিশুর মৃত্যু হয়নি: মমতা

জ্বরে কোনও শিশুর মৃত্যু হয়নি: মমতা

© 2021 Bangla Tribune