X
শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ৩১ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

চট্টগ্রাম কলেজে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ

আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:৩৩

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রাম কলেজে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মাহমুদুল করিম ও সাধারণ সম্পাদক সুভাষ মল্লিক সবুজের অনুসারীদের মধ্যে এ সংঘর্ষ হয়। এতে অন্তত চার জন আহত হয়েছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে চকবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ফেরদৌস জাহান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। খবর পেয়ে থানা পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বর্তমানে ক্যাম্পাসের পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।’

এ বিষয়ে কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সুভাষ মল্লিক সবুজ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘হঠাৎ মাহমুদুল করিমের নেতৃত্বে আমাদের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা চালায়। এতে আমাদের চার কর্মী আহত হয়েছেন।’

তবে বিষয়টি অস্বীকার করেছেন কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মাহমুদুল করিম। বাংলা ট্রিবিউনকে তিনি বলেন, ‘কয়েকজন ছাত্র ক্যাম্পাসে ছাত্রলীগের নাম বিক্রি করে শিবিরের কার্যক্রম পরিচালনা করছে। বিষয়টি আমাদের নজরে এলে আমরা তাদের ক্যাম্পাস থেকে বের হয়ে যেতে বলেছি। আর কখনও যেন ক্যাম্পাসে না আসে এ জন্য হুঁশিয়ার করে দিয়েছি। তারা যে শিবিরকর্মী এ বিষয়ে আমার কাছে যথেষ্ট প্রমাণ আছে। এরপরও সুভাষ মল্লিক সবুজ এসে তাদের পক্ষ নিয়ে আমাদের সঙ্গে বিবাধে জড়িয়েছেন।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

ট্রাকের পেছনে বাসের ধাক্কা, নিহত বেড়ে ৭

ট্রাকের পেছনে বাসের ধাক্কা, নিহত বেড়ে ৭

দিনাজপুরে বজ্রাঘাতে ২ জনের মৃত্যু

দিনাজপুরে বজ্রাঘাতে ২ জনের মৃত্যু

পরিবারের ৪ জনকে হারিয়ে সড়কে বসেই বিলাপ

পরিবারের ৪ জনকে হারিয়ে সড়কে বসেই বিলাপ

দুই সন্তানসহ স্ত্রীর লাশ উদ্ধার, স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা

দুই সন্তানসহ স্ত্রীর লাশ উদ্ধার, স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা

ট্রাকের পেছনে বাসের ধাক্কা, নিহত বেড়ে ৭

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৫৯

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের ত্রিশালের চেলেরঘাটে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে সাত জনে দাঁড়িয়েছে। শনিবার (১৬ অক্টোবর) সন্ধ্যায় ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ৪৫ বছর বয়সী ওই ব্যক্তি মারা যান।

এর আগে, বিকাল ৩টায় মহাসড়কে দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকের পেছনে শেরপুরগামী রহিম পরিবহনের বাসটি (ময়মনসিংহ গ ১১-০৯৪৮) ধাক্কা দিলে ঘটনাস্থলেই একই পরিবারের চার জনসহ পাঁচ জন নিহত হন। এ ঘটনায় ১০ জন আহত হয়েছে। তাদের উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে আরেকজন মারা যান। এই নিয়ে হাসপাতালে দুই জনের প্রাণ গেছে। ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. জাকিউল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নিহতরা হলেন- ফুলপুর উপজেলা হুজু (৩০), তার স্ত্রী ফাতেমা (২৮), ছেলে আব্দুল্লাহ (১০) ও মেয়ে আজমিনা (৮)। বাকি তিন জনের নাম-পরিচয় এখনও জানা যায়নি। এ ঘটনায় আহতদের ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

ত্রিশাল থানার ওসি মাইন উদ্দিন জানান, উপজেলার চেলেরঘাট নামক স্থানে দাঁড়িয়ে থাকা ড্রাম ট্রাকের পেছনে শেরপুরগামী বাস ধাক্কা দিলে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে। মহাসড়কে গাড়ি চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

দিনাজপুরে বজ্রাঘাতে ২ জনের মৃত্যু

দিনাজপুরে বজ্রাঘাতে ২ জনের মৃত্যু

পরিবারের ৪ জনকে হারিয়ে সড়কে বসেই বিলাপ

পরিবারের ৪ জনকে হারিয়ে সড়কে বসেই বিলাপ

হিলি স্থলবন্দরে ৩ মাসে রাজস্ব ঘাটতি ২৩ কোটি টাকা

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৫০

দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দরে চলতি ২০২১-২২ অর্থবছরের প্রথম তিন মাস (জুলাই-সেপ্টেম্বর) রাজস্ব আহরণের লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে ঘাটতির পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২৩ কোটি ৬৬ লাখ টাকা। এই সময়ে বন্দর থেকে রাজস্ব আহরণের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারিত ছিল ১১৮ কোটি ২৪ লাখ টাকা। বিপরীতে আহরণ হয়েছে ৯৪ কোটি ৫৮ লাখ টাকা। 

রাজস্ব আহরণের লক্ষ্যমাত্রা পুনরায় নির্ধারণ করায় ঘাটতি দেখা দিয়েছে। তবে সামনের মাসগুলোতে আমদানি বাড়লে রাজস্ব আহরণ বাড়বে বলে জানিয়েছে শুল্ক স্টেশন কর্তৃপক্ষ।

শুল্ক স্টেশন কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) নির্ধারিত ২০২১-২২ অর্থবছরের জুলাই মাসে হিলি স্থলবন্দর থেকে রাজস্ব আহরণের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৩৬ কোটি ৩৫ লাখ টাকা। বিপরীতে আহরণ হয়েছে ৩২ কোটি ৭৭ লাখ টাকা। আগস্ট মাসে লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৪৩ কোটি ৯৬ লাখ টাকা। বিপরীতে আহরণ হয়েছে ২৬ কোটি ৬২ লাখ টাকা। সেপ্টেম্বর মাসে লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৩৭ কোটি ৯৩ লাখ টাকা। বিপরীতে আহরণ হয়েছে ৩৫ কোটি ১৯ লাখ টাকা।

স্থল শুল্ক স্টেশনের রাজস্ব কর্মকর্তা এসএম নুরুল আলম খান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, বন্দর থেকে রাজস্ব আহরণের নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রা পূরণের বিষয়টি নির্ভর করে পণ্য আমদানি-রফতানির ওপর। পণ্য আমদানি-রফতানি বাড়লে রাজস্ব আহরণ বাড়বে। পণ্য আমদানি-রফতানি কমলে রাজস্ব আহরণ কমবে। প্রথমে রাজস্ব আহরণের লক্ষ্যমাত্রা কম নির্ধারণ করলেও পরে আবার নির্ধারণ করায় লক্ষ্যমাত্রা বেড়ে যায়। এ জন্য লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হয়নি। 

তিনি বলেন, প্রথমে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল গতবছরের রাজস্ব আদায়ের ওপর। পরে রংপুর কমিশনারেট সারাদেশের মধ্যে রাজস্ব আহরণে প্রথম হওয়ায় আবার কমিশনারেটের ওপর ৩০০ কোটি টাকা বাড়তি লক্ষ্যমাত্রা দেওয়া হয়। বাড়তি লক্ষ্যমাত্রা হিলি স্থল শুল্ক স্টেশনের ওপরে নির্ধারণ করা হয়। যেহেতু লক্ষ্যমাত্রা বেশি নির্ধারণ করা হয়েছে, তাই লক্ষ্যমাত্রা পূরণে আমরা বন্দর দিয়ে পণ্য আমদানি-রফতানি সেবা সহজ করেছি। আমদানিকৃত পণ্যের পরীক্ষণ শুল্কায়নসহ খালাস কার্যক্রম যত সহজ হবে ততই দেশের অন্যান্য বন্দরের চেয়ে হিলি ব্যবহারে আমদানিকারকরা উৎসাহিত হবেন। এতে বন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি বাড়বে। রাজস্ব আহরণ বাড়বে।

এসএম নুরুল আলম খান আরও বলেন, আমাদের উপ-কমিশনার পণ্য আমদানি-রফতানি বাণিজ্য যাতে আরও সহজ করা যায় সে জন্য নতুন সফটওয়্যার চালু করেছেন। এ ছাড়া পণ্য আমদানি-রফতানির ক্ষেত্রে কোনও সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট ও আমদানিকারক অহেতুক যেন হয়রানির শিকার না হন, তাদের সমস্যা যেন দ্রুত সমাধান হয় সে নির্দেশনা দিয়েছেন উপ-কমিশনার। আমরা সে মোতাবেক কাজ করে যাচ্ছি।

 

/এএম/

সম্পর্কিত

দিনাজপুরে বজ্রাঘাতে ২ জনের মৃত্যু

দিনাজপুরে বজ্রাঘাতে ২ জনের মৃত্যু

৪২ টাকার নিচে নামছে না পেঁয়াজের দাম

৪২ টাকার নিচে নামছে না পেঁয়াজের দাম

মাদকসেবনে বাধা দেওয়ায় স্ত্রীকে হত্যা

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৯:২২

বগুড়ার ধুনটে স্বামীকে মাদকসেবনে বাধা দেওয়ায় রেহেনা আকতার (১৮) নামের এক নববধূকে মারধরের পর শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) রাতে উপজেলার এলাঙ্গী ইউনিয়নের রাঙ্গামাটি গ্রামে ঘটনাটি ঘটে।

পুলিশ ঘটনার পরপরই হত্যায় জড়িত সন্দেহে মাদকাসক্ত স্বামী আলিফ হাসানকে (২২) আটক করেছে। নিহতের বাবা শনিবার (১৬ অক্টোবর) সকালে ধুনট থানায় মেয়ের জামাই ও শ্বশুরের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন। এরপর আটক আলিফ হাসানকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। গ্রেফতার স্বামী ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে রাজি হলে বিকালে বগুড়ার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোমিন হাসানের আদালতে হাজির করা হয়েছে।

পুলিশ, মামলার এজাহার ও স্বজনদের কাছ থেকে জানা গেছে, নির্মাণশ্রমিক আলিফ হাসান বগুড়ার ধুনট উপজেলার এলাঙ্গী ইউনিয়নের রাঙ্গামাটি গ্রামের মঞ্জুরুল হকের ছেলে। প্রায় দুই মাস আগে একই গ্রামের রেজাউল করিমের মেয়ে রেহেনা আকতারকে বিয়ে করেন। প্রায়ই মাদকসেবন করে বাড়ি ফিরতেন আলিফ। এ নিয়ে রেহেনার সঙ্গে তার ঝগড়া শুরু হয়। মাদকসেবন নিয়ে বৃহস্পতিবার রাতে তাদের মধ্যে বাগবিতণ্ডা হয়। এক পর্যায়ে ক্ষুব্ধ আলিফ গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধে করে স্ত্রীকে হত্যা করেন। পরে এটিকে আত্মহত্যা হিসেবে প্রচার চালিয়ে তড়িঘড়ি করে লাশ দাফনের চেষ্টা করেন। প্রতিবেশীদের সন্দেহ হলে দাফনে বাধা ও আলিফকে আটকে রাখেন। খবর পেয়ে ধুনট থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার ও স্বামী আলিফ হাসানকে আটক করে থানায় নিয়ে যান। এ সময় তার বাবা মঞ্জুরুল হক বাড়ি থেকে পালিয়ে যান।

ধুনট থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) জাহিদুল হক জানান, নিহত রেহেনার গলায় দাগ রয়েছে। মাদকসেবন নিয়ে
স্বামী-স্ত্রীর মাঝে কলহ চলছিল। এ নিয়ে ঝগড়ার জেরে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আলিফ হত্যার দায় স্বীকার করেন। শনিবার বিকালে তাকে বগুড়ার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোমিন হাসানের আদালত হাজির করা হয়। অপর আসামি শ্বশুর মঞ্জুরুল হককে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

স্বামীকে হত্যার অভিযোগে স্ত্রী আটক

স্বামীকে হত্যার অভিযোগে স্ত্রী আটক

পুনরায় হামলা-লুটপাটের আতঙ্কে গ্রাম ছাড়ছেন তারা

পুনরায় হামলা-লুটপাটের আতঙ্কে গ্রাম ছাড়ছেন তারা

দুই সন্তানসহ স্ত্রীর লাশ উদ্ধার, স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা

দুই সন্তানসহ স্ত্রীর লাশ উদ্ধার, স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা

লোকালয় থেকে অসুস্থ ঈগল উদ্ধার

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৮:৫১

ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার লোকালয় থেকে অসুস্থ অবস্থায় একটি বিপন্ন প্রজাতির ঈগল পাখি উদ্ধার করা হয়েছে। প্রায় দুই ফুট উচ্চতার ঈগলটির ওজন এক কেজি ৮০০ গ্রাম বলে জানা গেছে। শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার আসলামপুর ইউনিয়নের মুজিবনগর গ্রাম থেকে ঈগলটি উদ্ধার করা হয়।

বর্তমানে ঈগলটি লালমোহন উপজেলার রমাগঞ্জ ইউনিয়নের চৌমুহনি বাজারের পাখিপ্রেমী যুবক মোরশেদ আলম সুজনের কাছে রয়েছে। তিনি ঈগলটিকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে সুস্থ করে তুলছেন। তবে এখনও এটি উড়তে পারছে না। সুজন ঈগলটির নিবিড় পরিচর্যা করে চলেছেন। দু-একদিনের মধ্যে সুস্থ হতে পারে।

সুজন বলেন, ‘শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) চরফ্যাশনে অসুস্থ অবস্থায় একটি ঈগল বিলে পড়ে রয়েছে জানতে পেরে সেটি উদ্ধার করে নিয়ে আসি। বর্তমানে ঈগলটিকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। পুরোপুরি সুস্থ হলে ঈগলটিকে বন বিভাগের কাছে হস্তান্তর করা হবে।’

এ ব্যাপারে লালনমোহন বন বিভাগের রেঞ্জ কর্মকর্তা আশিষ কুমার বলেন, ‘ঈগল উদ্ধারের খবর পেয়েছি। এটি সুস্থ হলে বনে অবমুক্ত করা হবে। এর আগে তিন মাস আগে লালমোহন থেকে আরও একটি ঈগল উদ্ধার করা হয়েছিল। সেটিকেও বনে অবমুক্ত করা হয়েছে।’

তিনি আরও জানান, বন ও পরিবেশ থেকে এ ধরনের পাখি এখন অনেকটা বিপন্ন। এটি পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা করার পাশাপাশি সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে।

/এমএএ/

সম্পর্কিত

শুধু বাহবায় বড় ক্রিকেটার হওয়া যায় না, সাদিদ প্রসঙ্গে তার মা 

শুধু বাহবায় বড় ক্রিকেটার হওয়া যায় না, সাদিদ প্রসঙ্গে তার মা 

পায়রা বন্দরের আবাসন কেন্দ্রের কক্ষে ঝুলছিল প্রকৌশলীর লাশ

পায়রা বন্দরের আবাসন কেন্দ্রের কক্ষে ঝুলছিল প্রকৌশলীর লাশ

২৪টি খাল ভরাট করে স্থাপনা, বৃষ্টি হলেই ডোবে বরিশাল

২৪টি খাল ভরাট করে স্থাপনা, বৃষ্টি হলেই ডোবে বরিশাল

সাপুড়ের বাড়িতে মিললো ২৫ 'পদ্ম গোখরা' 

সাপুড়ের বাড়িতে মিললো ২৫ 'পদ্ম গোখরা' 

ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে সিঙ্গাপুর প্রবাসীর আত্মহত্যা

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৮:৩৬

টাঙ্গাইলের বাসাইলে ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে শরিফুল ইসলাম (২৮) নামের এক সিঙ্গাপুর প্রবাসী আত্মহত্যা করেছেন। শনিবার (১৬ অক্টোবর) বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে উপজেলার সোনালিয়া রেলক্রসিং এলাকায় বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দেন তিনি।

নিহত শরিফুল ইসলাম সখীপুর উপজেলার দেওবাড়ী গ্রামের আলাল মিয়ার ছেলে। বাবা আলাল মিয়া বলেন, ‘ছয় মাস আগে শরিফুল সিঙ্গাপুর থেকে ছুটিতে বাড়িতে আসে। সে তিন মাস আগে বাসাইল উপজেলার নাইকানীবাড়ী গ্রামের আমেনা নামের এক মেয়েকে বিয়ে করে। শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) শরিফুল শ্বশুর বাড়িতে যায়। আজ খবর পাই, শরিফুল মারা গেছে।’

স্থানীয়রা জানান, বিকালে বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনটি ঢাকা থেকে ছেড়ে রাজশাহী যাওয়ার সময় সোনালিয়া রেলক্রসিং এলাকায় এলে শরিফুল ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেন। খবর পেয়ে তার বাবাসহ পরিবারের লোকজন এসে সেখানেই কান্নায় ভেঙে পড়েন এবং বারবার মূর্ছা যান।

বাসাইল থানার এসআই মজিবুর রহমান বলেন, ‘খবর পেয়ে নিহতের লাশ রেলওয়ে পুলিশ নিয়ে গেছে। আইনি প্রক্রিয়া শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, পারিবারিক কোনও ঝামেলার কারণে তিনি আত্মহত্যা করেছেন।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

‘পাবজি খেলাকে কেন্দ্র করে’ স্কুলছাত্রকে হত্যা

‘পাবজি খেলাকে কেন্দ্র করে’ স্কুলছাত্রকে হত্যা

নারীকে বাঁচাতে যাওয়ায় সাংবা‌দি‌ককে মারধর, গ্রেফতার ১ 

নারীকে বাঁচাতে যাওয়ায় সাংবা‌দি‌ককে মারধর, গ্রেফতার ১ 

ইজিবাইকে ছিনতাইয়ের জন্যই কি হত্যা?  

ইজিবাইকে ছিনতাইয়ের জন্যই কি হত্যা?  

ক্রিকেট বল কুড়াতে গিয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু

ক্রিকেট বল কুড়াতে গিয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ট্রাকের পেছনে বাসের ধাক্কা, নিহত বেড়ে ৭

ট্রাকের পেছনে বাসের ধাক্কা, নিহত বেড়ে ৭

দিনাজপুরে বজ্রাঘাতে ২ জনের মৃত্যু

দিনাজপুরে বজ্রাঘাতে ২ জনের মৃত্যু

পরিবারের ৪ জনকে হারিয়ে সড়কে বসেই বিলাপ

ত্রিশালে সড়ক দুর্ঘটনাপরিবারের ৪ জনকে হারিয়ে সড়কে বসেই বিলাপ

দুই সন্তানসহ স্ত্রীর লাশ উদ্ধার, স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা

দুই সন্তানসহ স্ত্রীর লাশ উদ্ধার, স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা

দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে বাসের ধাক্কায় নিহত ৬

দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে বাসের ধাক্কায় নিহত ৬

পুকুরে ডুবে ভাইবোনের মৃত্যু

পুকুরে ডুবে ভাইবোনের মৃত্যু

আ.লীগ নেতাকে পিষে দিলো বেপরোয়া গতির গাড়ি   

আ.লীগ নেতাকে পিষে দিলো বেপরোয়া গতির গাড়ি   

চার দিনেও সন্ধান মেলেনি নিখোঁজ ব্যবসায়ীর

চার দিনেও সন্ধান মেলেনি নিখোঁজ ব্যবসায়ীর

১১ বছর পর লক্ষ্মীপুরে বিএনপির নতুন কমিটি

১১ বছর পর লক্ষ্মীপুরে বিএনপির নতুন কমিটি

বৃষ্টি উপেক্ষা করে সোনাপাহাড়ে ৩ জনের জানাজায় হাজারো মানুষ

বৃষ্টি উপেক্ষা করে সোনাপাহাড়ে ৩ জনের জানাজায় হাজারো মানুষ

সর্বশেষ

হিলি স্থলবন্দরে ৩ মাসে রাজস্ব ঘাটতি ২৩ কোটি টাকা

হিলি স্থলবন্দরে ৩ মাসে রাজস্ব ঘাটতি ২৩ কোটি টাকা

আবাহনীর দাবি, ভিডিও আম্পায়ার ভয়ে সিদ্ধান্ত দিতে পারেননি

আবাহনীর দাবি, ভিডিও আম্পায়ার ভয়ে সিদ্ধান্ত দিতে পারেননি

আসিয়ানের সিদ্ধান্তের নেপথ্যে ‘বিদেশি হস্তক্ষেপ’: মিয়ানমার জান্তা

আসিয়ানের সিদ্ধান্তের নেপথ্যে ‘বিদেশি হস্তক্ষেপ’: মিয়ানমার জান্তা

মাদকসেবনে বাধা দেওয়ায় স্ত্রীকে হত্যা

মাদকসেবনে বাধা দেওয়ায় স্ত্রীকে হত্যা

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান শুরু ২১ অক্টোবর

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান শুরু ২১ অক্টোবর

© 2021 Bangla Tribune