X
বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ৪ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

এবার কেন ডেঙ্গু ভয়ংকর

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:১৬

আট বছরের মাহির ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়। কিন্তু ভর্তি হওয়ার পর চিকিৎসকরা লক্ষ্য করলেন মাহিরের ব্রেইন, লিভার, হার্ট ও কিডনিও ঠিক মতো কাজ করছে না। পাঁচ দিনের ভেতরে শিশুটির চারটি অর্গান কাজ করা থামিয়ে দিল।

কেবল মাহির না এবারে ডেঙ্গু আক্রান্ত ও মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়া একাধিক পরিবার ও সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, অন্যান্য বারের তুলনায় এবার বৈশিষ্ট্য পরিবর্তন হয়েছে ডেঙ্গুর। যেসব নির্দেশনা মেনে চিকিৎসা করা হতো সেসবে আনতে হচ্ছে পরিবর্তন। তাদের বিশ্লেষণ বলছে, এবারে ডেঙ্গু তার চরিত্র বদল করেছে, হয়ে উঠেছে ভয়ংকর ও মারাত্মক। এবারে শিশুরা আক্রান্ত হচ্ছে বেশি এবং সময়ও পাওয়া যাচ্ছে অল্প। শুরুতেই একাধিক অঙ্গ (অর্গান) আক্রান্ত হয়ে যাচ্ছে।

ঢাকার ভেতরে সবচেয়ে বেশি ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী ভর্তি হয়েছে  স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। দুই হাজার ৩৮৪ জনের মধ্যে হাসপাতাল ছেড়েছেন দুই হাজার ২১৩ জন আর মারা গেছেন ১৩ জন বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। আর বর্তমানে ভর্তি আছেন  ১৫৮ জন।

তবে এই হাসপাতালে ডেঙ্গুতে মৃত্যু হয়েছে ২০ জনের। তাদের মৃত্যুর ঘটনা পর্যবেক্ষণের জন্য পাঠানোর জন্য পাঠানো হয়েছে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানে ( আইইডিসিআর)।

স্বাস্থ্য অধিদফতর জানাচ্ছে, গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ১৬৩ জন। আর বর্তমানে দেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন এক হাজার ১৯১ জন। আর চলতি বছরে এখন পর্যন্ত ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন ১৫ হাজার ২২৮ জন। এখন পর্যন্ত ৫৭ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর।

রাজধানীর বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসকরা বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব বেশি দেখা যায় ২০১৯ সালে। কিন্তু সেবার অন্তত পাঁচ থেকে ছয়দিনের আগে রোগীর অবস্থা জটিল হতো না। কিন্তু এবারে চট করেই রোগী খারাপ হয়ে যাচ্ছে। এবারে আর এক্সপান্ডেড ডেঙ্গু সিনড্রোম বিরল নয়, বরং বেশিরভাগ রোগীই হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছে ডেঙ্গুর এই ধরন নিয়ে।শিশুদের ক্ষেত্রে এক্সপান্ডেড ডেঙ্গু সিনড্রোম, অর্থাৎ লিভার, কিডনি, মস্তিষ্ক ও হৃৎপিণ্ডের জটিলতা তৈরি হতে সময় লাগছে না, দ্রুত রোগী শকে চলে যাচ্ছে, রক্তক্ষরণ হচ্ছে, বুকে-পেটে পানি জমছে।

চিকিৎসকরা বলছেন, ২০১৯ সালে ডেঙ্গু রোগের প্রাদুর্ভাব হলে রোগী অনেক বেশি ছিল। কিন্তু রোগীদের অবস্থা এত খারাপ হতো না, জটিল হতো না। কিন্তু এবারে চট করেই রোগী খারাপ হয়ে যাচ্ছে, চিকিৎসা করার মতোও সময়টাও পাওয়া যাচ্ছে না।

ঢাকা শিশু হাসপাতালের ক্রিটিক্যাল কেয়ার পেডিয়াট্রিকস বিভাগের অধ্যাপক মোহাম্মাদ মনির হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, যে নির্দেশিকা ( গাইডলাইন) মেনে এখন ডেঙ্গুর চিকিৎসা করা হচ্ছে সেটা এবার আর টিকছে না। এবারে ডেঙ্গু এক্সপান্ডেড সিনড্রোমে আক্রান্ত হচ্ছে বেশি শিশুরা। কিন্তু ২০১৮ সালে প্রণীত ন্যাশনাল গাইডলাইন ফর ক্লিনিক্যাল ম্যানেজমেন্ট অব ডেঙ্গু সিনড্রোমে এক্সপান্ডেড ডেঙ্গু সিনড্রোমকে খুবই বিরল বলে আখ্যা দেওয়া আছে।

চলতি বছরে ডেঙ্গুর সবচেয়ে ক্ষতিকর ধরনগুলোর একটি ডেনভি-৩ – এ বাংলাদেশের মানুষ আক্রান্ত হচ্ছে বলে জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা। তাঁরা বলেছেন, ডেঙ্গুর এই ধরনের কারণে দ্রুত রোগীদের রক্তের কণিকা প্লাটিলেট কমে যাচ্ছে। সে কারণে আক্রান্ত ব্যক্তিরা গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ায় তাদের হাসপাতালে নিতে হচ্ছে। সেই সঙ্গে এ কারণেই চলতি বছরে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হচ্ছে বেশি, দিনকে দিন রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে।

ডেঙ্গু ভাইরাসের জিন-নকশা (জিনোম সিকোয়েন্স) উন্মোচন করে বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদের (বিসিএসআইআর) জিনোমিক গবেষণাগারের বিজ্ঞানীরা এসব কথা জানিয়েছেন। প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান মো. আফতাব আলী শেখ জানান, এবারে সবচেয়ে ভয়াবহ ব্যাপার হলো, ডেঙ্গু হওয়ার পর রক্তের প্লাটিলেট দ্রুত নেমে যাচ্ছে, আগে যেটা ধীরগতিতে নামত।

ঢাকা শিশু হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. প্রবীর কুমার সরকার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, হাসপাতাল রোগীতে ঠাসা। সিট না থাকায় নতুন কেউ ভর্তি হতে পারছে না। সব মিলিয়ে জটিল অবস্থা এবারে।

তিনি বলেন, এবারে যেসব জটিলতা নিয়ে রোগী আসছে সেটা ২০১৯ সালে আমরা কল্পনাও করতে পারতাম না, অথচ এবারে তাই বেশি দেখতে হচ্ছে। এর আগে দুই থেকে একটা রোগী ছিল এক্সপান্ডেড, কিন্তু এবারে শিশু হাসপাতালে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ১০ শিশুর মৃত্যু হয়েছে, তার মধ্যে ম্যাক্সিমামই এক্সপান্ডেড ডেঙ্গু।

আর এবারে কেন এটা হচ্ছে প্রশ্নে ডা. প্রবীর কুমার সরকার বলেন, এরজন্য গবেষণা দরকার। তবে সাধারণভাবে বলা যায়, যে সেরোটাইপ দিয়ে এবারে ডেঙ্গু হচ্ছে তার ভিরুলেন্স এবারে অনেক বেশি। অর্থাৎ, তার সংক্রমণ ক্ষমতা তীব্র।

২০১৯ সালে এত জটিল রোগী আমরা পাইনি জানিয়ে মন্তব্য করে তিনি বলেন, একটা এক্সপান্ডেড ডেঙ্গু হলেও সেটা অত্যন্ত শঙ্কার কথা।

“পয়েন্ট অব নো রিটার্ন” – এ অবস্থাতেই বেশি রোগী পাচ্ছি, প্রতিদিন আইসিইউতে যাচ্ছে রোগীরা, খুব জটিল অবস্থা। আগের সব চরিত্র বদলাচ্ছে ডেঙ্গু, বলেন ডা. প্রবীর কুমার সরকার।

ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে সবচেয়ে বেশি রোগী ভর্তি আছে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। এ হাসপাতালের সহকারী রেজিস্ট্রার ও ডেঙ্গু ইউনিটের ফোকাল পারসন ডা. মিজানুর রহমান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ন্যাশনাল গাইডলাইনে এক্সপান্ডেড ডেঙ্গু সিন্ড্রোমকে বিরল হিসেবে আখ্যা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এবারে সেটা আর বিরল নেই, এবারে সেটা খুবই কমন হয়ে গেছে।

“এবারে বরং ডেঙ্গু মাইল্ড কেস বিরল হয়ে গেছে, সব ডেঙ্গুই এক্সপান্ডেড”।

এবছরের ডেঙ্গু রোগীরা দুই থেকে তিন দিনের মধ্যেই খুব খারাপ প্রেজেন্টেশন নিয়ে আসছে। যেমন ‑ পেটে-বুকে পানি চলে আসা, রক্তক্ষরণ হচ্ছে, অতিরিক্ত বমি হওয়া, লিভার-গলব্লাডার ইনভল্ভ হয়ে যাওয়ার কারণে রোগী খারাপ হয়ে যাচ্ছে।

হাসপাতালে যত ভর্তি রোগী রয়েছে, তার মধ্যে ৫০ থেকে ৭০ শতাংশ রোগীরই এ অবস্থা জানিয়ে ডা. মিজানুর রহমান বলেন, ২০১৯ সালে যেসব রোগীদের অবস্থা খারাপ হতো, আক্রান্ত হবার ষষ্ঠ বা সপ্তম দিনে তাদের অবস্থা খারাপ হতো। কিন্তু এবারে আক্রান্ত হবার দ্বিতীয় বা তৃতীয় দিনেই মধ্যেই খারাপ হয়ে যাচ্ছে।

“এটাই হচ্ছে ২০১৯ আর ২০২১ এর মধ্যে ডেঙ্গুর পার্থক্য”।

ডেঙ্গু থেকে মুক্তির জন্য সবাইকে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, শুধু সিটি করপোরেশনের উপরে নির্ভর না করে নিজেদের সচেতন হতে হবে জানিয়ে ডা. মিজানুর রহমান বলেন, আক্রান্ত হবার সঙ্গে সঙ্গে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে, কোনওভাবেই এবারে সময় নষ্ট করা চলবে না।

“এবারের ডেঙ্গুতে সময় নষ্ট করার মতো সময় হাতে থাকছে না” মন্তব্য করে তিনি বলেন, নিজে নিজে বাসায় বসে চিকিৎসা, ফার্মেসি থেকে স্যালাইন নিয়ে চিকিৎসা করার মতো অবকাশ এবারে নেই। কোনওভাবেই বাসায় থেকে স্যালাইন নেওয়া যাবে না জানিয়ে তিনি বলেন, ডেঙ্গুতে শরীরে পানির সংকট যেমন হচ্ছে এবারে, তেমনি বেশিরভাগ রোগী যারা মারা যাচ্ছেন ‑ তারা ‘ফ্লুয়িড ওভারলোড’ অর্থাৎ, শরীরে বেশি পানির কারণে মারা যাচ্ছেন, বেশি স্যালাইন নেবার কারণে মারা যাচ্ছেন।

/এমএস/

সম্পর্কিত

স্ত্রীসহ স্বাস্থ্যের সাবেক প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে মামলা

স্ত্রীসহ স্বাস্থ্যের সাবেক প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে মামলা

পাঁচ কোটি ৮৮ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

পাঁচ কোটি ৮৮ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

ডিসেম্বরের মধ্যে করোনা টিকার আওতায় ৩০ শতাংশ মানুষ: সালমান এফ রহমান

ডিসেম্বরের মধ্যে করোনা টিকার আওতায় ৩০ শতাংশ মানুষ: সালমান এফ রহমান

চলতি মাসের ১৮ দিনে সাড়ে ৩ হাজার ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে

চলতি মাসের ১৮ দিনে সাড়ে ৩ হাজার ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে

লক্ষ্মীপূজা আজ

আপডেট : ২০ অক্টোবর ২০২১, ০০:৩২

হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্যতম বৃহৎ ধর্মীয় অনুষ্ঠান শ্রী শ্রী লক্ষ্মীপূজা আজ বুধবার (২০ অক্টোবর)। শারদীয় দূর্গা উৎসবের পর হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্যতম প্রধান ধর্মী উৎসব এই লক্ষ্মীপূজা। 

লক্ষ্মী ধনসম্পদ তথা ঐশ্বর্যের দেবী হিসেবে পূজিত হন। এ ছাড়া উন্নতি (আধ্যাত্মিক ও পার্থিব), আলো, জ্ঞান, সৌভাগ্য, দানশীলতা, সাহস ও সৌন্দর্যের দেবীও তিনি। শারদীয় দুর্গোৎসব শেষ হওয়ার পরবর্তী পূর্ণিমা তিথিতে হিন্দু সম্প্রদায় লক্ষ্মীপূজা উদযাপন করে থাকে। হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্যতম এই ধর্মীয় উৎসবটি কোজাগরি লক্ষ্মীপূজা নামেও পরিচিত। 

রাজধানীর ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির, রামকৃষ্ণ মিশন ও মঠ মন্দির, রামসীতা মন্দির, পঞ্চানন্দ শিব মন্দির, গৌতম মন্দির, রাধা মাধব বিগ্রহ মন্দির, রাধা গোবিন্দ জিও ঠাকুর মন্দিরসহ বিভিন্ন মন্দির এবং পুরান ঢাকার শাঁখারীবাজার, তাঁতীবাজার, সূত্রাপুর, ফরাশগঞ্জ, লক্ষ্মীবাজারসহ বিভিন্ন এলাকায় লক্ষ্মীপূজার বিভিন্ন ধর্মীয় কর্মসূচি আয়োজন করা হয়েছে।

/এমআর/

সম্পর্কিত

গুলশান সোসাইটি ও রাজউকের মধ্যে সমঝোতা স্মারক সই

গুলশান সোসাইটি ও রাজউকের মধ্যে সমঝোতা স্মারক সই

স্ত্রীসহ স্বাস্থ্যের সাবেক প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে মামলা

স্ত্রীসহ স্বাস্থ্যের সাবেক প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে মামলা

পাঁচ কোটি ৮৮ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

পাঁচ কোটি ৮৮ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

ধূমপান প্রতিরোধে জনসচেতনতা তৈরির কোনও বিকল্প নেই: পর্যটন প্রতিমন্ত্রী

ধূমপান প্রতিরোধে জনসচেতনতা তৈরির কোনও বিকল্প নেই: পর্যটন প্রতিমন্ত্রী

ঢাবির সুফিয়া কামাল হলের আগুন নিয়ন্ত্রণে

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ২২:০৯

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সুফিয়া কামাল হলের আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) রাতে ফায়ার সার্ভিসের মিডিয়া সেলের কর্মকর্তা শাহজাহান শিকদার এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) রাত সোয়া ৯টায় সুফিয়া কামাল হলের ১০ তলায় আগুনের সূত্রপাত হয়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের দুইটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

রাত ৯ টা ১৮ মিনিটে আগুন সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে আনে। এই ঘটনায় কোন হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি বলেও তিনি জানান।

/এআরআর/এমআর/

সম্পর্কিত

সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে সাহিত্যিক-শিল্পী ও সাংবাদিকদের বিক্ষোভ সমাবেশ

সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে সাহিত্যিক-শিল্পী ও সাংবাদিকদের বিক্ষোভ সমাবেশ

ভবনে ৬ মাসের মধ্যে সেপটিক ট্যাংক না বসালে ব্যবস্থা: মেয়র আতিক

ভবনে ৬ মাসের মধ্যে সেপটিক ট্যাংক না বসালে ব্যবস্থা: মেয়র আতিক

সব সম্প্রদায়ের ধর্ম পালনের অধিকার নিশ্চিত করতে হবে: ইউনাইটেড ইসলামী পার্টি

সব সম্প্রদায়ের ধর্ম পালনের অধিকার নিশ্চিত করতে হবে: ইউনাইটেড ইসলামী পার্টি

পুনর্বাসনের দাবিতে ফুলবাড়ীয়া রেলওয়ে কলোনি বস্তিবাসীর বিক্ষোভ

পুনর্বাসনের দাবিতে ফুলবাড়ীয়া রেলওয়ে কলোনি বস্তিবাসীর বিক্ষোভ

গুলশান সোসাইটি ও রাজউকের মধ্যে সমঝোতা স্মারক সই

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ২১:৫৭

রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক) ও গুলশান সোসাইটির মধ্যে পৃথক দুটি সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) সই অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) রাজধানীর একটি হোটেলে এ চুক্তি সই সম্পন্ন হয়।

ঢাকার অন্যতম প্রসিদ্ধ আবাসিক কমিউনিটি গুলশান সোসাইটি। গুলশান এলাকার অধিবাসীদের সরাসরি ভোটে নির্বাচিত একটি সমাজ সেবামূলক প্রতিষ্ঠান এটি। রাজউক, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন, ডেসকো এবং ওয়াসার মতো সংস্থাগুলোর সঙ্গে সমন্বয় ও পার্টনারশিপের মাধ্যমে নাগরিক সমস্যা সমাধানে সক্রিয় গুলশান সোসাইটি। এরই ধারাবাহিকতায় গুলশান লেকপার্ক ও গুলশান-বনানী লেক ব্যবস্থাপনার লক্ষ্যে নতুন এ সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) সই হয়েছে।

সমঝোতা স্মারকে গুলশান সোসাইটির পক্ষে সই করেন সোসাইটির সেক্রেটারি জেনারেল ব্যারিস্টার শুক্লা সারওয়াত সিরাজ এবং রাজউকের পক্ষে সই করেন চেয়ারম্যান এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরী। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন গৃহায়ন  ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ। 

এই সমঝোতা স্মারকের ফলে রাজউকের পক্ষ থেকে গুলশান-বনানী-বারিধারা লেকের রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব পালন করবে গুলশান সোসাইটি। এছাড়া রাজউকের মালিকানাধীন গুলশান লেক পার্কের ব্যবস্থাপনা ও রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব পালন করবে সোসাইটি। রাজউক ও গুলশান সোসাইটির এই যৌথ কার্যক্রম পাবলিক-প্রাইভেট পার্টনারশিপের একটি প্রশংসনীয় দৃষ্টান্ত হিসেবে ইতোমধ্যেই স্বীকৃতি লাভ করেছে।

এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ আয়োজনে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ। অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন  গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. শহীদ উল্লা খন্দকার, রাজউকের মেম্বার ডেভলপমেন্ট মেজর অব.  শামছুদ্দীন আহমেদ চৌধুরী, ১৯ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. মফিজুর রহমান।

শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন গুলশান সোসাইটির সেক্রেটারি জেনারেল ব্যারিস্টার শুক্লা সারওয়াত সিরাজ, সমাপনী বক্তব্য রাখেন গুলশান সোসাইটির ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট মাহিন খান। এ ছাড়া বক্তব্য রাখেন— গুলশান সোসাইটির লেক পার্ক  ম্যানেজমেন্ট কমিটির সমন্বয়ক অ্যাডভোকেট হোসনে আরা আহসান ও  ইভা রহমান।

 

/এসএস/এইপএইচ/

সম্পর্কিত

লক্ষ্মীপূজা আজ

লক্ষ্মীপূজা আজ

স্ত্রীসহ স্বাস্থ্যের সাবেক প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে মামলা

স্ত্রীসহ স্বাস্থ্যের সাবেক প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে মামলা

পাঁচ কোটি ৮৮ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

পাঁচ কোটি ৮৮ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

ধূমপান প্রতিরোধে জনসচেতনতা তৈরির কোনও বিকল্প নেই: পর্যটন প্রতিমন্ত্রী

ধূমপান প্রতিরোধে জনসচেতনতা তৈরির কোনও বিকল্প নেই: পর্যটন প্রতিমন্ত্রী

স্ত্রীসহ স্বাস্থ্যের সাবেক প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে মামলা

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ২১:২৫

স্ত্রীসহ স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতরের সাবেক প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। তারা হলেন নজরুল ইসলাম (৬০) ও তার স্ত্রী সৈয়দা তামান্না শাহেরীন (৬৩)। এছাড়া তাদের সঙ্গে তামান্নার ভাই সৈয়দ হাসান শিবলীকে একই মামলায় আসামি করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) দুদকের উপ-পরিচালক আশীষ কুমার কুণ্ডু বাদী হয়ে সমন্বিত জেলা কার্যালয়, ঢাকা-১-এ মামলাটি দায়ের করেন।

মামলার অভিযোগে বলা হয়েছে, আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে অসৎ উদ্দেশে মানি লন্ডারিং, দুর্নীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহারের মাধ্যমে জ্ঞাত আয়বহির্ভূত ৬ কোটি ১৭ লাখ ৩১ হাজার ৭৬৩ টাকার সম্পদ অর্জন করেছেন। তাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশন আইন ২০০৪-এর ২৭ (১) ধারা এবং মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইন, ২০১২-এর ৪(২) এবং দুর্নীতি প্রতিরোধ আইন ১৯৪৭-এর ৫(২) ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে। দুদকের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সূত্র জানায়, দুদকের অনুসন্ধানে সাবেক প্রকৌশলী নজরুল ইসলামের স্থাবর সম্পদ হিসাবে নিজ নামীয় দলিলে পল্লবী এলাকায় জমি এবং উত্তরা দিয়াবাড়ি এলাকায় তিন কাঠার একটি জমির সন্ধান পাওয়া গেছে। এছাড়া ঝিনাইদহে হেবামূলে প্রায় তিন শতাংশ জমিসহ তার প্রায় ৩০ লাখ টাকার মোট স্থাবর সম্পত্তির সন্ধান পাওয়া গেছে। এছাড়া অস্থাবর সম্পত্তি হিসাবে ইস্টার্ন ব্যাংকের প্রিন্সিপাল শাখা ও যমুনা ব্যাংকে ১৫টি ব্যাংক হিসাবে জামানত হিসাবে মোট ৮ কোটি টাকার তথ্য পাওয়া গেছে।

দুদক কর্মকর্তারা জানান, সাবেক প্রকৌশলী নজরুল ইসলাম ১৯৮৮ সালে সহকারী প্রকৌশলী হিসাবে স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতরে যোগ দেন। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে তিনি তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী হিসেবে অবসর গ্রহণ করেন। তার অস্থাবর সম্পত্তির মধ্যে সরকারি চাকরির আগে সঞ্চয় ও চাকরি জীবনের সঞ্চয় ও অন্যান্য আয় হিসাবে ২ কোটি ৩৮ লাখ ১৩ হাজার ৯৩৭ টাকা গ্রহণযোগ্য বিবেচনা করা হয়েছে। ২০১০-১১ করবর্ষে নজরুল ইসলাম তার স্ত্রী তামান্না শাহেরীনের কাছ থেকে ২ কোটি টাকা এবং ২০১৯-২০ করবর্ষে ৪ কোটি টাকাসহ ৬ কোটি টাকা দান হিসাবে গ্রহণ করার কোনও গ্রহণযোগ্য ব্যাখ্যা পাওয়া যায়নি।

সূত্র জানায়, অনুসন্ধানে দুদক কর্মকর্তারা জানতে পারেন প্রকৌশলী নজরুল ইসলামের স্ত্রী সৈয়দা তামান্না শাহেরীন একজন গৃহিনী। তিনি আয়ের উৎস হিসেবে খামার ও মৎস্য চাষের কথা উল্লেখ করলেও এ বিষয়ে কোনও তথ্য পাওয়া যায়নি। সুতরাং তার পক্ষে স্বামী নজরুল ইসলামকে ৬ কোটি টাকা দানের বিষয়টি গ্রহণযোগ্য হিসেবে প্রতীয়মান হয়নি। এসব অর্থ ঘুষ ও দুর্নীতির মাধ্যমে আয় করে এবং অবৈধ উৎস গোপন করার লক্ষ্যে নগদ এফডিআর করে মানি লন্ডারিং করা হয়েছে বলে দুদক মনে করছে।

দুদক কর্মকর্তার জানান, প্রকৌশলী সৈয়দা তামান্না শাহেরীনের নিজের নামে ঢাকার ধানমন্ডি ১৫ নম্বর সড়কের ১৭ নম্বর ভবনে একটি ফ্ল্যাটের সন্ধান পাওয়া গেছে। এছাড়া তার নামে নিকুঞ্জ আবাসিক এলাকায় ২ কাঠা ৮ ছটাক আয়তনের একটি প্লট পাওয়া গেছে। তার কোনও বৈধ আয় না থাকায় স্বামীর অবৈধ অর্থে নিজের নামে সম্পত্তি ক্রয় করে বৈধতা দেওয়ার চেষ্টা করেছেন। এজন্য তাকেও মামলায় আসামি করা হয়েছে।

/এনএল/জেএইচ/

সম্পর্কিত

লক্ষ্মীপূজা আজ

লক্ষ্মীপূজা আজ

গুলশান সোসাইটি ও রাজউকের মধ্যে সমঝোতা স্মারক সই

গুলশান সোসাইটি ও রাজউকের মধ্যে সমঝোতা স্মারক সই

পাঁচ কোটি ৮৮ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

পাঁচ কোটি ৮৮ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

পাঁচ কোটি ৮৮ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ২১:০৯

দেশে এ পর্যন্ত টিকা এসেছে মোট ৭ কোটি ১৫ লাখ ৭২ হাজার ৪২০ ডোজ। এর মধ্যে মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) ৫ কোটি ৮৮ লাখ ১ হাজার ৫৫ ডোজ  দেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ এই মুহূর্তে টিকা মজুত আছে আর ১ কোটি ২৭ লাখ ৬৯ হাজার ৩৬২ ডোজ। এ পর্যন্ত প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে ৩ কোটি ৯১ লাখ ৬৮ হাজার ৯৪৮ জনকে এবং দ্বিতীয় ডোজ পেয়েছেন ১ কোটি ৯৬ লাখ ৩২ হাজার ১০৭ জন। মঙ্গলবার একদিনে দুই ডোজ মিলিয়ে দেওয়া হয়েছে মোট ৫ লাখ ৬২ হাজার ২৭৪ ডোজ টিকা। 

এগুলো দেওয়া হয়েছে অক্সফোর্ডের অ্যাস্ট্রাজেনেকা, চীনের তৈরি সিনোফার্ম, ফাইজার এবং মডার্নার টিকা।

মঙ্গলবার স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে পাঠানো টিকাদান বিষয়ক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি থেকে এসব তথ্য জানা যায়।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের দেওয়া তথ্যমতে, আজ অ্যাস্ট্রাজেনেকার প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে ৪১ হাজার ২২৯ জনকে এবং দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হয়েছে এক হাজার ১২৯ জনকে।

পাশাপাশি আজ  ফাইজারের প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে ২১ হাজার ৩ জনকে এবং দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হয়েছে এক হাজার ৯৭৮ জনকে।

এছাড়া সিনোফার্মের টিকা আজ  প্রথম ডোজ নিয়েছেন দুই লাখ ৬৮ হাজার ৫২৮ জন এবং দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন দুই লাখ ২৮ হাজার ৪০৭ জন। 

এছাড়া মডার্নার টিকা আজও  কাউকে দেওয়া হয়নি।

সারা দেশে এ পর্যন্ত টিকার জন্য নিবন্ধন করেছেন মোট ৫ কোটি ৫০ লাখ ৩৫ হাজার ৬৭৬ জন।

/এসও/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

লক্ষ্মীপূজা আজ

লক্ষ্মীপূজা আজ

গুলশান সোসাইটি ও রাজউকের মধ্যে সমঝোতা স্মারক সই

গুলশান সোসাইটি ও রাজউকের মধ্যে সমঝোতা স্মারক সই

স্ত্রীসহ স্বাস্থ্যের সাবেক প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে মামলা

স্ত্রীসহ স্বাস্থ্যের সাবেক প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে মামলা

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

স্ত্রীসহ স্বাস্থ্যের সাবেক প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে মামলা

স্ত্রীসহ স্বাস্থ্যের সাবেক প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে মামলা

পাঁচ কোটি ৮৮ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

পাঁচ কোটি ৮৮ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

ডিসেম্বরের মধ্যে করোনা টিকার আওতায় ৩০ শতাংশ মানুষ: সালমান এফ রহমান

ডিসেম্বরের মধ্যে করোনা টিকার আওতায় ৩০ শতাংশ মানুষ: সালমান এফ রহমান

চলতি মাসের ১৮ দিনে সাড়ে ৩ হাজার ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে

চলতি মাসের ১৮ দিনে সাড়ে ৩ হাজার ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে

২৪ জেলায় শনাক্ত নেই

২৪ জেলায় শনাক্ত নেই

শনাক্তের হার আবারও ২ শতাংশের ওপরে

শনাক্তের হার আবারও ২ শতাংশের ওপরে

করোনার বেড নিয়ে হ-য-ব-র-ল অবস্থা

করোনার বেড নিয়ে হ-য-ব-র-ল অবস্থা

দ্বিতীয় ডোজের আওতায় এক কোটি ৯৪ লাখ মানুষ

দ্বিতীয় ডোজের আওতায় এক কোটি ৯৪ লাখ মানুষ

চলতি মাসে ডেঙ্গুতে মৃত্যু ১৪ জনের

চলতি মাসে ডেঙ্গুতে মৃত্যু ১৪ জনের

সর্বশেষ

ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালানোর কথা স্বীকার উত্তর কোরিয়ার

ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালানোর কথা স্বীকার উত্তর কোরিয়ার

যুক্তরাষ্ট্রে বিমান বিধ্বস্ত, অলৌকিকভাবে বেঁচে গেলো ২১ আরোহী

যুক্তরাষ্ট্রে বিমান বিধ্বস্ত, অলৌকিকভাবে বেঁচে গেলো ২১ আরোহী

৫ গোলে জিতলো রিয়াল মাদ্রিদ, আতলেতিকোকে হারালো লিভারপুল

৫ গোলে জিতলো রিয়াল মাদ্রিদ, আতলেতিকোকে হারালো লিভারপুল

যুক্তরাজ্যে আবারও বাড়ছে করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যু

যুক্তরাজ্যে আবারও বাড়ছে করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যু

মেসির জোড়ায় পিএসজির রোমাঞ্চকর জয়

মেসির জোড়ায় পিএসজির রোমাঞ্চকর জয়

© 2021 Bangla Tribune