X
বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ৪ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

ইভ্যালিকাণ্ডে ই-কমার্সে আস্থার সংকট চরমে

আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:০৩

ইভ্যালিকাণ্ডে ই-কমার্স খাতে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। অর্ডার যেমন কমছে, তেমনই অগ্রিম পেমেন্টের সংখ্যাও কমেছে। বেড়েছে ক্যাশ অন ডেলিভারি (সিওডি)। খাত সংশ্লিষ্টরা বলছেন, আস্থার সংকটের কারণে এমনটা হয়েছে। এই সংকট কাটতে সময় লাগবে। ৬ মাস থেকে এক  বছরও লেগে যেতে পারে।

সংশ্লিষ্টরা আরও জানান,দেশে করোনা মহামারির সময়ে ই-কমার্সের বিশাল উত্থান হয়েছে। এ খাতের প্রবৃদ্ধি ছিল ৫০ থেকে ১০০ শতাংশ। যদিও অনেকে মনে করেন, এই প্রবৃদ্ধি ঢাকাকেন্দ্রিক। যেসব ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান গ্রোসারিনির্ভর তারা প্রবৃদ্ধি ধরে রাখতে পারলেও অন্যদের অবস্থা খারাপ। বিশেষ করে যারা হাই ভ্যালু (দামি) পণ্য বিক্রি করেন তাদের অবস্থা অনেকটা শোচনীয়।

ই-কমার্স উদ্যোক্তারা বলছেন, পণ্য উৎপাদক, সাপ্লাইয়ার ও আমদানিকারকরা তাদের বাকিতে পণ্য দিতে অনাগ্রহ দেখাচ্ছেন। নগদে পণ্য কিনে আগের ভলিউমে ব্যবসা করা সম্ভব না হওয়ায় তাদের পরিচলন ব্যয় বেড়ে যাচ্ছে। তারা অগ্রিম দামও (নির্দিষ্ট শতাংশ হারে) সেই হারে পাচ্ছেন না। ভরসা করতে হচ্ছে ক্যাশ অন ডেলিভারির (সিওডি)ওপরে। সব মিলিয়ে পরিচালন ব্যয় বেড়ে যাওয়ায়  প্রভাব পড়ছে ‍পুরো ই-কমার্স সেবায়। 

এসব বিষয়ে জানতে চাইলে বেসিসের সাবেক সভাপতি ও ই-কমার্স উদ্যোক্তা ফাহিম মাসরুর বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘বিশাল প্রভাব পড়েছে ই-কমার্সে। ছোটদের ওপরে প্রভাবটা বেশি। বড় তথা মেইন স্ট্রিমের ই-কমার্স, যাদের গ্রাহক বেশি, তাদের খুব বেশি সমস্যা হবে না।’ তিনি বলেন, ‘ই-কমার্সে মানুষের আস্থা কমেছে। নতুন গ্রাহক আসছে না। পুরনো গ্রাহকরাও সরে যাচ্ছে। তারা অবস্থা পর্যবেক্ষণ করছে। এই প্রবণতা এ খাতের জন্য শুভ নয়।’

তিনি জানান, সার্বিকভাবে ই-কমার্সে গত কিছুদিনে ২০-২৫ শতাংশ অর্ডার কমে গেছে। অগ্রিম নিতে পারছেন না অনেকে। পেমেন্ট গেটওয়ে কোম্পানিগুলো নগদ টাকা দিতে বেশি দেরি করছে। অপরদিকে সিওডি বেড়ে গেছে। ফলে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের পরিচলন ব্যয় বেড়েছে।

ফাহিম মাসরুর আশঙ্কা করেন— দীর্ঘমেয়াদে সরকার যদি ই-কমার্সে কমপ্লায়েন্স ইস্যু চাপিয়ে দেয়, তাহলে ছোট উদ্যোক্তারা ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। লাইসেন্সিং কর্তৃপক্ষ এলে বড় উদ্যোক্তারা পার পেলেও ছোটরা ক্ষতির সম্মুখীন হবেন।

তিনি সরকারকে সাধুবাদ জানিয়ে বলেন, ‘ই-কমার্স স্ক্যামে যাদের নাম আসছে, তাদের আইনের আওতায় উচিত। যারা ইভ্যালির মডেলে ব্যবসা করছে, তাদের সম্পদ জব্দ করা উচিত। তাহলে অন্যরা সতর্ক হয়ে যাবে। গ্রাহকরা ক্ষতির মুখে পড়বে না।’

গ্যাজেটসনির্ভর ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান সেলেক্সট্রা শপের প্রতিষ্ঠাতা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাকিব আরাফাত বলেন, ‘ই-কমার্স খাতটা এলোমেলো হয়ে গেছে। গুছিয়ে উঠতে সময় লাগবে। তার চেয়ে বেশি সময় লাগবে গ্রাহকের আস্থা ফেরাতে।’ সরকারসহ সংশ্লিষ্টদের নানামুখী উদ্যোগ এই খাতের সংকট কাটাতে সাহায্য করবে বলে তিনি মনে করেন।

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান প্রিয়শপ ডট কমের প্রধান নির্বাহী আশিকুল আলম খাঁন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘বিশাল চাপে পড়ে গেছে দেশের ই-কমার্স খাত। সাপ্লাইয়াররা এখন বাকিতে আমাদের পণ্য দিতে চান না। নগদ টাকা দিয়ে আমাদের পণ্য কিনতে হচ্ছে। এতে করে আমাদের পরিচলন ব্যয় বেড়ে যাচ্ছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের যা মোট বিক্রি তার ২০ শতাংশ আসতো প্রি-পেইড বা অগ্রিম হিসেবে। এখন তা নেমে গেছে ৫ শতাংশে। ৯৫ শতাংশ লেনদেন এখন ক্যাশ অন ডেলিভারিতে হচ্ছে। পরিচলন ব্যয় বেড়ে যাওয়ার এটাও একটা কারণ। গ্রোসারির (নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য) কারণে প্রিয়শপের গ্রোথ এখনও ঠিক আছে। গ্রোসারি বাদ দিলে বাজার এখন নিম্নগামী বলা যায়।’

তিনি জানান, ইভ্যালি-কাণ্ডে ই-কমার্স খাত প্রায় ৫০ শতাংশ বাজার হারিয়েছে। প্রিয়শপের অর্ডারও কমেছে বলে তিনি জানান।    

পিকাবো ডট কমের প্রধান নির্বাহী মরিন তালুকদার বলেন, ‘যে প্রভাব পড়েছে তা কাটিয়ে উঠতে সময় লাগবে। করোনার প্রকোপ কমছে, এই সময়ে ই-কমার্স খাত টেকসই মডেলের দিকে যাবে বলে আশা করেছিলাম আমরা। কিন্তু অনেক বড় ক্ষতি হয়ে গেলো এই খাতের।’ তিনি জানান, পিকাবোর ১৫ শতাংশ বিক্রি কমে গেছে, গত মাসের তুলনায়, সব মিলিয়ে আরও বেশি। আস্থাহীনতার কারণে এমনটা হচ্ছে বলে তিনি মনে করেন।

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা যারা হাই ভ্যালু (দামি) পণ্য বিক্রি করি, তাদের সমস্যাটা অন্যদের তুলনায় বেশিই। বেশিরভাগ ক্রেতাই সিওডি-তে (ক্যাশ অন ডেলিভারি) আগ্রহী।’

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলোর সংগঠন ই-ক্যাব (ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ) এ বিষয়ে কী মনে করছে জানতে চাইলে সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুল ওয়াহেদ তমাল বলেন, ‘এই খাতে বিশাল একটা নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। ক্রেতাদের মনে আস্থার একটা সংকট তৈরি হয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘ইভ্যালির দেখাদেখি অনেকে এটাকে রোল মডেল ভেবে নিয়ে কাজ শুরু করেছে। এটাই সমস্যা তৈরি করেছে।’ তিনি জানান, ই-ক্যাব ২০১৯ সালে এস্ক্রো সার্ভিসের (টাকা গেটওয়েতে থাকবে। ক্রেতা পণ্য বুঝে পেলে বিক্রেতা টাকা পাবে) পরামর্শ দিয়েছে। ২০২০ সালের ডিসেম্বর মাসে এসওপি (স্ট্যান্ডার্ড অপারেশন প্রসিডিউর) তৈরির পরামর্শ দিয়েছে। তমাল জানান, ইভ্যালি বিনিয়োগকারী খুঁজতে গিয়েই এসব করেছে বলে তিনি মনে করেন। কিন্তু সেটাও তারা পায়নি। তারা বিশাল ডিসকাউন্ট মডেল থেকে বের হয়ে আসতে পারেনি। দ্রুত বড় হতে চেয়েছে। বের হতে পারলে মডেলটি সাসটেইন করতে পারতো। ইভ্যালি যা করেছে, তা তাদের করা মোটেও উচিত হয়নি। তিনি মনে করেন, ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলো ম্যানুয়াল পদ্ধতি ছেড়ে যতদিন না পুরোপুরি প্রযুক্তিনির্ভর হবে, ততদিন এসব সমস্যা যাবে না। 

স্থগিত হচ্ছে চারটি ই-কমার্সের সদস্যপদ

দেশের শীর্ষস্থানীয় চার ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের সদস্যপদ স্থগিত করবে ই-ক্যাব। চলতি সপ্তাহেই ই-ক্যাব থেকে এই ঘোষণা আসতে পারে বলে ই-ক্যাব সূত্রে জানা গেছে।

/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

ই-কমার্সে লাইসেন্সিং কর্তৃপক্ষ নেই কেন?

ই-কমার্সে লাইসেন্সিং কর্তৃপক্ষ নেই কেন?

৯ মাসে কটূক্তি কমেছে অর্ধেক, দাবি ফেসবুকের

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৫৬

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে গত ৯ মাসে  কটূক্তি বা ঘৃণাসূচক উক্তি কমে অর্ধেকে নেমে এসেছে। সম্প্রতি হুইসেল ব্লোয়ারের সাক্ষ্য দিতে গিয়ে এমনটাই দাবি করেছে প্রতিষ্ঠানটি। ফেসবুকের ইন্টিগ্রিটি ভিপি গাই রোজেন একটি প্রতিরক্ষামূলক পোস্টে জানান, কটূক্তির উপস্থিতি এখন আসলে অনেকটাই কম।

তিনি আরও বলেন, ‘০.০৫ শতাংশ অথবা প্রতি ১০ হাজারে পাঁচটি কনটেন্ট বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, গত ৯ মাসে কটূক্তির পরিমাণ প্রায় অর্ধেকে নেমে গেছে।’

তিনি অভিযোগের বিরোধিতা করে বলেন, ‘বিষয়টিকে আসলে ভুলভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। এটি ছিল সম্পূর্ণই মেট্রিকভাবে। কটূক্তিকে সরানোর আরও  অন্য পন্থা রয়েছে। অর্থাৎ কনটেন্ট রিমুভ অথবা পিপল, গ্রুপ ও পেজের রিচ লিমিট করার এসব পদ্ধতি আসলে পলিসি লঙ্ঘন করার মতো।’

ভিপি গাই রোজেন বলেন, ‘এখানে সত্যের একটি মাত্রা রয়েছে। ফেসবুক খুব কম ক্ষেত্রে ভুলভাবে কোনও কথাকে কটূক্তি বলে নির্দিষ্ট করে। আর রিমুভ সিস্টেমের আগ্রাসী মনোভব কখনও কখনও দুর্ঘটনার কারণও হতে পারে। কটূক্তির ভিউ যদি খুব কম হয়, তাহলে এর প্রভাবও খুব সীমিত হয়।’

সংবাদ মাধ্যম এনগ্যাজেট জানায়, এরপরও ফেসবুকের কিছু কিছু ব্যাপারে সন্দেহ থেকে যায়, হগেন এর সাক্ষাতে দেখা যায়, ফেসবুক খুব ছোটখাটো ক্ষেত্রের আপত্তিকর বিষয়গুলোকে ধরে। বিষয়টি সত্যি হলে সমস্যা এখনও থেকেই যাচ্ছে। এমনকি এর ভিউ যদি খুব কমও হয়। এছাড়া একটি জায়গায় রোজেনের জবাব হগেনের অভিযোগকে স্পর্শ করতে পারেনি। তা হলো, ফেসবুক নিরাপদ অ্যালগরিদমের প্রয়োগ এবং কটূক্তি বা বিভেদ সৃষ্টি করে— এমন বক্তব্যের প্রসারকে সীমিত করার প্রয়াসকে বাধা দিয়েছে।

 

 

 

 

/এইচএএইচ/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

নতুন ম্যাকবুক প্রো’তে থাকতে পারে নচ ডিসপ্লে

নতুন ম্যাকবুক প্রো’তে থাকতে পারে নচ ডিসপ্লে

ভাইবার নিয়ে আসছে অনেক ফিচার

ভাইবার নিয়ে আসছে অনেক ফিচার

তারকাদের হয়রানি করে এমন কনটেন্ট মুছে দেবে ফেসবুক

তারকাদের হয়রানি করে এমন কনটেন্ট মুছে দেবে ফেসবুক

ওয়ালটনের ডুয়াল ব্যান্ডের রাউটার

ওয়ালটনের ডুয়াল ব্যান্ডের রাউটার

নিজেদের তৈরি চিপে অ্যাপলের নতুন ম্যাকবুক প্রো

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৬:৪৩

নিজেদের তৈরি নতুন চিপ নিয়ে নতুন অ্যাপলের যাত্রা শুরু হলো। ১৪ ইঞ্চি এবং ১৬ ইঞ্চি মডেলের দুটি ম্যাকবুক প্রো’তে সংযুক্ত হয়েছে এম১ প্রো এবং এম১ ম্যাক্স নামে তাদের নিজস্ব কাস্টম বিল্ট-ইন-প্রসেসর।

আগামী সপ্তাহ থেকে এটি বাজারে পাওয়া যাবে। ইয়াহুা ফিন্যান্স সূত্রে জানা যায়, ১৪ ইঞ্চি মডেলের দাম পড়বে ১,৯৯৯ ডলার আর ১৬ মডেলটির দাম ২৪৯৯ ডলার।

এম১ চিপের বৈশিষ্ট্য

এর এম১ প্রো চিপটি ৫ ন্যানোমিটারের। এতে রয়েছে ৩৩.৭ বিলিয়ন ট্রানজিস্টার, যা মূল এম১-এর তুলনায় দ্বিগুণ। প্রতিষ্ঠানটির দাবি, এর পারফরম্যান্স মূল এম১-এর তুলনায় ৭০ শতাংশ বেশি। এর জিপিইউ কোর ১৬টি। গ্রাফিক্সের পারফরম্যান্সও মূলটির তুলনায় দ্বিগুণ।

অপরদিকে, এম১ ম্যাক্সের ট্রানজিস্টারের সংখ্যা ৫৭ বিলিয়ন এবং তা মূল এম‌১-এর তুলনায় সাড়ে তিনগুণ। এর সিপিইউ কোর এম১ প্রো’র মতোই ১০টি, কিন্তু জিপিইউ কোর রয়েছে ৩২টি।

প্রতিষ্ঠানটি আরও দাবি করছে, তাদের চিপ দুটির পারফরম্যান্স ৮ কোর পিসি চিপসের তুলনায় ১.৭ গুণ বেশি এবং তা চলবে ৭০ শতাংশ কম বিদ্যুতে। এক হিসাবে ১৪ ইঞ্চি মডেলটির উভয় চিপ আগের ম্যাকবুক প্রো ১৩ ইঞ্চিতে ব্যবহার করা ইন্টেল কোর আই৭ চিপের চেয়ে ৩.৭ গুণ বেশি গতিসম্পন্ন। আর ১৬ ইঞ্চি মডেলের ক্ষেত্রে আগের কোর আই ৯ চিপের তুলনায় এম১ প্রো চিপ ২.৫ গুণ বেশি ক্ষমতাসম্পন্ন, আর এম১ ম্যাক্স চিপ ৪ গুণ বেশি ক্ষমতাসম্পন্ন।

নতুন রেটিনা ডিসপ্লে

নতুন মডেলগুলোতে রয়েছে এজ-টু-এজ লিকুইড রেটিনা এক্সডিআর স্ক্রিন। আর গুজবকে সত্য করে ডিসপ্লেটিকে করা হয়েছে নচ ডিসপ্লে। সঙ্গে ফেস টাইম ক্যামেরা। এর ১৬ ইঞ্চি মডেলের ভিউ এরিয়া ১৬.২ ইঞ্চি আর ১৪ ইঞ্চির ১৪.২ ইঞ্চি। এছাড়াও অ্যাপল তার ডিসপ্লেতে সংযুক্ত করেছে প্রো মোশন ক্ষমতা। এটি আপনা আপনি রিফ্রেশের হার পরিবর্তন করে নেবে। স্ক্রিনে ব্যবহার করা হয়েছে মিনি এলইডি। অন্যান্য ল্যাপটপের তুলনায় এই এলইডি অনেক ছোট।

এর কি-বোর্ডটিও নতুন এবং আগের মতো এখানেও ব্যবহার করা হয়েছে টাচ বার। নতুন পোর্টগুলোর মধ্যে রয়েছে এইচডিএমআই, ৩ থান্ডারবোল্ট ৪টি, একটি এসডি কার্ডস্লট আর একটি মেগাসেফ চার্জিং পোর্ট। এর ১০৮০ রেজুলেশনের ফেসটাইম ক্যামেরাটি অল্প আলোতে আগের চেয়ে দ্বিগুণ ক্ষমতাসম্পন্ন। এর প্রতিটি মডেলেই দেওয়া হয়েছে ৬টি স্পিকার এবং ২টি ট্যুইটার। সেই সঙ্গে ডিপ বেজের জন্য উচ্চ রেঞ্জের মোশনসমৃদ্ধ দুটি উফার।

/এইচএএইচ/এমএস/এমওএফ/

সম্পর্কিত

শিশুকে নিয়ে অশ্লীল কনটেন্ট থাকলে ধরবে আইওএস

শিশুকে নিয়ে অশ্লীল কনটেন্ট থাকলে ধরবে আইওএস

সব পণ্যে ফেস আইডি আনতে পারে অ্যাপল

সব পণ্যে ফেস আইডি আনতে পারে অ্যাপল

কিস্তিতে মূল্য পরিশোধের সুযোগ আনছে অ্যাপল

কিস্তিতে মূল্য পরিশোধের সুযোগ আনছে অ্যাপল

অ্যাপলের স্মার্ট ঘড়িতে ইসিজি ফিচার ব্যবহার করবেন যেভাবে

অ্যাপলের স্মার্ট ঘড়িতে ইসিজি ফিচার ব্যবহার করবেন যেভাবে

নতুন ম্যাকবুক প্রো’তে থাকতে পারে নচ ডিসপ্লে

আপডেট : ১৮ অক্টোবর ২০২১, ২১:৩৫

অ্যাপলের নতুন ডিজাইন করা ম্যাকবুক প্রো’তে থাকছে ওয়েবক্যামসহ নচ ডিসপ্লে। এমনই একটি খবর দেখা যাচ্ছে অনলাইনে বিভিন্ন সাইটে। খবরটি প্রথম দেখা যায়, চীনভিত্তিক একটি মাইক্রো ব্লগিং ওয়েবসাইট ‘সিনা ওয়েইবো’র একজন ব্যবহারকারীর পোস্ট থেকে। তিনি দেখান, এর আকৃতি অনেকটা আইফোন-১২ এর কাছাকাছি। এদিকে টুইটার ব্যবহারকারী ডনরুইও ওয়েইবোর পোস্টটি শেয়ার করেন। তবে তিনি বলেন, ‘এটি হয়তো শুধু গুজবই হতে পারে।’ আবার একজন রেডিট ব্যবহারকারী সাপ্লাই চেইনের সূত্র ধরে একই দাবি করেন।

সংবাদ মাধ্যম ম্যাকরিউমার জানায়, ওপরে নচসহ এই ডিসপ্লের ম্যাকবুক-প্রো’র চার পাশের একই প্রস্থ হওয়া সম্ভব নয়। এই নচ ডিসপ্লের ডিজাইন করা ম্যাকবুক এয়ার ২০২২ এ বাজারের আসতে পারে বলেও জানায় সংবাদ মাধ্যমটি। তবে এই নচের দাবিটি হাস্যকর মনে হলেও সংবাদ মাধ্যমটির নিজস্ব অনুসন্ধানে দেখা যায়— নতুন ১৪ এবং ১৬ ইঞ্চি ডিসপ্লেতে রেজুলিউশন থাকছে ৩০২৪ বাই ১৯৬৪ এবং ৩৪৫৬ বাই ২২৩৪। উভয়ের উচ্চতাকে ৭৪ পিক্সেল দিয়ে বিয়োগ করলে ৩০২৪ বাই ১৮৯০ এবং ৩৪৫৬ বাই ২১৬০-এর আসপেক্ট রেশিও দাড়ায় ১৬:১০। এই অনুপাতটি অ্যাপলের সাম্প্রতিক সব ম্যাকবুকে ব্যবহার করা হয়। সুতরাং, নচের জন্য ৭৪ পিক্সেল বাদ দিলে এই গুজবটিকে অনেকটাই গ্রহণযোগ্য বলে মনে হয়। তবে এর বিপরীতে অনেক প্রশ্নও দাঁড়ায়। যেমন- ম্যাক ওএস এই নচকে কীভাবে নিয়ন্ত্রণ করবে। কেননা, এই নচ মেনুবারকে খেয়ে ফেলবে। এমন আরও অনেক রকমের সমস্যা রয়েছে।

আরও কিছু গুজবের মধ্যে রয়েছে কালো কিবোর্ড, উচ্চতা আগের চেয়ে একটু মোটা এবং বড় আকারের ফ্যান। তবে এগুলোর খুব ভালো সূত্র পাওয়া না গেলেও ইতোপূর্বে এমন একটি গুজবের সত্যতা পাওয়া গেছে। যেমন- অ্যাপল ওয়াচ সাতের বেলায়। আর এই নচটি এখন অ্যাপলের অনেকটা ব্র্যান্ডিং আইকনের মতো।

 

 

/এইচএএইচ/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

৯ মাসে কটূক্তি কমেছে অর্ধেক, দাবি ফেসবুকের

৯ মাসে কটূক্তি কমেছে অর্ধেক, দাবি ফেসবুকের

ভাইবার নিয়ে আসছে অনেক ফিচার

ভাইবার নিয়ে আসছে অনেক ফিচার

ওয়ালটনের ডুয়াল ব্যান্ডের রাউটার

ওয়ালটনের ডুয়াল ব্যান্ডের রাউটার

সড়ক দুর্ঘটনা অর্ধেকে নামিয়ে আনবে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা প্রযুক্তি

সড়ক দুর্ঘটনা অর্ধেকে নামিয়ে আনবে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা প্রযুক্তি

‘ভার্চুয়াল বিশ্ব’ তৈরি করতে ১০ হাজার কর্মী নেবে ফেসবুক

আপডেট : ১৮ অক্টোবর ২০২১, ১৪:৫১

ইউরোপিয় ইউনিয়ন থেকে আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে ১০ হাজার কর্মী নিয়োগ দেওয়ার পরিকল্পনা করেছে ফেসবুক। সোমবার (১৮ অক্টোবর) এমনই একটি ঘোষণা দিয়ে ফেসবুক জানায়, মেটাভার্স নামে ভার্চুয়াল বিশ্ব তৈরি করার জন্য তারা এই পদক্ষেপ নিয়েছে।

এ দিকে রয়টার্স জানায়, এ বছর সেপ্টেম্বরে ফেসবুক মেটাভার্স তৈরি করার জন্য ৫০ মিলিয়ন ডলার বরাদ্দ করে। যে কাজে রবলক্স এবং ফোর্টনাইট গেমের প্রস্তুতকারক এপিক গেমস ইতোমধ্যেই অনেকদূর এগিয়ে গেছে। ইতোপূর্বে ফেসবুক অকুলাস কোয়েস্ট-২ হেডসেট দিয়ে ভার্চুয়াল রিয়েলিটির মাধ্যমে মিটিং আয়োজনের পরীক্ষা চালাচ্ছিল বলে উল্লেখ করে সংবাদ মাধ্যমটি।

ফেসবুক আরও জানায়, জুলাইতে মেটাভার্স তৈরি করার জন্য তারা একটি প্রোডাক্ট টিম তৈরি করে যেটা ফেসবুক রিয়েলিটি ল্যাবের একটি অংশ।  মূলত ইউরোপিয়ান টেক ইন্ডাস্ট্রি এবং ইউরোপিয়ান টেক ট্যালেন্টদের ওপর আস্থা রেখে এই বিনিয়োগটি করা হয়েছে বলেও জানিয়েছে ফেসবুক।

/এইচএএইচ/ইউএস/

সম্পর্কিত

৯ মাসে কটূক্তি কমেছে অর্ধেক, দাবি ফেসবুকের

৯ মাসে কটূক্তি কমেছে অর্ধেক, দাবি ফেসবুকের

নিজেদের তৈরি চিপে অ্যাপলের নতুন ম্যাকবুক প্রো

নিজেদের তৈরি চিপে অ্যাপলের নতুন ম্যাকবুক প্রো

নতুন ম্যাকবুক প্রো’তে থাকতে পারে নচ ডিসপ্লে

নতুন ম্যাকবুক প্রো’তে থাকতে পারে নচ ডিসপ্লে

সম্প্রচারে ফিরলো স্টার জলসাও

সম্প্রচারে ফিরলো স্টার জলসাও

সম্প্রচারে ফিরলো স্টার জলসাও

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ২১:১৮

জি বাংলা সম্প্রচারে ফেরার পরদিনই ফিরলো স্টার জলসা। চ্যানেলটি বিজ্ঞাপন মুক্ত ক্লিন ফিড প্রচার করছে। শনিবার (১৬ অক্টোবর) রাত থেকেই চ্যানেলটি অনুষ্ঠান সম্প্রচার করছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ক্যাবল অপারেটর্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (কোয়াব) সভাপতি আনোয়ার পারভেজ বলেন, অনেক চ্যানেলই এখন ক্লিন ফিড নিয়ে সম্প্রচারে আসতে চাইছে। আমাদের একটাই শর্ত ক্লিন ফিড। তিনি জানান, শিগগিরই কালার্সসহ অন্যান্য চ্যানেলও ক্লিন ফিড নিয়ে সম্প্রচারে আসবে।

প্রসঙ্গত, গত ১ অক্টোবর কোয়াবের সদস্যরা ও ডিটিএইচ অপারেটররা দেশে ক্যাবল টিভির সম্প্রচার বন্ধ রাখে। স্যাটেলাইট চ্যানেল বিজ্ঞাপন মুক্ত (ক্লিন ফিড) রাখার বিষয়ে সরকার কড়াকড়ি আরোপ করলে ক্যাবল অপারেটররা স্যাটেলাইট চ্যানেলগুলোর সম্প্রচার বন্ধ রাখে। ক্লিন ফিড দেওয়ার পরই একেক করে চ্যানেলগুলো সম্প্রচারে ফিরছে।   

 

/এইচএএইচ/এমআর/

সম্পর্কিত

৯ মাসে কটূক্তি কমেছে অর্ধেক, দাবি ফেসবুকের

৯ মাসে কটূক্তি কমেছে অর্ধেক, দাবি ফেসবুকের

নিজেদের তৈরি চিপে অ্যাপলের নতুন ম্যাকবুক প্রো

নিজেদের তৈরি চিপে অ্যাপলের নতুন ম্যাকবুক প্রো

নতুন ম্যাকবুক প্রো’তে থাকতে পারে নচ ডিসপ্লে

নতুন ম্যাকবুক প্রো’তে থাকতে পারে নচ ডিসপ্লে

‘ভার্চুয়াল বিশ্ব’ তৈরি করতে ১০ হাজার কর্মী নেবে ফেসবুক

‘ভার্চুয়াল বিশ্ব’ তৈরি করতে ১০ হাজার কর্মী নেবে ফেসবুক

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ই-কমার্সে লাইসেন্সিং কর্তৃপক্ষ নেই কেন?

ই-কমার্সে লাইসেন্সিং কর্তৃপক্ষ নেই কেন?

সর্বশেষ

ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালানোর কথা স্বীকার উত্তর কোরিয়ার

ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালানোর কথা স্বীকার উত্তর কোরিয়ার

যুক্তরাষ্ট্রে বিমান বিধ্বস্ত, অলৌকিকভাবে বেঁচে গেলো ২১ আরোহী

যুক্তরাষ্ট্রে বিমান বিধ্বস্ত, অলৌকিকভাবে বেঁচে গেলো ২১ আরোহী

৫ গোলে জিতলো রিয়াল মাদ্রিদ, আতলেতিকোকে হারালো লিভারপুল

৫ গোলে জিতলো রিয়াল মাদ্রিদ, আতলেতিকোকে হারালো লিভারপুল

যুক্তরাজ্যে আবারও বাড়ছে করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যু

যুক্তরাজ্যে আবারও বাড়ছে করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যু

মেসির জোড়ায় পিএসজির রোমাঞ্চকর জয়

মেসির জোড়ায় পিএসজির রোমাঞ্চকর জয়

© 2021 Bangla Tribune