X
শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ৬ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

৬ মাসেই ভেঙে পড়ছে সাড়ে তিন কোটি টাকার সড়ক

আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:৫৪

পটুয়াখালীতে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতরের (এলজিইডি) অধীনে সাড়ে তিন কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত কার্পেটিং সড়কটি ছয় মাস যেতে না যেতেই নদী ভাঙনের কবলে পড়েছে। দ্রুত পদক্ষেপ না নিলে পুরো সড়ক ভেঙে ওই এলাকার সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, দুমকি উপজেলার পাঙ্গাশিয়া ইউনিয়ন পরিষদের কাছ থেকে পুকুরজানা বাজার পর্যন্ত সোয়া পাঁচ কিলোমিটার দীর্ঘ সড়কটির কাজ চলতি বছরের মার্চের মাঝামাঝিতে শেষ হয়। এরই মধ্যে সড়কটির প্রায় ১০০ মিটার নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। জোয়ারের পানিতে ভেঙে গেছে দুই পাশ। ভেঙে যাওয়া সড়ক মেরামত করেছেন স্থানীয় অটোচালকরা।

এলজিইডি অফিস সূত্রে জানা গেছে, পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) বেড়িবাঁধের ওপর ‘বৃহত্তর পটুয়াখালী জেলার গুরুত্বপূর্ণ গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের’ আওতায় ২০১৭-২০১৮ অর্থবছরে বরাদ্দ করা সাড়ে তিন কোটি টাকা ব্যয়ে সড়কটি নির্মাণ করা হয়েছিল।

নির্মাণের সময় কাজ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন স্থানীয়রা। তাদের অভিযোগ, লকডাউনে সড়কের কাজ হয়েছে। এতে সড়ক পরিদর্শনে কেউ আসেনি। ঠিকাদার ইচ্ছেমতো কাজ করে গেছেন। যেখানে সড়কের পাশে নদী থাকায় পাইলিংয়ের দাবি করেছিলেন স্থানীয়রা। তাদের কথার কোনও গুরুত্ব দেয়নি ঠিকাদার। কাজ তদারকির দায়িত্বে যারা ছিলেন, তাদের কাছে পাইলিংয়ের দাবি জানালে বলেন, ‘কাগজে পাইলিংয়ের কথা নেই। আমারা চুক্তি অনুযায়ী কাজ করে যাবো’।

তবে এ বিষয়ে জানতে মোবাইল ফোনে কল করা হলে ঠিকাদার মাহফুজুর রহমান কথা বলতে রাজি হননি।

ওই এলাকার বাসিন্দা সেকান্দার বয়াতী বলেন, ‘সড়কটি নির্মাণকালে আমরা নদীর তীরে পাইলিংয়ের দাবি জানিয়েছিলাম। কিন্তু কর্তৃপক্ষ আমাদের কথা শোনেনি। প্রতি বছরের ন্যায় বর্ষাকালে নদী ভাঙন তীব্র হওয়ায় সড়কটি ভাঙছে। এতে আতঙ্কে আছি। এখনও পাইলিং করা হলে সড়কটি রক্ষা করা সম্ভব।’

পাঙ্গাশিয়া তেঁতুলবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পিয়ারা বেগম বলেন, ‘নদীতে ভেঙে পড়া রাস্তা দিয়ে স্কুলের বেশিরভাগ ছাত্রছাত্রীদের নিয়মিত আসা যাওয়া করতে হয়। আমাদের এসব শিশুদের নিয়ে চরম দুশ্চিন্তায় থাকতে হচ্ছে। সড়ক যোগাযোগ রক্ষায় ভাঙন ঠেকাতে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া দরকার।’

স্থানীয় অটোচালক মো. সবুজ হাওলাদার বলেন, ‘সড়কটি হয়েছে যে বেশিদিন হয়নি। এর মধ্যে প্রায় ১০০ মিটার নদীতে ভেঙে পড়েছে। এছাড়াও দুই জায়গায় নদীর পানি ওঠা-নামার ফলে গর্ত হয়ে বিচ্ছন্ন হওয়ার মতো অবস্থা হয়েছিল। আমারা অটোরিকশা চালকরা গর্ত দুইটিতে মাটি দিয়ে ভরাট করে চলাচলের উপযোগী করেছি। এতে সড়কটি রক্ষা হয়েছে। সরকারিভাবে যদি সড়কটি এখনও রক্ষার পদক্ষেপ না নেয়, তাহলে বিলীন হয়ে যাবে।’

এ বিষয়ে দুমকি উপজেলা এলজিইডির প্রকৌশলী মো. আজিজুর রহমান বলেন, ‘সড়কের ভাঙন মেরামতে প্রাথমিকভাবে তিন লাখ টাকার (প্রাক্কলন) প্রকল্প হাতে নিয়ে সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যানকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। শিগগিরই কাজ শুরু করার কথা রয়েছ। ইউপি চেয়ারম্যান কাজে গড়িমসি করলে আমরাই মেরামত করে দেবো।’

পাঙ্গাশিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম গাজী বলেন, ‘সড়কটি সংরক্ষণের জন্য এলজিইডিকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলেছি। যতদ্রুত সম্ভব মেরামত কাজ শুরু করা হবে।’

দুমকি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ আবদুল্লাহ শাদীদ বলেন, ‘ইতোমধ্যে ভাঙন কবলিত সড়কটি পরিদর্শন করেছি। দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে এলজিইডিকে অনুরোধ করা হয়েছে। রাস্তার প্রাক্কালনে পাইলিং না ধরায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।’

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামাল হোসেন বলেন, ‘বিষয়টি আমার জানা নেই। খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

রাতে স্ত্রীকে হত্যা করে সকালে মেয়েকে নিয়ে থানায়

রাতে স্ত্রীকে হত্যা করে সকালে মেয়েকে নিয়ে থানায়

পিকআপে করে গরু চুরির সময় ৪ চোর গ্রেফতার

পিকআপে করে গরু চুরির সময় ৪ চোর গ্রেফতার

জমি নিয়ে বিরোধে ইউপি সদস্যকে মারধর, কাটা হলো বাড়ির সড়ক 

জমি নিয়ে বিরোধে ইউপি সদস্যকে মারধর, কাটা হলো বাড়ির সড়ক 

এক মোটরসাইকেলে ৪ জন, ট্রেনের ধাক্কায় মা-ছেলে নিহত

আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২১, ২২:১৩

টাঙ্গাইলে ট্রেনের ধাক্কায় মোটরসাইকেলে থাকা মা ও ছেলে নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন ওই নিহত নারীর স্বামী ও আরেক ছেলে। শুক্রবার (২২ অক্টোবর) সন্ধ্যায় সদর উপজেলার হাতিলা রেলক্রসিং এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। টাঙ্গাইলের ঘারিন্দা রেল স্টেশন মাস্টার সোহেল খান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নিহতরা হলেন- সারামণি (২৫) ও তার আড়াই বছরের ছেলে আব্দুর রহমান আইয়ান। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন সারামণির স্বামী আজগর আলী ও তার পাঁচ বছরের ছেলে আব্দুল্লাহ। তারা জেলার বাসাইল উপজেলার ময়থা উত্তরপাড়া এলাকার বাসিন্দা। সম্প্রতি তারা সদর উপজেলার করটিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এলাকায় বসবাস করেছেন।

নিহত সারামণির উকিল বাবা আশরাফ আলী বলেন, ‘সারামণি ও আজগর আলী দুই সন্তানকে নিয়ে মোটরসাইকেলযোগে হাতিলা এলাকায় আত্মীয়ের বাড়িতে যায়। সেখান থেকে ফেরার পথে তারা হাতিলা রেলক্রসিং পার হচ্ছিল। এ সময় একটি ট্রেন এসে তাদের ধাক্কা দেয়। এ ঘটনায় সারামণি ও তার ছোট ছেলে আব্দুর রহমান আইয়ান ঘটনাস্থলেই মারা যায়। আর আজগর আলী ও তার বড় ছেলে আব্দুল্লাহ আহত হয়। আজগর আলীকে বর্তমানে ঢাকায় নেওয়া হচ্ছে। আব্দুল্লাহ ভালো আছে।’

টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগে দায়িত্বরত চিকিৎসক রাজিব পাল চৌধুরী বলেন, ‘হাসপাতালে দুই জনকে আনা হয়েছিল। এর মধ্যে আজগর আলীকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। শিশুটিকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।’

টাঙ্গাইলের ঘারিন্দা স্টেশনের মাস্টার সোহেল খান বলেন, ‘কুড়িগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস ট্রেনটি ঢাকার দিকে যাচ্ছিল। শুনেছি ওই ট্রেনে কাটা পড়ে দুই জন মারা গেছে। লাশ তাদের স্বজনরা নিয়ে গেছেন।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

বোয়ালমারীতে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেলো অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী

বোয়ালমারীতে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেলো অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী

ভ্রাম্যমাণ আদালত ছেড়ে আহতকে হাসপাতালে নিলেন ইউএনও

ভ্রাম্যমাণ আদালত ছেড়ে আহতকে হাসপাতালে নিলেন ইউএনও

সালিশে প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে সিএনজিচালক নিহত

সালিশে প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে সিএনজিচালক নিহত

বোয়ালমারীতে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেলো অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী

আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২১, ২১:৫২

ফরিদপুরের বোয়ালমারীতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রী। তার বয়স ১৪ বছর। শুক্রবার (২২ অক্টোবর) বিকালে উপজেলার পরমেশ্বরদী ইউনিয়নের জয়পাশা গ্রামে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মারিয়া হক হাজির হতেই বিয়ের আয়োজন ভেস্তে যায়।

স্থানীয় বাসিন্দা রফিকুল ইসলাম জানান, বোয়ালমারী উপজেলার চতুল ইউনিয়নের বাইখীর গ্রামের আতিয়ার মোল্যার ছেলে সোহেল মোল্যার (২৫) সঙ্গে একই উপজেলার জয়পাশা গ্রামের সৈয়দ ফজলুল হক একাডেমির অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রীর শুক্রবার বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। খবর পেয়ে সহকারী কমিশনার (ভূমি) মারিয়া হক বিয়ের প্রস্তুতিকালে কিশোরীর বাড়িতে হাজির হয়ে বিয়ে বন্ধ করে দেন। একইসঙ্গে বর ও কনে পক্ষকে জরিমানা করেন তিনি।

অপ্রাপ্তবয়স্ক মেয়েকে বিয়ে দেওয়ার উদ্যোগ নেওয়ায় বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন ২০১৭-এর ৭ ধারায় মেয়ের বাবাকে ৭ হাজার টাকা এবং অপ্রাপ্তবয়স্ক মেয়েকে বিয়ে করতে আগ্রহী সোহেল মোল্যাকে একই আইনের ৮ ধারায় ৮ হাজার টাকাসহ মোট ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। 

বাল্যবিয়ে বন্ধের সত্যতা নিশ্চিত করে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মারিয়া হক বলেন, ‘ছেলে ও মেয়ে উভয় পক্ষকে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়া ওই কিশোরীর বাবা এবং ছেলের (বর) কাছ থেকে যথাক্রমে প্রাপ্তবয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত মেয়ের বিয়ে দেবো না এবং প্রাপ্তবয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত মেয়েকে বিয়ে করবো না মর্মে মুচলেকা নেওয়া হয়েছে।’

/জেএইচ/

সম্পর্কিত

এক মোটরসাইকেলে ৪ জন, ট্রেনের ধাক্কায় মা-ছেলে নিহত

এক মোটরসাইকেলে ৪ জন, ট্রেনের ধাক্কায় মা-ছেলে নিহত

ভ্রাম্যমাণ আদালত ছেড়ে আহতকে হাসপাতালে নিলেন ইউএনও

ভ্রাম্যমাণ আদালত ছেড়ে আহতকে হাসপাতালে নিলেন ইউএনও

মাদারীপুর অঞ্চলে ৯ মাসে সড়কে ঝরেছে ২১৩ প্রাণ

মাদারীপুর অঞ্চলে ৯ মাসে সড়কে ঝরেছে ২১৩ প্রাণ

পূজামণ্ডপে হামলার চেষ্টা: যুব পরিষদের ৭ নেতাকর্মী রিমান্ডে 

আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২১, ২১:৪৬

চট্টগ্রামের জেএম সেন হলের পূজামণ্ডপে হামলা চেষ্টার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় যুব অধিকার পরিষদের সাত জনের এক দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। শুক্রবার (২২ অক্টোবর) চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট শফি উদ্দিনের আদালত তাদের রিমান্ডে নেওয়ার আদেশ দেন।

কোতোয়ালি থানার ওসি নেজাম উদ্দিন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে অভিযান চালিয়ে ১০ জনকে গ্রেফতার করা হয়। আজ আদালতে সাত জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য প্রত্যেকের সাত দিন করে রিমান্ড আবেদন করেছিলাম। শুনানি শেষে আদালত এক দিন করে রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর করেছেন। বাকি তিনজনের বয়স ১৯ বছরের কমে হওয়ায় রিমান্ড চাওয়া হয়নি।’

রিমান্ডে পাওয়া সাত আসামি হলেন- যুব অধিকার পরিষদের চট্টগ্রাম মহানগর শাখার আহ্বায়ক মো. নাছির, সদস্য সচিব মিজানুর রহমান, বায়েজিদ থানার আহ্বায়ক মো. রাসেল, কর্মী ইয়াসিন আরাফাত, হাবিবুল্লাহ মিজান, ইমন ও ইমরান হোসেন।

কুমিল্লায় সহিংসতার ঘটনার জের ধরে গত ১৬ অক্টোবর দুপুরে জুমার নামাজের পর একটি মিছিল থেকে ঐতিহাসিক জেএম সেন হলের পূজামণ্ডপে গেটে হামলা হয়। গেটের ব্যানার ও কাপড় ছেঁড়ার পাশাপাশি ওই দিন মিছিল সহকারে আসা যুবকরা মণ্ডপে ঢিল ছোড়ে। এ ঘটনায় ৮৪ জনের নাম উল্লেখ করে কোতোয়ালি থানায় মামলা দায়ের করা হয়।

এসআই আকাশ মাহমুদ ফরিদ বাদী হয়ে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলাটি দায়ের করেন। মামলা অজ্ঞাত আরও অন্তত ৫০০ জনকে আসামি করা হয়েছে। এই মামলায় ইতোমধ্যে ১০০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

‘সাম্প্রদায়িকতা উসকে দিতে’ কুমিল্লার ঘটনা লাইভে প্রচারের স্বীকারোক্তি

‘সাম্প্রদায়িকতা উসকে দিতে’ কুমিল্লার ঘটনা লাইভে প্রচারের স্বীকারোক্তি

ময়মনসিংহে আরও ৩ রাজাকার গ্রেফতার 

ময়মনসিংহে আরও ৩ রাজাকার গ্রেফতার 

পিকআপে করে গরু চুরির সময় ৪ চোর গ্রেফতার

পিকআপে করে গরু চুরির সময় ৪ চোর গ্রেফতার

ভারতে পাচার হওয়ার আড়াই বছর পর দেশে ফিরলো মেয়েটি

আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২১, ২১:৫৩

বাংলাদেশ থেকে পাচার হয়ে যাওয়া রুপা আক্তারকে (২৭) আড়াই বছর পর বেনাপোল দিয়ে ফেরত পাঠিয়েছে ভারতের পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশ। শুক্রবার (২২ অক্টোবর) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে তিনি ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যমে ঢুকেছেন। পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশ তাকে বেনাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে।

জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ারের যশোর শাখার জ্যেষ্ঠ প্রোগ্রাম অফিসার এবিএম মুহিত হোসেন জানান, রুপা ঢাকার ধামরাই এলাকার মঙ্গল ব্যাপারীর মেয়ে। ভালো কাজের প্রলোভন দেখিয়ে সীমান্তের অবৈধ পথে তাকে ভারতে পাচার করা হয়েছিল। পাচারকারীরা মেয়েটিকে জোরপূর্বক ঝুঁকিপূর্ণ কাজে ব্যবহার করে। সেখানকার পুলিশ গোপন সূত্রে খবর পেয়ে তাকে উদ্ধার করে আদালতে পাঠায়।

জানা গেছে, ভারতের উড়িষ্যার শান্তি সদন নামে একটি সরকারি এনজিও সংস্থা রুপাকে আদালত থেকে ছাড়িয়ে নিজেদের আশ্রয়ে রাখে। দুই দেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আইনি প্রক্রিয়া শেষে বিশেষ ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যমে তাকে দেশে ফেরার সুযোগ দেওয়া হলো।

বেনাপোল ইমিগ্রেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রাজু আহমেদ বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, ইমিগ্রেশনে কাগজপত্রের আনুষ্ঠানিকতা শেষে রুপাকে বেনাপোল পোর্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়। সেখান থেকে আইনি সহয়তা দিতে জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ার নামে একটি এনজিও সংস্থা তাকে পরিবারের কাছে নিয়ে যাবে বলে জানা গেছে।

/জেএইচ/

সম্পর্কিত

লোকালয় থেকে উদ্ধার হলো বিশাল এক অজগর

লোকালয় থেকে উদ্ধার হলো বিশাল এক অজগর

ইউপি নির্বাচন: বিদ্রোহী প্রার্থীর অফিস ভাঙচুরের অভিযোগ

ইউপি নির্বাচন: বিদ্রোহী প্রার্থীর অফিস ভাঙচুরের অভিযোগ

ভারত থেকে ফিরেছেন পাচার হওয়া ১৯ তরুণী

ভারত থেকে ফিরেছেন পাচার হওয়া ১৯ তরুণী

‘সাম্প্রদায়িকতা উসকে দিতে’ কুমিল্লার ঘটনা লাইভে প্রচারের স্বীকারোক্তি

আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২১, ২২:২১

সাম্প্রদায়িকতা উসকে দিতে কুমিল্লা শহরের নানুয়াদিঘির পাড় পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন শরিফ রাখার ঘটনাটি তাৎক্ষণিকভাবে ফেসবুক লাইভে প্রচার করার কথা স্বীকার করেছেন মো. ফয়েজ আহমেদ। পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি, কুমিল্লা) তাকে দুই দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তিনি এ অপরাধের কথা স্বীকার করেন।

শুক্রবার (২২ অক্টোবর) রাতে সিআইডি, কুমিল্লার পুলিশ সুপার খান মোহাম্মদ রেজওয়ান বলেন, ‘আদালতের আদেশে তাকে দুই দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। সাম্প্রদায়িকতা উসকে দেওয়ার জন্য সে তার ফেসবুকে লাইভে গিয়ে পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন শরিফ রাখার ঘটনাটি প্রচার করে।’

পুলিশের এ কর্মকর্তা বলেন, ‘ফয়েজ জানান, সে দীর্ঘদিন ধরে প্রবাসে ছিলেন। প্রবাসে থাকাকালীন স্ত্রীর সঙ্গে প্রতিনিয়ত ভিডিও কলে কথা বলতেন। এতে মোবাইলে ভিডিও কল ও ক্যামেরায় ভিডিও করতে পারদর্শী হয়ে ওঠেন। সে নানুয়াদিঘির পাড়ের একটি বাসায় থাকতেন। ১৩ অক্টোবর নানুয়াদিঘির পাড় পূজামণ্ডপে কোরআন শরিফ পাওয়ার বিষয়টি শুনেই সেখানে ছুটে গিয়ে ফেসবুক লাইভে প্রচার করেন। কিন্তু তার জানা ছিল না, এই লাইভে সারা দেশে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা তৈরি হবে।’

এই ঘটনায় তার সঙ্গে অন্য কেউ জড়িত আছে কিনা—জবাবে পুলিশ সুপার খান মোহাম্মদ রেজওয়ান বলেন, ‘আমরা তথ্য-প্রযুক্তির মাধ্যমে তদন্ত করে দেখছি, সাম্প্রদায়িকতা উসকে দেওয়ার কর্মকাণ্ডে এখন পর্যন্ত ফয়েজের সঙ্গে জড়িত কাউকে পাওয়া যায়নি। তবে তদন্ত অব্যাহত রয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ফয়েজকে পুনরায় কারাগারে পাঠানো হয়েছে।’

এর আগে, ১৩ অক্টোবর নানুয়াদিঘির পাড় পূজামণ্ডপে কোরআন রাখার ঘটনাটি তাৎক্ষণিকভাবে ফেসবুক লাইভে প্রচার করায় ওই সন্ধ্যায় পুলিশ তাকে আটক করে। পরে পুলিশ বাদী হয়ে কুমিল্লা কোতোয়ালি মডেল থানায় তার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। ১৬ অক্টোবর পুলিশ থেকে মামলাটি সিআইডিতে স্থানান্তর করা হয়। সিআইডি ফয়েজকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ড আবেদন করলে মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) কুমিল্লার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক নুসরাত জাহান উর্মি দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এদিকে, পূজামণ্ডপে কোরআন শরিফ রাখা মূল অভিযুক্ত ইকবাল হোসেনকে কক্সবাজার থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। কুমিল্লা পুলিশ লাইন্সে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

/এফআর/এমওএফ/

সম্পর্কিত

পূজামণ্ডপে হামলার চেষ্টা: যুব পরিষদের ৭ নেতাকর্মী রিমান্ডে 

পূজামণ্ডপে হামলার চেষ্টা: যুব পরিষদের ৭ নেতাকর্মী রিমান্ডে 

ময়মনসিংহে আরও ৩ রাজাকার গ্রেফতার 

ময়মনসিংহে আরও ৩ রাজাকার গ্রেফতার 

পিকআপে করে গরু চুরির সময় ৪ চোর গ্রেফতার

পিকআপে করে গরু চুরির সময় ৪ চোর গ্রেফতার

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

রাতে স্ত্রীকে হত্যা করে সকালে মেয়েকে নিয়ে থানায়

রাতে স্ত্রীকে হত্যা করে সকালে মেয়েকে নিয়ে থানায়

পিকআপে করে গরু চুরির সময় ৪ চোর গ্রেফতার

পিকআপে করে গরু চুরির সময় ৪ চোর গ্রেফতার

জমি নিয়ে বিরোধে ইউপি সদস্যকে মারধর, কাটা হলো বাড়ির সড়ক 

জমি নিয়ে বিরোধে ইউপি সদস্যকে মারধর, কাটা হলো বাড়ির সড়ক 

‘অপহরণ করে বিয়ে’, ৫ দিন পর শ্বশুরবাড়ি ছেড়েছেন ইশরাত

‘অপহরণ করে বিয়ে’, ৫ দিন পর শ্বশুরবাড়ি ছেড়েছেন ইশরাত

ভোলায় আগুনে ১০ দোকান পুড়ে ছাই

ভোলায় আগুনে ১০ দোকান পুড়ে ছাই

কোটি টাকা আত্মসাৎ, হাসপাতালের সাবেক হিসাবরক্ষকের বিরুদ্ধে পরোয়ানা

কোটি টাকা আত্মসাৎ, হাসপাতালের সাবেক হিসাবরক্ষকের বিরুদ্ধে পরোয়ানা

প্রণোদনা পেতে শের-ই-বাংলা মেডিক্যালের নার্সদের বিক্ষোভ

প্রণোদনা পেতে শের-ই-বাংলা মেডিক্যালের নার্সদের বিক্ষোভ

টানা বৃষ্টিতে ডুবেছে বরিশাল নগরী

টানা বৃষ্টিতে ডুবেছে বরিশাল নগরী

সর্বশেষ

ডাচদের হারিয়ে বাংলাদেশের গ্রুপসঙ্গী শ্রীলঙ্কা

ডাচদের হারিয়ে বাংলাদেশের গ্রুপসঙ্গী শ্রীলঙ্কা

এক মোটরসাইকেলে ৪ জন, ট্রেনের ধাক্কায় মা-ছেলে নিহত

এক মোটরসাইকেলে ৪ জন, ট্রেনের ধাক্কায় মা-ছেলে নিহত

ঢাবির ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় প্রতি আসনের বিপরীতে প্রায় ৭৪ শিক্ষার্থী

ঢাবির ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় প্রতি আসনের বিপরীতে প্রায় ৭৪ শিক্ষার্থী

জামায়াতের অফিসে আগাছা, দলীয় কর্মকাণ্ড নেতাদের বাসায়

২০ দলীয় জোটজামায়াতের অফিসে আগাছা, দলীয় কর্মকাণ্ড নেতাদের বাসায়

লম্বা চুল নিষিদ্ধের প্রতিবাদে আদালতে শিক্ষার্থীরা

লম্বা চুল নিষিদ্ধের প্রতিবাদে আদালতে শিক্ষার্থীরা

© 2021 Bangla Tribune