X
রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ৮ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

বিকৃত জাতীয় পতাকা প্রদর্শন

১৯ শিক্ষক-কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি বেরোবি কর্তৃপক্ষ

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৫৮

বিজয় দিবসে বিকৃত জাতীয় পতাকা প্রদর্শনের ঘটনায় বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অভিযুক্ত ১৯ শিক্ষক ও কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দীর্ঘ ৯ মাসেও কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। এমনকি শিক্ষা মন্ত্রণালয় চিঠি দিয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলেও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ দীর্ঘ ৭ মাসেও কোনও জবাব দেয়নি বলে অভিযোগ উঠেছে। এদিকে জাতীয় পতাকা অবমাননা মামলার ১৮ শিক্ষক ও এক কর্মকর্তাসহ ১৯ আসামির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ গঠনের পরেও আসামিদের সাময়িক বরখাস্ত না করার অভিযোগ উঠেছে।

আইন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ২০১৮ সালের সরকারি চাকরি আইনের ৩৯ (২) ধারা অনুযায়ী কোনও কর্মকর্তা কর্মচারী গ্রেফতার, আটক অথবা তার বিরুদ্ধে আদালত কর্তৃক অভিযোগ গঠনের দিন থেকে আসামিদের বরখাস্ত করতে হবে কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কোনও পদক্ষেপ নেয়নি।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে ২০২০ সালের ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয়ে দিবসের সকালে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের স্বাধীনতা স্মারকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৮ শিক্ষক ও এক কর্মকর্তা বিকৃত জাতীয় পতাকা প্রদর্শন করেন। সেই ছবি আবার ফেসবুকে দেন তারা। এ ঘটনার পরেও তৎকালীন উপাচার্য অধ্যাপক নাজমুল আহসান কলিম উল্লাহ জাতীয় পতাকা অবমাননাকারীদের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেননি। 

এ ঘটনায় রংপুর জেলা প্রশাসন একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে। তদন্ত কমিটি সরেজমিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে উপস্থিত সাধারণ শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ অভিযুক্তদের সাক্ষ্যগ্রহণ করে। পরে জাতীয় পতাকা অবমাননার দায়ে ১৯ জন শিক্ষক কর্মকর্তাকে অভিযুক্ত করে প্রতিবেদন দাখিল করা হয়।

অভিযুক্তরা হলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগের অধ্যাপক আর এম হাফিজুর রহমান, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক তাবিউর রহমান প্রধান, বাংলা বিভাগের অধ্যাপক পরিমল চন্দ্র বর্মণ, মার্কেটিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাসুদ উল হাসান, সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক রাম প্রসাদ বর্মণ, পরিসংখ্যান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক রশিদুল ইসলাম, ভূগোল ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক শামীম হোসেন, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের প্রভাষক রহমতউল্লাহ, রসায়ন বিভাগের প্রভাষক মোস্তফা কাইয়ুম শারাফাত, ইতিহাস ও প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের প্রভাষক সোহাগ আলী, পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক আবু সায়েদ, পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক কামরুজ্জামান, ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সদরুল ইসলাম সরকার, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক প্রদীপ কুমার সরকার, পরিসংখ্যান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক শাহ জামান, অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক মোরশেদ হোসেন, পরিসংখ্যান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক চার্লস ডারউন, ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক নুর আলম সিদ্দিক এবং পরিসংখ্যান বিভাগের সেকশন অফিসার (গ্রেড-১) শুভঙ্কর। 

পরে এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক মাহমদুল হক ও বঙ্গবন্ধু পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমান বাদী হয়ে নগরীর তাজহাট থানায় জাতীয় পতাকা অবমাননার অভিযোগে মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় তদন্ত শেষে পুলিশ ১৯ শিক্ষক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

এদিকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক উচ্চশিক্ষা বিভাগ থেকে (স্মারক নম্বর ৬৩ তারিখ ৪/২/২১) উপসচিব নুর-ই আলম স্বাক্ষরিত একটি চিঠি দেওয়া হয়। চিঠিতে জাতীয় পতাকা বিকৃত করে প্রদর্শনকারী শিক্ষক কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসন কর্তৃক গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের আলোকে কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে তা জানতে চাওয়া হয়। তবে সাবেক উপাচার্য কলিম উল্লাহ কোনও ব্যবস্থা নেননি। বরং অভিযুক্তদের বেশ কয়েকজনকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে পদায়ন করেন বলে মামলার বাদী শিক্ষক মাহমুদুল হক অভিযোগ করেন। 

তিনি আরও অভিযোগ করেন, জাতীয় পতাকা অবমাননা মামলার প্রধান আসামি তাবিউর রহমানকে সহকারী অধ্যাপক পদ থেকে পদোন্নতী দিয়ে সহযোগী অধ্যাপক করা হয়েছে। শুধু তাই নয় তাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু হলের প্রভোস্ট হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগের শিক্ষক হাফিজুর রহমান সেলিমকে বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থ ও হিসাব দফতরের পরিচালক করা হয়েছে। একইভাবে শিক্ষক মাসুদুল হাসানকে শারীরিক শিক্ষা বিভাগের পরিচালক, রাম প্রসাদকে শহীদ মুখতার এলাহী হলের সহকারী প্রভোস্ট, রহমত উল্লাহকে বঙ্গবন্ধু হলের সহকারী প্রভোস্ট, প্রদীপ কুমার সরকারকে সাইবার সেন্টারের পরিচালক, শাহ জামানকে পরিসংখ্যান বিভাগের প্রধান, ড. রশিদুলকে শহীদ মুখতার এলাহী হলের প্রভোস্টের দায়িত্ব দেওয়া হয়।

এদিকে গত ২১ সেপ্টেম্বর জাতীয় পতাকা অবমাননা মামলায় রংপুরের মেট্রোপলিটান আমলী আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট আল মেহমুদ মামলার আসামি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৯ শিক্ষক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে ২৩ নভেম্বর সাক্ষ্যগ্রহনের দিন ধার্য করেছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাদী পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট রফিক হাসনাইন।

তবে আসামিদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা দায়ের হওয়া এবং অভিযোগপত্র দাখিল এবং অভিযোগ গঠনের পরেও আসামিদের সাময়িক বরখাস্ত না করায় আইনের ব্যত্যয় হয়েছে বলে জানান রংপুরের সিনিয়র আইনজীবী রইছ উদ্দিন বাদশা। 

সরকারি কর্মচারী আইন-২০১৮ সালের ৩৯(২) ধারা উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, কোনও সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী ফৌজদারি মামলায় আটক গ্রেফতার হলে অথবা তার বিরুদ্ধে আদালত কর্তৃক অভিযোগ গঠন করা হলে সেই দিন থেকে আসামিকে চাকরি থেকে সাসপেন্ড করার কথা। কিন্তু পাঁচ দিন অতিবাহিত হবার পরেও আসামিদের সাসপেন্ড না করা আইনের প্রতি কর্তৃপক্ষের অবজ্ঞা বলে মনে করছি।

মামলার বাদী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক মাহমুদুল হক বলেন, আইন অনুযায়ী আসামিদের সাসপেন্ড করার কথা। আশাকরি, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেবে। 

সার্বিক বিষয় জানতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান আইন কর্মকর্তা রেহেনা আখতার মনির মোবাইলফোনে একাধিকাবর কল করেও কথা বলা সম্ভব হয়নি। তাকে এসএমএস করেও কোনও জবাব মেলেনি। 

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক হাসিবুর রশীদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোনও মন্তব্য করতে রাজি হননি। 

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

মাদকসহ সমাজসেবা কর্মকর্তা গ্রেফতার

মাদকসহ সমাজসেবা কর্মকর্তা গ্রেফতার

পীরগঞ্জের ঘটনায় গ্রেফতার সৈকতকে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার

পীরগঞ্জের ঘটনায় গ্রেফতার সৈকতকে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার

ধর্ষণের ‘শাস্তি’ ১ লাখ ২৫ হাজার টাকা জরিমানা!

ধর্ষণের ‘শাস্তি’ ১ লাখ ২৫ হাজার টাকা জরিমানা!

দুই মোটরসাইকেল সংঘর্ষে নিহত ২

দুই মোটরসাইকেল সংঘর্ষে নিহত ২

সরকারের পদত্যাগ করা উচিত: ফখরুল

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১৫:৩০

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তার দায়িত্ব সরকারের। কিন্তু সরকার সম্পূর্ণভাবে সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হয়েছে। এর দায় নিয়ে সরকারের পদত্যাগ করা উচিত। 

রবিবার (২৪ অক্টোবর) দুপুরে সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির নেতাকর্মীর সঙ্গে এক মতবিনিময় সভা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

ফখরুল বলেন, সরকার হিন্দু ও বৌদ্ধদের নিরাপত্তা দিতে পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছে। এমনকি বৃহত্তর জনগোষ্ঠী মুসলিম সম্প্রদায়ের নিরাপত্তা দিতেও ব্যর্থ হয়েছে। সরকার সাম্প্রদায়িকতা বন্ধ করতে ব্যর্থ। জনগণের সমস্যা থেকে দৃষ্টি সরাতে সাম্প্রদায়িকতা করছে। আগামী জাতীয় নির্বাচন নিরপেক্ষ সরকারের মাধ্যমে জাতীয় নির্বাচন করা দাবি থেকে দৃষ্টি সরাতে চায়। দেশে খুন-ধর্ষণ-অরাজকতা থেকে দৃষ্টি সরাতে এই ঘৃণ্য কাজ করছে। ছাত্রলীগের রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংগঠনিক সম্পাদক হাতেনাতে ধরা পড়েছে পুলিশের হাতে। সাম্প্রদায়িক হামলায় যে দুই জনকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে, তারা ছাত্রলীগ নেতা। কুমিল্লার ঘটনার সঙ্গে জড়িত ছাত্রলীগ নেতা। 

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ মানুষের মৌলিক অধিকার ধ্বংস করে দিয়েছে। গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের স্তম্ভগুলো নষ্ট করে দিয়েছে আওয়ামী লীগ। তারা নির্বাচন ব্যবস্থা ধ্বংস করে দিয়েছে। বিচার বিভাগ দলীয়করণ করেছে। প্রশাসন দলীয়করণ করেছে। গণমাধ্যমগুলো নিয়ন্ত্রণ করছে। ডিজিটাল সিকিউরিটি আইন থেকে সাংবাদিকরা রেহাই পাচ্ছেন না। 

ফখরুল বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে মিথ্যা মামলায় জেলে রাখা হয়েছিল। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান মিথ্যা মামলায় সাজাপ্রাপ্ত হয়ে বিদেশে আছেন। বিএনপির ৩৫ লাখ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা দিয়েছে সরকার। পাঁচ শতাধিক নেতাকর্মীকে গুম করা হয়েছে। হাজারখানেক নেতাকর্মী খুন হয়েছে। চরম নৈরাজ্য ও গণতন্ত্রহীনতার মধ্যে দেশবাসী। 

এ সময় জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য কলিম উদ্দিন আহমেদ মিলন, সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম নুরুল সাবেক সংসদ সদস্য নজির হোসেনসহ জেলা বিএনপি, ছাত্রদল, যুবদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের জেলার নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

সাম্প্রদায়িক হামলায় আ.লীগ-ছাত্রলীগ জড়িত: মির্জা ফখরুল

সাম্প্রদায়িক হামলায় আ.লীগ-ছাত্রলীগ জড়িত: মির্জা ফখরুল

২০ বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ পদ্ধতিতে ‘বি’ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা শুরু

২০ বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ পদ্ধতিতে ‘বি’ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা শুরু

সিলেট সফরে বিএনপির মহাসচিব

সিলেট সফরে বিএনপির মহাসচিব

মাদকসহ সমাজসেবা কর্মকর্তা গ্রেফতার

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১৪:৩৬

মাদকসহ গ্রেফতার হয়েছেন কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মশিউর রহমান। শুক্রবার (২২ অক্টোবর) বিকালে রংপুরের শাপলা চত্বর এলাকা থেকে সাড়ে চার লিটার মদসহ তাকে গ্রেফতার করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)-১৩। ওই দিনই তাকে রংপুর কোতয়ালি থানায় হস্তান্তর করা হয়। রবিবার র‌্যাব-১৩-এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট মাহমুদ বশির আহমেদ এ তথ্য জানান।

মশিউর রহমান ২০১৯ সালের জুলাই থেকে উলিপুর উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। তিনি বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসের (বিসিএস) ৩৭তম ব্যাচের সদস্য।

মাহমুদ বশির আহমেদ জানান, শুক্রবার বিকালে মশিউর রহমানকে সহযোগী রাসেলসহ গ্রেফতার করা হয়। পরে তাদের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা দিয়ে রংপুর কোতয়ালি থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

গ্রেফতার উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কী বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে জানতে জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের উপপরিচালক মো. রোকেনুল ইসলামকে একাধিকবার ফোন দিলেও তিনি রিসিভ করেননি।

 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগে গ্রেফতার ১

শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগে গ্রেফতার ১

নোয়াখালীতে পূজামণ্ডপ ভাঙচুর, ২৫ মামলায় গ্রেফতার ১৭৪

নোয়াখালীতে পূজামণ্ডপ ভাঙচুর, ২৫ মামলায় গ্রেফতার ১৭৪

পীরগঞ্জের ঘটনায় গ্রেফতার সৈকতকে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার

পীরগঞ্জের ঘটনায় গ্রেফতার সৈকতকে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার

হেফাজতের সহিংসতার মামলায় বিএনপি নেতা রিমান্ডে

হেফাজতের সহিংসতার মামলায় বিএনপি নেতা রিমান্ডে

সাম্প্রদায়িক হামলায় আ.লীগ-ছাত্রলীগ জড়িত: মির্জা ফখরুল

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১৫:৩১

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করেছেন, ‘দেশ অশান্তিতে রয়েছে। মানুষ শান্তিতে বসবাস করতে পারছে না। সাম্প্রতিক দেশে যেসব সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনা ঘটছে, তাতে আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের লোকজন জড়িত।’

রবিবার (২৪ অক্টোবর) সকালে সিলেটের হযরত শাহজালাল (রহ.)-এর মাজার জিয়ারত শেষে এসব কথা বলেন তিনি। এদিন সকালে বিএনপি নেতা ফজলুল হক আসপিয়ার স্মরণসভায় যোগ দিতে সিলেটে আসেন মির্জা ফখরুল। সেখান থেকে তিনি সুনামগঞ্জে স্মরণসভায় যোগ দেবেন। 

মাজার জিয়ারতের সময় বিএনপির মহাসচিবের সঙ্গে সিলেটের দলীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন। তাদের সঙ্গে অংশগ্রহণ করেন অনেক নেতাকর্মী। 

মাজার জিয়ারত করে বেরিয়ে এসে মির্জা ফখরুল সাংবাদিকদের বলেন, ‘দেশে সাম্প্রদায়িক সমস্যাগুলো তৈরি করা হয়েছে। আপনারা পত্রপত্রিকায় দেখেছেন, এর নেতৃত্ব দিচ্ছে কারা? নেতৃত্ব দিচ্ছে ছাত্রলীগের ছেলেরা, নেতৃত্ব দিচ্ছে আওয়ামী লীগের লোকেরা। আজও পত্রিকায় এসেছে, রংপুরের ঘটনার নেতৃত্ব দিয়েছেন ছাত্রলীগ নেতা সৈকত।’

তিনি বলেন, ‘এটা খুব পরিষ্কার, সরকারের যেহেতু জনগণের সঙ্গে সম্পর্ক নেই, যেহেতু জনগণের ভোট তারা পায় না– সে জন্য জনগণের দৃষ্টিটাকে ভোটের অধিকার, গণতন্ত্রের অধিকার থেকে সরানোর জন্য এসব ঘটনা ঘটাচ্ছে।’

ফখরুল ইসলামের অভিযোগ, সরকার জীবনের নিরাপত্তা দিতে পারছে না। তিনি বলেন, ‘একইভাবে আমাদের হিন্দু সম্প্রদায়ের যারা আছেন, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের যারা আছেন, তাদের নিরাপত্তা সরকার দিতে পারছে না। সেই সঙ্গে আমাদের যে বৃহত্তর জনগোষ্ঠী আছে, মুসলমান সমাজ, ইসলাম ধর্মে যারা বিশ্বাস করেন, তাদেরও এখানে নিরাপত্তা নেই। সামগ্রিকভাবে জনগণের নিরাপত্তা দিতে সরকার ব্যর্থ হয়েছে।’

/এমএএ/

সম্পর্কিত

সরকারের পদত্যাগ করা উচিত: ফখরুল

সরকারের পদত্যাগ করা উচিত: ফখরুল

২০ বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ পদ্ধতিতে ‘বি’ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা শুরু

২০ বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ পদ্ধতিতে ‘বি’ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা শুরু

সিলেট সফরে বিএনপির মহাসচিব

সিলেট সফরে বিএনপির মহাসচিব

২০ বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ পদ্ধতিতে ‘বি’ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা শুরু

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১৪:৪৬

২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে দেশের ২০টি সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের গুচ্ছ (জিএসটি) পদ্ধতিতে আয়োজিত সমন্বিত ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা শুরু হয়েছে। রবিবার (২৪ অক্টোবর) দুপুর ১২টা থেকে সারাদেশে একযোগে ২২টি পরীক্ষা কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত এ পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছেন ৬৭ হাজার ১১৭ জন পরীক্ষার্থী।

পরীক্ষার বিষয়

‘বি’ ইউনিটে মানবিক বিভাগে ১০০ নম্বরের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। তার মধ্যে বাংলায় ৪০, ইংরেজিতে ৩৫ ও আইসিটিতে ২৫ নম্বরের মান বণ্টনে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। পরীক্ষায় প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য কাটা যাবে শূন্য দশমিক ২৫ নম্বর।

গুচ্ছভুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ডিজিটাল ইউনিভার্সিটি, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়, রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়।

‘বি’ ইউনিটের আসন বিন্যাস

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে এক হাজার ৯৬৫ জন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে সাত হাজার ৭৯৩ জন, শেরে-ই-বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই হাজার ১৭২ জন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই হাজার ৯৭ জন, ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে এক হাজার ২০০ জন,  খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে তিন হাজার ৩১৫ জন, রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঁচ হাজার ১১৮ জন, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও অ্যানিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই হাজার জন, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঁচ হাজার ৯২০ জন, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে সাত ২৫ জন, মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই হাজার ৬০৩ জন, নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে এক হাজার ৬৮২ জন, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই হাজার ৫০৫ জন, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ছয় হাজার ৪৯৭ জন, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে তিন হাজার ২৭৬ জন, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৭৭৮ জন, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে তিন হাজার ৬০০ জন, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে এক হাজার ৯৮০ জন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ‍দুই হাজার ২৬৯ জন, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই হাজার ২৯৩ জন, রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩২৯ জন এবং বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৭০০ জন ভর্তিচ্ছু পরীক্ষার্থী অংশ নিচ্ছেন।

পরীক্ষার সার্বিক প্রস্তুতি নিয়ে আয়োজকদের মন্তব্য

গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক এবং শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘আমরা পরীক্ষা নেওয়ার জন্য শতভাগ প্রস্তুত। আগেই যথাযথ নিরাপত্তার সঙ্গে সব পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রশ্নপত্র, উত্তরপত্র ও উপস্থিতির তালিকা পাঠিয়ে দিয়েছি। এতে পরীক্ষা সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা, আর্মড ফোর্সেস পুলিশ সহায়তা করছে। সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে প্রশ্নপত্রের ট্র্যাংকে জিপিএস ট্র্যাকিং সিস্টেম লাগানো হয়েছে, যাতে প্রশ্নপত্র নিরাপদ থাকে।’

শিগগিরই ফলাফল প্রকাশ করা হবে উল্লেখ করে তিনি জানান, পরীক্ষার পর দ্রুত ফল প্রকাশের চিন্তাভাবনা রয়েছে। ফলাফল র‌্যাঙ্কের ভিত্তিতে ফল প্রকাশ না করে ১০০ নম্বরের মাঝে পরীক্ষার্থীর প্রাপ্ত নম্বর (স্কোর) প্রকাশ করা হবে। পরবর্তী সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর পৃথক পৃথক সার্কুলার ও শর্তের ভিত্তিতে প্রাপ্ত নম্বর বা স্কোর অনুযায়ী পছন্দের বিশ্ববিদ্যালয়ে পছন্দের বিষয়ে ভর্তির আবেদন করতে পারবেন শিক্ষার্থীরা।

/এমএএ/

সম্পর্কিত

সরকারের পদত্যাগ করা উচিত: ফখরুল

সরকারের পদত্যাগ করা উচিত: ফখরুল

সাম্প্রদায়িক হামলায় আ.লীগ-ছাত্রলীগ জড়িত: মির্জা ফখরুল

সাম্প্রদায়িক হামলায় আ.লীগ-ছাত্রলীগ জড়িত: মির্জা ফখরুল

সিলেট সফরে বিএনপির মহাসচিব

সিলেট সফরে বিএনপির মহাসচিব

ইউপি নির্বাচন নিয়ে দ্বন্দ্বে যুবক খুন

ইউপি নির্বাচন নিয়ে দ্বন্দ্বে যুবক খুন

বেগমগঞ্জে পূজামণ্ডপে হামলার ঘটনায় ৩ জনের স্বীকারোক্তি

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১২:১৪

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনী বাজারের পূজামণ্ডপ, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বাড়িতে হামলা এবং হত্যার ঘটনায় ভিডিও ফুটেজ দেখে শনাক্ত আট জনের মধ্যে তিন জন স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। রবিবার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শহীদুল ইসলামের পাঠানো এক বার্তায় এ তথ্য জানানো হয়। এ নিয়ে চার জন স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেছেন।

এর আগে, ভিডিও ফুটেজ দেখে শনাক্ত ও গ্রেফতার আট জন এবং সন্দেহভাজন পাঁচ জনসহ ১৩ জনকে আটক করা হয়।

স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেওয়া আসামিরা হলেন– রিপন আহামেদ মাহীর (১৯), আরাফাত হোসেন আবির (১৮) ও ইব্রাহিম খলিল ওরফে রাজিব (২৪)। এর আগে, বৃহস্পতিবার চৌমুহনী পৌরসভার করিমপুর গ্রামের আবদুল হাশিমের ছেলে আবদুর রহিম সুজন (১৯) স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেছিলেন।

ফুটেজ দেখে শনাক্ত আটক আট আসামি হলেন– সুবর্ণচর উপজেলার চর জব্বর ইউনিয়নের চর বহুলা গ্রামের আবু তাহেরের ছেলে ফরহাদ (২৬), চৌমুহনী পৌরসভার গনিপুর গ্রামের মৃত সাহাব উদ্দিনের ছেলে শামীম (২৭), একই গ্রামের জয়নাল আবেদিনের ছেলে রিপন আহমেদ মাহীর (১৮), বেগমগঞ্জ উপজেলার ছয়ানি ইউনিয়নের নারায়ণপুর গ্রামের দেলোয়ারের ছেলে জহিরুল ইসলাম জুয়েল (১৯), হাজীপুর ইউনিয়নের নুরুল হক ভূঁইয়ার ছেলে ইব্রাহিম খলিল ওরফে রাজিব (২৪), ছয়ানি ইউনিয়নের ছোট শরীফপুর গ্রামের কামরুল হাসানের ছেলে আরাফাত হোসেন আবির (১৮), চৌমুহনী পৌরসভার মধ্যম নাজিরপুর গ্রামের মৃত বাবুল হেসেনের ছেলে দুলাল হোসেন (৪০), সদর উপজেলার আন্ডারচর ইউনিয়নের পশ্চিম মাইজচরা গ্রামের তাজুল ইসলামের ছেলে কামাল হোসেন (৪৫)।

এ ছাড়া পূজামণ্ডপে হামলায় সন্দেহভাজন আসামি হিসেবে বেগমগঞ্জ উপজেলার নরোত্তমপুর ইউনিয়নের নরোত্তমপুর গ্রামের আবদুস সাত্তারের ছেলে শহীদ (৪৫), চৌমুহনী পৌরসভার গনিপুর গ্রামের এতিম আলীর ছেলে হুমায়ুন (৬৩), একই গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে কাশেম বিন আবু জুবায়ের অরিন (২৫), মোস্তফার ছেলে ইমাম হোসেন রাজু (২৮) ও বাবলু মিয়ার ছেলে আলাউদ্দিন (৩৫)।

গ্রেফতার আসামিদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

/এমএএ/

সম্পর্কিত

চোরকে চিনে ফেলায় দম্পতিকে হত্যা

চোরকে চিনে ফেলায় দম্পতিকে হত্যা

ক্যাম্পে ৬ রোহিঙ্গা হত্যার ঘটনায় মামলা

ক্যাম্পে ৬ রোহিঙ্গা হত্যার ঘটনায় মামলা

উগ্রবাদের স্থান বাংলাদেশে হবে না: হানিফ

উগ্রবাদের স্থান বাংলাদেশে হবে না: হানিফ

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখার ঘটনা সাজানো: ইনু

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখার ঘটনা সাজানো: ইনু

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মাদকসহ সমাজসেবা কর্মকর্তা গ্রেফতার

মাদকসহ সমাজসেবা কর্মকর্তা গ্রেফতার

পীরগঞ্জের ঘটনায় গ্রেফতার সৈকতকে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার

পীরগঞ্জের ঘটনায় গ্রেফতার সৈকতকে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার

ধর্ষণের ‘শাস্তি’ ১ লাখ ২৫ হাজার টাকা জরিমানা!

ধর্ষণের ‘শাস্তি’ ১ লাখ ২৫ হাজার টাকা জরিমানা!

দুই মোটরসাইকেল সংঘর্ষে নিহত ২

দুই মোটরসাইকেল সংঘর্ষে নিহত ২

পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলে জানুয়ারি থেকে বাড়বে ক্লাস: শিক্ষামন্ত্রী

পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলে জানুয়ারি থেকে বাড়বে ক্লাস: শিক্ষামন্ত্রী

বিশেষ ট্রাইব্যুনালে বিশৃঙ্খলায় জড়িতদের বিচার চান রানা দাশগুপ্ত

বিশেষ ট্রাইব্যুনালে বিশৃঙ্খলায় জড়িতদের বিচার চান রানা দাশগুপ্ত

দেড় হাজার কোটি টাকার সেতুতে গাড়ি চলবে রবিবার    

দেড় হাজার কোটি টাকার সেতুতে গাড়ি চলবে রবিবার    

রিজার্ভ ট্যাংকে নেমে প্রাণ গেলো মামা-ভাগ্নের

রিজার্ভ ট্যাংকে নেমে প্রাণ গেলো মামা-ভাগ্নের

ইকবাল ও মাজারের খাদেমদের ৭ দিনের রিমান্ড

ইকবাল ও মাজারের খাদেমদের ৭ দিনের রিমান্ড

‘সাম্প্রদায়িক হামলার পেছনে বিএনপি-জামায়াতসহ কিছু অপশক্তি জড়িত’

‘সাম্প্রদায়িক হামলার পেছনে বিএনপি-জামায়াতসহ কিছু অপশক্তি জড়িত’

সর্বশেষ

ডলফিন হত্যাকারীদের তথ্য দিলে পুরস্কার দেওয়া হবে: পরিবেশ ও বনমন্ত্রী

ডলফিন হত্যাকারীদের তথ্য দিলে পুরস্কার দেওয়া হবে: পরিবেশ ও বনমন্ত্রী

‘ভুয়া’ ভিডিও প্রচার: কলেজশিক্ষক রুমাকে কারাগারে রাখার আবেদন পুলিশের

‘ভুয়া’ ভিডিও প্রচার: কলেজশিক্ষক রুমাকে কারাগারে রাখার আবেদন পুলিশের

টিকার জন্য এসএমএস না পাওয়াদের ধৈর্য ধরতে বললো স্বাস্থ্য অধিদফতর

টিকার জন্য এসএমএস না পাওয়াদের ধৈর্য ধরতে বললো স্বাস্থ্য অধিদফতর

টস হেরে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ, একাদশে নাসুম

টস হেরে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ, একাদশে নাসুম

সরকারের পদত্যাগ করা উচিত: ফখরুল

সরকারের পদত্যাগ করা উচিত: ফখরুল

© 2021 Bangla Tribune