X
রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ৮ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার স্বল্পমেয়াদী উদ্ভাবনীর ট্রেন্ড চারটি: গার্টনার

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:২৩

স্বল্পমেয়াদে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বিষয়ক উদ্ভাবনীর চারটি ট্রেন্ড বা ধারা চিহ্নিত করেছে মার্কিন গবেষণাধর্মী প্রতিষ্ঠান গার্টনার। চারটি ধারার মধ্যে আছে- রেসপনসিবল এআই, স্মল অ্যান্ড ওয়াইড ডাটা, অপারেশনালাইজেশন অব এআই প্ল্যাটফর্মস এবং ইফিশিয়েন্ট ইউজ অব ডাটা, মডেল অ্যান্ড কম্পিউটার রিসোর্সেস। কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাবিষয়ক সব উদ্যোগ এই চারটি ধারাকে কেন্দ্র করেই গৃহীত হবে বলে মনে করে গার্টনার।

মার্কিন প্রতিষ্ঠানটির সিনিয়র প্রিন্সিপাল রিসার্চ অ্যানালিস্ট শুভাঙ্গী ভাসিস্তা বলেন, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বিষয়ক উদ্ভাবন খুব দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলেছে। মানুষ ২ থেকে ৫ বছরের মধ্যে উদ্ভাবনগুলোকে গ্রহণ করছে। আগামী বছরগুলোতে এজ এআই, কম্পিউটার ভিশন, ডিসিশন ইন্টেলিজেন্স এবং মেশিন লার্নিং বাজারে এক বিরাট পরিবর্তন নিয়ে আসবে।

গার্টনারের মতে, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার বাজার এখন বিবর্তনের পর্যায়ে রয়েছে। ব্যবহারকারীরা এখন এমন প্রযুক্তি চাচ্ছেন যেগুলো বর্তমানে প্রচলিত কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ক্ষমতার চেয়ে আরও বেশি শক্তিশালী হবে।

রেসপনসিবল এআই কী

বিশ্বস্ততা, স্বচ্ছতা, নিরপেক্ষতা, মূল্যায়ন ক্ষমতা ইত্যাদি সবকিছু মিলিয়ে স্টেকহোল্ডার বা অংশীদারদের কাছে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার গুরুত্ব ক্রমেই বাড়ছে বলে উল্লেখ করেছেন গার্টনারের গবেষণা বিভাগের ভাইস প্রেসিডেন্ট সেটলানা সিকিউলার। রেসপনসিবল এআই নিরপেক্ষতা নিশ্চিতে সহায়তা করে। এমনকি ডাটার মধ্যে পক্ষপাতিত্ব থাকার পরও এটি নিরপেক্ষতার নিশ্চয়তা দেয়। পাশাপাশি বিশ্বাস অর্জন এবং স্বচ্ছতা নিশ্চিতেও কাজ করে রেসপনসিবল এআই।

স্মল অ্যান্ড ওয়াইড ডাটা কী

যেকোনও কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বিষয়ক উদ্যোগের সফলতা নির্ভর করে এর ডাটা গঠনের ওপর। স্মল অ্যান্ড ওয়াইড ডাটা ব্যাপক বিশ্লেষণে সহায়তা করে, বিগ ডাটার ওপর যেকোনও প্রতিষ্ঠানের নির্ভরতা কমায় এবং পরিস্থিতি অনুযায়ী আরও উন্নত ও সম্পূর্ণ সতর্কতা সরবরাহ করে। গার্টনারের মতে, ২০২৫ সালের মধ্যে ৭০ শতাংশ প্রতিষ্ঠান বিগ ডাটা থেকে স্মল ও ওয়াইড ডাটায় গুরুত্ব দিতে বাধ্য হবে।

অপারেশনালাইজেশন অব এআই প্ল্যাটফর্মস

অপারেশনালাইজেশন অব এআই প্ল্যাটফর্মস বলতে বোঝায় কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাভিত্তিক যেকোনও ধারণাকে বাস্তবে প্রয়োগ করা। গার্টনার বলছে, পাইলট প্রজেক্ট থেকে পুরোদমে চালু হতে পারে কেবল অর্ধেক কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বিষয়ক ধারণা। এক্ষেত্রে তাদের গড়ে ৯ মাসের মতো সময় লাগে।

ইফিশিয়েন্ট ইউজ অব রিসোর্সেস

ডাটার পরিমাণ ও জটিলতার ওপর ভিত্তি করে যাবতীয় কাজ সম্পাদিত হয়। এক্ষেত্রে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বিষয়ক উদ্ভাবনের এমন সব রিসোর্সের প্রয়োজন হয় যা দিয়ে দক্ষতার সঙ্গে কাজটি করা যাবে। ব্যবসায়িক অনেক সমস্যা আরও দক্ষতার সঙ্গে সমাধান করায় বাজারে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার গ্রহণযোগ্যতা বাড়ছে।

/এইচএএইচ/এমএস/

সম্পর্কিত

টুইটারের স্পেসেস এখন সবার জন্য উন্মুক্ত

টুইটারের স্পেসেস এখন সবার জন্য উন্মুক্ত

‘অস্থিরতা সৃষ্টির কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন বড় চ্যালেঞ্জ’

‘অস্থিরতা সৃষ্টির কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন বড় চ্যালেঞ্জ’

‘ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং’

‘ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং’

দেশে ১৭ কোটি মোবাইল, ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ১১ কোটি: মোস্তাফা জব্বার

দেশে ১৭ কোটি মোবাইল, ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ১১ কোটি: মোস্তাফা জব্বার

টুইটারের স্পেসেস এখন সবার জন্য উন্মুক্ত

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১৪:৫২

মাইক্রো ব্লগিং সাইট টুইটার নিজেদের ক্লাব হাউজে অডিওকেন্দ্রিক চ্যাটরুম সফল করতে গত বছরের নভেম্বরে উন্মোচন করে ‘স্পেসেস’। কিন্তু হোস্টের ক্ষেত্রে যাদের ফলোয়ার ৬০০ বা ততোধিক, তাদের মধ্যে শুধু সীমাবদ্ধ ছিল এই সুযোগ। প্রায় একবছর পর এবার ফিচারটি ব্যবহারকারীদের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হলো।

সংবাদমাধ্যম ভার্জ জানায়, টুইটার মূলত শিডিউলের তুলনায় একটু পিছিয়ে। কেননা প্রতিষ্ঠানটি প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল চলতি বছরের এপ্রিলেই সবার জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে ‘স্পেসেস’।

সম্প্রতি স্পেসেস টিম ফিচারটি সবার জন্য উন্মোচনের ঘোষণা দিয়ে টুইটার জানায়, এখন থেকে অ্যান্ড্রয়েড এবং আইওএস ব্যবহারকারীরা এটি ব্যবহার করতে পারবেন। একইসঙ্গে তারা একটি জিআইএফ অফার করেছে যেখানে এর ব্যবহারবিধি বোঝানো আছে।

ভার্জ আরও জানায়, স্পেসেস-এ টুইটার কর্তৃপক্ষ নতুন কিছু ফিচার এনেছে। ফলে এতে ১০ জন বক্তাকে কো-হোস্ট বানানো যাবে। স্পার্ক প্রোগ্রাম এবং টিকেটেড স্পেসেস নামে একটি পরীক্ষামূলক ফান্ড তৈরির ব্যবস্থা রয়েছে। এটি এমন একটি অডিও রুম হিসেবে পরিচিত থাকবে যেখানে অংশ নিতে মূল্য পরিশোধ করতে হবে। এর বিশেষ অপশনগুলো নিয়ন্ত্রণের সুযোগ সবাইকে না দিয়ে শুধু হোস্টকে দেওয়া হবে।

/জেএইচ/

সম্পর্কিত

স্বয়ংক্রিয়ভাবে ‌‌‌‌‌‘আর্কাইভ’ হয়ে যাবে টুইটার পোস্ট

স্বয়ংক্রিয়ভাবে ‌‌‌‌‌‘আর্কাইভ’ হয়ে যাবে টুইটার পোস্ট

ইনস্টাগ্রামে ১৬ বছরের নিচে হলেই ‘বাই ডিফল্ট প্রাইভেট’

ইনস্টাগ্রামে ১৬ বছরের নিচে হলেই ‘বাই ডিফল্ট প্রাইভেট’

‘অস্থিরতা সৃষ্টির কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন বড় চ্যালেঞ্জ’

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৫:৩৯

ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, ‘ডিজিটাইজেশনের প্রসারের পাশাপাশি ডিজিটাল নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সরকার বদ্ধপরিকর। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন সাম্প্রদায়িক দাঙ্গাসহ সামাজিক-রাজনৈতিক অস্থিরতা সৃষ্টির কারণে বড় একটি চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। সেই সংকট অতিক্রমের জন্য আমরা কাজ করছি।’ গতকাল শুক্রবার (২২ অক্টোবর) রাতে অনলাইনে ডিজিটাল সিকিউরিটি সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন তিনি। অনুষ্ঠানটি আয়োজন করে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বাংলাদেশি ডিজিটাল প্রযুক্তি উদ্যোক্তারা।

মোস্তাফা জব্বার উল্লেখ করেন, ২০১৮ সালের পর থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম কর্তৃপক্ষের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় আলোচনাসহ সরকারের সুসম্পর্ক গড়ে উঠেছে। ফলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম কর্তৃপক্ষ এখন সরকারের যেকোনও পরামর্শ গুরুত্বের সঙ্গে আমলে নিচ্ছে। ভবিষ্যতে তা আরও কার্যকর হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

ডিজিটাল নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে প্রযুক্তিগত সক্ষমতা অর্জন এবং ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন প্রণয়নসহ সরকারের গৃহীত বিভিন্ন কর্মসূচি তুলে ধরেন মন্ত্রী। তার মন্তব্য, ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা চ্যালেঞ্জিং হলেও আমরা এটি মোকাবিলায় পিছিয়ে নেই। অতীতের তিনটি শিল্প-বিপ্লব হাতছাড়া করায় সৃষ্ট পশ্চাদপদতা অতিক্রম করে বাংলাদেশ ডিজিটাল প্রযুক্তি বিকাশে বৈশ্বিক নেতৃত্বের জায়গায় উপনীত হয়েছে।’

টেলিযোগাযোগমন্ত্রী জানান, সৌদি আরবে আইওটি ডিভাইস রফতানি হচ্ছে। বিশ্বের ৮০টি দেশে বাংলাদেশ সফটওয়্যার রফতানি করছে।

সামিটে বক্তারা ডিজিটাল নিরাপত্তা নিশ্চিতের প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। ডিজিটাল নিরাপত্তার জন্য প্রযুক্তিগত সক্ষমতা গড়ে তোলার পাশাপাশি ব্যাপক জনসচেতনতা তৈরির প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেন তারা।

যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী উদ্যোক্তা মোস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তৃতা দেন বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটেডের চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ এবং টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থার (বিটিআরসি) স্পেক্ট্রাম ব্যবস্খাপনা বিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. নাসিম পারভেজ।

অর্ধশতাধিক আন্তর্জাতিক বক্তা অংশ নিচ্ছেন টানা ২৮ ঘণ্টার এই আয়োজনে। ২০টির বেশি দেশ থেকে পাঁচ হাজারের বেশি অংশগ্রহণকারী অনলাইনে যুক্ত হচ্ছেন। বৈশ্বিক সাইবার হুমকির সুরক্ষা, শনাক্তকরণ ও প্রতিক্রিয়া জানতে বাংলাদেশে সরকার ও ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলো এই সামিটে অংশ নিচ্ছে।

/এইচএএইচ/জেএইচ/

সম্পর্কিত

‘ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং’

‘ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং’

দেশে ১৭ কোটি মোবাইল, ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ১১ কোটি: মোস্তাফা জব্বার

দেশে ১৭ কোটি মোবাইল, ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ১১ কোটি: মোস্তাফা জব্বার

শিগগিরই ডাকসেবা কাঙ্ক্ষিত মানে উন্নীত হবে: মোস্তাফা জব্বার  

শিগগিরই ডাকসেবা কাঙ্ক্ষিত মানে উন্নীত হবে: মোস্তাফা জব্বার  

৯ মাসে কটূক্তি কমেছে অর্ধেক, দাবি ফেসবুকের

৯ মাসে কটূক্তি কমেছে অর্ধেক, দাবি ফেসবুকের

সাক্ষাৎকার

‘ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং’

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১৩:০০

করোনাকালে গভীর সংকটে পড়েছিল বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং তথা বিপিও খাত। স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা খাত দিয়েই সংকটকালে টিকেছিল এ শিল্প। এখন দেশি-বিদেশি প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ায় নতুন করে কাজ আসছে। তাতে খাতটি ঘুর দাঁড়াচ্ছে বলে জানালেন বাক্কোর (বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব কলসেন্টার অ্যান্ড আউটসোর্সিং) মহাসচিব তৌহিদ হোসেন। তিনি আরও জানান, করোনাকালে কোনও কলসেন্টার তো বন্ধ হয়নি, উল্টো ৭০টি নতুন প্রতিষ্ঠান সংগঠনের সদস্য হয়েছে। দেশের বাইরে নতুন বাজারের খোঁজও মিলেছে। 

 

বাংলা ট্রিবিউন: বিপিও শিল্পের বর্তমান অবস্থা কেমন?

তৌহিদ হোসেন: পরিসংখ্যান বলছে গত বছর করোনাকালে আমাদের সংগঠনে (বাক্কো) নতুন ৭০টি প্রতিষ্ঠান নিবন্ধিত হয়েছে। এই সময়ে কোম্পানিগুলোর ব্যবসা গুটিয়ে চলে যাওয়ার কথা। কিন্তু যায়নি। বিপিও (বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং) খাতে ভয়াবহ বিপর্যয় এসেছিল। লকডাউনে দেশি-বিদেশি প্রতিষ্ঠান বন্ধ ছিল। কাজ ছিল না। অনেকে কোনোমতে টিকেছিল। কিন্তু এই খাত নিয়ে যে শঙ্কা ছিল তা কাটিয়ে ওঠা গেছে।

করোনাকালে স্বাস্থ্যখাতের কলসেন্টারে সেবা প্রত্যাশীদের চাহিদা বেড়েছে। অপরদিকে পর্যটন খাতের অবস্থা ভয়াবহ ছিল। সেই খাতও ঘুরে দাঁড়িয়েছে। হোটেল বুকিংয়ের জন্য কলসেন্টারে এখন প্রচুর কোয়েরি আসছে। শুক্র ও শনিবার সবাই বেড়াতে যেতে চান। কিন্তু হোটেল তো খালি নেই। কোয়েরির সংখ্যা কয়েকগুণ বেড়েছে। তবে মাঠ পর্যায়ে ডাটা এন্ট্রির যে কাজ ছিল তাতে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে।

 

বাংলা ট্রিবিউন: এখন পরিস্থিতি কীভাবে সামাল দিচ্ছেন?

তৌহিদ হোসেন: আমরা আশাবাদী ২০২২ সালের মধ্যে বিপিও খাত পুরোপুরি ঘুরে দাঁড়াবে। যেসব কাজ জমেছিল, এতদিন করা সম্ভব হয়নি, সেগুলো এখন আসছে। ফলে নতুন-পুরনো কাজ মিলিয়ে ভালো একটা অবস্থার মধ্য দিয়ে যাচ্ছি। কাজের চাপ বাড়ছে দিন দিন।

 

বাংলা ট্রিবিউন: বিপিওর বাজারে করোনার কেমন প্রভাব পড়লো?

তৌহিদ হোসেন: করোনার সময় ৫৫ শতাংশ বাজার আমরা হারিয়েছিলাম। যা প্রায় ৩০ কোটি ডলার। এই ক্ষতি পুষিয়ে উঠতে শুরু করেছে। তবে আগের অবস্থায় ফিরতে সময় লাগবে। আমরা হতাশ নই। করোনাকালে কেউ যখন এ খাত থেকে চলে যায়নি, আর কেউ যাবেও না। 

 

বাংলা ট্রিবিউন: কলসেন্টার ও আউটসোর্সিং খাতে নতুন কী যুক্ত হলো?

তৌহিদ হোসেন: এ সময়ে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মগুলোর বাজার বেড়েছে। স্বাস্থ্য, শিক্ষা খাতের পরিবর্তন ও উন্নতি চোখে পড়ার মতো। ভোক্তা বিশ্বে বহুমুখী চাহিদা দেখা দিয়েছে। ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোম’ টার্মটা এবার স্বীকৃতি পেয়ে গেলো। এটা সংস্কৃতিতে রূপান্তর করা গেলে আগামীতে বড় বড় অফিস, ওয়ার্ক ফোর্স প্রয়োজন হবে না। এতে প্রাতিষ্ঠানিক খরচ কমবে। করোনার সময় (বিশেষ করে লকডাউনে) অনেক কল সেন্টারের কর্মী ঘরে বসে কাজ সামলেছেন। এটা চালিয়ে নেওয়া গেলে প্রতিষ্ঠানগুলো করোনার ধাক্কা সহজে কাটিয়ে উঠতে পারবে। লাভের মুখও দেখবে।

 

বাংলা ট্রিবিউন: বিপিও সামিট আবার কবে হবে?

তৌহিদ হোসেন: ২০২০ সালে করতে পারিনি। এ বছরও করা যাবে না। আমাদের টার্গেট ২০২২ সালের এপ্রিলে বিপিও সামিট করা। এই সামিট দেশের জন্য অনেক সুফল বয়ে আনবে।

 

বাংলা ট্রিবিউন: বাক্বো তার সদস্যদের জন্য কী করলো?

তৌহিদ হোসেন: লকডাউনের সময় যাতে এজেন্টদের (কলসেন্টার কর্মী) নির্বিঘ্নে চলাচল করাটা নিশ্চিত করা হয়। কাজের বেলায় বিশেষ নেতিবাচক প্রভাব পড়েনি। অসুস্থ কর্মীদের চিকিৎসার ব্যবস্থা, সহযোগিতা করা, সদস্য প্রতিষ্ঠানগুলোকে মনিটর করা, মেনটরিং ইত্যাদি চালিয়ে গেছি।

 

বাংলা ট্রিবিউন: বিপিওতে আগামীতে কী ধরনের চ্যালেঞ্জ আসছে?

তৌহিদ হোসেন: বিপিও খাতের ১৫-২০ শতাংশ হলো কলসেন্টার। চ্যাটবট এসেছে, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাভিত্তিক (এআই) ভয়েস আসছে। এগুলো কলসেন্টারগুলোকে চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি করবে। সেসময় এসব কাজে মানুষের ব্যবহার কমবে। কলসেন্টারগুলোর আপ-স্কেলিং হবে। মানুষ তখন আরও ভালো কাজ, উচ্চতর কাজগুলো করবে।

 

বাংলা ট্রিবিউন: আপনার প্রতিষ্ঠান ফিফোটেক নতুন কোনও কাজ পেলো? শোনা যাচ্ছে অনেকেই নতুন নতুন কাজ পাচ্ছে।

তৌহিদ হোসেন: আমরাও পেয়েছি। লন্ডনের একটি ডিপ্লোমা ইনস্টিটিউটের অনলাইন প্ল্যাটফর্ম নিয়ে কাজ করছি। এই কাজের বাজার ভালো।

 

 

/এফএ/

সম্পর্কিত

‘অস্থিরতা সৃষ্টির কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন বড় চ্যালেঞ্জ’

‘অস্থিরতা সৃষ্টির কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন বড় চ্যালেঞ্জ’

শিগগিরই ডাকসেবা কাঙ্ক্ষিত মানে উন্নীত হবে: মোস্তাফা জব্বার  

শিগগিরই ডাকসেবা কাঙ্ক্ষিত মানে উন্নীত হবে: মোস্তাফা জব্বার  

৯ মাসে কটূক্তি কমেছে অর্ধেক, দাবি ফেসবুকের

৯ মাসে কটূক্তি কমেছে অর্ধেক, দাবি ফেসবুকের

নতুন ম্যাকবুক প্রো’তে থাকতে পারে নচ ডিসপ্লে

নতুন ম্যাকবুক প্রো’তে থাকতে পারে নচ ডিসপ্লে

দেশে ১৭ কোটি মোবাইল, ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ১১ কোটি: মোস্তাফা জব্বার

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১২:৫২

দেশে এখন ১৭ কোটি মোবাইল ফোন ব্যবহারকারী এবং ১১ কোটি ইন্টারনেট ব্যবহারকারী রয়েছেন বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। শুক্রবার (২২ অক্টোবর) সন্ধ্যায় ‘সাইবার সিকিউরিটি সামিট ২০২১’ এর ভার্চুয়াল উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ তথ্য জানান। সন্ধ্যা ৬টা থেকে শুরু হওয়া এখনও চলছে, চলবে টানা ২৮ ঘণ্টা।

আন্তর্জাতিক এ সামিটে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, বাংলাদেশে ডিজিটাল নিরাপত্তা যে কোনো ইস্যু হতে পারে এটা আগে কেউ চিন্তা করতো না। তার কারণ বাংলাদেশ ইতিপূর্বে তিনটি শিল্পবিল্পব মিস করছে। সরকারের দক্ষ পদক্ষেপের কারণে চতুর্থ শিল্প বিপ্লব আমরা মিস করি নাই। চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের ফলে দেশে আধুনিক স্মার্ট প্রযুক্তি ব্যবহার করে প্রচলিত উৎপাদন এবং শিল্প ব্যবস্থার স্বয়ংক্রিয়করণের প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে। বাংলাদেশ এখন সব ক্ষেত্রে প্রযুক্তির ব্যবহার বৃদ্ধি পাচ্ছে।

বাংলাদেশে এখন ডিজিটাল ফাইন্যান্স সিস্টেম থেকে শুরু করে সকল ক্ষেত্রে ডিজিটাল রূপান্তর হচ্ছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, যে বাংলাদেশ সম্পূর্ণ কৃষিভিত্তিক ছিল, সেই বাংলাদেশ কিন্তু এখন বিশ্বের ৮০টা দেশে সফটওয়্যার রফতানি করে। এই বাংলাদেশ কিন্তু শুধু চাহিদা মতো সফটওয়ার বানাতেই পারে না, এটা সুরক্ষা দেওয়ার মতো ব্যবস্থাও রয়েছে। আমাদের দেশের মেধা দিয়েই আমার প্রযুক্তি ক্ষেত্রে সৃষ্ট সংকটগুলো অতিক্রম করতে পারবো এটা আমার বিশ্বাস।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, এই প্রযুক্তিগত সক্ষমতা অর্জন করতে সময় লাগছে। আমাদের দেশে দক্ষ মানুষ তৈরি করতে হবে যারা আমাদের প্রযুক্তি ক্ষেত্রে শতভাগ নিরাপত্তা দিতে পারে। আমাদের দেশের জনগণ প্রযুক্তি ক্ষেত্রে ভালোভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। ভবিষ্যতের কোনও সংকট আমরাই মোকাবিলা করতে পারবো।’

আয়োজনে ৫০ জনের বেশি আন্তর্জাতিক বক্তা অংশগ্রহণ করবেন। টানা ২৮ ঘণ্টার এ আয়োজনে ২০টির বেশি দেশের ৫ থেকে ৮ হাজারের বেশি অংশগ্রহণকারী অনলাইনে যুক্ত হবে। বৈশ্বিক সাইবার হুমকির সুরক্ষা, শনাক্তকরণ এবং প্রতিক্রিয়া জানতে বাংলাদেশে সরকার ও ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলো এ সামিটে অংশ নেবে।

/এসটিএস/ইউএস/

সম্পর্কিত

‘অস্থিরতা সৃষ্টির কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন বড় চ্যালেঞ্জ’

‘অস্থিরতা সৃষ্টির কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন বড় চ্যালেঞ্জ’

১৬ ডিসেম্বর ফাইভ-জি চালু করতে পারে টেলিটক

১৬ ডিসেম্বর ফাইভ-জি চালু করতে পারে টেলিটক

তৃতীয় সাবমেরিন ক্যাবল সংযোগের চুক্তি সই, বেসরকারিভাবেও আসছে ২টি

তৃতীয় সাবমেরিন ক্যাবল সংযোগের চুক্তি সই, বেসরকারিভাবেও আসছে ২টি

ভিডিও গেমসের বিষয়ে আদালতের নির্দেশনা পেলে ব্যবস্থা: মোস্তাফা জব্বার

ভিডিও গেমসের বিষয়ে আদালতের নির্দেশনা পেলে ব্যবস্থা: মোস্তাফা জব্বার

ভিডিও মিউট করা যাবে গুগল মিটে

আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২১, ২১:২৩

চলতি বছরের শুরুতে গ্রুপ কলের ক্ষেত্রে হোস্টকে একসঙ্গে সবাইকে অডিও মিউট করার একটি অপশন দিয়েছিল গুগল মিট। এবার এই অ্যাপে আরও বেশি নিয়ন্ত্রণ রাখার সুযোগ করে দিলো বিখ্যাত প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানটি।

গুগল মিটে এখন থেকে অডিওর পাশাপাশি ভিডিও মিউট করে দিতে পারবেন হোস্ট। এর মাধ্যমে মাইক্রোফোন ও ক্যামেরা দুটোই অফ করে দেওয়া যাবে। নির্দিষ্ট করে দেওয়া কিছু অংশগ্রহণকারীর ক্ষেত্রেও এই সুযোগ থাকছে। ফলে অংশগ্রহণকারী চাইলেও তার ক্যামেরা অন করতে পারবেন না।

সংবাদ মাধ্যম এনগেজেট জানায়, কেউ যদি গুগল মিটের অ্যান্ড্রয়েড বা আইওএসের এমন কোনও সংস্করণ ব্যবহার করে যেখানে অডিও এবং ভিডিও লক সাপোর্ট করে না তাদের ক্ষেত্রে হোস্ট এই ফিচার চালু করা মাত্র তারা কল থেকে বাদ পড়ে যাবে। একইসঙ্গে তাদের অ্যাপ আপডেট করার জন্য জানানো হবে।

গুগল অবশ্য আজই এর রি-পেইড রিলিজ ডোমেইন চালু করতে যাচ্ছে। আর শিডিউল করা রিলিজ ডোমেইনগুলোর অ্যাকসেস শুরু হবে ১ নভেম্বর।

লকের এই সুবিধা উচ্ছৃঙ্খল অংশগ্রহণকারীদের নিয়ন্ত্রণে সহায়ক হবে বলে মন্তব্য করেছে সংবাদমাধ্যমটি। এছাড়া এর মাধ্যমে হোস্ট কোনও নির্দিষ্ট ব্যক্তিকে বারবার অংশগ্রহণ করতে উৎসাহ দিতে পারবেন।

/এইচএএইচ/জেএইচ/

সম্পর্কিত

পরিবেশবান্ধব রাস্তা দেখাবে গুগল ম্যাপস

পরিবেশবান্ধব রাস্তা দেখাবে গুগল ম্যাপস

গুগল ফটোজে নতুন ফিচার

গুগল ফটোজে নতুন ফিচার

২০০ কোটি ক্রোম ব্যবহারকারীকে যে কারণে সতর্ক করলো গুগল

২০০ কোটি ক্রোম ব্যবহারকারীকে যে কারণে সতর্ক করলো গুগল

ভুল নিয়ে গুগলের জন্ম 

ভুল নিয়ে গুগলের জন্ম 

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

টুইটারের স্পেসেস এখন সবার জন্য উন্মুক্ত

টুইটারের স্পেসেস এখন সবার জন্য উন্মুক্ত

‘অস্থিরতা সৃষ্টির কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন বড় চ্যালেঞ্জ’

‘অস্থিরতা সৃষ্টির কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন বড় চ্যালেঞ্জ’

‘ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং’

সাক্ষাৎকার‘ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং’

দেশে ১৭ কোটি মোবাইল, ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ১১ কোটি: মোস্তাফা জব্বার

দেশে ১৭ কোটি মোবাইল, ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ১১ কোটি: মোস্তাফা জব্বার

ভিডিও মিউট করা যাবে গুগল মিটে

ভিডিও মিউট করা যাবে গুগল মিটে

প্লে-স্টোরের সাবস্ক্রিপশন ফি অর্ধেক করছে গুগল

প্লে-স্টোরের সাবস্ক্রিপশন ফি অর্ধেক করছে গুগল

ওটিটি অ্যাপস নিয়ন্ত্রণ নিয়ে কী হচ্ছে?

ওটিটি অ্যাপস নিয়ন্ত্রণ নিয়ে কী হচ্ছে?

অবৈধ মোবাইল ফোন বন্ধ হচ্ছে না

অবৈধ মোবাইল ফোন বন্ধ হচ্ছে না

শিগগিরই ডাকসেবা কাঙ্ক্ষিত মানে উন্নীত হবে: মোস্তাফা জব্বার  

শিগগিরই ডাকসেবা কাঙ্ক্ষিত মানে উন্নীত হবে: মোস্তাফা জব্বার  

বাংলাদেশের কারখানায় বছরে ৩০ লাখ ফোন তৈরি করবে শাওমি

বাংলাদেশের কারখানায় বছরে ৩০ লাখ ফোন তৈরি করবে শাওমি

সর্বশেষ

শ্রীলঙ্কাকে হারাতে যা করতে হবে বাংলাদেশকে

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপশ্রীলঙ্কাকে হারাতে যা করতে হবে বাংলাদেশকে

টুইটারের স্পেসেস এখন সবার জন্য উন্মুক্ত

টুইটারের স্পেসেস এখন সবার জন্য উন্মুক্ত

দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির পেছনে রয়েছে আওয়ামী সিন্ডিকেট: খন্দকার মোশাররফ

দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির পেছনে রয়েছে আওয়ামী সিন্ডিকেট: খন্দকার মোশাররফ

মাদকসহ সমাজসেবা কর্মকর্তা গ্রেফতার

মাদকসহ সমাজসেবা কর্মকর্তা গ্রেফতার

নুসরাত ফারিয়ার এবারের গানচমক ‘হাবিবি’

নুসরাত ফারিয়ার এবারের গানচমক ‘হাবিবি’

© 2021 Bangla Tribune