X
বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১, ৫ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

খাবার পরিবেশন ও তৃষ্ণার্তদের পানি পান করানোর শর্তে ২ আসামির মুক্তি

আপডেট : ১০ অক্টোবর ২০২১, ২২:০৬

এতিমখানায় মাসে একবেলা খাবার পরিবেশন, তৃষ্ণার্তদের পানি পান করানো ও শিশুদের সময় দেওয়াসহ বিভিন্ন শর্তে মাদক মামলার দুই আসামিকে প্রবেশনে মুক্তির আদেশ দিয়েছেন আদালত। রবিবার (১০ অক্টোবর) যশোরের যুগ্ম দায়রা জজ আদালতের (দ্বিতীয়) বিচারক শিমুল কুমার বিশ্বাস ভিন্নধর্মী এ রায় ঘোষণা করেন।

মদ ও ফেনসিডিল সংক্রান্ত পৃথক দুই মাদক মামলায় কারাদণ্ডের পরিবর্তে প্রবেশনে মুক্তি পাওয়া দুই আসামি হলেন- মো. কামরুজ্জামান ও জায়েদা খাতুন কুটি। মো. কামরুজ্জামান যশোরের শার্শা উপজেলার দক্ষিণ বারোপোতার আশরাফ আলী মোড়লের ছেলে এবং জায়েদা খাতুন কুটি একই উপজেলার কাশিপুর গ্রামের মক্কেল মোল্লার মেয়ে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আদালতের অতিরিক্ত সরকারি কৌঁসুলি লতিফা ইয়াসমিন।

আদালত সূত্র ও মামলার বিবরণে জানা গেছে, ২০১৩ সালের ২ আগস্ট বিকাল সোয়া ৪টার দিকে শার্শা থানার এসআই মিজানুর রহমান উপজেলার বড়বাড়িয়া গ্রামে অভিযান চালান। সেখান থেকে ২৫ বোতল ভারতীয় মদসহ কামরুজ্জামানকে আটক করেন। এ ঘটনায় শার্শা থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। মামলার সাক্ষ্য প্রমাণে আসামি কামরুজ্জামান দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় সংশোধনের সুযোগ দেওয়ার লক্ষ্যে তাকে কারাদণ্ডের পরিবর্তে প্রবেশন আইনে ৮ শর্তে দুই বছরের জন্য মুক্তির আদেশ দেন আদালতের বিচারক।

উল্লেখযোগ্য শর্ত হলো, প্রবেশনকালে উপার্জিত অর্থ থেকে বেনাপোল পোর্ট থানা এলাকায় নিজের পছন্দ মতো যেকোনও এতিমখানার বাসিন্দাদের প্রতি মাসে একবার সামর্থ্য অনুযায়ী একবেলা বিশুদ্ধ খাবার পরিবেশন করতে হবে।

অপর আসামি জায়েদা খাতুন কুটিকে ২০০৯ সালের ৩ অক্টোবর দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে শার্শা উপজেলার বটতলা কাশিপুর থেকে ১৬ বোতল ফেনসিডিলসহ আটক করেন গোড়পাড়া পুলিশ ক্যাম্পের এএসআই মোমরেজ আলী। এ ঘটনায়ও শার্শা থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। মামলায় সাক্ষ্য প্রমাণে আদালতে দোষী সাব্যস্ত হন আসামি জায়েদা খাতুন।

তার মুক্তির শর্তে উল্লেখযোগ্য হলো, আসামি বীরশ্রেষ্ঠ নুর মোহাম্মদ শেখের মাজারে ঝাড়ুদার পদে কর্মরত থাকায় প্রবেশনকালে প্রতি সপ্তাহে ওই স্থানে আসা দর্শনার্থীদের বিভিন্ন সেবা (তৃষ্ণার্তদের পানি পান করানো, দর্শনার্থীদের সঙ্গে থাকা শিশুদের সময় দেওয়া ইত্যাদি) দিতে হবে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

ইউপি নির্বাচন: বিদ্রোহী প্রার্থীর অফিস ভাঙচুরের অভিযোগ

ইউপি নির্বাচন: বিদ্রোহী প্রার্থীর অফিস ভাঙচুরের অভিযোগ

ভারত থেকে ফিরেছেন পাচার হওয়া ১৯ তরুণী

ভারত থেকে ফিরেছেন পাচার হওয়া ১৯ তরুণী

মাজারের দুই খাদেমের সঙ্গে কথা বলে কোরআন নিয়ে যান ইকবাল

মাজারের দুই খাদেমের সঙ্গে কথা বলে কোরআন নিয়ে যান ইকবাল

‘খুঁজে বের করতে হবে ইকবালের পেছনে কে’

আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২১, ২২:৫৮

কুমিল্লার ঘটনায় অভিযুক্ত ইকবাল হোসেনের পেছনে থাকা ব্যক্তিকে খুঁজে বের করার দাবি জানিয়েছেন হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট রানা দাশগুপ্ত। বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) দুপুরে চট্টগ্রামের চকবাজারের চন্দনপুরা এলাকায় তার বাসায় যান শিক্ষা উপমন্ত্রী মুহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। শিক্ষা উপমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান।

এ সময় রানা দাশগুপ্ত বলেন, ‘বুধবার টিভিতে দেখলাম তার নামের আগে একটা শব্দ জুড়ে দেওয়া হয়েছে। সেটি হলো, ‘ভবঘুরে’। এ পর্যন্ত বড় ঘটনায় পুলিশ যাদের ধরেছে তারা সবাই পাগল, ভবঘুরে। কিন্তু এই পাগলের পেছনে কে? নতুন কোরআন কোথা থেকে আনলো, কে দিলো? আর হনুমানের গদাটা এমনভাবে সরালো যাতে হাতের কিছু না হয়। সেখানে আবার নতুন কোরআন দিয়ে দিলো। এটি কোনও ভবঘুরের কাজ হতে পারে না। এর পেছনে কে? তাকে খুঁজে বের করতে হবে।’

তিনি এ ঘটনায় আরও বেশি গুরুত্ব দিয়ে তদন্তের আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘১৯৭১ সালের পরাজিত শক্তি দেশে সংখ্যালঘুদের বিতাড়িত করতে চাচ্ছে, সেটি তাকে (শিক্ষা উপমন্ত্রী) বলেছি। সাম্প্রতিক ঘটনা ছাড়াও এই সরকারের আমলে সব ঘটনা কোনও বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। এগুলো যাতে গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করা হয়, সে ব্যাপারে বলেছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘এটি একটি পূর্বপরিকল্পিত ঘটনা। চক্রান্তকারীরা পেছনে আছে। তাদের বের করে আনার দায়িত্ব এখন রাষ্ট্র ও সরকারকেই নিতে হবে। সাম্প্রতিক সময়ের ঘটনায় প্রশাসনের গাফিলতি আছে। রাজনৈতিক দলের গাফিলতি আছে, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাশে কোনও রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীকে দেখা যায়নি।’

 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

সড়কে পলিটেকনিক শিক্ষকসহ নিহত ২

সড়কে পলিটেকনিক শিক্ষকসহ নিহত ২

‘রাষ্ট্রধর্ম পরিবর্তনের পরিকল্পনা আ.লীগের নেই’

‘রাষ্ট্রধর্ম পরিবর্তনের পরিকল্পনা আ.লীগের নেই’

শুধু প্রশাসন দিয়ে সার্বক্ষণিক নিরাপত্তা দেওয়া সম্ভব না: নওফেল

শুধু প্রশাসন দিয়ে সার্বক্ষণিক নিরাপত্তা দেওয়া সম্ভব না: নওফেল

যৌথ অভিযানে ডুবিয়ে দেওয়া হলো ৩০ জেলেনৌকা

যৌথ অভিযানে ডুবিয়ে দেওয়া হলো ৩০ জেলেনৌকা

ইউপি নির্বাচন: বিদ্রোহী প্রার্থীর অফিস ভাঙচুরের অভিযোগ

আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২১, ২২:৫২

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জের খাউলিয়া ইউনিয়নের নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যক্ষ আব্দুল হাই খানের নির্বাচনি অফিসে হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) সন্ধ্যা ৬টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

আব্দুল হাই খানের অভিযোগ, দুর্বৃত্তরা সাত জনকে পিটিয়ে আহত করেছে। অফিসের চেয়ার, টেবিল ভেঙে ফেলেছে। অফিসে থাকা একটি টেলিভিশন ও প্রচারের মাইক নিয়ে গেছে। 

তিনি অভিযোগ করে আরও বলেন, ‘চেয়ারম্যান বাজার এলাকায় নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মাস্টার সাইদুর রহমানের পথসভা শেষে তার কর্মীরা পরিকল্পিতভাবে আমার অফিসে (চশমা প্রতীক) হামলা করে।’

অপরদিকে, নৌকার প্রার্থী সাইদুর রহমান পাল্টা অভিযোগ করে বলেন, ‘চশমা প্রতীকের কর্মীরা নৌকার কর্মীদের ওপর হামলা করেছে।’

খবর পেয়ে মোরেলগঞ্জ থানার ওসি মো. ইকবাল বাহার চৌধুরী ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। রাত সাড়ে ৮টার দিকে সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আলী হাসানও ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। 

এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘অফিস ভাঙচুরের বিষয়টি দেখলাম। লিখিত অভিযোগ পেলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ ছাড়াও প্রার্থীদেরকে শেষবারের মতো সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে। বাড়াবাড়ি করলে তার দায় প্রশাসন নেবে না।’

আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থীর মৃত্যুজনিত কারণে এ ইউনিয়নের নির্বাচন স্থগিত ছিল। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী আগামী ২ নভেম্বর এখানে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

ভারত থেকে ফিরেছেন পাচার হওয়া ১৯ তরুণী

ভারত থেকে ফিরেছেন পাচার হওয়া ১৯ তরুণী

চাকা পাংচার হয়ে খাদে বাস, নিহত এক আহত ১০

চাকা পাংচার হয়ে খাদে বাস, নিহত এক আহত ১০

আমরা চাই নির্বাচন প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক হোক এবং হচ্ছেও: সিইসি

আমরা চাই নির্বাচন প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক হোক এবং হচ্ছেও: সিইসি

আবার শজিমেক হাসপাতালে রোগীর স্বজনকে মারধরের অভিযোগ

আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২১, ২২:৪৮

বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে আবার রোগীর স্বজনকে বেধড়ক মারধরের অভিযোগ উঠেছে। এর আগে ইন্টার্ন চিকিৎসকরা হামলা চালালেও এবার কর্মচারীরা চালিয়েছেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। মারধরের শিকার এসএম আবু রায়হান হাসপাতালের পরিচালকের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শহরের ফুলবাড়ি কারিগরপাড়ার রেজাউলের ছেলে এসএম আবু রায়হান টিভিএস অটো বাংলাদেশ লিমিটেডের বগুড়া শাখার ইনচার্জ। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে তিনি অসুস্থ স্ত্রীকে নিয়ে শজিমেক হাসপাতালে আসেন। বহির্বিভাগের সার্জারি মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা. আবদুর রাজ্জাকের কক্ষের সামনে অপেক্ষা করছিলেন। এ সময় হাসপাতালের অফিস সহায়ক সোহরাব হোসেন চিকিৎসার জন্য অপেক্ষমান রোগীদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও ধাক্কাধাক্কি করেন। রায়হান এর প্রতিবাদ করলে সোহরাব হোসেন, আয়া লিমাসহ ও ৩-৪ জন কর্মচারী রায়হানকে মেরে রক্তাক্ত করেন।

ছিলিমপুর মেডিক্যাল ফাঁড়ির পরিদর্শক রফিকুল ইসলাম বলেন, হামলাকারী সোহরাব ক্ষমা চাওয়ায় ঘটনাটি মীমাংসা হয়ে গেছে।

হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. আব্দুল ওয়াদুদ বলেন, আমরা লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগ যাচাই-বাছাই করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

হামলার শিকার এসএম আবু রায়হান বলেন, চিকিৎসা নিতে আসা রোগীর সঙ্গে দুর্ব্যবহার করায় আমি প্রতিবাদ করেছি। তাই হাসপাতালের অফিস সহায়ক সোহরাব হোসেন, আয়া লিমা ও তাদের ৩-৪ জন সহযোগী আমাকে বেধড়ক মারপিট করেন। এ ব্যাপারে হাসপাতালের পরিচালকের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছি।

/এএম/

সম্পর্কিত

রাজশাহীতে সাম্প্রদায়িক সহিংসতার বিরুদ্ধে সমাবেশ

রাজশাহীতে সাম্প্রদায়িক সহিংসতার বিরুদ্ধে সমাবেশ

আজও আসেননি চুল কেটে দেওয়া শিক্ষক, প্রতিবেদন জমা

আজও আসেননি চুল কেটে দেওয়া শিক্ষক, প্রতিবেদন জমা

ভ্যানভর্তি সরকারি চাল রেখে ইউপি সদস্যের দৌড়

ভ্যানভর্তি সরকারি চাল রেখে ইউপি সদস্যের দৌড়

শিক্ষার্থীদের চুল কেটে দেওয়া শিক্ষিকার বিষয়ে বিকালে সিদ্ধান্ত

শিক্ষার্থীদের চুল কেটে দেওয়া শিক্ষিকার বিষয়ে বিকালে সিদ্ধান্ত

সড়কে পলিটেকনিক শিক্ষকসহ নিহত ২

আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২১, ২২:২৯

কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় ট্রাকের সঙ্গে সিএনজি অটোরিকশার সংঘর্ষে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের শিক্ষক আব্দুল ওয়াহেদ এবং এক শিশুসহ দুজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও পাঁচ জন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত শিক্ষক ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের মধ্যপাড়া এলাকার বাসিন্দা।

পুলিশ ও আহতরা জানান, আজ সন্ধ্যার দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের কাউতলী থেকে একটি সিএনজি অটোরিকশায় কসবা উপজেলার নয়নপুরে সপরিবারে একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে যাচ্ছিলেন আব্দুল ওয়াহেদ। এ সময় আখাউড়া উপজেলার ছতুরা শরিফ এলাকায় কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের পাশে দাঁড়িয়ে থাকা একটি ট্রাকের সঙ্গে সিএনজি অটোরিকশাটির ধাক্কা লাগে। এতে ঘটনাস্থলেই শিক্ষক আব্দুল ওয়াহেদ (৩৫) ও হাবিবা (১৩ মাস) নামে এক শিশু নিহত হন। আহত হন- শিক্ষকের স্ত্রী স্মৃতি বেগম (৩০) ও শিশুসন্তান ওয়াকি (৫), তামিমা (১৩), রোকসানা (৩৮), কারুমাসহ (১০) পাঁচ জন।

আহতদের সবার বাড়ি নবীনগর উপজেলার শিবপুর গ্রামে। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে নিয়ে আসেন। সেখানেই তাদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। নিহতের লাশ ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে সহকর্মীর মৃত্যুর খবর পেয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের শিক্ষকরা হাসপাতালে ভিড় করেন।

আখাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মিজানুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, ‘বিপরীত দিক থেকে আসা একটি গাড়ির লাইটের আলোর কারণে সিএনজি অটোরিকশা চালক নিয়ন্ত্রণ হারান। এতে দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকের পেছনে সিএনজি অটোরিক্সাটি ধাক্কা মারে। এ বিষয়ে হাইওয়ে পুলিশ ব্যবস্থা নেবে।

 

 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

‘খুঁজে বের করতে হবে ইকবালের পেছনে কে’

‘খুঁজে বের করতে হবে ইকবালের পেছনে কে’

‘রাষ্ট্রধর্ম পরিবর্তনের পরিকল্পনা আ.লীগের নেই’

‘রাষ্ট্রধর্ম পরিবর্তনের পরিকল্পনা আ.লীগের নেই’

শুধু প্রশাসন দিয়ে সার্বক্ষণিক নিরাপত্তা দেওয়া সম্ভব না: নওফেল

শুধু প্রশাসন দিয়ে সার্বক্ষণিক নিরাপত্তা দেওয়া সম্ভব না: নওফেল

যৌথ অভিযানে ডুবিয়ে দেওয়া হলো ৩০ জেলেনৌকা

যৌথ অভিযানে ডুবিয়ে দেওয়া হলো ৩০ জেলেনৌকা

রাজশাহীতে সাম্প্রদায়িক সহিংসতার বিরুদ্ধে সমাবেশ

আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২১, ২২:২৮

রাজশাহীতে বিভিন্ন ব্যানারে পৃথকভাবে সাম্প্রদায়িক সহিংসতার বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও সমাবেশ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) এ সমাবেশ করা হয়। সমাবেশে দেশে যেকোনও ধরনের সাম্প্রদায়িক সহিংসতা, উসকানিমূলক কর্মকাণ্ডসহ সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তার প্রশ্নে প্রশাসনকে আরও কঠোর অবস্থানে থাকার আহ্বান জানিয়েছেন বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

দুপুরে নগরীর জিরো পয়েন্টে সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যানারে সাম্প্রদায়িক সহিংসতার বিরুদ্ধে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সেলিম রেজা নিউটন, শিল্পী মাঈশা মরিয়াম ও মীরা সুস্মিতা প্রমুখ। ‘পৃথিবীটা মানুষের হোক ধর্ম, থাকুক অন্তরে’, ‘মুক্তিযুদ্ধের বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িকতার ঠাঁই নেই’, ‘ধর্মান্ধতা নিপাত যাক’, ‘ধর্ম নিয়ে অশান্তি চাই না’ স্লোগান নিয়ে মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করেছেন শিক্ষার্থীরা।

সাম্প্রদায়িক সহিংসতার বিরুদ্ধে মানববন্ধন

এদিকে, অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের চেতনা বিনাশকারী সাম্প্রদায়িক সহিংসতার বিরুদ্ধে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিবাদী মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে সিনেট ভবন চত্বরে রাবি শিক্ষক সমিতির আয়োজনে ঘণ্টাব্যাপী এ মানববন্ধনে শতাধিক শিক্ষক অংশ নেন।

মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারী শিক্ষক নেতারা বলেন, যে অসাম্প্রদায়িক ও গণতান্ত্রিক চেতনা নিয়ে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে বাংলাদেশের জন্ম হয়েছিল সেদেশ এখন মৌলবাদী শক্তির উত্থানের কারণে সহিংস হচ্ছে। ধর্মকে পুঁজি করে সংগঠিত সব সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসের সঙ্গে জড়িতদের চিহ্নিত করে দ্রুত বিচার করতে হবে। 

বেলা ১১টায় রাজশাহী কলেজের বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালের সামনে রাজশাহী কলেজ রিপোর্টার্স ইউনিটির উদ্যোগে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। 

/এএম/

সম্পর্কিত

আবার শজিমেক হাসপাতালে রোগীর স্বজনকে মারধরের অভিযোগ

আবার শজিমেক হাসপাতালে রোগীর স্বজনকে মারধরের অভিযোগ

আজও আসেননি চুল কেটে দেওয়া শিক্ষক, প্রতিবেদন জমা

আজও আসেননি চুল কেটে দেওয়া শিক্ষক, প্রতিবেদন জমা

ভ্যানভর্তি সরকারি চাল রেখে ইউপি সদস্যের দৌড়

ভ্যানভর্তি সরকারি চাল রেখে ইউপি সদস্যের দৌড়

শিক্ষার্থীদের চুল কেটে দেওয়া শিক্ষিকার বিষয়ে বিকালে সিদ্ধান্ত

শিক্ষার্থীদের চুল কেটে দেওয়া শিক্ষিকার বিষয়ে বিকালে সিদ্ধান্ত

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ইউপি নির্বাচন: বিদ্রোহী প্রার্থীর অফিস ভাঙচুরের অভিযোগ

ইউপি নির্বাচন: বিদ্রোহী প্রার্থীর অফিস ভাঙচুরের অভিযোগ

ভারত থেকে ফিরেছেন পাচার হওয়া ১৯ তরুণী

ভারত থেকে ফিরেছেন পাচার হওয়া ১৯ তরুণী

মাজারের দুই খাদেমের সঙ্গে কথা বলে কোরআন নিয়ে যান ইকবাল

মাজারের দুই খাদেমের সঙ্গে কথা বলে কোরআন নিয়ে যান ইকবাল

মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় গ্রেফতার ৩

মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় গ্রেফতার ৩

‘অপহরণ করে বিয়ে’, ৫ দিন পর শ্বশুরবাড়ি ছেড়েছেন ইশরাত

‘অপহরণ করে বিয়ে’, ৫ দিন পর শ্বশুরবাড়ি ছেড়েছেন ইশরাত

শিক্ষিকাকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

শিক্ষিকাকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

পীরগঞ্জে হামলার ঘটনায় গ্রেফতার ৩৭ আসামির রিমান্ড মঞ্জুর

পীরগঞ্জে হামলার ঘটনায় গ্রেফতার ৩৭ আসামির রিমান্ড মঞ্জুর

চাকা পাংচার হয়ে খাদে বাস, নিহত এক আহত ১০

চাকা পাংচার হয়ে খাদে বাস, নিহত এক আহত ১০

আমরা চাই নির্বাচন প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক হোক এবং হচ্ছেও: সিইসি

আমরা চাই নির্বাচন প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক হোক এবং হচ্ছেও: সিইসি

সর্বশেষ

‘খুঁজে বের করতে হবে ইকবালের পেছনে কে’

‘খুঁজে বের করতে হবে ইকবালের পেছনে কে’

ইউপি নির্বাচন: বিদ্রোহী প্রার্থীর অফিস ভাঙচুরের অভিযোগ

ইউপি নির্বাচন: বিদ্রোহী প্রার্থীর অফিস ভাঙচুরের অভিযোগ

আবার শজিমেক হাসপাতালে রোগীর স্বজনকে মারধরের অভিযোগ

আবার শজিমেক হাসপাতালে রোগীর স্বজনকে মারধরের অভিযোগ

ভুল করতে পারি, তাই বলে ছোট করা উচিত নয়: মাহমুদউল্লাহ 

ভুল করতে পারি, তাই বলে ছোট করা উচিত নয়: মাহমুদউল্লাহ 

মারা গেছেন নির্মাতা-নাট্যকার কায়েস চৌধুরী

মারা গেছেন নির্মাতা-নাট্যকার কায়েস চৌধুরী

© 2021 Bangla Tribune