X
শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ৩১ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

‘অসৎ শ্রম আচরণ শোভন কর্মপরিবেশের বড় বাধা’

আপডেট : ১৪ অক্টোবর ২০২১, ১৬:৪২

শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. এহছানে এলাহী বলেছেন, অসৎ শ্রম আচরণ শোভন কর্মপরিবেশের জন্য বড় বাধা। আদর্শ পরিচালনা পদ্ধতির চর্চা মালিক-শ্রমিক সম্পর্ক মজবুত করে। সেই সঙ্গে শিল্পের উৎপাদনে ইতিবাচক প্রভাব ফেলে। 

বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) হবিগঞ্জের বাহুবলে তিন দিনব্যাপী ‌‘স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউর ফর আনফেয়ার লেবার প্র্যাক্টিস অ্যান্ড অ্যান্টি-ইউনিয়ন ডিসক্রিমিনিশন’ শীর্ষক প্রশিক্ষণ কর্মসূচির সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। দি প্যালেস রিসোর্টে আইএলও-এর সহযোগিতায় শ্রম অধিদফতর এই কর্মসূচির আয়োজন করে।

শ্রম সচিব বলেন, আইএলও কনভেনশন এবং বাংলাদেশ শ্রম আইন ও শ্রম বিধিমালা অনুযায়ী ট্রেড ইউনিয়ন গঠন শ্রমিকের অধিকার। অ্যান্টি-ট্রেড ইউনিয়ন মনোভাব থেকে আমাদের বেরিয়ে আসতে হবে। এসডিজির লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী নিরাপদ এবং শোভন কর্মপরিবেশ নিশ্চিত করা, দক্ষ জনশক্তি তৈরি এবং নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি আমাদের অঙ্গীকার। সে লক্ষ্যে সরকার কাজ করে যাচ্ছে। শ্রম মন্ত্রণালয়ের অধীনে কর্মসংস্থান অধিদফতর প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ চূড়ান্ত পর্যায়ে। 

তিনি বলেন, শ্রমিকদের যথাযথ মজুরি, কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তা ও তাদের মৌলিক এবং ন্যায্য অধিকারগুলোর প্রাপ্তি নিশ্চিত এবং বিরোধ নিষ্পত্তিতে একসঙ্গে কাজ করতে হবে। প্রশিক্ষণ গ্রহণকারী কর্মকর্তাগণ প্রশিক্ষণলব্ধ জ্ঞানকে শ্রমমান উন্নয়ন এবং শ্রমিকের কল্যাণে কাজে লাগাবেন বলে আশা ব্যক্ত করেন সচিব। 

জবরদস্তি শ্রম সম্পর্কিত আইএলও কনভেনশন, ১৯৩০’ এর প্রটোকল ২৯ অনুসমর্থনের প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে সরকার। এই বছরের মধ্যে বাংলাদেশ চাকরির সর্বনিম্ন বয়স সংক্রান্ত আইএলও কনভেনশন-১৩৮ অনুস্বাক্ষর করবে বলে উল্লেখ করেন তিনি। 

শ্রম অধিদফতরের মহাপরিচালক গৌতম কুমারের সভাপতিত্বে আইএলও বাংলাদেশের চিফ টেকনিক্যাল এডভাইজার নিরান রামজুথান এবং শ্রম অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক ড. আব্দুল লতিফ খান বক্তব্য রাখেন। প্রশিক্ষণে শ্রম অধিদফতরের প্রধান কার্যালয়, ঢাকা, চট্টগ্রাম ও শ্রীমঙ্গল আঞ্চলিক কার্যালয়ের পরিচালক থেকে সহকারী পরিচালক পর্যায়ের ৩০ জন কর্মকর্তা অংশ নেন।

স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউর বা আদর্শ পরিচালনা পদ্ধতি হচ্ছে কোনও প্রতিষ্ঠান কর্তৃক ধাপে ধাপে প্রকাশিত নির্দেশাবলী, যা প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের প্রতিদিনের কাজ-কর্ম করতে সহায়ক। তার মূল লক্ষ্য থাকে নির্দিষ্ট গুণসম্পন্ন উৎপাদন, পরস্পরের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি দূরীকরণ এবং শিল্প বিভাগ বা শিল্প জগতের নিয়মাবলী অনুসরণ।

পরে শ্রম সচিব বাংলাদেশ শ্রমিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন তহবিল থেকে প্রাতিষ্ঠানিক-অপ্রাতিষ্ঠানিক খাতের মৌলভীবাজারের বেশকিছু শ্রমিকের হাতে চিকিৎসা সহায়তার চেক তুলে দেন। 

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

কুমিল্লার ঘটনায় কাদের যোগসাজশ তা বের হবে: পরিবেশ মন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় কাদের যোগসাজশ তা বের হবে: পরিবেশ মন্ত্রী

প্রবাসী তরুণীকে ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি গ্রেফতার

প্রবাসী তরুণীকে ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি গ্রেফতার

লরিচাপায় প্রাণ গেলো ৩ শ্রমিকের

লরিচাপায় প্রাণ গেলো ৩ শ্রমিকের

দুই সন্তানসহ স্ত্রীর লাশ উদ্ধার, স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৬:৩৫

স্ত্রী সুমিতা খাতুনসহ দুই সন্তানের লাশ উদ্ধারের ঘটনায় স্বামী সোহেল রানাকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ। শুক্রবার রাতে সুমিতার ফুফার করা মামলায় শনিবার (১৬ অক্টোবর) দুপুরে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

পাঁচলাইশ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাদেকুর রহমান বাংলা ট্রিবিউনকে তিনি বলেন, এসএস হাউজিংয়ের চারতলার ফ্ল্যাট থেকে মা ও দুই সন্তানের লাশ উদ্ধারের ঘটনায় ওই নারীর ফুফা শুক্রবার রাতে আত্মহত্যার ঘটনায় প্ররোচনার অভিযোগ এনে সোহেল রানার বিরুদ্ধে মামলা করেন। ওই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে শুক্রবার দুপুরে নগরীর পাঁচলাইশ থানার মোহাম্মদপুর এলাকার এসএস হাউজিংয়ের একটি ফ্ল্যাট থেকে সুমিতা খাতুন ও তার দুই সন্তানের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ওই ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সোহেল রানাকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

সুমিতা খাতুন সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ থানা পাঙ্গাশিয়া এলাকার সোহেল রানার স্ত্রী। নগরীর মুরাদপুর এলাকায় তার ইউনানি ওষুধের দোকান আছে। সোহেল রানা বিয়ের পর থেকে পরিবার নিয়ে চট্টগ্রাম নগরীতে বসবাস করছেন। দুই বছর আগে তিনি এসএস হাউজিংয়ের ওই ফ্ল্যাটে ভাড়ায় ওঠেন। শুক্রবার সকালে বাসা থেকে সুমিতা খাতুন ও তার ছেলে-মেয়ের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ

সোহেল রানার দুলাভাই নজরুল ইসলাম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, প্রতিদিনের মতো বৃহস্পতিবার দুপুরে ভাত খেয়ে ৩টার দিকে দোকানে যায়। রাত ৯টায় বাসায় ফিরে দরজা ভেতর থেকে বন্ধ পায়। আধা ঘণ্টার মতো চেষ্টা করেও ভেতরে প্রবেশ করতে না পেরে চলে যায়। রাত ১১টার দিকে এসে আবার চেষ্টা করে। কিন্তু তখনও বাসায় ঢুকতে না পেরে ফিরে যায়। ওই সময় সোহেল আমার ভায়রা-ভাইকে কল করে বিষয়টি জানায়। পরে আমাদের সবাইকে জানায়। খবর পেয়ে আমরা বাসায় যাই। 

তিনি আরও বলেন, ১০ বছর আগে সোহেলের সঙ্গে সুমিতার বিয়ে হয়। এরপর থেকে চট্টগ্রামে বসবাস করছেন। গত ১০ বছরে তাদের মনোমালিন্য হয়নি।

একই কথা জানিয়েছে ভবনের দারোয়ান ফোরকান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, রাত সাড়ে ১১টার দিকে সোহেল বাসায় ঢুকতে না পেরে আমার কাছে বাসার চাবি চেয়েছেন। পরে চাবি নিয়ে আমিসহ গিয়ে অনেকক্ষণ চেষ্টা করেও ভেতরে ঢুকতে পারিনি। ভেতর থেকে দরজা আটকানো ছিল। পরে তিনি ফিরে যান। আমি রুমে এসে ঘুমিয়ে পড়ি। সকালে দরজা ভেঙে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

/এএম/

সম্পর্কিত

পুকুরে ডুবে ভাইবোনের মৃত্যু

পুকুরে ডুবে ভাইবোনের মৃত্যু

আ.লীগ নেতাকে পিষে দিলো বেপরোয়া গতির গাড়ি   

আ.লীগ নেতাকে পিষে দিলো বেপরোয়া গতির গাড়ি   

চার দিনেও সন্ধান মেলেনি নিখোঁজ ব্যবসায়ীর

চার দিনেও সন্ধান মেলেনি নিখোঁজ ব্যবসায়ীর

১১ বছর পর লক্ষ্মীপুরে বিএনপির নতুন কমিটি

১১ বছর পর লক্ষ্মীপুরে বিএনপির নতুন কমিটি

‘পাবজি খেলাকে কেন্দ্র করে’ স্কুলছাত্রকে হত্যা

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৬:২৭

মানিকগঞ্জের সিংগাইরে পাবজি খেলাকে কেন্দ্র করে এক স্কুলছাত্রকে কালীগঙ্গা নদীর তীরের কাশবনে নিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। নিহত রাজু (১৪) উপজেলার সায়েস্তা ইউনিয়নের দক্ষিণ সাহরাইল গ্রামের মোসলেম উদ্দিনের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, মোবাইলে ফোনে পাবজি খেলা নিয়ে নিহত রাজু ও বন্ধু আলিফের (১৬) মধ্যে বিবাদের সৃষ্টি হয়। নিহতের বাবার মোসলেম উদ্দিনের অভিযোগ, উপজেলার দক্ষিণ সাহরাইলের রাজু কোরাইশির ছেলে আলিফ পাবজি গেম ও বিভিন্ন আইডি হ্যাক করতো। এটি রাজু সবাইকে জানিয়ে দেবে বলে জানায়। এর জেরে বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) সন্ধ্যায় কৌশলে রাজুকে সাইকেলযোগে পার্শ্ববর্তী নবাবগঞ্জ উপজেলার শোল্লা ইউনিয়নের রুপারচর এলাকার কালীগঙ্গা নদীর তীরে কাশবনে নিয়ে যায়। সেখানে রাজুকে ইট দিয়ে মাথায় আঘাত করে। এরপর গায়ের জামা খুলে মুখে ভরে গলার ভেতরে ঢুকিয়ে দেয়। পরে মাথা ও মুখ থেঁতলে দেয়। এরপর দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।  রাজু দক্ষিণ সাহরাইল কিন্ডার গার্টেনের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র।

অভিযুক্ত আলিফের বাড়ি ঘেরাও

এদিকে, পরিবার রাজুকে খুঁজে না পেয়ে আলিফের বাড়িতে যায়। আলিফ ও তার পরিবার বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করে। ঘটনার দিন রাত ৯টার দিকে স্থানীয় কাঁচামালের ব্যবসায়ী নুরু মিয়া রুপারচর বাজার থেকে বাড়িতে যাওয়ার পথে কাশবন থেকে গোঙ্গানির শব্দ পান। সেখানে গিয়ে গুরুতর আহত অবস্থায় রাজুকে উদ্ধার করে সাহরাইল ইব্রাহিম মেমোরিয়াল হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে সাভারের এনাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার (১৬ অক্টোবর) ভোরে মারা যায়।

ঘটনাকে কেন্দ্র করে শনিবার বেলা ১১টার দিকে নিহতের স্বজন ও গ্রামবাসীরা মিলে অভিযুক্ত আলিফের বাড়ি ঘেরাও করে এবং তাকে ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে কয়েক ঘণ্টার চেষ্টায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। অভিযুক্ত আলিফ ও তার বোন জামাইসহ তিনি জনকে পুলিশ থানায় নিয়ে যায়। উত্তেজিত জনতা আলিফকে ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টাকালে বাধা দিলে পুলিশের ওপর ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করা হয়। এতে তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ গোলাম আজাদ জানান, উত্তেজিত জনতা আলিফের বাড়ি ঘেরাও করেছে- এমন খবর পেয়ে সকালের দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করলে বিক্ষুব্ধ জনতা পুলিশের ওপর চড়াও হয়। এতে তিন পুলিশ আহত হন। এ ঘটনায় আলিফসহ তিনজনকে পুলিশ আটক করে সিংগাইর থানায় নিয়ে আসে। এ ঘটনায় আইনি ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

/এফআর/

সম্পর্কিত

দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে বাসের ধাক্কায় নিহত ৫

দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে বাসের ধাক্কায় নিহত ৫

নারীকে বাঁচাতে যাওয়ায় সাংবা‌দি‌ককে মারধর, গ্রেফতার ১ 

নারীকে বাঁচাতে যাওয়ায় সাংবা‌দি‌ককে মারধর, গ্রেফতার ১ 

ইজিবাইকে ছিনতাইয়ের জন্যই কি হত্যা?  

ইজিবাইকে ছিনতাইয়ের জন্যই কি হত্যা?  

৪২ টাকার নিচে নামছে না পেঁয়াজের দাম

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৬:২০

অস্থিতিশীল পেঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণে আমদানি শুল্ক প্রত্যাহার করে ইতোমধ্যে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে সরকার। তবে শুল্ক কমানো হলেও ভারতে পেঁয়াজের উৎপাদন কম এবং দাম বেশি থাকায় দেশের বাজারে দাম খুব একটা কমবে না বলে দাবি করেছেন ব্যবসায়ীরা। তারা বলছেন শুল্ক প্রত্যাহারের পরেও ৪২ থেকে ৪৬ টাকা কেজি দরে পাইকারি বিক্রি করতে হবে। 

তবে শীতে দেশে নতুন পেঁয়াজ ওঠা শুরু করলে দাম কমবে বলে জানিয়েছেন হিলি বন্দরের আমদানিকারকরা। 

বন্দরের পেঁয়াজ আমদানিকারক মোবারক হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ভারতের বিভিন্ন প্রদেশে অতিবৃষ্টি ও বন্যার কারণে পেঁয়াজের উৎপাদন ব্যাহত হয়েছে। এ কারণে সরবরাহ কমে যাওয়ায় বেড়েছে দাম। দেশে বাড়তি দামে আনা পেঁয়াজ বেশি দামেই বিক্রি করতে হবে। 

তার দাবি, আমদানি শুল্ক প্রত্যাহারের কারণেও খুব একটা দাম কমবে না। কারণ প্রতি কেজিতে দুই টাকা ৭০ পয়সা শুল্ক কমবে। এদিকে ভারতে পূজার কারণে পেঁয়াজের বাজার এবং পোর্টে লোডিং বন্ধ থাকায় সরবরাহ কম হয়েছে। সব মিলিয়ে দাম খুব একটা কমবে না। 

তিনি আরও বলেন, এখন ভারতে যে বাজার, তাতে করে শুল্ক প্রত্যাহার হলেও বন্দরে ৪৫ থেকে ৪৬ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি করতে হবে। 

আমদানিকারক মোবারক হোসেন বলেন, পেঁয়াজের দাম কমার জন্য শীত পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। তখন নতুন পেঁয়াজ ও পাতা বাজারে এলে এবং ভারতের বিভিন্ন এলাকায় নতুন জাতের পেঁয়াজ ওঠা শুরু হলে দাম কমে আসবে। 

এই ব্যবসায়ীর মতে দেশে পেঁয়াজের যথেষ্ঠ মুজত রয়েছে। ব্যবসায়ীরা ধীরে ধীরে তা বাজারে ছাড়ছেন। তবে মজুত পেঁয়াজে শীত পড়া মাত্র চারা গজাবে। তখন বাধ্য হয়ে ২০ টাকা দরে হলেও পেঁয়াজ ছেড়ে দেবেন ব্যবসায়ীরা।  

/টিটি/

সম্পর্কিত

শুধু বাহবায় বড় ক্রিকেটার হওয়া যায় না, সাদিদ প্রসঙ্গে তার মা 

শুধু বাহবায় বড় ক্রিকেটার হওয়া যায় না, সাদিদ প্রসঙ্গে তার মা 

কুমিল্লার ঘটনায় কাদের যোগসাজশ তা বের হবে: পরিবেশ মন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় কাদের যোগসাজশ তা বের হবে: পরিবেশ মন্ত্রী

বৃষ্টি উপেক্ষা করে সোনাপাহাড়ে ৩ জনের জানাজায় হাজারো মানুষ

বৃষ্টি উপেক্ষা করে সোনাপাহাড়ে ৩ জনের জানাজায় হাজারো মানুষ

আজ রুদ্রের জন্মদিন

আজ রুদ্রের জন্মদিন

আবাসিক হোটেলে গার্মেন্টসকর্মীর ঝুলন্ত মরদেহ, স্বামী আটক

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৬:১৫

বাগেরহাটে একটি আবাসিক হোটেল থেকে নাজমা ওরফে নাসিমা (৩৩) নামের গার্মেন্টসকর্মীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার (১৬ অক্টোবর) দুপুরে শহরের রাহাতের মোড় এলাকার হোটেল বিলাশের ২নং কক্ষ থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। বাগেরহাট মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কেএম আজিজুল ইসলাম জানান, নাসিমার স্বামী রবিউল ইসলাম রুবেলকে (২৪) পুলিশ আটক করেছে।

নাসিমা ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার ত্রিবেনি দক্ষিণপাড়া গ্রামের ওয়ালিদ মিয়ার মেয়ে। রুবেল একই উপজেলার চতুরা গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে।

বাগেরহাট মডেল থানার এসআই দেলোয়ার হোসেন পিপিএম জানান, হোটেল কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে খবর পেয়ে দরজা ভেঙে নাসিমার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ সময় ওই হোটেল থেকে তার স্বামী রুবেলকে আটক করা হয়েছে।

গ্রেফতার রুবেলের বরাত দিয়ে তিনি জানান, প্রেমের সম্পর্কের মাধ্যমে ২০১৫ সালে বয়সে বিধবা নাসিমার সঙ্গে রুবেলের বিয়ে হয়। এরপর সংসারে বনিবনা না হওয়ায় ২০১৬ সালে রুবেলের বিরুদ্ধে মামলা করেন নাসিমা। ২০১৮ সালে রুবেল দ্বিতীয় বিয়ে করেন। ২০১৮ সাল থেকে আবার তারা মোবাইল ফোনে যোগাযোগ শুরু করেন। এরপর তারা বিভিন্ন স্থানে স্বামী-স্ত্রী হিসেবে থেকেছেন। শুক্রবার তারা এই হোটেলে ওঠেন। শনিবার সকালে নাস্তা আনার জন্য রুবেল বাইরে যান। ফিরে এসে রুমের দরজা বন্ধ পান। কিছু সময় অপেক্ষা করার পর বিষয়টি হোটেল কর্তৃপক্ষকে জানান রুবেল। কর্তৃপক্ষ কোনও সাড়া না পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়।

বিলাশ হোটেলের ম্যনেজার হুমায়ুন কবির জানান, এই দম্পতি এর আগেও তাদের হোটেলে দু বার এসে থেকেছেন। শুক্রবার তারা এসে হোটেলের ২নং কক্ষে ওঠেন।

ওসি জানান, হোটেল কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে খবর পেয়ে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। মৃত নারীর স্বজনদের সংবাদ দেওয়া হয়েছে। তারা এসে মামলা করবেন।

/এমএএ/

সম্পর্কিত

নারীকে বাঁচাতে যাওয়ায় সাংবা‌দি‌ককে মারধর, গ্রেফতার ১ 

নারীকে বাঁচাতে যাওয়ায় সাংবা‌দি‌ককে মারধর, গ্রেফতার ১ 

বৃষ্টি উপেক্ষা করে সোনাপাহাড়ে ৩ জনের জানাজায় হাজারো মানুষ

বৃষ্টি উপেক্ষা করে সোনাপাহাড়ে ৩ জনের জানাজায় হাজারো মানুষ

আজ রুদ্রের জন্মদিন

আজ রুদ্রের জন্মদিন

হাসপাতালে চিকিৎসক পরিচয়ে রোগীর মোবাইলফোন চুরি

হাসপাতালে চিকিৎসক পরিচয়ে রোগীর মোবাইলফোন চুরি

দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে বাসের ধাক্কায় নিহত ৫

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১৬:৩০

ময়মনসিংহের ত্রিশালের চেলের ঘাট এলাকায় দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কায় ঘটনাস্থলে পাঁচ যাত্রী নিহত ও আহত হয়েছেন কমপক্ষে ১০ জন। শনিবার (১৬ অক্টোবর) বিকাল ৩টার দিকে দুর্ঘটনাটি ঘটে।

ত্রিশাল থানার ওসি মাইন উদ্দিন জানান, ত্রিশালের চেলের ঘাট এলাকায় দাঁড়িয়ে থাকা ড্রাম ট্রাকের পেছনে ঢাকাগামী যাত্রীবাহী বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ধাক্কা দেয়। এতেই এ দুর্ঘটনা ঘটে।

ওসি আরও জানান, নিহত সবাই বাসের যাত্রী। তারা ঘটনাস্থলেই নিহত হয়েছেন। আহতদের চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

‘পাবজি খেলাকে কেন্দ্র করে’ স্কুলছাত্রকে হত্যা

‘পাবজি খেলাকে কেন্দ্র করে’ স্কুলছাত্রকে হত্যা

আ.লীগ নেতাকে পিষে দিলো বেপরোয়া গতির গাড়ি   

আ.লীগ নেতাকে পিষে দিলো বেপরোয়া গতির গাড়ি   

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে আরও চার জনের মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে আরও চার জনের মৃত্যু

হাসপাতালে চিকিৎসক পরিচয়ে রোগীর মোবাইলফোন চুরি

হাসপাতালে চিকিৎসক পরিচয়ে রোগীর মোবাইলফোন চুরি

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

কুমিল্লার ঘটনায় কাদের যোগসাজশ তা বের হবে: পরিবেশ মন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় কাদের যোগসাজশ তা বের হবে: পরিবেশ মন্ত্রী

প্রবাসী তরুণীকে ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি গ্রেফতার

প্রবাসী তরুণীকে ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি গ্রেফতার

লরিচাপায় প্রাণ গেলো ৩ শ্রমিকের

লরিচাপায় প্রাণ গেলো ৩ শ্রমিকের

ছেলে হত্যা মামলায় আপস না করায় বাবাকেও হত্যার অভিযোগ

ছেলে হত্যা মামলায় আপস না করায় বাবাকেও হত্যার অভিযোগ

টিলা কেটে ২৫১ কোটি টাকা লুট, দুদকের মামলা

টিলা কেটে ২৫১ কোটি টাকা লুট, দুদকের মামলা

‘যেকোনও মূল্যে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখতে হবে’

‘যেকোনও মূল্যে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখতে হবে’

গাছের সঙ্গে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় যুবক নিহত, আহত ১

গাছের সঙ্গে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় যুবক নিহত, আহত ১

বাসচাপায় প্রাণ গেলো মোটরসাইকেল আরোহী ৩ বন্ধুর

বাসচাপায় প্রাণ গেলো মোটরসাইকেল আরোহী ৩ বন্ধুর

ভালো কাজ করার শর্তে ৭০ শিশুকে মুক্তি দিলেন আদালত

ভালো কাজ করার শর্তে ৭০ শিশুকে মুক্তি দিলেন আদালত

সর্বশেষ

‘ভবনে রেইন ওয়াটার হার্ভেস্টিং থাকলে ১০ শতাংশ হোল্ডিং কর রেয়াত’

‘ভবনে রেইন ওয়াটার হার্ভেস্টিং থাকলে ১০ শতাংশ হোল্ডিং কর রেয়াত’

ষড়যন্ত্রকারীরা মন্দিরে কোরআন শরীফ রেখেছিল: খন্দকার মোশারফ

ষড়যন্ত্রকারীরা মন্দিরে কোরআন শরীফ রেখেছিল: খন্দকার মোশারফ

সরকারের সঙ্গে আলেমদের কোনও বিরোধ নেই: মাওলানা হাসান

সরকারের সঙ্গে আলেমদের কোনও বিরোধ নেই: মাওলানা হাসান

ঢাকার ফুটপাতে খাবার থাকে না ঢাকা (ফটো স্টোরি)

বিশ্ব খাদ্য দিবস ঢাকার ফুটপাতে খাবার থাকে না ঢাকা (ফটো স্টোরি)

এম‌পি খুনে সন্দেহে জ‌ঙ্গিবাদ, মুসলিম কমিউনিটিতে উদ্বেগ

এম‌পি খুনে সন্দেহে জ‌ঙ্গিবাদ, মুসলিম কমিউনিটিতে উদ্বেগ

© 2021 Bangla Tribune