X
শুক্রবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২১, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

সেকশনস

দিল্লি দখলের পথে মমতা!

আপডেট : ২৫ নভেম্বর ২০২১, ২০:৫৭

একের পর এক উইকেট পড়ছে কংগ্রেসে। দেশের প্রাচীনতম দলটি ক্রমশই জাতীয় রাজনীতিতে তার গুরুত্ব হারিয়ে ফেলছে। অপরদিকে, বাংলার বুকে কংগ্রেস ভেঙে তৈরি হওয়া তৃণমূল আজ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরে দেশে বিজেপিবিরোধী রাজনীতিতে শক্ত অবস্থানে। আঞ্চলিক দলের তকমা ঝেড়ে তৃণমূল এখন সর্বভারতীয় হয়ে ওঠার পথে। চব্বিশের লোকসভা ভোটে মোদিবিরোধী জোটে সোনিয়া, রাহুল কিংবা প্রিয়াঙ্কা নন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই এখন মুখ। এমনটাই বলছে রাজনৈতিক মহল। তবে কী ভোট কুশলী প্রশান্ত কিশোর ‘মহামিশন ২০২৪’-এর গেমপ্ল্যানকে লক্ষ্য করে এখন দিল্লি দখলের পথে মমতা!

কংগ্রেসের সঙ্গে সিপিএমের সখ্যের পুঁজিকে বিরোধিতা করেই বাংলায় নিজের অবস্থানকে দৃঢ় করে চৌত্রিশ বছরের বাম শাসনের অবসান ঘটিয়েছিলেন মমতা। সেই অবস্থান ধরে রেখেই বাংলায় কংগ্রেসকে প্রায় নিশ্চিহ্ন করে দিয়েছে তৃণমূল। ঠিক একইভাবে কেন্দ্রে মোদি সরকারকে উৎখাত করতে কংগ্রেস কতটা আন্তরিক সেই প্রশ্নকে সামনে রেখেই দেশের বিরোধী রাজনীতিতে নিজেদের অবস্থানকে পাকাপোক্ত করছেন মমতা।

সম্প্রতি জাতীয় রাজনীতির ক্ষেত্রে তৃণমূল রাজ্যে রাজ্যে যে অবস্থান নিচ্ছে, তাতে স্পষ্ট হচ্ছে যে কংগ্রেসের বদলে তারাই প্রধান বিরোধী দল হয়ে উঠে আসতে চাইছে। একুশের বিধানসভা ভোটের পর থেকে একের পর এক কংগ্রেস নেতা তৃণমূলে যোগ দেওয়ার হিড়িক পড়েছে। সারা দেশে কংগ্রেসের সমান্তরাল ভিত্তি গড়ে তোলার যে চেষ্টা চলছে, তা পিকেরই রণকৌশল এমনটাই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

একটা সময় ভোট কৌশলি প্রশান্ত কিশোর দিল্লিতে বিজেপি বিরোধী ঐক্য গড়ে তোলার কাজ করেছিলেন। সেই সময় তিনি বলেছিলেন ‘কংগ্রেসকে ছাড়া বিরোধী মঞ্চ গড়ে তোলার কোনও যৌক্তিকতা নেই’। কিন্তু দেখা গেছে, বাংলার উপ-নির্বাচন ঘোষণার পর থেকে তৃণমূলের পক্ষ কংগ্রেস বিরোধিতা শুরু হয়। খোদ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও প্রকাশ্যে কংগ্রেসের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। সর্বশেষ দিল্লি সফরে তিনি কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গেও দেখা করেননি। উল্টো তিনি বলেছেন, ‘দিল্লি আসলেই কী দেখা করতে হবে?’ রাজনৈতিক মহলের মতে, কার্য্যত কংগ্রেসের সঙ্গে বিজেপি বিরোধী রাজনীতির ক্ষেত্রে তৃণমূলের দূরত্ব তৈরি হয়েছে।

এদিকে, কংগ্রেসের ভবিষ্যৎ নিয়ে প্রশ্ন তোলা শুরু করেছেন প্রশান্ত কিশোরও। তার মতে, ২০১৪ কংগ্রেস দিল্লির মসনদ থেকে সরে যাওয়ার পর দেশীয় রাজনীতিতে তাদের প্রাসঙ্গিকতা ফেরাতে ব্যর্থ হয়েছে। ২০১৯-এর নির্বাচনে আশা জাগিয়েও শোচনীয় ব্যর্থতা কংগ্রেসকে আরও পেছনে ঠেলে দেয়। ২০২৪-এর আগেও তারা এমন কিছু করতে পারেনি যে, মানুষ বিজেপির বিকল্প হিসেবে কংগ্রেসকে ভাববে। কংগ্রেস গ্র্যান্ড ওল্ড পার্টি। যারা ভাবছেন লখিমপুর খেরি-কা-রে মাধ্যমে দেশের প্রাচীনতম দল রাতারাতি নিজেকে পুনরুজ্জীবিত করে তুলবে, তারা ভুল ভাবছেন। কেননা কংগ্রেসের সমস্যার শেকড় অনেক গভীরে।

প্রশান্ত কিশোরের বক্তব্যে একটা বিষয় পরিষ্কার যে, চব্বিশের লোকসভা নির্বাচনে তিনি বিজেপি বিরোধী জোটের নেতৃত্ব কংগ্রেসের হাতে থাকবে তা মনে করছেন না। তাহলে এই বিরোধী জোটের নেতৃত্ব কে দেবে? তৃণমূলও এ প্রশ্নে ইতিমধ্যেই বলেছে, তারা কখনোই বলছে না কংগ্রেস ছাড়া বিরোধী জোট হোক। কিন্তু জোট হবে তৃণমূলে শর্তে। কারণ, এই মুহূর্তে তৃণমূলই লড়তে পারে বিজেপির বিরুদ্ধে। আর এই সময়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই একমাত্র মোদির বিকল্প মুখ।

তৃণমূলের এই দাবির সঙ্গে প্রশান্ত কিশোরে বক্তব্য মিলে যাচ্ছে এক্ষেত্রে। এই দাবির পাশাপাশি দেখা যাচ্ছে, কংগ্রেস দলের অভ্যন্তরে মমতাকে মোদি বিরোধী মুখ হিসাবে মনে করে জাতীয়স্তরের অনেক নেতাই সোনিয়া গান্ধীর আনুগত্য ছেড়ে তৃণমূল হচ্ছেন সাম্প্রতিককালে। নারী কংগ্রেসের সভানেত্রী সুস্মিতা দেব, গোয়ার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ও কংগ্রেস নেতা লুইজিনহো ফেলেইরো, প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের ছেলে অভিজিত মুখোপাধ্যায়, প্রবীণ কংগ্রেস নেতা কমলাপতি ত্রিপাঠীর নাতি ললিতেশপতি ত্রিপাঠী, কংগ্রেস নেতা কীর্তি আজাদ ও প্রাক্তন হরিয়ানা কংগ্রেস সভাপতি তথা সাংসদ অশোক তানওয়ার তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন।

শুধু কংগ্রেস নয়, অনেক আগেই বিজেপির প্রবীণ নেতা ও প্রাক্তন মন্ত্রী যশবন্ত সিনাহাও তৃণমূলে যোগ দিয়েছিলেন। সম্প্রতি বিজেপি নেতা সুধীন্দ্র কুলকার্নি ও জেডিইউ নেতা পবন বর্মা যোগ দেন তৃণমূলে।

শুধু কেন্দ্রীয় স্তরের নেতারাই নন,গত বুধবার রাতে মেঘালয়ের কংগ্রেস দলের ১২ জন বিধায়ক প্রাক্তন কংগ্রেস মুখ্যমন্ত্রী মুকুল সাংমার নেতৃত্বে তৃণমূলে চলে এসেছেন। জাতীয় স্তরের পাশাপাশি বিভিন্ন রাজ্য থেকে অতীতে এভাবে শীর্ষ নেতাদের তৃণমূলে যোগ দেওয়ার হিড়িক দেখা যায়নি, যা এবার দেখা যাচ্ছে।

গুঞ্জন রয়েছে,তৃণমূলে যোগ দিতে আরও একাধিক কংগ্রেস ও বিজেপি’র শীর্ষনেতা পাইপলাইনে রয়েছেন। দেশের দু’টি সর্ব বৃহৎ দল ভেঙে নেতাদের তৃণমূলে চলে যাওয়া অবশ্য অস্বস্তিতে ফেলছে কংগ্রেস-বিজেপিকে। এসবই পিকের ‘মহামিশন ২০২৪’ এর গেমপ্ল্যানেরই অংশ এমনটাই মত রাজনৈতিক মহলের। আর চব্বিশের লোকসভা ভোটের আগে পিকের এই গেমপ্ল্যান যদি সঠিকভাবে রূপায়ন হয় তবে বাংলার পর এবার সর্বভারতীয় ক্ষেত্রে মোদি বনাম মমতার লড়াই দেখবে দেশবাসী। এমনটাই মত রাজনৈতিক মহলের।

/এলকে/

সম্পর্কিত

রাহুল গান্ধীকে তোপ মমতার

রাহুল গান্ধীকে তোপ মমতার

কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন জোটকে কটাক্ষ মমতার

কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন জোটকে কটাক্ষ মমতার

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

রাহুল গান্ধীকে তোপ মমতার

রাহুল গান্ধীকে তোপ মমতার

কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন জোটকে কটাক্ষ মমতার

কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন জোটকে কটাক্ষ মমতার

ওমিক্রন নিয়ে জরুরি বৈঠকে মোদি

ওমিক্রন নিয়ে জরুরি বৈঠকে মোদি

ত্রিপুরায় নারীর ভোট দিলেন পুরুষ, ভিডিও ভাইরাল

ত্রিপুরায় নারীর ভোট দিলেন পুরুষ, ভিডিও ভাইরাল

মেঘালয়ে ‘মধ্যরাতের অভ্যুত্থান’, কংগ্রেসের ১৭ এমএলএ’র ১২ জনই তৃণমূলে

মেঘালয়ে ‘মধ্যরাতের অভ্যুত্থান’, কংগ্রেসের ১৭ এমএলএ’র ১২ জনই তৃণমূলে

প্রধানমন্ত্রী হওয়ার গুঞ্জন নিয়ে মুখ খুললেন মমতা

প্রধানমন্ত্রী হওয়ার গুঞ্জন নিয়ে মুখ খুললেন মমতা

অমিত শাহের দেখা পাননি তৃণমূল আইনপ্রণেতারা, কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ

অমিত শাহের দেখা পাননি তৃণমূল আইনপ্রণেতারা, কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ

বিএসএফ কি বিজেপি সেফ: প্রশ্ন মমতার

বিএসএফ কি বিজেপি সেফ: প্রশ্ন মমতার

সর্বশেষ

ঐশীর অভিষেক: গত কয়েক রাত ঘুমাতে পারিনি

চার মহাদেশে ‘মিশন এক্সট্রিম’ঐশীর অভিষেক: গত কয়েক রাত ঘুমাতে পারিনি

ঢাকা আসছেন ভারতের পররাষ্ট্র সচিব

ঢাকা আসছেন ভারতের পররাষ্ট্র সচিব

ভিয়েতনামে বন্যা-ভূমিধসে নিখোঁজ ১৮

ভিয়েতনামে বন্যা-ভূমিধসে নিখোঁজ ১৮

পঞ্চম ধাপে রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের ইউপিতে আ. লীগের প্রার্থী ঘোষণা

পঞ্চম ধাপে রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের ইউপিতে আ. লীগের প্রার্থী ঘোষণা

বাংলাদেশকে জানতে হলে বঙ্গবন্ধুকে জানতে হবে: আতিকুল ইসলাম

বাংলাদেশকে জানতে হলে বঙ্গবন্ধুকে জানতে হবে: আতিকুল ইসলাম

© 2021 Bangla Tribune