X
শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

আগে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা পরে সংসদ নির্বাচন

আপডেট : ০৭ মার্চ ২০১৬, ১৫:৪৬

এই মুহূর্তে দেশের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দুটি জাতীয় ইস্যু সারাদেশের অধিকাংশ মানুষের দৃষ্টিতে বর্তমান সময়ে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ জাতীয় ইস্যু রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা। দেশের ৬৪টি জেলায় বাংলা ট্রিবিউনের চালানো জরিপে এমনই তথ্য উঠে এসেছে। যেখানে দেখা যায়, সংসদ নির্বাচন অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু হলেও তা রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা থেকে বেশি নয়। তবে এই মুহূর্তে নির্বাচন হলে ভোটে এগিয়ে থাকবে আওয়ামী লীগ। এমনই তথ্য উঠে এসেছে জরিপে। 

জরিপে ৪৯৫০ জন অংশগ্রহণকারীদের প্রশ্ন করা হয়েছিল, এই মুহূর্তে আপনার দৃষ্টিতে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ জাতীয় ইস্যু কী? এর উত্তরে ২৯ দশমিক ৭৮ শতাংশ মানুষ জানিয়েছেন, তাদের কাছে এ মুহূর্তে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ জাতীয় ইস্যু হলো রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা। অন্যদিকে ২০ দশমিক ৪২ শতাংশ জানিয়েছেন সংসদ নির্বাচন।

এই মুহূর্তে আপনার দৃষ্টিতে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ জাতীয় ইস্যু কী?

অর্থনৈতিক উন্নয়নের কথাও বলেছে ১৪ শতাংশের কিছু বেশি। এরপরই আছে জঙ্গিবাদ নির্মূল- ১৩.৭৮ শতাংশ। দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ চান ১০.৭৭ শতাংশ। যুদ্ধাপরাধের বিচারকে সবচেয়ে বড় জাতীয় ইস্যু ভাবছেন ৮.৬৩ শতাংশ অংশগ্রহণকারী। বিভাগীয় শহরগুলোতেও বেশির ভাগ মানুষ (৩৪.১০%) মনে করেন এ মুহূর্তে দেশে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা সবচেয়ে বেশি দরকার।

নির্বাচন হলে ভোটেও এগিয়ে আওয়ামী লীগ:


এই মুহূর্তে নির্বাচন হলে কোন দলকে ভোট দেবেন?

এই মুহূর্তে নির্বাচন হলে কাকে ভোট দেবেন? এমন প্রশ্নের উত্তরে ২৮ দশমিক ২৬ শতাংশ জানিয়েছেন, তারা আওয়ামী লীগকেই ভোট দেবেন। এক্ষেত্রে অবশ্য বিএনপিও খুব একটা পিছিয়ে নেই। তাদের পক্ষে রায় দিয়েছেন ২৩.০৭ শতাংশ জনগণ। লক্ষণীয় যে, সারাদেশে ৪১.৫৮ শতাংশ মানুষ এই প্রশ্নে কোনও মন্তব্য করতে রাজি হননি।

উল্লেখ্য, দেশের ৬৪টি জেলায় ৪৯৫০ জনের ওপর বাংলা ট্রিবিউন এই জরিপ পরিচালনা করে। 

জরিপ প্রক্রিয়া:

জরিপের সময়কাল: ১৭ জানুয়ারি-২৫ জানুয়ারি, ২০১৬

জরিপ পরিচালনা:  বাংলা ট্রিবিউন  

নমুনা (sample) সংগ্রহের প্রক্রিয়া:
১. প্রতি জেলায় ৫০ জন করে ৬৪টি জেলায় জরিপ চালানো হয়েছে।
২. ৭টি বিভাগীয় শহরের প্রতিটিতে ৩০০ জনের ওপর জরিপ করা হয়েছে (ময়মনসিংহ বিভাগীয় শহর বাদে)। 
৩. রাজধানী ঢাকায় ৩০০ জনের ওপর জরিপ পরিচালনা করা হয়।
৪. দৈবচয়ন (Random) প্রক্রিয়ায় প্রতি ১০ মিনিট অন্তর নমুনা সংগ্রহ করা হয়।
৫. জরিপকারীরা একইস্থানে সর্বোচ্চ ১ ঘণ্টা অবস্থান করেছেন।  
৬. নমুনা সংগ্রহের জন্য জেলা/বিভাগের হাট-বাজার/শপিংমলকে স্থান হিসেবে বিবেচনা করা হয়েছে।
৭. জরিপে আয়ের প্রশ্নে ছাত্র ও গৃহিনীর ক্ষেত্রে তাদের পরিবারের আয়-ব্যয় সম্পর্কে জানতে চাওয়া হয়।

 

সম্পর্কিত

প্রাথমিকের শিক্ষার্থীদের ঘরে থাকার নির্দেশ

প্রাথমিকের শিক্ষার্থীদের ঘরে থাকার নির্দেশ

বনবিড়াল পিটিয়ে হত্যাকারী সেই ব্যক্তি আটক

বনবিড়াল পিটিয়ে হত্যাকারী সেই ব্যক্তি আটক

রাশিয়া সফর শেষে দেশে ফিরলেন নৌবাহিনী প্রধান

রাশিয়া সফর শেষে দেশে ফিরলেন নৌবাহিনী প্রধান

কারবারিরা লেনদেন করছে ভার্চুয়াল মুদ্রায়

কারবারিরা লেনদেন করছে ভার্চুয়াল মুদ্রায়

প্রাথমিকের শিক্ষার্থীদের ঘরে থাকার নির্দেশ

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ১৫:৪৪

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে শিক্ষার্থীদের সুরক্ষার জন্য আগামী ৩১ আগস্ট পর্যন্ত সকল ধরনের সরকারি-বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কিন্ডারগার্টেনের চলমান ছুটি বাড়ানো হয়েছে। এ সময় শিক্ষার্থীদের নিজ নিজ বাসস্থানে অবস্থান করার নির্দেশ দিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

শুক্রবার (৩০ জুলাই) প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ নির্দেশনার কথা জানানো হয়।

বৃহস্পতিবার রাতে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি ৩১ আগস্ট পর্যন্ত বাড়ানো হয়।  

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ছুটি চলাকালে শিক্ষার্থীরা নিজেদের ও অন্যদের করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে সুরক্ষার লক্ষ্যে নিজ বাসস্থানে অবস্থান করবে। পাশাপাশি অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয় যে, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এবং স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সময়ে সময়ে জারি করা নির্দেশনা ও অনুশাসন শিক্ষার্থীদের মেনে চলতে হবে। শিক্ষার্থীদের বাসস্থানে অবস্থানের বিষয়টি অভিভাবকরা নিশ্চিত করবেন এবং স্থানীয় প্রশাসন তা নিবিড়ভাবে পরিবীক্ষণ করবেন।

শিক্ষার্থীদের বাসস্থানে অবস্থান করে পাঠ্যবই অধ্যয়ন করার বিষয়টি সংশ্লিষ্ট অভিভাবকদের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকরা নিশ্চিত করবেন।

উল্লেখ্য, দেশে করোনা রোগী শনাক্তের পর গত বছর ১৭ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ছুটি ঘোষণা করে সরকার। করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধ ও শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তায় দফায় দফায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি বাড়ানো হয়। সর্বশেষ ছুটি বড়িয়ে ৬ আগস্ট পর্যন্ত বাড়ানো হয়। করোনা পরিস্থিতির অবনতির কারণে আবারও ছুটি বাড়ানো হলো ৩১ আগস্ট পর্যন্ত।

/এসএমএ/এমএস/

সম্পর্কিত

সাপ্তাহিক ছুটির দিনে ঢিলেঢালা চেকপোস্ট

সাপ্তাহিক ছুটির দিনে ঢিলেঢালা চেকপোস্ট

লকডাউনে বন্ধ মার্কেট ও দোকানে চলছে ‘বিকল্প’ লেনদেন

লকডাউনে বন্ধ মার্কেট ও দোকানে চলছে ‘বিকল্প’ লেনদেন

লকডাউন অমান্য করায় রাজধানীতে গ্রেফতার ৫৬৮

লকডাউন অমান্য করায় রাজধানীতে গ্রেফতার ৫৬৮

এখনও ভেঙে ভেঙে রাজধানীতে আসছে মানুষ

এখনও ভেঙে ভেঙে রাজধানীতে আসছে মানুষ

বনবিড়াল পিটিয়ে হত্যাকারী সেই ব্যক্তি আটক

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ১৫:১০

সম্প্রতি সাতক্ষীরায় বনবিড়ালকে নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। অভিযুক্ত সাইফুল ইসলাম নামের সেই ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। আজ শুক্রবার (৩০ জুলাই) তাকে সাতক্ষীরার কালীগঞ্জ থেকে তাকে আটক করা হয়।

পুলিশ সদর দফতরের মি‌ডিয়া অ্যান্ড পাব‌লিক রি‌লেশন্স উইং‌ থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সাতক্ষীরার এক সচেতন নাগরিক অভিযোগ করেন, সাইফুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তি দীর্ঘদিন ধরে বন্যপ্রাণি হত্যা করে আসছেন। এ বিষয়ে এলাকার মানুষজন তাকে বিভিন্ন সময় নিষেধও করেছে। কিন্তু তিনি কারও কথাই শোনেন না। সর্বশেষ গত ২৬ জুলাই একটি বনবিড়ালকে পিটিয়ে হত্যা করেন। যার ছবি ও ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। অভিযুক্ত মো. সাইফুল ইসলাম সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ থানার মথুরেশপুর ইউনিয়নের নিত্যানন্দপুর গ্রামের বাসিন্দা।

অভিযোগ পেয়ে মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স উইং সাতক্ষীরার কালীগঞ্জ থানার ওসি মো. গোলাম মোস্তফাকে এ বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্দেশনা প্রদান করে। বার্তা পেয়ে ওসি কালীগঞ্জ তার একটি টিমকে নিয়োজিত করেন।

পুলিশ জানায়, তৎপরতা বুঝতে পেরে ওই ব্যক্তি আত্মগোপনে চলে গিয়েছিলেন। কয়েকদিন বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে অবশেষে তাকে আটক করে সাতক্ষীরার কালীগঞ্জ থানা পুলিশ। তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।
 

/জেইউ/ইউএস/

সম্পর্কিত

কারবারিরা লেনদেন করছে ভার্চুয়াল মুদ্রায়

কারবারিরা লেনদেন করছে ভার্চুয়াল মুদ্রায়

একাধিক মামলা হচ্ছে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে

একাধিক মামলা হচ্ছে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে

প্রতি শনিবার সকাল ১০টায় ১০ মিনিট সময় চাই: আতিকুল ইসলাম

প্রতি শনিবার সকাল ১০টায় ১০ মিনিট সময় চাই: আতিকুল ইসলাম

রাশিয়া সফর শেষে দেশে ফিরলেন নৌবাহিনী প্রধান

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ১৫:২৫

রাশিয়া সফর শেষে শুক্রবার (৩০ জুলাই) দেশে ফিরেছেন নৌবাহিনী প্রধান অ্যাডমিরাল এম শাহীন ইকবাল। গত ২৩ জুলাই রাশিয়ার নৌবাহিনী প্রধান অ্যাডমিরাল নিকলাই আনাতোলেভিচ ইয়েভমেনভের আমন্ত্রণে তিনি রাশিয়া সফরে যান।

আন্তবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতর (আইএসপিআর) জানায়, রাশিয়া সফরকালে নৌবাহিনী প্রধান অ্যাডমিরাল এম শাহীন ইকবাল গত ২৫ জুলাই দেশটির নৌবাহিনীর ৩২৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠান (325th Russian Naval Anniversary) ও ৫ম নেভাল প্যারেড (5th Naval Parade)-এ অংশগ্রহণ করেন। এ সময় নৌবাহিনী প্রধান উক্ত অনুষ্ঠানে বিভিন্ন দেশ থেকে আগত নৌবাহিনী প্রধান ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। পরে তিনি রাশিয়ার নৌ-সদর পরিদর্শনসহ দেশটির নৌবাহিনী প্রধান (Commander-in-Chief) অ্যাডমিরাল নিকলাই আনাতোলেভিচ ইয়েভমেনভের (Admiral Nikolai Anatolyevich Yevmenov) সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন।

সাক্ষাৎকালে দুই দেশের নৌপ্রধান পারস্পরিক সহযোগিতা বৃদ্ধিসহ বিভিন্ন দ্বিপাক্ষিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয়ে আলোচনা করেন। এ সময় দুই দেশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া নৌবাহিনী প্রধান দেশটির নৌ-জাদুঘর ও ঐতিহাসিক স্থাপনাসমূহ পরিদর্শন করেন।

রাশিয়ায় রাষ্ট্রীয় সফর শেষে নৌবাহিনী প্রধান শুক্রবার (৩০ জুলাই) দেশে ফিরে এলে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সহকারী নৌবাহিনী প্রধান (অপারেশন্স) এবং ঢাকার নৌ-প্রশাসনিক কর্তৃপক্ষ আনুষ্ঠানিকভাবে তাকে স্বাগত জানান।

 

/জেইউ/আইএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

‘মানবপাচার মামলার প্রসিকিউশনে ত্রুটিগুলোর দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে’

‘মানবপাচার মামলার প্রসিকিউশনে ত্রুটিগুলোর দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে’

সৌদি আরব থেকে ফেরত পাঠালে হজ-ওমরাহ ছাড়া প্রবেশ করা যাবে না

সৌদি আরব থেকে ফেরত পাঠালে হজ-ওমরাহ ছাড়া প্রবেশ করা যাবে না

অধস্তন আদালতের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কালো ব্যাজ পরিধানের নির্দেশ

অধস্তন আদালতের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কালো ব্যাজ পরিধানের নির্দেশ

সুন্দরবন যেমন আছে তেমনই থাকতে দিন: সুলতানা কামাল

সুন্দরবন যেমন আছে তেমনই থাকতে দিন: সুলতানা কামাল

মাদক ভয়ংকর-৫

কারবারিরা লেনদেন করছে ভার্চুয়াল মুদ্রায়

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ১৫:০০

মাদকাসক্তের সংখ্যা ও বাজার বিবেচনায় দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ অন্যতম। প্রতিনিয়ত ধরা পড়ছে কারবারিরা। তবু থেমে নেই নতুন মাদকের আমদানি। এ নিয়ে ধারাবাহিক প্রতিবেদনের আজ থাকলো পঞ্চম ও শেষ পর্ব।

মাদক কেনাবেচার বড় বাজার এখন অনলাইন। বাংলাদেশেও দেদার চলছে এ পদ্ধতি। সম্প্রতি এমনই প্রমাণ পেয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

বাংলাদেশে ৬০ হাজার কোটি টাকার মাদক বাজার রয়েছে বলে দাবি বিশেষজ্ঞদের। যে কারণে আন্তর্জাতিক চক্রের নজর এখানে থাকবে এটাই স্বাভাবিক। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরাও জানিয়েছেন, ‘তারা এ ব্যাপারে যথেষ্ট তৎপর।’

বিটকয়েনে অর্থপাচার
গত ৬ জুলাই রাতে রাজধানীর হাতিরঝিলে অভিযান চালিয়ে ‘ম্যাজিক মাশরুম’ ও বিদেশি মদসহ দুই যুবককে আটক করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। এ সময় তাদের কাছ থেকে ম্যাজিক মাশরুমের পাঁচটি বার উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতার হওয়া নাগিব হাসান অর্নব (২৫) থাকতো কানাডায়। সে এই মাদক বাংলাদেশে নিয়ে আসে। ‘চকোলেট কেক’ হিসেবে কুরিয়ারের মাধ্যমে অনলাইনে অর্ডার নিয়ে এ মাদক বাংলাদেশে আনে সে। মাদকের টাকা পরিশোধ করতো দেশে অবৈধ ভার্চুয়াল মুদ্রা বিটকয়েনে।

র‌্যাবের মুখপাত্র খন্দকার আল মঈন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘মাদকসেবী ও ব্যবসায়ীরা এখন বেশ চালাক। তাদের লেনদেনগুলো ধরার সুযোগ কম। নতুন যেসব মাদক পাওয়া গেছে সেগুলো আনা হতো বিদেশ থেকে। বিট কয়েন, পেপালসহ অনলাইন নানা পেমেন্ট গেটওয়ের মাধ্যমে চলতো লেনদেন।’

মাদকের বাজার ৬০ হাজার কোটি টাকা
বাংলাদেশে মাদকের বাজার কত তার সুনির্দিষ্ট হিসাব নেই। তবে মাদকসেবী ও মাদক উদ্ধারের পরিসংখ্যান দিয়ে তা অনুমান করা যায়। দেশের ৭৬ লাখ মাদকসেবী গড়ে দিনে ৩৫০-৪০০ টাকার মাদক সেবন করে। এ ছাড়াও বছরজুড়ে উদ্ধারকৃত মোট মাদকের ৯ গুণ বাজারে আছে বলে বিবেচনা করা হয়।

গবেষক ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক এমদাদুল হক বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘মাদক যা ধরা পড়ে বাজারে তার ৯ গুণ বেশি আছে বলে ধরা হয়। এটাই আন্তর্জাতিক প্যারামিটার।’

এ ছাড়াও পাইকারি ও খুচরা বাজারে ৫-৬ ধাপে মাদক বিক্রি হওয়ার পর সেবীদের হাতে পৌঁছায়। এসব কিছু মাথায় রেখে হিসাব করে বেসরকারি বিভিন্ন সংগঠন দাবি করে বাংলাদেশের মাদকের বাজার প্রায় ৬০ হাজার কোটি টাকার।

২০২০ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি এক অনুষ্ঠানে তৎকালীন র‌্যাবের মহাপরিচালক এবং বর্তমানে পুলিশ মহাপরিদর্শক বেনজীর আহমেদ বলেছিলেন, ‘দেশে ৮০ লাখ মাদকসেবী রয়েছে। তারা প্রতিদিন প্রায় ২৫০ কোটি টাকা মাদকের পেছনে খরচ করে।’

মানস-এর প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক ডা. অরুপ রতন চৌধুরী বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘৬০ হাজার কোটি টাকার মধ্যে ৫০ হাজার কোটি টাকা ব্যয় হয় মাদক কেনাবেচায়। বাকি ১০ হাজার কোটি টাকা চিকিৎসা, পুর্নবাসন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর খরচ, সচেতনতামূলক কার্যক্রম এসবের ব্যয়।’

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর বার্ষিক যে রিপোর্ট প্রকাশ করে তাতে দেখা গেছে, ২০২০ সালে অধিদফতর, পুলিশ, র‍্যাব, বিজিবি ও কোস্টগার্ড সারা দেশে অভিযান চালিয়ে ৩ কোটি ৮৩ লাখ ৮৩ হাজার ৩১৭টি ইয়াবা বড়ি, ১৩ লাখ ৩৭ হাজার ১৭৭ বোতল ফেনসিডিল, ৫০ হাজার ৭৮ কেজি গাঁজা, প্রায় ৭২ কেজি আফিম এবং প্রায় ৪ কেজি কোকেন উদ্ধার করে।

ওই বছর এসব ঘটনায় ৮৫ হাজার ৭১৮টি মামলায় ১ লাখ ১৩ হাজার ৫৪৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

/এফএ/
টাইমলাইন: ভয়ংকর মাদক
৩০ জুলাই ২০২১, ১৫:০০
কারবারিরা লেনদেন করছে ভার্চুয়াল মুদ্রায়
২৯ জুলাই ২০২১, ১৫:০০
২৮ জুলাই ২০২১, ১৩:০০
২৬ জুলাই ২০২১, ১৬:০৯

সম্পর্কিত

বনবিড়াল পিটিয়ে হত্যাকারী সেই ব্যক্তি আটক

বনবিড়াল পিটিয়ে হত্যাকারী সেই ব্যক্তি আটক

একাধিক মামলা হচ্ছে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে

একাধিক মামলা হচ্ছে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে

প্রতি শনিবার সকাল ১০টায় ১০ মিনিট সময় চাই: আতিকুল ইসলাম

প্রতি শনিবার সকাল ১০টায় ১০ মিনিট সময় চাই: আতিকুল ইসলাম

সাপ্তাহিক ছুটির দিনে ঢিলেঢালা চেকপোস্ট

সাপ্তাহিক ছুটির দিনে ঢিলেঢালা চেকপোস্ট

একাধিক মামলা হচ্ছে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ১৫:২০

ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে মিথ্যাচার, অপপ্রচার ও বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়িয়ে রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ সংস্থা ও ব্যক্তিবর্গের সম্মানহানি করার অপচেষ্টার অভিযোগে হেলেনা জাহাঙ্গীরকে রাজধানীর গুলশান থেকে আটক করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) দিবাগত রাতে তাকে গুলশানের বাসা থেকে আটক করা হয়। তার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

শুক্রবার (৩০ জুলাই) র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন এ তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, ‘ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ সংস্থা এবং ব্যক্তিদের সম্মানহানি করার অপচেষ্টা চালিয়েছেন হেলেনা জাহাঙ্গীর। গ্রেফতারের সময় তার বাসা থেকে মাদক, ওয়াকিটকি, হরিণের চামড়া উদ্ধার করা হয়।’

এ ব্যাপারে বিকাল ৪টায় সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরা হবে বলেও জানান খন্দকার আল মঈন।

আরও পড়ুন...

হেলেনা জাহাঙ্গীরের আইপি টিভির কার্যালয়ে র‌্যাবের অভিযান

হেলেনা জাহাঙ্গীর আটক

/আরটি/আইএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

বনবিড়াল পিটিয়ে হত্যাকারী সেই ব্যক্তি আটক

বনবিড়াল পিটিয়ে হত্যাকারী সেই ব্যক্তি আটক

কারবারিরা লেনদেন করছে ভার্চুয়াল মুদ্রায়

কারবারিরা লেনদেন করছে ভার্চুয়াল মুদ্রায়

প্রতি শনিবার সকাল ১০টায় ১০ মিনিট সময় চাই: আতিকুল ইসলাম

প্রতি শনিবার সকাল ১০টায় ১০ মিনিট সময় চাই: আতিকুল ইসলাম

সর্বশেষ

ম্যাচ শুরুর একঘণ্টা আগে লিগ স্থগিত!

ম্যাচ শুরুর একঘণ্টা আগে লিগ স্থগিত!

প্রাথমিকের শিক্ষার্থীদের ঘরে থাকার নির্দেশ

প্রাথমিকের শিক্ষার্থীদের ঘরে থাকার নির্দেশ

টানা বৃষ্টিতে কক্সবাজারের ৪১৩ গ্রাম প্লাবিত

টানা বৃষ্টিতে কক্সবাজারের ৪১৩ গ্রাম প্লাবিত

ট্রেনে তৃতীয় ধাপে ২০০ মে. টন অক্সিজেন দেশে পৌঁছেছে

ট্রেনে তৃতীয় ধাপে ২০০ মে. টন অক্সিজেন দেশে পৌঁছেছে

পেটের চর্বি কমাতে যা খাবেন

পেটের চর্বি কমাতে যা খাবেন

বন্ধু দিবসে নকশীকাঁথার নতুন গান

বন্ধু দিবসে নকশীকাঁথার নতুন গান

বনবিড়াল পিটিয়ে হত্যাকারী সেই ব্যক্তি আটক

বনবিড়াল পিটিয়ে হত্যাকারী সেই ব্যক্তি আটক

রাশিয়া সফর শেষে দেশে ফিরলেন নৌবাহিনী প্রধান

রাশিয়া সফর শেষে দেশে ফিরলেন নৌবাহিনী প্রধান

ডোবায় মিললো শিশুর হাত-পা বাঁধা লাশ 

ডোবায় মিললো শিশুর হাত-পা বাঁধা লাশ 

‘লকডাউন কনটিনিউ’র সুপারিশ স্বাস্থ্য অধিদফতরের

‘লকডাউন কনটিনিউ’র সুপারিশ স্বাস্থ্য অধিদফতরের

কারবারিরা লেনদেন করছে ভার্চুয়াল মুদ্রায়

মাদক ভয়ংকর-৫কারবারিরা লেনদেন করছে ভার্চুয়াল মুদ্রায়

একাধিক মামলা হচ্ছে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে

একাধিক মামলা হচ্ছে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

প্রাথমিকের শিক্ষার্থীদের ঘরে থাকার নির্দেশ

প্রাথমিকের শিক্ষার্থীদের ঘরে থাকার নির্দেশ

বনবিড়াল পিটিয়ে হত্যাকারী সেই ব্যক্তি আটক

বনবিড়াল পিটিয়ে হত্যাকারী সেই ব্যক্তি আটক

রাশিয়া সফর শেষে দেশে ফিরলেন নৌবাহিনী প্রধান

রাশিয়া সফর শেষে দেশে ফিরলেন নৌবাহিনী প্রধান

কারবারিরা লেনদেন করছে ভার্চুয়াল মুদ্রায়

মাদক ভয়ংকর-৫কারবারিরা লেনদেন করছে ভার্চুয়াল মুদ্রায়

একাধিক মামলা হচ্ছে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে

একাধিক মামলা হচ্ছে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে

প্রকাশিত সংবাদের একাংশের প্রতিবাদ

প্রকাশিত সংবাদের একাংশের প্রতিবাদ

প্রতি শনিবার সকাল ১০টায় ১০ মিনিট সময় চাই: আতিকুল ইসলাম

প্রতি শনিবার সকাল ১০টায় ১০ মিনিট সময় চাই: আতিকুল ইসলাম

সাপ্তাহিক ছুটির দিনে ঢিলেঢালা চেকপোস্ট

সাপ্তাহিক ছুটির দিনে ঢিলেঢালা চেকপোস্ট

দেশে পৌঁছেছে সিনোফার্মের ৩০ লাখ ডোজ টিকা

দেশে পৌঁছেছে সিনোফার্মের ৩০ লাখ ডোজ টিকা

লকডাউনে বন্ধ মার্কেট ও দোকানে চলছে ‘বিকল্প’ লেনদেন

লকডাউনে বন্ধ মার্কেট ও দোকানে চলছে ‘বিকল্প’ লেনদেন

© 2021 Bangla Tribune