X
সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২
২০ আষাঢ় ১৪২৯

ধনীদের বেশি কর দিতে হবে

আপডেট : ২৭ মে ২০২১, ০৯:০০

আগামী ২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেটে ধনীদের জন্য রয়েছে দুঃসংবাদ। এনবিআরের কর্মকর্তারা বলছেন, বাজেট বাস্তবায়নে সম্পদশালীদের কাছ থেকে বেশি কর আদায়ের ছক আঁকা হয়েছে। এ লক্ষ্যে সারচার্জ (সম্পদ কর) বাড়ানো হচ্ছে। ন্যূনতম সারচার্জ বাতিল করে স্ল্যাব পুনর্গঠন করার চেষ্টা চলছে। রাজস্ব আয় বাড়াতেই এ উদ্যোগ নিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড।

বর্তমানে সারচার্জের সাতটি স্তর আছে। আগামী বাজেটে সারচার্জের স্তর ৫টিতে নামিয়ে এনে ন্যূনতম সারচার্জ প্রথা বাতিল করা হচ্ছে। বর্তমানে নিট সম্পদের মূল্যমান ৩ কোটি টাকা পর্যন্ত হলে সারচার্জ দিতে হয় না। তবে সম্পদের মূল্যমান ৩ কোটি থেকে ৫ কোটি টাকা হলে, বা একাধিক মোটরগাড়ি থাকলে, বা যেকোনও সিটি করপোরেশন এলাকায় ৮ হাজার বর্গফুটের বেশি গৃহসম্পত্তি থাকলে ১০ শতাংশ কর বা ৩ হাজার টাকা ন্যূনতম সারচার্জ দিতে হয়।

সম্পদের পরিমাণ ৫ কোটি থেকে ১০ কোটি টাকা পর্যন্ত ১৫ শতাংশ, ১০ কোটি থেকে ১৫ কোটি টাকা পর্যন্ত ২০ শতাংশ বা ৫ হাজার টাকা, ১৫ কোটি থেকে ২০ কোটি টাকা পর্যন্ত ২৫ শতাংশ এবং ২০ কোটি টাকার বেশি সম্পদের ক্ষেত্রে ৩০ শতাংশ এবং ৫০ কোটি টাকার বেশি সম্পদের ক্ষেত্রে সম্পদের দশমিক ১ শতাংশ অথবা আয়করের ৩০ শতাংশের বেশি যেটি হয়, সেই হিসাবে সারচার্জ দিতে হয়।

আগামী বাজেটে নতুন নিয়ম অনুযায়ী, ৩ কোটি টাকা পর্যন্ত সম্পদের সারচার্জ দিতে হবে না। ৩ কোটি থেকে ১০ কোটি টাকা পর্যন্ত ১০ শতাংশ, ১০ কোটি থেকে ২০ কোটি পর্যন্ত ২০ শতাংশ, ২০ কোটি থেকে ৫০ কোটি পর্যন্ত ৩০ শতাংশ এবং ৫০ কোটি টাকার বেশি সম্পদশালীদের আয়করের ওপর ৩৫ শতাংশ হারে সারচার্জ দিতে হবে।

প্রসঙ্গত, সারচার্জ বা সম্পদ কর হচ্ছে এক ধরনের মাশুল, যা ব্যক্তির সম্পদের দলিলমূল্যের ওপর আদায় করা হয়।

এ প্রসঙ্গে বেসরকারি গবেষণা সংস্থা পলিসি রিসার্স ইনস্টিটিউটের (পিআরআই) নির্বাহী পরিচালক ড. আহসান এইচ মনসুর বলেন, ‘আসল ধনীরা করের আওতায় আসছেন না। তাদের করের আওতায় আনতে সারচার্জের পুরো কাঠামোতেই সংস্কার দরকার।’ তিনি বলেন, ‘অনেকেই ১৯৬০ সালে কম দামে ১ বিঘা জমি কিনে তার ওপর ১০টি ফ্ল্যাট বানিয়ে বসবাস করলেও তাকে সারচার্জ দিতে হচ্ছে না। কিন্তু সেই ফ্ল্যাট যিনি তিন কোটি টাকায় কিনছেন, তাকে সারচার্জ দিতে হচ্ছে। ফলে শুধু ছোটরাই জালে আটকাচ্ছেন।’

ড. আহসান এইচ মনসুর উল্লেখ করেন, বর্তমানে সারচার্জ আদায় করা হয় আয়ের ওপর। এটি মোটেও যৌক্তিক নয়। তার মতে, সারচার্জ আদায় হওয়া উচিত সম্পদমূল্যের ওপর। এটি করতে হলে এনবিআরকে আগে সম্পদের মূল্য নির্ধারণ করতে হবে।

জানা গেছে,‌ সর্বপ্রথম ১৯৬৩ সালে পাকিস্তান শাসনামলে সম্পদ কর (ওয়েলথ ট্যাক্স) চালু করা হয়। সেটি স্বাধীনতার পরও অব্যাহত ছিল। ১৯৮৮ সালে সরকার স্থায়ীভাবে সারচার্জ আদায় করতে অর্থ আইনের মাধ্যমে আয়কর অধ্যাদেশে ১৬-এ ধারা যুক্ত করে। অবশ্য নানামুখী চাপে ১৯৯৭-৯৮ অর্থবছরে সেটি প্রত্যাহার করা হয়। পরে ২০১১-১২ অর্থবছর থেকে এখনও পর্যন্ত সারচার্জ আরোপ করা হচ্ছে।

 

/এপিএইচ/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
‘সিম আছে, তবে চালু হবে না’
‘সিম আছে, তবে চালু হবে না’
হ্যাকিংয়ের কবলে ব্রিটিশ সেনাবাহিনীর ইউটিউব ও টুইটার অ্যাকাউন্ট
হ্যাকিংয়ের কবলে ব্রিটিশ সেনাবাহিনীর ইউটিউব ও টুইটার অ্যাকাউন্ট
রাজশাহীতে ছুরিকাঘাতে কিশোর নিহত
রাজশাহীতে ছুরিকাঘাতে কিশোর নিহত
ইতালিতে হিমবাহে ধস, নিহত ৫
ইতালিতে হিমবাহে ধস, নিহত ৫
এ বিভাগের সর্বশেষ
মেডিটেশনের ওপর ভ্যাট নিয়ে যা বললেন বিশিষ্টজনেরা
মেডিটেশনের ওপর ভ্যাট নিয়ে যা বললেন বিশিষ্টজনেরা
প্রস্তাবিত বাজেটের প্রশংসা করলেন রফতানিকারকরা
প্রস্তাবিত বাজেটের প্রশংসা করলেন রফতানিকারকরা
বাজেটে প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা অবাস্তব: মির্জা আজিজুল 
বাজেটে প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা অবাস্তব: মির্জা আজিজুল 
সুলভ সুদে বিদেশি অর্থায়ন খোঁজার পরামর্শ এফবিসিসিআইয়ের
সুলভ সুদে বিদেশি অর্থায়ন খোঁজার পরামর্শ এফবিসিসিআইয়ের
এ বছরই পাস হবে সর্বজনীন পেনশন আইন
এ বছরই পাস হবে সর্বজনীন পেনশন আইন