‘নিম্ন অগ্রাধিকার’ প্রকল্পের অর্থ ছাড় স্থগিত

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২৩:২০, জুলাই ০৮, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:২৪, জুলাই ০৮, ২০২০

অর্থ মন্ত্রণালয়

করোনাভাইরাসের কারণে থমকে গেছে দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য। রাজস্ব আহরণে বড় ধরনের বিপর্যয় দেখা দিয়েছে। এ কারণে সরকার ব্যয় নিয়ন্ত্রণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এরই অংশ হিসেবে চলতি (২০২০-২১) অর্থবছরে বাস্তবায়নাধীন বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) আওতায় ‘নিম্ন অগ্রাধিকার’ বা ‘কম গুরুত্বপূর্ণ’ উন্নয়ন প্রকল্পের অর্থ খরচ বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয়।

বুধবার (৮ জুলাই) মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত একটি পরিপত্র জারি করা হয়েছে।

পরিপত্রে বলা হয়েছে, ‘নিম্ন অগ্রাধিকার’ হিসেবে চিহ্নিত প্রকল্পগুলোর অর্থ ছাড় আপাতত স্থগিত থাকবে। তবে ‘মধ্যম অগ্রাধিকার’ প্রকল্পের যেসব খাতে অর্থ ব্যয় না করলেই নয়, এমন টাকা খরচের ক্ষেত্রে ‘কঠোর’ বিবেচনায় নিতে বলা হয়েছে। কিন্তু সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার প্রকল্পের অর্থ ব্যয় অব্যাহত রাখতে বলা হয়েছে।

পরিপত্রে অর্থ মন্ত্রণালয় উল্লেখ করেছে, সীমিত সম্পদের ব্যয় সাশ্রয়ী ব্যবহার নিশ্চিতকল্পে চলতি অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিভুক্ত প্রকল্পগুলোর ‘উচ্চ’, ‘মধ্যম’ ও ‘নিম্ন’ অগ্রাধিকার নির্ধারণ করা হয়েছে। ২০২০-২১ অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিভুক্ত প্রকল্পের সুষ্ঠু বাস্তবায়নের লক্ষ্যে তিনটি পদ্ধতি অনুসরণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এই তিনটি পদ্ধতি হলো—

ক. মন্ত্রণালয়, বিভাগ বা অন্যান্য প্রতিষ্ঠান এবং অধীনস্থ দফতর বা সংস্থাগুলো উচ্চ অগ্রাধিকার চিহ্নিত প্রকল্প যথা নিয়মে বাস্তবায়ন অব্যাহত রাখবে।

খ. মধ্যম অগ্রাধিকার চিহ্নিত প্রকল্পের ক্ষেত্রে প্রকল্পের যেসব খাতে অর্থ ব্যবহার অবশ্যম্ভাবী বলে বিবেচিত হবে— মন্ত্রণালয়, বিভাগ বা অন্যান্য প্রতিষ্ঠান এবং অধীনস্থ দফতর বা সংস্থা স্বীয় বিবেচনায় সেসব খাতে অর্থ ব্যয় করবে। তবে যেসব ক্ষেত্রে অর্থ ব্যয় পরিহার করা সম্ভব, সেসব ক্ষেত্রে ব্যয় আবশ্যিকভাবে পরিহার করতে হবে।

গ. নিম্ন অগ্রাধিকার চিহ্নিত প্রকল্পগুলোর অর্থছাড় আপাতত স্থগিত থাকবে।

তবে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় এবং কৃষি মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়নাধীন প্রকল্পগুলো এই পরিপত্রের আওতার বাইরে থাকবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

এছাড়া, প্রকল্পের অর্থছাড়ের ক্ষেত্রে অর্থ বিভাগের উন্নয়ন প্রকল্পের অর্থ অবমুক্তি ও ব্যবহার নির্দেশিকা ২০১৮ সহ বিদ্যমান আর্থিক বিধিবিধান ও নিয়মাচার যথাযথভাবে অনুসরণ করার কথা বলা হয়েছে।

 

/জিএম/এপিএইচ/

লাইভ

টপ