সেকশনস

তাপমাত্রা বৃদ্ধির পরিমাণ ‘নাগালের মধ্যেই' থাকছে?

আপডেট : ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ১৫:১৭
image

এক নতুন গবেষণা অনুযায়ী, জাতিসংঘের প্যারিস জলবায়ু চুক্তির লক্ষ্যপূরণ ‘নাগালের’ মধ্যে থাকার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। তাপমাত্রাভিত্তিক ওই বিশ্লেষণের বরাত দিয়ে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এ তথ্য জানিয়েছে।

২০১৫ সালে স্বাক্ষরিত জলবায়ু সংক্রান্ত প্যারিস চুক্তিতে ২১০০ সাল পর্যন্ত বৈশ্বিক তাপমাত্রা বৃদ্ধির পরিমাণ ১ দশমিক ৫ ডিগ্রি থেকে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখার অঙ্গীকার করা হয়েছিল। ‘ক্লাইমেট অ্যাকশন ট্র্যাকার’ নামের একটি সংস্থা বলছে, চলতি শতাব্দী শেষ হওয়ার আগে বৈশ্বিক তাপমাত্রা বৃদ্ধি ২.১ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে রাখা যাবে।

এক দশকেরও বেশি সময় ধরে ক্লাইমেট অ্যাকশন ট্র্যাকারের গবেষকরা দেশগুলোর সম্মিলিত কার্বন নিঃসরণ কমানোর অঙ্গীকার নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করে আসছে। জলবায়ু নিয়ে ২০০৯ সালে ডেনমার্কের রাজধানী কোপেনহেগেনে ব্যর্থ বৈঠকের পর ট্র্যাকার গ্রুপ হিসাব করে দেখে, এই শতাব্দী শেষ হওয়ার আগে বৈশ্বিক তাপমাত্রা ৩.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত বাড়তে পারে। তবে এ বছর সেপ্টেম্বরে তারা জানায়, শতাব্দী শেষে বৈশ্বিক তাপমাত্রা বৃদ্ধির পরিমাণ ২.৭ শতাংশে পৌঁছাতে পারে।

২০১৫ সালে সম্পাদিত প্যারিস জলবায়ু চুক্তি বিবেচনাযোগ্য ইতিবাচক প্রভাবের পথ উন্মোচন করে। আন্তর্জাতিক ওই চুক্তির ফলে বিভিন্ন দেশ ধীরে ধীরে জীবাশ্ম জ্বালানি ব্যবহার থেকে সরে আসছে। ক্লাইমেট অ্যাকশন ট্র্যাকার মনে করছে, সে কারণেই তাপমাত্রা বৃদ্ধির গতি কমেছে। ২১০০ সালে তা ২.১ ডিগ্রি ছাড়িয়ে যাবে না।

ট্রাম্পের নেতৃত্বে আমেরিকা প্যারিস জলবায়ু চুক্তি থেকে বের হয়ে গেলেও নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ক্ষমতায় আসার আগেই জানিয়েছেন, হোয়াইট হাউস তার দখলে এলে তিনি আবার প্যারিস চুক্তিতে প্রত্যাবর্তন করবেন। চীনসহ অন্যান্য দেশের ইতিবাচক ভূমিকা এবং যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয়ী জো বাইডেনের কার্বন পরিকল্পনার অঙ্গীকারকে সম্ভাবনা হিসেবে দেখছে ‘ক্লাইমেট অ্যাকশন ট্র্যাকার’।

অবশ্য কার্বন ডাই অক্সাইডের নিঃসরণ কমাতে স্বল্পমেয়াদী পরিকল্পনার সঙ্গে দীর্ঘমেয়াদী আশাবাদের মিল নেই বলে উদ্বেগ জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

২০১৯ সালের মে মাসে দক্ষিণ কোরিয়ার ইনচিয়ন শহরে অনুষ্ঠিত জলবায়ু সম্মেলনে জাতিসংঘের দ্য ইন্টারগভর্নমেন্টাল প্যানেল অব ক্লাইমেট চেঞ্জ (আইপিসিসি) এর সম্মেলনে তাপমাত্রা ১ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে রাখার ওপর জোর দেওয়া হয়। আইপিসিসির সহসভাপতি অধ্যাপক জিম স্কেয়া সে সময় বলেন, তাপমাত্রা বৃদ্ধি ২ ডিগ্রির চেয়ে ১ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে রাখতে পারলে ব্যাপক উপকার পাওয়া যাবে। জলবায়ু পরিবর্তনজনিত প্রভাব কমাতে তা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। শক্তিব্যবস্থা, ভূমি ব্যবস্থাপনা ও যোগাযোগব্যবস্থায় পরিবর্তন ঘটানো যাবে।

/বিএ/

সম্পর্কিত

কলকাতাকে রাজধানী ঘোষণার দাবি মমতার

কলকাতাকে রাজধানী ঘোষণার দাবি মমতার

রাশিয়া জুড়ে বিক্ষোভ শুরু, বহু নাভালনি সমর্থক আটক

রাশিয়া জুড়ে বিক্ষোভ শুরু, বহু নাভালনি সমর্থক আটক

যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ প্রতিরক্ষামন্ত্রী অস্টিন

যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ প্রতিরক্ষামন্ত্রী অস্টিন

চীন না কমালে ভারতও সীমান্তে সেনা কমাবে না: রাজনাথ

চীন না কমালে ভারতও সীমান্তে সেনা কমাবে না: রাজনাথ

তালেবানের সঙ্গে ট্রাম্পের চুক্তি পুনর্মূল্যায়ন করবেন বাইডেন

তালেবানের সঙ্গে ট্রাম্পের চুক্তি পুনর্মূল্যায়ন করবেন বাইডেন

ফেব্রুয়ারিতে বাইডেন-ট্রুডো বৈঠক

ফেব্রুয়ারিতে বাইডেন-ট্রুডো বৈঠক

সেরামে ১ হাজার কোটি রুপির ক্ষয়ক্ষতি, তবে সুরক্ষিত করোনার ভ্যাকসিন

সেরামে ১ হাজার কোটি রুপির ক্ষয়ক্ষতি, তবে সুরক্ষিত করোনার ভ্যাকসিন

ইউরোপে ভ্যাকসিন সরবরাহ ৬০ শতাংশ কমালো অ্যাস্ট্রাজেনেকা

ইউরোপে ভ্যাকসিন সরবরাহ ৬০ শতাংশ কমালো অ্যাস্ট্রাজেনেকা

দরিদ্র দেশগুলোকে ৪ কোটি ভ্যাকসিন দিচ্ছে ফাইজার

দরিদ্র দেশগুলোকে ৪ কোটি ভ্যাকসিন দিচ্ছে ফাইজার

সিনেটে ট্রাম্পের অভিশংসন বিচার পিছিয়ে গেলো

সিনেটে ট্রাম্পের অভিশংসন বিচার পিছিয়ে গেলো

করোনার ব্রিটিশ ভ্যারিয়েন্টের সংক্রমণে মৃত্যু ঝুঁকি বেশি হওয়ার আশঙ্কা

করোনার ব্রিটিশ ভ্যারিয়েন্টের সংক্রমণে মৃত্যু ঝুঁকি বেশি হওয়ার আশঙ্কা

বিশ্বে ২৪ ঘণ্টায় নতুন শনাক্ত ৬ লাখ ৮৫ হাজার

বিশ্বে ২৪ ঘণ্টায় নতুন শনাক্ত ৬ লাখ ৮৫ হাজার

সর্বশেষ

সৃজনশীল বই বিক্রিতে হয়রানি বন্ধের দাবি

সৃজনশীল বই বিক্রিতে হয়রানি বন্ধের দাবি

পণ্যের মান দিয়ে বাজার দখল করতে হবে: বাণিজ্যমন্ত্রী

পণ্যের মান দিয়ে বাজার দখল করতে হবে: বাণিজ্যমন্ত্রী

কলকাতাকে রাজধানী ঘোষণার দাবি মমতার

কলকাতাকে রাজধানী ঘোষণার দাবি মমতার

মানিকগঞ্জে ইউপি চেয়ারম্যান সাময়িক বহিষ্কার

মানিকগঞ্জে ইউপি চেয়ারম্যান সাময়িক বহিষ্কার

কোকোর ৬ষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী কাল, বিএনপির দোয়া মাহফিল আয়োজন

কোকোর ৬ষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী কাল, বিএনপির দোয়া মাহফিল আয়োজন

রাশিয়া জুড়ে বিক্ষোভ শুরু, বহু নাভালনি সমর্থক আটক

রাশিয়া জুড়ে বিক্ষোভ শুরু, বহু নাভালনি সমর্থক আটক

কক্সবাজারের কোহেলীয়া নদী পুনরুদ্ধারের আহ্বান

কক্সবাজারের কোহেলীয়া নদী পুনরুদ্ধারের আহ্বান

রাজধানীতে তক্ষকসহ ৭ পাচারকারী গ্রেফতার

রাজধানীতে তক্ষকসহ ৭ পাচারকারী গ্রেফতার

সরকারি দলের কলহে ভীতি সৃষ্টি হয়েছে: বাবলু

সরকারি দলের কলহে ভীতি সৃষ্টি হয়েছে: বাবলু

যেভাবে প্রস্তুত হয় ফার্ম ফ্রেশ ইউ এইচটি মিল্ক

যেভাবে প্রস্তুত হয় ফার্ম ফ্রেশ ইউ এইচটি মিল্ক

মৃত্যু ৮ হাজার ছাড়ালো

মৃত্যু ৮ হাজার ছাড়ালো

বনানীতে মরদেহ উদ্ধার, পরিচয় খুঁজছে পুলিশ

বনানীতে মরদেহ উদ্ধার, পরিচয় খুঁজছে পুলিশ

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

কলকাতাকে রাজধানী ঘোষণার দাবি মমতার

কলকাতাকে রাজধানী ঘোষণার দাবি মমতার

রাশিয়া জুড়ে বিক্ষোভ শুরু, বহু নাভালনি সমর্থক আটক

রাশিয়া জুড়ে বিক্ষোভ শুরু, বহু নাভালনি সমর্থক আটক

যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ প্রতিরক্ষামন্ত্রী অস্টিন

যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ প্রতিরক্ষামন্ত্রী অস্টিন

চীন না কমালে ভারতও সীমান্তে সেনা কমাবে না: রাজনাথ

চীন না কমালে ভারতও সীমান্তে সেনা কমাবে না: রাজনাথ

তালেবানের সঙ্গে ট্রাম্পের চুক্তি পুনর্মূল্যায়ন করবেন বাইডেন

তালেবানের সঙ্গে ট্রাম্পের চুক্তি পুনর্মূল্যায়ন করবেন বাইডেন

ফেব্রুয়ারিতে বাইডেন-ট্রুডো বৈঠক

ফেব্রুয়ারিতে বাইডেন-ট্রুডো বৈঠক

সেরামে ১ হাজার কোটি রুপির ক্ষয়ক্ষতি, তবে সুরক্ষিত করোনার ভ্যাকসিন

সেরামে ১ হাজার কোটি রুপির ক্ষয়ক্ষতি, তবে সুরক্ষিত করোনার ভ্যাকসিন

ইউরোপে ভ্যাকসিন সরবরাহ ৬০ শতাংশ কমালো অ্যাস্ট্রাজেনেকা

ইউরোপে ভ্যাকসিন সরবরাহ ৬০ শতাংশ কমালো অ্যাস্ট্রাজেনেকা

দরিদ্র দেশগুলোকে ৪ কোটি ভ্যাকসিন দিচ্ছে ফাইজার

দরিদ্র দেশগুলোকে ৪ কোটি ভ্যাকসিন দিচ্ছে ফাইজার

সিনেটে ট্রাম্পের অভিশংসন বিচার পিছিয়ে গেলো

সিনেটে ট্রাম্পের অভিশংসন বিচার পিছিয়ে গেলো


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.