X
শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪
১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

রংপুরের কাউনিয়ায় ৫০ বাড়ি ও আবাদি জমি তিস্তায় বিলীন

রংপুর প্রতিনিধি
২৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ২৩:১১আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ২৩:১২

বৃষ্টি আর ভারত থেকে আসা পাহাড়ি ঢলের কারণে তিস্তা নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। রংপুরের কাউনিয়া পয়েন্টে তিস্তার পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ায় সেখানে নদীভাঙন মারাত্মক বৃদ্ধি পেয়েছে। গত তিন দিনে কাউনিয়া উপজেলার গদাই গ্রামে অর্ধশত বাড়িঘর এবং শতাধিক বিঘা আবাদি জমি বিলীন হয়ে গেছে। দুর্গম চরাঞ্চলে আরও ১০টি গ্রামে নদীভাঙনের আশঙ্কায় শত শত পরিবার বাড়িঘর ও মালামাল সরিয়ে নিচ্ছে।

কাউনিয়া উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, তিস্তা নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় ভাঙন তীব্র আকার ধারণ করেছে। বিশেষ করে নদীবেষ্টিত, চরগনাই, হায়বৎখাঁ, ঢুষমারা, আজমখাঁ, নাজিরদহ, গুপিডাঙ্গা ও গদাই গ্রামে নদীভাঙন দেখা দিয়েছে। তিন দিনে ৫০টি পরিবারের বাড়িঘর ফসলি জমি নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। সর্বস্ব হারিয়ে তারা খোলা জায়গায় মানবেতর দিন কাটাচ্ছে।

সরেজমিন গদাই গ্রামে দেখা গেছে, তিস্তা নদীর তীব্র স্রোত আছড়ে পড়ছে চরাঞ্চলের গ্রামে। গদাই গ্রামের আবুল কাশেম জানান, তার তিনটি ঘর রাতের মধ্যেই বিলীন হয়ে গেছে। কোনও মালামাল বের করার সময়ও পাননি। দুটি গরু ও তিনটি ছাগলকে কোনোরকমে রক্ষা করতে পেরেছেন।

স্থানীয়রা অভিযোগ করেন, পানি উন্নয়ন বোর্ডকে অনেক আগে থেকে ভাঙন প্রতিরোধে ব্যবস্থা নেওয়ার আকুতি জানালেও তারা কোনও পদক্ষেপ নেয়নি। এ জন্য সর্বস্বান্ত হয়েছে বহু পরিবার।

পানি উন্নয়ন বোর্ড কিছু জিওব্যাগ নদীতে ফেলে ভাঙন রোধে মঙ্গলবার থেকে কাজ শুরু করেছে। এই কাজটা তিন দিন আগে শুরু করলে পরিবারগুলো নিঃস্ব হতো না বলে ক্ষোভ প্রকাশ করলেন কাউনিয়া ডিগ্রি কলেজের শিক্ষার্থী সালাম আজাদ।

এদিকে, ঢুস মারার চর, আজমখা, গুপিডাঙ্গা চরের শতাধিক পরিবার জরুরিভিত্তিতে বাড়িঘর, আবাদি জমি রক্ষা করার জন্য বালুর বস্তা ফেলার আকুল আবেদন জানিয়েছেন। তারা বলেছেন, নদীভাঙন যেভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে তাতে তাদের বাড়িঘর জমিজমা রক্ষা করা অসম্ভব হয়ে পড়বে। তা ছাড়া তারা যাবেন কোথায়? বিকল্প জায়গা নেই যেখানে পরিবার নিয়ে ঠাঁই নেবেন।

এ ব্যাপারে রংপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আহসান হাবিব জানান, দেশের উজানে বিশেষ করে ভারতের কোচবিহার, শিলিগুড়ি, জলপাইগুড়ি, দার্জিলিং, কালিম্পংসহ আরও কিছু এলাকায় ভারী বৃষ্টি হয়েছে। উজানের পানি নেমে আসায় তিস্তা নদীর পানি বাড়ছে। নদীভাঙন রোধে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।

/এমএএ/
সম্পর্কিত
‘২০৫০ সালের মধ্যে বরেন্দ্র অঞ্চল মরুভূমিতে পরিণত হবে’
জলবায়ু শরণার্থীযাদের কাছে নাম আছে ধাম নাই
নদীশাসন ও চ্যানেল ঠিক করা ব্যয়বহুল কাজ: সারোয়ার মাহমুদ
সর্বশেষ খবর
এমপি আজীমকে হত্যার পর হেরোইন ও মদ খেয়ে উল্লাস করে খুনিরা
এমপি আজীমকে হত্যার পর হেরোইন ও মদ খেয়ে উল্লাস করে খুনিরা
ওজন কমাতে চাইছেন? সকালের নাস্তায় খান চিয়া সিডের তৈরি এই পদ
ওজন কমাতে চাইছেন? সকালের নাস্তায় খান চিয়া সিডের তৈরি এই পদ
সরকার সুষম ও টেকসই উন্নয়নে বিশ্বাস করে: আরাফাত
সরকার সুষম ও টেকসই উন্নয়নে বিশ্বাস করে: আরাফাত
এমপি আজীমের লাশের খণ্ডাংশের খোঁজে তল্লাশি, চলবে শনিবারও
এমপি আজীমের লাশের খণ্ডাংশের খোঁজে তল্লাশি, চলবে শনিবারও
সর্বাধিক পঠিত
নেপথ্যে ২০০ কোটি টাকার লেনদেন, সিলিস্তাকে দিয়ে হানি ট্র্যাপ
এমপি আজীম হত্যাকাণ্ডনেপথ্যে ২০০ কোটি টাকার লেনদেন, সিলিস্তাকে দিয়ে হানি ট্র্যাপ
আদালতে কেঁদে সিলিস্তার প্রশ্ন, আমি কীভাবে আসামি হলাম?
আদালতে কেঁদে সিলিস্তার প্রশ্ন, আমি কীভাবে আসামি হলাম?
যুদ্ধবিমান উড্ডয়নের নির্দেশ তাইওয়ানের
যুদ্ধবিমান উড্ডয়নের নির্দেশ তাইওয়ানের
এমপি আজিমের খণ্ডিত মরদেহ উদ্ধারের দাবি কলকাতা পুলিশের
এমপি আজিমের খণ্ডিত মরদেহ উদ্ধারের দাবি কলকাতা পুলিশের
ঘূর্ণিঝড়ের শঙ্কা, ১ নম্বর সতর্কতা
ঘূর্ণিঝড়ের শঙ্কা, ১ নম্বর সতর্কতা