X
সকল বিভাগ
সেকশনস
সকল বিভাগ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নির্দেশনা উপেক্ষা করে স্কুলের মাঠে পশুর হাট

আপডেট : ১৮ জুলাই ২০২১, ১৬:৫০

বিদ্যালয়ের মাঠে পশুর হাট বসানো নিয়ে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে প্রশাসনের। তারপরও ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার নাটাই উত্তর ইউনিয়নের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে পশুর হাট বসেছে। হাটে স্বাস্থ্যবিধি মানারও কোনও বালাই নেই।

এ ঘটনায় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অসহায়ত্ব প্রকাশ করেছেন। তবে সেখান থেকে দ্রুত পশুর হাট অপসারণের নির্দেশ দিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও)।

জানা গেছে, প্রতি বছরের মতো এবারও বিদ্যালয়ের মাঠে পশুর হাট বসেছে। এই হাটে গরু, মহিষ, ছাগল ও ভেড়াসহ বিভিন্ন পশু নিয়ে এসেছেন বিক্রেতারা। ক্রেতারাও কোরবানির পশু কেনার জন্যে ভিড় করছেন। গতকাল শনিবার দুপুরে শুরু হওয়া হাটটি চলবে ঈদের আগের দিন পর্যন্ত।

ক্রেতা-বিক্রেতাদের অধিকাংশের মুখে মাস্ক নেই

সরেজমিন দেখা যায়, করোনাকালে স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করে মাস্ক ছাড়া ক্রেতা-বিক্রেতারা হাটে ভিড় করছেন। স্থানীয় বটতলী বাজার কমিটির পক্ষ থেকে ইজারাদারদের নেতৃত্বে হাট থেকে ইজারা আদায় করা হচ্ছে। বাজারটিও বেশ জমজমাট হয়ে উঠেছে। কিন্ত ক্রেতা ও বিক্রেতাদের অধিকাংশের মুখে মাস্ক ছিল না। মানা হচ্ছে না সামাজিক দূরত্বও। স্বাস্থ্যবিধি না মানায় হাটে আসা সচেতন ক্রেতারা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার সুহিলপুর গ্রাম থেকে গরু নিয়ে আসা আব্দুল হালিম জানান, ‘আমি পাঁচটি গরু নিয়ে বাজারে এসেছি। এর মধ্যে মাত্র একটি বিক্রি হয়েছে। ঈদের আর মাত্র দুই দিন বাকি। কিন্তু বাজারে ক্রেতা সমাগম তুলনামূলক কম। আশা করছি দ্রুত সময়ের মধ্যে বাজার চাঙ্গা হয়ে উঠবে। আমার সব গরু বিক্রি হয়ে যাবে। 

মাস্ক না পরার কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‌‘আজ সারাদিন প্রচুর রোদ থাকায় ঘামে মাস্ক ভিজে গেছে। তাই মুখে আর মাস্ক পরতে পারিনি।’

ভাটপাড়া গ্রামের গরু ব্যবসায়ী বাবুল মিয়া বলেন, ‘বাজারে মানুষ এখনও সেরকম আসেনি। ক্রেতা আসলে গরু বিক্রি করতে পারবো। এবছর গরু ব্যবসায়ী অনেক বেড়ে গেছে। গরুর দামও কম। ১০টা গরু বাজারে এনেছি। একটা গরু এক লাখ ১৬ হাজার টাকায় বিক্রি করেছি। মানুষ এসে দাম করছে। সবগুলো গরু আশা করি বিক্রি করতে পারবো। মাস্ক ঘাম আর ময়লা জমে নষ্ট হয়ে গেছে। এছাড়া গরুর হাটে কথা বলা লাগে বেশি। তাই মাস্ক পরা সম্ভব হয়ে ওঠে না।’

স্বাস্থ্যবিধি না মানায় হাটে আসা সচেতন ক্রেতাদের ক্ষোভ

বাজারে আসা ক্রেতা ফারুক হোসেন বলেন, ‘করোনার কারণে বাজারে মানুষ কম আসতে চায়। আমি অনলাইনে কিছু গরু দেখেছি, কিন্তু সেগুলা পছন্দ হয়নি। যেহেতু বাড়ির কাছাকাছি গরুর হাট বসেছে, তাই বাজারে গরু দেখতে এসেছি। যদি পছন্দ হয় কিনে নিয়ে যাবো।’

স্বাস্থ্যবিধির বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমাদের সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা উচিত। যেহেতু গরুর হাট, সেজন্য অনেকেই স্বাস্থ্যবিধি মানতে চায় না। প্রশাসনের এদিকে একটু নজর দেওয়া উচিত।’

এ ব্যাপারে বটতলী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. কামাল উদ্দিন জানান, ‘স্কুলের জায়গাটি বটতলী বাজার কমিটির পক্ষ থেকে দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে বাজারের জায়গায় পশুর হাঁট বসানো হয়েছে। তবে স্কুল ক্যাম্পাস, বটতলী বাজার, আর গরুর হাট একই সঙ্গে। একই সীমানার ভেতরে। এজন্য আমরা বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে স্পষ্ট করে বলতে পারছি না। তারাও আমাদের কোনও কথা শুনছে না। বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবহিত করা হয়েছে।’

হাটে স্বাস্থ্যবিধি মানার কোনও বালাই নেই

এ ব্যাপারে বাজার পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মহসিন মিয়া জানান, ‘বাজার কমিটির পক্ষ থেকে ৭৫ শতাংশ জমির ওপর স্কুলটি নির্মাণ করা হয়েছে।  স্কুল ভবন থাকলেও বর্তমানে বাজার কমিটির জায়গায় পশুর হাট বসেছে। তবে যেহেতু জায়গাটি স্কুলের মাঠ হিসেবে ব্যবহৃত হয়, তাই, মাঠে কিছুটা সমস্যা হচ্ছে। আমরা কোরবানির ঈদের পর মাঠটি সংস্কার করে দেবো। তবে এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আমাদেরকে স্কুলের মাঠে বাজার বসানোর জন্য নিষেধ করেছেন। আমরা তাকে বিষয়টি বুঝিয়ে বলার চেষ্টা করেছি।’

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পঙ্কজ বড়ুয়া জানান, ‘বিদ্যালয়ের মাঠে কোনওভাবেই পশুর হাট বসানো যাবে না। এ বিষয়ে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ও বাজার কমিটিকে স্পষ্ট করে বলা হয়েছে। যদি তারা দ্রুত সময়ের মধ্যে পদক্ষেপ না নেয়, আমরা কার্যকর পদক্ষেপ নেবো। বাজারটি আগামী ২০ জুলাই রাত পযর্ন্ত চলবে বলে স্থানীয় সূত্র নিশ্চিত করেছে।’

/এসএইচ/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
মাদকবিরোধী অভিযানের খবর শুনে পালাতে গিয়ে সাবেক চেয়ারম্যানের মৃত্যু
মাদকবিরোধী অভিযানের খবর শুনে পালাতে গিয়ে সাবেক চেয়ারম্যানের মৃত্যু
ভাড়া নিয়ে বিতর্কে রিকশাচালকের আঘাতে পুলিশসহ আহত ৪
ভাড়া নিয়ে বিতর্কে রিকশাচালকের আঘাতে পুলিশসহ আহত ৪
১০ মাসে এডিপি বাস্তবায়ন ৫৫ শতাংশ, স্বাস্থ্য সেবায় বাস্তবায়ন ৩৯ শতাংশ
১০ মাসে এডিপি বাস্তবায়ন ৫৫ শতাংশ, স্বাস্থ্য সেবায় বাস্তবায়ন ৩৯ শতাংশ
পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগে অভিন্ন নীতিমালা তৈরির উদ্যোগ
পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগে অভিন্ন নীতিমালা তৈরির উদ্যোগ
এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
পুলিশের গাড়িতে ধাক্কা দিয়ে পালানো বাসচালক গ্রেফতার
পুলিশের গাড়িতে ধাক্কা দিয়ে পালানো বাসচালক গ্রেফতার
জাতিসংঘের হাইকমিশনারের কাছে মিয়ানমার ফেরার কথা জানালেন রোহিঙ্গারা
জাতিসংঘের হাইকমিশনারের কাছে মিয়ানমার ফেরার কথা জানালেন রোহিঙ্গারা
বাস থেকে ছিটকে পড়ে কিশোর হেলপার নিহত
বাস থেকে ছিটকে পড়ে কিশোর হেলপার নিহত
ছোট ভাইয়ের লাঠির আঘাতে প্রাণ গেলো বড় ভাইয়ের
ছোট ভাইয়ের লাঠির আঘাতে প্রাণ গেলো বড় ভাইয়ের
চট্টগ্রামে আগুনে পুড়লো পোল্ট্রি ফিডের গুদাম
চট্টগ্রামে আগুনে পুড়লো পোল্ট্রি ফিডের গুদাম