X
মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২২, ৪ মাঘ ১৪২৮
সেকশনস

দেশ ফাইভ-জি’র যুগে প্রবেশ করছে ১২ ডিসেম্বর

আপডেট : ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০২:০৫

বাংলাদেশ ফাইভ-জির যুগে প্রবেশ করতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। তিনি বলেন, ‘আমরা আগামী ১২ ডিসেম্বর ফাইভ-জি’র যুগে প্রবেশ করতে যাচ্ছি। অথচ পৃথিবীর ৬-৭টির বেশি দেশ এখন পর্যন্ত ফাইভ-জি’তে প্রবেশ করেনি।’

শনিবার (৪ ডিসেম্বর) গাজীপুরে সজীব ওয়াজেদ জয় ভূ-উপগ্রহ কেন্দ্রে মুজিববর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটেড (বিএসসিএল) আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। 

মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘২০২৩ সালের ভেতরে ফাইভ-জি প্রধান বিষয় হয়ে দাঁড়াবে। ফাইভ-জি’র যুগে প্রবেশের বিষয়টি ২০১৮ সালের নির্বাচনি ইশতেহারে বলা হয়েছিল। আপনারা ফাইভ-জি’কে টু-জি, থ্রি-জি’র মতো আরও একটি মোবাইলের প্রযুক্তি মনে করবেন না। আগামী দিনের বিশ্বকে বদলে দেওয়ার একটি প্রযুক্তি হচ্ছে ফাইভ-জি।’

তিনি বলেন, ‘আমরা প্রযুক্তিতে পেছনে পড়া একটি দেশ। এই প্রথম পৃথিবী সর্বাগ্রে যে দেশগুলো প্রযুক্তি গ্রহণ করেছে, তার মধ্যে বাংলাদেশ স্থায়ী আসন গ্রহণ করতে যাচ্ছে। এটাকে নেতিবাচকভাবে দেখার কোনও সুযোগ নেই, ইতিবাচকভাবে দেখতে হবে। আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য ফাইভ-জি কতোটা জরুরি, ২০২৩ সালের মধ্যে আপনারা প্রত্যেকে তা উপলব্ধি করতে পারবেন।’

মন্ত্রী বলেন, ‘আমি গর্বিত যে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ ফাইভ-জি’র মহাসড়ক তৈরি করে বাংলাদেশের জন্য ডিজিটাল কানেকটিভিটির সুবর্ণ যুগের সূচনা করছে। বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশকে আমরা পৃথিবীর সর্বোচ্চ প্রযুক্তির একটা দেশে রূপান্তর করতে যাচ্ছি, এটি আমাদের গর্বের বিষয়। ফাইভ-জি চালু হলে আপনি যেখানে বা যত দূরেই থাকেন, সেখানে বসে তা ব্যবহার করে ঘরের লাইট, ফ্যান, এসি ও কৃষি ক্ষেত্রে পানির পাম্প চালু বা বন্ধ এমনকি জমিতে সেচের প্রয়োজন হলে তা বলে দেওয়াসহ সব কাজ করতে পারবেন। এ ছাড়া রোবটের মাধ্যমে ঘরের কাজসহ মিলকারখানা বা জমির কাজ করা সম্ভব হবে। আর এ সবের কেন্দ্রবিন্দু হবে ফাইভ-জি।’

মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘২০২৩ সালের মধ্যে দেশের এমন কোনও ইউনিয়ন বাকি থাকবে না যেখানে দ্রুতগতির কানেকটিভিটি পৌঁছাবে না। আজকের বাংলাদেশ ডিজিটাল বাংলাদেশ হওয়ার জন্য অবকাঠামোগত যে অগ্রগতি হওয়ার দরকার তার পরিপূর্ণ আকৃতির ওপর এখন দাঁড়িয়ে আছে।’

বিএসসিএল’র চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. শাহজাহান মাহমুদের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব খলিলুর রহমান, অতিরিক্ত সচিব কামরুজ্জামান, বিসিএসএল’র মুজিববর্ষ উদযাপন কমিটির সভাপতি ও বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সদস্য প্রফেসর ড. সাজ্জাদ হোসেন, গাজীপুরের স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক কামরুজ্জামান ও বিসিএসএল’র ভাইস চেয়ারম্যান সুব্রত রায় মৈত্র।

পরে মন্ত্রী মুজিববর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে অনুষ্ঠিত চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় বিজয়ী শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণ করেন। গাজীপুরের ২৫টি প্রাথমিক এবং মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণি থেকে দশম শ্রেণী পর্যন্ত চারটি ক্যাটাগরিতে ১০১ জন শিক্ষার্থী অংশ নেয়।

 

/আইএ/
সম্পর্কিত
ফেরি স্বল্পতায় দৌলতদিয়ায় যানবাহনের দীর্ঘ সারি
ফেরি স্বল্পতায় দৌলতদিয়ায় যানবাহনের দীর্ঘ সারি
অ্যাপেন্ডিসাইটিসের ‘অপারেশনে’ রোগী মৃত্যুর অভিযোগ, ৪ লাখ টাকায় রফা
অ্যাপেন্ডিসাইটিসের ‘অপারেশনে’ রোগী মৃত্যুর অভিযোগ, ৪ লাখ টাকায় রফা
একটি রাস্তার জন্য ৬০ বছরের অপেক্ষা
একটি রাস্তার জন্য ৬০ বছরের অপেক্ষা
ইভিএমে ভোট দ্রুত হলে ব্যবধান বড় হতো: আইভী 
ইভিএমে ভোট দ্রুত হলে ব্যবধান বড় হতো: আইভী 

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
ফেরি স্বল্পতায় দৌলতদিয়ায় যানবাহনের দীর্ঘ সারি
ফেরি স্বল্পতায় দৌলতদিয়ায় যানবাহনের দীর্ঘ সারি
অ্যাপেন্ডিসাইটিসের ‘অপারেশনে’ রোগী মৃত্যুর অভিযোগ, ৪ লাখ টাকায় রফা
অ্যাপেন্ডিসাইটিসের ‘অপারেশনে’ রোগী মৃত্যুর অভিযোগ, ৪ লাখ টাকায় রফা
একটি রাস্তার জন্য ৬০ বছরের অপেক্ষা
একটি রাস্তার জন্য ৬০ বছরের অপেক্ষা
ইভিএমে ভোট দ্রুত হলে ব্যবধান বড় হতো: আইভী 
ইভিএমে ভোট দ্রুত হলে ব্যবধান বড় হতো: আইভী 
পুলিশের পিকআপ পুকুরে, ২ এসআই নিহত
পুলিশের পিকআপ পুকুরে, ২ এসআই নিহত
© 2022 Bangla Tribune