X
বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২
২৩ আষাঢ় ১৪২৯

ভুল চিকিৎসায় প্রসূতির মৃত্যু, সাড়ে তিন লাখে দফারফা

আপডেট : ০৭ মে ২০২২, ২২:২৪

নড়াইলের কালিয়া উপজেলায় ভুল চিকিৎসায় শিউলী বেগম (২৫) নামে এক প্রসূতির মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। তার মৃত্যুর বিষয়টি সাড়ে তিন লাখ টাকায় দফারফা করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। শুক্রবার (৬ মে) সকাল ১০টার দিকে উপজেলার নড়াগাতি থানার বড়দিয়া এলাকার হাজী খান রওশন আলী হাসপাতাল অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে এ ঘটনা ঘটে।

বিষয়টি জানাজানি হলে শনিবার (৭ মে) নড়াইলের সিভিল সার্জন নাছিমা আকতার কালিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. কাজল মল্লিককে প্রধান করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন। গঠিত কমিটিকে আগামী চার কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দেওয়ার নির্দেশ দেন।

স্থানীয় সূত্র জানায়, দফারফার পর ময়নাতদন্ত ছাড়াই ওই দিন রাতে গৃহবধূর লাশ দাফন করা হয়। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ আইনি ঝামেলা এড়াতে স্থানীয়দের মাধ্যমে সালিশ ডেকে সাড়ে তিন লাখ টাকায় গৃহবধূর পরিবারের সঙ্গে বিষয়টি সমঝোতা করেছে। তবে ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত চিকিৎসক শরিফুল ইসলাম পলাতক রয়েছেন। 

শিউলী বেগমের বাবার বাড়ি উপজেলার খাশিয়াল ইউনিয়নের পেচি ডুমুরিয়া গ্রামে। তার শ্বশুরবাড়ি গোপালগঞ্জ সদর থানার বড়ফা গ্রামে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ৩০০ টাকার নন-জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে শিউলীর বাবা ও স্বামীর কাছ থেকে তার মৃত্যুর জন্য হাজী খান রওশন আলী হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় মর্মে লিখিত নেয়।

গৃহবধূর পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, নির্ধারিত দিনে ১৫ হাজার টাকা চুক্তিতে সিজারিয়ান অপারেশনের জন্য শুক্রবার সকাল ৯টায় ওই হাসপাতালে শিউলী বেগমকে ভর্তি করা হয়। পরে তাকে অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে যান গোপালগঞ্জ থেকে আসা সার্জন শরিফুল ইসলাম। অপারেশনের আগে অচেতন করার জন্য শিউলীকে ইনজেকশন দেওয়া হয়। এতে শিউলী চিৎকার শুরু করেন। স্বজনরা রোগীর কাছে যেতে চাইলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বাধা দেন। পরে অপারেশন থিয়েটারে তার মৃত্যু হয়।

মৃত্যুর বিষয়টি ধামাচাপা দিতে তড়িঘড়ি করে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ রোগীর প্রেশার কমে গেছে অজুহাতে অ্যাম্বুলেন্স ডেকে খুলনা মেডিক্যালে পাঠানোর চেষ্টা করেন। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের চালাকি বুঝতে পেরে শিউলীর স্বামী জিন্নাত শেখ ও বাবা আকবর মোল্যাসহ স্বজনরা অ্যাম্বুলেন্সে তুলতে বাধা দেন। এতে হট্টগোলের সৃষ্টি হয়। এ সময় হাসপাতালের লোকজনের সঙ্গে রোগীর স্বজনদের হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে জিন্নাত শেখকে মারধর করেন হাসপাতালের লোকজন। 

এরপর স্থানীয়রা জড়ো হলে রোগীর মৃত্যুর বিষয়টি জানাজানি হয়। এ অবস্থায় হাসপাতালের প্রধান গেটে তালা লাগিয়ে দেন কর্তৃপক্ষ। এই সুযোগে পেছনের দরজা দিয়ে চিকিৎসক ও হাসপাতালের লোকজন পালিয়ে যান।

হাসপাতাল সূত্র জানায়, ওই দিন হাজী খান রওশন আলী হাসপাতালে অ্যানেসথেসিস্ট ছিলেন না। সার্জন শরিফুল ইসলাম রোগীকে অ্যানেসথেসিয়ার ইনজেকশন দেন। এতে তার মৃত্যু হয়।

জিন্নাত শেখ বলেন, ‘আমি ইজিবাইকচালক। মাঝেমধ্যে কাঠমিস্ত্রির কাজ করি। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে মামলায় লড়তে গেলে আমার দৌড়াতে হবে। অর্থ খরচ করতে হবে। গ্রাম্য সালিশে সাড়ে তিন লাখ টাকায় বিষয়টি মীমাংসা করেছেন সালিশদাররা। লাশ দাফন করতে প্রাথমিকভাবে আমাকে ৩০ হাজার ও মিলাদ পড়াতে শ্বশুরকে ২০ হাজার টাকা দিয়েছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। বাকি তিন লাখ টাকা ব্যাংক খুললে আমার তিন বছরের শিশুকন্যার নামে দেবে বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় এক সালিশদার বলেছেন, ‘শুক্রবার বিকাল ৪টার দিকে মুন্সী মানিক মিয়া ডিগ্রি কলেজ চত্বরে স্থানীয় ইউপি সদস্য, ভুক্তভোগী পরিবার ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের উপস্থিতিতে সালিশ বৈঠক হয়। গৃহবধূর স্বামী এবং বাবা গরিব মানুষ। এজন্য তারা মামলা করতে রাজি হননি। তাই গৃহবধূর শিশুসন্তান ও পরিবারের ভবিষ্যত চিন্তা করে সাড়ে তিন লাখ টাকায় বিষয়টি মীমাংসা করেছেন সালিশদাররা।’

নড়াগাতী থানার ওসি সুকান্ত কুমার সাহা বলেন, ‘খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছিলাম। তবে গৃহবধূর পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় কোনও অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

হাজী খান রওশন আলী হাসপাতালের ম্যানেজার অনুপ দাস বলেন, ‘বিষয়টি মীমাংসা হয়ে গেছে। এ নিয়ে বাড়াবাড়ি করার কিছুই নেই।’

এ বিষয়ে জানতে হাজী খান রওশন আলী হাসপাতালের মালিক খান শাহীন সাজ্জাদ পলাশের মোবাইলে একাধিকবার কল দিলেও রিসিভ করেননি।

নড়াইলের সিভিল সার্জন ডা. নাছিমা আকতার বলেন, ‘ভুল চিকিৎসায় মৃত্যুর বিষয়টি খতিয়ে দেখতে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে প্রধান করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। চার কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। হাজী খান রওশন আলী হাসপাতালটি অনুমোদনের জন্য আবেদন করলেও অনুমোদন দেওয়া হয়নি। আমরা তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবো।’

/এএম/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
বড় ভাইয়ের লাঠির আঘাতে প্রাণ গেলো ছোট ভাইয়ের
বড় ভাইয়ের লাঠির আঘাতে প্রাণ গেলো ছোট ভাইয়ের
শপথ নিয়ে সব কথা রাখার প্রতিশ্রুতি মেয়র রিফাতের
শপথ নিয়ে সব কথা রাখার প্রতিশ্রুতি মেয়র রিফাতের
দলীয় প্রধানের পদ ছাড়লেন বরিস জনসন
দলীয় প্রধানের পদ ছাড়লেন বরিস জনসন
ঈদের নামাজে মানতে হবে স্বাস্থ্যবিধি
ঈদের নামাজে মানতে হবে স্বাস্থ্যবিধি
এ বিভাগের সর্বশেষ
বড় ভাইয়ের লাঠির আঘাতে প্রাণ গেলো ছোট ভাইয়ের
বড় ভাইয়ের লাঠির আঘাতে প্রাণ গেলো ছোট ভাইয়ের
পেঁয়াজ আমদানি শুরু, কেজি ৩৬ টাকা
পেঁয়াজ আমদানি শুরু, কেজি ৩৬ টাকা
জোড়াগেট পশুহাটে ১৩০০ কেজির ‘ধলা মানিক’
জোড়াগেট পশুহাটে ১৩০০ কেজির ‘ধলা মানিক’
ঈদে বাড়ি ফেরার পথে মোটরসাইকেল আরোহী নিহত
ঈদে বাড়ি ফেরার পথে মোটরসাইকেল আরোহী নিহত
যানবাহন উঠলেই কেঁপে ওঠে সেতু
যানবাহন উঠলেই কেঁপে ওঠে সেতু