X
সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
১৩ ফাল্গুন ১৪৩০

নারী নির্যাতন মামলার আসামি, তবু কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেননি সাবেক উপাচার্য

খুলনা প্রতিনিধি
০৩ মে ২০২৩, ১৪:১১আপডেট : ০৪ মে ২০২৩, ১৯:৫৫

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক কর্মকর্তা নারী নির্যাতন মামলায় ২১ দিন জেলে থাকলেও বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য বিষয়টি আমলে নেননি বলে অভিযোগ উঠেছে। স্বজনপ্রীতির কারণে বিষয়টি জানার পরও সরকারি চাকরিবিধি অনুয়ায়ী জেলে থাকার সময় অভিযুক্তকে সাময়িক বরখাস্তও করা হয়নি। এ বিষয়ে বাদী পক্ষের আইনজীবী উপযুক্ত প্রমাণাদি পাঠালেও এবং বিষয়টি তৎকালীন উপাচার্য ও রেজিস্ট্রারকে জানালেও নেওয়া হয়নি ব্যবস্থা।

নারী নির্যাতনের অভিযোগের এ মামলায় এখনও ওই কর্মকর্তা চার্জশিটভুক্ত আসামি। দীর্ঘদিন ধরে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন কোনও ব্যবস্থা না নেওয়ায় সম্প্রতি বাদী বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন। অভিযোগপত্রে বিষয়টির তদন্ত সাপেক্ষ সংশ্লিষ্ট অভিযুক্ত কর্মকর্তা বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. ফারুকুজ্জামান দাড়িয়া তথ্য গোপন করায় এবং বিষয়টি জেনেও তার বিরুদ্ধে বিধি অনুয়ায়ী ব্যবস্থা না নেওয়ায় সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মাদ ফায়েক উজ্জামানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের চেয়ারম্যান বরাবর গত ১৩ এপ্রিল পাঠানো লিখিত অভিযোগে বাদী উল্লেখ করেছেন, খুলনা মহানগরীর খালিশপুরে বাস করেন তিনি। ঘটনার দিন ২০১২ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর তিনি তার অফিসে কর্মরত ছিলেন। এ অবস্থায় ওই বাড়ির নিচতলায় বসবাসরত খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী ফারুকুজ্জামান দাড়িয়া বাদীর দ্বাদশ শ্রেণিতে পড়ুয়া মেয়ের শ্লীলতাহানি করেন। এ ঘটনা জানার পর তিনি ১ অক্টোবর নারী ও শিশু নির্যতন দমন আইনের ১০ ধারা মতে খালিশপুর থানায় মামলা করেন। পরদিন ২ অক্টোবর পুলিশ ফারুকুজ্জামানকে গ্রেফতার করে ৩ অক্টোবর খুলনার আদালতে সোপর্দ করে। আদালত ওইদিনই তাকে জেলহাজতে পাঠান। ২১ দিন ফারুকুজ্জামান জেলহাজতে কাটান। পরে পুলিশ রিপোর্ট দাখিল হওয়া পর্যন্ত তিনি অন্তবর্তীকালীন জামিন পান। দীর্ঘ তদন্ত শেষে ওই মামলায় অভিযোগ প্রমাণিত হলে পুলিশ আদালতে চার্জশিট দাখিল করে এবং নারী ও শিশু নির্যতন দমন ট্রাইব্যুনালে নতুন করে মামলা হয়। ২০১৩ সালের ২৬  ফেব্রুয়ারি ওই মামলার চার্জ শুনানিতে ফারুকুজ্জামান ডিসচার্জ হতে না পারলে ওই আদেশের বিরুদ্ধে তিনি উচ্চ আদালতে কেস করেন, যা চলমান রয়েছে।

ইউজিসি চেয়ারম্যান বরাবর অভিযোগপত্রে বলা হয়েছে, ফারুকুজ্জামান ২১ দিন জেলহাজতে ছিলেন। এ সময় বিষয়টি বিশ্ববিদ্যালয়ের সংশ্লিষ্ট দফতর থেকে শুরু করে তৎকালীন উপাচার্য, রেজিস্ট্রার সবাই জানতেন। অন্তবর্তীকালীন জামিনে জেল থেকে বের হওয়ার পর তিনি ২১ দিন জেলে আটক থাকার তথ্য গোপন করেন। ভুয়া মেডিক্যাল সনদ দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে ছুটি মঞ্জুর করে বেতন-ভাতাদি নেন, যা সরকারি বিধি অনুয়ায়ী অপরাধ।

অভিযোগপত্রে আরও বলা হয়েছে, বাদী বিষয়টি তৎকালীন উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মাদ ফায়েক উজ্জামানের সঙ্গে দেখা করে সব জানিয়েছিলেন। এমনকি উপযুক্ত প্রমাণাদিসহ বাদী তার আইনজীবীর মাধ্যমে লিগ্যাল নোটিশ পাঠান। কিন্তু অজ্ঞাত কারণে তৎকালীন উপাচার্য জেলহাজতে থাকার সময় চাকরিবিধি অনুয়ায়ী ফারুকুজ্জামানকে সাময়িক বরখাস্ত করেননি। 

বিষয়টি তদন্ত করে সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান এবং আসামি নির্বাহী প্রকৌশলী ফারুকুজ্জামানের বিরুদ্ধে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান তিনি।

অভিযোগকারী জানান, ২০২১ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত উপাচার্য পদে ছিলেন প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান। এ সময় পর্যন্ত তিনি ওই ব্যাপারে ব্যবস্থা নেননি। পরে নতুন উপাচার্য দায়িত্ব নিলে স্বাভাবিকভাবে অভিযোগ তদন্ত হবে বলে আশা ছিল। কিন্তু এ পর্যন্ত কোনও ব্যবস্থা না নেওয়ায় বাদী ইউজিসির চেয়ারম্যান বরাবর লিখিত আবেদন করেছেন। 

বর্তমান রেজিস্ট্রার প্রফেসর খান গোলাম কুদ্দুস বলেন, ‘বিশ্বদ্যিালয় কর্তৃপক্ষ বিষয়টি খতিয়ে দেখছে। ইউজিসি থেকে এ বিষয়ে তথ্য জানতে চাওয়া হয়েছে। আমরা প্যানেল আইনজীবীদের মাধ্যমে বিষয়টি খতিয়ে দেখছি। এরপর ইউজিসিতে সব তথ্য পাঠানো হবে।’

এ বিষয়ে জানতে সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মাদ ফায়েক উজ্জামানের মোবাইলে একাধিকবার কল দিলেও কল রিসিভ করা হয়নি।

ইউজিসির সচিব ড. ফেরদাউস জামান বলেন, ‘এ সংক্রান্ত একটি চিঠি দুদক থেকে পেয়েছি। বিষয়টি দেখার জন্য সংশ্লিষ্ট পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখায় চিঠিটি পাঠানো হয়েছে। তারা প্রতিবেদন দিলে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।’

/আরআর/
সম্পর্কিত
খুবির দুই ছাত্রকে মারধরের প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ, শ্রমিক আটকে প্রত্যাহার
২৫ নভেম্বর খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় দিবসখুলনা বিশ্ববিদ্যালয়কে স্মার্ট হিসেবে গড়ে তোলার প্রত্যাশা
গাছে গাছে পাখিদের ‘নিরাপদ নীড়’
সর্বশেষ খবর
মুসলিমদের আবেদন খারিজ, জ্ঞানবাপী চত্বরে পূজার আদেশ এলাহাবাদ হাইকোর্টের
মুসলিমদের আবেদন খারিজ, জ্ঞানবাপী চত্বরে পূজার আদেশ এলাহাবাদ হাইকোর্টের
শবে বরাত উপলক্ষে হিলি স্থলবন্দরে আমদানি-রফতানি বন্ধ
শবে বরাত উপলক্ষে হিলি স্থলবন্দরে আমদানি-রফতানি বন্ধ
রাষ্ট্রপতির কাছে যে পরিকল্পনা তুলে ধরতে চায় দুদক
রাষ্ট্রপতির কাছে যে পরিকল্পনা তুলে ধরতে চায় দুদক
গাজায় ইসরায়েলি হামলার প্রতিবাদে নিজের শরীরে আগুন দিলেন এক মার্কিনী
গাজায় ইসরায়েলি হামলার প্রতিবাদে নিজের শরীরে আগুন দিলেন এক মার্কিনী
সর্বাধিক পঠিত
১০ রাষ্ট্রদূতকে ডেকে পাঠানোর সিদ্ধান্ত
১০ রাষ্ট্রদূতকে ডেকে পাঠানোর সিদ্ধান্ত
অভিযান চালিয়ে হাসপাতাল বন্ধে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ‘না’
অভিযান চালিয়ে হাসপাতাল বন্ধে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ‘না’
আইন অনুযায়ী ট্রান্সকমের মালিকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে চায় পুলিশ
সম্পত্তি নিয়ে বিরোধআইন অনুযায়ী ট্রান্সকমের মালিকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে চায় পুলিশ
গণিত পরীক্ষায় নিজ স্কুলের শিক্ষার্থীদের নকল সরবরাহ করায় শিক্ষক গ্রেফতার
গণিত পরীক্ষায় নিজ স্কুলের শিক্ষার্থীদের নকল সরবরাহ করায় শিক্ষক গ্রেফতার
‘শবে বরাত’ কী, এই রাতের কেন এত মর্যাদা?
‘শবে বরাত’ কী, এই রাতের কেন এত মর্যাদা?