X
শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪
১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
শান্তি সমাবেশ শেষে সংঘর্ষে নিহত

মাটিতে শুয়ে কাঁদছেন রেজাউলের মা, বলেছেন ‘আমার ছেলে রাজনীতি করতো না’

আতাউর রহমান জুয়েল, ময়মনসিংহ
২৯ জুলাই ২০২৩, ১৯:০২আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২৩, ১৯:৪১

‘আমরা খুব নিরীহ মানুষ। রাজনীতি করি না, বুঝিও না। আমার ছেলে রাজনৈতিক কোনও দলের কর্মী নয়, কখনও কোনও দলের রাজনীতিতে জড়িত ছিল না। ঢাকায় মাদ্রাসায় পড়তে গিয়েছিল। এখন শুনছি রাজনৈতিক সমাবেশে ছেলেকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। কীভাবে কী ঘটলো, কিছুই বুঝতেছি না।’

কাঁদতে কাঁদতে এভাবেই কথাগুলো বলেছেন রাজধানীর গুলিস্তানের গোলাপ শাহ মাজারের সামনে শান্তি সমাবেশ শেষে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত রেজাউল করিমের বাবা আব্দুস ছাত্তার। রেজাউল করিমের (২১) বাড়ি শেরপুরের নকলা উপজেলার নারায়ণখোলা ইউনিয়নের পশ্চিমপাড়া গ্রামে। দুই ভাই ও তিন বোনের মধ্যে রেজাউল বড় ছিলেন। রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর এক মাদ্রাসায় লেখাপড়া করতেন। 

শনিবার (২৯ জুলাই) সকালে স্থানীয় ইউপি সদস্যের মাধ্যমে ছেলের মৃত্যুর খবর পান আব্দুস ছাত্তার। তখনই কান্নায় ভেঙে পড়েন। মাটিতে শুয়ে আহাজারি করতে করতে রেজাউলের মা রেনু বেগম বলছিলেন, আমার ছেলে কোনও রাজনীতি করতো না। তোমরা আমার বাবাকে এনে দাও।

আব্দুস ছাত্তার বলেন, ‘গত বছর ময়মনসিংহের জামিয়া ফয়জুর রহমান মাদ্রাসা থেকে হাফেজি শেষ করে যাত্রাবাড়ীর মাদ্রাসায় পড়তে গিয়েছিল। অনেক কষ্ট করে ছেলেকে পড়াশোনা করাচ্ছিলাম। স্বপ্ন ছিল পড়াশোনা শেষ করে সংসারের হাল ধরবে। আমার সেই স্বপ্ন শেষ হয়ে গেলো’ বলে কেঁদে ফেলেন ছাত্তার। 

তিনি বলেন, ‘ছেলে কখনও কোনও দলের রাজনীতি করেনি। এমনকি কোনও দলের সঙ্গে সম্পর্কও ছিল না। শুক্রবার সমাবেশ চলাকালে কীভাবে মাদ্রাসা থেকে গোলাপ শাহ মাজারে গেলো, কেন গেলো, কিছুই জানি না। তবে এখনও ছেলের লাশ বাড়ি এসে পৌঁছায়নি। লাশ এলে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করে দেবো। আমরা গরিব মানুষ। কৃষিকাজ করে সংসার চালাই। মামলা কিংবা আদালতে যেতে পারবো না। শুধু ছেলে হত্যার বিচার চাই।’ 

কাঁদছেন রেজাউল করিমের বাবা আব্দুস ছাত্তার

নারায়ণখোলা ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য (মেম্বার) সোহেল রানা বলেন, ‘শনিবার সকাল ১০টার দিকে নকলা থানা পুলিশের কাছ থেকে রেজাউলের মৃত্যুর খবর পেয়ে পরিবারকে জানাই।’

তিনি বলেন, ‘হাফেজ রেজাউল দরিদ্র পরিবারের সন্তান। বাবা কৃষিকাজ করে সংসার চালান। কোনও রাজনৈতিক দলের সঙ্গে তার কিংবা পরিবারের সংশ্লিষ্টতা নেই। যাত্রাবাড়ীর এক মাদ্রাসার দাওরায়ে হাদিস বিভাগের ছাত্র ছিলেন। এর আগে ময়মনসিংহের জামিয়া ফয়জুর রহমান মাদ্রাসা থেকে হাফেজি শেষ করেছেন। সংসারের বড় ছেলে হওয়ায় তার মৃত্যুতে পরিবারটি নিঃস্ব হয়ে গেলো।’

নকলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রিয়াদ মাহমুদ বলেন, ‘ঢাকা থেকে রেজাউল করিমের মৃত্যুর খবর আমাদের জানানো হয়েছে। আমরা তার স্বজনদের খবর দিয়েছি। তবে এখনও লাশ বাড়ি এসে পৌঁছায়নি। আইনি প্রক্রিয়া শেষে লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হবে।’

প্রসঙ্গত, শুক্রবার বিকালে যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগ আয়োজিত শান্তি সমাবেশ শেষে গুলিস্তানের গোলাপ শাহ মাজারের সামনে দুই পক্ষের সংঘর্ষ হয়। এতে রেজাউল নিহত ও চার জন আহত হন।

/এএম/এমওএফ/
সম্পর্কিত
গাজায় বেড়েছে ইসরায়েলি হামলার তীব্রতা, ২৪ ঘণ্টায় নিহত ৬০
খারকিভে রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় নিহত ৭
ভিয়েতনামে অগ্নিকাণ্ডে নিহত ১৪
সর্বশেষ খবর
চ্যাম্পিয়ন কিংসকে আটকে এবার রহমতগঞ্জের চমক
চ্যাম্পিয়ন কিংসকে আটকে এবার রহমতগঞ্জের চমক
এবার কি মন্ত্রিত্ব পেতে যাচ্ছেন ব্রিটিশ বাংলাদেশিরা?
এবার কি মন্ত্রিত্ব পেতে যাচ্ছেন ব্রিটিশ বাংলাদেশিরা?
দুধে পানি মেশানো হয়েছে বুঝবেন কীভাবে?
দুধে পানি মেশানো হয়েছে বুঝবেন কীভাবে?
বরখাস্ত হলেন জাভি
বরখাস্ত হলেন জাভি
সর্বাধিক পঠিত
নেপথ্যে ২০০ কোটি টাকার লেনদেন, সিলিস্তাকে দিয়ে হানি ট্র্যাপ
এমপি আজীম হত্যাকাণ্ডনেপথ্যে ২০০ কোটি টাকার লেনদেন, সিলিস্তাকে দিয়ে হানি ট্র্যাপ
শনিবার রাজধানীর যেসব সড়ক অর্ধবেলা বন্ধ থাকবে
শনিবার রাজধানীর যেসব সড়ক অর্ধবেলা বন্ধ থাকবে
পূর্ব তিমুরের মতো খ্রিষ্টান দেশ বানানোর চক্রান্ত চলছে: শেখ হাসিনা
পূর্ব তিমুরের মতো খ্রিষ্টান দেশ বানানোর চক্রান্ত চলছে: শেখ হাসিনা
বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীদের নিয়ে নতুন ষড়যন্ত্র?
বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীদের নিয়ে নতুন ষড়যন্ত্র?
সাবেক আইজিপি বেনজীরের সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ
সাবেক আইজিপি বেনজীরের সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ