X
শনিবার, ২৫ মে ২০২৪
১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

২৭ বছর পর বাড়ি ফিরলেন শাহীদা, পূরণ হয়নি যে আশা

জামালপুর প্রতিনিধি
১৬ এপ্রিল ২০২৪, ০৩:০২আপডেট : ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ০৩:০২

লাকড়ি কুড়াতে গিয়ে মাত্র আট বছর বয়সে ঢাকায় হারিয়ে যান শাহীদা আক্তার। অনেক খুঁজেও মেয়ের সন্ধান পাননি জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলার দিকপাড়া গ্রামের ইব্রাহিম খলিল ও ছাবেদা বেগম দম্পতি। দীর্ঘ ২৭ বছর পর শাহীদা ঠিকই ফিরে এসেছেন জন্মভিটায়। কিন্তু তত দিনে সন্তানশোকে কেঁদে কেঁদে বিদায় নিয়েছেন দরিদ্র মা-বাবা। তাই বড় বোনকে জড়িয়ে ধরেই কাঁদলেন অঝোরে।

রবিবার (১৪ এপ্রিল) সন্ধ্যায় যখন বাড়িতে আসেন শাহীদা, তখন বড় বোন খালেদা বেগমের চোখ দিয়ে পড়তে শুরু করে পানি। একে অপরকে দেখে পরম মমতায় জড়িয়ে ধরে কাঁদেন গননবিদারী কান্না। মুহূর্তেই পরিবেশ হয়ে ওঠে আবেগঘন। কাঁদতে থাকেন আশপাশের মানুষও।

শাহীদা আক্তারের মা-বাবা মারা গেছেন বছর চারেক আগে। বর্তমানে শাহীদা বড় বোন খালেদার বাড়িতেই উঠেছেন।

পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ইব্রাহিম খলিল ও ছাবেদা বেগম দম্পতির অভাব-অনটনের সংসার ছিল। গ্রামে তেমন কোনও কাজকর্ম ছিল না। তাই ১৯৯৭ সালে সন্তানদের নিয়ে চলে যান রাজধানী ঢাকার উত্তরায়। সেখানে ছোট খুপরিতে বসবাস শুরু করেন। তার বাবা রিকশা চালাতেন।

কয়েক দিন পর ছোট্ট শাহীদা বাসা থেকে বের হন লাকড়ি কুড়াতে। কিন্তু দিন গড়িয়ে গেলেও শাহীদা বাসায় ফিরে আসেননি। তার মা-বাবা অনেক খোঁজাখুঁজি করেও কোথাও তার সন্ধান পাননি। নিখোঁজ হওয়ার পর কীভাবে যেন শাহীদা চলে যান চট্টগ্রামে। সেখানে এক বাড়িতে গৃহকর্মীর কাজ নেন। একসময় গৃহকর্তারা শাহীদাকে গাজীপুরে সেলিম মিয়া নামের এক ব্যক্তির সঙ্গে বিয়ে দেন।

পরবর্তী ঘটনা জানতে চাইলে শাহীদা আক্তার বলেন, ‘আমি জীবনেও কল্পনা করিনি নিজের গ্রামে ফিরতে পারবো। আমার ভাই-বোনদের সঙ্গে দেখা করতে পারবো। প্রায় সময় বাবা-মা ও পরিবারের কথা মনে পড়তো। কিন্তু ছোটবেলার তেমন কিছুই মনে পড়তো না। সম্প্রতি আমার মেয়ে নানা-নানির কথা জানতে চাইল। মেয়ের নানা রকম জিজ্ঞাসায় হঠাৎ বকশীগঞ্জের দিকপাড়া নামটি মনে পড়ে গেল। তখন থেকে দিকপাড়া গ্রাম খুঁজতে থাকি। মা-বাবাকেও দেখার জন্য মন ব্যাকুল হয়ে ওঠে। তাই এই গ্রামে চলে আসি।

নিজের পরিবার ও বাড়ি ঠিকই খুঁজে পেলাম। কিন্তু আমার পূরণ হলো না মনের আশা। কারণ তারা মারা গেছেন। বোন ও ভাইসহ পরিবারের অন্য সবাইকে পেয়েছি কিন্তু মা-বাবা বলে ডাকতে না পারার কষ্ট থেকেই গেল বলেই কেঁদে ওঠেন শাহীদা।

হারিয়ে যাওয়া বোনকে ফিরে পেয়ে আবেগাপ্লুত বড় বোন খালেদা বেগম বলেন, ‘বাবা-মার সঙ্গে আমরা সবাই ঢাকায় চলে গিয়েছিলাম। ঢাকায় যাওয়ার কয়েক দিনের মধ্যে শাহীদা হারিয়ে যায়। তারপর তার আর কোনও সন্ধান পাইনি। তাকে ফিরে পাবো কখনও চিন্তাও করিনাই। এতগুলো বছর পর বোনকে পেয়ে আজ ঈদের আনন্দ মনে হচ্ছে।’

প্রায় ২৭ বছর পর পরিবার তাদের সদস্যকেকে ফিরে পেয়েছে, এমন ঘটনায় গ্রামের সবাইও আনন্দিত। আর এই খবর ছড়িয়ে গেছে যতদূর, তত দূর থেকে শাহীদাকে এক পলক দেখতে তাদের বাড়িতে ভিড় করেন মানুষ।

/এনএআর/
সম্পর্কিত
গায়ে হলুদ শেষে নদীতে গোসলে নেমে বর নিখোঁজ
‘নিখোঁজ’ এমপি আনোয়ারুলের সর্বশেষ অবস্থান ভারতের মুজাফফরাবাদ: ডিবি
ভারতে গিয়ে এমপি আনোয়ারুল আজীম ‘নিখোঁজ’
সর্বশেষ খবর
ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নেওয়ার অপেক্ষায় নিম্নচাপ, সতর্ক মোংলা বন্দর
ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নেওয়ার অপেক্ষায় নিম্নচাপ, সতর্ক মোংলা বন্দর
পালিয়ে যাওয়া রোহিঙ্গাদের সুরক্ষা দেওয়ার আহ্বান জাতিসংঘের
পালিয়ে যাওয়া রোহিঙ্গাদের সুরক্ষা দেওয়ার আহ্বান জাতিসংঘের
কোন সেই সাদা চামড়া, বলতে হবে: মান্না
কোন সেই সাদা চামড়া, বলতে হবে: মান্না
স্বেচ্ছাসেবক লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক খায়রুল হাসান জুয়েল
স্বেচ্ছাসেবক লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক খায়রুল হাসান জুয়েল
সর্বাধিক পঠিত
শ্যালকের বিয়েতে গিয়ে দুলাভাইয়ের কারাদণ্ড
শ্যালকের বিয়েতে গিয়ে দুলাভাইয়ের কারাদণ্ড
এমপি আজীমকে হত্যার পর হেরোইন ও মদ খেয়ে উল্লাস করে খুনিরা
এমপি আজীমকে হত্যার পর হেরোইন ও মদ খেয়ে উল্লাস করে খুনিরা
ওজন কমাতে চাইছেন? সকালের নাস্তায় খান চিয়া সিডের তৈরি এই পদ
ওজন কমাতে চাইছেন? সকালের নাস্তায় খান চিয়া সিডের তৈরি এই পদ
এমপি আনার হত্যায় অংশ নেওয়া এই ট্রাকচালক কে?
এমপি আনার হত্যায় অংশ নেওয়া এই ট্রাকচালক কে?
‘তুফান’র গানে প্রীতম, আছেন পর্দায়ও!
‘তুফান’র গানে প্রীতম, আছেন পর্দায়ও!