এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেওয়া হলো না লামিয়ার

Send
বরগুনা প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ২১:৫৯, জানুয়ারি ২৫, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:১৪, জানুয়ারি ২৫, ২০২০

 

নিহত লামিয়া

‘তোমরা আমার মাইয়াডারে আইন্না দাও, আমি অরে ছাড়া বাড়ি যামু না, আমার মাইয়াডায় রাইত জাইগা পড়ছে এবার মেট্রিক পরিক্ষা দিবে। এহন কে পরীক্ষা দিবে? অর বাপেরে আমি কি কমু’—আমতলী থানা প্রাঙ্গণে এভাবেই বিলাপ করতে করতে জ্ঞান হারাচ্ছিলেন বাস চাপায় নিহত এসএসসি পরীক্ষার্থী লামিয়ার মা মিনারা বেগম। শনিবার (২৫ জানুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টায় বরগুনার আমতলীতে পটুয়াখালী-কুয়াকাটা মহাসড়কের চৌরাস্তা এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় মা-ছেলেসহ একই পরিবারের তিনজন নিহত হয়।

নিহত লামিয়া (১৫) আমতলী উপজেলার হলুদিয়া ইউনিয়নের দক্ষিণ কাঠালিয়া গ্রামের প্রবাসী জসিমের একমাত্র মেয়ে। তার এ বছর তাজেম আলী মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার কথা ছিল। একমাত্র মেয়ে লামিয়া, বোনের ছেলে হাসিব ও বোন নুপুরকে হারিয়ে বাকরুদ্ধ হয়ে গেছেন মিনারা বেগম।

নিহত লামিয়ার খালু রায়হান বলেন, লামিয়া মেধাবী ছাত্রী ছিলো। আগামী ৩ ফেব্রুয়ারি আমতলী উপজেলার তাজেম আলী মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার কথা ছিল। তার খালার সঙ্গে আমতলী পৌর শহরে এসেছিল কেনাকাটা করতে।

স্থানীয় ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, পটুয়াখালী থেকে ছেড়ে আসা মায়ের দোয়া পরিবহনের বাসটি (পটুয়াখালী জ-১১-০০১০) পটুয়াখালী-কুয়াকাটা মহাসড়কের আমতলী একে স্কুলের স্পিড ব্রেকারের নিকট এসে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে। পরে বাসটি একটি মাইক্রোবাসকে ধাক্কা দেয়। এরপরে বাসটির চালক চলন্ত গাড়ি রেখে পালিয়ে যায়। বাসটি চলন্ত অবস্থায় প্রথমে দুইটি অটোরিকশা চাপা দেয়। বাসের চাপায় দুটি অটো দুমড়ে-মুড়চে যায়। এরপরে বাসটি সামনে চলতে থাকে। দ্রুত গতিতে চালকহীন বাসটি সাত পথচারীকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে একই পরিবারের তিনজন নুপুর বেগম (৩০), তার ছেলে হাসিন (১০) ও বড় বোনের মেয়ে এসএসসি পরীক্ষার্থী লামিয়া (১৫) নিহত হয়। এসময় নিহত নুপুরের ছোট মেয়ে মমতা (৬), শাহাবুদ্দিন (৫৬) ও গ্রাম্য চিকিৎসক জব্বার (৪০) আহত হয়।

আমতলী সার্কেল এএসপি সৈয়দ রবিউল ইসলাম ও আমতলী থানার ওসি  আবুল বাশার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। ওসি জানান, পুলিশ তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে। ঘাতক বাসটিকে আটক করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

/এমআর/

লাইভ

টপ