শরীয়তপুরে জ্বরে এক নারীর মৃত্যু, নমুনা আইইডিসিআরে

Send
শরীয়তপুর প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ০০:০৭, এপ্রিল ০৫, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০০:১৯, এপ্রিল ০৫, ২০২০

শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে জ্বর ও মাথাব্যথা নিয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। মৃত ওই নারীর বাড়ি শরীয়তপুর সদর উপজেলার চন্দ্রপুর ইউনিয়নের রায়পুর গ্রামে। মৃত নারী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত কিনা নিশ্চিত হতে নমুনা সংগ্রহের প্রস্তুতিকালে মরদেহ নিয়ে পালিয়ে যায় স্বজনরা। তবে পরবর্তীকালে তার বাড়িতে গিয়ে নমুনা সংগ্রহ করে আইইডিসিআরে প্রেরণ করে স্বাস্থ্য বিভাগ।

সদর হাসপাতাল সূত্র জানায়, শনিবার সকাল ৯টায় জ্বর ও মাথাব্যথা নিয়ে ৩৫ বছর বয়সী ওই রোগীকে হাসপাতালের নিয়ে আসেন তার স্বজনরা। তাকে সাময়িক চিকিৎসা দিয়ে ভর্তি করা হয়। ওয়ার্ডে নেয়ার কিছু সময় পর তার (স্নায়ু) পালস না পেয়ে সেবিকারা ডাক্তারকে জানায়। কর্তব্যরত চিকিৎসক পরীক্ষার পর সকাল বেলা ১১ টার দিকে তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ওই নারী করোনা ভাইরাস আক্রান্ত কিনা বিষয়টি নিশ্চিত হতে কর্তৃপক্ষ নমুনা সংগ্রহের সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করে। এরই মধ্যে স্বজনরা নমুনা সংগ্রহ করতে না দিয়ে মৃতদেহ নিয়ে বাড়িতে চলে যায়। পরে জেলা প্রশাসকের নির্দেশে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা পুলিশ সহকারে মৃত নারীর বাড়িতে যান এবং নমুনা সংগ্রহ করে নিয়ে আসেন।

শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাঃ মুনীর আহমেদ বলেন, এই এলাকা একটি প্রবাসী অধ্যুষিত এলাকা হওয়ায় এবং রোগীর জ্বর ও মাথাব্যথা থাকায় সন্দেহ এড়াতেই মৃত নারীর নমুনা সংগ্রহের নির্দেশনা দেওয়া হয়। তারা কাউকে না জানিয়ে মরদেহ নিয়ে বাড়ি চলে গেলে আমাদের চিকিৎসক ও কর্মীরা গিয়ে নমুনা সংগ্রহ করে নিয়ে আসেন। নমুনা আইইডিসিআরে পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট পেলে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যাবে।

শরীয়তপুরের সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাহবুর রহমান শেখ  বলেন, জেলা প্রশাসকের নির্দেশে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আব্দুস সোবহান এবং পালং থানার ওসি আসলাম উদ্দীনকে নিয়ে আমরা তার বাড়ি যাই। আমরা ওই মৃত ব্যক্তির বাড়ি থেকে নমুনা সংগ্রহ করে আইইডিআরে পাঠিয়েছি এবং নমুনার ফলাফল না আসা পর্যন্ত ওই পরিবারসহ আশপাশের বাড়িগুলোকে পুরোপুরি হোম কোয়ারেন্টাইন মেনে চলার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

 

/এফএএন/

লাইভ

টপ